Logo
আজঃ বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪
শিরোনাম

অবিশ্বাস্য দামে দারাজে পাওয়া যাচ্ছে রিয়েলমি স্মার্টফোন

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ৩৬৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:রিয়েলমি’র নতুন উন্মোচিত হওয়া অত্যাধুনিক সব স্মার্টফোন দারাজ থেকে সাশ্রয়ী দামে কেনার এখনই সুযোগ! দেশের শীর্ষস্থানীয় ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম দারাজের নবম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে দারাজে অবিশ্বাস্য দামে পাওয়া যাচ্ছে রিয়েলমি’র বিভিন্ন স্মার্ট ডিভাইস। গতকাল (১২ সেপ্টেম্বর) শুরু হওয়া এ অ্যানিভার্সারি ক্যাম্পেইন চলবে আগামী ২৪ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। এ ক্যাম্পেইনে রিয়েলমি’র জিটি মাস্টার এডিশন ও ৯ প্রো প্লাস সহ ব্র্যান্ডটির বিভিন্ন স্মার্টফোন কেনার সুযোগ থাকছে দুর্দান্ত দাম ও আকর্ষণীয় ডিলে। ক্যাম্পেইন চলাকালে, ক্রেতারা নির্বাচিত স্মার্টফোনে দারাজের ডিসকাউন্ট কুপন ব্যবহার করে সর্বোচ্চ ২,৮০০ টাকা পর্যন্ত ৫ শতাংশ ছাড় উপভোগ করতে পারবেন; সাথে থাকছে শূন্য শতাংশ ইএমআই ও ব্র্যান্ড ওয়্যারেন্টি সুবিধা। এছাড়াও, এসব স্মার্টফোন কেনা যাবে পেমেন্ট পার্টনারদের বিস্তৃত পরিসরের আকর্ষণীয় ডিলের মাধ্যমে। ক্যাম্পেইনে রিয়েলমি’র যেসব ডিভাইস পাওয়া যাবে তার মধ্যে রয়েছে রিয়েলমি সি৩০ (২জিবি র‍্যাম/৩২জিবি রম), রিয়েলমি সি৩৩ (৪জিবি/১২৮ জিবি), রিয়েলমি সি৫৫ (৮জিবি/২৫৬ জিবি), রিয়েলমি সি৫৫ (৬জিবি/১২৮জিবি), রিয়েলমি সি৩০এস (৩জিবি/৬৪জিবি), রিয়েলমি সি৫৩ (৬জিবি/১২৮জিবি), রিয়েলমি জিটি মাস্টার এডিশন (৮জিবি/১২৮জিবি), রিয়েলমি ৯ প্রো প্লাস (৮জিবি/১২৮ জিবি) এবং রিয়েলমি সি৫১ (৪জিবি/৬৪জিবি)। রিয়েলমি’র মান ও সাশ্রয়ী দামের মধ্যে সমন্বয়ের কারণে তরুণ-কেন্দ্রিক এ ব্র্যান্ডটি তরুণ প্রজন্মের মধ্যে ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। সবার জন্য স্মার্টফোন ব্যবহারের সুযোগ নিশ্চিত করার পাশাপাশি রিয়েলমি উদ্ভাবনী, প্রতিযোগিতামূলক ফিচার সমৃদ্ধ এবং আকর্ষণীয় ডিজাইনের স্মার্টফোন নিয়ে আসছে। তাহলে আর অপেক্ষা কেন? এ লিঙ্কে ক্লিক করে উপভোগ করুন আকর্ষণীয় ডিল।


আরও খবর



নওগাঁর বরেন্দ্র অঞ্চলে আমের ভাল দাম পেয়ে খুশি কৃষক

প্রকাশিত:সোমবার ১০ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ৬১জন দেখেছেন

Image

ডিএম রাশেদ পোরশা (নওগাঁ):গত কয়েক বছরের তুলনায় এবছর আমের ভাল দাম পেয়ে খুশি নওগাঁর বরেন্দ্র অঞ্চলের আম চাষীরা। গত কয়েক বছরের তুলনায় এবছর বাজারে সকল প্রকার আম তিন গুন বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে। এবছর আমের ফলন কম। তবে ভাল দাম পেয়ে ক্ষতিপুষিয়ে যাচ্ছে চাষীদের।  

নওগাঁর বরেন্দ্র অঞ্চলের বাতাসে বইছে এখন পাকা আমের মিষ্টি ঘ্রান। গাছে গাছে দেখা দিয়েছে বছরের শ্রেষ্ট ফল পাকা আম। এরই মধ্যে বাজারে উঠতে শুরু করেছে ফরমালিনমুক্ত গাছ পাকা তরতাজা আম। 

