Logo
আজঃ Monday ০৮ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড নিখোঁজ সংবাদ প্রধানমন্ত্রীর এপিএসের আত্মীয় পরিচয়ে বদলীর নামে ঘুষ বানিজ্য

রাবির 'এ' ইউনিটের ফল প্রকাশ, পাসের হার ৫৫.৩৪

প্রকাশিত:Wednesday ০৩ August ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ২৩জন দেখেছেন
Image

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ২০২১-২২ সেশনের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের কলা অনুষদভুক্ত 'এ' ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে। এ ইউনিটে পাসের হার ৫৫ দশমিক ৩৪ শতাংশ।

মঙ্গলবার (২ আগস্ট) রাত সাড়ে ৮টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিন কমপ্লেক্সে এই ফল প্রকাশ করেন উপাচার্য অধ্যাপক গোলাম সাব্বির সাত্তার।

এ সময় সহ-উপাচার্য অধ্যাপক মো. সুলতান-উল ইসলাম, প্রক্টর অধ্যাপক মো. আসাবুল হক, জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক অধ্যাপক প্রদীপ কুমার পাণ্ডে এবং ‘এ’ ইউনিটের প্রধান সমন্বয়কারী সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের অধিকর্তা অধ্যাপক ইলিয়াস হোসেনসহ ইউনিটভুক্ত অনুষদগুলোর অধিকর্তা ও সংশ্লিষ্ট অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

ফল প্রকাশকালে উপাচার্য বলেন, গুণগত মানের প্রশ্ন তৈরি ও সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা সম্পন্ন করার পাশাপাশি নির্ভুল যাচাই-বাছাই শেষে সঠিক ফলাফল প্রকাশ করা এক মহাযজ্ঞ। সবকিছু সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে সহযোগিতাকারী সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই। এমনকি এ ফলাফলে মেধার সর্বোচ্চ মূল্যায়ন হয়েছে বলে জানান উপাচার্য।

‘এ’ ইউনিটে ৫৫ দশমিক ৩৪ শতাংশ শিক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়েছেন। এর মধ্যে গ্রুপ-১-এ পাসের হার ৪৮ দশমিক ৯০ শতাংশ ও সর্বোচ্চ নম্বর ৮২ দশমিক ৮০। গ্রুপ-২-এ পাসের হার ৫৯ দশমিক ৭৪ শতাংশ ও সর্বোচ্চ নম্বর ৯২ দশমিক ৭৫। গ্রুপ-৩-এ পাসের হার ৬২ দশমিক ৩৩ ও সর্বোচ্চ নম্বর ৯৩ দশমিক ১৫। গ্রুপ-৪-এ পাসের হার ৫০ দশমিক ৩৯ শতাংশ এবং সর্বোচ্চ নম্বর ৮৪ দশমিক ৬৫।

২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে ‘এ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় ২৬ জুলাই। এ পরীক্ষায় উপস্থিত ছিলেন ৬১ হাজার ৯০ জন শিক্ষার্থী। গড় উপস্থিতর হার ছিল ৯০ দশমিক ৮৬ শতাংশ।

মনির হোসেন মাহিন/আরএডি


আরও খবর



এশিয়া কাপ আয়োজন থেকে সরে দাঁড়ালো শ্রীলঙ্কা

প্রকাশিত:Thursday ২১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Thursday ০৪ August ২০২২ | ৪১জন দেখেছেন
Image

এতদিন পর্যন্ত শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বলে আসছিল, দেশের সংকটময় পরিস্থিতিতেও এশিয়া কাপ আয়োজন করতে বদ্ধপরিকর তারা। তবে মুখের কথাই তো সব নয়। লঙ্কাদের অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক সংকট চরম রূপ নিয়েছে। এমতাবস্থায় কিছুতেই তাদের পক্ষে এই টুর্নামেন্ট আয়োজন করা সম্ভব নয়।

বুধবার আনুষ্ঠানিকভাবে এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলকে (এসিসি) লঙ্কানরা বলে দিয়েছে যে, এশিয়া কাপ টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট আয়োজন করার মতো অবস্থায় নেই বোর্ড। শ্রীলঙ্কার উত্তাল পরিস্থিতির কারণে এসএলসি সম্প্রতি লঙ্কা প্রিমিয়ার লিগও (এলপিএল) স্থগিত করে দিয়েছে।

