Logo
আজঃ Monday ০৮ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড নিখোঁজ সংবাদ প্রধানমন্ত্রীর এপিএসের আত্মীয় পরিচয়ে বদলীর নামে ঘুষ বানিজ্য

অবশেষে পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন হামজা শাহবাজ

প্রকাশিত:Saturday ২৩ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ২৭৫জন দেখেছেন
Image

পাকিস্তান মুসলিম লিগ-কায়েদের (পিএমএল-কিউ) ও পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) যৌথ প্রার্থী চৌধুরী পারভেজ এলাহির বিরুদ্ধে নাটকীয়ভাবে তিন ভোটে জয়ের পর পিএমএল-এন নেতা হামজা শাহবাজ পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন। শনিবার (২৩ জুলাই) তার শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। হামজা শাহবাজ দেশটির বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফের ছেলে।

পাঞ্জাবের গভর্নর বালিগ উর রহমান অবশেষে হামজা শাহবাজকে শপথবাক্য পাঠ করান। শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানটি গভর্নর হাউজে অনুষ্ঠিত হয় এবং এতে পিএমএল-এন নেতাসহ অন্যান্য সরকারি কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

পাকিস্তানের পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রীর নির্বাচনে পারভেজ এলাহি শুক্রবার (২২ জুলাই) পিএমএল-এন-এর হামজা শাহবাজের কাছে হেরে যান। পাঞ্জাব প্রাদেশিক আইনসভার ডেপুটি স্পিকার দোস্ত মোহাম্মদ মাজারি পিএমএল-কিউ সদস্যদের ভোট গণনা করা হয়নি বলে রায় দেওয়ার পর এ ঘটনা ঘটে।

ডেপুটি স্পিকার মাজারির মতে, হামজা ১৭৯ ও এলাহি ১৭৬ ভোট পেয়েছিলেন। তবে এলাহির নিজের দলের ১০ ভোট গণনা করা হয়নি।

ডেপুটি স্পিকার দোস্ত মাজারির পিএমএল-কিউ ভোট প্রত্যাখ্যান করার বিষয়ে পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রীর নির্বাচনের রায়ের পর, পিটিআই ও পিএমএল-কিউ নেতারা একটি পিটিশন দাখিল করার কথা জানান।

এদিকে, পিটিআই নেতা ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান তার সমর্থকদের শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিবাদ জানানোর আহ্বান জানিয়েছেন।

এর আগে, পাঞ্জাবে প্রাদেশিক পরিষদের উপ-নির্বাচনে বড় জয় পায় ইমরান খানের দল পিটিআই। রোববার অনুষ্ঠিত উপ-নির্বাচনে ২০টি আসনের মধ্যে ১৫টিতেই জয় পায় পিটিআই।

সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বিরুদ্ধে দেশটির পার্লামেন্টে অনাস্থা ভোটের আগে পাঞ্জাব প্রদেশের গভর্নর চৌধুরী সারওয়ারকে তার পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। এর আগে চৌধুরী মুহাম্মদ সারওয়ারের কাছে উসমান বুজদার তার পদত্যাগপত্র দাখিল করেন এবং মুখ্যমন্ত্রীর পদটি খালি হয়।

পাকিস্তানের চারটি প্রদেশ হলো বেলুচিস্তান, খাইবার পাখতুনখাওয়া, পাঞ্জাব ও সিন্ধু। এগুলোর মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ হলো পাঞ্জাব। পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী হতে হলে ৩৭১ ভোটের মধ্যে ১৮৬টি ভোটের প্রয়োজন। যেখানে পিটিআই’র আছে ১৮৩ জন আইনপ্রণেতা। পিএমএল-কিউ’র আছে ১০, পিএমএল-এন’র আছে ১৬৬ এবং পিপিপি’র আছে সাতজন আইনপ্রণেতা।

সূত্র: জিও নিউজ


আরও খবর



মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি কর্মীদের ভিসা নবায়নে জটিলতা

প্রকাশিত:Sunday ২৪ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ০৫ August ২০২২ | ৩৬জন দেখেছেন
Image

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি কর্মীদের ভিসা নবায়নে জটিলতা দেখা দিয়েছে। কূটনৈতিক আলোচনা ও চিঠি চালাচালি করে সমাধানের চেষ্টা চলছে। জানালেন দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মো. গোলাম সারোয়ার।

