Logo
আজঃ Friday ১৯ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে আবাসিকের অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন ডেমরায় প্যাকেজিং কারখানায় ভয়বহ অগ্নিকান্ড রূপগঞ্জে পুলিশের ভুয়া সাব-ইন্সপেক্টর গ্রেফতার রূপগঞ্জে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ॥ সভা সরাইলে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ৭৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত। নারায়ণগঞ্জে পারিবারিক কলহে স্ত্রীকে পুতা দিয়ে আঘাত করে হত্যা,,স্বামী গ্রেপ্তার রূপগঞ্জ ইউএনও’র বিদায় সংবর্ধনা নাসিরনগরে স্বামীর পরকিয়ার,বলি ননদ ভাবীর বুলেটপানে আত্মহত্যা নাসিরনগরে জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭ তম শাহাদত বার্ষিকী পালিত ডেমরায় জাতীয় শোক দিবসের কর্মসুচি পালিত

পাকস্থলিতে করে ইয়াবা পাচার, নারীসহ দুই মাদক কারবারি আটক

প্রকাশিত:Tuesday ২৮ June ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৭৫জন দেখেছেন
Image

পাকস্থলিতে করে ইয়াবা পাচারকালে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী এলাকা থেকে ইয়াবাসহ দুই মাদক কারবারিকে আটক করেছে র্যাব।

গ্রেফতাররা হলেন- আব্দুল মালেক (৩০) ও সুমি আক্তার (২৫)। এসময় তাদের কাছ থেকে দুটি মোবাইলফোন ও মাদক বিক্রির নগদ ২ হাজার ৪০০ টাকা জব্দ করা হয়।

মঙ্গলবার (২৮ জুন) সকালে র্যাব-১০ এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) এনায়েত কবির সোয়েব জাগো নিউজকে এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, র্যাব-১০ এর একটি দল যাত্রাবাড়ী থানাধীন ধলপুর এলাকায় একটি অভিযান পরিচালনা করে অভিনব কায়দায় পেটের ভেতরে করে ইয়াবা পাচারকালে এক হাজার ৮০০ পিস ইয়াবাসহ মালেক ও সুমি আক্তারকে আটক করে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটকরা জানায়, তারা পেশাদার মাদক কারবারি। বেশ কিছুদিন ধরে দেশের বিভিন্ন সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে ইয়াবাসহ অন্যান্য মাদকদ্রব্য পেটের ভেতর অভিনব কায়দায় লুকিয়ে সরবরাহ করে আসছিল।

গ্রেফতারদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় মাদক আইনে মামলা কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন বলে জানান র্যাবের এ কর্মকর্তা।


আরও খবর



ফিশ বিরিয়ানি তৈরির রেসিপি

প্রকাশিত:Thursday ২১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Thursday ১৮ August ২০২২ | ৬২জন দেখেছেন
Image

কোরবানি ঈদের পর থেকে কমবেশি সবাই মাংসের বিভিন্ন পদসহ বিরিয়ানি খেয়ে আসছেন! এবার রুচি বদলাতে পাতে রাখুন ফিশ বিরিয়ানি। একবার খেলেই মুখে লেগে থাকবে এর স্বাদ। জেনে নিন ফিশ বিরিয়ানি তৈরির সহজ রেসিপি-

উপকরণ

১. রুই বা স্যালমন মাছের পেটি ৪ টুকরা
২. বাসমতি বা চিনিগুঁড়া চাল ১ কাপ
৩. ঘি বা তেল ৪ টেবিল চামচ
৪. পেঁয়াজ কুঁচি ১ কাপ
৫. আদা বাটা ২ চা চামচ
৬. রসুন বাটা ২ চা চামচ
৭. টকদই ৪ টেবিল চামচ
৮. জায়ফল ও জয়ত্রী গুঁড়া ২ চা চামচ
৯. পোস্ত বাটা ১ চা চামচ
১০. এলাচ ৪-৫টি
১১. দারুচিনি ২ টুকরো
১২. দুধ আধা কাপ
১৩. লেবু পাতলা করে কাটা কয়েক টুকরা
১৪. বেরেস্তা আধা কাপ ও
১৫. লবণ পরিমাণমতো।

