Logo
আজঃ Sunday ২৪ October ২০২১
শিরোনাম
সরকারি খরচে প্রবাসীদের মরদেহ দেশে নেওয়াসহ ১০ দফা দাবি

প্রবাসীদের অধিকার নিশ্চিতে ১০ দফা দাবি

প্রকাশিত:Sunday ১০ October ২০২১ | হালনাগাদ:Sunday ২৪ October ২০২১ | ৫৭জন দেখেছেন
ডেস্ক এডিটর

Image

 

ডেস্ক এডিটর :

 

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে কর্মরত প্রায় ১ কোটি ২০ লাখের বেশি বাংলাদেশি নাগরিকের অধিকার সংরক্ষণ, সরকারি খরচে প্রবাসীদের মরদেহ দেশে নেওয়াসহ ১০ দফা দাবি আদায়ে বাংলাদেশ প্রবাসী অধিকার পরিষদ কুয়েত শাখার উদ্যোগে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 

বাংলাদেশ প্রবাসী অধিকার পরিষদ কুয়েত শাখার সভাপতি কাউসার সিকদারের সভাপতিত্বে সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আমানউল্লাহ আমানের সঞ্চালনায় শুক্রবার (৮ অক্টোবর) কুয়েত সিটির রাজধানী হোটেলে এ সভা হয়।

 

পবিত্র কোরআন থেকে তিলাওয়াত এবং জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ প্রবাসী অধিকার পরিষদের কেন্দ্রীয় সংসদের ভারপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক সিফাত নুর।

 

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় সংসদের সাবেক সংস্কৃতিবিষয়ক সম্পাদক রবিউল হক, কুয়েত শাখার সহ-সভাপতি মো. বিল্লাল পাটোয়ারী ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. সোহাগ মিয়া। অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য দেন বাংলাদেশ প্রবাসী অধিকার পরিষদ কুয়েত শাখার সভাপতি কাউসার সিকদার।

 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিফাত নুর বলেন, বিশ্বের প্রায় দেড় কোটি প্রবাসীর প্রতিনিধিত্বকারী সংগঠন বাংলাদেশ প্রবাসী অধিকার পরিষদের ১০ দফা দাবি আদায়ে সরকারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হবে। ১০ দফা দাবি আদায়ে বিশ্বের সব বাংলাদেশি প্রবাসীদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

প্রবাসী অধিকার পরিষদের ১০ দফা দাবি হলো-

১. প্রবাসে মারা যাওয়া বাংলাদেশি নাগরিকদের মরদেহ রাষ্ট্রীয় খরচে দেশে নেয়া।

২. প্রবাসীদের জাতীয় পরিচয়পত্র ও ভোটাধিকার দিতে হবে।

৩. বিমানবন্দরে প্রবাসী হয়রানি বন্ধ করতে হবে।

৪. প্রবাসীদের দ্বৈত নাগরিকত্ব ও পেনশন সুবিধা।

৫. দালালমুক্ত পাসপোর্ট ও দূতাবাস সেবা।

৬. প্রবাসী সুরক্ষা আইন প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন।

৭. জাতীয় বাজেটে প্রবাসীদের জন্য বিশেষ বরাদ্দ।

৮. বিদেশে কাগজপত্রবিহীন প্রবাসীদের বৈধকরণে সরকারের সহযোগিতা।

৯. বিদেশে প্রবাসীদের জন্য পর্যাপ্ত শ্রম কল্যাণ উইং।

১০. অভিবাসন ব্যয় ১ লাখ টাকার মধ্যে সীমাবদ্ধ ও প্রবাস ফেরতদের কর্মসংস্থান, সুদমুক্ত পর্যাপ্ত ঋণ।

 

অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সংস্কৃতিবিষয়ক সম্পাদক রবিউল হক, কুয়েতের সহ-সভাপতি মো. বিল্লাল পাটোয়ারী, কুয়েতের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সোহাগ মিয়াসহ কুয়েত শাখার সহ-সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম, রেজওয়ান আহম্মেদ, এনামুল হক, শেখ নুর, আসাদুল ইসলাম, রিয়াদ মেহেদি, শফিকুল ইসলাম, মোস্তাকিম প্রমুখ।

 

