Logo
আজঃ বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

প্রেসক্রিপশন ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রি অপরাধ: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২২ নভেম্বর 20২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৩৯৩জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক ;স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, ‘প্রেসক্রিপশন ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রি অপরাধ। আমাদের আইন আছে, কিন্তু প্রয়োগ করতে পারি না। আইনটা এখন আরও মজবুত করার উদ্যোগ নিয়েছি।’

আজ মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর লা মেরিডিয়ান হোটেলে ‘বিশ্ব অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল’ সপ্তাহ উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, ‘আমাদের জন্য নতুন চ্যালেঞ্জ অ্যান্টিবায়োটিক রেজিস্ট্যান্স। ঠিক মতো অ্যান্টিবায়োটিকের ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। রেজিস্ট্যান্স হয় কীভাবে, জনগণকে তা জানাতে হবে। যারা এ সেবার সঙ্গে জড়িত, সাধারণ মানুষ, যারা আমাদের থেকে সেবা নিচ্ছেন, তাদের সবাইকে অ্যান্টিবায়োটিক বিষয়ে জানাতে হবে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘মানুষ এখন যত্রতত্র অ্যান্টিবায়োটিক নিচ্ছে। আমাদের প্রেসক্রিপশন বেশি হয়। প্রেসক্রিপশনটা জুডিশিয়ালি করা উচিত। গ্রাম এলাকায় চিকিৎসক ছাড়াও অ্যান্টিবায়োটিক দেওয়া হচ্ছে। চিকিৎসক ছাড়া কেউই অ্যান্টিবায়োটিক দিতে পারবে না।’

জাহিদ মালেক বলেন, ‘যারা অ্যান্টিবায়োটিক খান, তারা অনেক সময় কোর্স পূরণ করেন না। এটাও ক্ষতিকর। আবার যেসব অ্যান্টিবায়োটিক দেওয়া হচ্ছে তাদের অধিকাংশের প্রয়োজন নেই। গ্রামাঞ্চলে এটা সবচেয়ে বেশি। সেখানে গ্রামীণ চিকিৎসক, যাদের স্বীকৃতি নেই তারা দিচ্ছেন। ঔষধ প্রশাসন বিষয়টি নিয়ে কাজ করছে। কিন্তু তাতেও হচ্ছে না। এটাতে আরও গুরুত্ব দিতে হবে।’

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘অ্যান্টিবায়োটিকের মারাত্মক ব্যবহার হচ্ছে ফার্মগুলোতে। গরু, মুরগি, মাছ ও মাংসে অ্যান্টিবায়োটিকে সয়লাব হয়ে গেছে। পোল্ট্রি খামারগুলোতে ব্যাপক আকারে অ্যান্টিবায়োটিকের ব্যবহার হচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনা অনুযায়ী যতটুকু ব্যবহার করা উচিত, তার বাইরে যাতে না হয় সেটা দেখতে হবে। বর্জ্যের কারণে মাছ ও মাংস খাওয়ার মাধ্যমে আমাদের শরীরে জটিল ব্যাকটেরিয়া প্রবেশ করছে। ফলে অ্যান্টিবায়োটিক আর কাজ করছে না।’

অনুষ্ঠানে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহম্মদ ইউসুফ বলেন, ‘অ্যান্টিবায়োটিকের অপব্যবহার অনেক বেশি। এটা রোধে শক্ত আইনের বিকল্প নেই। ইতোমধ্যে কোয়ালিটি ঠিক না রাখায় ২৭ কোম্পানির নিবন্ধন বাতিল করা হয়েছে। অযাচিত অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহারের আইন প্রস্তুত করা হয়েছে। আগামী সংসদে সেটা পাস হবে।’

এ সময় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) অধ্যাপক ডা. আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম বলেন, ‘অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহার নিয়ন্ত্রণে ব্যবস্থাপত্র ও ফুল ডোজ ছাড়া ওষুধ বিক্রি বন্ধ নিশ্চিত করতে হবে। তবে, শুধু আইন করে এটা রোধ করা সম্ভব নয়। মানুষের সচেতনতা বাড়ানোর বিকল্প নেই।’


