Logo
আজঃ বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

রাজধানীতে কালবৈশাখীর সঙ্গে বৃষ্টি

প্রকাশিত:বুধবার ১৭ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৭৬জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদকঢাকায় সকাল সকাল কালবৈশাখীর সঙ্গে বৃষ্টির দেখা পেলো নগরবাসী। সকাল সাড়ে নয়টার দিকে শুরু হয় ঝড়ো হাওয়া, সেই সঙ্গে বৃষ্টি।

এদিকে ঢাকায় গতকাল মঙ্গলবারও সন্ধ্যার পর বৃষ্টি ঝরেছে। এতে নগরবাসীর মধ্যে স্বস্তির ভাব ফিরে এসেছে। যদিও গত রোববার ঘূর্ণিঝড় মোখা উপকূল স্পর্শ করলেও বৃষ্টির দেখা পায়নি রাজধানীবাসী।

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজধানীতে বৃষ্টির পরিমাণ ছিল তিন মিলিমিটার।

আজ সকাল ছয়টায় ঢাকা ও এর আশপাশের এলাকার জন্য আবহাওয়া অধিদপ্তরের দেওয়া আগামী ছয় ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়, অস্থায়ীভাবে আকাশ মেঘলা থাকতে পারে। অস্থায়ীভাবে বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।

আজ বুধবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত দেশের অভ্যন্তরীণ নদীবন্দরগুলোর জন্য আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, ঢাকা, ফরিদপুর, মাদারীপুর, কুমিল্লা, ময়মনসিংহ ও নোয়াখালী অঞ্চলের ওপর দিয়ে পশ্চিম অথবা উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৬০ থেকে ৮০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টি হতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরকে ২ নম্বর নৌ-হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

এছাড়া বরিশাল, পটুয়াখালী, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার ও সিলেট অঞ্চলের উপর দিয়ে পশ্চিম অথবা উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরকে ১ নম্বর নৌ সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের বিভিন্ন এলাকায় বৃষ্টি হয়েছে। এর মধ্যে সর্বোচ্চ বৃষ্টি হয়েছে সিলেটে, ১০০ মিলিমিটার।

আগামী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়, রাজশাহী, রংপুর, ঢাকা, ময়মনসিংহ, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে শিলাবৃষ্টি হতে পারে।


আরও খবর



চীন সফর শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১১ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৯৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চীনে তিন দিনের সরকারি সফর শেষে দেশে ফিরেছেন। প্রধানমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীদের বহনকারী বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিমানটি বুধবার (১০ জুলাই) দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেছে।

সফরসূচি অনুযায়ী, নির্ধারিত চার দিনের সফর শেষে বৃহস্পতিবার দেশের উদ্দেশ্যে রওনা দেওয়ার কথা ছিল তার। কিন্তু মেয়ে সায়মা ওয়াজেদ পুতুল অসুস্থ থাকায় রাতেই বেইজিং ছাড়েন প্রধানমন্ত্রী। এর আগে, বুধবার (১০ জুলাই) বেইজিংয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. হাছান মাহমুদ।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর দেশে ফেরত যাওয়ার কথা ছিল ১১ জুলাই। সেটি না হয়ে বেইজিংয়ের স্থানীয় সময় বুধবার রাত ১০টায় বাংলাদেশের উদ্দেশ্যে রওনা হবেন। এতে কিন্তু তার আনুষ্ঠানিক যে কর্মসূচি, সেটির বিন্দুমাত্র হেরফের হয়নি।

নির্ধারিত সময়ের আগেই প্রধানমন্ত্রীর বেইজিং সফর সমাপ্ত করার ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সফরসঙ্গী হিসেবে তার কন্যা ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) আঞ্চলিক পরিচালক সায়মা ওয়াজেদ পুতুলেরও বেইজিং সফরের কথা ছিল। কিন্তু অসুস্থতার কারণে তিনি বেইজিং সফর করতে পারেননি। আমরা যেদিন বেইজিংয়ের উদ্দেশ্যে রওনা করি, সেদিন সকালে হঠাৎ করে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। তিনি এখনও অসুস্থ। সফরসূচির অন্তর্ভুক্ত সব আনুষ্ঠানিক কাজ এরই মধ্যে সম্পন্ন হয়ে যাওয়ায় আর মেয়েকে ছেড়ে দূরে থাকতে চাইছেন না প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের আমন্ত্রণে গত সোমবার বেইজিং সফরে যান।

-খবর প্রতিদিন/ সি.


