Logo
আজঃ বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

নাসিরনগরে প্রকাশ্যে ঘুড়ে বেড়াচ্ছে হত্যা মামলার দুই পলাতক আসামী ওয়াসিম ও বিল্লাল

প্রকাশিত:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ২০৮জন দেখেছেন

Image

আব্দুল হান্নান,নাসিরনগর, ব্রাহ্মণবাড়িয়াঃব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলার হরিপুর ইউনিয়নের হরিপুর গ্রামে হত্যা মামলার  গ্রেপ্তারী পরোয়ানাভূক্ত দুই পলাতক আসামী মোঃ ওয়াসিম মিয়া ও তার শ্যালক বিল্লাল মিয়া প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা গেছে ২০১৬  সালের ২১ এপ্রিল  সরাইল উপজেলার শাহাজাদাপুরের  নির্জন ফসলী জমিতে নিয়ে হত্যা করে লাশ ফেলে রাখে হত্যাকারীরা । পরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে।ময়না তদন্তে হত্যার আলামত পাওয়া গেলে বাদী পক্ষ  আদালতে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। দীর্ঘ তদন্তের পর পুলিশ ১৪ জনকে আসামী করে আদালতে একটি চার্জশীট দাখিল করে  ।  আদালত  ১৪ জন  আসামীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানার জারী করেন।

হত্যা মামলার ১৪ জন আসামীর মাঝে ১২ জন আসামী বর্তমানে আদালত থেকে জামিনে আছে। কিন্তু রাজনৈতিক প্রভাব দেখিয়ে মামলার হত্যা মামলার অন্যতম দুই আসামী হরিপুর গ্রামের মৃত সাবেক চেয়ারম্যান  আব্দুল মান্নান ওরুপে  এম মন্নানের ছেলে মোঃ ওয়াসীম মিয়া ও তার শ্যালক মৃত রশীদ মিয়া ছেলে  মোঃ বিল্লাল মিয়া রয়েছে ধরা ছোঁয়ার বাহিরে।অভিযোগ রয়েছে তারা জামিন না নিয়েই প্রকাশ্যে ঘুরেফেরা করে বেড়াচ্ছে। 

স্থানীয়রা জানায়,প্রয়াত সাবেক চেয়ারম্যান মন্নান মিয়ার পুত্র মোঃ ওয়াসীম মিয়া ও তার শ্যালক মোঃ বিল্লাল মিয়া সাবেক সংসদ সদস্য বি,এম ফরহাদ হোসেন সংগ্রামের  নাম বিক্রি করে এলাকায় প্রভাব দেখিয়ে প্রকাশ্যেই চলা ফেরা করছে। থানা পুলিশ তাদের কিছুই করতে পারবেনা বলে বেড়াচ্ছে তারা

জাানা গেছে হত্যা মামলার আসামী থাকার পরও  সাবেক সংসদ সদস্য বি,এম ফরহাদ হোসেন সংগ্রাম এমপি গত ইউপি নির্বাচনে মোঃ ওয়াসিম মিয়াকে  আ.লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীক দিয়ে নির্বাচনী মাঠে পাঠালে তিন জামানত হারান।  অভিযোগ আছে নৌকার মননোয়ন পাওয়ার পূর্বে ওয়াসিম এলাকাবাসীর লক্ষ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ করে এবং তার বিরুদ্ধে অসংখ্য দাঙ্গা হাঙ্গামার অভিযোগও রয়েছে।

ওয়াসিম ও বিল্লালকে কেন গ্রেপ্তার করা হচ্ছে না এ বিষয়ে জানতে চাইলে, নাসিরনগর থানার পুলিশ পরিদর্শক তদন্ত সঞ্জয় কুমার সরকার বলেন,মামলাটি সরাইল থানার,ওয়ারেন্ট আমাদের হাতে এখনো পৌছায়নি,কিন্তু কিভাবে এতদিন ওয়ারেন্ট আটকে রেখেছে জানিনা,আমাদের হাতে ওয়ারেন্ট আসার সাথে সাথেই তামিল করবো।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর

ঢাকায় মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেপ্তার ২৬

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




সামসুল হক খান স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষা সপ্তাহ ও ক্লাব ফেষ্টিভ্যাল-২০২৪

প্রকাশিত:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ২৮৪জন দেখেছেন

Image

সোহরাওয়ার্দীঃসামসুল হক খান স্কুল এন্ড কলেজ কর্তৃক শিক্ষা সপ্তাহ ও ক্লাব ফেষ্টিভ্যাল-২০২৪ অনুষ্ঠিত হয়। শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারি সকাল ১০ টায় প্রতিষ্টানের ক্যাম্পাসে এই কর্মসূচি পালিত হয়।এতে সভাপতিত্ব করেন সামসুল হক খান স্কুল এন্ড কলেজের প্রিন্সিপাল,ড.মাহবুবুর রহমান মোল্লা কলেজের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান, প্রধান মন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্টের সদস্য ও HWPL এ পিস এ্যাম্বাসেডর, শিক্ষাবিদ ড. মাহাবুবুর রহমান মোল্লা। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার মোঃ হাবিবুর রহমান বিপিএম-বার, পিপিএম-বার। উক্ত শিক্ষা সপ্তাহ ও ক্লাব ফেষ্টিভ্যাল-২০২৪ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক বাহালুল হক চৌধুরী,ডিএমপির ওয়ারী বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মোঃ ইকবাল হোসাইন বিপিএম-সেবা।, সামসুল হক খান স্কুল এন্ড কলেজের গভর্নিং বডির সভাপতি ডিএসসিসি ৬৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলহাজ্ব সামসুদ্দিন ভুঁইয়া সেন্টু, 

সেফ এইড হসপিটালের ব্যাবস্থাপনা পরিচালক ও গভর্নিং বডির সদস্য সরওয়ার আরিফ উদ্দিন খান, গভর্নিং বডির সদস্য মোঃ জাহাঙ্গীর আলম,ডিএমপি ওয়ারী বিভাগের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (ডেমরা) মোঃ মাসুদুর রহমান মনির, অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (শ্যামপুর) আলাউদ্দিন,

সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার (ডেমরা জোন)মধুসূদন দাস।

অন্যান্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন মোঃ মোজহারুল ইসলাম সোহেল, সামসুল হক খান স্কুল এন্ড কলেজ প্রভাতী শাখার সহকারী প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুল মতিন, ইংলিশ ভার্সন -ইনচার্জ আলমগীর হোসেন,দিবা শাখার সহকারী প্রধান শিক্ষক মোঃ সোহরাব হোসেন, ডেমরা থানার অফিসার ইনচার্জ জহিরুল ইসলাম,ডেমরা ষ্টাফ কোয়াটার এলাকার ট্রাফিক ইন্সপেক্টর জিয়া, কোনাপাড়া ফাঁড়ি ইনচার্জ এসআই সোহেল রানা সহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডিএমপি কমিশনার হাবিবুর রহমান (বিপিএম, পিপিএম-বার) বলেন, মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে একজন মানুষ কে বিশেষ কিছু মানবিক গুণাবলী অর্জন করতে হয়,তাই  লেখা পড়ার পাশাপাশি প্রতিটি শিক্ষার্থীকে ভালো মানুষ হওয়া উচিত,ঢাকা শহরের বাইরে ডেমরার অজো পাড়াগাঁয়ে সামসুল হক খান স্কুল এন্ড কলেজ আজ সারা দেশে নিজেদের অবস্থান করে নিয়েছে তা অবাক হওয়ার মত বিষয়।