রোববার (২৪ জুলাই) হাইকমিশনার জানান, সম্প্রতি বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেনের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতকারের সময় মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ইসমাইল সাবরি ইয়াকুব ব্যবস্থা নেবেন বলে তিনি জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে আগামীকাল (২৫ জুলাই) মালয়েশিয়ার সরকারকে কূটনৈতিক চিঠি পাঠিয়ে অনুরোধ জানাবে হাইকমিশন। হাইকমিশনার জানিয়েছেন, প্রবাসীদের কল্যাণ নিশ্চিতে হাইকমিশন সবসময় কাজ করে যাচ্ছে।

এদিকে গত ১ জুলাই কুয়ালালামপুর ইমিগ্রেশন (বিদেশি শ্রমিক) বিভাগের পরিচালক হামিদি বিন আদমের সই করা এক নোটিশে বলা হয়, প্ল্যান্টেশন ১৪ নম্বর ও রিহায়ারিং প্রোগ্রামে যারা ৫ নম্বর ভিসা পেয়েছেন তাদের ৬ নম্বর ভিসা আর নবায়ন হবে না। অর্থাৎ ৬ নম্বর ভিসা পাওয়াদের ফেরত যেতে হবে নিজ দেশে। এতে প্রবাসী রেমিট্যান্সে মারাত্মক প্রভাব ফেলবে। এরই মধ্যে নোটিশের আদেশ বাস্তবায়ন করতে দেশটির সব কয়েকটি ইমিগ্রেশন বিভাগকে বলা হয়েছে। অন্যদিকে যারা ছুটিতে দেশে গিয়েছেন তাদের ফিরে আসা নিয়েও আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

প্রবাসীরা বলছেন, বাংলাদেশ সরকারের উচিত নতুন কর্মী রফতানির আগে মালয়েশিয়ায় অবস্থিত লক্ষাধিক কর্মীদের ৬ বা ৭ নম্বর ওয়ার্ক পারমিট নবায়ন দেওয়ার বিষয়টা নিশ্চিত করা। যা এখনও অনিশ্চিয়তার মধ্যে রয়েছে। একদিকে দেশটিতে শ্রমিকের প্রচুর ঘাটতি, অন্যদিকে ওয়ার্ক পারমিট নবায়ন বন্ধ করে রেখেছে।

পুরোনো কর্মীরা ফেরত গেলে মালয়েশিয়া থেকে প্রবাসী আয় তলানিতে যাবে এবং নতুন কর্মী যাওয়ার খরচে শুধু দেশের হাজার হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার হবে। আর এই টাকা কর্মীদের আয় করতে লাগবে কয়েক বছর।

সাধারণ কর্মীরা কঠোর পরিশ্রম করে টাকা দেশে পাটিয়ে দেশকে সচল রাখে। প্রবাসীদের টাকাই দেশের জন্য প্রয়োজন আর সরকারের কাছে এ কর্মীদের কোনো কিছুই গুরুত্ব পায় না। বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দ্বি-পাক্ষিক আলোচনা করার আহ্বান জানিয়েছেন প্রবাসীরা।

সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্রে জানা যায়, ২০১৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারিতে শুরু হওয়া বৈধকরণ (রিহায়ারিং) প্রকল্পে যারা বৈধ হয়েছিলেন, তারা ৬ নম্বর ভিসা পাবেন না। আর ভিসা না পেলে বৈধরা হয়ে যাবেন অবৈধ। এতে বরাবরের মতো ভিসা রিনিউ করে দেওয়ার নামে অবৈধ অর্থের লেনদেন বেড়ে যাবে। ফলে আবারও কর্মীদের প্রতারিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট দূতাবাস থেকেও কোনো ধরনের নির্দেশনা ইস্যু করা হয়নি।

২০১৬ সালে সাত লাখ ৪৮ হাজার ৯৯২ জন বিদেশি কর্মী বৈধকরণ (রি-হায়ারিং) প্রকল্পে নিবন্ধিত হয়েছিলেন। সে সময় অবৈধদের বৈধ হওয়ার সুযোগকে কাজে লাগিয়ে বাংলাদেশি ও অন্যান্য দেশের এজেন্টরা ভিসা না করে প্রবাসী কর্মীদের থেকে লাখ লাখ রিঙ্গিত হাতিয়ে নেওয়ারও অভিযোগ পাওয়া যায়। এসব প্রতারণার কোনো প্রতীকার পাননি প্রবাসীরা।