পদ্ধতি

প্রথমে মাছের টুকরাগুলোকে তেলে হালকা লাল করে ভেজে নিন। এতে মাছের আঁশটে ভাব চলে যাবে। অন্য একটি বাটিতে টকদইয়ের সঙ্গে আদা রসুন বাটা, জায়ফল, জয়ত্রী গুঁড়া ও পোস্ত বাটা দিয়ে মেখে রাখুন।

অন্য একটি পাত্রে চাল গুলোকে লবণ দিয়ে সেদ্ধ করে পানি ঝরিয়ে নিন। চাল বেশি সিদ্ধ করবেন না। বেশি সেদ্ধ হলে বিরিয়ানি ঝরঝরে হবে না।

এবার অন্য একটি প্যানে তেল বা ঘি গরম করে তাতে পেঁয়াজ কুঁচি ও দারুচিনি এলাচ দিন। একদম লাল করে বেরেস্তার মতো করে ভেজে নিন। এই পেঁয়াজ এর সঙ্গে মেখে রাখা দই আর আধা কাপ দুধ মিশিয়ে দিন। এবার রান্না করুন ১০ মিনিট।

মসলা কষানো হলে মাছের টুকরাগুলোকে দিয়ে রান্না করুন আরও ৫ মিনিট। যখন একটু লাল হয়ে আসবে চুলা থেকে নামিয়ে নিন। একটি ওভেন প্রুফ বাটিতে অথবা একটি ভারি হাঁড়িতে প্রথমে কিছু ভাত ঢালুন।

এরপর লেবুর পিস ছড়িয়ে দিন। তারপর মাছের পিসগুলো আর ঝোলটা দিন। সঙ্গে বেরেস্তা ছিটিয়ে দিন। আবার রান্না করা ভাত দিয়ে তার উপর ফয়েল পেপার দিয়ে ভালোভাবে মুড়িয়ে নিন। এতে ভাঁপ বের হবে না।

হাঁড়ি হলে ভালো করে ঢেকে খুবই মৃদু আঁচে দমে বসিয়ে দিন চুলায়। ভাত সেদ্ধ না হওয়া পর্যন্ত রান্না করুন। নাড়বেন না, এতে মাছ ভেঙে যাবে। ওভেন হলে ১৮০ ডিগ্রিতে ২০ মিনিট বেক করুন।


আরও খবর



ক্রিকেট ছেড়ে হাইজাম্পে স্বপ্ন দেখাচ্ছেন রিতু

প্রকাশিত:Sunday ২৪ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৩৮জন দেখেছেন
Image

ক্যারিয়ার গড়তে ক্রিকেট নিয়ে স্বপ্ন দেখেছিলেন রিতু আক্তার। মিরপুর বয়েজের জার্সিতে ২০১৬ সালে নারী প্রথম বিভাগ ক্রিকেট লিগে অংশ নিয়ে সেই স্বপ্ন পূরণের পথে এক ধাপ এগিয়েও গিয়েছিলেন গাইবান্ধার নশরতপুর গ্রামের কিশোরী।

কিন্তু ক্রিকেট আর অ্যাথলেটিকসের টানাটানির পর শেষ পর্যন্ত দ্বিতীয়টিকেই বেছে নিয়েছেন রিতু। উচ্চতা ৫ ফুট ১১ ইঞ্চি, যে কারণে পেস বোলিং করতেন। ক্রিকেট এখন রিতুর জীবনে অতীত। তিনি স্বপ্ন দেখছেন অ্যাথলেটিকসের হাইজাম্পে। স্বপ্ন দেখাচ্ছেন দেশের অ্যাথলেটিকসকেও।

২১ বছর বয়সী রিতু আক্তার এখন অ্যাথলেটিকসে চেনামুখ। দেশে এখন দুই নারী হাইজাম্পে আলো ছড়াচ্ছেন। অন্যজন উম্মে হাফশা রুমকী। এই দুইজনের মধ্যেই এখন দেশসেরা নারী হাইজাম্পার হওয়ার লড়াই। একবার রুমকী জেতেন তো, অরেকবার রিতু।

