Logo
আজঃ Monday ০৮ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড নিখোঁজ সংবাদ প্রধানমন্ত্রীর এপিএসের আত্মীয় পরিচয়ে বদলীর নামে ঘুষ বানিজ্য

রাশিয়ার ৩১ হাজারের বেশি সেনা নিহত: ইউক্রেন

প্রকাশিত:Monday ০৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ১৩৬জন দেখেছেন
Image

ইউক্রেনের সামরিক বাহিনী জানিয়েছে, রাশিয়া এখন পর্যন্ত ৩১ হাজার ২৫০ জন সেনা সদস্য হারিয়েছে। গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে হামলা চালায় রাশিয়া। তারপর থেকে এখন পর্যন্ত ৩১ হাজারের বেশি রুশ সেনা নিহত হয়েছে বলে ইউক্রেনের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে। খবর আল জাজিরার।

ইউক্রেনের সামরিক বাহিনী আরও জানিয়েছে যে, এই যুদ্ধে এখন পর্যন্ত ১ হাজার ৩৮৬টি ট্যাঙ্ক, ৩ হাজার ৪শ সামরিক যান, ৬৯০ আর্টিলারি সিস্টেম, ২০৯টি একাধিক ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা, ৫৫১টি ক্ষেপণাস্ত্র, ৯৬টি বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা, ২১১টি যুদ্ধবিমান, ১৭৬টি হেলিকপ্টার এবং ১৩টি জাহাজ ও বেশ কিছু নৌকা হারিয়েছে মস্কো।

এদিকে গত ৪ জুন ইউক্রেন দাবি করে যে, লুহানস্ক অঞ্চলের যে শহরটি ঘিরে গত কয়েকদিন ধরে তীব্র লড়াই চলছে, সেখানে রুশ বাহিনীর কাছ থেকে তারা কিছু এলাকা পুনর্দখল করেছে।

ইউক্রেন যাতে সেখানে বাড়তি সৈন্য এবং রসদ পাঠাতে না পারে সেজন্যে রুশ বাহিনী সেভেরোদোনেৎস্ক শহরের পশ্চিমে একটি নদীর ওপর সেতুগুলো ধ্বংস করে দিচ্ছে বলেও জানিয়েছেন একজন ইউক্রেনীয় কর্মকর্তা।

অপরদিকে রাশিয়া দাবি করছে, তারা অস্ত্র এবং গোলাবারুদসহ একটি একটি ইউক্রেনীয় বিমান ভূপাতিত করেছে।

কয়েকদিন ধরেই সেভেরোদোনেৎস্কের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে তীব্র লড়াই চলছে। শহরটির প্রায় ৭০ শতাংশই রুশরা দখল করে নিয়েছে। ইউক্রেনীয় সৈন্যরা সেখান থেকে পিছু হটতে পারে, এমন ইঙ্গিতও দেওয়া হচ্ছিল।

কিন্তু ইউক্রেনের লুহানস্ক প্রদেশের গভর্নর এখন দাবি করছেন, রুশদের বিরুদ্ধে লড়াই করে তারা এখন শহরটির এক পঞ্চমাংশ পুনর্দখল করেছেন।

গভর্নর সেরহি হাইদাই বলছেন, সেখানে যাতে আরও ইউক্রেনীয় সৈন্য এবং রসদ পাঠানো না যায়, সেজন্যে রুশরা সেভেরোদোনেৎস্কের পশ্চিমে একটি নদীর ওপর ব্রিজগুলো উড়িয়ে দিচ্ছে। তিনি বলেন, ইউক্রেন সেখানে যে প্রতিরোধ গড়ে তুলেছে, তাতে রুশরা ভীত।

এর মধ্যে রাশিয়া দাবি করছে, তারা ইউক্রেনের একটি সামরিক বিমানে আক্রমণ চালিয়ে সেটি ধ্বংস করেছে। রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলছে, ওই বিমানে অস্ত্র ও গোলাবারুদ বহন করা হচ্ছিল, ওডেসা বন্দরের কাছে এটি ভূপাতিত করা হয়।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ইগর কোনাশেনকভ বলেন, তারা ইউক্রেনীয়দের বেশ কিছু লক্ষ্যে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে।


আরও খবর



বাগেরহাটের ষাট গম্বুজ মসজিদ ভ্রমণে আরও যা দেখবেন

প্রকাশিত:Thursday ০৪ August ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ১২জন দেখেছেন
Image