এসিসির একটি সূত্র জানিয়েছে, ‘শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট জানিয়েছে যে, তাদের দেশের বর্তমান রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক পরিস্থিতির কারণে, বিশেষ করে যখন বৈদেশিক মুদ্রার বিষয়ে উদ্বিগ্ন, তখন দেশে ছয় দলের এই বড় ইভেন্টটি আয়োজন করা তাদের পক্ষে সম্ভব হচ্ছে না।’

পাশাপাশি শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ আরও জানানো হয়েছে, তারা সংযুক্ত আরব আমিরাত বা অন্য কোনও দেশে টুর্নামেন্ট আয়োজন করতে চায়।

অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে এশিয়া কাপ আগস্ট-সেপ্টেম্বর মাসে হওয়ার কথা রয়েছে। এসিসি আগামী কয়েক দিনের মধ্যেই এই টুর্নামেন্টের সূচি ও ভেন্যু জানাবে।

শ্রীলঙ্কা বোর্ডের পক্ষ থেকে অবশ্য বলা হয়েছে, ‘সংযুক্ত আরব আমিরাত চূড়ান্ত বিকল্প ভেন্যু নয়। ভারতের পাশাপাশি অন্য কোনো দেশেও এই টুর্নামেন্ট খেলা হতে পারে। কারণ এসিসি এবং শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটকে প্রথমে এমিরেটস ক্রিকেট বোর্ডের কর্মকর্তাদের সঙ্গে টুর্নামেন্ট আয়োজনের চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য কথা বলতে হবে।’

সেক্ষেত্রে কোনো কারণে আরব আমিরাতে এশিয়া কাপ স্থানান্তর করা না গেলে জোর সম্ভাবনা রয়েছে বাংলাদেশের। বাংলাদেশ এর আগে ২০১২ থেকে ২০১৬ পর্যন্ত টানা তিন আসর এশিয়া কাপের আয়োজন করেছিল। ২০১৪ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপও সফলভাবে আয়োজন করেছিল লাল-সবুজের দেশটি।


আরও খবর



মেক্সিকোতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৯

প্রকাশিত:Thursday ২৮ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ০৫ August ২০২২ | ৩২জন দেখেছেন
Image

মেক্সিকোতে কয়েকটি গাড়ির মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় কমপক্ষে ৯ জন নিহত হয়েছে। স্থানীয় সময় বুধবার দক্ষিণ মেক্সিকোর গুয়েরেরো রাজ্যে ওই দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত করেছে।

রাজ্য নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের প্রাথমিক প্রতিবেদন অনুযায়ী, স্থানীয় সময় সকাল ৬টা ৩৫ মিনিটে ওই দুর্ঘটনা ঘটেছে। গুয়েরেরো কোস্টা গ্র্যান্ডে অঞ্চলের আকাপুলকো-জিহুয়াতানেজো হাইওয়েতে কয়েকটি গাড়ির মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, একটি প্রাইভেট কারের চালক পণ্যবাহী একটি ট্রাককে ওভারটেক করার চেষ্টা করেন। কিন্তু গাড়িটির সঙ্গে ট্রাকের পেছন দিকে ধাক্কা লাগে। ফলে চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে হাইওয়ের বিপরীত দিকে চলে যান। যেখানে অন্য একটি গাড়ির সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে।

দুর্ঘটনায় তিনজন গুরুতর আহত হয়েছেন। তাদের আতোয়াক ডে আলভারেজ শহরের একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনাস্থলে উদ্ধার কর্মী, পুলিশ এবং ন্যাশনাল গার্ডের সদস্যদের মোতায়েন করা হয়। এক ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে ওই মহাসড়কটি বন্ধ রাখা হয়েছে।


আরও খবর



পার্থের কেলেঙ্কারির পর মন্ত্রিসভায় বড় রদবদল মমতার

প্রকাশিত:Wednesday ০৩ August ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | ২৪জন দেখেছেন
Image

