Logo
আজঃ Monday ২৭ June ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা নাসিরনগরে মুক্তিযোদ্বাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন পদ্মা সেতু দেখানোর কথা বলে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ জুরাইনে পাশের বাড়ির উপড় ধসে পড়েছে সেই ঝুকিপুর্ন ভবনটি
আওয়ামিলীগ মনোনিত প্রার্থীদের মনোনয়ন পত্র জমা

মধুপুরে গোলাবাড়ী ও মির্জাবাড়ী ইউপি নির্বাচনে আওয়ামিলীগ মনোনিত প্রার্থীদের মনোনয়ন পত্র জমা

প্রকাশিত:Tuesday ০২ November 2০২1 | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৪৪৩জন দেখেছেন
Image


আাবুল হোসেন আকাশ , মধুপুর :

 

আসন্ন ৩য় ধাপের ইউপি নির্বাচনে টাংগাইলের মধুপুর উপজেলার গোলাবাড়ী ইউনিয়ন ও মির্জাবাড়ী পরিষদের আওয়ামী লীগের  মনোনিত চেয়ারম্যান প্রার্থী ৫নং গোলাবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী গোলাম  মোস্তাফা খান বাবলু, ৬ নং মির্জাবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী সাদিকুল ইসলাম সাদিক  মধুপুর উপজেলা নির্বাচন অফিসার খন্দকার মোহাম্মদ আলীর নিকট আজ দুপুরে মনোনয়ন পত্র জমা দেন ।

 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন  মধুপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ছরোয়ার আলম খান আবু, মধুপুর উপজেলা আ‘লীগের সভাপতি শফি উদ্দিন মনি ও টাংগাইল জেলা কৃষক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোশারফ হোসেন আকন্দ সহ আ,লীগের কয়েক শত নেতাকর্মী ও সাধারণ ভোটারগণ। 

 

খবর প্রতিদিন /সি.বা 


আরও খবর



গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধিতে বিভিন্ন মহলের প্রতিবাদ

প্রকাশিত:Monday ০৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ২৬ June ২০২২ | ৫৪জন দেখেছেন
Image

আবাসিক খাতে প্রাকৃতিক গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রতিবাদ জানিয়েছে বিভিন্ন মহল, সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠন। রোববার (৫ জুন) গ্যাসের দাম বাড়ানোর ঘোষণার পর গণমাধ্যমে পাঠানো পৃথক পৃথক বিবৃতিতে এই প্রতিবাদ জানানো হয়।

বিবৃতিতে ১৯৯০ এর স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনের নেতারা বলেন, গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির ঘোষণা দেশবাসীকে হতাশ করেছে। দেশে বেকারত্ব বৃদ্ধি, কর্মহীনতা, দ্রব্যমূল্যের অস্বাভাবিক বৃদ্ধির কারণে এরই মধ্যে সাধারণ মানুষ পরিবার নিয়ে কষ্টে দিনাতিপাত করছে। মানুষ আশা করছিলো বাজার মূল্য নিয়ন্ত্রণে সরকার কার্যকর ভূমিকা রাখবে। কিন্তু দেশে খাদ্যপণ্য এখন মানুষের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে। এ অবস্থায় অনাবাসিকসহ সব ক্ষেত্রে গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি দেশবাসীকে হতাশ করেছে। এতে করে বাজার ব্যবস্থা, উৎপাদন বণ্টন সবক্ষেত্রে প্রভাব পড়বে। মানুষের ভোগান্তি আরও বাড়বে।

বিবৃতিতে সংগঠনটির পক্ষ থেকে গ্যাসের মূল্য প্রত্যাহারের দাবি জানানো হয়।

বিবৃতিতে সই করেন, নাজমুল হক প্রধান, মোস্তফা ফারুক, নুর আহমেদ বকুল, শফি আহমেদ, বজলুর রশিদ ফিরোজ, আখতার সোবহান মাশরুর, আমিনুল ইসলাম, মনসুরুল হাই সোহন, সুজাউদ্দিন জাফর, ডা. সরদার ফারুক, মুখলেছউদ্দিন শাহীন, সিরাজুমমূনীর, রেজাউল করিম শিল্পী, রাজু আহমেদ, সালেহ আহমেদ, হারুন মাহমুদ, জায়েদ ইকবাল খান, কামাল হোসেন বাদল, বদরুল আলম প্রমুখ।