পাখিরা এখন গাছের ডালে বসে রসালো পাকা আম খাচ্ছে আর মোনের সুখে গাইছে প্রাণের গান। আম চাষী, ব্যবসায়ী, কৃষক, দিনমজুররা আম পাড়ায় ব্যস্ত। অনেকেই পরিবারের সকলে মিলে একসাথে বসে পাকা আম খাওয়ায় ব্যস্ত, আবার কেউ আত্মীয় স্বজনের বাসায় পাকা আম পাঠানোই ব্যস্ত।

পোরশা উপজেলার প্রাণকেন্দ্র সারাইগাছী বাজার, পোরশা সদর বাজার, তেঁতুলিয়া বাজার, নোচনাহার বাজার, শিশা বাজার ও বড়গ্রাম বাজার এবং সাপাহার উপজেলা সদরের আমের আড়ৎ গুলোতে গাছ পাকা আম কেনা বেচা শুরু হয়েছে। আমচাষী ও ব্যবসায়ীরা গাছ থেকে আম ভেঙ্গে বাজারে বিক্রি করা শুরু করেছেন। অনেক বাগান মালিকরা গাছেই আম ঠিকায় (কনটাকে) বিক্রি করছেন।

গাছে সকল জাতের আম পাকা দেখা না গেলেও গত কয়েকদিনে গুটি জাতীয়, গোপালভোগ ও খিরসাপাত(হিমসাগর) আম পাকা দেখা দিয়েছে। এ জাতীয় আমগুলো গাছ থেকে নামাতে নামাতেই পাকা দেখা দিবে আমের রাজা বলে খ্যাত ল্যাংড়া, এর পর পর্যায়ক্রমে ফজলী, রূপালী ও আশ্বীনা।

গত কয়েক বছরের তুলনায় এবছর আমের ভাল দাম পেয়ে খুশি আম চাষীরা। এবছর গুটি জাতীয় আম ১মন (৫২কেজি) বিক্রি হচ্ছে ১০০০ থেকে ১৫০০টাকা পর্যন্ত। গোপালভোগ একই ওজনে প্রতি মন আম বিক্রি হচ্ছে ২৪০০ থেকে ২৮০০টাকা পর্যন্ত। আর খিরসাপাত(হিমসাগর) প্রতি মন বিক্রি হচ্ছে ২৮০০ থেকে ৩৫০০ টাকা পর্যন্ত।

পোরশা উপজেলার বেশ কয়েকটি বাজারের আমের আড়ৎগুলোতে ঘুরে দেখা গেছে, ব্যাপকভাবে আম বেচা-কেনা শুরু হয়েছে। প্রতিদিন এ উপজেলার বিভিন্ন আড়ৎ থেকে প্রায় অর্ধ শতাধীক ট্রাকে করে দেশের বিভিন্ন শহর এবং এলাকায় আম রপ্তানী করা হচ্ছে।

পোরশা উপজেলার সহড়ন্দ গ্রামের আমচাষী হাবিবুর রহমান জানান, এবছর আম মৌসুমের শুরু থেকে আবহাওয়া ভাল থাকলেও গাছে মুকুল আসার পরই কয়েকবার আকাশের বৃষ্টি হওয়ায় অনেক মুকুল ঝরে গিয়েছিল। এ কারনে এবছর আমের ফলন তুলনামূলক কম। তবে গত কয়েক বছরের তুলনায় এবছর বাজারে আমের দাম অনেক ভাল। যে কারনে ফলন কম হলেও, দাম ভাল পেয়ে ক্ষতি পুষিয়ে যাবে বলে জানান তিনি। উপজেলার পাইকারী আম ব্যাবসায়ী সজল মিয়া জানান, তাদের আড়তে প্রতিদিন গুটি, গোপালভোগ ও খিরসাপাত আম বেচা কেনা হচ্ছে। একদিকে এলাকায় আমের ফলন কম, অন্যদিকে মোকামে চাহিদা বেশি থাকায় অন্যান্য বছরের তুলনায় এবছর আমের দাম অনেক বেশি।

পোরশা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মামুনূর রশিদ জানান, নওগাঁ জেলার অন্যান্য উপজেলার মধ্যে সর্বোচ্চ আম চাষ হয় পোরশা উপজেলায়। এবছর এ উপজেলায় ১০হাজার ৬শ হেক্টর জমিতে আম চাষ করা হয়েছে। পোরশা উপজেলার মাটি আম চাষ করার উপযোগী। মাটি ভাল হওয়ার কারনে এখানকার আম অনেক সুস্বাদু বলেও জানান তিনি।


