Logo
আজঃ শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪
শিরোনাম
কক্সবাজারে পাহাড় ধসে স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যু বন্ধ শিল্প প্রতিষ্ঠান চালুর পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে: শিল্পমন্ত্রী বাংলাদেশের হার দিয়ে সুপার এইট শুরু গোদাগাড়ীতে রাসেল ভাইপারের চিকিৎসার দাবিতে স্বাস্থ্য মন্ত্রীর কাছে চিঠি দিয়েছে নাগরিক স্বার্থ-সংরক্ষণ কমিটি রূপগঞ্জে জমে উঠেছে কাঞ্চন পৌরসভা নির্বাচন যাত্রাবাড়ীতে পুলিশ কর্মকর্তার বাবা মাকে কুপিয়ে হত্যা যানজট নিরসনে সংসদ সদস্যগণের সাথে ট্রাফিক ওয়ারী বিভাগের সমন্বয়সভা ভোলায় ফের দেখা মিলল রাসেল ভাইপার, জনমনে আতঙ্ক বাজেট পাস হয়নি,অনেক কিছু পুনর্বিবেচনা করা সম্ভব: অর্থমন্ত্রী দেশের সব মহৎ অর্জন আ. লীগের মাধ্যমেই হয়েছে: ওবায়দুল কাদের

প্রার্থীর ছাড়াছাড়ি দ্বন্দ্বও প্রকট নব্যদের দাপটে কোনঠাসা প্রবীনরা

প্রকাশিত:বুধবার ৩০ আগস্ট ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | ৫৩৪জন দেখেছেন

Image
আব্দুস সবুর তানোর প্রতিনিধি:আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন কে সামনে রেখে রাজশাহী-১ ( তানোর-গোদাগাড়ী) আসনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগে প্রার্থীর ছড়াছড়ি, একাধিক সম্ভাব্য প্রার্থী রাজনীতির মাঠে প্রচার প্রচারনা চালিয়ে জানান দিচ্ছেন। এছাড়াও নব্য আ"লীগদের বেপরোয়া দাপটে চরম ভাবে কোনঠাসা সাবেক প্রবীন ও জনপ্রিয় নেতাকর্মীরা। বৃহত্তর আওয়ামী লীগ বর্তমান এমপি বিরোধী। যার কারনে কিছুটা হলেও অস্বস্তি এমপি শিবিরে। নব্যদের বেশি প্রধান্য দেয়ার কারনে এক প্রকার কর্মী সংকটেও ভূগছে বলা চলে। বিশেষ করে দরদাম করে নিয়োগ বানিজ্য, বেশি টাকা পেলে সে হোক বিএনপি জামাত পন্থী মোটা টাকার বিনিময়ে নির্বাচনী নিয়োগ বানিজ্যের কারনে ক্ষোদ এমপি শিবিরেই বিভক্তের শেষ নেই। অতীতে যারা মাঠে থেকে দলের জন্য জীবন বাজি রেখে কাজ করেছেন তাদের তীল পরিমান মূল্যায়ন না থাকার কারনেই গ্রুপিং লবিংয়ের শেষ নেই। অপর দিকে বিএনপিতেও রয়েছে লবিং গ্রুপিং। তবে দুভাগে বিভক্ত হলেও আন্দোলন সংগ্রামে একই পথে চলছে বিএনপি।জানা গেছে, আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন কে সামনে রেখে আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি ফারুক চৌধুরী কে ঠেকাতে একাধিক প্রার্থী মাঠে রয়েছেন। যা জাতীয় শোক দিবসের মাসে এর প্রকাশ পায় ব্যাপক ভাবে।  হয়েছে পাল্টা পাল্টি সভা। গত ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ প্রতিবাদ সভা করে গোল্লাপাড়া ফুটবল মাঠে উপজেলা আওয়ামী লীগ। একই সময়ে গোল্লাপাড়া কাঠ পট্রিতে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল করেন মনোনায়ন প্রত্যাশী গোলাম রাব্বানী।  তিনি দেবিপুর মোড়ে ও দুবইল গ্রামেও শোক দিবসের সভা করেন। এছাড়াও আরেক মনোনায়ন প্রত্যাশী আয়েশা আক্তার ডালিয়াও শোক দিবসের সভা ও খাবার বিতরণ করেন সরনজাই ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে। এছাড়াও সাবেক অতিরিক্ত আইজি মতিউর রহমান মনোনয়ন না চাইলেও তাঁকে নৌকা প্রতীক দিলে তিনি ভোট করবেন বলে জানান। তবে মাঠে তৎপর রয়েছেন গোলাম রাব্বানী, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক নেতা গোদাগাড়ীর দেওপাড়া ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান আক্তারুজ্জামান আকতার। গত বছরে মনোনায়নের দাবি তুলে মাঠে ছিলেন চিত্র নায়িকা মাহিয়া মাহি। তবে তাকে চলতি বছরে কোন সভা সমাবেশ করতে দেখা যায় নি। অবশ্য নির্বাচন কে সামনে রেখে বর্তমান এমপি ফারুক চৌধুরী কোমর বেঁধে মাঠে কাজ করছেন। উপজেলার ৮১ টি ওয়ার্ডে শোক সভা করে জানান দিয়েছেন। রাজনীতির মাঠে ফারুক চৌধুরীর জয়জয়কার অবস্থা।  প্রতিটি ওয়ার্ডে সভা করার কারনে তৃণমূলের নেতাকর্মীরাও চাঙ্গা হয়েছেন। তবে তার বিরুদ্ধে একাধিক প্রার্থী মাঠে থাকলেও রাব্বানীই মুল প্রতিদ্বন্দ্বী বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