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি কর্মীদের ভিসা নবায়নে জটিলতা

এখানে-সেখানে জঙ্গলে পালিয়ে অবস্থান করতে হয়েছিল তাদের। এদের মধ্যে অনেকেই গ্রেফতার হন, শাস্তি পান। পরে খালি হাতে দেশে ফেরেন। পরে মালয়েশিয়া অবৈধদের ব্যাক ফর গুড কর্মসূচির মাধ্যমে জেল শাস্তি ব্যতীত শুধু জরিমানা দিয়ে নিজ দেশে পাঠিয়ে দেওয়ার সুযোগ দেয়। ওই সময়ও কোম্পানির গাফিলতি ও ইমিগ্রেশনের নিয়মের কারণে অবৈধ হয়ে অনেককে শাস্তি ভোগ করতে হয় ও খালি হাতে দেশে ফিরতে হয়।

সম্প্রতি শেষ হওয়া রিক্যালিব্রেসি কর্মসূচির মাধ্যমে ৫০০ রিঙ্গিত জরিমানা দিয়ে অবৈধদের নিজ দেশে ফিরে যাওয়ার সুযোগ দেয়। যারা সুযোগ নিয়েছে তারাও নানা প্রতারণা আর ইমিগ্রেশনের নিয়মের কারণে অবৈধ হয়েছিলেন। এ সুযোগটি গত ৩০ জুন শেষ হয়েছে। এরপর অবৈধদের গ্রেফতার করে শাস্তি দিয়ে দেশে ফেরত পাঠানোর নিয়মিত প্রক্রিয়া শুর করেছে ইমিগ্রেশন বিভাগ।

এমন কঠোর পরিস্থিতির মধ্যেই রিহায়ারিং কর্মসূচির আওতায় ভিসা নিয়ে বৈধভাবে থাকা ও ভিসা নবায়ন না করার ঘোষণায় ফের বিপদে ফেলে দিয়েছে প্রবাসী কর্মীদের।

মালয়েশিয়ার আইন অনুযায়ী নিয়োগকর্তা ব্যতীত ভিসা পাওয়া এবং অবস্থান করার সুযোগ না থাকায় নিয়োগকর্তাদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন অভিবাসী বিষয়ক সংস্থার কর্তারা। তাদের দাবি ৪৫ বছর বয়স বা ১০ বছরব্যাপী মালয়েশিয়া থাকার যে স্বাভাবিক নিয়ম আছে সে অনুযায়ী ভিসা নবায়ন করা হোক।

তাহলে নিয়মের মধ্যেই কর্মীরা অবস্থান করে, মালয়েশিয়ার অর্থনীতি সচল ও চাঙা রাখতে পারবে। যেহেতু নতুন করে কর্মী নিয়োগে ধীরগতি সেহেতু এসব কর্মীদের ভিসা নবায়ন করার সুযোগ দিলে মালয়েশিয়ার লাভ হবে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

তবে এক্ষেত্রে দূতাবাসের সঠিক পরামর্শ ছাড়া ভিসা রিনিউ করার লোভে পড়ে প্রতারিত না হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন হাইকমিশনার মো. গোলাম সারোয়ার।


আরও খবর



ছক্কা মেরে ফিফটি তিন বছর পর ওয়ানডেতে ফেরা বিজয়ের

প্রকাশিত:Friday ০৫ August ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ১১জন দেখেছেন
Image

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরেই দলে ঢুকে পড়েন। তবে ওয়ানডেতে ওই সফরে সুযোগ পাননি এনামুল হক বিজয়। অবশেষে প্রায় তিন বছর পর ওয়ানডে একাদশে ফিরলেন ডানহাতি এই ব্যাটার।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আজ (শুক্রবার) হারারেতে সিরিজের প্রথম ওয়ানডে ম্যাচে সুযোগ পেয়েই বুঝিয়ে দিলেন, এই ফরম্যাটটাই তার সবচেয়ে প্রিয়। এত দীর্ঘ বিরতির ছাপ দেখা গেলো না তার ব্যাটে। ছক্কা মেরেই করলেন হাফসেঞ্চুরি, মাত্র ৪৭ বলে।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ৪১ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১ উইকেটে ২২২ রান। বিজয় ৫০ আর মুশফিকুর রহিম ১৭ রানে অপরাজিত আছেন।