অপরদিকে সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক সালেহ আহমেদ বলেন, মহামারি, ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধ পরিস্থিতিতে এমনিতেই দেশের মানুষের অসহায়ত্বের শেষ নেই। নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের কয়েক দফা মূল্যবৃদ্ধি, কর্মহারা মানুষের সংখ্যা প্রতিনিয়ত বাড়ছে, বেকারত্বের জর্জরিত সময়ে গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির ঘোষণা জাতীয় আত্মহত্যার শামিল।

গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির প্রভাবে দেশে নতুন করে উৎপাদন বণ্টন বাণিজ্যসহ সব ক্ষেত্রে নৈরাজ্য নেমে আসবে বলে মন্তব্য করেন তিনি। একই সঙ্গে গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির প্রত্যাহারের দাবি জানান।

ন্যাপ সভাপতি পঙ্কজ ভট্টাচার্য এক বিবৃতিতে বলেন, গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির ঘোষণা জাতীয় জীবনে বিপর্যয় নেমে আসবে। প্রায় তিন বছর হতে চলেছে করোনা বিপর্যয়ের কারণে উৎপাদন-বণ্টন, শিল্প-বাণিজ্যে মন্দা। তার ওপর ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধে বিশ্বব্যাপী নতুন করে বিপর্যয় নেমে এসেছে। আমাদের দেশে এই অজুহাতে প্রায় সব পণ্যের দাম বাড়িয়ে জনগোষ্ঠীর ক্রয় ক্ষমতার বাইরে চলে গেছে। মানুষ পরিবার নিয়ে অসহায় জীবন যাপন করছে। এমতাবস্থায় গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির ঘোষণায় জাতীয় জীবনে বিপর্যয় ডেকে আনবে।


আরও খবর



সংখ্যালঘুদের অধিকার রক্ষায় সরকার ব্যর্থ: ফখরুল

প্রকাশিত:Saturday ০৪ June ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ২৫ June ২০২২ | ৬৫জন দেখেছেন
Image

দেশের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের অধিকার রক্ষায় সরকার ব্যর্থ বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শনিবার (৪ জুন) বিকেলে ঢাকেশ্বরী মন্দির প্রাঙ্গণে বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান কল্যাণ ফ্রন্ট আয়োজিত এক প্রার্থনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

ফখরুল বলেন, দুর্ভাগ্যজনকভাবে গত কয়েক বছর ধরে আমরা দেখছি, এই সরকার সবসময়ই সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে কথা বলার চেষ্টা করেন, তাদের সময়ে সম্প্রদায়িক অবস্থা ভালো বলার চেষ্টা করেন। কিন্তু দেখা গেছে, দুর্ভাগ্যজনকভাবে এই আমলে যারা হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষ আছেন, বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের মানুষ আছেন, খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের মানুষ আছেন- তাদের ওপরে, তাদের জমিজমার ওপরে, তাদের বাসাবাড়ির ওপরে হামলা হয়েছে। সরকার সেগুলো রক্ষা করতে পারেনি।

তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে ধর্মীয় স্বাধীনতার ওপরে যে রিপোর্ট হয়, সেই রিপোর্টে আজকে খুব পরিষ্কার করেছে তারা, উল্লেখ করেছে, বাংলাদেশে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের অধিকার রক্ষা করতে এই সরকার ব্যর্থ হয়েছে। এটাই বাস্তবতা, এটাই সত্য।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, সংখ্যালঘু সম্প্রদায় বলে কিছু আছে তা আমরা (বিএনপি) বিশ্বাস করি না। আমরা মনে করি, বাংলাদেশের সবাই একই সম্প্রদায়ের মানুষ। আমাদের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া সেটাতেই বিশ্বাস করেন।

ফখরুল বলেন, বর্তমানে দেশে যে গণতন্ত্রহীনতা চলছে, সেই গণতন্ত্রহীনকে দূর করে আমরা যেন মানুষের ভোটাধিকার ফিরিয়ে আনতে পারি, মানুষের অধিকারগুলো রক্ষা করতে পারি, দেশে যেন শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে পারি, দেশের সাম্প্রদায়িকতার সমস্ত বীজকে উপড়ে ফেলতে পারি, সত্যিকার অর্থেই ১৯৭১ সালে আমরা যে বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন দেখেছিলাম, সেজন্য ১৭ কোটি মানুষকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। সেজন্য আমাদের সংগ্রাম করতে হবে, গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের লড়াই করতে হবে।

‘প্রার্থনা করবো আমাদের দেশে যেন গণতন্ত্র পুণঃপ্রতিষ্ঠা হয়, সত্য ও সুন্দর প্রতিষ্ঠিত হয়, সত্যিকার অর্থে একটি গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠিত হয়।’ যোগ করেন তিনি।

