Logo
আজঃ বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪
শিরোনাম

পুলিশকে গুলি করে হত্যা: কনস্টেবল কাওসার ৭ দিনের রিমান্ডে

প্রকাশিত:রবিবার ০৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ৫৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:অভিযুক্ত পুলিশ সদস্য কাউসার আলী সহকর্মীকে গুলি করে হত্যার ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

রোববার (৯ জুন) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. শাকিল আহাম্মদ রিমান্ডের এ আদেশ দেন।

এদিন কাউসারকে আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করে পুলিশ। শুনানি শেষে আদালত ৭ দিনের রিমান্ডের আদেশ দেন।

মামলার সূত্রে জানা গেছে, শনিবার (৮ জুন) রাত সাড়ে ১১টার দিকে রাজধানীর বারিধারায় ফিলিস্তিন দূতাবাসের সামনে নিরাপত্তার কাজে নিয়োজিত পুলিশ সদস্যকে গুলি করে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে আরেক পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে। নিহত পুলিশ সদস্য ডিপ্লোম্যাটিক সিকিউরিটি ডিভিশনে কর্মরত ছিলেন।

গুলির ঘটনায় সাজ্জাদ হোসেন নামে জাপান দূতাবাসের এক গাড়িচালক আহত হন। তাকে ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় রোববার (৯ জুন) গুলশান থানায় মামলা করেছেন নিহত মনিরুল হকের ভাই মো. মাহাবুবুল হক।


আরও খবর

মেট্রোরেল ঈদের দিন বন্ধ থাকবে

বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪




গাংনীর সীমান্তে বিএসএফ কর্তৃক কৃষক নির্যাতন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ২৭জন দেখেছেন

Image

মজনুর রহমান আকাশ,মেহেরপুর প্রতিনিধিঃমেহেরপুরের গাংনী উপজেলার কাজিপুর সীমান্তে ভারতীয় সীমানরক্ষী বাহিনী(বিএসএফ) কর্তৃক বাংলাদেশী এক কৃষককে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। বুধবার(১২ জুন) সকাল ৯ টার দিকে বাংলাদেশ ভারত আন্তর্জাতিক সীমান্তের ১৪৬ ও ১৪৭ পিলারের মাঝে এ ঘটনাটি ঘটে। নির্যাতিত ওই কৃষকের নাম আলমগীর হোসেন। তাকে কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় প্রতিবাদ জানিয়ে চিঠি দিয়েছে বিজিবি।

কৃষক আলমগীর হোসেন  জানান, আজ বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কাজিপুর গ্রামের ভারতীয় সীমান্তবর্তী মাঠে আন্তর্জাতিক মেইন পিলার ১৪৬ ও ১৪৭ এর মাঝে নিজ জমির মরিচ ক্ষেতে ঘাস কাটছিলেন তিনি। হঠাৎ ভারতের ফুলবাড়ি বিএসএফ ক্যাম্পের দুই সদস্য এসে তাকে মারধর করতে থাকে। এতে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন আলমগীর। পরে ওই বিএসএফ সদস্যরা নিজেদের সিমান্তে চলে যায়। বিষয়টি টের পেয়ে মাঠের অন্যান্য কৃষকরা আলমগীরকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়ার পর জ্ঞান ফিরে আসে। তার অবস্থা গুরুতর হওয়ায় কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। 

স্থানীয়রা জানান, মাঝে মধ্যেই ভারতের বিএসএফ সদস্যরা বাংলাদেশের নিরীহ কৃষকদের উপর হামলা চালায়। মাঝে মধ্যেই কৃষকদের ওপর চওড়া হয় এবং বিভিন্ন সময় শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করে। এই সীমান্তে নির্যাতন বন্ধের দাবিও জানান তারা।

৪৭ বিজিবি’র অধিনায়ক লে. কর্নেল মোর্শেদ জানান, কাজিপুর সীমান্তে কৃষক নির্যাতনের ঘটনায় প্রতিবাদ জানিয়ে চিঠি দেওয়া হয়। আর এ ধরনের ঘটনা যাতে না ঘটে এ জন্য সজাগ থাকতে হবে।


আরও খবর



৪৫৭ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন

প্রকাশিত:রবিবার ১৯ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ১২৮জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:সারাদেশে ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ করার লক্ষে দ্বিতীয় ধাপে  বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) ৪৫৭ প্লাটুন সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

