Logo
আজঃ বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

মোরেলগঞ্জে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে উধাও সৌদিয়া বহুমুখী প্রকল্পের কর্মকর্তা

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৩২৩জন দেখেছেন

Image
শেফালী আক্তার রাখি, মোরেলগঞ্জ প্রতিনিধি: বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে দুই শতাধিক মানুষকে প্রলোভনে জড়িয়ে কখেক লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে গা ঢাকা দিয়েছেন মো.এবাদুল ওরফে সাজ্জাদ শেখ নামে এক এনজিও কর্মকর্তা। সাজ্জাদ ও তার সহযোগীদের গ্রেফতারের দাবিতে শনিবার বিকেল ৩টার দিকে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছেন ভূক্তভোগীরা। ব্যানার-ফেষ্টুনের লেখামতে রেজিষ্ট্রেশবিহীন ওই এনজিওটির নাম "শেখ ফজলুর রহমান সৌদিয়া বহুমুখী প্রকল্প"। 

জানা গেছে, পার্শ্ববর্তী ইন্দুরকানি উপজেলার ফজলুর রহমান শেখের ছেলে সাজ্জাদ ওই এনজিওটির পরিচালক পরিচয় দিয়ে দু’বছর পূর্বে মোরেলগঞ্জের চর হোগলাবুনিয়া গ্রামে কিছু জমি কিনে স্থায়ী বাসিন্দা হন। এর পরে তিনি সেখানে বিভিন্ন লোকের জমি লিজ নিয়ে ‘শেখ ফজলুর রহমান ফাউন্ডেশন সৌদিয়া বহুমুখী প্রকল্প’ নামে এনজিও কার্যক্রম শুরু করেন। প্রকল্পের আওতায় কমিউনিটি ক্লিনিক, ছাত্র ও ছাত্রীদের জন্য পৃথক দুটি মাদরাসা, প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়, হেফজখানা, গরু-ছাগলে খামার, হাস-মুরগীর খামার, মৎস্য চাষ ও ধান চাষের প্রকল্প প্রতিষ্ঠিত করেন। এসব প্রতিষ্ঠানে চাকুরি দিয়ে দুই শতাধিক নারী পুরুষের নিকট থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। এ ছাড়াও মসজিদ, গৃহ নির্মাণ, লোন দেওয়া ও বিদেশে পাঠানোর কথা বলেও টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন স্থানীয়দের নিকট থেকে। রাস্তা নির্মাণের জন্য একটি ভাটা থেকে কয়েক লাখ টাকার ইট, বালু বাকিতে নিয়েছেন।

এলাকাবাসির কাছে আস্থাভাজন হবার লক্ষে এই ‘সাজ্জাদ শেখ’ ওই গ্রামের একটি বেহাল সড়কে উন্নয়নমূলক কাজও শুরু করেছেন। ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদেরকে রাস্তার কাজ উদ্বোধনের আনুষ্ঠানিকতায় অতিথির আসনে বসিয়ে সম্মানিত করেন। বিভিন্ন সময়ের অনুষ্ঠানে ব্যবহৃত ব্যানারগুলোতে ইউনিয়ন চেয়ারম্যান, আওয়ামী লীগ নেতা, স্থানীয় এমপি ও শেখ পরিবারের লোকদের ছবি ব্যবহার করা হয়েছে।

সুচতুর সাজ্জাদ এসব প্রতিষ্ঠানের পরিচালক হিসেবে মুহা.বাহ্া আল-দিন(সৌদি নাগরিক) বলে প্রচার করেছেন। নিজেকে দেখিয়েছেন প্রকল্প পরিচালক হিসেবে। প্রকল্পগুলোর আওতায় ৬টি পরিবারকে পাকা ঘর নির্মান করে দিয়েছেন এসব স্থাপনা দেখে মোরেলগঞ্জ ও ইন্দুরকানি উপজেলার ৮ গ্রামের ২৫০ টি পরিবারের লোক বিদেশ যাওয়া, লোন পাওয়া ও চাকুরির আশায় গত দুই বছরে ৩০ হাজার থেকে ৪ লাখ টাকা পর্যন্ত সাজ্জাদ ও তার প্রতিনিধিদের হাতে দিয়েছেন বলে অভিযোগ।