তৃনমুলের ভাষ্য,, গত বছরের জুলাই মাসে উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে বিদ্রোহীর তকমা লাগিয়ে ওই সময়ের সভাপতি গোলাম রাব্বানী ও সম্পাদক মামুন কে ছিটকে ফেলা হয়। কিন্তু গত ইউনিয়ন ও পৌরসভা ভোটে বিদ্রোহী প্রার্থী দিয়ে দলীয় প্রার্থী দের চরম বেকায়দায় ফেলে দিয়েছিলেন রাব্বানী ও মামুন। ইউনিয়ন ভোটে সফল না হলেও উপজেলার দুই পৌরসভার মেয়র হয়েছেন রাব্বানী অনুসারীরা। বিশেষ করে মুন্ডুমালা পৌরসভা ভোটে চমক লাগিয়ে রাব্বানী অনুসারী স্বতন্ত্র প্রার্থী সাইদুর রহমান নির্বাচিত হন।

রাব্বানী অনুসারীরা বলেন, বিগত ২০১৮ সালে জাতীয় নির্বাচনে এমপির টিকিট চেয়েছিলেন গোলাম রাব্বানী। কিন্তু তিনি মুন্ডুমালা পৌর মেয়র থাকার কারনে বঞ্চিত হয়েছেন। এজন্য তিনি পৌরসভার ভোটে অংশগ্রহণ করেননি। এদিকে কিছু মৌসুমি নব্য আমিলীগের দাপটে ত্যাগী নিবেদিত প্রান আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা চরম কোনঠাসা হয়ে পড়েছেন। কোন সভা সমাবেশে ডাক পায়না রাব্বানী ও মামুন অনুসারীরা।গত এক বছর আগে উপজেলায় আওয়ামী লীগ দুভাগে বিভক্ত হয়েছিল। কিন্তু বর্তমানে গ্রুপিং লবিংয়ের শেষ নেই।  মৌসুমী এক নেতার হাতে অর্থনৈতিক ক্ষমতা দেওয়ার কারনে ক্ষোোদ এমপি শিবিরেই আলোচনা সমালোচনার শেষ নেই।তার ইচ্ছায় গঠনতন্ত্র বিরোধী একমঞ্চে একাধিক কমিটি ঘোষনা করছেন এমপি। শুধু তাই না এতই নেতার আবির্ভাব ঘটেছে যে কলমা, কামারগাঁ ইউনিয়ন কে দুভাগে বিভক্ত করে কমিটি দেওয়া হয়েছে। এসব কমিটি নিয়েও বিতর্কের শেষ নেই। বিশেষ করে কলমা ইউনিয়ন পূর্ব পশ্চিম ভাগে বিভক্ত করে বিএনপি পন্থী দের সভাপতি সম্পাদকের মত পদ দেওয়া হয়েছে। ওই ইউপির ত্যাগী নেতারা এসব কমিটি কোন ভাবেই মেনে নিতে পারছেন না।