পশ্চিমবঙ্গের মন্ত্রিসভায় ব্যাপক রদবদল করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। এতে দায়িত্ব পেলেন বেশকিছু নতুন মুখ। বুধবার (৩ আগস্ট) রাজভবনে নতুন ৭ মুখসহ মোট আট মন্ত্রীকে শপথবাক্য পাঠ করালেন অস্থায়ী রাজ্যপাল লা গণেশন। মন্ত্রিসভায় নতুন সদস্যদের মধ্যে রয়েছেন প্রদীপ মজুমদার, পার্থ ভৌমিক, উদয়ন গুহ, স্নেহাশিস চক্রবর্তী, বাবুল সুপ্রিয়, বিপ্লব রায়চৌধুরী, তাজমূল হোসেন, সত্যজিৎ বর্মনরা।

২০২১ সালে তৃতীয়বার ক্ষমতায় আসার পর তৃণমূল মন্ত্রিসভায় এটিই সবচেয়ে বড় রদবদল। রাজ্যটির বিধানসভার সংখ্যার নিরিখে মন্ত্রিসভায় মুখ্যমন্ত্রীসহ সর্বোচ্চ ৪০ জন মন্ত্রী থাকতে পারেন। এদিন সেই সীমা পূর্ণ হলো।

শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে স্বাভাবিকভাবেই উপস্থিত ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়সহ মন্ত্রিসভার অন্যান্য সদস্যরা। আমন্ত্রিত ছিলেন বামফ্রন্টের চেয়ারম্যান বিমান বসু। বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীকে আমন্ত্রণ জানানো হলেও তিনি উপস্থিত ছিলেন না।

তাৎপর্যপূর্ণভাবে সাঁওতালি ভাষায় শপথ বাক্য পাঠ করলেন স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী বীরবাহা হাঁসদা। একসঙ্গে শপথবাক্য পাঠ করেন ৫ পূর্ণমন্ত্রী। দুই স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রীও শপথ নেন একসঙ্গে। প্রতিমন্ত্রীরাও শপথ নিয়েছেন পরে।

শপথের পর দপ্তর বণ্টনের প্রক্রিয়া শুরু হবে। সেক্ষেত্রেও যে বড়সড় রদবদল হবে সেই ছবিটাও স্পষ্ট। প্রয়াত সুব্রত মুখোপাধ্যায়, সাধন পাণ্ডে ও ইডির হাতে বন্দি পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের হাতে অনেকগুলো বড় বড় দপ্তর ছিল। সেগুলো এবার বণ্টন হবে নতুনদের মধ্যে। 


আরও খবর



কাকতালীয়! কোহলির মতো বাবরেরও ৭৩

প্রকাশিত:Wednesday ২০ July ২০22 | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | ৪৮জন দেখেছেন
Image

বর্তমান প্রজন্মের সেরা ব্যাটার কে? এই বিতর্কে বিরাট কোহলির সঙ্গে জোর টেক্কা চলছে বাবর আজমের। যদিও কোহলি অনেক রেকর্ডে বাবরের চেয়ে এগিয়ে। তবে ভারতীয় ব্যাটারের অফফর্ম চলছে এখন, অন্যদিকে স্বপ্নের সময় কাটিয়ে চলেছেন পাকিস্তানের অধিনায়ক।

অনেকেই মনে করছেন, বাবর এই ফর্ম ধরে রাখতে পারলে একটা সময় কোহলিকে ছাড়িয়ে যাবেন অনেক রেকর্ডে। কাকতালীয় ব্যাপার হলো, যে দুজনকে নিয়ে এই সেরার আলোচনা, তারা একটা রেকর্ডে মিলে গেলেন এক বিন্দুতে।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে চলতি গল টেস্টের চতুর্থ দিনে আরেকটি বড় কৃতিত্ব অর্জন করলেন পাকিস্তান অধিনায়ক বাবর আজম। টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে পেরিয়ে গেছেন তিন হাজার রান।

পাকিস্তানের হয়ে টেস্ট ক্রিকেটে দ্রুততম তিন হাজার টেস্ট রান করার নিরিখে ছয় নম্বরে পৌঁছেছেন বাবর। যা করতে তার লেগেছে ঠিক চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী কোহলির মতোই ৭৩ ইনিংস।

