Logo
আজঃ শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪
শিরোনাম
কক্সবাজারে পাহাড় ধসে স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যু বন্ধ শিল্প প্রতিষ্ঠান চালুর পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে: শিল্পমন্ত্রী বাংলাদেশের হার দিয়ে সুপার এইট শুরু গোদাগাড়ীতে রাসেল ভাইপারের চিকিৎসার দাবিতে স্বাস্থ্য মন্ত্রীর কাছে চিঠি দিয়েছে নাগরিক স্বার্থ-সংরক্ষণ কমিটি রূপগঞ্জে জমে উঠেছে কাঞ্চন পৌরসভা নির্বাচন যাত্রাবাড়ীতে পুলিশ কর্মকর্তার বাবা মাকে কুপিয়ে হত্যা যানজট নিরসনে সংসদ সদস্যগণের সাথে ট্রাফিক ওয়ারী বিভাগের সমন্বয়সভা ভোলায় ফের দেখা মিলল রাসেল ভাইপার, জনমনে আতঙ্ক বাজেট পাস হয়নি,অনেক কিছু পুনর্বিবেচনা করা সম্ভব: অর্থমন্ত্রী দেশের সব মহৎ অর্জন আ. লীগের মাধ্যমেই হয়েছে: ওবায়দুল কাদের

নওগাঁয় স্ত্রীকে দিয়ে মিথ্যা ধর্ষণের মামলা করায় স্বামী-স্ত্রী উভয়ের জেল-জরিমানা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | ৩৮৯জন দেখেছেন

Image

ডিএম রাশেদ পোরশা (নওগাঁ) : নওগাঁয় স্ত্রীকে দিয়ে মিথ্যা ধর্ষণের মামলা দায়ের করায় এক দম্পতিকে পাঁচ বছর সশ্রম কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত। সেই সঙ্গে বিশ হাজার টাকা অর্থদন্ড, অনাদায়ে তিন মাস বিনাশ্রম কারাদন্ডের আদেশ দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার (২৮ মার্চ) নওগাঁ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ এর বিচারক জেলা ও দায়রা জজ মোঃ মেহেদী হাসান তালুকদার এ রায় ঘোষণা করেন।


দণ্ডিতরা হলেন আফসার আলী ও তার স্ত্রী মনোয়ারা খাতুন। দণ্ডিত আফসার আলী নওগাঁর সাপাহার থানার নুরপুর গ্রামের আবদুল হক মন্ডলের ছেলে। আদালতে উপস্থিত আফসার আলীকে কারাগারে প্রেরণ করা হয় এবং তার স্ত্রী মনোয়ারা খাতুনের বিরুদ্ধে সাজা পরোয়ানাসহ গ্রেফতারী পরোয়ানা ইস্যু করা হয়। আদালতে রাষ্ট্রপক্ষের বিশেষ পি.পি অ্যাডভোকেট মোঃ মকবুল হোসেন ও আসামীপক্ষের অ্যাডভোকেট মোঃ আব্দুল লতিফ মামলাটি পরিচালানা করেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, বেগুন গাছ কাটাকে কেন্দ্র করে জেলার সাপাহার উপজেলার সাপাহার গ্রামের মৃত গিয়াস উদ্দিন মন্ডলের ছেলে ওসমান গনির সাথে আফসার আলীর বিরোধ হয়। বিরোধের সূত্র ধরে মনোয়ারা খাতুনকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে আফসার আলী তাকে দিয়ে ওসমান গনির বিরুদ্ধে ২০০৫ সালের ৬ এপ্রিল সাপাহার থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।অভিযোগে বলা হয়, ২০০৫ সালের ৫ এপ্রিল সন্ধ্যা আনুমানিক ০৭.৪৫ ঘটিকার সময় সাপাহার বাজার হতে উকিলপাড়া যাওয়ার পথে তিলনা রোডের জনৈক আফিল উদ্দিনের বাড়ির নিকট পৌছলে ওসমান আলী পিছন দিক থেকে মনোয়ারা খাতুনকে জাপটে ধরে রাস্তার পূর্ব পাশে চাতালের মধ্যে নিয়ে গিয়ে ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষণ করে।

