Logo
আজঃ শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

মধুপুরে জমি সংক্রান্ত জেরে হামলা আহত ৫

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৪ আগস্ট ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০২৪ | ৩৩৫জন দেখেছেন

Image

বাবুল রানা বিশেষ প্রতিনিধি মধুপুর টাঙ্গাইল:টাঙ্গাইলের মধুপুরে জমি সংক্রান্ত জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় ২ মহিলা সহ ৫জন গুরুতর ভাবে আহত হয়েছে। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে মধুপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক বাবুল হোসেন ও সপ্না বেগমকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। অন্যদেরকে সু চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।বৃহস্প্রতিবার(২৪ আগষ্ট)বেলা ১১টার দিকে মধুপুর উপজেলাধীন কুড়ালিয়া ইউনিয়নের কেওটাই থলঘাট নামক এলাকায় এই লোমহর্ষক ঘটনাটি ঘটে বলে পুলিশ সূত্রে জানা যায়।

বাদী মহির উদ্দিন জানান, বিবাদীদের সাথে দীর্ঘদিন যাবত জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। আমার বাড়ি যাওয়ার রাস্তা ভেঙে পড়ার কারনে আজ কিছু বালি ফেলে রাস্তা মেরামতের কাজ করার সময় পরিকল্পিত ভাবে হত্যার উদ্দেশ্যে ১নং বিবাদী মৃত মফিজ উদ্দিন ছেলে সানোয়ার হোসেন (৫৫) এর নির্দেশে ১৪/১৫ জনের সংঘবদ্ধ সন্ত্রাসী বাহিনী দা, কোদাল, রড সহ দেশীয় অস্ত্র দিয়ে আমাদের পরিবারের ছেলে মেয়ে সহ সবাইকে এলোপাতাড়ি ভাবে পিটিয়ে ও কুপিয়ে মারাত্মক ভাবে আহত করে।

আমাদের বাচাতে বাড়ির মহিলাগন এগিয়ে এলে তাদেরকেও এলোপাতাড়ি ভাবে পিটিয়ে রক্তাক্ত করে এবং পরনের শাড়ি কাপড় ছিড়ে ফেলে।এলাকাবাসী আমাদের উদ্ধার করে মধুপুর হাসপাতালে নিয়ে যায়। এদের মধ্যে দুইজনের অবস্থা আশংকা জনক। তাদের উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে এবং গুরুতর অন্যান্যদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ বিষয়ে মহির উদ্দিন বাদী হয়ে মধুপুর থানায় একটি অভিযোগপত্র দাখিল করেছেন। 

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির এলাকায় ক্ষতিপূরণের নামে হয়রানীর বিরুদ্ধে মানববন্ধন

প্রকাশিত:সোমবার ১৫ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০২৪ | ৪০জন দেখেছেন

Image

আফজাল হোসেন, ফুলবাড়ী, দিনাজপুর প্রতিনিধি:দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলার হামিদপুর ইউনিয়নের ১২টি গ্রামের ১০হাজার ৪শত ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের ক্ষতিপূরণের নামে হয়রানীর বিরুদ্ধে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। 

গতকাল সোমবার সকাল ১১টায় বড়পুকুরিয়া বাজারে জীবন ও সম্পদ রক্ষা কমিটির আয়োজনে এক বিশাল মানবন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানব বন্ধনের বক্তব্য রাখেন জীনব ও সম্পদ রক্ষা কমিটির উপদেষ্টা হামিদপুর ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ রেওয়ানুল হক ও মোঃ লিয়াকত আলী।

জীনব ও সম্পদ রক্ষা কমিটির উপদেষ্টা হামিদপুর ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ রেওয়ানুল হক তিনি তার বক্তেব্যে বলেন, হামিদপুর ইউপির যে সমস্ত জনগনেরা কয়লাখনির কারণে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে আমি তাদের দ্রুত ক্ষতিপূরন দেওয়ার দাবী জানাচ্ছি। আমার জনগনের ভোগান্তি আমার ভোগান্তি। জনগনের ন্যায দাবী আদায়ে আমি তাদের সঙ্গে আছি। বিষয়টি দ্রুত সমাধান করতে দেশরতœ মাননীয় প্রধান মন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সু-দৃষ্টি কামনা করছি।