পাকিস্তানের কথা বললে, দ্রুততম তিন হাজার টেস্ট রান করার রেকর্ড জাভেদ মিয়াঁদাদ ও মোহাম্মদ ইউসুফের। তারা দুজনই ৬৭ তম ইনিংসে এই কীর্তিটি করেছিলেন।

আরেক কিংবদন্তি ব্যাটার সাঈদ আনোয়ারের লেগেছিল ৬৮ ইনিংসে। ইউনিস খান তিন হাজার টেস্ট রানের জন্য ৭০টি ইনিংস খেলেছিলেন। ৭২ টেস্ট ইনিংসে এই কীর্তি গড়েন মজিদ খান।

সামগ্রিকভাবে, টেস্ট ক্রিকেটে দ্রুততম তিন হাজার রানের বিশ্ব রেকর্ডটি স্যার ডন ব্র্যাডম্যানের। অসি কিংবদন্তি মাত্র ৩৩টি ইনিংসে এই ম্যাজিকাল ফিগার স্পর্শ করেছিলেন।


আরও খবর



সয়াবিনের দাম কমলেও বিক্রি হচ্ছে আগের দামে

প্রকাশিত:Friday ২২ July 20২২ | হালনাগাদ:Tuesday ০২ August 2০২2 | ৩৮জন দেখেছেন
Image

বিশ্ববাজারে ভোজ্যতেলের দাম কমার প্রেক্ষিতে সরকার দেশের বাজারে সয়াবিন তেলের দাম কমানোর ঘোষণা দেওয়ার পর খুচরা পর্যায়ে দাম কিছুটা কমেছে। তবে সরকার যে হারে কমানোর কথা বলেছে সে হারে দাম কমেনি। এমনকি নতুন দামের সয়াবিন তেল এখনো বাজারে আসেনি।

খুচরা ব্যবসায়ীরা বলছেন, কোম্পানিগুলো বৃহস্পতিবার বোতলের যে সয়াবিন তেল সরবরাহ করেছে তাতে আগের মূল্য লেখা রয়েছে। কিছু ব্যবসায়ী বোতলে লেখা মূল্যে সয়াবিন তেল বিক্রি করছেন। আবার কিছু ব্যবসায়ী বোতলে উল্লেখ করা মূল্যের থেকে কম দামে তেল বিক্রি করছেন।

বিশ্ববাজারে ভোজ্যতেলের দাম কমায় সরকার গত ১৭ জুলাই বোতলজাত সয়াবিন তেলের দাম লিটারপ্রতি ১৪ টাকা কমিয়ে ১৮৫ টাকা নির্ধারণ করে দেয়। আর ২ লিটারের বোতলের সয়াবিন তেলের দাম ৩৯৮ টাকা থেকে কমিয়ে করা হয় ৩৭০ টাকা এবং ৫ লিটারের বোতল ৯৮০ টাকা থেকে কমিয়ে আনা হয় ৯১০ টাকায়।

সরকার নির্ধারিত এ দাম ১৮ জুলাই থেকেই কার্যকর হওয়ার কথা ছিল। তবে এর তিনদিন পর নির্ধারিত দামে সয়াবিন তেল বিক্রির ঘোষণা দেয় বাংলাদেশ ভেজিটেবল অয়েল রিফাইনার্স অ্যান্ড বনস্পতি ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যাসোসিয়েশন। সংগঠনটির ঘোষণা অনুযায়ী, বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) থেকেই বাজারে নতুন দামের তেল পাওয়ার কথা।

তবে শুক্রবার (২২ জুলাই) সকালে সরেজমিনে রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, দোকানে সরকার নির্ধারিত দামে সয়াবিন তেল মিলছে না। অবশ্য আগের দাম উল্লেখ করা বোতলের সয়াবিন তেল কিছুটা কম দামে বিক্রি করছেন খুচরা ব্যবসায়ীরা। এক লিটার বোতলের সয়াবিন তেল ১৯৫ টাকা এবং পাঁচ লিটারের বোতল ৯৫০ থেকে ৯৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

