Logo
আজঃ বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

ওয়ালটন এক্সিকিউটিভ নিয়োগ দিচ্ছে

প্রকাশিত:রবিবার ০৭ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১১৪জন দেখেছেন

Image

চাকরি ডেস্ক:ওয়ালটন ডিজি-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। প্রতিষ্ঠানটির ফাইন্যান্স অ্যান্ড অ্যাকাউন্টস বিভাগ এক্সিকিউটিভ পদে জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহী প্রার্থীরা আগামী ৩ আগস্ট পর্যন্ত অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন। বেতন ছাড়াও প্রতিষ্ঠানের নীতিমালা অনুযায়ী বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা পাবেন নির্বাচিত প্রার্থীরা।

প্রতিষ্ঠানের নাম: ওয়ালটন ডিজি-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড

পদের নাম: এক্সিকিউটিভ

বিভাগ: ফাইন্যান্স অ্যান্ড অ্যাকাউন্টস

চাকরির ধরন: বেসরকারি চাকরি

আবেদন করার মাধ্যম: অনলাইন

আবেদনের শেষ তারিখ: ৩ আগস্ট ২০২৪

পদসংখ্যা: নির্ধারিত নয়

শিক্ষাগত যোগ্যতা: অ্যাকাউন্টিং/ফাইন্যান্সে এমবিএ

অন্যান্য যোগ্যতা: অ্যাকাউন্টিং (ইবিএস) সফটওয়্যার ব্যবহার, ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম এবং প্রশাসনিক দক্ষতা। এমএস এক্সেল এবং অন্যান্য অ্যাকাউন্টিং সফটওয়্যারে দক্ষতা।

অভিজ্ঞতা: ১ বছর। তবে অভিজ্ঞতা ছাড়াও আবেদন করতে পারবেন।

প্রার্থীর ধরন: নারী-পুরুষ (উভয়)

বয়সসীমা: ২৪ থেকে ৩০ বছর

কর্মস্থল: ঢাকা

বেতন: আলোচনা সাপেক্ষে

অন্যান্য সুবিধা: মোবাইল বিল, লাভ শেয়ার, প্রভিডেন্ট ফান্ড, ইনস্যুরেন্স, দুপুরের খাবারের সুবিধা, প্রতি বছর বেতন পর্যালোচনা, বছরে ২টি উৎসব বোনাস, সার্ভিস বেনিফিট।

আবেদন যেভাবে: আগ্রহী প্রার্থীরা আবেদন করতে ও বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন।


আরও খবর

প্রাণ গ্রুপে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

বৃহস্পতিবার ১১ জুলাই ২০২৪




বৃহস্পতিবারও সারাদেশে ‘বাংলা ব্লকেড’

প্রকাশিত:বুধবার ১০ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১১৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:বৃহস্পতিবারও সারাদেশে ‘বাংলা ব্লকেড’ কর্মসূচি পালন করবেন শিক্ষার্থীরা সরকারি চাকরিতে কোটাব্যবস্থা সংস্কারের দাবিতে। এদিন বিকেল সাড়ে ৩টা থেকে এই কর্মসূচি শুরু হবে।

বুধবার (১০ জুলাই) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় শাহবাগ মোড় থেকে অবরোধ তুলে নেওয়ার আগে কর্মসূচি ঘোষণা করেন বৈষম্য বিরোধী ছাত্র আন্দোলনের অন্যতম সমন্বয়ক আসিফ মাহমুদ।

তিনি বলেন, ‘বিকেল সাড়ে ৩টা থেকে দেশের আনাচে-কানাচে বাংলা ব্লকেড অব্যাহত রাখব। দেশের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টগুলোতে ব্লকেড পালিত হবে।’

আসিফ মাহমুদ বলেন, ২০১৮ সালে রাজপথে আন্দোলনের মাধ্যমে আমরা কোটাহীন মেধাভিত্তিক নিয়োগের পরিপত্র অর্জন করেছি। কিন্তু গত ৫ জুন আমাদের সেই পরিপত্র অবৈধ ঘোষণা করেন হাইকোর্ট। তারপর থেকে আমরা আমাদের অধিকার ফিরে পেতে আমরা আন্দোলন করছি। আমাদের কর্মসূচিকে অনেকে জনদুর্ভোগের কারণ বলে উল্লেখ করেছে। কিন্তু আমাদের এই আন্দোলন সবার অধিকার আদায়ের আন্দোলন।