মানবন্ধনে তিনি আরও বলেন, কয়লা খনি হওয়ার কারণে প্রায় ১যুগ ধরে এই এলাকার ১২টি গ্রামের ১০ হাজার পরিবার ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। ক্ষতিগ্রস্থ এলাকাগুলি সার্ভে করার পরেও ক্ষনি কর্তৃপক্ষ ক্ষতিপূরণ দিব দিচ্ছি করে টালবাহানা করছে। এখন পর্যন্ত কোন ক্ষতিপূরণ দেওয়া হচ্ছে না। ইতি মধ্যে ১২টি গ্রামের কয়েশ শত ঘরে ভয়াবহ ফাটল দেখা দিয়েছে। 

এ বিষয়ে খনি কর্তৃপক্ষকে অবগত করা হয়েছে। তারা এখন পর্যন্ত এলাকায় ঘুরে সবগ্রাম গুলির কি পরিমান ক্ষতি হয়েছে তা সঠিক ভাবে তদন্ত করছে না। তারা দীর্ঘ দিন ধরে এলাকার মানুষের সাথে প্রতারণা করেছে। বিষয়টি জেলা প্রশাসকেও অবগত করা হয়েছে। 

মানববন্ধনে জীবন ও সম্পদ রক্ষা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোঃ রফিকুল ইসলাম বলেন, আমরা পরিবার পরিজন নিয়ে রাতের বেলা ঘুমাতে পারি না। প্রচন্ড ঝাকুনি ও কাপুনি হয়। ইতি মধ্যে কাজীপাড়া, বাঁশপুকুর, মথুরাপুর, বৈদ্যনাথপুর, শিবকৃষ্ণপুর, পাতিগ্রাম, পাঁচঘরিয়া, চৌহাটি, কালুপাড়া, গোপালপাড়া, কাশিয়া ডাঙ্গা ও বৈগ্রাম এই ১২টি গ্রামে ১০ হাজার পরিবার ক্ষতিপূণের দাবীতে অধিকার আদায়ে আন্দোলন করে আসছি। কিন্তু এখন দেওয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে আমরা আন্দোলনের মাধ্যমে ন্যায পাওনার দাবী করছি। আমাদের এই আন্দোলনে বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি কর্তৃপক্ষ ১৫ দিনের মধ্যে দাবী মেনে না নিলে দূর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। ঘেরাও করা হবে কয়লাখনির গেট। বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি কর্তৃপক্ষ চুক্তি অনুযায়ী এলাকার আন্দোলনকারীদের সাথে প্রতারণা করেছে। মানবন্ধনের সাধারণ সম্পাদক মোঃ রফিকুল ইসলাম বলেন, আমাদের ৬ দফা দাবীর মধ্যে রয়েছে ১. সার্ভেকৃত বসতবাড়ীর ক্ষতিপূরণের টাকা দ্রুত প্রদান করতে হবে। ২. মসজিদ, কবরস্থান সহ অধিগ্রহনকৃত জমির বকেয়া টাকা দ্রুত পরিশোধ করতে হবে। ৩. জনসাধারণের চলাচলের জন্য বৈদ্যনাথপুর হতে বৈগ্রাম পর্যন্ত রাস্তাটি পূর্বের ন্যায় পাকা করে দিতে হবে। ৪. সমঝোতা চুক্তি অনুযায়ী ক্ষতিগ্রস্থ এলাকায় যোগ্যতা অনুযায়ী ঘর ঘর চাকুরী দিতে হবে। ৫. কয়লা খনি কর্তৃক সৃষ্ট পানিয় জলের সংকট দ্রুত নিরোশন করতে হবে। ৬. অত্যন্ত ঝুকিপূর্ন বা বসবাসের অওযাগ্য বসতবাড়ী ও স্থাপনার স্থায়ী সমাধান করতে হবে। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সহ সভাপতি মোঃ রুহুল আমিন, ইউপি সদস্য সাইদুর রহমান, ইউপি সদস্য আব্দুল কাদের, ভুক্তভোগী আমিনুল ইসলাম, মোঃ মতিয়ার রহমান সহ অন্যান্য সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

এই বিষয়ে বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী মোঃ সাইফুল ইসলাম এর সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, সার্ভে কমিটি তৈরি করা হয়েছে কমিটি ক্ষতিগ্রস্থ এলাকায় গিয়ে তালিকা তৈরি করছে। তালিকা চূড়ান্ত করে অতি দ্রুত ক্ষতিপূরণ প্রদান করা হবে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.