আরও খবর



"সাংবাদিককে চিঠি" রিটার্নিং কর্মকর্তা অভিযুক্ত প্রার্থীর বেলায় নীরব আচরণ

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ৮০জন দেখেছেন

Image

রাসেল হোসেন নিরব(পটুয়াখালী) প্রতিনিধিঃপটুয়াখালীর দুমকিতে এমপির দেয়া প্যারাডো গাড়ীতে চড়ে মোটর  সাইকেল মার্কার চেয়ারম্যান প্রার্থী ড. হারুণ অর রশীদ হাওলাদারের নির্বাচনী প্রচারণায় আচরণ বিধি লঙ্ঘণে পদক্ষেপ গ্রহণের পরিবর্তে প্রকাশিত সংবাদের প্রমাণক চেয়েছে প্রশাসন।

পটুয়াখালীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ও রিটার্নিং অফিসার যাদব সরকার গত বৃহস্পতিবার দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন পত্রিকার দুমকি উপজেলা প্রতিনিধি মোঃ দেলোয়ার হোসেনকে এক চিঠিতে প্রকাশিত সংবাদের প্রমাণক দাখিলের নির্দেন দেন।

উল্লেখ্য, পটুয়াখালী-১ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য এবিএম রুহুল আমীন হাওলাদারের ভাগ্নে দুমকি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মোটর সাইকেল প্রতীকের চেয়ারপ্রার্থী ড. হারুন অর রশীদ হাওলাদারের পক্ষে বিভিন্ন সভা-সমাবেশে প্রকাশ্যে তিনি (এমপি) ভোট চান। এমনকি তার ব্যবহৃত (ঢাকা মেট্রো-ঘ ১৩-৪৩১২) নম্বরের প্যারাডো গাড়ীটিও তাকে নির্বাচনী প্রচারের জন্য দিয়ে দেন। বিআরটিএ তথ্যমতে গাড়ীটি নীলফামারী-৪ আসনের প্রায়াত এমপি লেঃকর্ণেল মারুফ সাকলাইনের নামে নিবন্ধিত। একজন প্রায়াত সংসদ সদস্যের নামে নিবন্ধিত গাড়ীটি কিভাবে পটুয়াখালী-১ আসনের সাংসদ এবিএম রুহুল আমীন হাওলাদার ও তার পরিবারবর্গ গত ৬ মাস ধরে ব্যবহার করছেন এবং একই গাড়ীটি মোটর সাইকেল মার্কার চেয়ারম্যান প্রার্থী হারুন অর রশীদ হাওলাদারের নির্বাচনী প্রচারণায় কেন ব্যবহার করছেন এ তথ্য অনুসন্ধানের পরিবর্তে প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রমাণক চেয়ে উল্টো সংশ্লিষ্ট সাংবাদিককে চিঠি দেয়া হয়। 

এ বিষয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তা যাদব সরকারের বক্তব্য জানতে চাইলে উল্টো তিনি প্রমাণক চান। দ্রুত প্রমাণক চাইতে গিয়ে নাম বাদ দিয়ে শুধু ফোন নাম্বার দিয়ে চিঠি দেয়া হয়। যদিও পরে আবার সংশোধন করা হয়।

রিটার্নিং কর্মকর্তা বরাবর লিখিত বক্তব্যে সাংবাদিক দেলোয়ার জানান, গণমাধ্যম কর্মী হিসেবে ঘটনার পূর্বাপর বিশ্লেষণ করে জনগণ ও প্রশাসনকে সর্তক করাই তার কাজ এবং একই সঙ্গে ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ে তিনি জেলা রিটার্নিং অফিসারকে অনুরোধ করেন।

তা না করলে জনমনে যে প্রশ্নের জন্ম হয়েছে তা নিরসন হবে না, একই সঙ্গে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুষ্ঠু উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের যে অঙ্গীকার তাও ব্যাহত হবে।

সংসদ সদস্যের গাড়ি ব্যবহার প্রসঙ্গে হারুন হাওলাদারের কাছে কোনো চিঠি দিয়েছেন কীনা এমন তথ্য জানতে ফোন দেয়া হলেও সাংবাদিক পরিচয় শুনলেই তিনি ফোন কেটে দিচ্ছেন। 

রিটার্নিং কর্মকর্তা ও পটুয়াখালীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) যাদব সরকারের এমন কর্মকাণ্ডে হতবাক গণমাধ্যম কর্মীসহ দুমকীর সচেতন মহল। এম


