Logo
আজঃ বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪
শিরোনাম

মিরসরাইয়ে কোটি টাকার ভারতীয় শাড়ী জব্দ, আটক ২

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ জুন ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ২৪১জন দেখেছেন

Image

মিরসরাই প্রতিনিধি:মিরসরাইয়ে কোটি টাকা মূল্যের বিপুল পরিমাণ ভারতীয় শাড়ীসহ ২ জনকে আটক করেছে মিরসরাই থানা পুলিশ। সোমবার (৫ জুন) দিবাগত রাত পৌনে ৩ টায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মিরসরাই পৌরবাজারে ফুটওভার ব্রীজের নীচে চট্টগ্রামমুখী অংশে অভিযান চালিয়ে দুইটি হাইচ মাইক্রোবাস জব্দ করা হয়। গাড়ী তল্লাশী করে ৩১ টি গাইডের ভেতর ২ হাজার ৩০৫ টি শাড়ী জব্দ করা হয়। যার বাজার মূল্য প্রায় এক কোটি টাকা। এসময় গাড়ীর চালক উপজেলার ৩ নং জোরারগঞ্জ ইউনিয়নের দক্ষিণ সোনাপাহাড় গ্রামের মৃত শরিফ উদ্দিনের ছেলে সোহাগ (৩৭) ও ১২ নং খৈয়াছড়া ইউনিয়নের উত্তর আমবাড়িয়া গ্রামের নুরুল হকের ছেলে রেজাউল করিমকে (২৬) আটক করা হয়। মিরসরাই থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কবির হোসেন বলেন, কতিপয় চোরাকারবারী সীমান্ত এলাকা থেকে ভারতীয় শাড়ী নিয়ে চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে যাচ্ছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মহাসড়কে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় রাত পৌনে ৩ টায় মহাসড়কের মিরসরাই পৌর বাজারে ফুটওভার ব্রীজের নীচে চট্টগ্রামমুখী অংশে অভিযান চালিয়ে দুইটি হাইচ মাইক্রোবাস (চট্ট মেট্রো-চ-১১-৪২৫৪, চট্ট মেট্রো-চ- ১১-৫৪২৫) গাড়ী আটক করা হয়। পরবর্তীতে গাড়ী তল্লাশী করে ভেতরে থাকা ৩১ টি গাইডের মধ্যে ২ হাজার ৩০৫ টি শাড়ী জব্দ করা হয়। যার বাজার মূল্য প্রায় ১ কোটি টাকা। তিনি আরো বলেন, গাড়ী চালক সোহাগ ইতিপূর্বেও ভারতীয় শাড়ী চোরাচালান করার সময় আমাদের হাতে আটক হয়েছিল। জেল থেকে বের হয়ে সে পুণরায় চোরাচালানে জড়িয়ে পড়ে। জব্দকৃত গাড়ী দুইটির মূল্য প্রায় ৫৪ লাখ টাকা। গাড়ীর চালকদের আটক করা হয়েছে। চোরাচালানের সাথে জড়িতদের আটকের জন্য অভিযান অব্যাহত আছে। এই ঘটনায় থানায় নিয়মিত মামলা দায়ের করা হয়েছে।


আরও খবর



আফতাবনগরের গরুর হাটের ইজারার নিয়ে যত তালবাহনা !

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৭ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ১৪৮জন দেখেছেন

Image
মারুফ সরকার, স্টাফ রিপোর্টার:ঢাকা উত্তর-দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের আফতাব নগরের কুরবানির পশুর হাটের ইজারা নিয়ে চলছে নানান নাটকিয়তা। এছাড়াও রয়েছে অনিয়ম আর দুর্নীতির অভিযোগ। গত কয়েক বছর ধরেই সিটি কর্পোরেশনের কিছু কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করে ও প্রভাব খাটিয়ে হাট বাগিয়ে নিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

এছাড়া আফতাব নগরের গরুর হাটের টেন্ডার দেওয়ার কিছুদিন আগ থেকেই সম্পত্তি বিভাগের সামনে এবং আঞ্চলিক অফিসে প্রতিদিন ক্ষমতা দেখিয়ে ‘মহড়া’দেয় মেহেদীর ক্যাডারবাহিনী বলে অভিযোগ করা হয়েছে। এতে যাদের ক্যাডারবাহিনী নেই সেসব ইজারা প্রার্থীর পক্ষে নির্বিঘ্নে দরপত্র জমা দেয়া সম্ভব হয় না বলে অভিযোগ করা হয়েছে।


সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, গরুর হাটগুলো ইজারার ক্ষেত্রে ক্ষমতাসীনদের আয়ত্বে রাখতে সব সময়ই নেওয়া হয় নানা কৌশল। ঘুরে ফিরে একই সিন্ডিকেটের সদস্যরা পশুরহাটের ইজারা পাচ্ছেন। কারণ একই ব্যক্তি কিংবা প্রতিষ্ঠান বিভিন্ন নামে-বেনামে নামমাত্র মূল্য দিয়ে দরপত্র জমা দিয়ে থাকেন। যে কারণে নিজেদের কাঙ্ক্ষিত দামে ইজারা পেতে সহজ হয়ে যায়। এতে প্রতি বছর সিটি কর্পোরেশন কোটি কোটি টাকার রাজস্ব হারায়।

এদিকে পবিত্র ঈদুল আজহা-২০২৪ উপলক্ষে রাজধানীর আফতাবনগরে পশুর হাট বসাতে দেওয়া পৃথক ইজারা বিজ্ঞপ্তির কার্যক্রম স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট। এক রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে বিচারপতি নাইমা হায়দার ও বিচারপতি কাজী জিনাত হকের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ ৮মে রুলসহ অন্তর্বর্তীকালীন এ আদেশ দেন।

গত ৪ এপ্রিল ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তার সই করা এক ইজারা বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে অস্থায়ী পশুর হাটের জন্য দরপত্র আহ্বান করা হয়। বিজ্ঞপ্তিতে আফতাব নগর (ইস্টার্ন হাউজিং) ব্লক-ই থেকে এইচ পর্যন্ত এবং সেকশন ১ ও ২–এর খালি জায়গাসহ ১১টি স্থানে অস্থায়ীভাবে কোরবানির পশু বিক্রির জন্য ইজারা আহ্বান করা হয়। ঈদুল আজহার দিনসহ পাঁচ দিন হাট বসার কথা বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়।

জানা গেছে, গত বছর সিটি কর্পোরেশনের কিছু অসাধু কর্মকর্তা ও ক্ষমতাসীনদের সিন্ডিকেটের কারণে রাজধানী ঢাকার অস্থায়ী ২৬টি কুরবানি পশুর হাট থেকে শত কোটি টাকা রাজস্ব হারিয়েছে ডিএনসিসি-ডিএসসিসি। হাটগুলো থেকে কমপক্ষে ১৫০ কোটি টাকা হাসিল উত্তোলন করেছে ইজারাদাররা। অথচ হাটগুলোর ইজারা থেকে পেয়েছে মাত্র সাড়ে ১৭ কোটি টাকা। এছাড়াও হাট নিয়ে রয়েছে দুই সিটির মধ্যে টানাপড়েন। আফতাব নগরে অস্থায়ী পশুর হাটও রয়েছে।

দুই সিটি কর্পোরেশনের দাবি- হাটের এলাকা তাদের সীমানায় পড়েছে। মূলত জায়গাটি দুই সিটি কর্পোরেশনের সীমান্ত এলাকায় পড়েছে। সামনের জায়গা ডিএনসিসির এবং পেছনের জায়গা ডিএসসিসির।

এ প্রসঙ্গে ডিএসসিসির প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা মো.মাহে আলম বলেন, সীমানা নির্ধারণী গেজেট অনুযায়ী যেখানে আফতাব নগর হাট বসানো হয়, তার বেশির ভাগ অংশ ডিএসসিসির আওতাভুক্ত। এজন্য আমরা এবার ডিএনসিসিকে ওই স্থানে হাট ইজারা না দেয়ার অনুরোধ করেছি।ডিএনসিসি যদি আমাদের অনুরোধ না শোনে তাহলে ওই এলাকার দুটি হাট ব্যবস্থাপনা কঠিন হবে। 

ডিএনসিসির প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা মো. মাহে আলম বলেন, আফতাব নগর হাট বহু বছর ধরে ডিএনসিসি ইজারা দিচ্ছে। গত বছর বিশেষ কারণে ডিএনসিসি বরাদ্দ দেয়নি, তবে এবার দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে।

