Logo
আজঃ শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪
শিরোনাম
কক্সবাজারে পাহাড় ধসে স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যু বন্ধ শিল্প প্রতিষ্ঠান চালুর পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে: শিল্পমন্ত্রী বাংলাদেশের হার দিয়ে সুপার এইট শুরু গোদাগাড়ীতে রাসেল ভাইপারের চিকিৎসার দাবিতে স্বাস্থ্য মন্ত্রীর কাছে চিঠি দিয়েছে নাগরিক স্বার্থ-সংরক্ষণ কমিটি রূপগঞ্জে জমে উঠেছে কাঞ্চন পৌরসভা নির্বাচন যাত্রাবাড়ীতে পুলিশ কর্মকর্তার বাবা মাকে কুপিয়ে হত্যা যানজট নিরসনে সংসদ সদস্যগণের সাথে ট্রাফিক ওয়ারী বিভাগের সমন্বয়সভা ভোলায় ফের দেখা মিলল রাসেল ভাইপার, জনমনে আতঙ্ক বাজেট পাস হয়নি,অনেক কিছু পুনর্বিবেচনা করা সম্ভব: অর্থমন্ত্রী দেশের সব মহৎ অর্জন আ. লীগের মাধ্যমেই হয়েছে: ওবায়দুল কাদের

মিথ্যা অভিযোগ দাবি করে অব্যাহতি চাইলেন ড. ইউনূস

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৯ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | ২২০জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:শ্রম আইন লঙ্ঘনের মামলায় আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগে অভিযোগ মিথ্যা দাবি করে অব্যাহতি চেয়েছেন ড. মুহাম্মদ ইউনূসসহ চার আসামি।

বৃহস্পতিবার (৯ নভেম্বর) দুপুর ১২টার পর আত্মপক্ষ সমর্থনের জন্য শ্রম আদালতে উপস্থিত হয়ে তারা এ অব্যাহতি চান।

মামলায় অপর তিন আসামি হলেন- গ্রামীণ টেলিকমের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) আশরাফুল হাসান, পরিচালক নুর জাহান বেগম ও শাহজাহান। এর আগে বুধবার (৮ নভেম্বর) আইনজীবী আব্দুল্লাহ আল মামুন সংবাদমাধ্যমকে নিশ্চিত করেন যে, শ্রম আইন লঙ্ঘনের মামলায় আত্মপক্ষ সমর্থন করতে আদালতে হাজির হবেন ড. ইউনূস।

তিনি বলেন, যেহেতু বৃহস্পতিবার ৩৪২ ধারায় আত্মপক্ষ সমর্থনের দিন ধার্য রয়েছে তাই ড. ইউনূস আদালতে হাজির হবেন। কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান অধিদপ্তর মামলাটি প্রমাণ করতে সক্ষম হয়নি।

শ্রম আইন লংঘনের মামলায় এরই মধ্যে চার সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ ও জেরা শেষ হয়েছে। এ মামলায় কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান অধিদপ্তরের পক্ষে শুনানি করেন সিনিয়র আইনজীবী সৈয়দ হায়দার আলী ও মো. খুরশীদ আলম খান।

গত ১১ অক্টোবর মামলার বাদী শ্রম পরিদর্শক তরিকুল ইসলামকে আসামিপক্ষ জেরা শেষ করেন। গত ২২ আগস্ট এ সাক্ষীর জবানবন্দি গ্রহণ করার পর তাকে জেরা করেন ড. ইউনূসের আইনজীবীরা। এরপর গত ৫, ১৩, ২০ ও ২৭ সেপ্টেম্বর এবং ৩ ও ১১ অক্টোবর সাক্ষীকে জেরা করেন ড. ইউনুসের আইনজীবী।

