Logo
আজঃ বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪
শিরোনাম

রাজধানীর ১৮টি ওয়ার্ড ডেঙ্গুর উচ্চ ঝুঁকিতে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ১৩৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:রাজধানীর দুই সিটির ১৮টি ওয়ার্ডে ডেঙ্গুর উচ্চ ঝুঁকিতে রয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখার পরিচালক অধ্যাপক ডা. শেখ দাউদ আদনান।

মঙ্গলবার (২৮ মে) সকালে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে আয়োজিত মৌসুম পূর্ব এডিস সার্ভে-২০২৪ এর ফলাফল প্রকাশ অনুষ্ঠানে জরিপের তথ্য উপস্থাপন করা হয়।

কর্মশালায় জরিপের ফলাফল ঘোষণায় শেখ দাউদ আদনান বলেন, রাজধানীর দুই সিটির ১৮টি ওয়ার্ডে ডেঙ্গুর উচ্চ ঝুঁকিতে রয়েছে। ঢাকার দুই সিটির ৯৯টি ওয়ার্ডের ৩ হাজার ১৪৯টি বাসায় জরিপ চালিয়ে দেখা যায়, শতকরা ১৫ শতাংশ বাড়িতে এডিসের লার্ভা ও পিউপার উপস্থিতি পাওয়া গেছে। মিরপুর, বনানী, নিকেতন, হাতিরঝিল, মোহাম্মদপুর, খিলক্ষেত, মালিবাগসহ গতবারের ঝুঁকিপূর্ণ ওয়ার্ডগুলোই সর্বোচ্চ ঝুঁকিতে রয়েছে। এডিসের ঘনত্ব সর্বোচ্চ ৪২ দশমিক ৩৩ শতাংশ পাওয়া গেছে বহুতল ভবনে। এরপরই স্বতন্ত্র বাড়ি ও নির্মাণাধীন ভবনে লার্ভার হার ২১ দশমিক ৬ শতাংশ। এছাড়াও ঢাকা দক্ষিণের ১৬ দশমিক ৩৯ শতাংশ এবং ঢাকা দক্ষিণের ১৪ দশমিক ৩০ শতাংশ পরিত্যক্ত পাত্রে মশার লার্ভা পাওয়া গেছে।

ঝুঁকিপূর্ণ ওয়ার্ডগুলোর মধ্যে রয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ১২, ১৩, ২০, ৩৬, ৩১, ৩২, ১৭ ও ৩৩ নম্বর এবং দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ১৩, ০৪, ৫২,৫৪, ১৬, ৩০, ০৫, ১৫, ১৭ ও ২৩ নম্বর ওয়ার্ড। ২০১৯ সাল থেকে ২০২৪ পর্যন্ত মৌসুম পূর্ব জরিপে উভয় সিটি করপোরেশনেই এডিসের লার্ভার উপস্থিতি বেড়েছে। তাই লক্ষণ প্রকাশপেলেই সময় নষ্ট না করে হাসপাতালে আসার আহ্বান জানান তিনি।

কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইমেরিটাস অধ্যাপক ডা. এ বি এম আব্দুল্লাহ বলেন, সারা দেশের প্রতিটি ঘরে ঘরে ডেঙ্গু ছড়িয়ে পড়েছে। এই রোগের সুনির্দিষ্ট কোনো চিকিৎসা নেই। রোগীর লক্ষণের ওপর ভিত্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হয়। তাই সবাইকে সচেতন হতে হবে রোগটি যেন না হয়।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এবিএম খুরশীদ আলম বলেন, চলতি বছরের মে মাস পর্যন্ত সারা দেশে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছে প্রায় পৌনে ৩ হাজার মানুষ। এই সময়ে রোগটিতে মৃত্যু হয়েছে ৩৪ জনের। যেখানে গত বছরের ২৭ মে পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছিল ১৭০৪ জন এবং মৃত্যু হয়েছিল ১৩ জনের। এই পরিসংখ্যানই বলছে এবারের ডেঙ্গু কতটা ভয়াবহ রূপ নিতে পারে।

