Logo
আজঃ Monday ২৯ November ২০২১
শিরোনাম
নৌকা পরাজিত স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান হলো তৃতীয় লিঙ্গের ঋতু! তৃতীয় ধাপে ইউনিয়ন নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শেষ, চলছে গণনা কুমিল্লায় নৌকা পেয়েও সরে দাড়ালেন বাহালুল, প্রাথমিক সদস্য না হয়েও মনোনীত নূরুল! মাতুয়াইলে সড়ক উন্নয়ন কাজের উদ্ধোধন করলেন সংসদ সদস্য কাজী মনু পলো উৎসবে মাছ ধরায় মেতেছে মানুষ, চির চেনা বাংলা গাজীপুরে ৩০ সেকেন্ডেই মা-মেয়ের জীবন শেষ করল দুই খুনি হয়নি হাফ পাসের সিদ্ধান্ত,টাস্কফোর্স গঠনের প্রস্তাব আলেম-ওলামাদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা-ভক্তি রয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রংপুরের তারাগঞ্জে ট্রাকচাপায় তিন নারী শ্রমিক নিহত কুমিল্লার তিতাস ও মেঘনা উপজেলায় ইউপি নির্বাচনে বিজয়ী যারা !
কাল থেকে শতভাগ মুসল্লি প্রবেশ করবে কাবায়

মাস্ক পরার বিধিনিষেধ তুলে নিচ্ছে সৌদি, শতভাগ মুসল্লি প্রবেশ করবে কাবায়

প্রকাশিত:Saturday ১৬ October ২০২১ | হালনাগাদ:Monday ২৯ November ২০২১ | ৩৪৯জন দেখেছেন
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image


 

সৌদি আরবে করোনার বিধিনিষেধ ব্যাপকভাবে শিথিল করা হয়েছে। রোববার (১৭ অক্টোবর) থেকে এ শিথিলতা কার্যকর হবে। নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী, যে কোনো স্থানে ভ্রমণের ক্ষেত্রে মাস্ক পরা আর বাধ্যতামূলক থাকছে না। খবরটি জানিয়েছে আরব নিউজ।

 

তবে কিছু জায়গায় বিশেষ করে মক্কার গ্র্যান্ড মসজিদ ও মদিনায় মসজিদে নববীতে আর মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক থাকছে। সেখানে সব ভ্রমণকারী ও স্টাফদের মাস্ক পরতে হবে। এছাড়াও পূর্ণ ধারণ ক্ষমতা অনুযায়ী মসজিদ দুইটিতে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তবে সেক্ষেত্রে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অ্যাপ ব্যবহার করে আগেই বুকিং দিতে হবে।

 

সামাজিক দূরত্বের ক্ষেত্রেও মানতে হবে না কোনো বাধ্যবাধকতা। পরিবহন, রেস্তোরাঁ, সিনেমাসহ সব জায়গাই চলা যাবে স্বাধীনভাবে। পূর্ণ ধারণ ক্ষমতা নিয়ে খোলা থাকবে কমিউনিটি সেন্টারগুলোও।

 

দেশটিতে ব্যাপক হারে টিকা কর্মসূচি চালানোর কারণে করোনা শনাক্তের হার এরই মধ্যে কমে এসেছে। করোনা মহামারি শুরুর পর কঠোর বিধিনিষেধ জারি করে মধ্যপ্রাচ্যের এই দেশটি। তবে শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় দীর্ঘ ১৮ মাস পর করোনার বিধিনিষেধ শিথিলের ঘোষণা দেয়। যারা দুই ডোজ টিকা নিয়েছে তারাই কেবল এই সুবিধা পাবেন।

 

এসময় দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় করোনা আক্রান্তের হার পর্যবেক্ষণ করবে। বিধিনিষেধ শিথিলের করণে কোথাও যদি সংক্রমণ বাড়ার খবর পাওয়া যায় তাহলে আবার যথাযথ ব্যবস্থা নেবে কর্তৃপক্ষ।

 