গত জানুয়ারীতে অনুষ্ঠিত সর্বশেষ জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপে ১.৭১ মিটার লাফিয়ে স্বর্ণ জিতেছেন রুমকী। ১.৬৬ মিটার লাফিয়ে দ্বিতীয় হয়েছেন রিতু। আগেরবার হয়েছিল এর উল্টো-রুমকীকে হারিয়ে স্বর্ণ জিতেছিলেন রিতু। সেবার তিনি ১.৭০ মিটার লাফিয়ে জাতীয় রেকর্ড গড়ে স্বর্ণ জিতেছিলেন।

Ritu akhter

৯ থেকে ১৮ আগস্ট তুরস্কের কনিয়ায় অনুষ্ঠিতব্য ইসলামী সলিডারিটি গেমসে বাংলাদেশের যে তিনজন অ্যাথলেট অংশ নেবেন তার একজন রিতু আক্তার। এটিই হবে তার ক্যারিয়ারের প্রথম আন্তর্জাতিক আসরে অংশ নেওয়া।

প্রথমবার দেশের বাইরে খেলতে যাওয়ার রোমাঞ্চের চেয়ে রিতুর বেশি মনযোগ নিজের পারপরম্যান্স নিয়ে। এখন অনুশীলনে ১.৭৭ মিটার লাফাচ্ছেন। যেটা তার ক্যারিয়ারসেরা। এই উচ্চতাকে গেমসে আরো ওপরে নিতে চান রিতু। সমান হলেও একটা পদক আসতে পারে বলে প্রত্যাশা তার।

এর আগের ইসলামী সলিডারিটি গেমসে স্বর্ণ পাওয়া অ্যাথলেট লাফিয়েছিলেন ১.৮০ মিটার। রৌপ্য ছিল ১.৭৭ ও ব্রোঞ্জের ১.৭৪। রিতু অনুশীলনের পারফরম্যান্সটা গেমসে ধরে রাখতে পারলে একটা পদকের আশা করা যেতেই পারে।

‘আশা আমি করতেই পারি। তবে, কথা হলো অন্যরা তো আর ওই জায়গায় বসে নেই। তারা কতটুকু উন্নতি করেছে সেটাও দেখতে হবে। তবে আমি যদি আমরা ক্যারিয়ার বেস্ট পারফরম্যান্স করতে পারি সেটা কম হবে না। সেটা আমাকে এসএ গেমসে ভালো করার অনুপ্রেরণা যোগাবে’ - বলছিলেন রিতু।

সর্বশেষ সাউথ এশিয়ান গেমসে ভারতের প্রতিযোগি স্বর্ণ জিতেছিলেন ১.৭৩ মিটার লাফিয়ে। শ্রীলংকার প্রতিযোগি রৌপ্য পেয়েছিলেন ১.৬৯ মিটার লাফিয়ে।

আগামী গেমসে হয়তো এর চেয়েও বেশি উচ্চতায় লাফাবেন প্রতিযোগিরা। রিতুর এখন যতটা লাফাচ্ছেন সেটা আশা জাগানিয়াই। এক সময় ক্রিকেট খেলা রিতু এখন হাইজাম্পে আশার আলো জ্বালিয়েছেন।

Ritu akhter

দেশের দুই সেরা নারী হাইজাম্পারের একজন রিতু আক্তারের হওয়ার কথা ছিল ক্রিকেটার। কিভাবে তিনি ক্রিকেট বাদ দিয়ে হয়ে গেলেন অ্যাথলেট সে গল্পটা তার কাছেই শোনা যাক।

