Logo
আজঃ শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪
শিরোনাম

মেষের পারিবারিক পরিবেশ অনুকূল, সিংহের ভ্রমণের সুযোগ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৫ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ২২১জন দেখেছেন

Image

মেষ (২১ মার্চ-২০ এপ্রিল)

মাতৃস্বাস্থ্য ভালো যাবে। পারিবারিক পরিবেশ অনুকূল থাকতে পারে। আত্মীয়দের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় থাকতে পারে। প্রয়োজনে তাদের সহযোগিতা পেতে পারেন। জ্ঞানস্পৃহা বৃদ্ধি পাবে।

বৃষ (২১ এপ্রিল-২০ মে)

বন্ধু লাভের সম্ভাবনা আছে। কারো সঙ্গে আত্মীয়তার সম্পর্ক হতে পারে। ছোট ভাইবোনদের সঙ্গে সম্পর্ক ভালো থাকতে পারে। প্রয়োজনে তাদের সহযোগিতা পেতে পারেন। পরিবেশের সঙ্গে নিজেকে মানিয়ে চলুন।

মিথুন (২১ মে-২০ জুন)

বাড়িতে অতিথি সমাগম হতে পারে। অতিথিদের সঙ্গে কিছু সময় কাটাতে পারেন। কোনো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে ফলপ্রসূ আলোচনা হতে পারে। অধীনদের কাজে লাগাতে পারবেন। পাওনা টাকা আদায় হতে পারে।

কর্কট (২১ জুন-২০ জুলাই)

দাম্পত্য সম্পর্ক ভালো থাকবে। কাউকে প্রথম দেখায় ভালো লাগতে পারে। ভালোলাগার মানুষকে মনের কথা স্পষ্ট করে বলার চেষ্টা করুন। শরীর ভালো থাকতে পারে। বিনয়ী আচরণ দিয়ে অন্যের মন জয় করতে পারবেন।

সিংহ (২১ জুলাই-২১ আগস্ট)

দিনটি মিশ্র সম্ভাবনাময়। কোনো গুরুত্বপূর্ণ কাজ শেষ করতে পারবেন। ভ্রমণের সুযোগ পেতে পারেন। আইনগত ঝামেলা থেকে দূরে থাকুন। মিতব্যয়ী হওয়ার চেষ্টা করুন।

কন্যা (২২ আগস্ট-২২ সেপ্টেম্বর)

আর্থিক দিক ভালো যাবে। উপার্জন বাড়ানোর চেষ্টা জোরদার করুন। পেশাগত যোগাযোগ চালিয়ে যান। সেক্ষেত্রে সাফল্য পেতে পারেন। বন্ধুদের কারও সহযোগিতা পেতে পারেন।

তুলা (২৩ সেপ্টেম্বর-২২ অক্টোবর)

পিতার শারীরিক অবস্থা ভালো থাকতে পারে। কাজকর্ম  ফিরে পাবেন। কারো কারো পদোন্নতি হতে পারে। বেকারদের চাকরি হতে পারে। পাবলিক ইমেজ বৃদ্ধি পাবে।

বৃশ্চিক (২৩ অক্টোবর-২১ নভেম্বর)

জীবন ও জগৎ সম্পর্কে নতুন কোনো ধারণা পেতে পারেন। ধর্মীয় তীর্থস্থান ঘুরতে যেতে পারেন। মনের মধ্যে প্রশান্তি অনুভব করতে পারেন। পেশাগত দিক ভালো যাবে। ভাগ্যোন্নয়নের প্রচেষ্টা জোরদার করুন।

ধনু (২২ নভেম্বর-২০ ডিসেম্বর)

দিনটি খুব একটা অনুকূল না-ও থাকতে পারে। ব্যবসায়িক দিক খুব একটা ভালো যাবে না। ঝুঁকিপূর্ণ বিনিয়োগ পরিহার করুন। জৈবিক কামনা বাসনাকে সংযত রাখুন। অন্যথায় বদনাম হতে পারে।

মকর (২১ ডিসেম্বর-১৯ জানুয়ারি)

অবিবাহিতদের  বিয়ে হতে পারে। দাম্পত্য সম্পর্ক ভালো থাকবে। রোমান্টিক প্রস্তাবে সাড়া পেতে পারেন। ব্যবসায়িক দিক ভালো থাকতে পারে। ঘনিষ্ঠ কোনো বন্ধুর সহযোগিতা পেতে পারেন।

কুম্ভ (২০ জানুয়ারি-১৮ ফেব্রুয়ারি)