খবর প্রতিদিন/ সি.বা 


আরও খবর



বাগদাদ থেকে আনা শতবর্ষী’ ডেগ

শতবর্ষী’সেই ডেগ উদ্ধার হয়নি আজও

প্রকাশিত:Monday ০১ November ২০২১ | হালনাগাদ:Sunday ২৮ November ২০২১ | ১৬৪জন দেখেছেন
ডেস্ক এডিটর

Image


 

মাদারীপুরের শিবচর চুরি হওয়ার ১১ দিন পরও ‘বাগদাদ থেকে আনা শতবর্ষী সেই ডেগ উদ্ধার হয়নি। এমনকি চুরির সঙ্গে জড়িত কেউ এখন পর্যন্ত ধরা পড়েনি। এ পরিস্থিতিতে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে স্থানীয়দের মাঝে।

 

গত ২১ অক্টোবর রাত ৩টার দিকে ৩-৪ জন চোর একটি ভ্যানে করে নিয়ে যায় ডেগটি। স্থানীয় একটি বাড়ির সিসি ক্যামেরার ফুটেজে এমন দৃশ্য দেখে গেছে। ফুটেজ সংগ্রহ করে পর্বেক্ষণ করছে পুলিশ। এছাড়া ঘটনার পরদিন শিবচর থানার ওসি মিরাজ হোসেনসহ পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

 

স্থানীয়রা জানায়, শুক্রবার (২২ অক্টোবর) ফজরের নামাজের সময় মৌলভী বাড়ির খবির উদ্দিন মৌলভীর নাতি হাবিব মুন্সী মসজিদে গিয়ে দেখেন ডেগটি নেই। ডেগটি যে ঘরে রাখা ছিল সেই ঘরের একটি খুঁটি ভেঙে কে বা কারা চুরি করে নিয়ে গেছে। পরে বাড়ির সবাইকে বিষয়টি জানিয়ে পুলিশে খবর দেন তিনি। দত্তপাড়া পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের একটি দল খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।

 

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, স্থানীয় একটি বাড়ির সিসি ক্যামেরার অস্পষ্ট ফুটেজে দেখা গেছে- রাত ৩টার দিকে একটি ব্যাটারিচালিত ভ্যানে করে কাপড়ে ঢাকা ডেগ সদৃশ কিছু একটা নিয়ে যাচ্ছে ৩-৪ জন লোক। ঐ ঘটনায় হাবিব মুন্সী অজ্ঞাত ৫-৬ জনকে আসামি করে মামলা করেছেন।

শিবচর থানার ওসি মিরাজ হোসাইন জানান, সিসিটিভি ফুটেজ দেখে চোর শনাক্তের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। ঘটনাটি রাতের হওয়ায় এবং ফুটেজ অস্পষ্ট হওয়ায় শনাক্ত করতে কষ্ট হচ্ছে।

 

উল্লেখ্য, মাদারীপুরের শিবচরের মৌলভী বাড়ির মাওলানা খবির উদ্দিন আহমেদ আল কাদেরী প্রায় ১০০ বছর আগে ইরাকের বাগদাদ থেকে এই ডেগটি এনেছিলেন। তার মাজারের পাশের একটি খোলা ঘরে দর্শনার্থীদের জন্য ডেগটি রাখা হয়েছিল।

-খবর প্রতিদিন/ সি.বা 

নিউজ ট্যাগ: শতবর্ষী’ ডেগ

আরও খবর



লোহার বাঁধেও কাজ হবে না : পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী

বালু উত্তোলন বন্ধ না হলে, লোহার বাঁধেও কাজ হবে না : পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত:Monday ০১ November ২০২১ | হালনাগাদ:Monday ২৯ November ২০২১ | ১২৯জন দেখেছেন
ডেস্ক এডিটর