অনুষ্ঠানে ছিলেন সংগঠনটির প্রধান উপদেষ্টা নুরুল হক নুর, কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি জার্মান প্রবাসী ইঞ্জিনিয়ার কবীর হোসেন, সাধারণ সম্পাদক লন্ডনপ্রবাসী বিপ্লব কুমার পোদ্দার।সংবর্ধনা ও মতবিনিময় সভায় সদস্যদের মধ্যে সাংগঠনিক কর্মদক্ষতায় সম্মাননা স্মারক দেওয়া হয়। এছাড়া প্রবাসীদের স্বার্থে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে সংবাদ পরিবেশনায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখায় সংবাদকর্মীদের সংগঠনের পক্ষ থেকে সম্মাননা স্মারক দেওয়া হয়।

খবর প্রকিদিন / সি.বা 


আরও খবর



কলেজছাত্রকে তুলে এনে বিয়ে, তরুণীর বিরুদ্ধে মামলা

২৩ বছরের এক ছেলেকে অপহরন করে নিয়ে ২৫ বছরের এক মেয়ের জোরপূর্বক বিয়ে

প্রকাশিত:Monday ১৮ October ২০২১ | হালনাগাদ:Sunday ২৪ October ২০২১ | ৪২৯জন দেখেছেন
ডেস্ক এডিটর

Image


২৩ বছরের এক ছেলেকে অপহরন করে নিয়ে ২৫ বছরের এক মেয়ের জোরপূর্বক বিয়ে ! পটুয়াখালী সরকারি কলেজের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের ছাত্র নাজমুল আকনকে অপহরণ করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে জোর করে বিয়ে করার অভিযোগ উঠেছে এক তরুণী । এ ঘটনায় নাজমুল বাদী হয়ে পটুয়াখালী সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা করেছেন।

 

মামলায় ইশরাত জাহান পাখি  নামের ওই তরুণীসহ অজ্ঞাতপরিচয় ছয় থেকে সাতজনকে আসামি করা হয়েছে। মামলাটি গ্রহণ করে পটুয়াখালী সদর থানাকে নথিভুক্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

 

এদিকে নাজমুলকে জোর করে বিয়ে করার একটি ভিডিও চিত্র আদালতে উপস্থাপন করা হয়েছে। মামলা দায়েরের পর  ১৫ অক্টোবর দুপুর থেকে ওই নারী নিজেকে নাজমুলের স্ত্রী দাবি করে নাজমুলের বাবার বাড়ি মির্জাগঞ্জে অবস্থান করছেন। এ ঘটনায় মির্জাগঞ্জ এলাকায় চাঞ্চল্যর সৃষ্টি হয়েছে।

 

নাজমুল মির্জাগঞ্জ উপজেলার মির্জাগঞ্জ ইউনিয়নের জালাল আকনের ছেলে। অভিযুক্ত ইশরাত জাহান পাখি একই উপজেলার গাজিপুর সাকিনের মো. আউয়ালের মেয়ে।

আসামি ইশরাত জাহান পাখি দীর্ঘদিন ধরে নাজমুলকে মোবাইল ফোনে এবং সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রেমের প্রস্তাবসহ বিয়ের প্রলোভন দেখান। কিন্তু নাজমুল রাজি না হওয়ায় গত ২৭ সেপ্টেম্বর পটুয়াখালী লঞ্চঘাট এলাকা থেকে নাজমুলকে অপহরণ করা হয়। পরদিন অজ্ঞাত একটি স্থানে নিয়ে সাত থেকে আটজন ব্যক্তি তাকে বলপূর্বক তাকে একটি নীল কাগজে সই করতে বাধ্য করেন। পরে তাকে ওইদিনই শহরে ছেড়ে দেওয়া হয়। ধারণা করা হচ্ছে, এ দিয়ে তারা একটি কাবিননামা তৈরির পায়তারা করছেন।

 

এদিকে নাজমুলকে অপহরণ এবং পরে জোর করে বিয়ে করার একটি ভিডিও ফুটেজ আদালতে উপস্থাপন করা হয়েছে।

৪৮ সেকেন্ডের ওই ফুটেজে দেখা যায়, একটি কক্ষে একজন তরুণীর বাম পাশে নাজমুল বসে আছেন। পেছন থেকে নাজমুলের মাথার ধরে রেখেছেন এক ব্যক্তি। সেখানে আরও কয়েকজনের উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়। ভিডিওতে ওই তরুণীতে নীল কাগজে সই করতে দেখা গেছে। সই করার পর তরুণীকে মিষ্টি খাইয়ে দেন একজন। পরে নাজমুলের মুখে মিষ্টি দিলে তিনি ফেলে দেন।

 