এ সময় প্রতিষ্ঠানের সহ-শিক্ষা কার্যক্রমের ভূয়সি প্রশংসা করেন ডিএমপি কমিশনার।

প্রতিষ্ঠানটিতে পাঠদানের পাশাপাশি রয়েছে বিনোদন আর সৃজনশীলতায় ভরা সহ-শিক্ষা কার্যক্রম। আত্মনির্ভরশীল বুদ্ধিবৃত্তি সম্পন্ন ও দেশপ্রেমিক নাগরিক হিসেবে শিক্ষার্থীদের গড়ে তুলতে এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের স্কাউট গ্রুপ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এছাড়াও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটিতে রয়েছে বেশ কিছু ক্লাব এগুলোর মধ্যে, ডিবেটিং ক্লাব, ইংলিশ ল্যাংগুয়েজ ক্লাব, ফটোগ্রাফি ক্লাব, কম্পিউটার ক্লাব, আর্ট এন্ড কালচারাল ক্লাব, বিজ্ঞান ক্লাব স্পোর্টস ক্লাব ও নিউট্রিশন ক্লাব উল্লেখযোগ্য ।


আরও খবর



মেহেরপুরে লেট ব্লাইটের আক্রমণে লোকশানের মুখে আলু চাষিরা

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১৩৮জন দেখেছেন

Image

মজনুর রহমান আকাশ, মেহেরপুরঃ-মেহেরপুরে গাংনীতে চলতি মৌসুমে ঘন কুয়াশা আর তীব্র শীতে আলু খেতে দেখা দিয়েছে পচন রোগ (লেট ব্লাইট)। প্রতিকার হিসেবে ছত্রাকনাশক ও বিষ প্রয়োগ করেও দমন করা যাচ্ছে না এ রোগ। এতে আলুর ফলন নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন চাষিরা। ফলে আলু চাষের লক্ষ‍্যমাত্রা অর্জন নিয়ে দেখা দিয়েছে শঙ্কা। কৃষি বিভাগ বলছে, বৈরী আবহাওয়ার কারনে এমনটি ঘটছে, তবে বৈরী আবহওয়া কেটে গেলে এ রোগের সমস্যা থাকবে না। কৃষি বিভাগের তথ্যমতে, চলতি মৌসুমে মেহেরপুরে ৮৬০হেক্টর জমিতে আলু চাষ করা হয়েছে।

গেল মৌসুমে ভাল দাম পাওয়ায় চাষিরা এবারও আলু চাষে আগ্রহী হন। সে অনুযায়ি চাষিদেরকে প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেয়া হয়েছে। চাষিরা দেশি জাতের আলু আউশা, চল্লিশা, দোহাজারী লাল, পাটনাই, সাদা গুটি শীল বিলাতী ও সূর্যমূখী আবাদ করে থাকেন। উন্নত জাতের আলুরও চাষ হচ্ছে। তার মধ্যে ডায়ামন্ট, কার্ডিনাল, সিন্দুরী, ক্লিওপেট্রা বারি আলু-১ (হীরা), বারি আলু- ৪ (আইলসা), বারি আলু-৭ (ডায়ামন্ট), বারি আলু-১৮ (বারাকা), বারি আলু-১৯ (বিন্টজে) এবং বারি আলু-২০ (জারলা) জাত উল্লেখ্য। তবে দেশি জাতগুলো বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়। দেখা গেছে ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত হয়ে দেশি জাতের আলুর ফলন কমে যায়। বীজের মাধ্যমেই এ রোগটি ছড়িয়ে থাকে।

জেলার বিভিন্ন মাঠ ঘুরে দেখা গেছে, ক্ষেতে দেখা দিয়েছে গাছ পুড়া রোগ (লেট ব্লাইট) এতে গাছ মরে শুকিয়ে যাচ্ছে। অনেকেই বিভিন্ন ধরনের বালাইনাশক ব্যবহার করছেন। তবে কোন সুফল মিলছে না বলে জানিয়েছেন চাষিরা। আবার অনেকেই কি কারনে রোগ বালাই দেখা দিয়েছে তার কারন খুঁজে পাচ্ছেন না। তবে আলুর ফলন কমে যাচ্ছে এটা নিশ্চিত। বিশেষ করে বামন্দী মটমুড়া বালিয়াঘাট হাড়াভাঙ্গাসহ সীন্ত অঞ্চলে এ রোগের ভয়াবহতা বেশি।