আরও খবর



বাংলাদেশের বাজারে লঞ্চ হলো টেকনো স্পার্ক ২০ প্রো+

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৪৬জন দেখেছেন

Image

প্রযুক্তি ডেস্ক:২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ঢাকা: গ্লোবাল শীর্ষস্থানীয় মোবাইল ফোন নির্মাতা টেকনো বাংলাদেশে আনুষ্ঠানিকভাবে উন্মোচন করেছে তাদের স্পার্ক ২০ সিরিজের নতুন সংযোজন স্পার্ক ২০ প্রো+। ডাবল কার্ভড্‌ ডিজাইনের এ ফোনে রয়েছে ১০৮ মেগাপিক্সেল আল্ট্রা সেন্সিং মেইন ক্যামেরা, হেলিও জি৯৯ আলটিমেট প্রসেসর, ২৫৬ জিবি স্টোরেজ এবং ১৬জিবি (৮জিবি+৮জিবি) র‍্যাম আরও অনেক ফিচার্স।

স্পার্ক ২০ প্রো+ এ রয়েছে কর্নিং গরিলা গ্লাস ৫ দ্বারা সুরক্ষিত ৬.৭৮-ইঞ্চির ১২০ হার্জ কার্ভড্‌ এমোলেড ডিসপ্লে যার সর্বোচ্চ ব্রাইট্‌নেস ১০০০ নিট্‌স। এর স্মুথ এবং প্রিমিয়াম ডুয়াল- কার্ভড্‌ ডিজাইন প্রদান করবে আরামদায়ক এবং স্টাইলিশ গ্রিপ। টেকনো স্পার্ক ২০ প্রো+-এর ১.৭৫ অ্যাপারচার যুক্ত ১০৮ মেগাপিক্সেল আল্ট্রা সেন্সিং মেইন ক্যামেরার পাশাপাশি রয়েছে ২ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো ক্যামেরা এবং ২ মেগাপিক্সেল AI ক্যামেরা৷ মেইন ক্যামেরা্ যা দিনের বেলার পাশাপাশি লো লাইটেও ক্লিয়ার ছবি তুলতে সক্ষম। ৩২ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা নিশ্চিত করে প্রাণবন্ত সেলফি। 2K ভিডিও রেকর্ডিং এর সাথে এ ফোনে রয়েছে ডুয়াল ভিডিও রেকর্ডিং ফিচার যার মাধ্যমে ৩২ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা এবং ১০৮ মেগাপিক্সেলের রিয়ার ক্যামেরায় একত্রে ভিডিও রেকর্ড করা সম্ভব।

স্পার্ক ২০ প্রো+-এ রয়েছে নতুন এবং শক্তিশালী হেলিও জি৯৯ আলটিমেট প্রসেসর চিপসেট, যা এর এআই-চালিত অরোরা ইঞ্জিন ২.০ এবং ডারউইন ইঞ্জিন ২.০ এর সাহায্যে গেমিংয়ে অপ্টিমাইজড্‌ পারফরম্যান্স নিশ্চিত করে । ২৫৬ জিবি স্টোরেজ এবং ১৬জিবি (৮জিবি+৮জিবি) র‍্যামের এ ফোনটি অ্যান্ড্রয়েড ১৪ ভিত্তিক হাইওএস অপারেটিং সিস্টেম দ্বারা চালিত। এছাড়া উপরে এবং নিচে এর ডুয়াল স্পিকারের সাথে রয়েছে ডিটিএস সাউন্ড প্রযুক্তি। দীর্ঘ সময় ব্যবহারের জন্য এতে রয়েছে একটি ৫,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি এবং সাথে থাকছে একটি ৩৩ ওয়াট সুপার চার্জার। ধুলোবালি এবং পানি থেকে ফোনকে রক্ষা করতে এতে রয়েছে আইপি৫৩ রেটিং। টেকনোর এ নতুন ফোনটি পাওয়া যাচ্ছে টেম্পোরাল অরবিট, লুনার ফ্রস্ট এবং ম্যাজিক স্কিন ২.০ গ্রিন- এ ৩টি মনোমুগ্ধকর রঙে।