আরও খবর



ফোর্বস এর প্রচ্ছদে রিয়েলমি’র সিইও স্কাই লি: আবারও জিটি সিরিজ আনার ঘোষণা

প্রকাশিত:সোমবার ০৮ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪ | ১৩৫জন দেখেছেন

Image

প্রযুক্তি ডেস্ক:ফোর্বস ম্যাগাজিনের প্রচ্ছদে এবার জায়গা করে নিয়েছেন জনপ্রিয় স্মার্টফোন ব্র্যান্ড রিয়েলমি’র প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও স্কাই লি। দীর্ঘ দুই বছরের বিরতির পর বিশ্ব স্মার্টফোনের বাজারে আবারও জিটি সিরিজ আনার ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।

বাংলাদেশের স্মার্টফোনপ্রেমীদের জন্য এ ঘোষণা একটি উল্লেখযোগ্য মাইলফলক। কেননা এবার এআই (কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা) প্রযুক্তির উদ্ভাবনকে সঙ্গী করে নতুন প্রাণশক্তি নিয়ে তীব্র প্রতিযোগিতাপূর্ণ স্মার্টফোনের বাজারে হাজির হতে প্রস্তুত রিয়েলমি’র জিটি সিরিজ।

 ফোর্বস এর সঙ্গে একটি সাম্প্রতিক সাক্ষাত্কারে, প্রতিযোগিতামূলক স্মার্টফোনের বাজারে আলোড়ন তোলার ব্যাপারে রিয়েলমি’র সক্ষমতার ওপর আস্থা প্রকাশ করেছেন স্কাই লি। তিনি তরুণ ব্যবহারকারীদের চাহিদা বোঝার এবং আসন্ন জিটি ৬ সিরিজ গ্রাহকদের প্রত্যাশাকেও ছাড়িয়ে যাওয়ার বিষয়ে ব্র্যান্ডের প্রতিশ্রুতির উপর গুরুত্ব দেন। জিটি সিরিজের ফোন আবারও বাজারে আনতে ব্র্যান্ডের ভক্তদের কাছ থেকে তুমুল দাবির বিষয়টি স্বীকার করে স্কাই লি নিশ্চিত করেন যে, রিয়েলমি তার বিশ্বস্ত গ্রাহকদের হতাশ করতে পারে না।

 স্মার্টফোনের তীব্র প্রতিযোগিতাপূর্ণ বাজারে এমন সময়ে রিয়েলমি’র এ ফোনটি আনার ঘোষণা এলো যখন গ্রাহকরা বিদ্যমান ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনের উদ্ভাবনী বিকল্প খুঁজছেন। জিটি ৬ আনার মাধ্যমে রিয়েলমি’র লক্ষ্য হলো ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনের ধারণাকে নতুন করে সংজ্ঞায়িত করা, যা অতুলনীয় পারফরম্যান্স প্রদর্শনের পাশাপাশি স্মার্টফোন ব্যবহারকারীকে এআই এর অভিজ্ঞতাও প্রদান করবে। ফোনটির আগের সিরিজ রিয়েলমি জিটি ৫জি, যা ভারতে “ফ্ল্যাগশিপ কিলার ২০২১” হিসাবে স্বীকৃতি পেয়েছিল, তার সাফল্যের ওপর ভিত্তি করে নতুন জিটি সিরিজটি পারফরম্যান্স ও ব্যবহারকারীর অভিজ্ঞতায় নতুন মানদণ্ড স্থাপন করতে প্রস্তুত।

 মোবাইল ইন্ডাস্ট্রির কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার যুগে প্রবেশের সঙ্গে সঙ্গে রিয়েলমি একটি এআই নেতৃত্বাধীন স্মার্টফোন ব্র্যান্ড হিসেবে যাত্রা করতে প্রস্তুত। স্কাই লি প্রযুক্তির ক্ষেত্র পুনর্নির্মাণে এআই-এর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা তুলে ধরেন। ব্র্যান্ডের স্মার্টফোনগুলোতে অত্যাধুনিক এআই প্রযুক্তিসমূহকে একীভূত করার জন্য রিয়েলমি’র প্রতিশ্রুতির ওপর জোর দেন তিনি। ইমেজিং এবং দৈনন্দিন কাজের বিষয়গুলোতে ফোকাস করে, নতুন রিয়েলমি জিটি সিরিজ সহজবোধ্য এআই সল্যুশন দিয়ে তরুণ ভোক্তাদের ক্ষমতায়ন করবে, যা তাদের ক্রমবর্ধমান চাহিদা ও পছন্দ পূরণে সহায়ক হবে।

