Logo
আজঃ Monday ০৮ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড নিখোঁজ সংবাদ প্রধানমন্ত্রীর এপিএসের আত্মীয় পরিচয়ে বদলীর নামে ঘুষ বানিজ্য

পরিবারে শিশুর সংখ্যা বেশি হলে মানসিক বিকাশ ত্বরান্বিত হয়: গবেষণা

প্রকাশিত:Friday ০৩ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৫৯জন দেখেছেন
Image

পরিবারে এক শিশুর তুলনায় দুই বা ততোধিক শিশু থাকলে তাদের মানসিক ও শারীরিক বিকাশ ত্বরান্বিত হয়। শুধু তাই নয়, শিশুর প্রাথমিক শৈশব বিকাশ পরিবারে শিশুর সংখ্যাধিক্যের ওপর নির্ভর করে। প্রত্যেক নতুন শিশুর জন্মে এ উন্নয়ন পাঁচ শতাংশ হারে বাড়তে থাকে।

গত ৫ এপ্রিল আমেরিকান বহুজাতিক প্রকাশনা সংস্থা উইলিতে প্রকাশিত একটি গবেষণাপত্রে এ তথ্য জানানো হয়।

‘আরলি চাইল্ডহুড ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড ইটস অ্যাসোসিয়েশন উইথ ম্যাটারনাল প্যারিটি’ শিরোনামে গবেষণাটি করেছেন অস্ট্রেলিয়ার লা ট্রোব বিশ্ববিদ্যালয়ের পাবলিক হেলথ বিভাগের শিক্ষক এম মফিজুল ইসলাম এবং বাংলাদেশের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের পপুলেশন সায়েন্স বিভাগের শিক্ষক ড. নুরুজ্জামান খান।

বাংলাদেশ মাল্টিপল ইন্ডিকেটর ক্লাস্টার সার্ভে ২০১৯ এর তথ্য ইউনিসেফ নির্দেশিত চারটি ডোমেইন বিশ্লেষণ করে শিশুর প্রাথমিক বিকাশের ক্ষেত্রে এ তথ্য তুলে ধরেন গবেষকরা। ডোমেইনগুলো হলো শারীরিক বিকাশ, সাক্ষরতা ও সাংখ্যিক বিকাশ, শিখন ক্ষমতা ও সামাজিক আবেগ-অনুভূতির বিকাশ।

বাংলাদেশের ৬৪ জেলার ৩৬ থেকে ৫৯ মাস বয়সী (৩ থেকে ৫ বছর) ৯ হাজার ৩৮০টি শিশুর ওপর এ গবেষণা চালানো হয়।

গবেষণায় দেখা যায়, দেশের ২৫ শতাংশ শিশুর প্রাথমিক শৈশব বিকাশ ঠিকমতো হচ্ছে না। ৭১ শতাংশ শিশুর সাক্ষরতা ও সাংখ্যিক বিকাশ বিঘ্নিত হচ্ছে, ২৭ শতাংশ শিশু সামাজিক আবেগের দিক থেকে অবিকশিত থেকে যাচ্ছে। ৯ শতাংশ শিশু শেখার দিক থেকে পিছিয়ে পড়ছে। আর ১ শতাংশ শিশু শারীরিকভাবে বিকশিত হচ্ছে না। এ সমস্যাগুলোর উল্লেখযোগ্য অংশ ঘটছে পরিবারে শিশুর সংখ্যা তুলনামূলক কম হওয়ার কারণে।