নতুন টেকনো স্পার্ক ২০ সিরিজের যাত্রাকে স্মরণীয় করে রাখতে টেকনো ঘোষণা করেছে টেকনো স্পার্ক ২০ সিরিজ মিউজিক ফেস্ট, যেখানে আসছেন ভারতের জনপ্রিয় র‍্যাপার, গীতিকার, গায়ক এবং সঙ্গীত প্রযোজক বাদশাহ। বহুল প্রত্যাশিত অনুষ্ঠানটি ১লা মার্চ ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরা (ICCB, Expo Zone) এ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। বাদশাহ্‌র সঙ্গে মঞ্চে যোগ দিচ্ছেন ফুয়াদ

অ্যান্ড ফ্রেন্ডস, প্রীতম হাসান, জেফার, ব্ল্যাক জ্যাং এবং সঞ্জয় সহ প্রখ্যাত বাংলাদেশি শিল্পীরা।টেকনো স্পার্ক ২০ সিরিজ মিউজিক ফেস্ট এবং স্পার্ক ২০ প্রো+ সম্পর্কে আরও তথ্যের জন্য চোখ রাখুন টেকনোর ফেসবুক পেইজে: facebook.com/TECNOMobileBangladesh


আরও খবর



বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এমপি হচ্ছেন ৫০ নারী

প্রকাশিত:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৪৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:দ্বাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত ৫০টি নারী আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ঘোষণা করেছে ইসি,মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষে সব মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। শেষদিনে কোনো প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেননি। ফলে ৫০ জন নারী প্রার্থীকে নির্বাচিত ঘোষণা করেছে ইসি।

আগামী মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) এ সংক্রান্ত গেজেট প্রকাশ করা হবে। রোববার (২৫ ফেব্রুয়ারি) সংরক্ষিত নারী আসনে নির্বাচনের দায়িত্বপ্রাপ্ত রিটার্নিং কর্মকর্তা (যুগ্ম সচিব) মুনিরুজ্জামান তালুকদার এসব তথ্য জানান।

তিনি বলেন, দ্বাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনে নির্বাচনে ৫০ প্রার্থীর সবার মনোনয়নপত্র বৈধ বলে ঘোষণা করা হয়েছে। ২৫ ফেব্রুয়ারি মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন রাখা হয়েছিল। কোনো প্রার্থী তাদের প্রার্থিতা প্রত্যাহার না করায় সবাইকে নির্বাচিত ঘোষণা করা হয়েছে। এদের মধ্যে ৪৮ জন আওয়ামী লীগের প্রার্থী ও দু’জন জাতীয় পার্টির। এসব প্রার্থীদের নামে মঙ্গলবার গেজেট ঘোষণা হবে, যেহেতু সোমবার সরকারি ছুটির দিন।

সংরক্ষিত নারী আসনে আওয়ামী লীগের মনোনীত এমপিরা হলেন-

১. রেজিয়া ইসলাম (পঞ্চগড়)

২. দ্রৌপদী দেবি আগরওয়াল (ঠাকুরগাঁও)

৩. আশিকা সুলতানা (নীলফামারী)

৪. রোকেয়া সুলতানা (জয়পুরহাট)

৫. কোহেরী কুদ্দুস মুক্তি (নাটোর)

৬. জারা জেবিন মাহবুব (চাঁপাইনবাবগঞ্জ)

৭. রুনু রেজা (খুলনা)

৮. ফরিদা আক্তার বানু (বাগেরহাট)

৯. ফারজানা সুমি (বরগুনা)

১০. খালেদা বাহার বিউটি (ভোলা)

১১. ফরিদা ইয়াসমিন (নরসিংদী)

১২. উম্মে ফারজানা সাত্তার (ময়মনসিংহ)

১৩. নাদিরা বিনতে আমির (নেত্রকোনা)

১৪. মাহফুজা সুলতানা মলি (জয়পুরহাট)

১৫. পারভীন জামান কল্পনা (ঝিনাইদহ)

১৬. আরমা দত্ত (কুমিল্লা)