‘আমি স্কুল জীবনে হাইজাম্প, দৌড় দুইটাই খেলতাম। হাইজাম্পে সব জায়গায় প্রথম হতাম বলে এই খেলার প্রতি আমার আলাদা টান এসে যায়। একই সঙ্গে আমি ক্রিকেটও খেলেছি। এক বছর প্রথম বিভাগ খেললাম। এরপর ইচ্ছা হলো বিকেএসপিতে ভর্তি হওয়ার। ট্রায়ালে অংশ নিলাম ক্রিকেট ও অ্যাথলেটিকসে। দুটোতেই সুযোগ পেলাম। কিন্তু বিকেএসপি আমার উচ্চতা দেখে হাইজাম্পের জন্য বাছাই করলো। সেখানে আমি চারমাস ট্রেনিংও করলাম। কিন্তু নানা কারণে আমার বিকেএসপিতে ভর্তি হওয়া হয়নি। পরে এক বছর খেলাধুলায় একটা গ্যাপ পড়ে গেলো। ক্রিকেটও খেলা হচ্ছিল না, হাইজাম্পও না। শেষে সিদ্ধান্ত নেই হাইজাম্পই করবো। ২০১৭ সালে খুলনা জেলার হয়ে জাতীয় জুনিয়র অ্যাথলেটিকস চ্যাম্পিয়নশিপে হাইজাম্পে অংশ নিয়ে ১.৪০ মিটার লাফিয়ে স্বর্ণ জিতেছিলাম’ - হাইজাম্পার হওয়ার গল্প বলছিলেন রিতু আক্তার।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে সেবার হাইজাম্পে প্রথম হওয়ার পরই নজরে পড়ে বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা দলের কর্মকর্তাদের। ২-৩ মাস আনসারের হয়ে অনুশীলন করে ২০১৮ সালে জাতীয় সামার অ্যাথলেটিকসে অংশ নিয়ে রিতু হাইজাম্পে ১.৪৫ মিটার লাফিয়ে ব্রোঞ্জ পদক পেয়েছিলেন।

ওই সময় তার খেলা দেখে পছন্দ করেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অফিসিয়ালরা এবং আর্মিতে খেলার প্রস্তাব দেন। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে ৬ মাস ট্রেনিংয়ের পর ২০১৯ সালের জুলাইয়ে তার চাকরি হয় ওই প্রতিষ্ঠানে।

সেনাবাহিনীর হয়ে প্রথম অংশগ্রহণে ফলটা ভালো হয়নি রিতুর। ২০১৯ সালে তিনি সেনাবাহিনীর জার্সিতে হাইজাম্পে অংশ নিয়ে পঞ্চম হয়েছিলেন ১.৫০ মিটার লাফিয়ে। জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপের পরের আসরেই বাজিমাত করেন রিতু। ১.৭০ মিটার লাফিয়ে প্রথম স্বর্ণটি জেতেন জাতীয় রেকর্ড গড়েই। বাংলাদেশ গেমসে ১.৬৯ মিটার জাম্প দিয়ে স্বর্ণ জিতেছিলেন। সর্বশেষ আসরে রিতুর জাতীয় রেকর্ড ভেঙ্গে ১.৭১ মিটারের নতুন রেকর্ড গড়েছেন রুমকী।

Ritu akhter

পাঁচ বছরের ক্যারিয়ারে এখনো আন্তর্জাতিক কোন আসরে খেলা হয়নি রিতুর। ইসলামী সলিডারিটি গেমস দিয়ে ক্যারিয়ারে নতুন অধ্যায় যোগ করতে যাচ্ছেন গাইবান্ধার এই যুবতি। এই গেমসের অতীত রেকর্ড অনুযায়ী পদক জেতার সম্ভাবনা আছে তার। তবে রিতুর কথা, ‘আমি এখন যা লাফাই তার চেয়ে ভালো করার লক্ষ্যই থাকবে। তাতে যদি পদক আসে তাহলে তো আলহামদুলিল্লাহ। সবার দোয়া চাই। দেখি দেশের জন্য কতটা ওপরে উঠতে পারি।’

কিছুদিন আগে বাংলাদেশ অ্যাথলেটিকস ফেডারেশন হাইজাম্পের জন্য ভারতীয় কোচ নিয়োগ দিয়েছে। গোবিন্দরায় গাঁওকর নামের এই কোচের অধীনে হাইজাম্পের প্রশিক্ষণ চলছে। নতুন কোচ সম্পর্কে রিতু বলেছেন, ‘এক একজন কোচের একেক রকম টেকনিক থাকে। নতুন কোচ আসার পর তা থিওরি অনুসারে অনুশীলন করে উন্নতি হয়েছে।’


আরও খবর



মাঙ্কিপক্স ছড়ানোর ‘কেন্দ্র’ নিউইয়র্ক সিটি, সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি

প্রকাশিত:Sunday ৩১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৭৭জন দেখেছেন
Image