রুবেল মিয়া নাহিদ

শ্রাবণের আকাশজুড়ে ঘুরে বেড়ায় মেঘের দল। আপন খেয়ালে তারা ঝরে পড়ে বৃষ্টি হয়ে। সে বৃষ্টি কখনো ক্ষণিকের তরে, কখনো হয় মুষলধারে। এরপর রং বদলায় আকাশ। বাদলের ঝাপটা শেষে উঁকি দেয় রোদ্দুর। তার মধ্যেই বাসে দু’জন রওনা হলাম।

সকাল ৮টার দিকে আমরা বাগেরহাট স্টেশনে এসে নামলাম। সঙ্গে এক ছোট ভাইয়ের যুক্ত হওয়ার কথা। তার আসতে দেরি হওয়ায় আশপাশের এলাকা একটু ঘুরে দেখার সুযোগ পেলাম।

jagonews24

যাই হোক নাস্তা শেষ করে দ্রুত রওনা হলাম। গন্তব্য খান জাহান আলীর ষাট গম্বুজ মসজিদ। রাফি আমাদের গাইড। আমরা ষাট গম্বুজ মসজিদ এর পাশের বড় রাস্তায় নেমে তো আবাক! সত্যিই তাহলে ষাট গম্বুজ মসজিদ এর দেখা পেলাম!

টিকিট কেটে মসজিদ প্রাঙ্গনে ঢুকতেই চোখ পড়লো দুটো রাস্তা। বাম দিকে বিশাল মসজিদ আর ডানদিকে জাদুঘর। ষাট গম্বুজ মসজিদ বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলীয় জেলা বাগেরহাটে অবস্থিত। ১৫ শতকের দিকে খান জাহান আলী নামের প্রখ্যাত সুফি দরবেশ এ মসজিদটি নির্মাণ করেন।

jagonews24

প্রত্নস্থলটিকে ইউনেস্কো বিশ্ব ঐতিহ্য কেন্দ্র হিসেবে ঘোষণা করেছে। মসজিদটিতে ৮১টি গম্বুজ আছে। তাহলে এটি কেন ষাট গম্বুজ মসজিদ নামে পরিচিত? এর নির্ভরযোগ্য কোনো ব্যাখ্যা আজও পাওয়া যায় না। এ মসজিদটি ছাড়াও এর আশপাশে আরও বেশ কিছু ঐতিহাসিক নিদর্শন আছে।

মসজিদের ঠিক পশ্চিমে সুবিশাল দিঘি ও পীর খান জাহান আলীর সমাধি উল্লেখযোগ্য। দেশের অন্যতম একটি পর্যটনকেন্দ্র হিসেবে বাগেরহাটের ষাট গম্বুজ মসজিদ খুব প্রসিদ্ধ। সারাবছরই সেখানে পর্যটকদের আনাগোনা চোখে পড়ার মতো।

jagonews24

প্রাচীন ইমারতের চোখধাঁধানো নির্মাণশৈলী আমাদের যারপরনাই বিস্মিত করে তোলে। মসজিদের উত্তর-দক্ষিণে বাইরের দিকে প্রায় ১৬০ ফুট ও ভেতরের দিকে প্রায় ১৪৩ ফুট লম্বা। পূর্ব-পশ্চিমে বাইরের দিকে প্রায় ১০৪ ফুট ও ভেতরের দিকে প্রায় ৮৮ ফুট চওড়া।

জনশ্রুতি আছে, হজরত খানজাহান আলী (রা:) ষাট গম্বুজ মসজিদ নির্মাণের জন্য সমুদয় পাথর সুদূর চট্টগ্রাম, মতান্তরে ভারতের ওডিশার রাজমহল থেকে তার অলৌকিক ক্ষমতাবলে জলপথে ভাসিয়ে এনেছিলেন। ইমারতটির গঠনবৈচিত্র্যে তুঘলক স্থাপত্যের বিশেষ প্রভাব পরিলক্ষিত হয়।

jagonews24

এ বিশাল মসজিদের চারদিকের প্রাচীর ৮ ফুট চওড়া, এর চারকোণে ৪টি মিনার আছে। দক্ষিণ দিকের মিনারের শীর্ষে কুঠিরের নাম রোশনাই কুঠির। এ মিনারে ওপরে ওঠার সিঁড়ি আছে। মসজিদটি ছোট ছোট ইট দিয়ে তৈরি।
মসজিদের দৈর্ঘ্য ১৬০ ফুট, প্রস্থ ১০৮ ফুট ও উচ্চতা ২২ ফুট। মসজিদের সামনের দিকের মাঝখানে একটি বড় খিলান ও এর দু’পাশে পাঁচটি করে ছোট খিলান আছে। পশ্চিম দিকে প্রধান মেহরাবের পাশে একটি দরজাসহ ২৬টি দরজা আছে।