 এদিকে তালন্দ ইউপির কমিটিকে অকেজো বলে আখ্যায়িত করেছেন সিনিয়র নেতারা। ইউপি সভাপতি করা হয়েছে মোহর গ্রামের আব্দুল করিমকে। তাকে কোনদিন আওয়ামী লীগের মিছিল মিটিংয়ে দেখেননি কেউ। সম্পাদক করা হয়েছে নারী লোভী  ও কৃষকদের রক্তচোষা হিসেবে পরিচিত ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি মেম্বার আবুল হাসানকে। অথচ ওই ইউপির সভাপতি ছিলেন স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান নাজিমুদ্দিন বাবু। তালন্দ ইউপির সাবেক দুবারের চেয়ারম্যান বর্ষিয়ান আওয়ামিলীগ নেতা আবুল কাশেমকে কোন পদে রাখেননি। সরনজাই ইউপির সভাপতি করা হয়েছে সরনজাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক আব্দুল হান্নান কে। তাকেও অতীতে আওয়ামী লীগের সভা সমাবেশ ও মিছিলে দেখেননি কেউ। তিনি বিএনপি নেতা সরনজাই ইউপির চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোজাম্মেল হক খাঁনের একান্ত অনুসারী বলে মাঠে প্রচার রয়েছে । সম্পাদক করা হয়েছে মুহুরী আতাউর রহমান কে। যার কোন গ্রহন যোগ্যতা নেই। একই মঞ্চে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, কৃষকলীগ ও মহিলা যুবলীগের কমিটি ঘোষনা করা হচ্ছে, যা দলীয় গঠনতন্ত্রের বাহিরে বলেও জেলার নেতারা বিবৃতি দিয়েছেন। 

সিনিয়র কিছু নেতারা জানান, এমপি ফারুক চৌধুরী কিভাবে এমন আজব কমিটি করছেন। তিনি হয়তো আগামী নির্বাচন কে সামনে রেখে নিজের বলায় তৈরি ও কোন কমিটি যেন বিপক্ষে না বলে এজন্য এসব কমিটি করেই যাচ্ছেন। যার কারনে দলে গ্রুপিং লবিংয়ের শেষ নেই।সাবেক সভাপতি গোলাম রাব্বানী বলেন, এমপি মনোনায়নের জন্য কেন্দ্রের নির্দেশে পৌরসভা ভোটে অংশগ্রহণ করিনি। আগামী নির্বাচন বড় চ্যালেঞ্জিং। যে সব এমপিদের বিরুদ্ধে দেশরত্নের কাছে অভিযোগ গেছে তারা অবশ্যই মনোনায়ন পাবেন না বলে আমার ধারনা। কারন যে ভাবে বহিরাগতদের দিয়ে নিয়োগ বানিজ্য, প্রকল্প বানিজ্য, কমিটি বানিজ্য করেছেন এবং প্রবীন ত্যাগীদের তিল পরিমান মূল্য নেই বর্তমান এমপির কাছে। আপনি মনোনয়নের ব্যাপারে কতটা আশাবাদী জানতে চাইলে তিনি জানান আমি আশাবাদী, তবে আমি না পেলেও  আমার বিশ্বাস এমপি ফারুক চৌধুরী মনোনায়ন পাবেন না।উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মাইনুল ইসলাম স্বপন ও সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ প্রদীপ সরকার বলেন, এমপি ফারুক চৌধুরী এমন একজন নেতা তিনি মনোনয়ন নিয়ে ভাবেন না। তারমত এমপি পেয়ে আমরা তথা তানোরবাসী গর্বিত। আওয়ামী লীগ বৃহত্তর দল, দীর্ঘ সময় ক্ষমতায় আছে মান অভিমান থাকবেই। তবে আমাদের দৃড় বিশ্বাস ফারুক চৌধুরীর বিকল্প নেতা এখনো তৈরি হয়নি। মনোনায়ন চাইতে পারে, এটা এমপির নেতৃত্ব তৈরির এক অন্য রকম দৃষ্টান্ত। কারন বিএনপিতে ব্যারিস্টারের পরিবার ছাড়া নেই,আর আওয়ামী লীগে অনেকেই মনোনায়নের দাবি তুলেছেন।  তাহলে বুঝতে হবে ফারুক চৌধুরী নেতৃত্ব তৈরির কারিগর। নির্বাচনের আগে বড় দলে এরকম থাকবে।তবে আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ আছে থাকবে ইনশাআল্লাহ।এদিকে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী প্রয়াত ব্যারিস্টার আমিনুল হকের ছোট ভাই সাবেক মেজর জেনারেল ও বেগম জিয়ার সাবেক সামরিক সচিব শরিফ উদ্দিন। তিনি একক প্রার্থী থাকলেও তানোর উপজেলা বিএনপির বৃহত্তর একাংশ শরিফ কে প্রার্থী হিসেবে চাচ্ছেন না। তিনি সভা সমাবেশ করলেই হামলা মারপিট শুরু হয়ে যাচ্ছে।এছাড়াও জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমীর সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমান উপজেলা জুড়ে পোষ্টার লাগিয়ে নির্চানের জন্য জানান দিচ্ছেন।অবশ্য বিএনপি ও জামায়াতের উপজেলার শীর্ষ নেতারা বলেন, আমরা নির্বাচন নিয়ে ভাবছিনা। কারন বর্তমান সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন অসম্ভব।  আমাদের আন্দোলন চলছে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে ছাড়া নির্বাচন তো দূরে থাক, হতেও দেয়া হবে না। আগে সরকারের পদত্যাগ, তারপর নির্বাচনের বিষয়ে কথা বলা হবে। 