রোববার (১৯ মে) বিজিবি সদর দপ্তরের জনসংযোগ কর্মকর্তা (মিডিয়া) মো. শরীফুল ইসলামের স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়।

এতে জানানো হয়েছে, ২১ মে অনুষ্ঠিতব্য উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে স্থানীয় বেসামরিক প্রশাসনকে সহায়তা করার জন্য ইন এইড টু দ্য সিভিল পাওয়ার এর আওতায় ১৯ থেকে ২৩ মে পর্যন্ত নির্বাচনি এলাকায় শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষার্থে বিজিবি মোবাইল ও স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে কাজ করবে।

এদিকে, দ্বিতীয় ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রচার রোববার মধ্য রাতে শেষ হচ্ছে। এই ধাপে ১৫৭টি উপজেলায় ভোটগ্রহণ করা হবে আগামী মঙ্গলবার।

তাই আজ সারা দিন প্রচারের শেষ সুযোগ কাজে লাগাতে সক্রিয় প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা। তবে এ নির্বাচনে বিএনপি-জামায়াতসহ অনেক দল অংশগ্রহণ করছে না। এর ফলে অনেকটা একতরফা এই নির্বাচনে শেষ পর্যন্ত ভোটারদের কতটা ভোটকেন্দ্রে আনা যাবে, তা নিয়ে প্রার্থীদেরও অনেকের সংশয় রয়েছে। ৮ মে প্রথম ধাপের নির্বাচনে ভোট পড়েছিল ৩৬ শতাংশ।

ইসি সূত্র জানায়, দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচনের সব প্রস্তুতি চূড়ান্ত। আজ থেকে ১৫৭ উপজেলায় মাঠে নামছেন একজন করে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট। ভোট গ্রহণের পরের দুই দিন অর্থাৎ ২৩ মে পর্যন্ত তারা দায়িত্ব পালন করবেন।


আরও খবর

মেট্রোরেল ঈদের দিন বন্ধ থাকবে

বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪




খাগড়াছড়িতে পুলিশের সপ্তাহব্যাপী দক্ষতা উন্নয়ন কোর্সের উদ্বোধন করেন-পুলিশ সুপার মুক্তা ধর

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১০ জুন ২০২৪ | ৯৪জন দেখেছেন

Image
জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর দক্ষতা উন্নয়ন কোর্স  প্রফেশনালিজম বাড়ানো, সেবা মান উন্নত করা, এবং সামাজিক বিশ্বাস ও নিরাপত্তা বজায় রাখার লক্ষে খাগড়াছড়িতে  সপ্তাহব্যাপী  পুলিশের সকল সদস্যের পদমর্যাদাভিত্তিক ১৭ তম ব্যাচের  দক্ষতা উন্নয়ন কোর্সের উদ্বোধন করা হয়েছে।

শনিবার (২৫  মে,)  খাগড়াছড়ি জেলার  পুলিশ লাইন্স, ড্রিল শেডে সপ্তাহব্যাপী বাংলাদেশ পুলিশের সকল সদস্যের পদমর্যাদাভিত্তিক  ১৭ তম ব্যাচের  দক্ষতা উন্নয়ন কোর্সের উদ্বোধন করেন  খাগড়াছড়ি জেলার পুলিশ সুপার  মুক্তা ধর পিপিএম (বার)  

খাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার মুক্তা ধর পিপিএম (বার) প্রশিক্ষণার্থী পুলিশ সদস্যদের উদ্দেশ্যে  বলেন , পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা দক্ষতা উন্নয়ন কোর্সের মাধ্যমে পেশাদারিত্বের উচ্চতর মান অর্জন করতে সক্ষম হন। এতে করে তাদের কাজের গুণমান এবং নির্ভুলতা বৃদ্ধি পায়। আইনি জ্ঞানের উন্নতি হয়, যা পুলিশকে ন্যায়বিচার প্রদানে আরও দক্ষ করে তোলে। তারা আইন অনুযায়ী কাজ করতে আরও সচেতন এবং সক্ষম হয়। মানবাধিকার সচেতনতা বৃদ্ধির ফলে পুলিশ নাগরিকদের অধিকার লঙ্ঘন করার পরিবর্তে তাদের অধিকার রক্ষায় আরও বেশি মনোযোগী হয়। প্রযুক্তির প্রয়োগ এবং দক্ষতায় উন্নতির ফলে পুলিশ অপরাধ অনুসন্ধানে আরও দক্ষ হয়। তারা সহজেই তথ্য সংগ্রহ এবং বিশ্লেষণ করতে পারে, যা অপরাধ প্রতিরোধ ও অনুসন্ধানে সাহায্য করে। শারীরিক ফিটনেস এবং মানসিক দৃঢ়তা বৃদ্ধির মাধ্যমে পুলিশ সদস্যরা কঠিন পরিস্থিতি এবং চাপ সামলানোর ক্ষমতা অর্জন করে।বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক ব্যাকগ্রাউন্ডের লোকজনের সাথে কাজ করার দক্ষতা অর্জনের ফলে পুলিশ আরও সহানুভূতিশীল এবং কার্যকর হয়। উন্নত দক্ষতা এবং পেশাদারিত্ব জনগণের মধ্যে পুলিশের প্রতি আস্থা ও বিশ্বাস বৃদ্ধি করে।