টসের সময় জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক রেগিস চাকাভা জানিয়েছেন, শুরুর দিকে উইকেটের সাহায্য পেতে পারেন বোলাররা। যে কারণে টস জিতে আগে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জিম্বাবুয়ে। তবে শুরুতে বোলারদের সেই সুবিধাটা নিতে দেননি বাংলাদেশের দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও লিটন দাস।

হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে মাঠে টি-টোয়েন্টি সিরিজের তিন ম্যাচের মতো প্রথম ওয়ানডেতেও টস হেরেছে বাংলাদেশ। স্বাগতিক জিম্বাবুয়ের আমন্ত্রণে আগে ব্যাট করতে নেমেছে তামিমের দল। অনুজ সতীর্থ লিটনকে নিয়ে বাংলাদেশের ইনিংসের গোড়াপত্তন করেছেন তামিম।

রিচার্ড এনগারাভার করা প্রথম ওভারের প্রথম পাঁচ বলই ছিল ডট। শেষ বলে ফ্লিক করে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে রানের খাতা খোলেন তামিম। অভিষিক্ত ভিক্টর নিয়ুচির করা পরের ওভার পুরোটা মেইডেন খেলেন লিটন। তবে নিয়ুচির পরের ওভারে বাউন্ডারি হাঁকিয়েই নিজের রানের খাতা খুলেছেন এ ডানহাতি ওপেনার।

নিয়ুচি-এনগারাভার আঁটসাঁট বোলিংয়ের মাঝে নেতিবাচক ছিল ওয়েসলে মাধভেরের ওভারথ্রো থেকে দেওয়া বাউন্ডারি। ইনিংসের তৃতীয় ওভারে নন স্ট্রাইক প্রান্তে লক্ষ্যভ্রষ্ট থ্রো করে বাংলাদেশকে বোনাস চার রান দেন মাধভের। এছাড়া নিয়ুচি লেগসাইডের অনেক বাইরে বল করে ওয়াইডসহ বাউন্ডারি দিয়ে বসেন।

এরপর ওয়ানডে ক্রিকেটে বাংলাদেশের হয়ে নতুন মাইলফলক উন্মোচন করেন বর্তমান অধিনায়ক তামিম ইকবাল। সবার আগে ৮ হাজার রানের মাইলফলকে প্রবেশ করলেন তিনি। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে ৫৭তম রান নেওয়ার মাধ্যমে ক্যারিয়ারের ৮ হাজার রান পূরণ হয় তামিমের।

বাংলাদেশের আর কোনো ব্যাটারের ওয়ানডেতে সাত হাজার রানও নেই। স্বাভাবিকভাবেই সবার আগে এই মাইলফলকে ঢুকলেন তামিম। এর আগে ৫ হাজার, ৬ হাজার ও ৭ হাজার রানেও বাংলাদেশের ব্যাটারদের মধ্যে সবার আগে নাম লিখিয়েছেন দেশসেরা এই ওপেনার।

তবে মাইলফলকে প্রবেশ করার পর বেশিক্ষণ উইকেটে থাকতে পারেননি তামিম। ইনিংসের ২৬তম ওভারে সিকান্দার রাজার বলে আউট হওয়ার আগে ৮৮ বল থেকে নয় চারের মারে ৬২ রান করেছেন টাইগার অধিনায়ক। যা তার ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ৫৪তম হাফসেঞ্চুরি।

লিটন দাস দারুণ ব্যাটিং করছিলেন। এগিয়ে যাচ্ছিলেন সেঞ্চুরির দিকে। কিন্তু ব্যক্তিগত ৮১ রানে এসে হঠাৎ পায়ে টান পড়ে ডানহাতি এই ব্যাটারের।এমনই অবস্থা যে উঠে দাঁড়াতেও পারলেন না। ফলে স্ট্রেচারে শুয়েই মাঠ ছাড়তে হয়েছে তাকে।


আরও খবর



কমলাপুরে রনির অবস্থান-তদন্ত কমিটি নিয়ে হাইকোর্টকে জানালো রেলওয়ে

প্রকাশিত:Thursday ২১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৫১জন দেখেছেন
Image