সম্প্রতি চাকুরি পাওয়া লোকজন বেতনের জন্য চাপ দিলে সে পালিয়ে যায়। ভূক্তভোগীরা সাজ্জাদ ও তার সহযোগীদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে গতকাল মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেন প্রকল্প এলাকায়। এর আগে তারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, থানার ওসি, ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও মোরেলগঞ্জ সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের নিকট লিখিত অভিযোগ করেছেন।

এ বিষয়ে কথিত ওই এনজিও কর্মকর্তা সাজ্জাদ মোবাইল ফোনে বলেন, ‘আমি পরিস্থতির শিকার। সরোয়ার মাষ্টারসহ কয়েকজনে আমার নাম করে টাকা নিয়েছে। আমি কারো টাকা আত্মসাৎ করিনি। দোকানে আমার কাছে কিছু টাকা পাবে তা দিয়ে দেব। আমি বসে নেই। আইনের আশ্রয় নেব। পরিস্থিতির কারনে আমি একটু অন্য জায়গায় আছি।

এ সম্পর্কে থানার ওসি মো. সাইদুর রহমান বলেন, অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।

আরও খবর



ছাত্রলীগ ও কোটা আন্দোলনকারীদের পালাপাল্টি কর্মসূচি আজ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৮৩জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগ আজ পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি পালন করবে।

সাধারণ শিক্ষার্থীদের ওপর ছাত্রলীগের হামলার প্রতিবাদে কর্মসূচি ডেকেছে বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলন। অপরদিকে, আন্দোলনকারীদের হামলায় ছাত্রলীগের নেতাকর্মী আহতের ঘটনায় কর্মসূচি পালন করবে ছাত্রলীগ।

বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের সমন্বয়ক নাহিদুল ইসলাম জানান, শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) বিকেল ৩টায় দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করবেন তারা। তিনি বলেন, এরপরও যদি কোটা বাতিল করা না হয় তবে সারাদেশে অবরোধ কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

এদিকে, নেতাকর্মীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) দুপুর দেড়টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে রাজু ভাস্কর্যের সামনে প্রতিবাদ সমাবেশের ডাক দিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ।

সোমবার রাতে এক ব্রিফিংয়ে ছাত্রলীগ সভাপতি সাদ্দাম হোসেন বলেন, কোটা সংস্কারের দাবিতে সোমবার আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সাথে সংঘর্ষের ঘটনায় সংগঠনটির ৫০০ জনের বেশি আহত হয়েছেন। বিভিন্ন হলের ১০০টির বেশি রুম ভাঙচুর করা হয়েছে। যারা কোটা আন্দোলনকে ইস্যু করে নৈরাজ্য সৃষ্টির চেষ্টা করছে, তাদের প্রতিহত না করা পর্যন্ত ছাত্রলীগ মাঠ ছাড়বে না।

এর আগে, সোমবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে মুখোমুখি অবস্থান নেয় কোটাবিরোধী শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগ। পরে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সাথে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। এতে দুই পক্ষের শতাধিক আহত হন বলে জানা যায়। এছাড়া জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার খবর পাওয়া যায়।

-খবর প্রতিদিন/ সি.


আরও খবর



নানার বাড়ি ফেরা হলনা শিশু তাহমিদের! ট্রাকের চাপায় পিষ্ট হয়ে গেল প্রাণ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১৪৯জন দেখেছেন

Image
মিজান, বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃনানার কবর জিয়ারত শেষে মায়ের সাথে নানার বাড়ি ফেরা হলনা নাতি তাহমিদ সরকারের। দিনাজপুর জেলার বিরামপুর পৌর শহরে নানার বাড়িতে আসা তাহমিদ সরকার (৮) নামে এক শিশু কুকুরের তাড়া খেয়ে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে প্রাণ নিহত হয়েছে।

নিহয় শিশু তাহমিদ সরকার (৮) বিরামপুর উপজেলার পার্শ্ববর্তী ফুলবাড়ি উপজেলার লক্ষীপুর মধুপুর গ্রামের শামীম সরকারের ছেলে।

বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) সকালে সকাল ৭ টার দিকে বিরামপুর কলেজ বাজার পেট্রোল পাম্প সংলগ্ন দক্ষিণ পার্শ্বে মহাসড়কের উপর মায়ের চোখের সামনে এ মর্মান্তিক দূর্ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, বিরামপুর পৌর এলাকার চাঁদপুর (মাহালী) পাড়ার আফাজ উদ্দিন বার্ধক্যজনিত কারণে গত ৫দিন আগে মৃত্যু বরণ করেন। সেখানে আফাজ উদ্দিনের মেয়ে আজিজা বেগম স্বামীর বাড়ি থেকে তাঁর দুই শিশু সন্তানকে নিয়ে পিতার সৎকার অনুষ্ঠানে আসেন। বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) সকালে মেয়ে আজিজা বেগম তাঁর শিশু পুত্র তাহমিদ সরকারকে (৮) কে সাথে নিয়ে বাবার কবর জিয়ারত শেষে বাবার বাড়ি ফেরার পথে পেট্রোল পাম্প সংলগ্ন দক্ষিণ পার্শ্বে শিশু তাহমিদকে কয়েকটি কুকুর তাড়া করে। কুকুরের তাড়া খেয়ে তাহমিদ দৌড়ে পালাতে গিয়ে মহাসড়কের উপর পণ্যবাহী ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায়। চোখের সামনে ছেলের মর্মান্তিক মৃত্যুতে মা আজিজা বেগম বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েন। 

বিরামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সুব্রত কুমার সরকার জানান, ঘাতক ট্রাকটি আটক করা হয়েছে। শিশুর লাশ পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে এবং এব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

আরও খবর



মাটিরাঙ্গা থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে গাঁজা সহ গ্রেফতার দুই

প্রকাশিত:বুধবার ১০ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৮৭জন দেখেছেন

Image
জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:খাগড়াছড়ি জেলার মাটিরাঙ্গা থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে গাঁজা সহ আসামী মো. লিটন  (৩৭) ও নুরুল হুদা (৩০)কে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ।

সোমবার  (৮ জুলাই) , রাত  ১১টার দিকে  মাটিরাঙ্গা থানার একটি চৌকস দল মাটিরাঙ্গা থানা এলাকায় মাদকদ্রব্য/অবৈধ অস্ত্র/চোরাচালান উদ্ধার ও ওয়ারেন্ট তামিল ডিউটি কারাকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মাটিরাঙ্গা থানাধীন মাটিরাঙ্গা পৌরসভার ১নং ওয়ার্ড গাজীনগর মোড়স্থ জনৈক জয়নাল আবেদীনের চা দোকানের সামনে মাটিরাঙ্গা টু গোমতী গামী পাকা রাস্তার উপর অভিযান পরিচালনা করে ৫০০ (পাঁচশত) গ্রাম গাঁজা (মাদকদ্রব্য) সহ আসামী  মোঃ লিটন(৩৭), ও নুরুল হুদা (৩০) কে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃত আসামী হলেন -মো.লিটন ( ৩৭) মাটিরাঙ্গা পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড দক্ষিন মুসলিম পাড়া এলাকার বাসিন্দা মো.হান্নান মিয়ার ছেলে।নুরুল হুদা (৩০)বেলছড়ি ইউনিয়ন এর মাষ্টার পাড়া ২নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মৃত কামাল হোসেন এর ছেলে।গ্রেফতারকৃত আসামীদ্বয়ের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা রুজু করতঃ আসামীদ্বয়কে বিধি মোতাবেক বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করা হবে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.

আরও খবর



নওগাঁয় আগুনে দোকান পুড়ে ছাই

প্রকাশিত:শনিবার ০৬ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১১০জন দেখেছেন

Image
নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি:নওগাঁর সদর উপজেলার চকরামপুর মার্কাজ মসজিদের সামনে মৃত আহমদ সরদারের ছেলে মো: আরমান সরদার এর মুদি ও চা এর দোকানে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।শুক্রবার (৫ জুলাই) রাত ১ টা ৩০ মিনিটের দিকে চকরামপুর এলাকায় অগ্নিকাণ্ডের এ ঘটনা ঘটে। প্রাথমিক ধারণা করা হচ্ছে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে এ আগুনের সূত্রপাত হয়। এতে দোকানে থাকা মালামাল ও একটি ফ্রিজ সহ সকল ধরনের পণ্য সহ নগদ ১০ হাজার টাকা পুঁড়ে ছাই হয়েছে। 
মো: আরমান সরদার বলেন, আমি গরিব মানুষ আমার সম্বল বলতেই এই দোকান, দোকানের সকল প্রকার মালামাল ও টাকা পুড়ে ছাই হয়েছে, আমি এখন কি করবো কোথায় যাব পরিবারকে কি খাওয়াবো ভেবে পাচ্ছিনা। এখন যে করেই হোক আবার নতুন করে দোকান শুরু করতে হবে। 