এসময় দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে অন্তরীণ করে রাখা, মিথ্যা মামলায় দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে বিদেশে নির্বাসিত করে রাখা, দেশে ৩৫ লাখ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা ও গুম-খুনে দেড় সহস্রাধিক নেতাকর্মীকে নিহতের করার বিষয়টি তুলে ধরেন বিএনপি মহাসচিব।

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানে ৪১তম শাহাদতবার্ষিকী উপলক্ষে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান কল্যাণ ফ্রন্ট এই প্রার্থনা সভার আয়োজন করে। এসময় জিয়াউর রহমানের আত্মার শান্তি কামনা করে বিশেষ প্রার্থনা করা হয়।

এছাড়া সদ্য পরোলোকগত হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান কল্যাণ ফ্রন্টের আহ্বায়ক গৌতম চক্রবর্তীর স্মৃতির প্রতিও শ্রদ্ধা জানানো হয় এই সভায়।

বিএনপির সহ-ধর্মবিষয়ক সম্পাদক অমলেস দাস অপুর সভাপতিত্বে ও যুবদল নেতা তরুন দে’র সঞ্চালনায় সভায় সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন দলের ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট নিতাই রায় চৌধুরী।

এসময় বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য বিজন কুমার সরকার, কেন্দ্রীয় নেতা জয়ন্ত কুমার কুন্ড, সুশীল বড়ুয়া, অর্পনা রায়, রমেশ দত্ত, দেবাশীষ মধু, মিল্টন বৌদ্ধ, জয়দেব, সাবেক কমিশনার মীর আশরাফ আলী আজম, মোশাররফ হোসেন খোকন এবং বিএনপি চেয়ারপারসনের একান্ত সচিব এবিএম আবদুস সাত্তার ও প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



২৪ ঘণ্টায় আরও ১৬ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে

প্রকাশিত:Friday ০৩ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৪৬জন দেখেছেন
Image

এডিস মশাবাহিত ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে নতুন করে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন আরও ১৬ জন। এ নিয়ে সারাদেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি মোট ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬১ জনে।

শুক্রবার (৩ জুন ) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের ইনচার্জ ডা. মো. জাহিদুল ইসলামের সই করা ডেঙ্গু বিষয়ক এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে শুক্রবার একই সময়ের মধ্যে সারাদেশে নতুন করে আরও ১৬ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে ১৫ জন ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

এ নিয়ে বর্তমানে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে দেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে মোট ৬১ জন ভর্তি রয়েছেন। তাদের মধ্যে ঢাকার ৪৭টি ডেঙ্গু ডেডিকেটেড হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন ৫৯ জন। ঢাকার বাইরে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন দুজন।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের তথ্যমতে, চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ৩ জুন পর্যন্ত ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন সর্বমোট ৩৯৮ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন ৩৩৭ জন। তবে গত ২৪ ঘণ্টাসহ এ বছরে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত কোনো রোগীর মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়নি।

২০২০ সালে করোনা মহামারিকালে ডেঙ্গুর সংক্রমণ তেমন একটা দেখা না গেলেও ২০২১ এ সারাদেশে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হন ২৮ হাজার ৪২৯ জন। একই বছর দেশব্যাপী ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে ১০৫ জনের মৃত্যু হয়।


আরও খবর



জনসভায় আসা মানুষদের আনন্দ দিতে পদ্মায় নৌকাবাইচ

প্রকাশিত:Saturday ২৫ June ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ২৬ June ২০২২ | ১৪জন দেখেছেন
Image

পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে মাদারীপুরে শিবচর উপজেলার বাংলাবাজার ঘাটের জনসভাস্থলে বইছে মানুষের জোয়ার। দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের বিভিন্ন জেলা থেকে বিলাসবহুল লঞ্চ, ট্রলার ও নৌকায় জনসমাবেশস্থলে আসেন হাজার হাজার মানুষ।

এদিকে জনসভাস্থলে আসা মানুষদের আনন্দ দিতে পদ্মা নদীতে নৌকাবাইচের আয়োজন করে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)। শনিবার (২৫ জুন) বেলা ১১টার দিকে সুসজ্জিত ছয়টি নৌকা দিয়ে বাংলাবাজার লঞ্চঘাট এলাকায় এ বাইচ শুরু।