শরীর খুব একটা ভালো না-ও থাকতে পারে। হজমে অসুবিধা হয় এমন খাবার খাওয়া থেকে বিরত থাকুন। কর্মপরিবেশ খুব একটা অনুকূল না-ও থাকতে পারে। কর্মস্থলে সহকর্মীদের সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝি এড়িয়ে চলুন। সীমালংঘন করা ঠিক হবে না।

মীন (১৯ ফেব্রুয়ারি-২০ মার্চ)

প্রেম ভালোবাসার জন্য সময় অনুকূল থাকতে পারে। মনের মানুষকে মনের কথা বলুন। রোমান্টিক প্রস্তাবে সাড়া পেতে পারেন। সৃজনশীল কাজে সুফল পাবেন। পড়াশোনার প্রতি মনোযোগী হতে পারবেন।


আরও খবর



রৌমারীতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত-১ আহত-৪

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৮৯জন দেখেছেন

Image

রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি:রৌমারীতে ট্রাক্টর উল্টে খাদে পড়ে শহিদুল ইসলাম (১৫) নামের এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে। অপর দিকে গাড়ি চালক সবুজ (১৬), জন্মান্ধ আরিফ (৯), সাকিল (১৪) ও আলিম হোসেন (১৩) নামের চারজন গুরুতর আহত হয়। মৃত শহিদুল উপজেলার দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়নের হরিণধরা গ্রামের মৃত নুর মোহাম্মদ এর ছেলে বলে জানা গেছে। আহতরা সকলেই উপজেলা দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়নের হরিণধরা গ্রামের বাসিন্দা বলে জানা গেছে।সোমবার সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে উপজেলার দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়নের ঝগড়ার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন এলাকায় এ মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, ট্রাক্টর চালক সবুজ মিয়াসহ ৪ জন হেলপার নিয়ে দাঁতভাঙ্গা থেকে দ্রুতগতিতে ফিটনেস বিহীন ট্রাক্টর (কাকড়া) চালিয়ে রৌমারীর দিকে আসার পথে ঝগড়ার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন এলাকায় আসা মাত্রই নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পুকুরে উল্টে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই শহিদুলের মৃত্যু হয়। অপরদিকে ট্রাক্টর চালকসহ কয়েকজন গুরুতর আহত হয়। পরে স্থানীয়রা তােেদরকে উদ্ধার করে রৌমারী হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. নাজমুল হাসান শুভ একজনকে মৃত্যু ঘোষণা করেন ও সবুজসহ অন্যরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে চলে যান।

রৌমারী থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল্লাহ হিল জামান জানান, ট্রাক্টর উল্টে শহিদুল ইসলাম নামের একজনের মৃত্যু হয়েছে। বাকিরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে চলে যান।ট্রাক্টরটি জব্দ করে থানায় আনা হবে। এ ব্যাপারে রৌমারী থানায় নিয়মিত মামলা হয়েছে।


আরও খবর



আবারও আলু আমদানি শুরু হবে আগামী কাল থেকে

প্রকাশিত:শুক্রবার ০২ ফেব্রুয়ারী 2০২4 | হালনাগাদ:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১১৮জন দেখেছেন

Image

মাসুদুল হক রুবেল,হিলি প্রতিনিধি:আগামীকাল শনিবার থেকে আবারও হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে আলু আমদানি শুরু হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার আলু আমদানির অনুমতি দিয়েছে সরকার। এরই মধ্যে বন্দরের ৫০ টি আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান আমদানির অনুমতি পেয়েছেন। অনুমতি পাবার পর এরই মধ্যে সবধরণের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন আমদানিকারকরা। সবকিছু ঠিক থাকলে আগামীকাল শনিবার থেকে আমদানি শুরু হবে। বন্দর অভ্যন্তরে বেড়ে যাবে কর্মচাঞ্জল্যতা। আমদানির খবরে এরই মধ্যে কেজিতে দাম কমেছে ৫-৬ টাকা। আমদানি শুরু হলে দাম পুরোপুরি নিয়ন্ত্রনে আসবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

আমদানিকারক শহিদুল ইসলাম জানান, বৃহস্পতিবার বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে ১০ হাজার মেট্রিকটন আলু আমদানির অনুমতি পেয়েছেন। অনুমতি পাবার পর ব্যাংকে এলসি খোলা হয়েছে। সেই সাথে ভারতীয় রফতানিকারকদের সাথে আলোচনা হয়েছে। আগামীকাল শনিবার থেকে আলু আমদানি হবে।