পুলিশ তদন্ত করে ঘটনার সত্যতা আছে মর্মে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে। উভয় পক্ষের সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে ২০১৩ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি আদালত বেগুন গাছ কাটা বিবাদ ধরে এই মামলাটি মিথ্যাভাবে দায়ের করা হয় পর্যবেক্ষণ দিয়ে ওসমান গনিকে আদালত খালাস প্রদান করেন।পরবর্তীতে ওসমান গনি ২০১৩ সালে ১১ সেপ্টেম্বর তার বিরুদ্ধে মিথ্যা ধর্ষণের মামলা দায়ের করায় আফসার আলী ও মনোয়ারার বিরুদ্ধে আদালতে একটি অভিযোগ দাখিল করেন।

দুই পক্ষের সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে মঙ্গলবার আফসার ও মনোয়ারা খাতুন উভয়কেই পাঁচ বছর সশ্রম কারাদন্ড ও বিশ হাজার টাকা অর্থদন্ড অনাদায়ে তিন মাস বিনাশ্রম কারাদন্ডে দন্ডিত করার রায় ঘোষণা করেন নওগাঁ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ এর বিচারক জেলা ও দায়রা জজ মোঃ মেহেদী হাসান তালুকদার। 

আরও খবর



রূপগঞ্জে বন্ধুদের সাথে পুকুরে গোসল করতে নেমে পানিতে ডুবে কলেজ ছাত্রের মৃত্যু

প্রকাশিত:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | ১৫১জন দেখেছেন

Image

মোঃআবু কাওছার মিঠু রুপগঞ্জ নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধিঃ- নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে বন্ধুদের সাথে ঘুরতে এসে পুকুরে গোসল করতে নেমে পানিতে ডুবে কলেজ ছাত্র শিথিল (২৪) মারা গেছেন। আজ বুধবার বিকেলে উপজেলার সরকারী মুড়াপাড়া কলেজের সামনে থাকা পুকুরে এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে। জানা গেছে, নিহত শিথিল রাজধানীর খিলক্ষেত থানাধীন কুড়াতলী এলাকার জাহিদুল ইসলামের ছেলে। সে ঢাকা আহসানুল্লাহ ইউনিভার্সিটি কলেজের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র ছিল।


নিহত শিথিলের সাথে থাকা তার বন্ধুরা জানান, আজ বুধবার বেলা ১২ টার দিকে ঢাকা আহসানুল্লাহ ইউনিভার্সিটি কলেজের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র শিথিলসহ তারা ৬ বন্ধু রূপগঞ্জের সরকারী মুড়াপাড়া কলেজে ঘুরতে আসে। পরে দুপুরে তারা সবাই কলেজের সামনে থাকা পুকুরে গোসল করতে নামে। এসময় সবাই সাতঁরে পুকুরের মাঝখানে গিয়ে আবার ঘাটে ফিরে আসলেও শিথিল পানিতে ডুবে যায়। পরে খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছায় রূপগঞ্জ থানার পুলিশ।


এই বিষয়ে রূপগঞ্জ থানার তদন্ত (ওসি) জুবায়ের হোসেন জানান, এই ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক। আমরা জানতে পারি নিহত শিথিলসহ তার সাথে থাকা ৬জন বন্ধু সরকারী মুড়াপাড়া কলেজে ঘুরতে আসে এবং কলেজের সামনে থাকা পুকুরে গোসল করতে নেমে পুকুরের মাঝখানে গিয়ে পানির নিচে তলিয়ে যায় শিথিল।


পরে বহু খোজাখুজির করে আশেপাশের লোকজনের সহযোগিতায় আমাদের রুপগঞ্জ থানার পুলিশ বিকাল ৪ টারদিকে পুকুর থেকে তাকে উদ্ধার করে রুপগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষনা দেন। পরে আবেদনের প্রেক্ষিতে বিনা ময়নাতদন্তে লাশ নিহতের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

