Logo
আজঃ Monday ০৮ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড নিখোঁজ সংবাদ প্রধানমন্ত্রীর এপিএসের আত্মীয় পরিচয়ে বদলীর নামে ঘুষ বানিজ্য

‘মাথাপিছু আয়ের হিসাবে সিগারেটের দাম কম’

প্রকাশিত:Sunday ১২ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৬০জন দেখেছেন
Image

‘মুদ্রাস্ফীতি ও মাথাপিছু আয়ের হিসাব তুলনা করলে দেখা যাবে, সিগারেটের প্রকৃত মূল্য কমে গেছে। এমনকি প্রস্তাবিত বাজেট প্রধানমন্ত্রীঘোষিত তামাকমুক্ত বাংলাদেশ গঠনের অন্তরায়। প্রস্তাবিত বাজেটে তামাকজাত দ্রব্যের মূল্য বৃদ্ধিও হতাশাব্যঞ্জক।’

রোববার (১২ জুন) বিকেলে আহছানিয়া মিশন আয়োজিত ‘২০২২-২০২৩ অর্থবছরের বাজেটে তামাক কর: প্রত্যাশা ও প্রাপ্তি’ শীর্ষক ভার্চুয়াল ওয়েবিনারে বক্তারা এমন অভিমত তুলে ধরেন।

এসময় জাতীয় পার্টির (জাপা) নেতা ও ঢাকা-৬ আসনের সংসদ সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ বলেন, সবকিছুরই দাম বেড়েছে। কেবল দাম বাড়েনি তামাকজাত দ্রব্যের। বাজেটে সিগারেটের নামমাত্র যে মূল্য বৃদ্ধি করা হয়, তাতে ধূমপায়ীর সংখ্যা কমে না। এ কারণে সিগারেটের মূল্য বাড়লে কোম্পানিগুলোও লাভবান হয়।

বাংলাদেশ ক্যান্সার সোসাইটির প্রকল্প পরিচালক ও যুগ্ম মহাসচিব অধ্যাপক ডা. গোলাম মহিউদ্দিন ফারুক বলেন, সংসদে এমপিরা যদি তামাক কর নিয়ে জোরালো ভূমিকা রাখেন, তবে এনবিআর চাইলেও তামাক কর কমিয়ে রাখতে পারবে না। এজন্য আগামীতে তামাক কর বৃদ্ধির কৌশল নির্ধারণে আমাদের আরও কৌশলী হতে হবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ও বাংলাদেশ নেটওয়ার্ক ফর টোব্যাকো ট্যাক্স পলিসির (বিএনটিটিপি) কনভেনর ড. রুমানা হক বলেন, ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেটে সিগারেটের যে মূল্য বৃদ্ধি করা হয়েছে, সেটি মুদ্রাস্ফীতি ও মাথা পিছু আয়ের হিসেবে তুলনা করলে দেখা যাবে যে সিগারেটের প্রকৃত মূল্য কমে গেছে। এটি আমাদের জন্য হতাশাব্যঞ্জক। এতে তরুণ প্রজন্মের মধ্যে তামাক গ্রহণের মাত্রা কমবে না।

ক্যাম্পেইন ফর টোব্যাকো ফ্রি কিডস-বাংলাদেশের লিড পলিসি অ্যাডভাইজার মো. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, এবছর এনবিআরকে অতিরিক্ত যে ৯ হাজার কোটি টাকা রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা দেওয়া হয়েছে, সেটি তারা তামাক কর বৃদ্ধির মাধ্যমে অর্জন করতে পারতো। কিন্তু এনবিআর সে সুযোগ গ্রহণ করেনি। এজন্য আগামীতে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে অর্থমন্ত্রী ও অর্থ মন্ত্রণালয়কে তামাকজাত দ্রব্যের কর বৃদ্ধির ব্যাপারে উদ্যোগী করতে হবে।

দি ইউনিয়িয়নের কারিগরি পরামর্শক সৈয়দ মাহবুবুল আলম বলেন, দেশের মানুষ নিম্নস্তরের সিগারেট বেশি গ্রহণ করে। অথচ বাজেটে নিম্নস্তরের সিগারেটের মূল্য সেভাবে বাড়েনি। এতে করে দরিদ্র ও নিম্ন আয়ের জনগোষ্ঠীর স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়বে। সস্তা সিগারেটের ব্যবহারও বাড়বে। এছাড়া নারী ও দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে বাঁচাতে জর্দা-গুলকেও ট্যাক্সের আওতায় আনতে হবে।