এসময় খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশের পদস্থ কর্মকর্তা বৃন্দ সহ অন্যান্য পদমর্যাদার পুলিশ সদস্যরা  উপস্থিত ছিলেন।

আরও খবর



গাংনীতে শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রি উত্যক্তর অভিযোগ

প্রকাশিত:সোমবার ০৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ জুন ২০২৪ | ৮৪জন দেখেছেন

Image

মজনুর রহমান আকাশ, মেহেরপুরঃমেহেরপুরের গাংনীর বাওট সোলাইমানি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ক্রীড়া শিক্ষক মিরাজুল ইসলামের বিরুদ্ধেসপ্তম শ্রেণির এক ছাত্রিকে উত্যক্ত করার অভিযোগ উঠেছে । লজ্জ্বা ভয়ে ওই ছাত্রি বিদ্যালয়ে আসা বন্ধ করে দিয়েছে। এ ঘটনায় ফুঁসে উঠেছেন এলাকাবাসি। তোপের মুখে আত্মগোপন করেছেন ওই শিক্ষক । এদিকে অভিযুক্ত শিক্ষককে বাঁচাতে গোপনে সমঝোতার চেষ্টা ও ঘটনা আড়াল করতে ব্যর্থ হয়েছেন প্রধান শিক্ষক। 

জানা গেছে, বেশ কিছুদিন যাবত ওই ছাত্রিকে শিক্ষক মিরাজুল ইসলাম বিভিন্ন সময় নানা ধরনের কুরচিপূর্ণ কথা বলেন। দিন পাঁচেক আগে শিক্ষক মিরাজুল ওই ছাত্রিকে বিদ্যালয়ে একটি কক্ষে নিয়ে কু প্রস্তাব দেয়। লোক লজ্জ্বার ভয়ে ছাত্রিটি বিদ্যালয়ে আসা বন্ধ করে দেয় ও পরিবারের লোকজনকে জানায়। বিষয়টি জানানো হয় প্রধান শিক্ষকসহ অন্যান্য শিক্ষককে। সেই সাথে জেনে যান বিদ্যালয়ে পরিচালনা পর্ষদসহ এলাকার লোকজন।

এলাকার কয়েকজন জানান, একজন ছাত্রি একজন শিক্ষকের মেয়ে তুল্য। কীভাবে তাকে কুপ্রস্তাব দেয় ? তার বিচার হওয়া প্রয়োজন। এজন্য ছাতিয়ান ও বাওট গ্রামের লোকজন ফুঁসে উঠেছে। গত রোববার ও আজ সোমবার এলাকার লোকজন বিদ্যালয়ে আশে পাশে অবস্থান নেয়। অবস্থা বেগতিক দেখে ওই শিক্ষক আত্মগোপন করেন। শিক্ষক মিরাজুল দুশ্চরিত্রের মানুষ। তাকে বিদ্যালয়ে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না বলেও জানান তারা।

এলাকাবাসি আরো জানান, ওই শিক্ষককে বাঁচাতে ও ঘটনা আড়াল করতে প্রধান শিক্ষক সোহরাব হোসেন মিথ্যাচার করেন। ঘটনাটি আদৌ সত্য নয় বলে প্রচার করতে চাইলে ওই শিক্ষার্থী ও তার পরিবারের লোকজন পুরো ঘটনাটি এলাকার জনপ্রতিনিধিদেরকে অবহিত করেন। এর পরই প্রধান শিক্ষক দমে যান। তাছাড়া ঘটনার ৫দিন অতিবাহিত হলেও প্রধান শিক্ষক ওই ক্রিড়া শিক্ষকের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেন নি এবং উর্ধ¦তন কর্মকর্তাকে অবহিত করেন নি।