মসজিদ দর্শনীয় স্থানে রূপান্তরিত হওয়ায় সামনের আঙিনাকে সাজিয়ে তোলা হয়েছে বাহারি ফুল গাছের সমারোহে। এসব গাছের নানা রকম ফুলও দূরদূরান্ত থেকে আসা পর্যটকদের মনে দোলা দিতে থাকে।ষা ট গম্বুজের পশ্চিম দিকে বিরাট একটি দিঘিও আছে।

jagonews24

ষাট গম্বুজ মসজিদের ঘুরে আমরা অটো-রিকশা ভাড়া করে খান জাহান আলীর মাজার শরীফ দেখতে গেলাম। এই স্থানে মানুষের ভীড় একটু বেশিই থাকে সব সময়। দালানগুলোর যত্নআত্তিও বেশি। অনেক ফকির-সন্ন্যাসীর দেখা মেলে সেখানে গেলে। খাবারের দোকান থেকে শুরু করে বিভিন্ন উপহার সামগ্রীর দোকান পাবেন সেখানে।

মাজারের ঠিক সামনেই বিশাল আরেকটা দীঘি উৎসুক লোকজন দীঘির পাড়ে ভিড় করছে। আমরাও বিষয়টি দেখতে গেলাম। জানতে পারলাম কুমির পাড়ে উঠেছে। দীঘিতে কুমির আছে তাহলে।

jagonews24

কুমির দেখা শেষে আমরা দুপুরের খাওয়া-দাওয়া সারলাম চিংড়ি মাছ দিয়ে। তারপর বাগেরহাট থেকে মোংলায় গিয়ে সেখান থেকে মোটরচালিত নৌকায় চড়ে সুন্দরবনে ঘুরে দেখার পথে।

কীভাবে যাবেন?

ঢাকার গুলিস্তান থেকে সরাসরি বাস আছে বাগেরহাটে যাওয়ার। আবার মুন্সিগঞ্জের মাওয়া থেকে লঞ্চ বা ফেরিতে পদ্মা নদী পার হয়ে কাঁঠালবাড়ি থেকে বাসে সরাসরি বাগেরহাটে যেতে পারেন। এই সড়কটাও চমৎকার।

jagonews24

গাবতলী থেকেও বাগেরহাটে যাওয়ার বাস ছাড়ে। যারা সময় নিয়ে যাবেন, তারা বাগেরহাট থেকে মোংলায় গিয়ে সেখান থেকে মোটরচালিত নৌকায় চড়ে সুন্দরবনে ঘুরে আসতে পারেন।

কোথায় থাকবেন?

বাগেরহাট শহরে এসি ও নন এসি বিভিন্ন মানের হোটেল আছে। সরকারি গেস্ট হাউস আছে সেখানে। হাইওয়েতেও বেশ কিছু হোটেল আছে। বাগেরহাট শহর থেকে খুলনা মাত্র এক ঘণ্টার পথ। চাইলে খুলনা গিয়েও থাকতে পারেন।


আরও খবর



ছাত্রীর তথ্যের গড়মিলে দোষী শনাক্তে বিলম্ব: চবি প্রক্টর

প্রকাশিত:Monday ২৫ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ০৫ August ২০২২ | ২৫জন দেখেছেন
Image

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) হেনস্তার শিকার ছাত্রী প্রথমে ভুল তথ্য দিয়েছেন। যার কারণে দোষী শনাক্তে বিলম্ব হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভূঁইয়া।

সোমবার (২৫ জুলাই) বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য দপ্তরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা জানান।