উল্লেখ্য, ২০২১ সালের ৯ সেপ্টেম্বর ঢাকার তৃতীয় শ্রম আদালতে কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান অধিদপ্তরের শ্রম পরিদর্শক তরিকুল ইসলাম বাদী হয়ে ড. ইউনূসসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলাটি করা হয়। মামলায় শ্রমিক কল্যাণ ফাউন্ডেশনে নির্দিষ্ট লভ্যাংশ জমা না দেওয়া, শ্রমিকদের চাকরি স্থায়ী না করা, গণছুটি নগদায়ন না করায় শ্রম আইনের ৪-এর ৭, ৮, ১১৭ ও ২৩৪ ধারায় অভিযোগ আনা হয়। মামলায় ড. ইউনূস ছাড়াও গ্রামীণ টেলিকমের এমডি মো. আশরাফুল হাসান, পরিচালক নুরজাহান বেগম ও মো. শাহজাহানকে বিবাদী করা হয়েছে।


আরও খবর



ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সরকারি চাকরির শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ পরিসংখ্যান সহকারীর বিরুদ্ধে

প্রকাশিত:শনিবার ১৫ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | ৭৫জন দেখেছেন

Image

স্টাফ রিপোর্টার:ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সরাইল উপজেলার শোলাবাড়ি গ্রামের মৃত শাহজাহান মিয়ার ছেলে বদিউজ্জামান বাদল ওরফে মোঃ বাদল মিয়া (৪২) এর বিরুদ্ধে সরকারি চাকরি শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ করেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার  মো: ফয়সাল হোসেন।

দূর্নীতি দমন কমিশন ও জন প্রশাসন মন্ত্রনালয়ে করা অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, মোঃ বাদল মিয়া বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো এর ব্রাহ্মণবাড়িয়া কার্যালয়ের পরিসংখ্যান সহকারী পদে চাকরিতে কর্মরত আছে। বাদল মিয়া রাজনীতি করে পূর্ব থেকেই। সে চাকরি পাওয়ার পরেও পূর্বের ন্যায় রাজনীতিতে সক্রিয় আছে। রাজনীতির সকল অনুষ্ঠানে সে সবসময় উপস্থিত থাকে। যে কোন নির্বাচনে বাদল মিয়া সরাসরি কোন প্রার্থীর পক্ষে নিয়ে নির্বাচনের মাঠে ভোট নিয়ে প্রার্থীর পক্ষে কাজ করে। ভোটারদের কাছে ভোট চায়।

সম্প্রতি বাদল মিয়া পানিশ্বর ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করবে বলে প্রচার করতাছে। সে তার শুভাকাঙ্ক্ষীদেরকে দিয়ে ফেইসবুকে এ বিষয়ে পোস্ট দেওয়াচ্ছেন। আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন বলে ঘোষণা করেছেন।

অভিযোগ, বাদল মিয়া চাকরি করে অবৈধভাবে অঢেল সম্পদের মালিক হয়েছেন। বাদল মিয়ার ফেইসবুক আইডি ঘুরলে দেখা যায় সে বর্তমানে রাজনীতিতে সক্রিয় ভাবে জড়িত আছে। নির্বাচনে ভোটারদের কাছে প্রার্থীর জন্য ভোট চাচ্ছেন। আগামী নির্বাচনে ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করবে প্রচার করছেন ফেইসবুকে।

সরকারি কর্মচারী ( আচরণ) বিধিমালা – ১৯৭৯ এর ২৫ নম্বর ধারা অনুযায়ী কর্মকর্তা – কর্মচারীরা কোন রাজনৈতিক দল বা অঙ্গসংগঠনের সদস্য হতে পারবে না। রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ বা কোনো ধরনের সহায়তা করতে পারবে না।২০০৮ সালের সংসদ নির্বাচনে রাজনৈতিক দল ও প্রার্থীর আচরণ বিধিমালায় ও সরকারি চাকরিজীবীদের ভোটের প্রার্থীর অংশগ্রহণ বা সহায়তা করার বিষয়ে নিষেধ রয়েছে। এছাড়া নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের` গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ `- এর ২০২১ সালের ২৮ জুন জারি করা প্রজ্ঞাপনের(চ) ধারায় বলা হয়েছে, সরকারি চাকরি থেকে অবসরের পর তিন বছর পর না হওয়া পর্যন্ত কোনো সরকারি কর্মকর্তা – কর্মচারী কোনো ধরনের নির্বাচন বা রাজনৈতিক দলের সদস্য নির্বাচিত হতে পারবেন না।