জানা গেছে, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ১২টি হাটের জন্য প্রথম দফার ইজারা কার্যক্রম শেষ হয়ে গেলেও দক্ষিণ সিটির ১৪টি হাটের ইজারা নিয়ে এখনো চলছে ইঁদুর-বিড়াল খেলা। এ হাটগুলোর জন্য টেন্ডার আহ্বানের পর থেকেই আগ্রহী প্রার্থীরা চালান কাটা শুরু করলেও তারা সংশ্লিষ্ট বিভাগ থেকে সিডিউল সংগ্রহ করতে পারছেন না বলে অভিযোগ উঠেছে।

সিটি কর্পোরেশনের সংশ্লিষ্টরা জানান, দক্ষিণ সিটির ১৪ হাটের জন্য ৩০ এপ্রিল টেন্ডার আহ্বান করেছে। অন্যদিকে উত্তর সিটির ১২টির অস্থায়ী হাটের টেন্ডার বাক্স খোলা হয়েছে গত ৩০ এপ্রিল।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আওয়ামী লীগের এক নেতা বলেন, গত তিন বছর ধরেই ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের অস্থায়ী হাট ইজারা নিয়ে চলছে অনিয়ম আর দুর্নীতি।

ইজারা মূল্যের চেয়ে সে বছর ওই পশুর হাট থেকে ১ কোটি ৪০ লাখ ২৫ হাজার টাকা বেশি হাসিল আদায় হয়। ডিএসসিসি গত বছর এ হাটের ইজারামূল্য নির্ধারণ করে মাত্র ১০ লাখ ৩ হাজার টাকা। এবারো হাট ইজারা একই প্রক্রিয়ায় শুরু হয়েছে বলে অভিযোগ তোলা হয়েছে। যাতে করে সরকার বড় অংকের রাজস্ব হারাচ্ছে।

এ বিষয়ে ডিএসসিসি মেয়র আতিকুল ইসলাম এর কাছে জানতে তার ব্যক্তিগত নাম্বারে একাধিকবার ফোন দিলে তিনি রিসিভ করেন নি।

আরও খবর

মেট্রোরেল ঈদের দিন বন্ধ থাকবে

বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪




ডোমারে কৃষি মেলার সমাপনি দিবস ও পুরস্কার বিতরন

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ জুন ২০২৪ | ৯০জন দেখেছেন

Image

মানিক, ডোমার (নীলফামারী) প্রতিনিধি:নীলফামারীর ডোমারে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর আয়োজিত ৩দিন ব্যাপী কৃষি মেলার সমাপনি দিবসে পুরস্কার বিতরণ, প্রান্তিক ও মাঝারি কৃষকদের মাঝে বিনা মূল্যে বীজ এবং রাসাইনিক সার বিতরণ করা হয়েছে। 

বৃহস্পতিবার (৬জুন) বিকালে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা রাজিয়া সুলতানা’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চোয়াম্যান সরকার ফারহানা আখতার সুমি। 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজমুল আলম (বিপিএএ)’র সভাপপিত্বে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ফেরদৌসী বেগম, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ রফিকুল ইসলাম, উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা ফায়জুল বারী, অন্নপূর্ণ এগ্রো সার্ভিস এর উদ্যোক্তা দেবরাজ আগরওয়ালা প্রমূখ বক্তব্য রাখেন। 

উক্ত মেলাটিকে আকর্ষনীয় করতে এনজিওদের মধ্যে ব্র্যাক, পল্লীশ্রী, সার্পসহ নার্সারী মালিক, সরকারী বে-সরকারী বিভিন্ন উদ্যোক্তাগণ মেলায় তাদের ডিসপ্লে প্রদর্শন করেন, মেলায় ২০টি স্টল স্থান পায়। আলোচনা শেষে মেলায় অংশগ্রহনকারী উদ্যোক্তাদের পুরস্কার প্রদান করা হয় এবং এলাকার প্রান্তিক ও মাঝারি কৃষকদের মাঝে বিনা মূল্যে বীজ এবং রাসাইনিক সার তুলে দেন অতিথিগণ।


আরও খবর



আক্কেলপুরে মুক্তিযোদ্ধা গেজেট বাতিল চেয়ে সংবাদ সম্মেলন ও প্রতিবাদ সমাবেশ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ৪১জন দেখেছেন