রেলওয়ের অব্যবস্থাপনা-যাত্রী হয়রানির প্রতিবাদে কমলাপুর রেলস্টেশনে অবস্থান নেওয়া শিক্ষার্থী মহিউদ্দিন রনির অবস্থান ও অভিযোগ তদন্তে কমিটি গঠন করেছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। রেলের অব্যবস্থাপনা নিয়ে মহিউদ্দিন রনির বিষয়ে প্রশ্ন তোলার পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট বেঞ্চে এমন তথ্য জানায় বাংলাদেশ রেলওয়ে।

বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) হাইকোর্টের বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি খিজির হায়াতের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চে এ তথ্য জানানো হয়।

কমিটি গঠনের চিঠিতে বলা হয়, মহিউদ্দিন রনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষার্থী। তার দাবিসমূহ বাস্তবায়নে কমিটি গঠন করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বলা হয়েছে। ওই কমিটির সুপারিশসহ একটি প্রতিবেদন সাতদিনের মধ্যে পাঠাতে বলা হয়েছে।

এর আগে বুধবার (২০ জুলাই) রেলওয়ের অব্যবস্থাপনা-যাত্রী হয়রানির প্রতিবাদে কমলাপুর রেলস্টেশনে অবস্থান নেওয়া শিক্ষার্থী মহিউদ্দিন রনির অবস্থানের কারণ জানতে চান হাইকোর্ট। একই সঙ্গে দুদক বিষয়টি জানে কি না, জানলে কী ব্যবস্থা নিয়েছে সেটাও জানতে চান আদালত।

আদালত দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আইনজীবী খুরশিদ আলম খান ও রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিককে রনির আন্দোলনের বিষয়ে খোঁজ-খবর নিতে বলেন।

ওই শিক্ষার্থীর বিষয়ে পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদন নজরে নিয়ে বুধবার (২০ জুলাই) হাইকোর্টের বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি খিজির হায়াতের সমন্বয়ে গঠিত দ্বৈত বেঞ্চ রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ও দুদকের আইনজীবীকে রনির বিষয়ে তথ্য জানাতে বলেন।

এদিন আদালতে দুদকের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন মো. খুরশীদ আলম খান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক। তার সঙ্গে ছিলেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল আন্না খানম কলী।

বুধবার সকাল ১০টা ৫০ মিনিটের দিকে সংশ্লিষ্ট বেঞ্চ বসার পর রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ডেপুর্টি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিকের কাছে রনির অবস্থানের কারণ জানতে চান আদালত। তখন মানিক বলেন, আমরাও পত্রিকা ও বিভিন্ন মাধ্যমে জানতে পেরেছি, রেলপথে টিকিটবাণিজ্য ও অনিয়ম নিয়ে প্রতিবাদ জানিয়ে আসছেন ওই ঢাবি শিক্ষার্থী।

তখন আদালত বলেন, ঘটনা কী, খোঁজ নেন। কমলাপুর রেলস্টেশনে একটি ছেলে দিনের পর দিন অবস্থান করছেন, পত্র-পত্রিকা, ফেসবুক, ইউটিউব সবখানে বিষয়টি ভাইরাল এবং আলোচনা হচ্ছে। খোঁজ নিয়ে দেখুন, সমস্যা সমাধান করা যায় কি না।

এরপর আন্দোলনরত শিক্ষার্থী মহিউদ্দিন রনির বিষয়টি দুদকের আইনজীবীর দৃষ্টিতে দেন হাইকোর্ট। আদালত দুদকের আইনজীবীকে বলেন, রেলের টিকিট কালোবাজারি ও সিন্ডিকেট নিয়ে কোনো ব্যবস্থা নিয়েছে কি না, তাও জানা দরকার।

আদালত থেকে বের হয়ে দুদুকের আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খান সাংবাদিকদের বলেন, আদালত আমাকে বলেন, আপনি কি ডেইলি স্টার পড়েছেন? আমি বলেছি, পড়েছি।

তখন আদালত বলেন, নিউজটা কি দেখেছেন? আমি বলেছি, দেখেছি। দেখে বিচারকের দৃষ্টি আকর্ষণ করলাম। এ সময় আদালত বলেন, তিনি শেকলপরা অবস্থায় দুর্নীতি সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে আন্দোলন করছেন, এটা দুদক জানে কি না, জানলে কোনো ব্যবস্থা আছে কি না, এটা জানান।

তিনি বলেন, বিষয়টি অফিসে (দুদক) অবহিত করেছি। অফিস তথ্য-উপাত্ত দিয়ে আমাকে জানালে আমি আদালতকে জানিয়ে দেবো।