১৭. লায়লা পারভীন (সাতক্ষীরা)

১৮. মুন্নুজান সুফিয়ান (খুলনা)

১৯. বেদৌরা আহমেদ সালাম (গোপালগঞ্জ)

২০. শবনম জাহান (ঢাকা)

২১. পারুল আক্তার (ঢাকা)

২২. সাবেরা বেগম (ঢাকা)

২৩. শাম্মী আহমেদ (বরিশাল)

২৪. নাহিদ ইজহার খান (ঢাকা)

২৫. ঝর্ণা আহসান (ফরিদপুর)

২৬. ফজিলাতুন নেছা (মুন্সীগঞ্জ)

২৭. সাহেদা তারেক দীপ্তি (ঢাকা)

২৮. অনিমা মুক্তি গোমেজ (ঢাকা)

২৯. শেখ আনার কলি পুতুল (ঢাকা)

৩০. মাসুদা সিদ্দিক রোজী (নরসিংদী)

৩১. তারানা হালিম (টাঙ্গাইল)

৩২. শামসুন নাহার (টাঙ্গাইল)

৩৩. মেহের আফরোজ চুমকি (গাজীপুর)

৩৪. অপরাজিতা হক (টাঙ্গাইল)

৩৫. হাসিনা বারী চৌধুরী (ঢাকা)

৩৬. নাজমা আক্তার (গোপালগঞ্জ)

৩৭. ফরিদুন্নাহার লাইলী (লক্ষ্মীপুর)

৩৮. আশরাফুন নেছা (লক্ষ্মীপুর)

৩৯. কানন আরা বেগম (নোয়াখালী)

৪০. শামীমা হারুন লুবনা (চট্টগ্রাম)

৪১. ফরিদা খানম (নোয়াখালী)

৪২. দিলারা ইউসুফ (চট্টগ্রাম)

৪৩. ডরথি তঞ্চঙ্গা (রাঙ্গামাটি)

৪৪. সানজিদা খানম (ঢাকা)

৪৫. নাছিমা জামান ববি (রংপুর)

৪৬. নাজনীন নাহার রোশা (পটুয়াখালী)

৪৭. ওয়াসিকা আয়শা খান (চট্টগ্রাম)

৪৮. রুমা চক্রবর্তী (সিলেট)

অন্যদিকে জাতীয় পার্টি থেকে সাবেক সংসদ সদস্য সালমা ইসলাম ও দলের ভাইস চেয়ারম্যান নুরুন নাহার এমপি নির্বাচিত হয়েছেন।


আরও খবর



মন্দিরের শতবর্ষী নিমগাছ কর্তন! ক্ষোভ

প্রকাশিত:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৪২জন দেখেছেন

Image
আব্দুস সবুর তানোর থেকে:হয়তো তিনশত, না তার অধিক, কিংবা আড়াশত বছরের কম হবেনা নিম গাছটির বয়স, গাছের সাথেই গড়ে উঠেছিল মন্দির, পুজাসহ যাবতীয় ধর্মীয় কার্যক্রম পরিচালিত হত। প্রথমে মন্দির ভেঙে ফেলা হয়, পরে স্মৃতি বহ নিম গাছটিও কর্তন করা হয়েছে। স্মৃতি বহ গাছটি কর্তন করার কারনে সকল শ্রেণী পেশার মানুষের হ্নদয়ে যেন রক্ত ক্ষরন হয়েছে, বিশেষ করে চরম ভাবে মর্মাহত হয়েছেন হিন্দু সম্প্রদায়ের জনসাধারণ। রাজশাহীর তানোর পৌর এলাকার তালন্দ সুমাসপুর মোড়ে শতবর্ষী নিম গাছ কাটার ঘটনা ঘটেছে। হঠাৎ করে শতবর্ষী গাছ কাটা নিয়ে নানা প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে, সেই সাথে পরিবেশের মারাত্মক ক্ষতি সাধন হয়েছে বলে মনে করছেন পরিবেশ বীদ রা।