বক্তারা বলেন, ২০৪০ সালের মধ্যে দেশকে তামাকমুক্ত করার ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ লক্ষ্যে সরকার অষ্টম পঞ্চ-বার্ষিকী পরিকল্পনাতেও তামাক নিয়ন্ত্রণ অন্তর্ভুক্ত করেছে। কিন্তু বাজেট তার অন্তরায় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের স্বাস্থ্য ও ওয়াশ সেক্টরের পরিচালক ইকবাল মাসুদের সঞ্চালনায় ওয়েবিনারে আলোচক হিসেবে আরও বক্তব্য রাখেন ইকোনমিক রিপোর্টার্স ফোরামের সভাপতি শারমিন রিনভী, একাত্তর টেলিভিশনের বিশেষ প্রতিনিধি সুশান্ত সিনহা। এছাড়া স্বাগত বক্তব্য রাখেন ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের স্বাস্থ্য সেক্টরের উপ-পরিচালক মো. মোখলেছুর রহমান।


আরও খবর



সরকারি চাকরিতে ৩০ শতাংশ কোটা চান বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তানরা

প্রকাশিত:Thursday ২৮ July ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ০৬ August ২০২২ | ৩৩জন দেখেছেন
Image

সরকারি চাকরিতে ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা পুনর্বহাল ও সংরক্ষণ, আলাদা নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিসহ বয়সসীমা ৩৫ বছর করা, বীর মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সুরক্ষা আইন পাস করা, মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্টের সম্পত্তি বিক্রি না করে লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিণত করাসহ ৭ দফা দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদ।

বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আয়োজিত মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল থেকে সংগঠনটির নেতাকর্মীরা এই দাবি জানান।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মো. সোলায়মান মিয়া, প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম বাবুসহ সংগঠনটির নেতারা।

বক্তারা বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধারা দেশ স্বাধীন করেছেন অথচ তাদের সন্তানেরা আজ অবহেলিত। চাকরিতে কোটাব্যবস্থা ছিল, সেটা তুলে দিয়েছে। বীর মুক্তিযোদ্ধাদের পরিবারকে সুরক্ষা দেওয়ার কোনো আইন নেই। আমরা চাই সরকার বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সব ধরনের সুবিধা প্রদানের পাশাপাশি সুরক্ষার ব্যবস্থা করবে।

বক্তারা আরও বলেন, সাত দফার পাশাপাশি মেডিকেল কলেজ, কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজে ছাত্রদের ভর্তির ক্ষেত্রে বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও নাতি-নাতনিদের ১০ শতাংশ আসন দিতে হবে।

এসময় বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মো. সোলায়মান মিয়া বলেন, আমরা ৭ দফা দাবি দিয়েছি। দাবিগুলো দ্রুত বাস্তবায়নের আহ্বান জানাই সরকারের প্রতি। এক মাসের মধ্যে দাবি বাস্তবায়ন না হলে ১ সেপ্টেম্বর সারাদেশে জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয় ঘেরাও কর্মসূচি পালন করবো। সারাদেশ থেকে ৫০ হাজার বীর মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের সন্তানদের নিয়ে শাহবাগ অবরোধ করবো।

সংগঠনটির ৭ দফা দাবি

* দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা পুনর্বহাল ও সংরক্ষণ, আলাদা নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিসহ বয়সসীমা ৩৫ বছর করতে হবে।

*বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সাংবিধানিক স্বীকৃতি ও মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সুরক্ষা আইন পাস করাসহ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের শ্রেণী ও মর্যাদা নির্ধারণ করতে হবে।

*বঙ্গবন্ধু কর্তৃক উপহার মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্টের সম্পত্তি বিক্রি না করে লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিণত করতে হবে।