 তীব্র প্রতিযোগিতাপূর্ণ স্মার্টফোনের বাজারে রিয়েলমি’র ফিরে আসা এবং এআই উদ্ভাবনের প্রতি গুরুত্ব দেওয়া ব্র্যান্ডের যুগান্তকারী প্রযুক্তি সরবরাহের প্রতি অটল প্রতিশ্রুতিকে তুলে ধরে, যা বাংলাদেশ এবং এর বাইরের তরুণ ভোক্তাদের আকাঙ্ক্ষার প্রতিফলন।

-খবর প্রতিদিন/ সি.


আরও খবর



মানুষের মুখে হাসি ফুটাতে জননেত্রী শেখ হাসিনা বিনিদ্র কাজ করছেন: প্রতিমন্ত্রী শফিক

প্রকাশিত:রবিবার ০৭ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১০৭জন দেখেছেন

Image

শাহিদ আহমেদ খান সিলেট প্রতিনিধি:প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী শফিকুর রহমান চৌধুরী এমপি বলেছেন, 'বন্যার্তদের পাশে থাকার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের নির্দেশ দিয়েছেন। বন্যার্তদের জন্য আমরা সরকারের পক্ষ থেকে সর্বাত্মক চেষ্টা করছি। একজন বানভাসী মানুষও যেন না খেয়ে দিন কাটায় সেজন্য সকল নেতাকর্মী ও জনপ্রতিনিধিদের সাথে নিয়ে তাদের পাশে থাকবো ইনশাল্লাহ। গরীর অসহায় মানুষের মুখে হাসি ফুটানোর জন্য শেখ হাসিনা বিনিদ্র ও অক্লান্ত কাজ করে যাচ্ছেন।

তিনি বলেন, চলমান বন্যা যে কয়দিন থাকবে, শুকনো খাবারসহ ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম চলমান থাকবে।

তিনি শনিবার (৬ জুলাই) বিকালে ওসমানীনগর উপজেলা তাজপুর, সাদিপুর, বুরুঙ্গা ইউনিয়নের বিভিন্ন জায়গায় বন্যার্ত মানুষের মাঝে ত্রাণ ও রান্না করা খাবার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। 

প্রতিমন্ত্রী এদিন বিকালে ওসমানীনগর উপজেলা সাদিপুর ইউনিয়নে বালাগঞ্জ ডিগ্রি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ ও জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক লিয়াকত শাহ ফরিদীর উদ্যোগে শাহ ইরফান আলী পাঠাগারের শুভ উদ্বোধন করেন।

এসব অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ওসমানীনগর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা অনুপমা দাস, সহকারী কমিশনার (ভূমি) শাহনাজ পারভীন, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের জনসংযোগ সম্পাদক রবিন পাল, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আফজালুর রহমান চৌধুরী নাজলু, সহ সভাপতি আলাউর রহমান আলা, যুগ্ম সম্পাদক অরুনোদয় পাল ঝলক, তফজ্জুল হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক লুৎফুর রহমান, সাদিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহেদ আহমদ মুসা, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি চঞ্চল পাল, কাতার আওয়ামী লীগ নেতা তাহের আহমদ চৌধুরী, উপজেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক দিলদার আলী, ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক জাবেদ আহমদ আবিরসহ প্রবাসী নেতৃবৃন্দ ও আওয়ামী লীগের অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের অসংখ্য নেতৃবৃন্দ।

-খবর প্রতিদিন/ সি.

আরও খবর



চট্টগ্রামে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাস উল্টে নিহত ১, আহত ১৪

প্রকাশিত:শনিবার ২৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৪০জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:আজ শনিবার সকাল ৯টার দিকে চট্টগ্রামের ফৌজদারহাটে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি যাত্রীবাহী বাস উল্টে ১ জন নিহত এবং ১৪ জন আহত হয়েছেন।শনিবার ফৌজদারহাটের ফকিরহাট এলাকায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।চট্টগ্রাম ফায়ার সার্ভিসের মবিলাইজিং অফিসার (এমও) দুর্ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ।