Image


যতই আমরা প্রকল্প করি না কেন, যদি বালু উত্তোলন বন্ধ করতে না পারি তাহলে লোহার বাঁধেও কাজ হবে না বলে জানিয়েছেন পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক । সোমবার দুপুরে জামালপুরের ইসলামপুরে কুলকান্দি হার্ডপয়েন্টে বাঁধের ভাঙন অংশ পরিদর্শনকালে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব ফরিদুল হক খান দুলাল, মহিলা এমপি হোসনে আরা, পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব রোকন উদ-দৌলা,পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাসচিব ফজলুর রশিদসহ আরো অনেকে।

 

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, পানি উন্নয়ন বোর্ডের কাজে একটু ধৈর্য ধরতে হয়, এক বছর স্ট্যাডি করতে হয়, কারণ শুষ্ক মৌসুম ও মৌসুম দুটিই দেখতে হয় টেকসই বিষয়ে।

 

৯০ কোটি টাকা ব্যয়ে যমুনার ভাঙন রোধে ইসলামপুরের কুলকান্দি হার্ডপয়েন্ট থেকে গুঠাইল হার্ডপয়েন্টে আড়াই হাজার মিটার বাঁধ নির্মাণ করা হয়। বাঁধটি ২০২০ সালের জুন মাসে কাজ শেষ হয়। গত বৃহস্পতিবার সকালে ৯০ মিটার বাঁধ ধসে যায়।

 

-খবর প্রতিদিন /সি.বা  


আরও খবর



গাজীপুরে ৩০ সেকেন্ডেই মা-মেয়ের জীবন শেষ করল দুই খুনি

প্রকাশিত:Saturday ২৭ November ২০২১ | হালনাগাদ:Monday ২৯ November ২০২১ | ২৫৪জন দেখেছেন
ডেস্ক এডিটর

Image

 

 

 গাজীপুরে মা-মেয়েকে গলা কেটে হত্যার রহস্য ৩৬ ঘণ্টার মধ্যে উদঘাটন করেছে পুলিশ। একই সঙ্গে দুই খুনিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মাত্র ৩০-৪০ সেকেন্ডেই মা-মেয়েকে হত্যা করা হয় বলে জানিয়েছেন তারা।

 

জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার সালদিয়া গ্রাম থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতাররা হলেন- একই গ্রামের সাত্তার খানের ছেলে জাহিদুল ইসলাম ও মনির হোসেনের ছেলে মহিউদ্দিন ওরফে বাবু।

শনিবার দুপুরে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের সদর দফতরে প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান উপ-পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম) মো. জাকির হাসান।

তিনি জানান, ১২ বছর আগে রাজশাহী জেলার বাসিন্দা জয়নাল আবেদীনের সঙ্গে ফেরদৌসীর বিয়ে হয়। তাদের সংসারে ১১ বছরের মেয়ে হাফসা ও চার বছরের তাসমিয়া রয়েছে। কিন্তু বনিবনা না হওয়ায় স্বামীকে তালাক দিয়ে বাবার বাড়িতে চলে আসেন ফেরদৌসী। এরপর মোবাইল ফোনে পরিচয়ের মাধ্যমে তিন বছর আগে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার রবিউল ইসলামের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। রবিউলেরও আরেক সংসার ছিল। কিন্তু দুই বছর আগে তার সঙ্গেও ফেরদৌসীর ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়।

 

এরপর দুই মেয়েকে নিয়ে হাড়িনাল এলাকায় ভাড়া বাসায় থেকে গার্ডিয়ান লাইফ ইনস্যুরেন্স লিমিটেডে চাকরি করেন। এছাড়া তিন মাস আগে স্ত্রীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হয় বাবুর। পরে ফেরদৌসীর সহায়তায় একই কোম্পানিতে চাকরি নেন বাবু। কিন্তু বিচ্ছেদের ঘটনায় ফেরদৌসীকেই দায়ী মনে করেন তিনি। আর এ প্রতিশোধ নিতেই হত্যার পরিকল্পনা।

 