*মুক্তিযোদ্ধা সংসদ নির্বাচনে সব মৃত বীর মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের অন্তত একজন সদস্যকে ভোটাধিকার প্রয়োগের ক্ষমতা প্রদান করতে হবে। জীবিত বা মৃত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সমান সুযোগ-সুবিধা দিতে হবে।

*জাতীর শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের সন্তানদের জন্য জাতীয় সংসদে কম্পক্ষে ৫০টি সংরক্ষিত আসন সৃষ্টি করতে হবে। জেলা, উপজেলা, ইউনিয়ন পরিষদে ২ জন করে বীর মুক্তিযোদ্ধা বা তাদের সন্তানদের জন্য সংরক্ষিত সদস্য পদ সৃষ্টি করতে হবে।

*শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের গভর্নিং কমিটি ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষা কমিটিতে ২ জন বীর মুক্তিযোদ্ধা বা তাদের সন্তানদের বাধ্যতামূলক সদস্য করতে হবে।

*সারাদেশে বীর মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের ওপর হামলা, নির্যাতন ও তাদের জমি দখলের বিরুদ্ধে কঠোর আইনি ব্যবস্থা নিতে হবে। দুর্নীতি, মাদক, ধর্ষণের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রাখাসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের বাজার নিয়ন্ত্রণ করতে হবে।

কর্মসূচিতে ঢাকা বিভাগ, জেলা, মহানগর, উপজেলা, পৌরসভা, ইউনিয়ন, রেলওয়ে, সিভিল এভিয়েশন ইউনিটসহ সব অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতারা অংশ নেন।


আরও খবর



৭ ঘণ্টার বৃষ্টিতে ২০ বছরের রেকর্ড ভাঙলো পাকিস্তানে

প্রকাশিত:Friday ২২ July 20২২ | হালনাগাদ:Saturday ০৬ August ২০২২ | ৩৮জন দেখেছেন
Image

মাত্র সাত ঘণ্টা বৃষ্টিতেই ২০ বছরের পুরোনো রেকর্ড ভাঙলো পাকিস্তানের লাহোরে। বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) দেশটির দ্বিতীয় বৃহত্তম শহরে সর্বোচ্চ ২৩৮ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। খবর ডনের।

এদিন লাহোরে প্রবল বর্ষণের পাশাপাশি বজ্রবৃষ্টি দেখা দেয়। বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে যায় শহরের নিম্নাঞ্চলের বহু বাড়িঘর। ডুবে যায় রাস্তাঘাট, বিঘ্নিত হয় গাড়ি চলাচল। অনেক এলাকায় বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে বিদ্যুৎসংযোগ। ভারি বৃষ্টি ও তীব্র বাতাসে বিদ্যুতের লাইন ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় অন্ধকারে ডুবেছে শহরের প্রায় অর্ধেক এলাকা।

পাকিস্তানি দৈনিক দ্য নিউজ জানিয়েছে, এদিন বৃষ্টিপাতে ছাদ ধসে লাহোরে তিনজন নিহত ও আরও তিনজন আহত হয়েছেন।

পাকিস্তানের জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ (এনডিএমএ)-এর হিসাবে, গত চার সপ্তাহে দেশটিতে বৃষ্টিপাত সম্পর্কিত বিভিন্ন দুর্ঘটনায় অন্তত ২৮২ জন নিহত হয়েছেন, যাদের মধ্যে ১৬০ জনই নারী ও শিশু। এছাড়া আহত হয়েছেন আরও অন্তত ২১১ জন।

সবচেয়ে বেশি মারা গেছেন পাঞ্জাবে, ৫৭ জন। এছাড়া খাইবার পাখতুনখাওয়ায় ৫৬ ও দেশটির অন্যান্য অংশে আরও ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে বৃষ্টি সংক্রান্ত দুর্ঘটনায়।

এনডিএমএ জানিয়েছে, বৃষ্টিতে সাড়ে পাঁচ হাজারের বেশি বাড়ি এবং কয়েকটি সেতু আংশিক বা পুরোপুরি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।


আরও খবর



ইসলামী ব্যাংকের অর্ধ-বার্ষিক ব্যবসায় উন্নয়ন সম্মেলন

প্রকাশিত:Wednesday ২৭ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ০৫ August ২০২২ | ১৯জন দেখেছেন
Image

ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের ঢাকা নর্থ, সাউথ ও নোয়াখালী জোনের অর্ধ-বার্ষিক ব্যবসায় উন্নয়ন সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত সোমবার (২৫ জুলাই) ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে এ সম্মেলন হয়। ব্যাংকের ম্যানেজিং ডাইরেক্টর ও সিইও মুহাম্মদ মুনিরুল মওলা সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন।

সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন অ্যাডিশনাল ম্যানেজিং ডাইরেক্টর মুহাম্মদ কায়সার আলী, মো. ওমর ফারুক খান, ডেপুটি ম্যানেজিং ডাইরেক্টর মো. মোস্তাফিজুর রহমান সিদ্দিকী, মো. নাইয়ার আজম, সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট মো. সিদ্দিকুর রহমান, মো. জামাল উদ্দিন মজুমদার, ইঞ্জিনিয়ার আ ফ ম কামালউদ্দিন, মুহাম্মদ শাব্বির, মো. মাহবুব আলম, মিজানুর রহমান, মুহাম্মদ সাঈদ উল্যাহ, মো. মাকসুদুর রহমান, এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট মুহাম্মদ কামরুল বারী ইমামী, মীর রহমত উল্লাহ, আহমেদ জোবায়েরুল হক ও মিফতাহ উদ্দীন।

সম্মেলনে জোনের অধীন শাখাসমূহের প্রধান ও বিনিয়োগ এবং ফরেন এক্সচেঞ্জ ইনচার্জরা অংশ নেন।


আরও খবর



মাঙ্কিপক্সে ভারতে প্রথম মৃত্যু, বাড়ছে আতঙ্ক

প্রকাশিত:Monday ০১ August ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৩৩জন দেখেছেন
Image

মাঙ্কিপক্স আগেই থাবা বসিয়েছে ভারতে। এবার এই রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হলো দেশটির কেরালা রাজ্যের এক যুবকের। জানা গেছে, বিদেশে থাকাকালীন না কি তার রিপোর্ট পজিটিভ এসেছিল। এটাই সম্ভবত ভারতে মাঙ্কিপক্সে প্রথম মৃত্যু। আর আফ্রিকার বাইরে চতুর্থ।

কেরালার স্বাস্থ্যমন্ত্রী বীনা জর্জ জানিয়েছেন, শনিবার (৩১ জুলাই) প্রাণ হারান ত্রিশূরের ২২ বছরের যুবক। গত ২২ জুলাই সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে ফিরেছিলেন তিনি। অসুস্থতার জন্য ভর্তি ছিলেন একটি বেসরকারি হাসপাতালে। সেখানেই শনিবার মৃত্যু হয় তার। মাঙ্কিপক্সে আক্রান্ত হওয়ার কারণেই তার মৃত্যু হয়েছে কি না, তা নিশ্চিত করতে এরই মধ্যে যুবকের নমুনা কেরালার ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজিতে পাঠানো হয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ওই যুবকের শরীরে মাঙ্কিপক্সের কোনো উপসর্গ ছিল না। এনসেফালাইটিসের উপসর্গ আর ক্লান্তি নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন তিনি। তার মাঙ্কিপক্সের রিপোর্ট যে পজিটিভি এসেছে, তা হাসপাতালকে শনিবারই জানায় পরিবার।

গত ২২ জুলাই বাড়ি ফেরার পর তিনি সুস্থ ছিলেন। পাড়ার মাঠে ফুটবলও খেলেছিলেন। কিন্তু ২৬ জুলাই জ্বরে ভুগতে শুরু করেন। তখনই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় অন্য একটি বেসরকারি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয় তাকে। যেখানে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছিল। তবে শেষরক্ষা হল না। মাঙ্কিপক্সে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হলে যে সমস্ত নিয়ম মেনে শেষকৃত্যু করতে হয়, সেভাবেই যুবকের সৎকার করে তার পরিবার। তিনি কার কার সংস্পর্শে এসেছিলেন, সেই তালিকাও তৈরি করা হচ্ছে।

ভারতে প্রথম এই কেরালা রাজ্যেই হানা দিয়েছিল মাঙ্কিপক্স। এখনও পর্যন্ত দেশটিতে চারজন আক্রান্তের খোঁজ মিলেছে। যার মধ্যে তিনজনই কেরালার।