এবিএম খুরশীদ আলম বলেন, পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, অনেকেই মনে করেন ঢাকায় ভালো চিকিৎসা পাওয়া সম্ভব। তাই জেলা বা উপজেলা হাসপাতাল থেকে তারা ঢাকার উদ্দেশে রওনা করেন। দীর্ঘ যাত্রা পথে শরীরে জটিলতা সৃষ্টি হয় এবং পথেই মৃত্যু বরণ করেন।

মহাপরিচালক বলেন, ডেঙ্গুতে যেন মৃত্যু না হয় সে জন্য আমরা দেশের সব হাসপাতাল প্রস্তুত রাখতে নির্দেশ দিয়েছি। প্রয়োজনীয় স্যালাইন ও আনুষঙ্গিকের ব্যবস্থা করা হয়েছে। পাশাপাশি প্রাণহানি এড়াতে বিভিন্ন বিভাগের চিকিৎসকদের সমন্বিত চিকিৎসার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

উপস্থিত ছিলেন অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আহমেদুল কবীর, রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখার কর্মসূচি ব্যবস্থাপক ডা. এম এম আক্তুরুজ্জামান প্রমুখ।


আরও খবর

মেট্রোরেল ঈদের দিন বন্ধ থাকবে

বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪




জুরাইন ট্রাফিক ইন্সপেক্টরের সহযোগিতায় নিখোজ সন্তান ফিরে পেল বাবা

প্রকাশিত:রবিবার ০২ জুন 2০২4 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ১২৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব সংবাদদাতা:- জুরাইনের ট্রাফিক ইন্সপেক্টরের সহযোগিতায় সন্তান ফিরে পেল চান্দিনার হায়াতউল্লাহ। তিনি জানান, গত শনিবার ২৫মে  শনিবার  তার ছেলে সাব্বির (১৩) কুমিল্লার চান্দিনা  এলাকা থেকে হারিয়ে যায়। পরে অনেক খোজা খোজি করে ও না পাইয়া থানায় সাধারন ডায়রী করেন।


এদিকে গত ৩১ মে জুরাইনের ট্রাফিক ইন্সপেক্টর ইছমাইল সন্ধ্যা ৭ টায় জুরাইন রেলগেইট থেকে সাব্বির কে উদ্ধার করে। তার তথ্য মতে, কুমিল্লা ট্রাফিক ডিভিশনে যোগাযোগ করে ও পরে বিভীন্ন সামাজিক মাধ্যম এমনকি মাইকিং করে।


অবশেষে নিখোজ সাব্বিররর খোজে চান্দিনা থেকে আসা নিখোজ সাব্বিরের বড় ভাই কাউসার সিকদারের হাতে তোলে দেন। এই ঘটনায়, ট্রাফিক ওয়ারী ডিভিশন কে কৃতঞ্জতা জানিয়েছে কুমিল্লা ট্রাফিক বিভাগ ও সাব্বিরের পরিবার৷

    -খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর

মেট্রোরেল ঈদের দিন বন্ধ থাকবে

বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪




শরীয়তপুরে কিশোরীকে অপহরণের পর গনধর্ষণ

প্রকাশিত:বুধবার ২৯ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ৪৮০জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদকঃশরীয়তপুর জেলার জাজিরা উপজেলা পদ্মা সেতু দক্ষিণ থানা এলাকায় ১৬ বছরের কিশোরীকে অপহরণের পর গনধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।এই ঘটনায় ৬ জনকে অভিযুক্ত করে পদ্মা সেতু দক্ষিণ থানায় একটি মামলা রুজু হয়েছে ।

অভিযুক্তরা হলেন- উপজেলার হাজী জৈনুদ্দিন মাদবর কান্দির ওমর ফারুক মাদবর(২১),রতন মাদবর (৩০), আলমগীর বেপারী  ও অজ্ঞাত আরো তিনজন।