খবর প্রতিদিন/ সি.বা


আরও খবর



সিসি ক্যামেরা ফুটেজ দেখে মণ্ডপে কোরআন রাখা ব্যক্তি শনাক্ত

কুমিল্লার পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা ব্যক্তি শনাক্ত

প্রকাশিত:Wednesday ২০ October ২০21 | হালনাগাদ:Sunday ২৪ October ২০২১ | ৩৫৩জন দেখেছেন
ডেস্ক এডিটর

Image


 

কুমিল্লার পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন রাখা ব্যক্তিকে সিসি টিভি ফুটেজ দেখে শনাক্ত করা হয়েছে। ওই ব্যক্তির নাম ইকবাল হোসেন। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

বুধবার রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ভিডিওটি আমি দেখেছি। এতে দেখা যাচ্ছে এক যুবক মসজিদ থেকে কোরআন শরিফ নিয়ে রাস্তার দিকে আসে। কিছুক্ষণ পর দেখলাম তার হাতে কোরআন শরিফ নেই। হনুমান ঠাকুরের গদা হাতে নিয়ে তিনি ঘোরাঘুরি করছেন।

 

মন্ত্রী আরও বলেন, আমি গতকালও বলেছি তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। আমাদের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। ওই যুবক মোবাইল ব্যবহার না করার কারণে তাকে ট্র্যাক করা যাচ্ছিল না। এখন পর্যন্ত তিনি ঘন ঘন স্থান পরিবর্তন করছেন। আমরা তাকে নজরদারিতে রেখেছি। যে কোনো সময় তাকে গ্রেফতার করা হবে।

 

১৩ অক্টোবর রাত ২টা ১০ মিনিটের দিকে মসজিদ থেকে ওই যুবক কোরআন শরিফ হাতে নিয়ে বের হয়ে আসছেন। এরপর রাত ২টা ১১ মিনিটে তিনি মসজিদ থেকে মূল সড়কে উঠে মন্দিরের দিকে হেঁটে যান।

 

আরেকটি সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, রাত ৩টা ১২ মিনিটে যুবকটির হাতে কোরআন শরিফ নেই। তিনি এসময় গদা কাঁধে নিয়ে মন্দিরের পাশে পুকুরপাড়ের রাস্তায় হাঁটাহাঁটি করছিলেন। এসময় তিনি চারপাশে তাকিয়ে দেখছিলেন কেউ তাকে দেখছে কি-না।

 

খবর প্রতিদিন /সি.বা 


আরও খবর



আমরা আজকে ফেসবুকে যা নিয়ে কথা বার্তা বলছি সেটাই বুঝি বাংলাদেশ

বাংলাদেশের প্রায় ১২ কোটি মানুষের কোন আগ্রহই নেই ফেসবুকে

প্রকাশিত:Sunday ১০ October ২০২১ | হালনাগাদ:Saturday ২৩ October ২০২১ | ১২৩জন দেখেছেন
Image


 

Solaiman Shukhon  এর পেইজ থেকে নেয়া

 

 

আমরা ঢাকা বা কিছু বিভাগীয় শহরে বাস করা মানুষজন নিজেদেরকে বেশ খানিকটা পন্ডিত মনে করি |আমরা ভাবি আমরা আজকে ফেসবুকে যা নিয়ে কথা বার্তা বলছি সেটাই বুঝি বাংলাদেশ |

 

বাংলাদেশের প্রায় ১২ কোটি মানুষের কোনো অংশগ্রহণ এবং আগ্রহই নেই এসবে |

অধিকাংশ বাংলাদেশিদের মনোযোগ তার গ্রাম তার ধানক্ষেত তার মাছ ধরার নৌকা কিংবা বিদেশে কাজ করতে যাওয়া ছেলেকে নিয়ে |

 

শহরের কিছু মানুষ ফোনের স্ক্রিনে কি দেখে হাহা হিহি করছে সেটা এখনো বাংলাদেশকে রিপ্রেসেন্ট করে না | শহরের আমরা নিজেদের যতটা পন্ডিত মনে করি আমরা আসলে ততটা পন্ডিত না 🙂|

 

 

 

 


আরও খবর



ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গাঁজা খাওয়া নিয়ে বাকবিতণ্ডা, ছুরিকাঘাতে যুবক নিহত

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গাঁজা খাওয়া নিয়ে কথাকাটাকাটি ছুরিকাঘাতে যুবক নিহত

প্রকাশিত:Thursday ২১ October 20২১ | হালনাগাদ:Sunday ২৪ October ২০২১ | ১৫৭জন দেখেছেন
ডেস্ক এডিটর

Image


 