গবেষণা বলছে, শিশুদের প্রাথমিক বিকাশের ওপর তাদের মা কত সংখ্যক সন্তান গ্রহণ করছেন তার একটি সম্পর্ক রয়েছে। শিশুর শারীরিক ও মানসিক বিকাশ নির্ভর করে মায়েদের সন্তান গ্রহণের ওপর। একজন মা একের অধিক সন্তান গ্রহণ করলে শিশুদের বিকাশ ত্বরান্বিত হয়। এক্ষেত্রে মায়েরা যদি মাধ্যমিক অথবা উচ্চতর শিক্ষা গ্রহণ করে থাকেন তাহলে অন্যদের তুলনায় সেই মায়ের শিশু সঠিকভাবে বিকশিত হয়।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে গবেষক ড. নুরুজ্জামান খান জাগো নিউজকে বলেন, ‘মূলত তিনটি কারণে সমস্যাগুলো হচ্ছে। প্রথমত, বাংলাদেশে শিক্ষিত পরিবারগুলো সন্তান কম নিতে আগ্রহী। বাবা-মা শিক্ষিত হওয়ায় তারা চাকরিক্ষেত্রে প্রবেশ করেন। এতে তাদের ব্যস্ততা বেড়ে যায়। যে কারণে ওই পরিবারের শিশুটি মা-বাবার কাছ থেকে পর্যাপ্ত সময় পাচ্ছে না। ফলে শিশুটি বেড়ে উঠছে বাড়ির কাজের মানুষটির সঙ্গে অথবা বিভিন্ন ইলেকট্রনিক ডিভাইসে বুঁদ হয়ে, যেটা সবচেয়ে বেশি হয়। এতে ওই শিশুটির বিকাশ বিঘ্নিত হচ্ছে।’

‘দ্বিতীয়ত, বাংলাদেশে শিশুদের প্রাথমিক বিকাশ নিয়ে তেমন কোনো একাডেমিক পড়াশোনার ব্যবস্থা নেই। এ সম্পর্কে বাবা-মায়েদের জ্ঞান নেই বললেই চলে। তারা বেশিরভাগই অসচেতন। জাতীয় পর্যায়েও এ ব্যাপারে সচেতনামূলক কোনো ক্যাম্পেইন লক্ষ্য করা যায় না। তৃতীয়ত, দেশে যৌথ পরিবারগুলো ভেঙে যাচ্ছে। ফলে শিশুদের একে অপরের সঙ্গে যোগাযোগের পথ রুদ্ধ হচ্ছে। এটি একটি বড় সমস্যা।’

‘মূলত, পরিবারে সন্তান বেশি থাকলে শিশুরা নিজেদের সঙ্গে মিশতে পারে। একে অন্যের সঙ্গে সময় কাটালে উৎফুল্লতা বাড়ে। ফলে উন্নয়ন ঘটে’, যোগ করেন এ গবেষক।

সমস্যাগুলোর সমাধান কী জানতে চাইলে ড. খান বলেন, ‘সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের উচিত শিশুদের প্রাথমিক বিকাশ সম্পর্কে পড়াশোনার ফিল্ড তৈরি করা। প্রি-প্রাইমারি (প্রাক-প্রাথমিক) লেভেলে জোর দিতে হবে। বাবা-মায়েদের সন্তানদের সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে হবে। বাবা-মা যেন পাঁচ বছরের নিচের শিশুদের সঙ্গে বেশি সময় দেন সে বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে। পাশাপাশি জরুরিভাবে ডিভাইস ডিপেন্ডেন্সি কমাতে হবে। হোক বাবা-মা কিংবা শিশু। সন্তানদের সমবয়সী শিশুদের সঙ্গে পর্যাপ্ত সময় কাটানোর ব্যবস্থা করতে হবে।’


আরও খবর



মদ্যপ ব্রাজিলিয়ান ফুটবলারের গাড়ির চাপায় একজনের মৃত্যু

প্রকাশিত:Wednesday ০৩ August ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ১৮জন দেখেছেন
Image

মাতাল হয়ে গাড়ি চালাচ্ছিলেন। ছিল না ড্রাইভিং লাইসেন্সও। ব্রাজিলিয়ান ফুটবলার রেনান ভিক্টর দা সিলভার গাড়ির চাপায় মৃত্যু হয়েছে এক মোটরসাইকেল আরোহীর। এই ঘটনার পর ২০ বছর বয়সী এই সেন্টার ব্যাককে চুক্তি থেকে বাদ দিয়েছে ব্রাজিলিয়ান ক্লাব পালমেইরাস।

সাও পাওলোর ক্লাবটি নিশ্চিত করেছে, ব্রাজিলের সাবেক অনূর্ধ্ব-১৭ দলের এই ফুটবলারকে বাদ দেওয়া হয়েছে ক্লাব থেকে। তার অপকর্মের জন্যই এমন শাস্তি বলে জানিয়েছে ক্লাবটি।

রেনান চলতি মৌসুমে ধারে খেলতে গিয়েছেন রেড বুল ব্রাগানতিনোতে। ওই ক্লাবও তার সঙ্গে চুক্তি বাতিল করেছে ঘটনাটি শোনার সঙ্গে সঙ্গেই।