কৃষকরা বলছেন, কৃষি অফিসের পরামর্শে ছত্রাকনাশক ও ওষুধ স্প্রে করেও কোনো সুফল মিলছে না।আলুর গাছ নির্ধারিত সময়ের আগেই মরে যাচ্ছে। ফলে মাটির নিচে থাকা আলু আকারে ছোট হয়ে থাকছে। আলু গাছ মরে যাওয়ার কারনে আকারে সেই ছোট আলু তুলে ফেলা হচ্ছে। ফলে উৎপাদন কমে গিয়ে চার ভাগের এক ভাগ ফলন পাওয়া যাচ্ছে। বিশেষ করে ক্ষতির মুখে বর্গা চাষিরা।

এক বিঘা জমি বর্গা নিয়ে আলু আবাদ করতে ৪০ হাজার টাকা খরচ হচ্ছে। সেখানে আলু বিক্রি করে ২০ হাজার টাকাও জমছে না।

রামনগর গ্রামের আলু চাষি মুরাদ জানান, তিনি পাঁচ বিঘা জমিতে আলু চাষ করেছেন। এতে প্রায় দুই লক্ষ টাকার মত খরচ হয়েছে। দুই বিঘা জমিতে আলু ভালো আছে। বাকি তিন বিঘা আলু গাছ পুড়ে গেছে। এসব আলু আর বড় হবে না। তাই বাধ্য হয়ে আলু তুলে ফেলতে হচ্ছে।

একই কথা জানালেন আলু চাষি সাইফুল ইসলাম। তার সাড়ে চার বিঘা জমির সব আলু লেট ব্রাইট রোগে আক্রান্ত। এ মৌসুমে মোটা টাকার লোকসান হবে বলেও জানান তিনি।

আমঝুপির আলু চাষি আঃ আওয়াল জানান, মৌসুমের শুরুতে ৭৫ টাকা কেজি দরে আলুর বীজ কিনে আলু চাষ করেছিলেন তিনি। দুই বিঘা জমি বর্গা নিয়ে আলু চাষে প্রায় ৮০ হাজার টাকা খরচ হয়। রোগাক্রান্ত আলু ছোট অবস্থায় তুলে বাজারে বিক্রি করতে হচ্ছে। ফলে উৎপাদন কমে গেছে অর্ধেকে। এবার আলুর বাজারদর খুব ভালো ছিলো তারপর ও উৎপাদন কম হওয়াই লোকশানে পড়তে হবে।

মেহেরপুর কৃষি প্রশিক্ষণ কর্মকর্তা শামসুল আলম জানান, চলতি মৌসুমে ৮৬০ হেক্টর জমিতে আলু চাষ হয়েছে। শুরুতে আবহওয়া অনুকূলে থাকাই গাছ খুব ভালো হয়েছিলো। কিন্তু জানুয়ারি মাস থেকে তীব্র ঠা-া ও কুয়াশায় আলু ক্ষেতে লেট ব্লাইটের আক্রমণে গাছ মরে যাচ্ছে। যার ফলে আক্রান্ত আলুর ফলন কমে গিয়েছে। আসলে বৈরী আবহওয়ার কারনে এমনটি হয়েছে।

এ আবহাওয়া কেটে গেলে এ রোগের আক্রমণ কমে যাবে। তাছাড়া চাষিদেরকে বিভিন্ন বালাইনাশক ব্যবহারের পরামর্শ দেয়া হয়েছে।