হিলি স্থলবন্দরের উদ্ভিদ সংগনিরোধ কেন্দ্রের উপসহকারী ইউসুফ আলী বলেন, বৃহস্পতিবার বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে আলু আমদানির অনুমতি (আইপি) দেয়া শুরু করেছে সরকার। এরই মধ্যে হিলি স্থলবন্দরের ৫০ টি আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান ৫৮ হাজার টন আলু আমদানির অনুমতি পেয়েছেন।

হিলি স্থলবন্দরের আমদানি-রফতানিকারক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান জানান, ভরা মৌসুমেও আলুর দাম নিয়ন্ত্রণে না আসায় গতকাল বৃহস্পতিবার থেকে আলু আমদানির অনুমতি দিতে শুরু করেছে সরকার। এ বন্দরের অনেক আমদানিকারক অনুমতি পত্র (আইপি) পেয়ে আমদানির সবধরণের প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। ফলে আগামীকাল শনিবার থেকে বন্দর দিয়ে আলু আমদানি হবে।

এদিকে আলু আমদানির খবরে হিলি স্থলবন্দর এলাকায় একদিনের ব্যবধানে খুচরা পর্যায়ে আলুর দাম কেজিতে ৫-৬ টাকা কমেছে। একদিন আগেও কার্ডিনাল জাতের যে আলু কেজিতে মান ভেদে ৪৫ থেকে ৫০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। বিকেলে সেই আলু ৫-৬ টাকা কমে ৩৮ থেকে ৪৫ টাকা করে বিক্রি হচ্ছে।


আরও খবর



রিপিয়ারিং কাজে ব্যাপক অনিয়ম দূর্নীতি

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১০২জন দেখেছেন

Image
আব্দুস সবুর তানোর থেকে:ইচ্ছে মত অনিয়ম দূর্নীতি করছেন, প্রতিটি রিপিয়ারিং রাস্তার কাজে অনিয়মে ভরপুর, আবার সিন্ডিকেটে অগ্রিম লাভ দিয়ে কিনে করা হচ্ছে রিপিয়ারিং কাজ। অবস্থাটা এমন এলজিইডি ও কতিপয় ঠিকাদারেরা মিলেমিশে লুটপাট শুরু করেছেন। রাজশাহীর তানোরে প্রায় ৯৭০ মিটার রাস্তার রিপিয়ারিং কাজে যত্রতত্র ভাবে বেড তৈরি করে  কার্পেটিং করার অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার তালন্দ ইউনিয়ন (ইউপির)  মোহর ঘোড়াডুবি মোড় থেকে দরগা মোড় পর্যন্ত রাস্তার কার্পেটিং করা হচ্ছে। রিপিয়ারিং রাস্তা টি কিনে করছেন স্থানীয় যুবদল নেতা ঠিকাদার নজরুল ও আতিকুর রহমান লিটন এবং পৌর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ঠিকাদার ইয়াসিন। তারা দরপত্রে কাজ না পেলেও অগ্রিম কয়েক পারসেন্ট লাভ দিয়ে কিনে করছেন কাজ। স্থানীয় ঠিকাদার হওয়ার কারনে ইচ্ছে মত অনিয়ম দূর্নীতি ও নিম্মমানের সামগ্রী ব্যবহার করে কাজ করলেও রহস্য জনক কারনে এলজিইডি কর্তৃপক্ষ একেবারেই নিরব ভূমিকা পালন করছেন। এতে করে রাস্তার টিকসই নিয়ে সন্দিহান গ্রামের লোকজন।
স্থানীয়রা জানান, রাস্তাটিতে ডাবলু বিএম করা হয়েছে পুরাতন খোয়া ও ভিজে মাটি দিয়ে। প্রাইম কোড করার পর প্রচুর ভাবে বালু মারা হয়েছে। যাতে কেউ বুঝতে না পারে। প্রাইম কোড করার সময় তেমন ভাবে রোলার মারা হয়নি, দেয়া হয়নি পানি। এজন্য পুরো রাস্তায় উঁচু নিচু হয়ে আছে।