দুর্ঘটনাটি ঘটে সাওলো পাওলোতে। মদ্যপ অবস্থায় গাড়ি নিয়ে ভুল রাস্তায় ঢুকে পড়েন রেনান। সেখানে গিয়ে ধাক্কা দেন ৩৮ বছর বয়সী এই মোটরবাইক চালকে। এই ঘটনায় গুরুতর আহত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন ওই মোটরসাইকেল আরোহী।

আপাতত ৫০ হাজার ডলারের মতো জরিমানা দিয়ে জামিন পেয়েছেন রেনান। তবে তার বিরুদ্ধে অপরাধমূলক হত্যার অভিযোগ আনা হবে।

যদিও ইচ্ছেকৃতভাবে এই হত্যা করেননি রেনান। তবে যেহেতু তার লাইসেন্স ছিল না এবং মদ্যপ অবস্থায় গাড়ি চালাচ্ছিলেন, তাই ১০ বছর বা তার বেশি জেল হতে পারে ব্রাজিলিয়ান এই ফুটবলারের।


আরও খবর



সম্পত্তি লিখে না দেওয়ায় বাবাকে ‘গুম’

প্রকাশিত:Saturday ২৩ July ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ০৬ August ২০২২ | ৪০জন দেখেছেন
Image

লক্ষ্মীপুরে রায়পুরে সম্পত্তি লিখে না দেওয়ায় মোহাম্মদ উল্যা (৬০) নামে এক বৃদ্ধকে হাত-পা শিকল দিয়ে বেঁধে গুম করার অভিযোগ উঠেছে। তার চার ছেলে মাসুদ আলম, আলমগীর হোসেন, জাহাঙ্গীর আলম ও উজ্জ্বল হোসেনের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ আনা হয়েছে।

তবে অভিযুক্তরা বলছেন, মোহাম্মদ উল্যা মানসিকভাবে অসুস্থ। এজন্য তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। কিন্তু কোথায় আছেন তিনি, তা বলছেন না কেউই।

এদিকে, মোহাম্মদ উল্যা অসুস্থ নন বলে জানিয়েছেন তার বৃদ্ধ মা হালিমা খাতুন, বোন ফাতেমা খাতুন ও মেয়ে রাবেয়া সুলতানা। তাকে ফিরে পেতে ও অভিযুক্তদের শাস্তির দাবি জানিয়েছেন তারা।

অন্যদিকে, শুক্রবার (২২ জুলাই) বিকেলে মোহাম্মদ উল্যাকে অমানবিক নির্যাতন ও রাতের অন্ধকারে হাত-পা শিকল দিয়ে বেঁধে গুম করার প্রতিবাদে স্থানীয়রা সংবাদ সম্মেলন করেছেন। উত্তর চরবংশী ইউনিয়নের সর্বস্তরের জনগণের ব্যানারে এ আয়োজন করা হয়। এসময় মোহাম্মদ উল্যার মা, বোন ও মেয়েসহ অর্ধশতাধিক এলাকাবাসী উপস্থিত ছিলেন।

মোহাম্মদ উল্যাহ উপজেলার উত্তর চরবংশী ইউনিয়নের চরবংশী গ্রামের স্টিল ব্রিজ এলাকার বাসিন্দা ছিলেন।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মোহাম্মদ উল্যাহ ২২ বছর প্রবাস জীবন কাটিয়েছেন। প্রায় চার বছর আগে তিনি দেশে ফেরেন। এসেই স্ত্রী ও চার ছেলের কাছে বিদেশ থেকে পাঠানো টাকার হিসাব চান তিনি। ২২ বছর ধরে পাঠানো টাকার হিসাব না দিলেও তার ওপর ছেলেদের নির্যাতন চলতো প্রতিনিয়ত। এর জেরে শুক্রবার ভোরে তার হা-পা শিকলে বেঁধে ঘর থেকে বের করেন ছেলেরা। তার চিৎকারে পাশের আনোয়ার হোসেন সবুজ ও ইব্রাহিম ঘর থেকে বের হয়ে ঘটনাটি দেখতে পান। বাধা দিতে গেলে সবুজ ও ইব্রাহিমকে মারধর করেন ওই চারজন। একপর্যায়ে মোহাম্মদ উল্যাকে বাড়ি থেমে নিয়ে গুম করে রাখেন ছেলেরা।