আরও খবর

গাংনীতে বালাইনাশক ব্যবহারে উদাসিন কৃষকরা

শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




ছাত্রীদের যৌন হয়রানি: ভিকারুননিসার শিক্ষক মুরাদ গ্রেপ্তার

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৬৪জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:ছাত্রীদের যৌন হয়রানির অভিযোগে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের আজিমপুর শাখার গণিত শিক্ষক মুরাদ হোসেন সরকারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

সোমবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাত ১২টার দিকে রাজধানীর কলাবাগানের বাসা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

রাত সাড়ে বারোটার দিকে লালবাগ থানার ওসি খন্দকার মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিন সংবাদমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, সন্ধ্যায় এক তরুণীর করা নারী নির্যাতন মামলায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মঙ্গলবার তাকে আদালতে তোলা হবে।

এর আগে সোমবার রাতে কলেজের পরিচালনা কমিটির জরুরি সভায় শিক্ষক মুরাদ হোসেনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

গত শনিবার ছাত্রীদের যৌন হয়রানির অভিযোগে আজিমপুর ক্যাম্পাসের দিবা শাখার জ্যেষ্ঠ শিক্ষক মুরাদ হোসেন সরকারকে প্রত্যাহার করে অধ্যক্ষের কার্যালয়ে সংযুক্ত করে কলেজ কর্তৃপক্ষ।

কলেজের একটি সূত্র জানিয়েছে, মুরাদ হোসেন সরকারের বিরুদ্ধে ছাত্রীদের যৌন হয়রানির অভিযোগে তদন্ত করে তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটি। এরই মধ্যে এই কমিটি তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছে।

এর আগে রোববার সকাল সাড়ে ১১টায় মুরাদ হোসেন সরকারের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের আজিমপুর ক্যাম্পাসের ফটকে বিক্ষোভ করেন শিক্ষার্থী ও অভিভাবকেরা। পরে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ কে কা রায় চৌধুরী দাবি পূরণের আশ্বাস দিলে শিক্ষার্থীরা বিকেল ৩টার দিকে আন্দোলন স্থগিত ঘোষণা দেয়। বিকেলে একই দাবিতে জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন কয়েকজন অভিভাবক।


আরও খবর



বাকেরগঞ্জে ঢাকা জেলা ছাত্রলীগের দুই নেতা সংবর্ধণা মিলন মেলায় পরিনত

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৮৬জন দেখেছেন

Image
বাকেরগঞ্জ প্রতিনিধি:বাকেরগঞ্জের কৃতি সন্তান ঢাকা জেলা (দক্ষিণ) ছাত্রলীগের নবগঠিত কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মাহফুজ আলম সিকদার আজাদ ও সহ-সম্পাদক মোঃ জুয়েল মল্লিকের সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

শুক্রবার (৯ ফ্রেব্রুয়ারি) বিকেল ৪ টায় বোয়ালিয়া জে এম মাধ্যমিক বিদ্যালয় চত্বরে বন্ধু মহলের উদ্যোগে এ সংবর্ধনা ও মিলনমেলা অনুষ্ঠিত হয়। 

বরিশাল জেলা কৃষকলীগের সহ-সভাপতি আব্দুল কুদ্দুস মন্টুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় যুবলীগের সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক বিশ্বাস মুতিউর রহমান বাদশা, বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এ্যাড. নাছির উদ্দিন মাঝি, এএসএম জুলফিকার হায়দার, রঙ্গশ্রী ইপি চেয়ারম্যান মোঃ বশির উদ্দিন সিকদার, ভরপাশা ইউপি চেয়ারম্যান আশ্রাফুজ্জামান খান খোকন।

সাংস্কৃতিক কর্মী এস এম পলাশের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা মাজহারুল ইসলাম মনির মুন্সী, আওয়ামীলীগ নেতা হারুন হাওলাদার, বাদল সিকদার, মোতালেব মাস্টার, উপজেলা যুবলীগ নেতা ইমাম হোসেন সিকদার, হেমায়েত হোসেন হিমু, কামরুজ্জামান চুন্নু প্রমূখ।