মোহরগ্রামের বাসিন্দা মিলন, মাসুদ, মুকলেস, সাজাসহ অনেকে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এভাবে রাস্তার কাজ হয় এই প্রথম দেখলাম। বেডের বেশির ভাগ জায়গায়  খোয়াগুলো উঠে যাচ্ছে। ঠিকাদার সবার পরিচিত স্থানীয় ও তানোর সদরে বাড়ি। মুলত এজন্যই তাদেরকে  কেউ কিছুই বলতে পারেনা। অফিসের লোকজনদের দেখা পাওয়া যায় না। এত অনিয়ম দূর্নীতি করছে যা দিবালোকের মত পরিস্কার। কিন্তু সবাই নিরব। আমরা কৃষক, কাজের কি বুঝি, তারপরও যতটুকু বুঝি সে তুলনায় কাজের মান এত পরিমানে খারাপ বলা যাবে না। সরকার উন্নয়নের জন্য অধিক বরাদ্দ দিচ্ছেন, আর সেই বরাদ্দ লুটেপুটে খাচ্ছেন। কয়েক দিন পর আলু উত্তোলন শুরু হবে। আলু বহনকারী যানবাহন চলাচল করলেই রাস্তার বারোটা বেজে যাবে। আর বর্ষা মৌসুমে ঢল মারা পানি হলে পিচ থাকবে না। কারন পিচ ও বিটুমিন একেবারেই নাই বললেই চলে।
সরেজমিনে দেখা যায়, মোহর ঘোড়াডুবি মোড় থেকে দরগা মোড়ের আগ পর্যন্ত বেড তৈরি করা আছে। বাকি কয়েক মিটার রাস্তার কার্পেটিং ভালো থাকার কারনে নাম মাত্র পরিস্কার করে তার উপরেই কার্পেটিং করার কারনে পিচ দেয়া হচ্ছে। যাতা মাতা ভাবে পরিস্কার করে যে পিচ দেয়া হচ্ছে শুধু পোড়া মবেলের গন্ধ বের হচ্ছে। ঘোড়া ডুবি মোড় থেকে বালাইনাশকের দোকানের সামনে ইউড্রেন করা হয়েছে। তার চারদিকে বাঁশ দিয়ে ঘিরা আছে এবং ইউড্রেনের দু'ধারে যত সামান্য খোয়া ফেলা আছে।

কয়েকজন দোকানীরা জানান, অনেক রাস্তার কাজ দেখেছি। কিন্তু এরকম রাস্তার কাজ আর দেখিনি। কার্পেটিং করার পর মুরগীর পায়ে উঠে যাবে পিচ খোয়া। জানা গেছে,  রাস্তার কাজের সামগ্রীর দাম অধিক বাড়তি। দিনের দিন পাথর ও বিটুমিনের দাম প্রচুর ভাবে বাড়ছে । দরপত্রে যিনি কাজ পান তার পক্ষে একশো ভাগ না সত্তর ভাগ সঠিক কাজ করা কষ্টকর ব্যাপার। তাহলে যারা কিনে কাজ করছেন কি পরিমানে দূর্নীতি করছে বুঝে নিতে হবে। বিশেষ করে কাজের দায়িত্বে থাকা কর্তা বাবুদের ম্যানেজ ছাড়া কিনে কাজ করা অসম্ভব। আর বিএনপি নেতা ঠিকাদার ইয়াসিন, যুবদল নেতা ঠিকাদার নজরুল ও লিটন এলজিইডিকে ম্যানেজ করে প্রতিনিয়তই কিনে এভাবেই  কাজ করে থাকেন। এটা কর্তৃপক্ষ ও তাদের মহা সিন্ডিকেট। তাছাড়া এসময় কিনে কাজ করা অসম্ভব। চল্লিশ  ভাগও সঠিক ভাবে কাজ করতে পারবেনা। এসব অসাধু কর্মকর্তাদের জন্যই সরকারের উন্নয়ন মুলুক কাজ নিয়ে নানা প্রশ্ন উঠছে, সেই সাথে স্থানীয় এমপিরও বদনামের সৃষ্টি হয়। 

ঠিকাদার নজরুল ও লিটনের কাছে কাজের বিষয়ে জানতে চাইলে তারা কোন রকমের কথা বলবেনা বলে সাব জানিয়ে দেন। কাজের দায়িত্বে থাকা উপসহকারী প্রকৌশলী শাহিন জানান, ৯৭০ মিটার রাস্তার রিপিয়ারিং কাজ হচ্ছে। দরপত্রে যে ঠিকাদার কাজ পেয়েছেন তার কাছ থেকে কত লাভ দিয়ে কিনে করছেন এবং কাজের বরাদ্দ কত জানতে চাইলে তিনি জানান পরে কথা বলছি বলে দায় সারেন তিনি।উপজেলা প্রকৌশলী সাইদুর রহমানের ০১৭৪৯৪৫৭৯১৭ মোবাইল নম্বরে একাধিকবার ফোন দেয়া হলেও তিনি রিসিভ করেন নি।নির্বাহী প্রকৌশলী নাসির উদ্দীনের ০১৭০৮১২৩২৩২ মোবাইল নম্বরে ফোন দেয়া হলে তিনিও রিসিভ করেন নি। 