সংবাদ সম্মেলন মোহাম্মদ উল্যার মা হালিমা খাতুন, বোন ফাতেমা খাতুন ও মেয়ে রাবেয়াসহ এলাকাবাসী জানায়, মোহাম্মদ উল্যা সুস্থ ও ভালো মানুষ ছিলেন। তিনি অসুস্থ ছিলেন না। ছেলেদের নামে সম্পত্তি লিখে না দেওয়ায় তাকে গুম করা হয়েছে। ছেলেরাই তাকে গুম করেছেন। মোহাম্মদ উল্যাকে ফেরত ও অভিযুক্তদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে তারা।

তবে অভিযুক্ত জাহাঙ্গীর আলমের দাবি, তার বাবা মানসিকভাবে অসুস্থ। বাবার কাছ থেকে তারা অনেক অত্যাচার সহ্য করেছেন। এজন্য মানসিকভাবে অসুস্থ বাবাকে তারা চিকিৎসার জন্য একটি সংস্থার কাছে দিয়েছেন। তারা তাকে হাসপাতালে ভর্তি করেছেন। তবে সেই সংস্থার নাম জানতে চাইলে তিনি বলতে রাজি হননি। একপর্যায়ে তিনি সাংবাদিকদের ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন।

অতিরিক্ত জেলা পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) পলাশ কান্তি নাথ সাংবাদিকদের বলেন, বিষয়টি জেনেছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। পুলিশ অভিযুক্ত ও অভিযোগকারীদের সঙ্গে কথা বলেছে। ঘটনাটি তদন্ত চলছে। বৃদ্ধকে উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।


আরও খবর



লটারি জিতে রাতারাতি কোটিপতি ইসলাম মণ্ডল

প্রকাশিত:Monday ১৮ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ০৫ August ২০২২ | ৭০জন দেখেছেন
Image

লটারিতে কোটি টাকা জিতে রাতারাতি কপাল খুলেছে পশ্চিমবঙ্গের পূর্ব বর্ধমান জেলার পারুলডাঙা এলাকার বাসিন্দা ইসলাম মণ্ডল ওরফে খোকনের (২৪)। রোববার (১৭ জুলাই) সন্ধ্যায় তিনি এ লটারি জেতেন। পুরো বর্ধমানে এখন আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে এ ঘটনা।

স্থানীয় ও পরিবার সূত্রে জানা গেছে, পরিবারের অভাব-অনটন দূর করতে মধ্যপ্রদেশে গিয়েছিলেন খোকন। সেখানে স্বর্ণকারের কাজ করতেন তিনি। মাসখানেক আগে তিনি বাড়ি ফিরে আসেন। এরপর থেকে মাঝে মধ্যেই লটারির টিকিট কিনতেন। রোববার তিনি ২৮০ টাকায় ৫০ সেমের লটারির টিকিট কেনেন। সন্ধ্যায় লটারির ফলাফল প্রকাশ হলে জানা যায়, প্রথম পুরস্কারের এক কোটি টাকা তার ভাগ্যেই জুটেছে।

প্রথমে বিষয়টি বিশ্বাসই করতে পারেননি খোকন। পরে বারবার টিকিটের নম্বর মিলিয়ে দেখেন, প্রথম পুরস্কার তিনিই জিতেছেন।

খোকন বলেন, আকস্মিক এ ঘটনায় পরিবারে আনন্দের জোয়ার বইছে। এ টাকা দিয়ে প্রথমেই জায়গা কিনে একটি বাড়ি করতে চাই, পরে ব্যবসাও করব।

খোকনের ভাই আজমত মণ্ডল জানান, আমরা তেমন পড়াশোনা জানি না। কাজকর্ম করে কোনোরকমে সংসার চালাই। দাদা শখেরবশে কিছুদিন আগে থেকে লটারির টিকিট কাটা শুরু করেন। তিনি কোটি টাকার পুরস্কার জেতায় আমরা খুব খুশি।


আরও খবর



ফেনীতে ট্রাক-অটোরিকশা সংঘর্ষে নারীসহ নিহত ২

প্রকাশিত:Friday ২২ July 20২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | ২৮জন দেখেছেন
Image

ফেনীতে ট্রাকের সঙ্গে সিএনজিচালিত অটোরিকশার সংঘর্ষে নারীসহ দুজন নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন অন্তত তিনজন।