Image

নিশাত আনজুমান, আক্কেলপুর(জয়পুরহাট) প্রতিনিধি:জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে রায়কালী ইউনিয়নের আমির উদ্দীনকে অ-মুক্তিযোদ্ধা দাবী করে জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল কর্তৃক তাকে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে গেজেট প্রদানের প্রতিবাদে ও গেজেট বাতিল চেয়ে সংবাদ সম্মেলন ও প্রতিবাদ সমাবেশ হয়েছে। সোমবার বেলা ১১ টায় রায়কালী ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা সংসদের  আয়োজনে এই সংবাদ সম্মেলন হয়েছে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন জয়পুরহাট জেলা ইউনিট কমান্ডার বীরমুক্তিযোদ্ধা আমজাদ হোসেন, উপজেলা বর্তমান দায়িত্বপ্রাপ্ত কমান্ডার বীরমুক্তিযোদ্ধা নবীবুর রহমান, রেলওয়ে মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ইউনিট কমান্ডার বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুল বারি, রায়কালী ইউনিয়ন কমান্ডার বীরমুক্তিযোদ্ধা শামছুল আজম, যুদ্ধকালীন কমান্ডার বীরমুক্তিযোদ্ধা আজাদ আশাদুজ্জামান সহ আরো অনেক বীরমুক্তিযোদ্ধা ও তাদের পরিবারের সদস্যরা। এসময় লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন রায়কালী ইউনিয়ন কমান্ডার বীরমুক্তিযোদ্ধা শামছুল আজম।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, আমির উদ্দীনের বিরুদ্ধে ২০১৭ সালে উপজেলা যাচাই-বাছাই কমিটির নিকট আমরা একটি অভিযোগ করি, সেই কমিটিতে আমির উদ্দীন কোন স্বাক্ষী ও কাগজপত্র দেখাতে পারেনি। সেই সময় তাকে বাতিল বলে গণ্য করা হয়। পরবর্তীতে সে যোগসাযোজ করে জা,মু,কা (জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল) থেকে গেজেট পাশ করে নিয়ে আসে। তার গেজেট বাতিলের জন্য আমরা জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের মহাপরিচালক বরাবর ও আক্কেলপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিতও দিয়েছিলাম। আসলে সে কোন প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা নয়, তিনি বাংলাদেশের অভ্যন্তরে বা ভারতে কোন ক্যাম্পেই ভর্তি হননি। আমরা রায়কালী ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সকলেই চাই অবিলম্বে তার এই গেজেটটি বাতিল করা হোক।  

সংবাদ সম্মেলন শেষে বীর মুক্তিযোদ্ধারা রায়কালী ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা সংসদের  সামনে আমির উদ্দীনের গেজেট বাতিলের জন্য স্লোগান দিয়ে মানববন্ধন ও র‌্যালি করেছেন।
উপজেলার বর্তমান দায়িত্বপ্রাপ্ত কমান্ডার বীরমুক্তিযোদ্ধা নবীবুর রহমান বলেন, তিনি কোন যুদ্ধেই অংশগ্রহণ করেননি। তিনি অপচেষ্টার মাধ্যমে গেজেটে নাম ঢুকিয়েছেন। আমারা তার গেজেট বাতিল চাই। 

অভিযুক্ত অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক আমির উদ্দীন উপজেলার রায়কালী ইউনিয়নের চিয়ারিগ্রামের বাসিন্দা এবং ওই ইউনিয়নের ইউপি সদস্য।অভিযুক্ত আমির উদ্দীন বলেন, ১৯৭১ সালে ১৫ সেপ্টেম্বর ভারতের ত্রিমুনী ক্যাম্পে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণের জন্য ভর্তি হই এবং আমার রেজি নং: ৪১৬। সেখোন থেকে এসে আমি চিয়ারিগ্রাম, গুডুম্বা, ঢেকুঞ্চা মাঠে হানাদার বাহিনীর সাথে মুখোমুখী যুদ্ধ করি। সেই যুদ্ধ দুপচাঁচিয়া গিয়ে শেষ হয়। আমার বিরুদ্ধে করা অভিযোগ সত্য নয়। আমার কাছে এক মুক্তিযোদ্ধা ৫ লক্ষ টাকা দাবী করেছিল, সেই টাকা না দেওয়ায় তারা একত্রিত হয়ে আমার বিরুদ্ধে আভিযোগ করছে।