আরও খবর

জয়পুরহাটে হুমকি পাওয়া সেই বিচারক প্রত্যাহার

বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




গাংনীতে রাইস ট্রান্সপ্লান্টারের মাধ্যমে ধানের চারা রোপনের শুভ উদ্বোধন

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৮০জন দেখেছেন

Image

মজনুর রহমান আকাশ,মেহেরপুর প্রতিনিধিঃমেহেরপুরের গাংনীতে কৃষি প্রণোদনার আওতায় সমলয় চাষাবাদ কার্যক্রম বাস্তবায়নের লক্ষে রাইস ট্রান্সপ্লান্টারের মাধ্যমে ধানের চারা রোপনের উদ্বোধন করা হয়েছে। আজ সোমবার সকালে গাংনীর ষোলটাকা মাঠে এ কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন করেন মেহেরপুর জেলা প্রশাসক শামীম হাসান।

মেহেরপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবীদ বিজয় কৃষ্ণ হালদারের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথী ছিলেন গাংনী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এমএ খালেক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রীতম সাহা। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন গাংনী উপজেলা কৃষি অফিসার ইমরান হোসেন।

বক্তাগন রাইস ট্রান্সপ্লান্টারের মাধ্যমে ধানের চারা রোপনের উপকারীতা তুলে ধরেন। এতে স্বল্প খরচে বেশি জমি আবাদ করা সম্ভব বলেও জানান কৃষি কর্মকর্তাগন।অনুষ্ঠানে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও কয়েকশত কৃষাণ কৃষাণী উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর

গাংনীতে বালাইনাশক ব্যবহারে উদাসিন কৃষকরা

শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




খাগড়াছড়ি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে নবীন বরণ ও বার্ষিক পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্টিত

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১১৮জন দেখেছেন

Image
জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:বর্ণিল আয়োজনের মধ্যে দিয়ে খাগড়াছড়ি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের অবসর জনিত বিদায়ী প্রধান শিক্ষক উ থোয়াই চিংকে বিদায় ও নবীন বরণ, বার্ষিক পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠান অনুষ্টিত।

শনিবার (২৭জানুয়ারি) দুপুরের দিকে খাগড়াছড়ি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে   বিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত নবীন বরণ, বার্ষিক পুরষ্কার বিতরণী ও অবসরজনিত প্রধান শিক্ষক উথোয়াই চিং কে অবসর জনিত বিদায় অনুষ্ঠানে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক মো. সহিদুজ্জামান এর  সভাপতিত্বে  প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের  প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি।

এসময় খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশ সুপার মুক্তা ধর পিপিএম (বার), খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য ও মাধ্যমিক শিক্ষা বিভাগের আহবায়ক কল্যাণ মিত্র বড়ুয়া,  খাগড়াছড়ি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার (অ. দা.)  এস এম মোসলেম উদ্দিন, বিদায়ী প্রধান শিক্ষক উ থোয়াই চিং, প্রধান শিক্ষক রানু চাকমা প্রমুখ বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন খাগড়াছড়ি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের  সিনিয়র শিক্ষক চম্পানন চাকমা  বলেন, বর্তমানে ১৪শ শিক্ষার্থী রয়েছে, কিন্তু বর্তমান ডিজিটাল যুগে বিদ্যালয়ে কোন কম্পিউটার ল্যাব নেই। তাই প্রধান অতিথিকে শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব স্থাপনের দাবি জানান। একই সাথে বর্তমানে স্কুলে ৪৪জন শিক্ষকের মধ্যে ১৯জন আছে, বাকি শিক্ষক সংকট রয়েছে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে পার্বত্য চট্রগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের  প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি বলেন, বর্তমান সরকার শিক্ষাবান্ধব সরকার। কাউকে পিছনে ফেলে শেখ হাসিনা উন্নয়ন করতে চাই না। তিনি সকলকে নিয়ে উন্নয়ন করতে চাই। পাহাড়ে শিক্ষা ব্যবস্থা আগের তুলনায় অনেক উন্নত হয়েছে। তবে কিছুটা সমস্যা আছে, তা ঠিক। শিক্ষক সংকট সহ বিভিন্ন সমস্যা  সমাধানের আশ্বাস দেন  পার্বত্য চট্রগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের  প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি ।

আরও খবর