তিনি বলেন, ‘ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী তার অভিযোগে প্রথমে বলেছিলেন প্রীতিলতা হলের পাশ থেকে অভিযুক্তরা তাকে আড়ালে নিয়ে যায়। কিন্তু তদন্ত চলাকালে তিনি জানিয়েছেন, ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের পেছনের গলি বা ছোট রাস্তার পাশে ফাঁকা জায়গায় বন্ধুসহ বসে ছিল। পরে সেখানে গিয়ে অভিযুক্তরা তাদের মারধর ও ভিডিও ধারণ করে।’

প্রক্টর আরও বলেন, ‘সরেজমিনে দেখা যায়, প্রীতিলতা হল থেকে বোটানিক্যাল গার্ডেনের দিকে মিনিট পাঁচেক হাঁটলেই ফজিলাতুন্নেছা হল। তার পেছনে ছোট একটি পাহাড়ি রাস্তা ও জঙ্গলের পর ওই ফাঁকা জায়গার অবস্থান।’

ড. রবিউল হাসান বলেন, ‘ঘটনাস্থল মূল রাস্তা থেকে ভেতরে হওয়ায় সেখানে স্বাভাবিকভাবেই কোনো সিসিটিভি ক্যামেরা নেই। ফলে আমাদের কিছুটা দূরের প্রীতিলতার হলের দুপাশের রাস্তায় থাকা ক্যামেরার ফুটেজ পরীক্ষা করতে হচ্ছে। ভুক্তভোগীর স্টেটমেন্ট ভুল হওয়ায় আমরা প্রথমে সিসিটিভি ফুটেজের সঙ্গে মেলাতে পারিনি। এজন্য দোষী ব্যক্তিদের শনাক্ত করতেও দেরি হয়েছে।’

রোববার (১৭ জুলাই) বন্ধুর সঙ্গে হাঁটতে বেরিয়ে যৌন হেনস্তার শিকার হন চবির এক ছাত্রী। ওই সময় তার বন্ধুকেও মারধর করা হয়। রাত ১০টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রীতিলতা হল থেকে বোটানিক্যাল গার্ডেনে যাওয়ার রাস্তায় এ ঘটনা ঘটে।


আরও খবর



করোনা আক্রান্ত প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী

প্রকাশিত:Sunday ২৪ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ০৫ August ২০২২ | ২৩জন দেখেছেন
Image

তৃতীয়বারের মতো করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ।

রোববার (২৪ জুলাই) মন্ত্রীর সহকারী একান্ত সচিব (এপিএস) মোহাম্মদ রাশেদুজ্জামান গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, শনিবার রাতে প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রীর কোভিড-১৯ পরীক্ষার ফল পজিটিভ আসে। বর্তমানে তিনি বাসায় অবস্থান করছেন এবং বাসা থেকেই চিকিৎসা নিচ্ছেন।

মন্ত্রী দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন বলেও জানান তার একান্ত সচিব রাশেদুজ্জামান।

২০২০ সালের নভেম্বরে প্রথমবার সস্ত্রীক করোনায় আক্রান্ত হন প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী। গত বছর দ্বিতীয়বার করোনায় আক্রান্ত হন তিনি।


আরও খবর



ফাঁদে ফেলে আপত্তিকর ছবি তুলে টাকা হাতিয়ে নিতেন তারা

প্রকাশিত:Friday ২২ July 20২২ | হালনাগাদ:Wednesday ০৩ August ২০২২ | ২৪জন দেখেছেন
Image

রাজধানীর সবুজবাগ এলাকায় অভিযান চালিয়ে নিরীহ মানুষদের ফাঁদে ফেলে টাকা আদায় করা চক্রের পাঁচ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা (গুলশান) বিভাগ। গত নয় বছর ধরে এ চক্রটি ঢাকায় নারী সদস্যদের দিয়ে প্রেমের সম্পর্কের জের ধরে নিরীহ মানুষদের ফাঁদে ফেলতো।

শুক্রবার (২২ জুলাই) বিকেলে জাগো নিউজকে এসব তথ্য জানান গোয়েন্দা গুলশান বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) মশিউর রহমান।

তিনি বলেন, চক্রের সদস্যদের ভাড়া করা বাসা-বাড়িতে নিয়ে নিরীহ মানুষদের আটক রেখে ভয়-ভীতি দেখিয়ে চাঁদা দাবি করা হতো। আর দাবি করা টাকা দিতে অস্বীকার করলে চক্রের নারী সদস্যদের সঙ্গে নিরীহ ভিকটিমের আপত্তিকর ছবি তুলে ভয় দেখিয়ে তাদের আত্মীয়-স্বজনের কাছ থেকে বিকাশের মাধ্যমে টাকা আদায় করতো চক্রটি।