আরও খবর



রৌমারী জমে উঠেছে কোরবানির পশুর হাট যায়গা সংকটে ভোগান্তিতে ক্রেতাবিক্রেতারা

প্রকাশিত:শনিবার ০১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ১২৫জন দেখেছেন

Image

মাজহারুল ইসলাম,রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃকোরবানির সময় যত ঘুনিয়ে আসছে ততোই ক্রেতা-বিক্রেতারা তৎপর হয়ে বিভিন্ন হাটে পশু ক্রয়বিক্রয়ের চেষ্টা করছেন।

গরুর সাইজ ও দামে পছন্দ হলে, ক্রয় করে ফিরছেন বাড়িতে। অপরদিকে কাঙ্খিত দামের অপেক্ষা করছেন এঅঞ্চলের  খামারি ও ব্যবসায়ীরা। রৌমারী  প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, উপজেলায় স্থায়ী ২ টি পশুর হাট রয়েছে। এর মধ্যে সব থেকে বড় পশুর হাট দেশের উত্তর অঞ্চল কুড়িগ্রামের সীমান্ত ঘেষা রৌমারী সদর হাট। সপ্তাহে পশুর হাট বসে শুক্রবার এবং সোমবারসহ দুদিন। সকাল থেকেই দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে হাজার হাজার পশু ও ক্রেতা-বিক্রেতাদের হাক-ডাকে সরগরম হয়ে উঠে রৌমারীর পশুর হাট। বেলা বাড়ার সাথে সাথে বৃদ্ধি পেতে থাকে পশু ও ক্রেতা-বিক্রেতার সংখ্যা। বিভিন্ন জেলা উপজেলা থেকে আসা খামারি হামির উদ্দীন, মুছা মিয়া, জমের উদ্দীন বলেন, ৬ টি গরু নিয়ে আসছিলাম। ২টি বিক্রি করেছি দামেও ভাল পেয়েছেন বলে জানান তিনি। জামালপুর জেলার বকশিগঞ্জ উপজেলা থেকে রৌমারী হাটে গরু কিনতে এসে বলেন, গরুর দাম এবার অনেক বেশি। দেখতেছি, কিন্তু দামে হচ্ছে না। দামে হলেই কিনব। তিনি আরও বলেন খাবার ও অন্যান্য আনুসঙ্গিক পণ্যের দাম বাড়ায় গরুর দামও বৃদ্ধি পেয়েছে বলে দাবি করছেন ব্যবসায়ীরা। যে ভুষি কিনেছি ৩৫ টাকায় সেই ভুষি এখন ৬০ টাকা। ভুট্টার গুড়ি, খৈল, পালিশ সবকিছুরই দাম বেশি। যার ফলে গরুর দামও অনেক বেশি। দাম বেশি থাকায় গৃহস্থরা গরু ক্রয়ের ক্ষেত্রে অনেক হিসাব নিকাশ করছেন। শুধু হাট নয় খামারিরা নিজ বাড়িতে বসেও কোরবানির পশু বিক্রি করছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করেও অনেকেই গরু-ছাগল বিক্রি করছেন। তারপরও সরকারের হাট উন্নয়নে কাজ করছেন না কেন সেটি আমার এবং ক্রেতা বিক্রেতাদের প্রশ্ন,  উত্তর দেবেন কে। অপরদিকে বিশেষ সুত্রে জানা গেছে  ১৪৩০ বাংলা সনের হাটবাজারা ইজারা চুক্তি দলিলে রৌমারী হাটে রৌমারী মৌজায় ৬ একর ৯০ শতাংশ জমি ইজারাদারের অনুকুলে চুক্তিতে  দলিল প্রদান হয়েছিল। কিন্তু অদ্যাবধি তফশিল ভুক্ত ৬ একর-৯০ শতক জমি ইজারাদারকে বুঝিয়ে দেওয়া হয়নি। যায়গার অভাবে ক্রেতা বিক্রেতাদের ব্যবসা বানিজ্যে  সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে। হাটের সুষ্ঠ পরিবেশনে বিঘœন ঘটছে বলেও জানা গেছে। প্রায় সাত একর জমির উপর পশুর হাটটি থাকার কথা, কিন্তু সাত একরতো দূরের কথা দের একরের উপর দাড়িয়ে আছে সাড়ে তিন কোটি টাকার হাট। বাকি প্রায় সাড়ে পাচ একর ভূমি এখন কার দেয়ালের ভেতরে লুকিয়ে আছে জানতে চায় প্রবীনরা। 