     -খবর প্রতিদিন/ সি.ব

আরও খবর



পুলিশকে গুলি করে হত্যা: কনস্টেবল কাওসার ৭ দিনের রিমান্ডে

প্রকাশিত:রবিবার ০৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০24 | ৯০জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:অভিযুক্ত পুলিশ সদস্য কাউসার আলী সহকর্মীকে গুলি করে হত্যার ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

রোববার (৯ জুন) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. শাকিল আহাম্মদ রিমান্ডের এ আদেশ দেন।

এদিন কাউসারকে আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করে পুলিশ। শুনানি শেষে আদালত ৭ দিনের রিমান্ডের আদেশ দেন।

মামলার সূত্রে জানা গেছে, শনিবার (৮ জুন) রাত সাড়ে ১১টার দিকে রাজধানীর বারিধারায় ফিলিস্তিন দূতাবাসের সামনে নিরাপত্তার কাজে নিয়োজিত পুলিশ সদস্যকে গুলি করে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে আরেক পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে। নিহত পুলিশ সদস্য ডিপ্লোম্যাটিক সিকিউরিটি ডিভিশনে কর্মরত ছিলেন।

গুলির ঘটনায় সাজ্জাদ হোসেন নামে জাপান দূতাবাসের এক গাড়িচালক আহত হন। তাকে ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় রোববার (৯ জুন) গুলশান থানায় মামলা করেছেন নিহত মনিরুল হকের ভাই মো. মাহাবুবুল হক।


আরও খবর



বাংলাদেশ ভুটান থেকে জলবিদ্যুৎ আমদানিতে আগ্রহী: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ১০ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০24 | ৮৮জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পুনর্ব্যক্ত করেছেন বাংলাদেশের ভারতের মধ্য দিয়ে ভুটান থেকে জলবিদ্যুৎ আমদানির বিষয়ে আগ্রহের কথা । ভুটানের প্রধানমন্ত্রী দাশো শেরিং তোবগে ভারতের নয়াদিল্লিতে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে এক সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে এলে তিনি এ আগ্রহের কথা জানান। রোববার (৯ জুন) পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ সাক্ষাৎ শেষে এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভুটানের প্রধানমন্ত্রীকে বলেন, ভুটান থেকে ভারতের ভূখণ্ড দিয়ে বিদ্যুৎ রপ্তানির জন্য একটি ত্রিপক্ষীয় চুক্তি প্রয়োজন এবং বিষয়টি ইতিমধ্যে ভারতের নজরে আনা হয়েছে।

ড. হাছান জানান, সৌজন্য সাক্ষাতের সময় দুদেশের মধ্যকার দ্বিপাক্ষীক সম্পর্কের সম্পূর্ণ বিষয়াদি আলোচনায় উঠে আসে। তিনি বলেন, উভয় দেশ বিদ্যমান বহুমুখী সম্পর্ক বাড়ানোর প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করেছে।


আরও খবর



চতুর্থ ধাপে ৩৪.৩৩ শতাংশ ভোট পড়েছে: সিইসি

প্রকাশিত:বুধবার ০৫ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০24 | ১৩৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:চতুর্থ ধাপে  ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ৬০ উপজেলায় ৩৪ দশমিক ৩৩ শতাংশ ভোট পড়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল

বুধবার (৫ জুন) রাজধানীর আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান তিনি।

সিইসি বলেন, ৬০ উপজেলায় ভোট হয়েছে। ভোট শান্তিপূর্ণ হয়েছে। কিছু ইন্সিডেন্ট হয়েছে। এ জন্য ২৮ জনকে গ্রেপ্তার করেছি, ৯ জনকে বিভিন্ন অপরাধে দণ্ড দেওয়া হয়েছে। এছাড়া ব্যালটবাক্স ছিনতাইয়ের ঘটনায় ভৈরব উপজেলায় ভোট স্থগিত করা হয়েছে। বরিশালে সংঘর্ষে ৫ জন আহত হয়েছেন। তবে ইভিএমে ভালো কাজ হয়েছে।

