Logo
আজঃ শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

নির্বাচন দেখতে ১৭৯ বিদেশি পর্যবেক্ষক ও সাংবাদিকের আবেদন

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০২৪ | ২১৭জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন দেখতে ১৩১ বিদেশি পর্যবেক্ষক এবং ৪৮ জন সাংবাদিক আবেদন করেছেন।

বৃহস্পতিবার (৭ ডিসেম্বর) এমন তথ্য জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব মো. জাহাংগীর আলম।

তিনি বলেন, নির্বাচন দেখতে ১৩১ বিদেশি পর্যবেক্ষক হিসেবে আর সাংবাদিক হিসেবে ৪৮ জন আবেদন করেছেন। মোট আবেদন করেছেন ১৭৯ জন।

এ বিষয়ে ইসির জনসংযোগ পরিচালক মো. শরিফুল আলম গণমাধ্যমকে বলেন, যেসব আবেদন এসেছে, এগুলো পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। মন্ত্রণালয়ের মতামত এলে তা কমিশনের কাছে উত্থাপন করা হবে। এক্ষেত্রে মন্ত্রণালয় থেকে যাদের বিরুদ্ধে আপত্তি দেওয়া হবে, তাদের অনুমোদন দেওয়া হবে না। আর যাদের অনাপত্তি দেবে, তারা ভোট দেখার অনুমোদন পাবেন।

ইসির দেওয়া সময় অনুযায়ী, বৃহস্পতিবার ছিল বিদেশি পর্যবেক্ষকদের আবেদন করার শেষ সময়। আগামী ১৬ ডিসেম্বরের মধ্যে তাদের অনুমোদন দেওয়ার কথা রয়েছে সংস্থাটির।

জানা গেছে, বিদেশিদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে অনুমোদন দেওয়া ছাড়াও ভোট দেখার জন্য ৩৪টি দেশের নির্বাচন কমিশন ও চারটি সংস্থার ১১৪ জনকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে ইসি।


আরও খবর



ফুলবাড়ীতে মাদকের জমজমাট ব্যবসা, ঝুকে পড়েছে যুবকরা

প্রকাশিত:সোমবার ০৮ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০২৪ | ১০১জন দেখেছেন

