Logo
আজঃ Tuesday ০৭ February ২০২৩
শিরোনাম

মধুপুরে বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়ীতে প্রেমিকার অনশন

প্রকাশিত:Wednesday ০৪ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Tuesday ০৭ February ২০২৩ | ১০১৪জন দেখেছেন
Image

বাবুল রানা মধুপুর প্রতিনিধিঃ 

টাঙ্গাইলের মধুপুরের পিরোজপুরে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অনশনে বসেছে এক তরুণী।  অনশনরত প্রেমিকাকে দেখতে স্থানীয়রা সকাল থেকেই ভিড় জমাচ্ছে। এ ঘটনায় এলাকায় উৎসুক মানুষের মধ্যে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার(৩জানুয়ারী) মধুপুর উপজেলার কুড়াগাছা ইউনিয়নের পিরোজপুর গ্রামে। 


স্থানীয়রা জানান, পিরোজপুর গ্রামে আব্দুর রহিমের ছেলে রাকিব(২১) ঘাটাইল জিবিজি কলেজে একাদশ শ্রেণীতে ভর্তি হয়। কলেজে ভর্তি হওয়ার পর থেকেই একই কলেজে একই শ্রেণীর ঘাটাইলের জামুরিয়া ইউনিয়নের চানতারা মালিবাগ গ্রামের ওই ছাত্রীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। চলে তাদের মধ্যে প্রেম। এক পর্যায়ে তরুণীর এলাকায় বিষয়টি জানাজানি হয়ে গেলে সে রাকিবকে বিয়ের করার প্রস্তাব দেয়। এরপর থেকেই রাকিব নানান টালবাহানা শুরু করে। কিছুদিন যাবত প্রেমিক প্রেমিকার সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দিলে মঙ্গলবার(৩জানুয়ারী) সকাল ১০টা থেকে মধুপুরের পিরোজপুর বাজারের উত্তর প্বার্শে অবস্থিত প্রেমিকের বাড়ীতে বিয়ের দাবিতে অনশন শুরু করে। 


মধুপুর শহর থেকে ৬ কি. মি দুরে কুড়াগাছা ইউনিয়নের পিরোজপুর বাজারের উত্তর প্বার্শে প্রেমিকের বাড়ীতে সরেজমিনে গিয়ে  দেখা যায়, স্থানীয় উৎসুক জনতা ভিড় করে আছে। বাড়ীর গেইটে একটি মেয়ে ব্যাগ হাতে দাড়িয়ে আছে। মেয়েটির সাথে কয়েক জন সাংবাদিক কথা বলতে গেলে রাকিবের মা বাধা দেয়। পরবর্তীতে সাংবাদিকদের অনশনরত মেয়ে জানান, সকালে ওই বাড়ীতে আসলে তাকে টেনেহিচড়ে বের করে দেওয়া হয় এবং তার মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এ সময় তার হাতের আঙ্গুলও কেটে যায় বলে তিনি জানান। এর পর থেকে বাড়ীর গেইটে সকাল থেকে দাড়িয়ে অনশন শুরু করে। তার দাবি প্রেমিকের কাছে তিনি বিয়ে বসবেন।


রাকিবের বাবা আব্দুর রহিম সাংবাদিকদের কাছে প্রথমে বিষয়টি এড়িয়ে গেলেও পরবর্তীতে তিনি জানান, মেয়েটি বিয়ের দাবিতে তার বাড়ীতেই রয়েছে।


এ ব্যাপারে কুড়াগাছা ইউপি চেয়ারম্যান ফজলুুল হক সরকার জানান, মেয়েটি ওই বাড়ীতে ছিল। নিরাপত্তার জন্যে আমার বাড়ীতে নিয়ে এসেছি।


মধুপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাজহারুল আমিন  বলেন, বিষয়টি জানার পর ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। ঘটনা শুনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.বা


আরও খবর