এদিকে বর্তমান হাট ইজারাদার সাফায়াত বীন জাকির সৌরভ অভিযোগ করে বলেন রৌমারী এই হাটটিতে দূরদূরান্ত থেকে খামারিরা গরু মহিষ ক্রয় বিক্রয়ের জন্য এসে দাঁড়ানোর যায়গা পাচ্ছেন না ফলে হাটের ক্রেতা বিক্রতারা হাটে আসতে অনিহা প্রকাশ করছেন। তিনি আরও বলেন এভাবে হাট চলতে থাকলে একসময় এ হাটের রাজস্ব হারাবেন সরকার। হাটের জমি বিভিন্নভাবে  জবরদখলে নিয়ে স্থাপনা করে রাখলেও নজরে নিচ্ছেন না প্রশাসন, ফলে উর্ধ্বতন কতৃপক্ষের কাছে হাটের যায়গা উদ্ধারের জন্য জোর দাবী জানাচ্ছি। এবিষয় হাট ইজারাদার সৌরভ অভিযোগ করে বলেন রৌমারী পশুর হাটে যায়গা যেটি থাকার কথা সেটি বিভিন্নভাবে দখলে নিয়েছেন দখলদাররা ফলে পশু ক্রয় বিক্রয়ে ব্যঘাত ঘটছে। হাট ইজারাদার আরও বলেন হাটের যায়গা ছিলো প্রায় ৭ একর জমিতে, সেখানে পশুর হাট অবস্থান করছে মাত্র দের একর ভূমিতে। বাকি সাড়ে পাচ একর সরকারি পশুর হাটের যায়গা কোথায়। আমি প্রশাসনে দৃষ্টি এ্যাকশন করছি পশুর হাটের ৭ একর ভূমি উদ্ধারের জোর দাবী জানাচ্ছি। রৌমারী উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা.হাবিবুর রহমান হাবিব বলেন, কোরবানি উপলক্ষে উপজেলায় ২টি হাট রয়েছে। প্রতিটি হাটে আমাদের ভ্রাম্যমাণ মেডিকেল টিম রয়েছে। এছাড়া কোন অসাধু ব্যবসায়ী যাতে হরমন বা অন্য কোন খারাপ রাসয়নিক দিয়ে গরু বিক্রয় করতে না পারে সেজন্য প্রাণিসম্পদ বিভাগের নজরদারি রয়েছে বলে জানান তিনি।


আরও খবর

মেট্রোরেল ঈদের দিন বন্ধ থাকবে

বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪




বাংলাদেশ ভুটান থেকে জলবিদ্যুৎ আমদানিতে আগ্রহী: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ১০ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ৬৭জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পুনর্ব্যক্ত করেছেন বাংলাদেশের ভারতের মধ্য দিয়ে ভুটান থেকে জলবিদ্যুৎ আমদানির বিষয়ে আগ্রহের কথা । ভুটানের প্রধানমন্ত্রী দাশো শেরিং তোবগে ভারতের নয়াদিল্লিতে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে এক সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে এলে তিনি এ আগ্রহের কথা জানান। রোববার (৯ জুন) পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ সাক্ষাৎ শেষে এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভুটানের প্রধানমন্ত্রীকে বলেন, ভুটান থেকে ভারতের ভূখণ্ড দিয়ে বিদ্যুৎ রপ্তানির জন্য একটি ত্রিপক্ষীয় চুক্তি প্রয়োজন এবং বিষয়টি ইতিমধ্যে ভারতের নজরে আনা হয়েছে।

ড. হাছান জানান, সৌজন্য সাক্ষাতের সময় দুদেশের মধ্যকার দ্বিপাক্ষীক সম্পর্কের সম্পূর্ণ বিষয়াদি আলোচনায় উঠে আসে। তিনি বলেন, উভয় দেশ বিদ্যমান বহুমুখী সম্পর্ক বাড়ানোর প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করেছে।


আরও খবর

মেট্রোরেল ঈদের দিন বন্ধ থাকবে

বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