আরও খবর



হুয়াওয়ে আইসিটি কম্পিটিশনের গ্লোবাল রাউন্ডে অংশ নিতে চীনে বাংলাদেশ দল

প্রকাশিত:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ১৪৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:হুয়াওয়ে আইসিটি কম্পিটিশন ২০২৩-২৪ এর আঞ্চলিক পর্বে বিজয়ের পর গ্লোবাল রাউন্ডে অংশ নিতে চীন সফরে যাচ্ছে বাংলাদেশ দল। রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (রুয়েট) তিন শিক্ষার্থীর এই দলটি গতরাতে চীনের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করে। এই তিন শিক্ষার্থী হলেন শুভম আগরওয়ালা, রাকেশ কর এবং মো: মাজহারুল ইসলাম।

এর আগে এই দলটি ইন্দোনেশিয়ার জাকার্তায় হুয়াওয়ে আইসিটি কম্পিটিশনের এশিয়া প্যাসিফিক (এপিএসি) রাউন্ডে ১৪টি দেশের ছয় হাজার ৪০০ জন শিক্ষার্থীর সাথে প্রতিযোগিতা করে তৃতীয় স্থান অর্জন করে। এরই ধারাবাহিকতায় তাঁরা চীনের শেনঝেনে চূড়ান্ত পর্বে অংশ নিতে যাচ্ছে। চূড়ান্ত এই পর্বে ৪০টি দেশ থেকে ৫২০ জনের বেশি শিক্ষার্থী ও ১৭০ জন শিক্ষক অংশ নিচ্ছেন। এই চূড়ান্ত পর্ব মূলত একটি দলীয় প্রতিযোগিতা যেখানে ১৭৪টি দল রয়েছে এবং তাঁরা নেটওয়ার্ক ট্র্যাক, ক্লাউড ট্র্যাক, কম্পিউটিং ট্র্যাক ও ইনোভেশন ট্র্যাক; এই চারটি আলাদা- আলাদা ট্র্যাকে প্রতিযোগিতা করবে। নেটওয়ার্ক ট্র্যাকে অন্য ৫১টি দলের সাথে প্রতিযোগিতা করবে বাংলাদেশ।

প্রতিযোগিতার পাশাপাশি ছয় দিনের এই সফরে অংশগ্রহণকারীরা প্রযুক্তি ও সাংস্কৃতিক মতবিনিময় কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ, হুয়াওয়ের রিসার্চ ও ডেভেলপমেন্ট সেন্টার এবং প্রধান কার্যালয় পরিদর্শন, এবং চীনের ঐতিহ্য সম্পর্কে জানার সুযোগ পাবে।

হুয়াওয়ে সাউথ এশিয়ার বোর্ড মেম্বার লি জংশেং বলেন, “আমরা বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের মেধা বিকাশের জন্য বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করে আসছি। হুয়াওয়ে আইসিটি কম্পিটিশন এর মধ্যে একটি। শুরু থেকেই খুব অল্প সময়ের মধ্যে এটি বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। বাংলাদেশী শিক্ষার্থীদেরকে গ্লোবাল ফাইনালে উঠতে দেখে আমি খুবই আনন্দিত। আমি ফাইনালে তাদের সাফল্য কামনা করি।”

রুয়েটের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. ইঞ্জি. মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, “হুয়াওয়ের এই আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় শিক্ষার্থীরা ইতোমধ্যেই তাদের জ্ঞান ও দক্ষতা বৃদ্ধির সুযোগ পেয়েছে। আমি এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী সকল শিক্ষার্থীদের অভিনন্দন জানাই। আমার ছাত্রদেরকে চূড়ান্ত পর্যায়ে যেতে দেখে খুবই খুশি হয়েছি। চূড়ান্ত পর্বে তারা অনেক দেশের অংশগ্রহণকারীদের সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে। আমি তাদের সাফল্য কামনা করি।”

দেশে একটি শক্তিশালী আইসিটি ইকোসিস্টেম গড়ে তোলার লক্ষ্য নিয়ে হুয়াওয়ে দ্বিতীয় বারের মতো বাংলাদেশে হুয়াওয়ে আইসিটি প্রতিযোগিতা আয়োজন করেছে। গত অক্টোবরে শুরু হওয়া এবারের প্রতিযোগিতায় ২৫টি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১০০০ এর ও বেশি শিক্ষার্থী অংশ নেয়। হুয়াওয়ে আইসিটি কম্পিটিশন শুরুর পর এবারই প্রথম সরাসরি এতো বড় আয়োজনের মাধ্যমে চূড়ান্ত পর্ব অনুষ্ঠিত হবে। তরুণদের প্রযুক্তিগত দক্ষতা ও জ্ঞান আরও বৃদ্ধি করার মাধ্যমে স্মার্ট বাংলাদেশের রূপান্তর গতিশীল করতে এই ধরনের বিভিন্ন প্রতিযোগিতা আয়োজন করে হুয়াওয়ে।