কয়েকজন শিক্ষক জানান, ২০১৮ সালে এনটিআরসি থেকে নিয়োগ পান শিক্ষক মিরাজুল। তখন থেকেই তার বিরুদ্ধে নারী কেলেঙ্কারীর অভিযোগ রয়েছে। এমতাবস্থায় প্রধান শিক্ষক ও বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদ কারো কথায় কান না দিয়ে তাকে যোগদান করান। বিদ্যালয়ে যোগদানের পর থেকেই ছাত্রিদের সাথে অসদাচরণ এবং বাজে উক্তি করতেন। হাসির ছলে কথা বলায় তখন কেউ কিছু মনে করতেন না। কিন্তু উত্যক্ত করা ছাড়াও ছাত্রিদের সাথে খারাপ আচরণ করায় সকলেই বিরক্ত।

প্রধান শিক্ষক সোহরাব হোসেন জানান, ক্রিড়া শিক্ষক মিরাজুলের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠায় ওই শিক্ষক আর বিদ্যালয়ে আসেন নি। আবার তার ব্যবহৃত মুঠো ফোনটিও বন্ধ রেখেছেন। তাকে মৌখিকভাবে বিদ্যালয়ে না আসার জন্য বলা হয়েছে। সেই সাথে ওই শিক্ষার্থীকে ঘটনার বিবরন দিয়ে লিখিত অভিযোগ দেয়ার জন্য বলা হয়েছে। লিখিত অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। শিক্ষককে বাঁচাতে গোপন আঁতাতের বিষয়টি অস্বীকার করেন এই প্রধান শিক্ষক।

বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি সাহাবুল ইসলাম জানান, তিনি দুদিন আগে ঘটনাটি শুনেছেন। প্রধান শিক্ষক তাকে ঘটনাটি জানান নি। লোকমুখে ঘটনাটি শুনে বিদ্যালয়ে আসেন এবং আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার জন্য প্রধান শিক্ষককে বলেন।


আরও খবর



গোদাগাড়ীতে আবারোও রাসেল ভাইপারের দেখা, আতঙ্কে কৃষকরা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ১১৬জন দেখেছেন

Image
মুক্তার হোসেন গোদাগাড়ী(রাজশাহী):রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলায় আবারোও বিষধর সাপ রাসেল ভাইপার নিয়ে আতংকিত কৃষকরা। মাঠজুড়ে বোরো ধানের ক্ষেতে প্রায়ই দেখা মিলছে বিষধর রাসেল ভাইপার। চলতি মাসে প্রায়টি ১০টি রাসেল ভাইপার সাপকে পিটিয়ে মেরেছে কৃষকরা। এর মধ্যে সামাউন নামে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে।

জানা যায়, বরেন্দ্র অঞ্চলে দীর্ঘ ৩৪ বছর পর ২০১৩ সালে হঠাৎ দেখা মেলে রাসেল ভাইপার সাপের। এরপর ২০১৪, ২০১৫ ও ২০১৬ সালে ব্যাপকভাবে তা চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও রাজশাহীর গোদাগাড়ী এবং তানোর উপজেলায় ছড়িয়ে পড়ে। সাপের কামড়ে শতাধিক মানুষের মৃত্যুও হয়। ২০১৭ ও ২০১৮ পর ২০১৯ সালে আবারো রাসেল ভাইপার সাপের উপদ্রব দেখা দেয়। ২০২০,২০২১,২০২২ ও ২০২৩ সালে এ সাপের উপদ্রব কম দেখা গেলেও চলতি বছর ফের গোদাগাড়ীতে উপদ্রব বেড়েছে।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, উপজেলার পোতাহার পালসা,গোদাগাড়ী পৌর এলাকার সুলতানগঞ্জ কাচারী পাড়া,কুঠিপাড়া,বারুইপাড়া কেশবপুর, সাহাপুকুর, পাহাড়পুর, ধনঞ্চয়পুর, গোমা, চালনা, ভূষণা, রিশিকুল গ্রামে রাসেল ভাইপার দেখা গেছে। গোদাগাড়ীর মাঠে মাঠে এখন ধান কাটা মাড়াই চলছে। ধানের ক্ষেতে ছড়িয়ে পড়েছে বিষধর এ সাপ। ফলে মাঠে ধান কাটা থেকে অন্যান্য কাজে মাঠে যেতে ভয় পাচ্ছেন তারা।