আরও খবর



পরিদর্শনে অতিরিক্ত ডিআইজি অতিরিক্ত মিজানুর রহমান

প্রকাশিত:সোমবার ০১ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১১৫জন দেখেছেন

Image

মাজাহারুল ইসলাম,রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি:কুড়িগ্রামের রৌমারী সহকারি পুলিশ সুপার (রৌমারী সার্কেল) অফিস পরিদর্শন করেন পিপিএম (বার) অতিরিক্ত ডিআইজি (ক্রাইম ম্যানেজমেন্ট), রংপুর রেঞ্জ, বাংলাদেশ পুলিশ মো: মিজানুর রহমান ও আল আসাদ মো. মাহফুজুর রহমান (পিপিএম) পুলিশ সুপার, কুড়িগ্রাম। শনিবার দুপুরের দিকে কুড়িগ্রামথেকে নৌ-এম্বুলেন্স যোগে রৌমারীতে আগমন করেন। তাদেরকে ফলুয়ার চর নৌকা ঘাট থেকে ফুলের শুভেচ্ছা দিয়ে বরণ করেন রৌমারী, রাজিবপুর, ঢুষমারা থানা পুলিশ ও রৌমারী উপজেলা প্রশাসন, রৌমারী সার্কেল অফিস পরিদর্শন করেন ও রৌমারী থানা পুলিশের সাথে পরিচিত হন তিনি। 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সহকারী পুলিশ সুপার (রৌমারী সার্কেল) মো. মমিনুল  ইসলাম,  রৌমারী থানার অফিসার ইনর্চাজ আব্দুলাহিল জামান, ঢুষমারা থানার অফিসার ইনর্চাজ মো.ছায়েম উদ্দিন, রাজিবপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদান্ত)কমকর্তা মো.আতাউর রহমান, রৌমারী থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) কমকর্তা মুশাহেদ খান, রৌমারী উপজেলা নিবার্হী অফিসার নাহিদ হাসান খান, সহকারি কমিশনার ভূমি মোহাম্মদ আসিব উদ্দিন মিয়া সহ অনেকেই।


আরও খবর



মাগুরায় জমি নিয়ে দাঙ্গা যুবক খুন বাড়িঘর ভাংচুর লুটপাট

প্রকাশিত:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ৮৮জন দেখেছেন

Image

স্টাফ রিপোর্টার মাগুরা থেকে:মাগুরা সদর উপজেলার বেঙ্গাবেরইল গ্রামে জমিজমা দাঙ্গায়  জাহিদ মোল্যা (৪৪) নামে এক যুবক খুন হয়েছে। নিহত জাহিদ ওই গ্রামের আবদুল কুদ্দুস মোল্যার ছেলে।

এলাকাবাসি জানায়, উপজেলার বেঙ্গাবেরইল গ্রামের আনারুল মোল্যার সাথে বড় ভাই জয়নাল মোল্যার ছেলে আশরাফ মোল্যার মধ্যে  জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। বৃহস্পতিবার বিকালে আনারুল মোল্যা বাড়ির সামনে বিরোধপূর্ণ একটি জমিতে মাটি ভরাটের কাজ করছিলো। এ সময় তার ভাতিজা আশরাফ এতে বাঁধা দিলে উভয় পরিবারের মধ্যে সংঘর্ষ বেঁধে যায়। উভয় পরিবারের সমর্থনে একই গোষ্ঠির লোকজন ঢাল সড়কি নিয়ে দাঙ্গায় লিপ্ত হয়। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ২০ জন কমবেশি আহত হয়। আহতদের মধ্যে আলতাফ মোল্যা (৫৩), আলমগীর (৪৫), জাহিদ বিশ্বাস (৪৪), জাহিদ মোল্যা (৪৪), মোশারফ মোল্যা (৫৬), উজ্জ্বল মোল্যা (২৪), পিকুল মোল্যা (৪২), মনিরুল (৩২), নাসিরুল রফিক মোল্যা (৩৮), রবিউল মোল্যা (৪০), শমসের মোল্যা, হাসানুর মোল্যা (৪০) ও সায়েদ মোল্যা (৩৫) কে মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে গুরুতর আহত জাহিদ মোল্যাকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে মধুখালী পৌছালে তার মৃত্যু হয়।