আরও খবর



বীরগঞ্জে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর সম্প্রতি মেলা ও শিক্ষাবৃত্তি, বাইসাইকেল বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে

প্রকাশিত:বুধবার ২৯ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ১৪০জন দেখেছেন

Image

নাজমুল ইসলাম (মিলন) দিনাজপুর প্রতিনিধি:দিনাজপুরের বীরগঞ্জে মানব কল্যান পরিষদ এর উদ্যোগে বীরগঞ্জে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর শিক্ষাবৃত্তি, বাইসাইকেল বিতরণ ও স¤প্রীতি মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বীরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ মাঠে ২৮ মে মঙ্গলবার সকাল ১১ টা বীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: ফজলে এলাহীর সভাপতিত্বে সিভিল সোসাইটি অর্গানাইজেশন (সিএও) এর আয়োজনে অহিংসা প্রকল্প, মানব কল্যাণ পরিষদ এর সহযোগিতায় ১৬৭ জনকে শিক্ষাবৃত্তির চেক ও ১৮ জনকে বাইসাইকেল বিতরণ অনুষ্ঠান হয়েছে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বীরগঞ্জ উপজেলার নব নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান মো: আবু হুসাইন বিপু, বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সমাজসেবা অফিসার মো: তরিকুল ইসলাম, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা নিবেদিতা দাস, উপজেলা আওয়ামীলীগ সাধারন সম্পাদক নুরিয়ার সাইদ সরকার প্রমুখ।

ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নের লক্ষে “বিশেষ এলাকার জন্য উন্নয়ন সহায়তা” কর্মসূচির আওতায় শিক্ষা বৃত্তির প্রাইমারি ১০০ জন ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী শিক্ষার্থীকে ২ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা, মাধ্যমিক ৪৫ জন ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী শিক্ষার্থীকে ২ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা ও উচ্চ মাধ্যমিক ২২ জন ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী শিক্ষার্থীকে ২ লক্ষ ০৯ হাজার টাকার বৃত্তির চেক ও ১৮ জন শিক্ষার্থীর মাঝে ১৮টি বাইসাইকেল বিতরণ করেন।