নওগাঁ ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের টিম লিডার কাশেম বলেন, খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে আমাদের টিম এসে আগুন নিয়ন্ত্রনে এনেছে ।  ধারণা করা হচ্ছে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে এ আগুনের সূত্রপাত ঘটেছে।

আরও খবর



লেবাননের পাশে দাঁড়ানোর ঘোষণা এরদোয়ানের

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১২৫জন দেখেছেন

Image

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:বুধবার (২৬ জুন) ইসরায়েলের সাথে ক্রমবর্ধমান উত্তেজনার মধ্যে তুরস্ক লেবাননের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেছে এবং আঞ্চলিক দেশগুলিকেও বৈরুতকে সমর্থন করার আহ্বান জানিয়েছে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট তাইয়্যপে এরদোগান।

(২৬ জুন) তুর্কি সংসদে বক্তব্য দেয়ার সময় এরদোয়ান বলেন, ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু গাজা যুদ্ধকে এই অঞ্চলে ছড়িয়ে দেয়ার পরিকল্পনা করেছেন। গাজাকে ধ্বংস ও পুড়িয়ে ফেলার পর ইসরায়েল এখন লেবাননের দিকে নজর দিয়েছে। আমরা দেখতে পাচ্ছি পশ্চিমা দেশগুলো পর্দার আড়ালে ইসরায়েলকে সমর্থন দিচ্ছে।

সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে ইসরায়েল এবং লেবাননের হিজবুল্লাহর মধ্যে সীমান্তবর্তী এলাকাগুলোতে টানাপড়েন বাড়ছে, যা সর্বাত্মক ইসরায়েল-হিজবুল্লাহ যুদ্ধের আশঙ্কা করছে। ইসরায়েলের উত্তর সীমান্ত জুড়ে গোলাবর্ষণের ফলে সীমান্তের উভয় পাশের এলাকা থেকে কয়েক হাজার মানুষকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

তুর্কি প্রেসিডেন্ট সতর্ক করে বলেছেন, এই অঞ্চলে যুদ্ধ ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য নেতানিয়াহুর পরিকল্পনা রয়েছে। তার এই পদক্ষেপ এই অঞ্চলটিকে বিপর্যয়ের দিকে নিয়ে যাবে।

এই সপ্তাহের শুরুতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাকান ফিদান বলেন, ইসরায়েল ও হিজবুল্লাহর মধ্যে উত্তেজনা নিয়ে মন্তব্য করার সময় তুর্কি সরকার সংঘাত ছড়িয়ে পড়ার ঝুঁকি দেখছে।

লেবাননের নিকটতম ইইউ সদস্য রাষ্ট্র সাইপ্রাসের প্রতি হিজবুল্লাহর হুমকি সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হলে, ফিদান সাইপ্রাসকে সংঘাত থেকে "দূরে থাকার" আহ্বান জানান।

ফিদান বেসরকারি হ্যাবার্র্টক টেলিভিশনের সাথে একটি সাক্ষাত্কারে বলেছেন, তুরস্কের কাছে গোয়েন্দা প্রতিবেদনের দেখা গেছে সাইপ্রাস গাজার উপর "কিছু দেশের" সামরিক এবং গোয়েন্দা বিমানের ঘাঁটিতে পরিণত হয়েছে।

তবে, সাইপ্রাস তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফিদানের অভিযোগকে অস্বীকার করেছে। তারা এই সংঘর্ষে "কোনভাবেই জড়িত নয়"। এটি লেবাননকে আর্থিক সহায়তা দেওয়ার জন্য তার ইইউ অংশীদারদের লবিং করেছে এবং সম্প্রতি গাজায় মানবিক সাহায্য পাঠানোর জন্য একটি সামুদ্রিক করিডোর স্থাপন করেছে।


আরও খবর