Image

আফজাল হোসেন, দিনাজপুর প্রতিনিধি:দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে দিন দিন বেড়েই চলেছে মাদক ব্যবসা। এতে ঝুকে পড়েছে যুবসমাজ। এলাকায় যেভাবে মাদক বিস্তার করছে তাতে জড়িয়ে পড়ছে বিভিন্ন শ্রেণি পেশা মানুষ। এক সময় ফুলবাড়ীতে মাদকের অভিযান চললেও এখন তেমন কোন মাদক নিমূর্লে আর অভিযান চলেন না। ফুলবাড়ী উপজেলার পৌর শহরে ফেন্সিডিল এর পরিবর্তে ইয়াবা, গাঞ্জা সহ বিভিন্ন মাদকে ব্যবসা চলেছে। শিবনগর ইউপির পুরাতুন বন্দরে ও আদিবাসী পাড়া সহ বিভিন্ন স্থানে চলছে মাদকের রমরমা ব্যবসা। বিশেষকরে পুরাতুন বন্দরে প্রায় ডর্জন খানেক মাদক ব্যবসায়ী গড়ে উঠেছে। তার মধ্যে হাফিজুল ইসলাম, জলিল এরা পুরাতন মাদক ব্যবসায়ী এদের মাদক বিক্রি বন্ধ নেই। জলিলের বিরুদ্ধে ফুলবাড়ী থানায় ও মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রক দিনাজপুরে বেশ কয়েকটি মামলা রয়েছে। এছাড়া আদালতে প্রায় ৭-৮টি মামলা রয়েছে তার বিরুদ্ধে। একটি মামলায় সাজা হলেও হাইকোট থেকে জামিন নিয়েছিলেন। নতুন কয়েকজন এ পথে পা দিয়েছে। তারা ভ্রাম্যমানের মধ্যে এবং মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে মাদক ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে এবং তা মাদক সেবীদের কাছে পৌঁছে দিচ্ছে। ফুলবাড়ীতে মাদকের ছড়াছড়ি হওয়ায় অগনিত মাদক সেবী দেখা যাচ্ছে এরা নেশার টাকা জোগাড় করতে না পারলে তারা বিভিন্ন চুরি ছিন্তায়ে জড়িয়ে পড়ছে। মাদকের ব্যবসায়ের মধ্যে ইয়াবা ট্যাবলেট এর ব্যবসা খুবেই বেড়ে চলেছে। বিশেষ করে শিবনগর ইউপির দাদপুর, পুরাতন বন্দর, ফুলবাড়ী পৌরসভার কাজীবাড়ী রোড, পশ্চিম গৌরীপাড়া, কাঁটাবাড়ী, কাঁনাহার, জোলাপাড়া, আলাদীপুর ইউপির বারাই, কাজিহাল ইউপির শেখপাড়া, চমুক, আদিবাসী পাড়া সহ ফুলবাড়ী উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন ও শহরে ভয়াবহ মাদক ব্যবসা চলছে। এই ব্যবসায় অল্প দিনে অঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হচ্ছে মাদক ব্যবসায়ীরা। যদিও আইন প্রয়োগকারী সংস্থা কখনও এই মাদক ব্যবসা বন্ধ করতে পারবে না। তার মধ্যেও অভিযান চালাতে হবে। কিন্তুফুলবাড়ীতে কেন অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে না। মাঝে মধ্যে র‌্যাব ও জেলা মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রক তাদের সোর্স নিয়োগ করে অভিযান চালান। গত ২০২৩-২৪ অর্থ বছরে তারা বেশ কিছু অভিযান চালিয়ে ১০-১৫টি মাদকের মামলা দিয়েছেন ফুলবাড়ী থানায়। ফুলবাড়ী থানা থেকে মাদক অভিযানের তথ্য দেওয়া হয় না সংবাদিকদেরকে পূর্বের ফুলবাড়ী থানার ইনচার্জ গন মাদক ব্যবসায়ী বা মাদকের চালান আটক করলে তা সাংবাদিকদের মাঝে প্রেস ব্রিফিং দিতেন, এখন আর তা দেখা যায় না। প্রচারের বিশ^াসী তারা নয়। ফুলবাড়ী সীমান্ত এলাকা হওয়ায় কিছু এলাকাদিয়ে মাদক ঢুকছে। সীমান্ত রক্ষীদের চোঁখ কে ফাঁকি দিয়ে এই মাদক ব্যবসা করছেন। বিশেষ করে ঘাসুরিয়া, দেশমা, কাঁটলা, চৌঠা, শিবপুর, হামলাকুড়ি দিয়ে মাদকের ব্যবসা চলছে। এখনে মাদক ব্যবসয়ীদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করা না হলে মাদক নির্মূল কঠিন হয়ে দাড়াবে। ফুলবাড়ী উপজেলার শিবনগর ইউপির পালপাড়া গ্রামের জাহাঙ্গীর ইসলাম জানান, আমার পুত্র অন্তর সঙ্গীত এর সঙ্গে থেকে নেশায় আসক্ত হয়েছে। এখন সে নেশার টাকা জোগাড় করতে না পেরে আমাদের উপর অত্যচার করে। তাই এই এলাকার মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া খুবিই দরকার। 

ফুলবাড়ী উপজেলার শিবনগর ইউপির ৭নং ওয়ার্ডের সদস্য নুরু জানান, মাদকে ছেয়ে গেছে, একাই আমার পক্ষে মাদক নির্মূল করা মোটেও সম্ভব নয়। ঐ এলাকার বাসিন্দা সাইফুল ইসলাম জানান, মাদক নির্মূল করতে প্রশাসনের সময় লাগে না কিন্তু প্রশাসন আটক করলেও তারা জামিন পেয়ে আবারও এসে মাদক ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে কিভাবে নির্মূল হবে। ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান এর সাথে মোবাইলফোনে এ বিষয়ে কথা বললে তিনি জানান, ফুলবাড়ীর বিভিন্ন এলাকায় মাদক নির্মূলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। মাদকের সাথে কেউ জড়িত থাকলে তাকেও ছাড় দেওয়া হবে না।

এ ব্যাপারে মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনের নেক দৃষ্টি কামনা করেছে ভূক্তভুগী এলাকাবাসী।

-খবর প্রতিদিন/ সি.