গাঁজা সেবন নিয়ে বাকবিতণ্ডার জেরে শেখ আকাশ (২০) নামে এক যুবককে ছুরিকাঘাতে হত্যার অভিযোগ উঠেছে।বুধবার (২০ অক্টোবর) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সুলতানপুর গ্রামের সুলতানপুর মধ্যপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।নিহত আকাশ ওই গ্রামের শেখবাড়ির উত্তরপাড়ার হুমায়ুনের ছেলে। তিনি চিনাইর ডিগ্রি কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্র।

 

হাসপাতাল ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, দুপুরে সুলতানপুর গ্রামের দক্ষিণপাড়ার একটি স্কুলের সামনে আকাশ গাঁজা সেবন করেন বলে অভিযোগ করা হয়। এতে তার সঙ্গে বাকবিতণ্ডা হয় উত্তরপাড়ার রিফাতের। এসময় বিষয়টি মীমাংসা করে দেন স্থানীয়রা। আর তাদের বাড়ি ফিরে যেতে বলেন।

 

পরে বিকেলে সুলতানপুর বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে আকাশ বন্ধুদের নিয়ে খেলা দেখতে যান। খেলা শেষে মধ্যপাড়া এলাকায় আড্ডা দেওয়ার সময় রিফাত ও তার সহযোগীরা আকাশের ওপর অতর্কিতভাবে হামলা করে। এসময় আকাশের বুকে ও মাথায় ছুরিকাঘাত করেন রিফাত।

স্থানীয়রা গুরুত্বর আহত অবস্থায় আকাশকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

 

এ ঘটনায় আরও চারজন আহত হয়েছেন। তারা হলেন, ফায়েজ (১৬), আরমান (২০), রাকিব (১৪) ও মাসুম (১৭)। তাদের বাড়ি সদর উপজেলার সুলতানপুর ইউনিয়নে। আহতদের ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আব্দুল্লাহ আল-মামুন জানান, আকাশের মাথা-বুকে একাধিক ছুরিকাঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তার মৃত্যু হয় হাসপাতালে নিয়ে আসার আগেই।

 

সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ এমরানুল ইসলাম বলেন, ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ মর্গে পাঠানো হয়েছে। পুলিশ মোতায়েন রয়েছে ঘটনাস্থলে।

তিনি আরও জানান, অভিযুক্তদের গ্রেফতারের চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ। এ ঘটনায় হত্যা মামলা দায়ের হচ্ছে।

-খবর প্রতিদিন / সি.বা 


আরও খবর



নাসিরনগরে জশনে জুলুছে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী পালিত

নাসিরনগরে জশনে জুলুছে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী পালিত

প্রকাশিত:Wednesday ২০ October ২০21 | হালনাগাদ:Sunday ২৪ October ২০২১ | ৯৫জন দেখেছেন
Image


 

মোঃ আব্দুল হান্নান, নাসিরনগর :

 

 ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার  নাসিরনগর উপজেলা আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের উদ্যোগে বিশ্ব নবী হযরত মোহাম্মদ (সাঃ) এর পবিত্র জন্মদিন উপলক্ষে জশনে জুলুছে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী পালিত হয়েছে।

এ উপলক্ষে উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে আগত ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের সমন্বয়ে এক বিশাল র‌্যালী  উপজেলার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে স্থানীয়  নাসিরনগর সরকারী ডিগ্রী কলেজ মাঠ প্রাঙ্গনে এক বিশাল আলোচনা সভায় মিলিত হন। 

উপজেলা আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের সভাপতি আলহাজ্ব মাওলানা রিয়াজুল করিম আল কাদরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন  ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১, সংসদীয় ২৪৩ নাসিরনগর আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব বিএম ফরহাদ হোসেন সংগ্রাম এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রাফি উদ্দিন আহমেদ।  আলোচনা সভায় উপজেলার বিভিন্ন আলেম ওলামায়েগণ  জ্ঞানগর্ভ পূর্ণ বক্তব্য রাখেন।

 

জানা গেছে ৫৭০ খ্রিঃ ১২ই রবিউল আউয়াল বিশ্বনবী হযরত মোহাম্মদ (সা:) পবিত্র মক্কা নগরীর কুরাইশ বংশে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বাবার নাম আব্দুল্লাহ ও মায়ের নাম আমেনা।  প্রতি বছর ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা এ দিনকে অত্যন্ত শ্রদ্ধার সাথে ঈদে মিলাদুন্নবী পালন করে থাকেন।

 খবর প্রতিদিন / সি.বা 


আরও খবর