এই আইনজীবী বলেন, রেলওয়ের টিকিট নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র মহিউদ্দিন রনির একক আন্দোলনের বিষয়ে হাইকোর্ট জানতে চেয়েছেন। রাষ্ট্রপক্ষ ও দুদকের কাছে এ বিষয়টি জানতে চেয়েছেন।

এর আগে মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) রাজধানীর কমলাপুর রেলওয়ে থেকে লংমার্চ নিয়ে রেলপথ মন্ত্রণালয়ে স্মারকলিপি দিয়েছেন মহিউদ্দিন রনি।

এদিকে মহিউদ্দিন রনির করা অভিযোগের প্রমাণ পাওয়ায় সহজ ডটকমকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করেছে ভোক্তা অধিকার অধিদপ্তর। এ জরিমানার ২৫ শতাংশ অর্থ পাবেন ভুক্তভোগী রনি।

গত ৭ জুলাই থেকে রেলওয়ের অব্যবস্থাপনা-যাত্রী হয়রানির প্রতিবাদে ছয়দফা দাবিতে হাতে শেকল বাঁধা অবস্থায় কমলাপুর রেলস্টেশনে অবস্থান করছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের থিয়েটার অ্যান্ড পারফরম্যান্স স্টাডিজ বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী মহিউদ্দিন রনি। শুরুতে একা আন্দোলন করলেও পরে তার বন্ধু, সহপাঠীসহ বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থীও অবস্থান নেন। কদিন ধরে সেখানে তারা গান, কবিতা, পথনাটকের মাধ্যমে প্রতিবাদ জানিয়ে আসছেন।

আন্দোলনের কারণ জানতে চাইলে রনি জানান, গত ১৩ জুন বাংলাদেশ রেলওয়ের ওয়েবসাইট থেকে ঢাকা-রাজশাহী রুটের ট্রেনের আসন নিবন্ধনের চেষ্টা করেন তিনি। কিন্তু মুঠোফোনে আর্থিক সেবাদাতা সংস্থা বিকাশ থেকে ভেরিফিকেশন কোড দিয়ে তার পিন কোড ছাড়াই অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা কেটে নেওয়া হয়। কিন্তু ট্রেনের কোনো আসন পাননি, এমনকি কেন টাকা নেওয়া হলো, তার কোনো রশিদও দেওয়া হয়নি।

অন্যদিকে চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, জামালপুরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে রেলওয়ে স্টেশনগুলোতে মহিউদ্দিনের সঙ্গে একাত্মতা জানিয়ে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন শিক্ষার্থীরা। ঘটনাটি দেশীয় গণমাধ্যমের পাশাপাশি বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমেও গুরুত্ব সহকারে প্রচার করা হচ্ছে।


আরও খবর



দ্বন্দ্ব ভুলে আবারও এক হলেন আসিফ-ন্যানসি

প্রকাশিত:Saturday ৩০ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৩৩জন দেখেছেন
Image

বাংলা গানের যুবরাজ আসিফ আকবর ও নাজমুন মুনিরা ন্যান্সির দীর্ঘদিনের দ্বন্দ্বের অবসান হলো। তাদের মধ্যে বেশ ক বছর ধরে চলছিলো দ্বন্দ্ব। অবশেষে সকল দ্বন্দ্ব ভুলে আবারও এক হলেন তারা। আর সেই দ্বন্দ্বের ইতি ঘটালেন ন্যানসি নিজেই।

শনিবার (৩০ জুলাই) দুপুরে সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে আসিফ আকবর ফেসবুক পোস্ট লিখেছেন, ‘একটা ফোনের অপেক্ষায় ছিলাম চারটা বছর। অবশেষে এলো সেই কাঙ্খিত ফোন। হ্যালো বলতেই শুনলাম অনেক পছন্দের আদুরে কণ্ঠটি। ভাইয়া আমি ন্যানসি বলছি—খুব ভালো লাগল ওর ফোনটা পেয়ে। দুনিয়ার সমস্ত অভিযোগ অভিমান আমার বিরুদ্ধে, শুনে আরও ভালো লাগছিল। ন্যানসি তো আমার ছোট, আমি তো বড়, তাহলে আমার মিনিমাম ভুলের ম্যাক্সিমাম শাস্তি হওয়া উচিত।