মামলা ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত ২৬ মে বিকেলে শিবচর উপজেলার ক্রোকচর গ্রামে নানা বাড়ি থেকে নিজ বাড়ি হাজী জৈনুদ্দিন মাদবর কান্দির উদ্দেশ্যে আসার পথে মৌলভীকান্দি এলাকায়  অভিযুক্ত ওমর ফারুক মাদবর,রতন মাদবর , আলমগীর বেপারী ও অজ্ঞাত আরো তিনজন ওই কিশোরীকে জোরপূর্বক একটি সাদা মাইক্রোবাসে তুলে অপহরণ করে নাও ডোবা গোল চত্ত্বরের দিকে নিয়ে যায়। এ সময় ওই কিশোরী পানি পান করতে চাইলে অভিযুক্তরা চেতনা নাশক ঔষধ মেশানো পানি পান করিয়ে তাকে দুর্বল করে ফেলে। মাইক্রো বাসের ভেতরেই অভিযুক্তরা জোরপূর্বক ভুক্তভোগী কিশোরীকে ধর্ষণ করে।   পালাক্রমে ধর্ষণের পর অভিযুক্তরা ওড়না দিয়ে হাত বেঁধে কিশোরী কে জমাদার স্ট্যান্ড থেকে জাজিরা যাওয়ার রাস্তায় মাইনুদ্দিন কান্দি নামক স্থানে অবস্থিত পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের ২০০ গজ উত্তর পাশে রাস্তার উপর ফাঁকা স্থানে ফেলে চলে যায়। পরবর্তীতে পথচারীরা বিষয়টি পদ্মা সেতু দক্ষিণ থানা পুলিশকে সংবাদ দেয়। পরে পুলিশ অচেতন অবস্থায় রাত ৮.১৫ মিনিটের সময় উদ্ধার করে পার্শ্ববর্তী একটি ক্লিনিকে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর জ্ঞান ফিরলে কিশোরীর বাবা মাকে খবর দেওয়া হয়। পরে ভুক্তভোগী কিশোরী তার মায়ের কাছে গণধর্ষণের বিষয়টি বর্ণনা করেন। তার মা লতিফা বেগম পুলিশকে এই বিষয়টি জানান।


আরও খবর



বগুড়ায় হত্যা মামলার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেফতার

প্রকাশিত:সোমবার ২০ মে ২০24 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ১০৮জন দেখেছেন

Image
বগুড়া বিশেষ প্রতিনিধি:বগুড়া"র র‌্যাব-১২, সিপিএসসি,  সদস্য গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে, বগুড়া জেলার শেরপুর থানাধীন সীমাবাড়ী এলাকায় ধুনট থানার মামলা নং-৬, জিআর ১১২/৯৯ (ধুনট) এর যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী মোঃ আব্দুর রহিম (৫৫) অবস্থান করছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে ১৯ মে ২০২৪ ইং তারিখে বগুড়ার র‌্যাব-১২, সিপিএসসি,  একটি আভিযানিক দল  জেলার শেরপুর থানাধীন সীমাবাড়ী এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামী মোঃ আব্দুর রহিম (৫৫), পিতা- খলিলুর রহমান, সাং- প্রতাব খাদুলী, থানা- ধুনট, জেলা- বগুড়া’কে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। 

মোঃ সোহেল রানা সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার স্কোয়াড কমান্ডার সিপিএসসি, র‌্যাব-১২, বগুড়া একটি প্রেস রিলিজ জানান, ১৯৯৯ সালে আসামী তার আপন চাঁচাকে জমিজমার বিরোধ নিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করে আত্মগোপন করে। আসামী নিজ পরিচয় গোপন করে ভুয়া এনআইডি তৈরী করে স্ত্রীসহ ঢাকায় বসবাস করতেন। দীর্ঘ ২৪ বছর পর র‌্যাবের তৎপরতায় তাকে সনাক্ত করে গ্রেফতার। গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ধুনট থানা, বগুড়ায় হস্তান্তর করা হয়েছে। 

আরও খবর



এমপি আনার হত্যার ঘটনায় ৩ বাংলাদেশি আটক: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ১৫৪জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:চিকিৎসা করাতে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে গিয়ে নিহত ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীমকে হত্যার ঘটনায় তিন বাংলাদেশিকে আটক করা হয়েছে,বলেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