আরও খবর



আধাঘণ্টায় দেড়শ কোটি টাকা ছাড়ালো লেনদেন

প্রকাশিত:Tuesday ০২ August 2০২2 | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | ২০জন দেখেছেন
Image

নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) থেকে প্রতিটি শেয়ারের ফ্লোর প্রাইস (দামের সর্বনিম্ন সীমা) বেঁধে দেয়ার পর শেয়ারবাজারে মূল্য সূচকের টানা উত্থান প্রবণতা দেখা দিয়েছে। সেই সঙ্গে বেড়েছে লেনদেনের গতি।

সপ্তাহের তৃতীয় কার্যদিবস মঙ্গলবার (২ আগস্ট) লেনদেনের শুরুতে শেয়ারবাজারে বড় উত্থান প্রবণতা দেখা যাচ্ছে। লেনদেনে অংশ নেওয়া সিংহভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বাড়ার পাশাপাশি সবকটি সূচকের বড় উত্থান হয়েছে। সেই সঙ্গে লেনদেনে ভালো গতি দেখা যাচ্ছে।

প্রথম আধাঘণ্টার লেনদেনে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান মূল্য সূচক ২০ পয়েন্ট বেড়ে গেছে। লেনদেনে অংশ নেওয়া ৬০ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে। আর লেনদেন হয়েছে দেড়শ কোটি টাকার বেশি।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের পাশাপাশি অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই) লেনদেনে অংশ নেওয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে। সেই সঙ্গে বেড়েছে সবকটি মূল্য সূচক।

এর আগে শেয়ারবাজারে টানা দরপতন দেখা দিলে গত বৃহস্পতিবার প্রতিটি শেয়ারের ফ্লোর প্রাইস (দামের সর্বনিম্ন সীমা) বেঁধে দেয় নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। শেষ পাঁচ কার্যদিবসের ক্লোজিং প্রাইসের গড় দাম করা হয় প্রতিটি সিকিউরিটিজের ফ্লোর প্রাইস।

রোববার থেকে কার্যকর হয় এই ফ্লোর প্রাইস। এতে দাম সমন্বয় করায় রোববার শেয়ারবাজারে লেনদেন শুরু হতেই সিংহভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়ে যায়। আর লেনদেনের সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে বাড়তে থাকে সূচকের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা। এতে টানা পতন থেকে বেরিয়ে একদিনেই ডিএসইর প্রধান সূচক বাড়ে ১৫৩ পয়েন্ট।

সোমবারও শেয়ারবাজারে ঊর্ধ্বমুখীতির দেখা মিলে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের প্রধান মূল্য সূচক ৩০ পয়েন্ট বাড়ার পাশাপাশি লেনদেন বেড়ে ৯১২ কোটি টাকা ছাড়িয়ে যায়। সেই সঙ্গে দাম বাড়ার তালিকায় নাম লেখায় অধিকাংশ প্রতিষ্ঠান।

এ পরিস্থিতিতে মঙ্গলবার শেয়ারবাজারে লেনদেন শুরু হয় বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বাড়ার মাধ্যমে। ফলে লেনদেন শুরু হতেই ডিএসইর প্রধান সূচক ৭ পয়েন্ট বেড়ে যায়। লেনদেনের সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে সূচকের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা বাড়তে দেখা যাচ্ছে।

এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ১০টা ৪৪ মিনিটে ডিএসইতে দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে ২০৭ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট। বিপরীতে দাম কমেছে ৮১টির এবং ৭৪টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

এতে ডিএসইর প্রধান সূচক বেড়েছে ১৯ পয়েন্ট। অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসই-৩০ সূচক ৬ পয়েন্ট বেড়েছে। আর ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক ২ পয়েন্ট বেড়েছে। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ১৯৬ কোটি ৪৫ লাখ টাকা।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৯ পয়েন্ট বেড়েছে। লেনদেন হয়েছে ২ কোটি ৭৭ লাখ টাকা। লেনদেন অংশ নেওয়া ১২২ প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দাম বেড়েছে ৬৬টির, কমেছে ২৭টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৯টির।


আরও খবর