এ বিষয়ে, সুশাসনের জন্য নাগরিকের (সুজন) সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার বলেন, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের এমন আচরণ চাকরিবিধির সুস্পষ্ট লঙ্ঘন। তাঁরা জনগণের কাছ থেকে বেতন-ভাতা পেয়ে থাকেন এবং তাঁরা কোনো দলের কর্মী নন।

এ বিষয়ে মোবাইল ফোনে বাদল মিয়ার সাথে কথা বলে জানতে চাইলে,তিনি বলেন একজনের ব্যাক্তি পছন্দ থাকতেই পারে।অনেক সরকারী কর্মকর্তা কর্মচারীর ফেসবুকেই এমন পোষ্ট দেখতে পাবেন।চেয়ারম্যানের বিষয় হয়তো আমার শুভাকাঙ্খিরা পোষ্ট করেছেন।তবে এমন সিদ্বান্ত নিলে চাকুরী ছেড়েই নেব বলে জানান বাদল মিয়া।

      -খবর প্রতিদিন/ সি.ব

আরও খবর



টানা ৩ দিন বৃষ্টি ঝরবে সারাদেশে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ১২৭জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:মঙ্গলবার (৪ জুন) রাতে দেয়া বার্তায় দেশের আট বিভাগেই আগামী তিন দিন বৃষ্টি হতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া।আবহাওয়া দফতরের তথ্যমতে পশ্চিমা লঘুচাপের বর্ধিতাংশ উত্তরপশ্চিম বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। অন্যদিকে মৌসুমী বায়ু বাংলাদেশের ওপর মোটামুটি সক্রিয়। 

আগামী ২৪ ঘণ্টায় রংপুর, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় এবং রাজশাহী, ঢাকা, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি ও বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া রংপুর, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের কোথাও কোথাও ভারি বর্ষণও হতে পারে।

বুধবার (৫ জুন) সন্ধ্যা থেকে আগামী ৪৮ ঘণ্টায় রংপুর, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায়, রাজশাহী ও ঢাকা বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের দুয়েক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি ও বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর। এছাড়া রংপুর, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারি থেকে অতিভারি বর্ষণ হতে পারে। আর ৫ দিনের বর্ধিত আবহাওয়া বার্তায় বলা হয়- দেশের উত্তরাঞ্চলে বৃষ্টিপাতের প্রবণতা অব্যাহত থাকতে পারে।


আরও খবর



ফুলবাড়ী পৌরসভার ড্রেনের পানিতে বাড়ীঘর ঝুকি পূর্ণ

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০24 | ৭৮জন দেখেছেন

Image

ফুলবাড়ী, দিনাজপুর প্রতিনিধি:দিনাজপুরের ফুলবাড়ী পৌরসভা এলাকার পশ্চিম গৌরীপাড়া গ্রামে বর্ষাকালে ড্রেনের পানির স্রোতে, ড্রেনের মুখে থাকা বাড়ীঘর ভেঙ্গে যাচ্ছে। ফুলবাড়ী পৌরসভা কর্তৃক জাইকা প্রকল্পের আওতায় পৌরসভা থেকে প্রায় ১ হাজার ফিট পাকা ড্রেন নির্মাণ হয়ে নিমতলা মোড় হয়ে ফুলবাড়ী উর্বসী সিনেমা হল এর উত্তর দিক হয়ে যমুনা নদীর মুখে গিয়ে শেষ হয়। ড্রেনটি নির্মাণ করার পর বিভিন্ন বাসা বাড়ীর পাইপ লাইন সংযোগ ড্রেনে দেওয়া হয়। এমনকি লিং ড্রেন গুলিও মুল ড্রেনে সংযোজন করা হয়। ফলে বর্ষা কাল এলে এই ড্রেন দিয়ে তীব্র বেগে পানি প্রবাহিত হয়। এই কারণে ড্রেনের মূখে থাকা ঘর বাড়ীগুলি ভেঙ্গে পড়ছে। ড্রেনের সঙ্গে থাকা বাড়ীর মালিক মোঃ ইব্রাহীম, মোঃ কাদের , মোঃ মমিনুল ইসলাম, মোঃ আব্দুল, মোঃ গোলজার ও দুখুমিয়ার বাড়ী রয়েছে। এই বাড়ীগুলি ঝুকির মধ্যে রয়েছে। এরা গরিব মানুষ এখানে বাড়ীঘর নির্মাণ করে বসবাস করে আসছে। তাদের এই বাড়ীঘর গুলি ড্রেনে ভেঙ্গে পড়লে তারা সর্বশান্ত হয়ে পড়বে। মোঃ মমিনুল ইসলাম জানান, বর্ষার আগে ৪নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র মোঃ মামুনুর রশিদ মামুন কে বিষয়টি অবগত করি এবং কয়েকবার পৌর সভায় গিয়ে পৌর চেয়ারম্যান কেও বিষয়টি মৌখিকভাবে অবগত করি।  