রামপুরার ব্যবসায়ী মো. আলামিন জাগো নিউজকে বলেন, গতকাল রূপচাঁদার নতুন বোতলের তেল এসেছে। এক লিটারের বোতলে দাম উল্লেখ আছে ১৯৯ টাকা আর পাঁচ লিটারের বোতলে ৯৮০ টাকা। তবে আমরা এক লিটার ১৯৫ টাকা এবং পাঁচ লিটার ৯৬০ টাকায় বিক্রি করছি।

এ ব্যবসায়ীর দোকানে থাকা বোতলে উল্লেখ করা মূল্যের পাশে উৎপাদনের তারিখ দেখা যায় ৭ জুলাই। এ বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, উৎপাদনের পর তেল বাজারে আসতে ১০-১৫ দিন লেগে যায়। কোম্পানির লোক গতকালই (বৃহস্পতিবার) আমাদের এ তেল দিয়ে গেছে।

বাজারের অন্য এক ব্যবসায়ী জুবায়ের হোসেন বলেন, নতুন দামের বোতলের সয়াবিন তেল আমরা এখনো পাইনি। তবে আগের তেল দাম কমিয়ে লোকসানে বিক্রি করছি। এক লিটারের বোতলের তেল ১৯৫ টাকা আর পাঁচ লিটারের বোতল ৯৫০ টাকায় বিক্রি করছি।

লোকসানে তেল বিক্রির কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, সরকার দাম কমানোর সিদ্ধান্ত দিয়েছে। হুট করে কখন কে অভিযান চালায় বলা মুশকিল। অভিযানে জরিমানা দেওয়ার চেয়ে লোকসানে বিক্রি করাই ভালো।

খিলগাঁওয়ের ব্যবসায়ী সাদ্দাম বলেন, সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বোতলের এক লিটার সয়াবিন তেলের দাম ১৮৫ টাকা এবং পাঁচ লিটারের দাম ৯১০ টাকা হওয়ার কথা। তবে এ দামের তেল আমরা এখনো পাইনি। এরপরও আমরা আগের থেকে কম দামে বিক্রি করছি। ১৯৯ টাকা উল্লেখ থাকা বোতলের এক লিটার সয়াবিন তেল ১৯৫ টাকা এবং ৯৮০ টাকার পাঁচ লিটারের বোতল ৯৫০ টাকা বিক্রি করছি।

আপনারা যে দামে বিক্রি করছেন সরকার নির্ধারিত মূল্য তো তার চেয়ে কম। কেন সরকার নির্ধারিত দামে বিক্রি করছেন না- এমন প্রশ্নে এ ব্যবসায়ী বলেন, কোম্পানি কম দামে তেল না দিলে আমরা কীভাবে দাম কমিয়ে বিক্রি করবো? নতুন মূল্যের তেল পেলে অবশ্যই নির্ধারিত দামে বিক্রি করবো।

এদিকে সরকার নির্ধারিত মূল্য অনুযায়ী এক লিটার খোলা সয়াবিন তেল ১৬৬ টাকা আর এক লিটার খোলা পাম তেল ১৫২ টাকায় বিক্রি হওয়ার কথা। তবে এ দামে খোলা সয়াবিন বা পাম তেল কিনতে পারছেন না ক্রেতারা।

খুচরা পর্যায়ে খোলা সয়াবিন তেল ও পাম তেল কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। প্রতি কেজি খোলা সয়াবিন তেল কিনতে ১৯৫ থেকে ২০০ টাকা আর প্রতি কেজি পাম তেল কিনতে ভোক্তাদের গুনতে হচ্ছে ১৮০ থেকে ১৯০ টাকা।

সরকার নির্ধারিত দামে খোলা সয়াবিন ও পাম তেল বিক্রি না হওয়ায় কারণ হিসেবে মালিবাগের ব্যবসায়ী সিয়াম জাগো নিউজকে বলেন, পাইকারিতে খোলা সয়াবিন তেলের দাম এখনো কমেনি। আমরা বেশি দামে তেল কিনে এখন কম দামে কিভাবে বিক্রি করবো। লোকসান দিয়ে তো ব্যবসা করা যাবে না। পাইকারিতে যে দামে কিনেছি, কেউ চাইলে তার রশিদ দেখিয়ে দিতে পারবো।


আরও খবর