কর্মসূচি ঘোষণা দিয়ে আসিফ বলেন, বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৩টা থেকে বাংলা ব্লকেড কর্মসূচি পালিত হবে। সারাদেশে সড়ক ও রেলপথে আমাদের শিক্ষার্থীরা ব্লকেড কর্মসূচি পালন করবেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে জড়ো হবেন এবং সেখান থেকে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে এসে শাহবাগ ব্লক করবেন।

উল্লেখ্য, গত ৭ জুলাই থেকে ‘বাংলা ব্লকেড’ নামে এই অবরোধ কর্মসূচি শুরু হয়। প্রথম দুদিন অর্ধদিবস অবরোধ চলার পর মঙ্গলবার বিরতি দেওয়া হয়।

কোটা সংস্কার দাবিতে চলমান কর্মসূচির আওতায় বুধবার তৃতীয় দিনের মতো পালিত হয় বাংলা ব্লকেড। এদিন সকাল ১০টা থেকে ব্লকেড পালন করেন আন্দোলনকারীরা। এর আগে গত রোববার বিকেলে ৩টা এবং সোমবার বিকাল সাড়ে ৩টা থেকে ৫-৬ ঘণ্টা করে বাংলা ব্লকেড পালন করা হয়।

-খবর প্রতিদিন/ সি.


আরও খবর



ডোমারে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী হাঁস খেলা প্রতিযেগিতা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:সোমবার ১৫ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৫১জন দেখেছেন

Image

আনিছুর রহমান মানিক, ডোমার (নীলফামারী) প্রতিনিধি:নীলফামারীর ডোমারে বাগডোকরা বসুনিয়া পাড়া স্পোর্টি ক্লাব আয়োজিত গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী হাঁস খেলা প্রতিযেগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

শনিবার (১৩ জুলাই) সকাল ১১টায় উপজেলার বোড়াগাড়ী ইউনিয়নের বাগডোকরা বসুনিয়া পাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে প্রধান অতিথি হিসাবে খেলার শুভ উদ্বোধন ঘোষনা করেন ৭নং বোড়াগাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জননেতা আমিনুল ইসলাম রিমুন।

পরে এক আলোচনা সভায় উক্ত ক্লাবের সভাপতি মায়েদুল হক বসুনিয়া তুর্য’র সভাপতিত্বে আইবুল ইসলামের সঞ্চালনায় অতিথি হিসাবে ইউপি সদস্য শমসের আলী, সমাজ সেবক মামুন সাজ্জাদ বসুনিয়া সুর্য, অর্পন রায় প্রমূখ বক্তব্য রাখেন। ঐতিহ্যবাহী হাঁস খেলা দেখতে আসা হাজারো মানুষের ঢল নামে। তাদের মধ্যে নারী দর্শকের উপচেপড়া ভীড় ছিলো চেখে পড়ার মতো। ক্লাবের সভাপতি তুর্য বসুনিয়া জানান, আমরা বিগত কয়েক বছর যাবত ক্লাবের উদ্যোগে ফুটবল, ক্রিকেট, কাবাডী, হাডুডুসহ নানা ধরণের খেলার আয়োজন করে থাকি। গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যকে ধরে রাখতে আমাদের কার্যক্রম অব্যহত থাকবে। প্রধান অতিথি চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম রিমুন বলেন যুব সমাজকে মাদক মুক্ত রাখতে খেলা ধুলার কোন বিকল্প নাই। পড়ালেখার পাশাপাশী ক্রীড়া ও সাহিত্য সংস্কৃতিতে সকলকে এগিয়ে আসার আহবান জানান তিনি। নারী পুরুষ সম্মিলিত ৬ রাউন্ডের খেলায় এলাকার প্রায় ৭০ জন প্রতিযোগি অংশগ্রহন করেন। আলোচনা শেষে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।


আরও খবর



ডোমার থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে ৬ মাদক কারবারি ও সেবনকারী গ্রেফতার

প্রকাশিত:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ২৯জন দেখেছেন

Image

আনিছুর রহমান মানিক, ডোমার (নীলফামারী) প্রতিনিধি:নীলফামারীর ডোমার থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে ৬জন মাদক কারবারি ও সেবনকারীকে গ্রেফতার করেছে ডোমার থানা পুলিশের একটি দল। 