ডিসি মশিউর রহমান বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গোয়েন্দা গুলশান বিভাগের এডিসি মো. কামরুজ্জামান সরদারের তত্ত্বাবধানে অভিযান পরিচালনা করা হয়। সহকারী পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ খলিলুর রহমানের নেতৃত্বে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার ও মাদক নিয়ন্ত্রণ টিমের একটি দল রাজধানীর সবুজবাগ থানাধীন নন্দীপাড়া দক্ষিণগাঁও এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে তাদের গ্রেফতার করে।

গ্রেফতাররা হলেন- মো. সাইফুল ইসলাম (৩২), মো. সজল তালুকদার (৩১), মোছা. বিথী আক্তার (২৭), মো. শফিকুল ইসলাম শান্ত (৩৫) ও ইভা (৩২)। এ সময় তাদের কাছ থেকে ৯০ হাজার টাকা, অপরাধের কাজে ব্যবহৃত রশি-লাঠি, ১২টি মোবাইল ফোন ও ১০টি সিম জব্দ করা হয়।

গ্রেফতার মো. সাইফুল ইসলামের বিরুদ্ধে আরও সাতটি ও মোছা. বিথী আক্তারের বিরুদ্ধে ৩টি মামলা রয়েছে। সাইফুলের অন্য স্ত্রী আছে। প্রতারণার ব্যবসা চালানোর জন্যই সাইফুল ও বীথি আক্তার স্বামী-স্ত্রীর মতো একসঙ্গে থাকতো।

এর আগে, আটক রেখে ভয়-ভীতি দেখিয়ে চক্রের নারী সদস্যদের সঙ্গে আপত্তিকর ছবি তুলে বিকাশের মাধ্যমে টাকা আদায়ের ঘটনায় আলমগীর আহম্মেদ (৩২) নামের একজন ভুক্তভোগী যাত্রাবাড়ী থানায় মামলা করেন। মামলার পরে গুলশান গোয়েন্দা বিভাগ তদন্ত করে এ চক্রের পাঁচ সদস্যকে গ্রেফতার করে।

এ ঘটনায় মামলার বাদী ভিকটিম তার আত্মসম্মান রক্ষা ও আসামিদের হাত থেকে রেহাই পাওয়ার জন্য বাধ্য হয়ে দাবি করা চাঁদার টাকা গ্রেফতারদের দেওয়া বিকাশ অ্যাকাউন্ট নম্বর ০১৬৪১-৮২৮০০৬, ০১৭৪১-৩৬৫৯৮৬, ০১৭৫৭-৬২১১৭৯ এবং ০১৩১৪-০৭৭৬৩৬ তে মোট ৭০ হাজার টাকা পাঠান। এছাড়াও অন্যান্য মাধ্যমে তার থেকে মোট ১ লাখ ১১ হাজার টাকা নিয়ে নেয় চক্রের সদস্যরা।


আরও খবর



ভারতে প্রবেশের সময় মহেশপুর সীমান্তে আটক ১৮

প্রকাশিত:Wednesday ০৩ August ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | ২০জন দেখেছেন
Image

বাংলাদেশ থেকে অবৈধপথে ভারতে প্রবেশের অভিযোগে ১৮ নারী, পুরুষ ও শিশুকে আটক করেছে ৫৮ বিজিবির মহেশপুর ব্যাটালিয়ন। বুধবার (৩ আগস্ট) সকাল ৬টার দিকে সীমান্তের মাটিলা বিওপির টহল দল জলুলী গ্রাম থেকে তাদের আটক করে।

আটকদের মধ্যে ১০ জন পুরুষ, দুজন নারী ও ছয়জন শিশু রয়েছে। তাদের বাড়ি বরিশাল, গোপালগঞ্জ, সাতক্ষীরা, নড়াইল, সুনামগঞ্জ, যশোর, খুলনা ও বাগেরহাটের বিভিন্ন এলাকায়।

৫৮ বিজিবির অতিরিক্ত পরিচালক তসলিম মো. তারেক বলেন, আটক বাংলাদেশি নাগরিকদের বিরুদ্ধে অবৈধভাবে সীমান্ত পারাপার ও সহায়তার অপরাধে মামলা দিয়ে মহেশপুর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।


আরও খবর