আরও খবর



মির্জাপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জয়ী তিন প্রার্থীর শপথ গ্রহণ

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৫ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০২৪ | ১১৭জন দেখেছেন

Image

লুৎফর অরেঞ্জ মির্জাপুর (টাঙ্গাইল):টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ২০২৪ এ জয়ী ৩ প্রার্থী ৪ জুলাই বৃহস্পতিবার শপথ বাক্য পাঠ করেছেন।

চেয়ারম্যান পদে ব্যারিস্টার তাহরীম হোসেন সীমান্ত, ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) পদে আজহারুল ইসলাম আজাহার এবং ভাইস চেয়ারম্যান (মহিলা) পদে মাহবুবা শাহরীন ৪ জুলাই ঢাকা বিভাগীয় কমিশনারের সম্মেলন কক্ষে শপথ বাক্য পাঠ করেন। শপথ বাক্য পাঠ করান ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার মোঃ সাবিরুল ইসলাম।

মির্জাপুর উপজেলা পরিষদের ষষ্ঠতম এই নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মোট তিনজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। তাদের মধ্যে ব্যারিস্টার তাহরীম হোসেন সীমান্ত আনারস মার্কায় ৫৫ হাজার ৬৪৪ ভোট পেয়ে জয়ী হন। ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) পদে দু'জন প্রার্থী প্রতিযোগিতা করেন। তালা মার্কায় আজহারুল ইসলাম আজাহার ৫৬ হাজার ৬৭৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। ভাইস চেয়ারম্যান (মহিলা) পদে তিনজন প্রার্থী ভোট যুদ্ধে শরিক হন। তাদের মধ্যে ৫৫ হাজার ৪৮৮ ভোট পেয়ে মাহবুবা শাহরীন কলস মার্কা নিয়ে জয়লাভ করেন।

শপথ বাক্য অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন প্রশাসনিক উচ্চপর্যায়ের কর্মকর্তা এবং বিভিন্ন মিডিয়ার সংবাদ কর্মীগণ।


আরও খবর



মুক্তিযোদ্ধার নাতি-নাতনিরা পাবে না তো রাজাকারের নাতিরা পাবে?

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪ | ৯৪জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রশ্ন তুলেছেন,সরকারি চাকরিতে বীর মুক্তিযোদ্ধার নাতি-নাতনিরা কোটা সুবিধা পাবে না, তাহলে কি রাজাকারের নাতি-নাতনিরা কোটা সুবিধা পাবে?।

রোববার (১৪ জুলাই) বিকেলে চীন সফর নিয়ে গণভবনে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধ ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বিরুদ্ধে এত ক্ষোভ কেন? মুক্তিযোদ্ধার নাতি-নাতনিরা কোটা পাবে না, তাহলে কি রাজাকারের নাতিরা কোটা পাবে? তা তো আমরা দিতে পারি না।

সরকারপ্রধান বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বিরুদ্ধে কথা বলার অধিকার তাদের কে দিয়েছে? তারা দেশ স্বাধীন করার জন্য জীবনপণ লড়েছেন। তাদের বিরুদ্ধে কথা বলার সাহস পায় কীভাবে? মুক্তিযুদ্ধ তাদের এখন ভালো লাগে না।

এর আগে এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী জানান, ২০১৮ সালে আন্দোলন ও সহিংসতার ঘটনায় বিরক্ত হয়ে তিনি কোটা বাতিল করেছিলেন।

তিনি বলেন, একবার তারা এ ধরনের আন্দোলন করেছিল। আন্দোলন তো না সহিংসতা। ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ করেছিল। তখন আমি বিরক্ত হয়ে বলেছিলাম সব কোটা বাদ দিয়ে দিলাম। তখনই বলেছিলাম যে কোটা বাদ দিলে দেখেন কী অবস্থা হয়। এখন দেখেন কী অবস্থা তৈরি হয়েছে?