সিইসি বলেন, ভোট নিয়ে কমিশন সন্তুষ্ট। কারণ এবারের উপজেলা নির্বাচন শান্তিপূর্ণ হয়েছে। বড় ধরনের কোনও সহিংসতা নেই।

এর আগে সকাল ৮টা থেকে দেশের ৬০ উপজেলার ৫ হাজার ১৪৪টি ভোটকেন্দ্রে চতুর্থ ধাপের ভোটগ্রহণ শুরু হয়। এর মধ্যে ছয়টিতে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) এবং বাকিগুলোতে ব্যালটে ভোট হয়।


আরও খবর



সৈয়দপুর নকল ও ভেজাল পণ্যের শহরে পরিনত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ১৩১জন দেখেছেন

Image

সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:সৈয়দপুর শহর নকল ও ভেজাল পণ্য উৎপাদনের শহরে পরিনত হতে চলেছে। মশার কয়েল, খাদ্য সামগ্রী,শিশু খাদ্য, সাবান, কসমেটিক্স, পলিথিন, জৈব সার সহ অনেক কিছুই নকল হচ্ছে এ শহরে। নামাদামি কোম্পানির মোড়কে নকল বা নিম্নমানের ভেজাল পণ্য বাজারজাত করে গ্রাহকদের  সাথে প্রতারনা করা হলেও আইন প্রয়োগকারি সংস্থা নিরব থাকার অভিযোগ অনেকের।

জানা যায়, বিগত তত্ত্বাবধায়ক সরকার শাসন আমলে সৈয়দপুরের নকল সার কারখানা, সাবান তৈরির কারখানা, নকল চিপস ও চানাচুর তৈরির কারখানা, বৈদ্যুতিক যন্ত্রাংশ, পলিথিন ও সাইকেল তৈরির কারখানায় অভিযান চালানো হয়েছিল।ওই অভিযানে নকল পণ্য তৈরির অপরাধে উৎপাদককে গ্রেফতার করে জড়িমানা সহ জেল হাজতে পাঠানোও হয়েছিল। ওই সময় অনেকেই জানতেন না সৈয়দপুর ভেজাল ও নকল পণ্য তৈরি ও বিক্রি করা হয় ।

২০০৯ সালে নীলফামারি ও সৈয়দপুর পুলিশের বিশেষ একটি গোয়েন্দা শাখা শহরের টিআর সড়কের একটি গোডাউনে নকল সার কারখানা, বিসিক শিল্প নগরী সংলগ্ন এলাকায় নকল রোলার তৈরির কারখানাসহ বেশ কয়েকটি পয়েন্টে অভিযান চালিয়ে উদ্ধার করেন হুবহু চায়না ফনিক্স ও ভারতীয় হিরো সাইকেলের যন্ত্রাংশ। ওই সময় অবৈধ ব্যবসায়ীদের সাথে রাজনৈতিক নেতাদের সুসম্পর্ক না থাকায় ফকরুদ্দিন সরকার অবৈধ ব্যবসায়ীদের গোডাউনে লাগিয়েছিল তালা। ওই সময় প্রায় বন্ধই হয়ে গিয়েছিল নকল পণ্য ও যন্ত্র উৎপাদন। কিন্তু তত্ত্বাবধায়ক সরকার বিদায় হওয়ার পর থেকে শুরু হয়ে যায় পূর্বের অবস্থা। পাল্লা দিয়ে তৈরি হতে থাকে নকল পণ্য, খাদ্য সামগ্রী ও জৈব সার । এতে করে গ্রাহকরা প্রতারণার শিকার হয়ে অবৈধ উৎপাদকরা কোটি কোটি টাকার মালিক হলেও দেখার যেন কেউ নেই।