পরিকল্পনা অনুযায়ী বুধবার সন্ধ্যায় ইনস্যুরেন্সের টাকা দেওয়ার কথা বলে মোবাইল ফোনে ফেরদৌসীকে ডাকেন বাবুর বন্ধু জাহিদুল। ফোন পেয়ে মেয়ে তাসমিয়াকে নিয়ে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের দেশীপাড়া এলাকায় যান ফেরদৌসী। সেখানে যেতেই তাকে ধারালো ছুরি দিয়ে গলা কাটেন জাহিদুল ও বাবু। মাকে রক্তাক্ত দেখে চিৎকার করলে মেয়েকেও গলা কেটে হত্যা করেন তারা। দুটি খুন করতে তারা সময় নেন মাত্র ৩০-৪০ সেকেন্ড। এরপর তারা মোটরসাইকেলে পালিয়ে যান।

বুধবার রাতে দেশীপাড়া এলাকায় সড়কের পাশে মা-মেয়ের লাশ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেন এক কেয়ারটেকার। পরে লাশ দুটি উদ্ধার করে পুলিশ।

 

নিহতরা হলেন- গাজীপুরের কালীগঞ্জ উপজেলার জাঙ্গালীয়া ইউনিয়নের বড়াইয়া গ্রামের বাছির উদ্দিন বছুর মেয়ে ফেরদৌসী আক্তার ও তার চার বছর বয়সী মেয়ে তাসমিয়া আক্তার। ফেরদৌসী স্থানীয় চান্দনা চৌরাস্তার এলাকার গার্ডিয়ান লাইফ ইনস্যুরেন্স লিমিটেডের মাঠকর্মী হিসেবে কাজ করতেন।

-খবর প্রতিদিন/ সি.বা


আরও খবর



ভালোবেসে বিয়ে, জাত-পাতের রেষারেষিতে শেষ দুই জীবন

ভালোবেসে বিয়ে: উচু জাত নিচু জাত দ্বন্ধে বউকে কুপিয়ে মেরে, নিজের বুকে ছুড়ি চালিয়ে আত্তহত্যা

প্রকাশিত:Wednesday ০৩ November ২০২১ | হালনাগাদ:Monday ২৯ November ২০২১ | ৩২৮জন দেখেছেন
ডেস্ক এডিটর

Image


 

অভি-যুথির দীর্ঘদিনের প্রেম। করেছেন বিয়েও। তবে মেনে নেয়নি অভির পরিবার। ভালোবেসে বিয়ে করলেও স্ত্রীকে ঘরে তুলতে পারেননি স্বামী। শুধু একটাই আপত্তি; যুথির পরিবার নিম্ন বংশের। আর এ জাত-পাত নিয়েই বাড়তে থাকে মতানৈক্য। শেষমেশ ভালোবাসার মানুষটিকেই কুপিয়ে হত্যা করেন অভি। নিজেও বেঁচে থাকেননি। ছুরি মেরে নিজেকেও শেষ করে দেন।

 

ঘটনাটি চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের। মঙ্গলবার রাত প্রায় ১২টার দিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান অভি। এ ঘটনায় এলাকায় বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

 

নিহত ২৩ বছর বয়সী যুথি সূত্রধর সীতাকুণ্ড পৌর শহরের প্রেমতলা এলাকার বাসিন্দা রামচন্দ্র সূত্রধরের কলেজপড়ুয়া মেয়ে। আর ২৭ বছরের অভি চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলা কালীপুর বণিক পাড়ার শুধাংশ ধরের ছেলে।

 

জানা গেছে, যুথির সঙ্গে অভির প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। দুই বছর আগে তারা পালিয়ে বিয়ে করেন। বিয়ের কিছুদিনের মধ্যেই যুথিকে বউ করে নিজ ঘরে তুলবেন বলে আশ্বাস দিয়েছিলেন অভি। কিন্তু এতে আপত্তি জানায় পরিবার। অভি উচ্চ বংশের ছেলে। যুথির পরিবার তাদের তুলনায় নিম্ন বংশের। এটিই ছিল অভির পরিবারের আপত্তি। এ কারণে আর শেষ পর্যন্ত শ্বশুরবাড়িতে স্থান হয়নি যুথির। যদিও তারা ভাড়া বাসায় থাকতেন।

 