সরেজমিনে দেখা যায়, তানোর পৌর এলাকার তালন্দ বাজার পার হয়ে সুমাসপুর মোড় ও মুল রাস্তা। রাস্তার পূর্ব দিকে মন্দির ও নিমগাছ ছিল। বিভিন্ন সময়ে হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন পুজাসহ তাদের ধর্মীয় কার্যক্রম করত। কিন্তু হঠাৎ করে মন্দির ভেঙে ফেলা হয়। আগের মন্দির ভেঙে তার উত্তর পূর্ব দিকে নতুন ভাবে মন্দির নির্মান করা হচ্ছে। সকাল থেকেই আড়াশ বা তিনশত বছরের পুরাতন নিম গাছের ডালপালা কেটে সাবাড় করে ফেলা হয়েছে। গাছ কাটা মিস্তিরা তেমন কিছু না বললেও সেখানে ছিলেন জায়গায় মালিক মিলন মৃধা। তার কাছে গাছ কাটার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান মন্দির কমিটির লোকজন গাছ বিক্রি করেছে। অনেকে বলছে গাছ আপনারা কেটেছেন জানতে চাইলে তিনি জানান তারা ভূল কথা বলেছে।স্থানীয়রা জানান, মন্দিরের জায়গা নিয়ে মৃত ইসমালের সাথে মামলা চলে আসছিল। স্থানীয় ভাবে বসে মিমাংসা করে পূর্বের মন্দির ভেঙে পার্শ্বেই নতুন মন্দির করে দিচ্ছে তারা এবং শতবর্ষী নিমগাছও নিয়েছেন মৃত ইসমাঈলের পরিবারেরা।

তবে হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, দীর্ঘ দিন ধরে মন্দিরে পূজাসহ ধর্মীয় কার্যক্রম করা হত এবং মন্দিরের সাথেই নিমগাছ ছিল। গাছটির বয়স কত কেউ প্রকৃত ভাবে বলতে পারবেনা। গাছটিকেও আমরা পূজা করতাম। দীর্ঘ দিন ধরে মন্দিরে জায়গা নিয়ে মামলা চলে আসছিল। কিছু দিন আগে স্থানীয় ভাবে বসে মিমাংসা করে নিয়েছে, এজন্য স্মৃতি বহ গাছটিও কাটা পড়ল। গাছ কাটা দেখে অনেকের চোখে পানি চলে এসেছে।

পৌরসভার এক নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর তাসির উদ্দিন জানান, আপোষ মিমাংসা করার পর গাছ কেটেছে মৃত ইসমাঈল মৃধার ছেলে মিলন মৃধা। জায়গার মামলা ছিল ও শতবর্ষী গাছ কিভাবে কাটলেন জানতে চাইলে তিনি জানান, মামলা মোকদ্দমা সলেনামা করে মিমাংসা করার পর গাছ তাদের হয়েছে,  ব্যক্তিগত গাছ কাটতে কোন অনুমতির প্রয়োজন হয়না।

সুত্র মতে, বাগান বা শতবর্ষী গাছ সহ যে কোন গাছ কাটতে হলে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের অনুমতি নিতে হবে মর্মে আইন রয়েছে। 

উপজেলা বন কর্মকর্তা আব্দুল মান্নান বলেন, যে কোন গাছ কাটতে হলে অনুমতি নিতে হবে। কিন্তু এবিষয়ে জনমনে সচেতনতা নেই। আর শতবর্ষী গাছ কাটতে হলে তো অনুমতির প্রয়োজন হয়। তবে ব্যক্তিগত গাছের ক্ষেত্রে কেউ অনুমতি নেয়না। তারপরও কেউ অভিযোগ করলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আরও খবর



স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে সরকারের নবম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে হবে: জনপ্রশাসনমন্ত্রী

প্রকাশিত:শনিবার ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১৪০জন দেখেছেন

Image

মজনুর রহমান আকাশ, মেহেরপুর প্রতিনিধি:২০৪১ সালের স্মার্ট বাংলাদেশা গড়ার পথে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ। এ লক্ষ্যের জন্য সরকারের নবম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা বাস্তবায়ন অত্যন্ত জরুরী।