সদ্য যোগদানকৃত জেলা পুলিশ সুপার মকবুযল হোসেন এর দিক নির্দেশনায় ডোমার থানা অফিসার ইনচার্জ মহসীন আলীর নের্তৃত্বে  এসআই আমজাদ হোসেন, শাকিল মাহবুদ, রুস্তম আলী ও সঙ্গীয় ফোর্স সোমবার সন্ধ্যা থেকে শুরু করে গভীর রাত পর্যন্ত বিভিন্ন এলাকায় মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করেন। অভিযান কালে মাদক কারবারি ও মাদক সেবনকারী ৬ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে পুলিশ। গ্রেফতার কৃতরা হলেন ডোমার সদর ইউনিয়নের ছোট রাউতা ভুজারী পাড়া গ্রামের মৃত রফিকুল ইসলামের ছেলে এরশাদ হোসেন (৩২), জেলা সদরের পশ্চিম কুচিয়ার মোড় পাঠান পাড়া এলাকার আবু সাঈদের ছেলে রুবেল ইসলাম (২৭), ডোমার কলেজ পাড়া এলাকার মৃত গিরিধারী রায়ের ছেলে রামনাথ রায়, জোড়াবাড়ী এলাকার দুলাল হোসেনের ছেলে শাহাজাহান (১৯), তার ভাই আব্দুর রহিম সাগর (৩১) এবং সোনারায় ইউনিয়নের বসুনিয়ার হাট এলাকার মৃত তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে ছমির উদ্দিন (৫৫)। এ সময় তাদের কাছ থেকে নেশাদ্রব্য ট্যাবলেট ও হেরোইন উদ্ধার করা হয়। ডোমার থানা অফিসার ইনচার্জ মহসীন আলী বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন মাদকের বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মাদক মামলা দায়ের করে জেলার বিজ্ঞ আদালতে পাঠানো হয়েছে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.

আরও খবর



বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির এলাকায় ক্ষতিপূরণের দাবিতে মানববন্ধন

প্রকাশিত:বুধবার ০৩ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ৯৬জন দেখেছেন

Image

আফজাল হোসেন, ফুলবাড়ী, দিনাজপুর প্রতিনিধি:দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলার হামিদপুর ইউনিয়নের চৌহাটি বাজারে বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির কয়লা উত্তোলনের কারণে চৌহাটি এলাকায় প্রায় ১ হাজার বাসাবাড়ি কম্পনে ফেটে যাওয়ায় জীবন ও বসত ভিটা রক্ষা কমিটির বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। 

গতকাল বুধবার সকাল ১০টায় পার্বতীপুর উপজেলার চৌহাটি বাজারে জীবন ও বসত ভিটা রক্ষা কমিটির সভাপতি মোঃ মতিয়ার রহমানের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। পাতিগ্রাম ও পাঁচঘরিয়ার প্রায় ৪ হাজার নারী পুরুষ ও স্কুল কলেজের ছাত্র-ছাত্রীরা মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করেন। মানববন্ধন শেষে দুপুর ১২টায় চৌহাটি বাজারে সংবাদ সম্মেলন করেন। সংবাদ সম্মেলনে জীবন ও বসত ভিটা রক্ষা কমিটির সভাপতি মতিয়ার রহমান বলেন, আমরা ৮ দফা মেনে নেওয়ার জন্য খনি কর্তৃপক্ষকে বারবার তাগাদা দিয়েছি। কিন্তু আমাদের কোন কথা কয়লা খনি কর্তৃপক্ষ গুরুত্ব দিচ্ছেনা। ৮ দফা দাবি বাস্তবায়নের মধ্যে রয়েছে; ফাটা বাড়ির ক্ষতিপূরণ দিতে হবে, বসবাসের পুন:নিশ্চয়তা দিবে হবে, সমঝোতা চুক্তি অনুযায়ী ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় ঘর ঘর চাকুরী দিতে হবে, বিশুদ্ধ পানির সু-ব্যবস্থা করে দিতে হবে, আবাদি জমিতে পানি থাকছে না যার ফলে ফসলের ক্ষতি হচ্ছে তার সুব্যবস্থা করে দিতে হবে, কয়লাখনির গেইট হতে চৌহাটি গ্রামের শেষ প্রান্ত পর্যন্ত রাস্তাটি সংস্কার করে দিতে হবে, মসজিদ-মন্দির, ঈদগাহ মাঠ এবং কবরস্থান গুলির উন্নয়নের ব্যবস্থা করে দিতে হবে, অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ বা বসবারের অযোগ্য বসতবাড়ি ও স্থাপনা স্থায়ী সমাধান করে দিতে হবে।  

আমাদের ৮ দফা দাবি বাস্তবায়নে খনি কর্তৃপক্ষ ও পেট্রোবাংলা চেয়ারম্যান এবং স্থানীয় জনপ্রতিনিধি এবং সংসদ সদস্যকে অবগত করলেও আজ পর্যন্ত কোন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে দেখা যাচ্ছেনা। আমরা পরিবার পরিজন নিয়ে আর কতদিন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এই গ্রামে বসবাস করব? এই এলাকার ভূ-গর্ভ থেকে কয়লা তোলার কারণে প্রতিনিয়ত দেবে যাচ্ছে। 

বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির কর্মকর্তা কর্মচারীরা লাভবান হলেও এলাকার গ্রাম ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। আমরা অতি দ্রুত মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আকুল আবেদন জানাচ্ছি আমাদেরকে বাঁচান, তা না হলে এই যন্ত্রণা থেকে মৃত্যু অনেক ভালো। সমাবেশে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম বলেন স্কুল কলেজ মাদ্রাসা কবরস্থান রাস্তাঘাট সবই ধ্বংস হয়ে গেছে। বাকি কিছু নেই। কিন্তু আমরা এখান থেকে অসুস্থ রোগীকে নিয়ে হাসপাতালে যাব, রাস্তার বেহাল অবস্থা থাকায় অ্যাম্বুলেন্স্ও এই গ্রাম আসতে চায় না। তাহলে আপনারা বোঝেন আমরা কিভাবে জীবনযাপন করছি? একাধিক ব্যক্তি জানান, নলকুপে পানি উঠছে না, এ এলাকায় তাপমাত্রা বেড়ে গেছে, যোগাযোগ ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে, স্কুল কলেজ মাদ্রাসাগুলিতে যাওয়ার রাস্তা থাকলেও বর্ষাকালে চলাচল করা সম্ভব হয়না। আমরা এর প্রতিকার চাই ও ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। মানববন্ধনে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জীবন ও বসত ভিটা রক্ষা কমিটি চৌহাটির সংগঠনের উপদেষ্টা শাহ্ এনামুল মাস্টার, প্রফেসর শাহ্ ইনতেজামুল হক, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান আতাউর রহমান, সাইদুর রহমান প্রমুখ। চৌহাটি গ্রামের আনছার ফকির, হরিদাস, কালু মন্ডল জানান উত্তর দিকে নতুন করে কয়লা তোলা হলে এলাকা ধ্বংস হয়ে যাবে। মানববন্ধনে যারা আজ অংশগ্রহণ করেছেন তাদের ৮ দফা দাবি মেনে নেওয়া উচিত খনি কর্তৃপক্ষকে।   

এই বিষয়ে বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী মোঃ সাইফুল ইসলাম এর সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে মোবাইল গ্রহণ করেননি। চৌহাটি গ্রামের প্রায় ৫ হাজার নারী-পুরুষ স্কুল কলেজ মাদ্রাসার ছাত্র ছাত্রী স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ মানবন্ধনে অংশগ্রহণ করেন। পরিশেষে সভাপতি বলেন, আমাদের আজকের এই সমাবেশে ৮দফা দাবী মেনে না নিলে আগামীতে কঠোর থেকে কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। ঘেরাও করা হবে কয়লা খনি।


আরও খবর



লাশ নিয়ে লঙ্কাকান্ড,পরে গভীর রাতেই দাফন লাশ

প্রকাশিত:রবিবার ৩০ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১২৪জন দেখেছেন

Image

সাগর আহম্মেদ,কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি:হাসপাতালে চিকিৎসকেরা মৃত ঘোষণার পর লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্সে গ্রামে আসে সাপের কামড়ে নিহত সাইফুলের লাশ। কাপনের কাপড়ে মুড়িয়ে জানাযার নামাজ ও দাফনের প্রস্তুতি চলছিল তার লাশের। এমন সময় হঠাৎ এক কবিরাজের বেলকিবাজিতে লাশ দাফনে বাঁধা দেয় স্বজনরা। মৃত ব্যক্তিকে ঝাড়ফুঁক দিয়ে জীবিত করা হবে এমন খবরে হাজারো উৎসুক মানুষ সেখানে ভিড় জমায়। কবিরাজ লাপাত্তা হলে অবশেষে গভীর রাতে লাশের দাফন সম্পূর্ণ করা হয়। গত শনিবার গভীর রাত পর্যন্ত উপজেলার বাসুরা এলাকায় এমন লঙ্কাকান্ডের ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে চলছে নানা আলোচনা-সমালোচনার ঝড়। নিহত হলেন, কালিয়াকৈর উপজেলার বাসুরা গ্রামের ইউনুছ আলীর ছেলে সাইফুল ইসলাম (৪০)।