ফুলবাড়ী পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব মাহমুদ আলম লিটন এর সাথে কথা বললে তিনি জানান, বিষয়টি ইতিপূর্বেও অবগত হয়েছি, সরেজমিনে গিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 

ফুলবাড়ী পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র মোঃ মামুনুর রশিদ মামুন এর সাথে কথা বললে তিনি জানান, আগামী মাসিক মিটিং এ বিষয়টি তুলে ধরা হবে। আসলে এই জায়গাটি ভাঙ্গনের সৃষ্টি হয়েছে। ব্যবস্থা না নিলে ড্রেন সংলগ্ন বাড়ীগুলি রক্ষা করা সম্ভব নয়। 

এ ব্যাপারে ভূক্তভূগিরা জরুরীভিত্তিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে কর্তৃপক্ষের অসু-হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।


আরও খবর



ডিএমপির সাবেক কমিশনার বিদেশে যাওয়া নিয়ে ভিডিও বার্তায় যা বললেন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০24 | হালনাগাদ:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | ৬০জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:ডিএমপির সাবেক কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়াকে নিয়ে বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে নানা সংবাদ প্রকাশ করে। তবে সেসব বিষয় উড়িয়ে দিয়েছেন আছাদুজ্জামান মিয়া। বিদেশে যাওয়ার বিষয়টি নিয়ে ভিডিও বার্তা দিয়ে জানান, আগামী ২২ জুন তিনি দেশে ফিরছেন।

বুধবার (১৯ জুন) দেওয়া এক ভিডিও বার্তায় আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, আমি অত্যন্ত উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ করছি দুই-একটি মিডিয়া খবর প্রকাশ করেছে যে, আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠার পরে আমি সস্ত্রীক বিদেশে পালিয়ে এসেছি- যা মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন এবং উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। মূলত হৃদ্‌রোগের চিকিৎসার জন্য, ডাক্তারের পূর্ব-নির্ধারিত সময় অনুযায়ী আমি চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে এসেছি। চিকিৎসা শেষে আমি আগামী ২২ তারিখে দেশে ফিরব, ইনশাআল্লাহ।

তিনি বলেন, আমার বিরুদ্ধে দুই-একটি মিডিয়ায় অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে যে খবর প্রকাশ করেছে সেটি অসত্য, বানোয়াট, অতিরঞ্জিত এবং উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। জ্ঞাত আয়ের বাইরে এবং আমার জ্ঞাত আয়ের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়, এমন কোনো সম্পদ আমার বা আমার পরিবারের নেই। মূলত একটি চিহ্নিত মহল দেশের বাইরে থেকে এবং দেশের ভেতরে থেকে এই ধরনের অপপ্রচার করছে। এটি করা হচ্ছে আমাকে হেয় করার জন্য, সামাজিকভাবে আমার ও আমার পরিবারের সদস্যদের সামাজিক মর্যাদা ক্ষুণ্ন করার জন্য, তাদের হীন স্বার্থ চরিতার্থ করার জন্য আক্রোশমূলক এ ধরনের হীন অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে।