এদিকে জাহিদ মোল্যার মৃত্যুর খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে তার সমর্থিতরা প্রতিপক্ষের অন্তত ১০টি বাড়িতে হামলা ভাংচুর ও লুটপাট চালিয়েছে।

মাগুরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মেহেদী রাসেল বলেন, খবর পেয়ে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।


আরও খবর



গলাচিপায় ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদের সংবর্ধণা অনুষ্ঠান ও প্রথম সাধারণ সভা

প্রকাশিত:সোমবার ০১ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১০৩জন দেখেছেন

Image

রিয়াদ হোসাইন,গলাচিপা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি:পটুয়াখালীর গলাচিপায় উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদের সংবর্ধণা অনুষ্ঠান ও প্রথম সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার বেলা ১১টায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এটি অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় ২১ মে দ্বিতীয় ধাপে অনুষ্ঠিত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানকে উপজেলা প্রশাসন, পৌর মেয়র, ইউপি চেয়ারম্যানবৃন্দ, উপজেলা আওয়ামী লীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, গলাচিপা প্রেসক্লাব, শিক্ষক মন্ডলী, বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের পক্ষ থেকে ফুলেল শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানানো হয়।

সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. নাসিম রেজার সভাপতিত্বে ও উপজেলা পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা মাহবুব হাসান শিবলীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন নবনির্বাচিত উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ওয়ানা মার্জিয়া নিতু। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক সন্তোষ দে, পৌর মেয়র আহসানুল হক তুহিন, উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান ফরিষদ আহসান কচিন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান তহমিনা আক্তার।

আরও উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মো. জহিরুন্নবী, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আরজু আক্তার, উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগ সভানেত্রী মোসা. নুরুন্নাহার বেগম, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. নিজাম উদ্দিন তালুকদার, মো. নুরুল ইসলাম ধলা, গলাচিপা প্রেসক্লাব সভাপতি সমিত কুমার দত্ত মলয় প্রমুখ।

এ ছাড়া সরকারি কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, মুক্তিযোদ্ধা, শিক্ষক প্রতিনিধি, আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিক, সুশীল সমাজ, সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



পত্নীতলায় আদিবাসী পরিবারের উপর হামলা-ভাংচুর, আহতরা হাসপাতালে ভর্তি

প্রকাশিত:শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৬২জন দেখেছেন

Image

দিলিপ চৌহান, পত্নীতলা (নওগাঁ) প্রতিনিধি:পত্নীতলায় এক আদিবাসী পরিবারের উপর দফায় দফায় হামলা চালিয়ে বাড়ী-ঘর ভাংচুর ও নারী-পুরুষকে মারপিট করে লুঠতরাজ চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় আহতরা পত্নীতলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছে।

জানাগেছে পত্নীতলায় পূর্বশত্রুতার জের ধরে এক আদিবাসী পরিবারের ঘরবাড়ি ভাংচুর সহ খড়ের পালায় আগুন দিয়ে প্রায় লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধন করে দুর্বৃত্তরা। এব্যাপারে থানায় গত মঙ্গলবার অভিযোগ হলে পুলিশি তদন্ত চলাকালীন সময়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় আবারও দুর্বৃত্তরা লাঠিসোটা ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ঐ পরিবারের উপর হামলা চালিয়ে বাড়ীঘর, দোকানঘর ভাংচুর করে লুটতরাজ করে এবং নারী সহ বৃদ্ধদের জখম করলে ঐ পরিবারের লোকজন দুর্বৃত্তদের হাত থেকে বাঁচার জন্য থানা ও ফায়ার সার্ভিসে খবর দিলে থানা পুলিশ তাদের উদ্ধার করে। এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার উষ্টি গ্রামের আদিবাসী হরেন এর ছেলে শনিরাম (৪৩) তার পরিবারকে নিয়ে উষ্টি গ্রামে বসবাসরত অবস্থায় বাড়ির পাশে উষ্টি তকিপুর পুরাতন জামে মসজিদের জায়গা লীজ নিয়ে দীর্ঘদিন যাবত সেখানে টিনের চালা দিয়ে মুদি দোকানের ব্যবসা পরিচালনা করে আসছিল।