সম্প্রতি মেলায় বিভিন্ন স্টলের মাধ্যমে বাঙ্গালি, আদিবাসী ও অন্যন্য সকল জাতিসত্তা জীবনধারা, মৌলিক অধিকার, মানবধিকার, ভাষা ও সংষ্কৃতি সর্ম্পকে আলোচনা কালে বীরগঞ্জ থানা আদিবাসী সমাজ উন্নয়ন সমিতির সভাপতি শীতল মার্ডী, বীরগঞ্জ মানব কল্যাণ পরিষদের পরিচালক রবিউল আজম উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



কালিয়াকৈরে মৎস্য খামারে পানিতে ডুবে ২ শিশুর মৃত্যু

প্রকাশিত:রবিবার ০২ জুন 2০২4 | হালনাগাদ:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | ১৩২জন দেখেছেন

Image

সাগর আহম্মেদ,কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি:গাজীপুরের কালিয়াকৈরে একটি মৎস্য খামারের পানিতে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু হয়েছে। শনিবার সকালে উপজেলার গাবতলী টানপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। 

নিহতরা হলো, কালিয়াকৈর উপজেলার গাবতলী টানপাড়া এলাকার আব্দুল লতিফের ছেলে তানজিম হোসেন (৮)ও একই উপজেলার কান্দাপাড়া এলাকার মনির হোসেনের ছেলে বায়েজিদ হোসেন (৭)। তারা সম্পর্কে দুজনে মামাতো-ফুফাতো ভাই। 

এলাকাবাসী, নিহতদের পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত শুক্রবার শিশু বায়েজিদ কালিয়াকৈর উপজেলার গাবতলী টানপাড়া এলাকায় তার নানা বাড়ি আব্দুর রাজ্জাকের বাড়িতে বেড়াতে আসে। শনিবার সকাল ৯টার দিকে সে ও তার মামাতো ভাই তানজিম বাড়ির উঠানে খেলছিল। ওই খেলার ছলে সবার অগোচরে তারা দুজন পাশের সিদ্দীক হোসেনের মৎস্য খামারের পানিতে গোসল করতে নামে। কিন্তু ওই মৎস্য খামারের পানির গভীরতা বেশি থাকায় তারা দুজনে পানিতে ডুবে নিখোঁজ হয়। পরে অনেক খোঁজাখুজি করে তাদের না পেয়ে পাশে ওই মৎস্য খামারের পানিতে নামেন স্বজন ও এলাকাবাসী। খোঁজাখুজির এক পর্য়ায়ে নিখোঁজের ৫ ঘন্টার পর বেলা ২টার দিকে ওই মৎস্য খামার থেকে বায়েজিদ ও তানজিমকে উদ্ধার করা হয়। সেখান থেকে তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক বায়েজিদ ও তানজিমকে মৃত ঘোষণা করেন। তাদের মৃত্যুর খবরে স্বজনদের আর্তচিৎকারে আকাশ ভারী হয়ে উঠে। অপরদিকে ওই শিশুদের মৃত্যুর খবর মুহূর্তের মধ্যেই ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। 

স্থানীয় ইউপি সদস্য (মেম্বার) আমিনুল ইসলাম জানান, হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক শিশু দুটোকে মৃত্যু ঘোষণা করলে তাদের লাশ নিজ নিজ এলাকায় নিয়ে যান স্বজনরা। 

কালিয়াকৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ এফ এম নাসিম বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, বিকেলে জানাযা নামাজ শেষে তাদের পারিবারিক কবরস্থানে দাফন সম্পূর্ণ করা হয়।


আরও খবর



টানা পাঁচ দিন পর বেনাপোল স্থলবন্দরে ফিরলো কর্মচাঞ্চল্য

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৪ মে 20২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০24 | ১২৬জন দেখেছেন

Image

ইয়ানূর রহমান শার্শা,যশোর প্রতিনিধি:যশোর জেলার শার্শা উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ও ভারতের পশ্চিমবঙ্গে লোকসভা নির্বাচন এবং বৌদ্ধ পূর্ণিমা উপলক্ষে টানা পাঁচ দিন বন্ধের পর আজ বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে পণ্য আমদানি-রপ্তানিসহ বন্দরের সব কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