এলাকাবাসী ও নিহতের স্বজন সূত্রে জানা গেছে, গত শুক্রবার রাঁতে সাইফুল ইসলাম নামে এক ব্যক্তিকে কালিয়াকৈর উপজেলার বাসুরা গ্রামের একটি বিলে রাতে মাছ ধরতে গেলে বিষধর সাপে কামড়ে দেয়। এরপর সঙ্গে থাকা অন্য ব্যক্তি টেঁটা দিয়ে সাপটি মেরে ফেলেন। পরে মৃত সাপটি নিয়ে সাইফুল বাড়িতে ফিরে স্বজন ও এলাকাবাসীকে ঘটনাটি জানায়। প্রথমে কবিরাজের কাছে নিয়ে ঝাড়ফুঁক শেষে রাতেই তাঁকে

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে কুমুদিনী হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার ভোরে তিনি মারা যান। হাসপাতালে চিকিৎসকেরা মৃত ঘোষণার পর লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্সে গ্রামে আসে সাইফুলের লাশ। কাপনের কাপড়ে মুড়িয়ে বেলা ২টার দিকে জানাযার নামাজ ও দাফনের প্রস্তুতি চলছিল। এমন সময় হঠাৎ এক কবিরাজের আভির্ভাব ও তার বেলকিবাজীতে পড়ে লাশ দাফনে বাঁধা দেয় স্বজনরা। ঝাড়ফুঁক ও কড়ি চালান দিয়ে মৃত ওই ব্যক্তিকে জীবিত করা সম্ভব, এমন আজব তথ্য দিয়ে ব্যাপক আয়োজন চালাচ্ছিলেন এক কবিরাজ।বাড়ির পাশে একটি খেতে চারটি কলাগাছ পুঁতে চার পাশে ঘেরাও করে কয়েকটি নতুন সিলভারের পানির কলস বসানো হয়।

কলাগাছের চার কোনায় চারটি গ্লাসে দুধ ও একটা মহিষের শিং রাখা, রাতের আঁধার দূর করতে একাধিক বৈদ্যুতিক বাতির ব্যবস্থা করা হয়। এছাড়াও ওই চারটি কলাগাছের মধ্যে টেবিলের ওপর মৃত সাইফুলের লাশ রাখা হবে। এরপাশেই রাখা ছিল সেই মৃত সাপটি। এভাবেই কবিরাজ তাঁকে জীবিত করার চেষ্টা করছিলেন। এমন খবর পেয়ে বাসুরা পশ্চিমপাড়া বাইতুন নুর জামে মসজিদ এলাকার আশপাশে কয়েকটি গ্রামের হাজারো উৎসুক মানুষ সেখানে ভিড় করে। কিন্তু কবিরাজ কড়ি আনার কথা বলে প্রথমে ঢাকার সাভারে পরে গাজীপুর টঙ্গী যান। এরপর থেকে ওই কবিরাজ লাপাত্তা হলে অবশেষে শনিবার গভীর রাতে লাশের দাফন সম্পূর্ণ করা হয়। এদিকে এই আধুনিক যুগে এমন ঝাড়ফুঁক কুসংস্কার মেনে নেওয়া যায় না। গভীর রাত পর্যন্ত এমন লঙ্কাকান্ডের ঘটনাস্থলে পুলিশ ও সচেতন মহলের লোকজনের উপস্থিতি থাকলেও কোনো প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। তবে লাশ নিয়ে এমন লঙ্কাকান্ডের ঘটনায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন মহলে ব্যাপক আলোচনা- সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

স্থানীয় মসজিদের ইমাম আবদুল জলিল জানান, মৃত সাইফুলের জানাজার জন্য দুপুরে এলাকায় মাইকে ঘোষণা ও কবরও খোঁড়া হয়েছিল। কাফনের কাপড় পরানো হয়েছিল। হঠাৎ এক কবিরাজ এসে মৃত সাইফুলকে দেখে চিকিৎসার মাধ্যমে তাঁকে জীবিত করা সম্ভব বলে স্বজনদের জানায়। পরে স্বজনেরা কবিরাজের কথা বিশ্বাস করে ঝাড়ফুঁকের আয়োজন করেছিল। কিন্তু কবিরাজ লাপাত্তা হলে অবশেষে গভীর রাতে তার লাশ দাফন সম্পূর্ণ করা হয়।

কালিয়াকৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ এফ এম নাসিম জানান, যেহেতু তাঁর পরিবারের আত্মবিশ্বাস, যদি ওঝা ভালো করতে পারেন, সেজন্য এমন আয়োজন করে তারা। সেখানে উৎসুক জনতার ভিড় ছিল। সেখানে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা যাতে না ঘটে, সে জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছিল।


আরও খবর