মাঙ্কিপক্স সংক্রমণ ব্যাপক হারে ছড়িয়ে পড়ায় জরুরি স্বাস্থ্য সতর্কতা জারি করেছে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক সিটি। শহরটিকে মাঙ্কিপক্স প্রাদুর্ভাবের ‘এপিসেন্টার’ বা ‘উপকেন্দ্র’ বলে উল্লেখ করেছে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ। সর্বোচ্চ স্বাস্থ্য সতর্কতা জারির ফলে নগর কর্মকর্তারা স্থানীয় স্বাস্থ্য কোডের অধীনে জরুরি আদেশ জারি করতে এবং বিস্তারের গতি কমাতে প্রয়োজনীয় যেকোনো ব্যবস্থা নেওয়ার অনুমতি পাবেন। খবর দ্য গার্ডিয়ানের।

গত শনিবার (৩০ জুলাই) মেয়র এরিক অ্যাডামস ও স্বাস্থ্য কমিশনার অশ্বিন ভাসান ঘোষণা দিয়েছেন, নিউইয়র্ক সিটিতে প্রায় দেড় লাখ মানুষ মাঙ্কিপক্স সংক্রমণের ঝুঁকিতে রয়েছেন। এক বিবৃতিতে তারা বলেন, আমরা আরও টিকা সহজলভ্য হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তা পাওয়া নিশ্চিত করতে কেন্দ্রীয় অংশীদারদের সঙ্গে কাজ করে যাবো।

বিবৃতিতে বলা হয়, এই প্রাদুর্ভাব মোকাবিলায় জাতীয় ও বৈশ্বিক উভয়ভাবে জরুরি ব্যবস্থা নিতে হবে। আর আমাদের এই ঘোষণা সেই পরিস্থিতির গুরুত্বকে প্রতিফলিত করে।

গত শুক্রবার (২৯ জুলাই) পর্যন্ত নিউইয়র্কে ১ হাজার ৩৪৫ জন মাঙ্কিপক্সে আক্রান্ত হয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্রে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৭৯৯ জন আক্রান্ত হয়েছেন ক্যালিফোর্নিয়ায়।

গত ২৩ জুলাই মাঙ্কিপক্স প্রাদুর্ভাবের কারণে বিশ্বব্যাপী জরুরি স্বাস্থ্য সতর্কতা জারি করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। জাতিসংঘের সংস্থাটির পক্ষ থেকে এটিই সর্বোচ্চ মাত্রার সতর্কতা। সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতির কারণে গত বৃহস্পতিবার জরুরি সতর্কতা জারি করেছেন সান ফ্রান্সিসকোর মেয়র।

গত মে মাস থেকে এ পর্যন্ত বিশ্বের প্রায় ৮০টি দেশে ২২ হাজারের বেশি মানুষ মাঙ্কিপক্সে আক্রান্ত হয়েছেন। এতে ৭৫ জন মারা গেছেন আফ্রিকা মহাদেশে, যাদের বেশিরভাগই নাইজেরিয়া ও কঙ্গোর বাসিন্দা। আফ্রিকার বাইরে প্রথম গত শুক্রবার মাঙ্কিপক্সে একজন করে মারা যাওয়ার কথা জানিয়েছে ব্রাজিল ও স্পেন। শনিবার স্পেনে মারা গেছেন আরও একজন।


আরও খবর



হাসান মাহমুদ আর মিরাজে দিশেহারা অবস্থা জিম্বাবুয়ের

প্রকাশিত:Sunday ০৭ August ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ২৫জন দেখেছেন
Image

প্রথম ম্যাচের চেয়ে ১৩ রান কম করেছে বাংলাদেশ। অথচ, প্রথম ম্যাচে ৩০৩ রান করেও জিততে পারেনি টাইগাররা। আজ দ্বিতীয় ম্যাচে করেছে ২৯০ রান। আজ কী জিততে পারবে? প্রশ্নটা তোলা থাকলো বোলার আর ফিল্ডারদের কাছে।

তবে, ২৯১ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নামা জিম্বাবুয়েকে শুরুতেই চেপে ধরেছে বাংলাদেশের বোলাররা। বিশেষ করে তরুণ পেসার হাসান মাহমুদ এবং স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ।

এই বোলারের তোপের মুখে ২৭ রানেই ৩ উইকেট হারিয়ে বসেছে স্বাগতিকরা। হাসান মাহমুদের বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়েছেন আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান ইনোসেন্ট কাইয়া।