শুক্রবার (২২ জুলাই) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শহরতলীর পাঁচগাছিয়া বাজারে এ দুর্ঘটনা ঘটে। তাৎক্ষণিক হতাহতদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

মহিপাল হাইওয়ে থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবদুস সামাদ জাগো নিউজকে বলেন, ট্রাকটি ছিল নোয়াখালীমুখী আর অটোরিকশাটি ছিল ফেনীমুখী। মুখোমুখি সংঘর্ষে অটোরিকশাচালক ও এক নারী যাত্রী নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অটোরিকশার আরও তিন যাত্রী।


আরও খবর



এক পায়ে লিখে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার স্বপ্ন পূরণ তামান্নার

প্রকাশিত:Friday ০৫ August ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ১৪জন দেখেছেন
Image

এক পা দিয়ে লিখে বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন তামান্না আক্তার নুরা এবার গুচ্ছভুক্ত ২২ বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের ‘ক’ ইউনিটে উত্তীর্ণ হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি ওয়েবসাইটে গুচ্ছের ‘ক’ ইউনিটের ফল প্রকাশিত হয়। এবারের পরীক্ষায় পাসের হার ৫৫ দশমিক ৬৩ শতাংশ। এর মধ্যে প্রকাশিত ফলাফলে তামান্নার নম্বর এসেছে ৪৮.২৫। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তামান্না আক্তার নুরা নিজেই।

৩০ জুলাই যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব একাডেমিক ভবনের কেন্দ্রীয় গ্যালারিতে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেন তামান্না। তিনি যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার বাঁকড়া আলীপুরের রওশন আলী ও খাদিজা পারভীন শিল্পী দম্পতির সন্তান।

অদম্য এ তরুণী শুধুমাত্র একটি পা দিয়ে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে সবকটি পাবলিক পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়ে চমক দেখিয়েছিলেন। তার এ সাফল্যে স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার বোন শেখ রেহেনা খোঁজ নেন। একইসঙ্গে তারা দুই বোন তামান্নার স্বপ্ন পূরণে এগিয়ে আসেন। তার চিকিৎসার যাবতীয় ব্যবস্থাও করেন বঙ্গবন্ধুর এ দুই কন্যা শেখ হাসিনা ও শেখ রেহেনা।

এদিকে, মেধাতালিকায় প্রাথমিকভাবে উত্তীর্ণ হয়ে উচ্ছ্বসিত তামান্না। তিনি বলেন, ‘প্রাথমিক রেজাল্টে খুশি লাগছে। মার্কসও ভালো। আশা করি যে কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পাবো। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার ইচ্ছা থাকলেও অন্য ভাই-বোনদের খরচ চালিয়ে বাবার পক্ষে আমাকে পড়ানো কঠিন হয়ে পড়বে। তাই যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (যবিপ্রবি) পড়ার ইচ্ছা।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমার যে মার্কস এসেছে তা দিয়ে যবিপ্রবিতে মাইক্রোবায়োলজি অনুষদভুক্ত চয়েজ দিতে পারবো।’

তামান্নার বাবা রওশন আলী বলেন, ‘মেয়ের স্বপ্ন গবেষণাধর্মী কোনো বিষয়ে পড়াশোনা করে বিসিএস দিয়ে সরকারি চাকরি নেওয়ার। স্বপ্ন পূরণে কয়েক মাস আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা দিয়েছিল। দুর্ভাগ্যবশত সেখানে তার সুযোগ হয়নি। যবিপ্রবিতে সে বিশ্ববিদ্যালয়ের গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষায়  অংশ নেয়। সেই রেজাল্টে উত্তীর্ণ হয়েছে। আশা করি স্বপ্ন পূরণে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পাবে সে। তবে যবিপ্রবিতে হলে তামান্না আর আমার পরিবারের জন্য ভালো। কেন না বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাব ও ব্যবহারিকের জন্য বিভিন্ন ভবনে যাওয়া-আসা করা লাগতে পারে তার। অন্য বিশ্ববিদ্যালয়ে লিফট নাই। যবিপ্রবিতে আছে। সেটা তামান্নার পড়াশোনার ক্ষেত্রে ভালো ভূমিকা রাখবে।


আরও খবর