বুধবার (২২ মে) ধানমন্ডির নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন তিনি। এসময় তার সঙ্গে ছিলেন পুলিশ ও ডিবি প্রধান।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ভারতীয় পুলিশ আমাদের নিশ্চিত করেছে এমপি আনার খুন হয়েছেন। তবে তদন্ত শেষে সবকিছু জানাবে বলে জানিয়েছে। এমপি আনারের হত্যার ঘটনায় বাংলাদেশ থেকে তিনজনকে আটক করা হয়েছে। তারা তিনজনই বাংলাদেশি। খুনের মোটিভ এখনো জানা যায়নি। তদন্তের স্বার্থে এখন বিস্তারিত কিছু বলতে পারছেন না ভারতীয় পুলিশ।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ প্রদেশে চিকিৎসার জন্য গিয়ে নিখোঁজের ছয়দিন পর কলকাতার একটি এলাকা থেকে ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীমের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের কর্মকর্তারা কলকাতার নিউ টাউনের সঞ্জিভা গার্ডেন্সের একটি ফ্ল্যাট থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

সীমান্ত এলাকা ঝিনাইদহ-৪ আসনের টানা তিনবারের সংসদ সদস্য (এমপি) ও কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলেন আনোয়ারুল আজীম আনার।


আরও খবর

মেট্রোরেল ঈদের দিন বন্ধ থাকবে

বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪




তানোরে সাব রেজিস্ট্রি অফিসে প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ৩৯জন দেখেছেন

Image
আব্দুস সবুর তানোর থেকে:রাজশাহীর তানোরে সাব রেজিস্ট্রি অফিসের নকল নবিশ ও দলিল লেখকদের অভ্যন্তরীন দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষে একদিন ব্যাপি  প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার  দিনব্যাপী  সাব রেজিস্ট্রি অফিস চত্বরে অনুষ্ঠিত হয় প্রশিক্ষণ কর্মশালা। সকাল সাড়ে নয়টার দিকে প্রশিক্ষণ কর্মশালার শুভ উদ্ধোধন করেন তানোর অফিসের সাব রেজিস্ট্রার ইয়াসির আরাফাত। দলিল পরিচিতি, নিবন্ধন আইনের ৫২ ক ধারা, নিবন্ধন বিধিমালার বিধি ২০ এর বিধানাবলি ও দলিল লিখন পদ্ধতি এবং নকল নবিশ গণ কর্তৃক আদায়কৃত ফিস, নকল নবিশ গণের অনুলিপি কাজ বাবদ অর্থ আদায়, পরিশোধ করণ বিধিমালা ২০১৮, পাওয়ার অব অ্যাটর্নি আইন -২০১২, পাওয়ার অব অ্যাটর্নি  বিধিমালা ২০১৫ বিষয়ে বিস্তর আলোচনা করেন মোহনপুর সাব রেজিস্ট্রি অফিসের সাব রেজিস্ট্রার তানিয়া তাহের। দলিল লেখক সনদ বিধিমালা ২০১৪, রেকর্ড সংরক্ষণ ও বিনষ্টকরণ, রেকর্ডরুম ব্যবস্থাপনা বিষয়ে উন্মুক্ত আলোচনা করেন সাব রেজিস্ট্রার ইয়াসির আরাফাত। এসময় দলিল লেখক সমিতির সিনিয়র সহসভাপতি ওবাইদুর রহমান দুলাল, সম্পাদক গোলাম রাব্বানী, সহসভাপতি রায়হান, আলহাজ্ব আব্দুস সামাদ, আলহাজ্ব খায়রুল ইসলাম, কোষাধ্যক্ষ সোহেল রানা, নকল নবিশ শাহাদাত হোসেন, জাহাঙ্গীর আলমসহ দলিল লেখক সদস্য ও নকল নবিশ এবং অফিসের কর্মকর্তা কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

আরও খবর