ইনিংসের প্রথম ওভারেই টি কাইতানোকে উইকেটের পেছনে মুশফিকের হাতে ক্যাচ দিতে বাধ্য করেন হাসান মাহমুদ। ১ রানে পড়ে এক উইকেট। দলীয় ১৩ রানেও একইভাবে ইনোসেন্ট কাইয়াকে ফিরিয়ে দেন হাসান মাহমুদ। তার বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ ধরেন মুশফিক।

ওয়েসলি মাধভিরে উইকেটে এসে থিতু হতে পারেননি। ১৬ বল খেলেছেন। কিন্তু ২ রান করে মেহেদী হাসান মিরাজের বলে এলবিডব্লিউর শিকার হলেন।

এ রিপোর্ট খেলার সময় জিম্বাবুয়ের রান ১১.১ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে ৩৬। ২১ রান নিয়ে ব্যাট করছেন ওপেনার তাদিওয়ানাশে মুরুমানি। ৪ রান নিয়ে তার সঙ্গী সিকান্দার রাজা।


আরও খবর



সোনাগাজীতে নতুন উদ্ভাবিত পাঁচ জাতের ধান চাষে সফলতা

প্রকাশিত:Saturday ১৩ August ২০২২ | হালনাগাদ:Thursday ১৮ August ২০২২ | ৬৩জন দেখেছেন
Image

বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট ফেনীর সোনাগাজী আঞ্চলিক কার্যালয়ের কৃষি বিজ্ঞানীদের উদ্ভাবিত পাঁচটি উচ্চ ফলনশীল জাতের ধানের ভালো ফলন হয়েছে।

২০২২ সালে আউশ মৌসুমের জন্য ব্রি৪৮, ব্রি৮২, ব্রি৮৩, ব্রি৮৫, ও ব্রি৯৮ সহ পাঁচ জাতের উচ্চ ফলনশীল জাতের ধান উদ্ভাবন করেন বিজ্ঞানীরা। এসব জাতের ধান কম খরচে উপজেলার দুটি ইউনিয়নের প্রায় ৪০ হেক্টর জমিতে পরীক্ষামূলক চাষ করে সফলতা পাওয়া গেছে।

এসব ধান কাটার উদ্দেশ্যে শনিবার (১৩ আগস্ট) সকালে সোনাগাজী সদর ইউনিয়নের চরশাহাপুরে শস্য কর্তন ও মাঠ দিবসের আয়োজন করে ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট।

ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট সোনাগাজী আঞ্চলিক কার্যালয়ের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. বিশ্বজিৎ কর্মকারের সভাপতিত্বে ও জ্যৈষ্ঠ বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা নাঈম আহমদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. মো. শাহজাহান কবীর।

আরও উপস্থিত ছিলেন- জ্যৈষ্ঠ বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মো. আদিল, বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা আসিব বিশ্বাস, আরিফুল ইসলাম খলিদ, কৃষি উপসহকারী কর্মকর্তা মাহমুদ আলম, স্থানীয় কৃষক মো. কামাল উদ্দিন ও শেখ বাহার প্রমুখ।

ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. মো. শাহজাহান কবীর বলেন, টেকসই ধান প্রযুক্তি উদ্ভাবনে বিজ্ঞানীরা নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। বাংলাদেশে তথা সোনাগাজীতে উদ্ভাবিত উচ্চ ফলনশীল জাতের ধান চাষে তৃণমূল কৃষকদের আগ্রহ থাকতে হবে। এরই মধ্যে আউশ মৌসুমে যেসব ধান উদ্ভাবিত হয়েছে সেসব ধান স্বল্প সময়ে স্বল্প খরচে কৃষকরা ঘরে তুলতে পারবেন। মাত্র ১১০দিনে এ ধানগুলো কৃষকরা ঘরে তুলতে পারবেন। ধানগুলো অধিক পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ ও পরিবেশ বান্ধব।
তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশকে খাদ্যে স্বয়ংসম্পন্ন দেশ হিসেবে গড়ে তুলতে হলে এসব জাতের ধান চাষের বিকল্প নাই। নতুন উদ্ভাবিত ধানগুলোতে সারও কম লাগে পোকা মাকড়ও কম ধরে।


আরও খবর