একটি সূত্র জানায়, সৈয়দপুরের এক আমদানিকারক ওই সময় ভারত ও চায়না থেকে সাইকেলের যন্ত্রাংশ আমদানি করে উত্তরাঞ্চলসহ সারাদেশেই সরবরাহ করছিলেন। দেশে সাইকেলের ব্যাপক চাহিদা থাকায় অসাধু অপর কয়েকজন ব্যবসায়ী সৈয়দপুর শহরের অলিগলিতে প্রায় ৩০/৩৫টির মত নকল সাইকেল তৈরির কারখানা গড়ে তুলেছিলেন। তারা ওইসব কারখানায় উৎপাদিত সাইকেল যন্ত্রাংশ বাংলাদেশী বলে তৈরির পর সাইকেলে মোড়ক লাগিয়েছিলেন মেড ইন ইন্ডিয়া অথবা মেড ইন চায়না। অনেক দক্ষরাও ওই সময় দেখলে বুঝতেই পারতেন না কোনটা আসল বা কোনটা নকল।

প্রায় এক যুগের ও বেশি সময় হয় সৈয়দপু শহরে কঠোর কোনো অভিযান পরিচালনা না হওয়ায় এ শহরের অনেক ব্যবসায়ি হুবহু নকল,ভেজাল পন্য শিশু খাদ্য, ভেজাল সার উৎপাদন ও বাজারজাত করে কোটি কোটি টাকার মালিক বনে গেছেন।, আইন প্রয়োগকারী সংস্থার উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি নেই বলেই সৈয়দপুর শহর নকলের শহরে পরিণত করে চলেছেন তারা। ফলে সাধারণ মানুষের পাশাপাশি কৃষক সহ পুলিশও ছাড় পাচ্ছেন না তাদের প্রতারনা থেকে । আর অল্প দিনেই নকল পণ্য তৈরি কারকরা বনে যাচ্ছেন কোটি কোটি টাকার মালিক আর কোটি কোটি টাকা রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন সরকার। এসব বন্ধে উপর মহলের নির্দেশনার পর অভিযান চালালে এ শহর থেকে শত কোটি টাকারও বেশি নকল ও ভেজাল পণ্যের কারখানার সন্ধান পাওয়া যাবে বলে মন্তব্য করেন অনেকেই।

বৈধ ব্যবসায়িরা বলেন, বিগত তত্বাবধায়ক শাসনামলের মত অভিযান চালানো হলে সৈয়দপুর শহরের ৮/১০ জন ছাড়া অনেকেরই অবৈধ ব্যবসার সন্ধান পাবেন। এতে করে যেমন নকল ও ভেজাল পন্য উৎপাদন বন্ধ হবে, তেমনি সরকারের কোষাগারে জমা হবে কোটি কোটি টাকার রাজস্ব।

শহরের পড়া মহল্লার অলিগলিতে কাগজ বিহিন শিশু খাদ্য তৈরির পর সেগুলি শহরের কারি হাটি সড়কের প্রায় প্রতিটি দোকানে প্রকাশ্যে বিক্রি করছেন ব্যবসায়িরা। নকল ও ভেজাল এসব শিশু খাদ্য খেয়ে শিশুরা নানা রোগে আক্রান্ত হলেও প্রস্তুতকারকরা রাতারাতি বনে যাচ্ছেন কোটি টাকার মালিক। এসব ব্যাপারে আইনপ্রয়োগকারী সংস্থার প্রতিনিধিরা সব জানেন কিন্তু মাসিক চুক্তি থাকায় তাদের বিরুদ্ধে কোন পদক্ষেপই নেয়া হচ্ছে না বলে মন্তব্য অনেকের।

ব্যবসায়িরা আরো বলেন, সারা শহর অভিযানের দরকার নেই, শুধু শহরের কাড়ি হাটির বেশ কয়েকটি শিশু খাদ্য ব্যবসায়ির দোকান পাটে অভিযান চালালেই জানতে পারবেন নকল ও ভেজাল পন্যের প্রস্তুতকারক কে ? ওই সব ব্যবসায়িরা অল্প দিনেই কি ভাবে কোটি টাকার মালিক ও গাড়ি বাড়ির মালিক হয়েছেন তাও জানতে পাবেন। 

সৈয়দপুর বণিক সমিতির সভাপতি ইদ্রিস আলী বলেন,  সৈয়দপুর শহরকে যারা নকল ও ভেজালের শহরে পরিনত করতে চাইছেন তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্হা নেয়া উচিত।কারন তারা দেশের মানুষের শত্রু। 


আরও খবর