আরও খবর



মালাবদল করবেন সোনাক্ষী-জহির

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ৬৫জন দেখেছেন

Image

বিনোদন ডেস্ক:প্রকৃতিতে গ্রীষ্মকাল। বিয়ের মৌসুম শীত আসতে ঢের দেরি। কিন্তু ততদিন অপেক্ষা করতে চাইছেন না সোনাক্ষী সিনহা। গৃহত্যাগী সূর্যটাকে সাক্ষী রেখেই বিয়ের পিঁড়িতে বসতে চলেছেন তিনি। পাত্র দীর্ঘদিনের প্রেমিক জহির ইকবাল। খবর ভারতীয় গণমাধ্যমের।

কয়েক বছর ধরে চুটিয়ে প্রেম করছেন সোনাক্ষী-জহির। প্রথম দিকে সম্পর্কের কথা গোপন রেখেছিলেন তারা। কিন্তু আকাশে চাঁদ উঠলে তো আর লুকিয়ে রাখা যায় না। এ জুটিও পারেননি। ধীরে ধীরে তা প্রকাশ পেয়ে যায়।

বলিউডের অনেক অনুষ্ঠানেই একসঙ্গে হাজির হয়েছেন সোনাক্ষী-জহির। কখনও হাতে হাত ধরে সিনেমা দেখতে গেছেন, কখনও বা ডিনার ডেটে। সম্প্রতি সালমান খানের পার্টিতেও একসঙ্গে দেখা যায় তাদের।জানা গেছে, সোনাক্ষীর চেয়ে দুই বছরের ছোট জহির। একজের বয়স ৩৭, আরেকজনের ৩৫। যদিও বলিউডি সংস্কৃতিতে বয়স কোনো বাধা নয়। এরকম নজির আরও অনেক আছে।

সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী ১৯ জুন মালাবদল করবেন সোনাক্ষী-জহির। এরইমধ্যে আয়োজন শুরু হয়ে গেছে। তবে বিয়েতে কোনো থিম থাকছে না। নিমন্ত্রিত অতিথিদের সাধারণ পোশাকেই অনুষ্ঠানে আসতে বলা হয়েছে।

এদিকে সোনাক্ষীর জীবনে জহিরই প্রথম পুরুষ নন। এর আগে রণবীর সিংয়ের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন তিনি। পরে অজানা কারণে তারা আলাদা হয়ে যান।

সোনাক্ষীর হবু বরও একজন অভিনেতা। ২০১৯ সালে ‘নোটবুক’ সিনেমার মাধ্যমে বলিউডে অভিষেক হয় তার। এরপর বেশ কয়েকটি সিনেমায় দেখা গেছে তাকে।


আরও খবর



মানিকছড়ি থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে ১০০লিটার চোলাইমদ সহ গ্রেফতার দুই

প্রকাশিত:শুক্রবার ৩১ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ৫৫জন দেখেছেন

Image
জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:খাগড়াছড়ি জেলার মানিকছড়ি থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে  দেশীয় তৈরী চোলাইমদ সহ মো. আলম  (৩২) ও সুমন চাকমা (৪৮) কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ একটি সিএনজি জব্দ

বৃহস্পতিবার (৩০ মে)  রাত দেড়টার দিকে  মানিকছড়ি থানার একটি চৌকস দল মানিকছড়ি থানা এলাকায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মানিকছড়ি থানাধীন  যোগ্যাছোলা ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের গরমছড়ি এলাকায়  খাগড়াছড়ি হইতে চট্টগ্রামগামী আঞ্চলিক মহাসড়কের উপর চেকপোস্ট বসিয়ে একটি সিএনজি তল্লাসী চালিয়ে ১০০ লিটার অবৈধ  দেশীয় তৈরী চোলাইমদ সহ আসামী মো. আলম  (৩২) সুমন চাকমা (৪৮)কে গ্রেফতার ও চোলাইমদ বহন কারি একটি সিএনজি জব্দ করা হয়।

গ্রেফতারকৃত আসামীরা হলেন-মো. আলম  (৩২) পিতা-মৃত মোজাম্মেল হক,সুমন চাকমা (৪৮)পিতা- মৃত রবীন্দ্র উভয় লক্ষীছড়ি উপজেলার সদর ইউনিয়ন এর বাসিন্দা। 

আসামীদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা রুজু করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃত আসামীকে বিধি মোতাবেক যথাসময়ে বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করা হবে।

আরও খবর