এমতাবস্থায় প্রায় ছয় মাস পূর্বে তকিপুর হাটপুকুর এলাকার মৃত সানচ্চার ছেলে বিষ্ণু তিগ্যা সহ তার সঙ্গীরা শনিরামের ঐ জায়গা দখলের চেষ্টা করে ও শনিরাম সহ তার পরিবারকে বেধে মধ্যযুগিয় কায়দায় মারপিট, ভাংচুর ও লুটতরাজ চালায়। এ ব্যাপারে মামলা চলমান অবস্থায় গত মঙ্গলবার আবারো বিষ্ণু তিগ্যা (৪৪), একই এলাকার মৃত মংলুর ছেলে দিনেশ তিগ্যা (৩৫), মৃত শুকা তিগ্যার ছেলে রবীন্দ্রনাথ তিগ্যা (৪৮), রবীন্দ্রনাথের ছেলে সুজন তিগ্যা (২২), মৃত নবীন তিগ্যার ছেলে লিটন তিগ্যা (৩২), মৃত সুরেন তিগ্যার ছেলে দুলাল তিগ্যা (৫০), মৃত নবানুরের ছেলে মহাদেব (৩৬), মৃত সৃনাচ্চার ছেলে নরেশ তিগ্যা (৫১), মৃত সাঞ্চার ছেলে কালু তিগ্যা (৪১), বিষ্ণু তিগ্যার ছেলে রাজ কুমার (২০), মালেক হোসেন (৪৫), মৃত মানছা তির্গার ছেলে নকুল তিগ্যা (৩২), গবরা তিগ্যার ছেলে কালিপদ তিগ্যা (৫৫), মৃত হাকিম উদ্দিনের ছেলে সামসুল হক (৫৬), নেওয়ার ছেলে মালেক (৪৫) লাঠিসোটা, লোহার রড, হাসুয়া নিয়ে জোর পূর্বক ঐ জায়গা-জমি দখলের উদ্দেশ্যে শনিরামের উপর হামলা চালায়। শনিরামের চিৎকারে তার স্ত্রী মিনা সহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা ছুটে আসলে তাদেরকেও আঘাত সহ শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে দুর্বৃত্তরা। একপর্যায়ে তাদের চিৎকার-চেঁচামেচিতে গ্রামের লোকজন ছুটে আসলে দুর্বৃত্ত বিষ্ণু সহ তার সঙ্গীরা দ্রুত সেখান থেকে পালিয়ে যায়।

এসময় দুর্বৃত্তরা শনিরামের বসতবাড়ি, দোকানের ফ্রিজ সহ অন্যান্য জিনিসপত্র ভাংচুর করে, খড়ের পালায় আগুন ধরিয়ে দেয়, ৩০টি আমের গাছ উপরে ফেলে এবং তার জমির চারপাশের বাঁশের বেড়া ভেঙ্গে প্রায় লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধন করে মালামাল লুটতরাজ করে নিয়ে যায়।

এ ঘটনায় শনিরাম পত্নীতলা থানায় উক্ত দুর্বৃত্তদের নামে অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশের তদন্ত চলমান থাকা অবস্থাতেই আবারও বিষ্ণু তিগ্যা সহ তার সঙ্গীয়রা বৃহষ্পতিবার সন্ধ্যায় শনিরামের পরিবারের উপর হামলা চালিয়ে গুরত্বর আহত করে, ভাংচুর ও লুটতরাজ চালিয়ে নারী ও বৃদ্ধদের জখম করে। আহতরা হলো, বক্স এর স্ত্রী আরতি (৩০), হরেন (৫৮), হরেন এর স্ত্রী মালতি (৫০) ও শনিরামের স্ত্রী মিনা (৩৫)।

এ ঘটনায় উষ্টির তকিপুর পুরাতন জামে মসজিদ কমিটির সহিদুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে, দুর্বৃত্তদের দ্রুত বিচার দাবি করেন।

এ ব্যাপারে পত্নীতলা থানার অফিসার ইনচার্জ মোজাফফর হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, আসামীদের ধরতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত আছে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.


আরও খবর