সংবর্ধনা শেষে এক মনোমুগ্ধকর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।

আরও খবর

সন্দ্বীপ থানার ওসি কবীর পিপিএম পদকে ভূষিত

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্সের বীমা দাবীর ৪ কোটি ২৫ লাখ টাকার চেক হস্তান্তর

প্রকাশিত:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৩৯জন দেখেছেন

Image
এস এম শফিকুল ইসলাম, জয়পুরহাট ঃপপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের ঢাকা অঞ্চলের বীমা গ্রাহকের মধ্যে  ৪ কোটি ২৫ লাখ টাকার বিমা দাবীর চেক হস্তান্তর ও নতুন বীমা কর্মীদের প্রশিক্ষন কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারী) সকালে ঢাকায়  ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ (আইডিইবি) মিলনায়তনে এ বীমা দাবীর চেক হস্তান্তর ও নতুন বীমা কর্মীদের প্রশিক্ষন কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক বি এম শওকত আলীর সভাপতিত্বে মেয়াদ উত্তীর্ণ বীমাদাবীর চেক হস্তান্তর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও, বাংলাদেশ ইনস্যুরেন্স ফোরামের প্রেসিডেন্ট ও বাংলাদেশ ইনস্যুরেন্স অ্যাসোসিয়েশনের কার্যনির্বাহী সদস্য  বি এম ইউসুফ আলী। 


বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন  সাবেক সচিব ও পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের কোম্পানীর সিনিয়র কনসালট্যান্ট মোঃ আনিস উদ্দিন মিঞা, সাবেক অতিরিক্ত সচিব ও কোম্পানীর সিনিয়র কনসালট্যান্ট মোঃ সিরাজুল হায়দার এনডিসি, সাবেক প্রধান বীমা নিয়ন্ত্রক (ইনচার্জ) ও কোম্পানীর সিনিয়র কনসালট্যান্ট রায় দেবদাস, পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের একক বীমা প্রকল্পের  উর্দ্ধতন  উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক (ব্রাঞ্চ কন্ট্রোল) সৈয়দ মোতাহার হোসেন, উর্দ্ধতন  উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক নওশের আলী নাঈম, উর্দ্ধতন  উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক হাবিবুর রহমান, আল আমিন বীমা প্রকল্পের উর্দ্ধতন  উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবু তাহের, জনপ্রিয় বীমা প্রকল্পের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক কামাল হোসেন মহসিন,  ইসলামী ডিপিএস প্রকল্পের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক খলিলুর রহমান সিকদার। 

এ সময়ে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, আল বারাকাহ ইসলামী ডিপিএস প্রকল্পের উর্দ্ধতন নির্বাহী পরিচালক ও প্রকল্প  পরিচালক সেলিম মিয়া, পপুলার ডিপিএস  প্রকল্পের নির্বাহী পরিচালক ও প্রকল্প পরিচালক আবু মঈদ শাহীন, আল আমিন বীমা প্রকল্পের নির্বাহী পরিচালক ও প্রকল্প পরিচালক মোখলেছুর রহমান, আল বারাকা ইসলামী একক বীমা প্রকল্পের নির্বাহী পরিচালক ও প্রকল্প পরিচালক মাহাবুবুর রহমান সহ প্রকল্প পরিচালক ও প্রকল্প ইনচার্জবৃন্দ এবং কোম্পানীর অন্যান্য উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ।

সভা শেষে  বীমা গ্রাহকের হাতে  ৪ কোটি ২৫ লাখ টাকার বিমা দাবীর চেক তুলে দেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বি এম ইউসুফ আলী।


আরও খবর

সন্দ্বীপ থানার ওসি কবীর পিপিএম পদকে ভূষিত

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