শেষে মিডিয়াকর্মীদের অনুরোধ করে ডিএমপির সাবেক এ কর্মকর্তা বলেন, আমি সম্মানিত মিডিয়াকর্মী ভাইদের কাছে অনুরোধ করব, আমার এবং আমার পরিবারের সম্মান ক্ষুণ্ন হয় এই ধরনের মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন অপপ্রচার থেকে সবাই বিরত থাকবেন।

উল্লেখ্য, আছাদুজ্জামান মিয়া ২০১৫ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত ডিএমপি কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। পরে তাকে জাতীয় নিরাপত্তাসংক্রান্ত সেলের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা পদে নিয়োগ দেয় সরকার। ২০২২ সালের সেপ্টেম্বরে তার চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়।


আরও খবর



সৈয়দপুরে মুক্তিযোদ্ধাদের পানি পান করিয়ে অনশন ভাঙ্গালেন জেলা প্রশাসক

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০24 | ৯৯জন দেখেছেন

Image
জহুরুল ইসলাম খোকন সৈয়দপুর( নীলফামারী) প্রতিনিধি:কুখ্যাত রাজাকর নঈম খান ওরফে নঈম গুন্ডাকে একটি মামলায় স্বাধীনতার পক্ষের ব্যক্তি উল্লেখ করে আদালতে প্রতিবেদন দেওয়া হয়েছে। এর প্রতিবাদে নীলফামারীর সৈয়দপুরে মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের উদ্যোগে ওই প্রতিবেদন দাখিলকারী পুলিশ কর্মকর্তার অপসারনের দাবিতে অনশন কর্মসূচি পালন করা হয়। মঙ্গলবার (১১ জুন ) দুপুরে সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ের সামনে পালন করা হয় ওই কর্মসূচিতে জেলা প্রশাসক পঙ্কজ ঘোষ উপস্হিত হয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের পানি পান করিয়ে অনশন ভাঙ্গালেন এবং বিষয়টি দেখবেন বলে প্রতিশ্রুতি দেন।

ওইদিন দুপুরে মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সদস্যরা অনশন কর্মসূচিতে অংশ নিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ের সামনে জড়ো হন। প্রায় ২ ঘন্টাব্যাপী চলে ওই অবস্থান কর্মসূচি। কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মির্জা সালাউদ্দিন বেগ, বীর মুক্তিযোদ্ধা ইউনুস আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা শামসুল হক সরকার, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান শাহনাজ পারভীন, মাহফুজা আক্তার, মো: মিজানুর, বীর মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী রোকেয়া ও আলম আরা প্রমুখ।

সভায় বক্তারা বলেন, কুখ্যাত রাজাকার নঈম খান ওরফে নঈম গুন্ডা একজন চিহ্নিত যুদ্ধাপরাধী। ওই ব্যক্তি মুক্তিযুদ্ধের সময় বাঙ্গালী নিধন, ধর্ষণ, বাড়ি-ঘরে অগ্নিসংযোগ ও লুটপাটের সঙ্গে জড়িত। অথচ স্বাধীনতার ৫৩ বছর পর সম্প্রতি রংপুর সাইবার ট্রাইব্যুনাল আদালতে দায়ের করা মামলার তদন্ত প্রতিবেদনে রাজাকার নঈম খানকে স্বাধীনতার স্বপক্ষের ব্যক্তি বলে উল্লেখ করা হয়েছে। ইতিহাস বিকৃতি প্রতিবেদনটি আদালতে দাখিল করেছেন পুলিশ কর্মকর্তা সিআইডির পরিদর্শক রেজাউল করিম। বক্তারা ওই প্রতিবেদন দাখিলকারী পুলিশ কর্মকর্তার অবিলম্বে অপসারণ ও শাস্তির দাবি জানান।

অনশন কর্মসূচিতে নীলফামারী জেলা প্রশাসক পঙ্কজ ঘোষ বেলা ২ টায় হাজির হয়ে পানি পান করিয়ে অনশন ভঙ্গ করেন। এসময় সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রিয়াদ আরফান সরকার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নূর-ই আলম সিদ্দিকী, সহকারী কমিশনার (ভূমি) আমিনুল ইসলাম, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মহসিন আলী মন্ডল,সহ উপজেলা পর্যায়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

আরও খবর