আসিফ আরও লিখেছেন, নাজমুন মুনিরা ন্যানসির কণ্ঠ আমাদের সম্পদ। আমাকে বলল, ভাইয়া আমি রাগ কমিয়ে ফেলেছি, আপনিও রাগ কমিয়ে ফেলেন। সঙ্গে সঙ্গেই রাজী হয়ে গেলাম। অনেকদিন পর স্নেহের ন্যানসির সঙ্গে গল্প-গানের আড্ডায় নিজেকে হালকা করে ফেলেছি।

সবশেষে আসিফ বলেন, ভালো থাকো ন্যানসি, আনন্দে বাঁচো। গান গেয়ে যাও, তোমার কণ্ঠ এ দেশের মানুষের একটা আনন্দময় ভালো লাগা। আমিও সেই দলের বাইরে নই।

আসিফ-ন্যানসির দ্বন্দ্ব শুরু হয় আজেবাজে মন্তব্য’র মধ্য দিয়ে। এরপর আসিফ ফেসবুক লাইভে এসে ন্যানসিকে হেয় করে কথা বলা, সঙ্গীতশিল্পী শফিক তুহিনের মামলায় কারাগারে যাওয়াসহ নানা কারণে আসিফ-ন্যানসি’র মধ্যে দূরত্ব বাড়তে থাকে। যদিও দ্বন্দ্বের মূলে ছিল আসিফ-ন্যানসির গানের রয়্যালটি। তা ২০১৮ সালের মাঝামাঝির কথা। সেসময় তাদের এই ঘটনায় উত্তাল ছিল পুরো সঙ্গীতাঙ্গন।

২০২০ সালের ১০ জুলাই ময়মনসিংহ কোতোয়ালি থানায় আসিফের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দেন ন্যানসি। লিখিত অভিযোগে বলা হয়, বিভিন্ন মিডিয়ায় তার মানহানি হয় এমন বক্তব্য দিয়েছেন আসিফ আকবর। যার ফলে তিনি ও তার পরিবার হেয়প্রতিপন্ন হয়েছেন। প্রায় চার বছর পর অভিমান ভুলে আবারও এক হলেন তারা।


আরও খবর



শেষ রাউন্ড পর্যন্ত ঝুলে থাকলো মুক্তিযোদ্ধা-বারিধারার ভাগ্য

প্রকাশিত:Wednesday ২৭ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০১ August ২০২২ | ২১জন দেখেছেন
Image

স্বাধীনতা ক্রীড়া সংঘ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ থেকে অবনমন হওয়ার পর এখন অপেক্ষা দ্বিতীয় দলের। মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্র ও উত্তর বারিধারা ক্লাবের মধ্যে কোন দলটি স্বাধীনতা ক্রীড়া সংঘের সঙ্গী হয়ে চ্যাম্পিয়নশিপ লিগে নেমে যাবে তা দেখতে অপেক্ষা করতে হবে লিগের শেষ রাউন্ড পর্যন্ত।

বুধবার ২১তম রাউন্ডে মুক্তিযোদ্ধা মুখোমুখি হয়েছিল চট্টগ্রাম আবাহনীর। এ ম্যাচটি জিতলে দেশের ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটির অবনমন এড়ানো নিশ্চিত হতো। কিন্তু দলটি ১-১ গোলে ড্র করে এখনো রয়ে গেছে ঝুঁকির মধ্যে।

চট্টগ্রাম আবাহনীর বিপক্ষে ড্র করায় মুক্তিযোদ্ধার পয়েন্ট দাঁড়ালো ১৬। তাদের পেছনে থাকা উত্তর বারিধারার পয়েন্ট ১৪। শেষ ম্যাচে মুক্তিযোদ্ধা খেলবে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের বিপক্ষে এবং উত্তর বারিধারার প্রতিপক্ষ আবাহনী। দুই ম্যাচ ড্র হলে নেমে যাবে বারিধারা। মুক্তিযোদ্ধা জিতলে টিকে থাকবে প্রিমিয়ার লিগে।

বুধবার অন্য দুই ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল বাংলাদেশ পুলিশ ফুটবল ক্লাব ও মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব লিমিটেড এবং শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র ও রহমতগঞ্জ মুসলিম ফ্রেন্ডস সোসাইটি। মোহামেডান-পুলিশের ম্যাচটি ড্র হয়েছে ১-১ গোলে এবং অন্য ম্যাচে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র ৩-১ গোলে হারিয়েছে রহমতগঞ্জকে।


আরও খবর