-খবর প্রতিদিন/ সি.


আরও খবর



ডোমারে এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা ও শিক্ষা উপকরণ প্রদান

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪ | ১১৭জন দেখেছেন

Image

ডোমার (নীলফামারী) প্রতিনিধি:নীলফামারীর ডোমারে তুহিন টিচিং হোম আয়োজিত ২০২৪ সালের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা, শিক্ষা উপকরণ প্রদান এবং মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করা হয়েছে। 

মঙ্গলবার (২৫ জুন) সকাল ১১টায় ডোমার নাট্য সমিতি মিলনায়তনে তুহিন টিচিং হোম এর পরিচালক শাহরিন ইসলাম তুহিনের সঞ্চালনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন নীলফামারী সরকারী কলেজের প্রভাষক সলেমান আলী। 

দেবীগঞ্জ মহিলা ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক আবুল কালাম আজাদ এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসাবে বাংলাদেশ সেনা বাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত সার্জেন্ট আলমগীর হোসেন, সাংবাদিক আনিছুর রহমান মানিক, শিক্ষক শহিদুল ইসলাম, শরিফ আহমেদ প্রমূখ বক্তব্য রাখেন।  

আলোচনা শেষে বিদয়ী শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা এবং শিক্ষা উপকরণ প্রদান করেন অতিথিগণ। পরে স্থানীয় শিল্পীদের পরিবেশনায় এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করা হয়।


আরও খবর



মালয়েশিয়ায় যেতে না পারা কর্মীদের টাকা ফেরতের নির্দেশ প্রতিমন্ত্রীর

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৫ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০২৪ | ১১১জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:১৮ জুলাইয়ের মধ্যে মালয়েশিয়া যেতে না পারা কর্মীদের টাকা ফেরত দিতে হবে রিক্রুটিং এজেন্সিগুলোকে। এ সময়ের মধ্যে যারা টাকা দিতে না পারলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) নিজ মন্ত্রণালয়ে সম্প্রতি মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠানো নিয়ে বিপর্যয় বিষয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ নির্দেশ দিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী শফিকুর রহমান চৌধুরী।

বুধবার বায়রাদের সঙ্গে বসেছিলেন জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, তারা আমাদের সঙ্গে একমত হয়েছেন যেসব কর্মী মালয়েশিয়ায় যেতে পারেননি তাদের টাকা ফেরত দেওয়া হবে। তারা (বায়রা) ১৫ দিন সময় চেয়েছেন। আমরা বলেছি, আগামী ১৮ জুলাইয়ের মধ্যে টাকা ফেরত দিতে হবে। এ সময়ের মধ্যে যারা টাকা দিতে পারবে না তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শফিকুর রহমান বলেন, ১৫ দিন দেখি কতজনের টাকা উদ্ধার হয়। উদ্ধার না হলে আমরা ব্যবস্থা নেব। আমাদের উদ্দেশ্য যারা যেতে পারেননি তারা যেন টাকাটা ফেরত পায়। কতজন যেতে পারেনি সেটা বড় কথা নয়, এখন টাকা ফেরত পাওয়াটা বড় বিষয়। বায়রা ও রিক্রুটিং এজেন্সি বুঝতে পারছে তারা এবার ছাড় পাবে না। টাকা পেতে কর্মীদের রিক্রুটিং এজেন্সিকে প্রমাণ দিতে হবে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী।

তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন নিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, কমবেশি সবাই দায়ী। ১০০ রিক্রুটিং এজেন্সির দায় আছে। প্রায় ২ হাজার ২৫ জন অভিযোগ করেছেন। ১৭ হাজার ৭৭৭ কর্মী মালয়েশিয়া যেতে পারেননি। ৫ লাখ ৩২ হাজার ১৬২ কোটার মধ্যে ৪ লাখ ৭৬ হাজার চলে গেছে। এর মধ্যে ৪ লাখ ৯৩ জন বিএমইটির ছাড়পত্র পেয়েছে।


আরও খবর