বিআইডব্লিউটিএ সূত্রে জানা গেছে, পদ্মা সেতুর উদ্বোধন ঘিরে মানুষের মধ্যে বইছে উদ্দীপনা আর উৎসব। নানা রং-ঢংয়ে সজ্জিত হয়ে সমাবেশে আসছেন সাধারণ মানুষ। উদ্বোধন অনুষ্ঠান ঘিরে বিআইডব্লউটিএর পক্ষ থেকে নদীতে নৌকাবাইচের আয়োজন করা হয়েছে। ছয়টি নৌকা দিয়ে চলে এ প্রতিযোগিতা। মূলত দর্শনার্থীদের আনন্দ দিতেই এ আয়োজন।

মানিকগঞ্জ থেকে আসা বাইচ নৌকার মালিক হারুন অর রশিদ জাগো নিউজকে বলেন, ‘আমরা একটি নৌকায় ৬০ জন করে মাঝি নিয়ে এসেছি। ছয়টি নৌকা দিয়ে নদীতে প্রতিযোগিতা করছি। আমরা আনন্দিত। সেতুর উদ্বোধনকে ঘিরে উৎসবে অংশ নিয়েছি আমরাও।’

বহুল প্রত্যাশিত পদ্মা সেতুর সড়ক পথ রোববার (২৬ জুন) ভোর ৬টা থেকে সব ধরনের যান চলাচল শুরু হবে।

২০০১ সালের ৪ জুলাই স্বপ্নের পদ্মা সেতুর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ২০১৪ সালের নভেম্বরে নির্মাণকাজ শুরু হয়। দুই স্তরবিশিষ্ট স্টিল ও কংক্রিট নির্মিত ট্রাসের এ সেতুর ওপরের স্তরে চার লেনের সড়ক পথ এবং নিচের স্তরে একটি একক রেলপথ রয়েছে।

jagonews24

পদ্মা-ব্রহ্মপুত্র-মেঘনা নদীর অববাহিকায় ৪২টি পিলার ও ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্যের ৪১টি স্প্যানের মাধ্যমে মূল অবকাঠামো তৈরি করা হয়। সেতুটির দৈর্ঘ্য ৬.১৫০ কিলোমিটার এবং প্রস্থ ১৮.১০ মিটার।

পদ্মা সেতু নির্মাণে খরচ হয়েছে ৩০ হাজার কোটি টাকা। এসব খরচের মধ্যে রয়েছে সেতুর অবকাঠামো তৈরি, নদী শাসন, সংযোগ সড়ক, ভূমি অধিগ্রহণ, পুনর্বাসন ও পরিবেশ, বেতন-ভাতা ইত্যাদি।

বাংলাদেশের অর্থ বিভাগের সঙ্গে সেতু বিভাগের চুক্তি অনুযায়ী, সেতু নির্মাণে ২৯ হাজার ৮৯৩ কোটি টাকা ঋণ দেয় সরকার। ১ শতাংশ সুদ হারে ৩৫ বছরের মধ্যে সেটি পরিশোধ করবে সেতু কর্তৃপক্ষ।

৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার স্বপ্নের কাঠামো নির্মাণের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কনস্ট্রাকশন কোম্পানি লিমিটেড।


আরও খবর



চুরি-মাদকে জড়ানোয় ডিএসসিসির ২ কর্মচারী চাকরিচ্যুত

প্রকাশিত:Thursday ০৯ June ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ২৬ June ২০২২ | ৬৬জন দেখেছেন
Image

মাদকসহ গ্রেফতার হওয়ায় ও নগর ভবনে পার্ক করা মোটরসাইকেল থেকে তেল চুরির অপরাধে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) দুই কর্মচারীকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। তারা হলেন- করপোরেশনের মশককর্মী মো. মো. ইউনুস আলী ও পরিচ্ছন্নকর্মী মো. রিপন।

বুধবার (৮ জুন) দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সচিব আকরামুজ্জামানের সই করা এক অফিস আদেশে তাদের চাকরিচ্যুত করা হয়। যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমোদক্রমে জনস্বার্থে এ আদেশ জারি করা হয়েছে বলে দপ্তর আদেশে উল্লেখ করা হয়।

দক্ষিণ সিটির অঞ্চল-৩ এর মশককর্মী ইউনুস আলীকে গত ১২ মে মাদকদ্রব্যসহ পুলিশ গ্রেফতার করে। পরে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। তার বিরুদ্ধে হাজারীবাগ থানায় ফৌজদারি মামলা হয়।

অন্যদিকে, করপোরেশনের অঞ্চল-৩ এর সমাজ কল্যাণ ও বস্তি উন্নয়ন শাখায় কর্মরত মো. রিপন দৈনিক মজুরিভিত্তিক পরিচ্ছন্ন কর্মী। তিনি নগর ভবনে পার্ক করে রাখা মোটরসাইকেল থেকে তেল চুরির সময় হাতেনাতে ধরা পড়েন।


আরও খবর