২৩ মে বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই দুই দেশের মধ্যে আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম শুরু হয়। টানা পাঁচ দিন ছুটির পর ফের বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু হওয়ায় বন্দরে কর্মচাঞ্চল্য ফিরে এসেছে। এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন স্থলবন্দন চেকপোস্ট কার্গো শাখার রাজস্ব কর্মকর্তা আজিজ খান।

বেনাপোল স্থলবন্দর স্টাফ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সাজেদুর রহমান জানান,ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বনগাঁয় লোকসভা নির্বাচন, যশোরের শার্শা উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ও বৌদ্ধপূর্ণিমা উপলক্ষে টানা পাঁচ দিন বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে দুই দেশের মধ্যে সব ধরনের আমদানি-রপ্তানিসহ সব ধরনের কার্যক্রম বন্ধ ছিল। বৃহস্পতিবার সকালে আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যিক কার্যক্রম স্বাভাবিকভাবে শুরু হয়েছে। এতে বন্দরের ব্যবসায়ী, শ্রমিক ও চালকদের মাঝে কর্মচাঞ্চল্য ফিরে এসেছে।

তবে বাণিজ্য বন্ধ থাকলেও বেনাপোল আন্তর্জাতিক ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট দিয়ে শুধুমাত্র মেডিকেল ভিসাধারী রোগী পাসপোর্ট যাত্রী পারাপার হয়েছে বলে ইমিগ্রেশন ইনচার্জ আযহারুল ইসলাম জানিয়েছেন।


আরও খবর



নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান পারভেজ কবিরের দায়িত্ব গ্রহণ

প্রকাশিত:বুধবার ০৫ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ৯৩জন দেখেছেন

Image

সামিউল আলম,বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি:বিরামপুর উপজেলা পরিষদের নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ পারভেজ কবীর ও ভাইস চেয়ারম্যানদ্বয় আনুষ্ঠানিক ভাবে দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন।

৪ জুন, মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা কন্ফারেন্স রুমে উপজেলা নির্বাহী অফিসার নুজহাত তাসনীম আওনের সভাপতিত্বে দ্বায়িত্ব গ্রহণ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান পারভেজ কবীর, ভাইস চেয়ারম্যান আতাউর রহমান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান উম্মে কুলছুম বানু। এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলতাফুজ্জামান মিতা, উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য সচিব রুহুল আমীন সরদার, বিরামপুর প্রেসক্লাবের আহবায়ক মশিহুর রহমান প্রমূখ।

দায়িত্ব গ্রহণ শেষে উপজেলা অডিটরিয়ামে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে আগত নেতৃবৃন্দ ও সমর্থকবৃন্দের সাথে নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যানদ্বয় শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।


আরও খবর



টেকেরঘাট সীমান্তে ২হাজার টন চুনাপাথর পাচাঁরের অভিযোগ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | ৯৩জন দেখেছেন

Image

মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া-সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:চোরাচালানের স্বর্গরাজ্য হিসেবে পরিচিত সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর উপজেলার টেকেরঘাট সীমান্তে সরকারের রজস্ব ফাঁকি প্রায় ২হাজার মেঃটন চুনাপাথর পাচাঁরের খবর পাওয়া গেছে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে- গতকাল রবিবার (২রা জুন)  রাত সাড়ে ১১টা থেকে প্রতিদিনের মতো টেকেরঘাট সীমান্তের বরুঙ্গাছড়া ও রজনীলাইন এলাকা দিয়ে সোর্স পরিচয়ধারী আক্কল আলী, কামাল মিয়া, রুবেল মিয়া, মহিবুর মিয়া, সাইদুল মিয়া ও তোতলা আজাদগং ১৫০টি ঠেলাগাড়ি দিয়ে ভারত থেকে রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে অবাধে চুনাপাথর পাচাঁর শুরু করে।