তিনি জানান, সকাল ৯টার দিকে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি যাত্রীবাহী বাস উল্টে যায়। খবর পাওয়া মাত্রই উদ্ধারে ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট কাজ শুরু করে। এখন পর্যন্ত একজন নিহত এবং ১৪ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

জানা গেছে প্রত্যক্ষদশী সূত্রে, শনিবার সকাল ৯টার সময় চট্টগ্রাম থেকে ফেনীমুখী স্টার লাইন পরিবহনের যাত্রীবাহী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে আইল্যান্ডে উল্টে দুমড়ে মুচড়ে যায়। এ সময় ঢাকা থেকে চট্টগ্রামমুখী লেনে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

হাইওয়ে পুলিশের ওসি খোকন চন্দ্র ঘোষ জানান, দুর্ঘটনায় একজন নিহত ও ১৪ জন আহত হয়েছেন। তাৎক্ষণিক নিহত ও আহতের পরিচয় পাওয়া যায়নি। দুর্ঘটনা কবলিত বাস উদ্ধার হলে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়ে যাবে।


আরও খবর



শিক্ষার্থীদের অবরোধ ঢাকার বিভিন্ন এলাকায়, সড়ক অচল

প্রকাশিত:সোমবার ০৮ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪ | ১১২জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:সোমবার (৮ জুলাই) বিকেল সাড়ে ৪টা শাহবাগ, বাংলামোটর, কারওয়ানবাজার, ফার্মগেট, সায়েন্স ল্যাব মোড় ও গুলিস্তান জিরো পয়েন্টসহ ঢাকার বিভিন্ন এলাকায়,সরকারি কোটা বাতিলের দাবিতে দ্বিতীয় দিনের মতো পূর্বঘোষিত ‘বাংলা ব্লকেড’ কর্মসূচি পালন করছে শিক্ষার্থীরা। সড়ক অবরোধ করেছেন আন্দোলনকারীরা।

এদিকে, আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা সড়ক আটকে দেওয়ায় গাড়ি চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। যেখানে যেসব গাড়ি ছিল, সেখানেই সেগুলো দাঁড়িয়ে গেছে।

সরকারি চাকরিতে কোটাব্যবস্থা বাতিল করে ২০১৮ সালে সরকারের জারি করা পরিপত্র পুনর্বহালসহ চার দফা দাবি আদায়ে শিক্ষার্থীরা এই আন্দোলন করছেন। বিকেল ৩টা ৫৫ মিনিটে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গ্রন্থাগারের সামনে থেকে ‘বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলন’ ব্যানারে মিছিল বের করেন তারা। মিছিলটি ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক ঘুরে শাহবাগ মোড়ে আসে বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে। মিছিলের সামনের অংশটি সড়ক অবরোধ করতে হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টাল ও বাংলামোটর মোড়ের দিকে চলে যায়। পেছনের অংশটি শাহবাগ মোড়ে অবস্থান নেয়।

বিকেল ৩টা ৫৫ মিনিটের দিকে ঢাকা কলেজের মূল ফটকের সামনে সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা উপস্থিত হন। এরপর একটি মিছিল নিয়ে সায়েন্সল্যাব মোড়ে এসে অবরোধ করেন তারা। এর ফলে এলিফ্যান্ট রোড, মিরপুর রোড এবং ধানমন্ডি ২ নম্বর সড়কের যানচলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা ২০১৮ সালের পরিপত্র পুনর্বহালের পাশাপাশি আরও তিনটি দাবি জানাচ্ছেন। এগুলো হলো ২০১৮ সালের পরিপত্র বহাল সাপেক্ষে কমিশন গঠন করে দ্রুত সময়ের মধ্যে সরকারি চাকরিতে সব গ্রেডে অযৌক্তিক ও বৈষম্যমূলক কোটা বাদ দিতে হবে, সে ক্ষেত্রে সংবিধান অনুযায়ী শুধু অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর কথা বিবেচনা করা যেতে পারে; সরকারি চাকরির নিয়োগ পরীক্ষায় কোটা–সুবিধা একাধিকবার ব্যবহার করা যাবে না ও কোটায় যোগ্য প্রার্থী না পাওয়া গেলে শূন্য পদগুলোতে মেধা অনুযায়ী নিয়োগ দিতে হবে এবং দুর্নীতিমুক্ত, নিরপেক্ষ ও মেধাভিত্তিক আমলাতন্ত্র নিশ্চিত করতে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে হবে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.


আরও খবর