আজ শনিবার দুপুরে মেহেরপুর জেলা প্রশাসন আয়োজিত সংবর্ধনা সভায় প্রধান অতিতির বক্তৃতায় সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারীদে উদ্দেশ্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন তিনি।

বক্তৃতায় মন্ত্রী বলেন, সরকারী দপ্তরের প্রতিটি বিভাগের এপিআই আছে। আমরা যথাযথভাবে এপিআই মূল্যায়ন করছি। সরকারি কর্মকর্তাদের কাজের অনুকুল পরিবেশ তৈরী করে দিয়েছি। এপিআই মূল্যায়নে মেহেরপুর জেলার সকল সরকারি কার্যালয় সবার সেরা হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

পূর্ণমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পাওয়ায় এ সংবর্ধার আয়োজন করে মেহেরপুর জেলা প্রশাসন।সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সভাপত্বি করেন মেহেরপুর জেলা প্রশাসক শামিম হাসান। মুজিবনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি রবিউল ইসলাম, মেহেরপুর পুলিশ সুপার এসএম নাজমুল হকসহ জেলার সকল সরকারি দপ্তর, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে জনপ্রশাসনমন্ত্রী ফরহাদ হোসেনকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়।

গেল সরকারের প্রতিমন্ত্রী হিসেবে সফল দায়িত্ব পালনের পর এবার মন্ত্রী সভায় পুর্ণ মন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছেন মেহেরপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য ফরহাদ হোসেন।


আরও খবর



কাঞ্চন-পিঙ্কির বিচ্ছেদ চূড়ান্ত

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৮৩জন দেখেছেন

Image

বিনোদন প্রতিনিধি:অবশেষে দীর্ঘ আইনি জটিলতার অবসান। ভারতীয় বাংলা সিনেমার অভিনেতা কাঞ্চন মল্লিক ও পিঙ্কি বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিবাহবিচ্ছেদ সম্পন্ন হয়েছে। সূত্রের বরাত দিয়ে সেখানকার গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, গত ১০ জানুয়ারি তাদের বিবাহবিচ্ছেদের পক্ষে রায় দিয়েছে আদালত।

কয়েক বছর আগে কাঞ্চন-পিঙ্কির বৈবাহিক জীবনে ঝড় ওঠে। একে অপরের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। বেশ কিছুদিন চলতে থাকে অভিযোগ এবং পাল্টা অভিযোগের পালা।

টেলি অভিনেত্রী শ্রীময়ী চট্টরাজের সঙ্গে কাঞ্চন ‘পরকীয়া’য় জড়িয়েছেন বলে খবর ছড়ায় টলিপাড়ায়। তারপর থেকেই দম্পতি আলাদা থাকতে শুরু করেন। নিন্দুকরা বলেন, কাঞ্চন-পিঙ্কির বিচ্ছেদের নেপথ্যে অভিনেতার ‘পরকীয়া’ই দায়ী। পরবর্তী সময়ে একে অপরের থেকে বিবাহবিচ্ছেদ চেয়ে পরে তারা আদালতের দ্বারস্থ হন। অবশেষে গত মাসে যুগলের আইনি বিচ্ছেদ সম্পন্ন হয়েছে। শোনা যাচ্ছে, বিবাহবিচ্ছেদ পেতে পিঙ্কিকে মোটা টাকা খোরপোশ দিতে হয়েছে কাঞ্চনকে।

বিচ্ছেদ প্রসঙ্গে কাঞ্চন বলেন, ‘খবরটা সত্য। এর বেশি আমি কিছু বলতে চাই না।’

অন্যদিকে পিঙ্কি বলেন, ‘হ্যাঁ। আমাদের বিবাহবিচ্ছেদ হয়েছে। কাজের মধ্যে ডুবে আছি। ভালো আছি।’

কাঞ্চন-পিঙ্কির পুত্র ওশ এখনও প্রাপ্তবয়স্ক হয়নি। তাই আপাতত আদালত তাকে মায়ের সঙ্গেই থাকার অনুমতি দিয়েছে।


আরও খবর

ধ্রুব মিউজিক স্টেশনের ৭ম বর্ষপূর্তি

শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