আজ সোমবার (৩রা জুন) সকাল ৬টা পর্যন্ত চোরাকারবারীরা প্রায় ২হাজার মেঃটন চুনাপাথর পাচাঁর করে টেকেরঘাট বিজিবি ক্যাম্প সংলগ্ন জয়বাংলা বাজারের কাঠের ব্রিজের পাশে অবস্থিত হেকিম, এমরান ও শাহ পরানের জায়গায় মজুত করেছে। কিন্তু পাচাঁরকৃত এসব অবৈধ চুনাপাথর জব্দ করাসহ চোরাকারবারীদেরকে গ্রেফতারের জন্য বিজিবির পক্ষ থেকে কোন পদক্ষেপ নেওয়ার খবর পাওয়া যায়নি। অথচ এই ক্যাম্পে নায়েক সুবেদার সাইদুর দায়িত্ব পালন কালে বন্ধ ছিল চোরাচালান ও চাঁদাবাজি বাণিজ্য।

জানা গেছে- পাচাঁরকৃত প্রতি ঠেলাগাড়ি চুনারপাথর (দেড় টন) থেকে বিজিবি নাম ভাংগিয়ে ১৫০টাকা, সাংবাদিক ও থানার নামে ২শ টাকাসহ মোট ৫শ টাকা ও প্রতিবস্তা চোরাই কয়লা (৫০ কেজি) থেকে বিজিবির নামে ৫০টাকা, সাংবাদিক ও থানার নাম ভাংগিয়ে প্রতি টনে ২হাজার টাকা করে চাঁদা উত্তোলন করে গডফাদার তোতলা আজাদ, তার সোর্স আক্কল আলী, কামাল মিয়া ও চাঁনপুরের জামাল মিয়া। চোরাচালান ও চাঁদাবাজি করে গত ৫বছরে গডফাদার তোতলা আজাদ ১৫ কোটি ও সোর্স আক্কল আলী ৩ কোটি টাকার মালিক হয়ে। তাদের অবৈধ অর্থ ও অর্জিত সম্পদ উদ্ধার করার জন্য প্রশাসনের সহযোগীতা জরুরী প্রয়োজন। 

এব্যাপারে বড়ছড়া কয়লা ও চুনাপাথর আমদানী কারক সমিতির আর্ন্তজাতিক বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল খায়ের বলেন- ভারত থেকে অবৈধ ভাবে কয়লা ও চুনাপাথর পাচাঁর হওয়ার কারণে আমরা বৈধ ব্যবসায়ীরা বিরাট ক্ষতিগ্রস্থ্য হচ্ছি। কিন্তু প্রশাসনের পক্ষ থেকে এব্যাপারে কোন পদক্ষেপ নেওয়া হয়না। উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা ও ব্যবসায়ী নবী হেসেন বলেন- সোর্স আক্কল আলী ও তার গডফাদার প্রতিদিন অবৈধ ভাবে চুনাপাথর ও কয়লা পাচাঁরের পর লাখলাখ টাকা চাঁদা উত্তোলন করলেও তাদের বিরুদ্ধে আইনগত কোন পদক্ষেপ নেওয়া হয়না। সুনামগঞ্জের সিনিয়র সাংবাদিক মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া বলেন- রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে অবৈধ চুনাপাথর ও কয়লা পাচাঁরের খবর পাওয়ার সাথে সাথে সীমান্তের টেকেরঘাট (০১৭৬৯-৬১৩১২৮) ও চাঁনপুর (০১৭৬৯-৬১৩১২৯) বিজিবি ক্যাম্পের সরকারী মোবাইল নাম্বারে কল করে বারবার জানানোর পরও তারা কোন পদক্ষেপ নেয়না।     

এব্যাপারে তাহিরপুর উপজেলার টেকেরঘাট বিজিবি ক্যাম্পের দায়িত্বে থাকা কোম্পানী কমান্ডার দীলিপ বলেন- আমাদের অনেক কাজ আছে, এসব দেখা ও শুনার । ওই ক্যাম্পের কমান্ডার নায়েক সুবেদার জাফর বলেন- সীমান্ত দিয়ে যখন কয়লাসহ বিভিন্ন মালামাল পাচাঁর করা হয় জানাবেন, তখন আমি পদক্ষেপ নেব। তাহিরপুর থানার ওসি নাজিম উদ্দিন বলেন- সীমান্ত চোরাচালান বন্ধের দায়িত্ব বিজিবির। আপনি এব্যাপারে তাদের সাথে কথা বলেন, থানা-পুলিশে কোন সোর্স নাই। আমাদের নামে কেউ চাঁদা উত্তোলন করলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আরও খবর