শ্বশুরবাড়িতে না নেয়ায় দিন দিন স্বামীর সঙ্গে যুথির মতানৈক্য বাড়তে থাকে। এর জেরে দেড় মাস আগে স্বামীকে ছেড়ে বাবার বাড়িতে চলে যান যুথি। এতে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয় অভির মনে। ভালোবাসার মানুষটিকে হারিয়ে তিনি মাদকাসক্ত হয়ে পড়েন। একপর্যায়ে ২৭ অক্টোবর শ্বশুরবাড়িতে গিয়ে স্ত্রী যুথিকে ফিরিয়ে নিতে চান তিনি। কিন্তু স্বামীর সঙ্গে আর যাবেন না বলে স্পষ্ট জানিয়ে দেন যুথি। এতেই চরম ক্ষোভে নিজের সঙ্গে আনা ধারালো ছুরি দিয়ে যুথিকে এলোপাতাড়ি কোপান। শরীরের বিভিন্ন অংশে ১৯টি ছুরিকাঘাতে যুথি ঘটনাস্থলেই নিহত হন। শেষে নিজেই নিজের পেটে ছুরিকাঘাত করতে থাকেন অভি। এতে রক্তাক্ত ও গুরুতর আহত হন নিজেও। পরে তাকে চমেক হাসপাতালে নেয়া হয়।

চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থাতেই ওই রাতেই অভির বিরুদ্ধে স্ত্রীকে হত্যা ও আত্মহত্যাচেষ্টার দুটি অপরাধে মামলা করেন শ্বশুর রামচন্দ্র সূত্রধর। সেই থেকে পুলিশি পাহারায় অভির চিকিৎসা চলতে থাকে। এমনি অবস্থায় মঙ্গলবার রাত ১২টার দিকে চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় অভিও মারা যান।

 

সীতাকুণ্ড থানার ওসি (তদন্ত) সুমন বণিক বলেন, ছেলে অভি ছিলেন উচ্চবংশীয়। আর তার বিয়ে করা বউ যুথির বংশ পরিচয় তাদের পছন্দনীয় নয়। জাতিগত এ কুসংস্কারের কারণে অভির পরিবার তার বউকে মেনে নেয়নি। যার শেষ পরিণতিতে সম্ভাবনাময় দুটি জীবন চিরতরে ধ্বংস হয়ে গেছে।

 

তিনি আরো বলেন, ২৭ অক্টোবর স্ত্রী হত্যার পর নিজেও আত্মহত্যার চেষ্টাকারী অভিকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় চমেকে ভর্তি করানো হয়েছিল। কিন্তু তার অবস্থার কোনো উন্নতি হয়নি। শেষ পর্যন্ত মঙ্গলবার রাত ১২টার দিকে তারও মৃত্যু হয়।

 

-খবর প্রতিদিন /সি.বা 


আরও খবর



প্রবাসীদের দেশে বিনিয়োগের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

দেশে বিনিয়োগ করতে প্রবাসীদের প্রতি আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

প্রকাশিত:Tuesday ০২ November 2০২1 | হালনাগাদ:Monday ২৯ November ২০২১ | ১৬১জন দেখেছেন
ডেস্ক এডিটর

Image



সরকারের দেওয়া সুযোগ-সুবিধা গ্রহণ করে বাংলাদেশে আরো বিনিয়োগ করার জন্য বিশ্বব্যাপী প্রবাসী বাংলাদেশিদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।স্কটল্যান্ডে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিদের দেওয়া এক নাগরিক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এ আহ্বান জানান। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি ভার্চুয়ালি যোগদান করেন।

 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা প্রতিবন্ধকতাগুলো (আরো যদি থাকে) খুঁজে বের করবো। আপনাদের আশ্বাস দিচ্ছি, সেগুলোর সমাধান করার মাধ্যমে বিনিয়োগের পরিবেশকে আরো সুবিধাজনক করবো।আওয়ামী লীগ সরকার সব সময়ই গণমুখী উল্লেখ করে তিনি বলেন, তারা সবসময় দেশ ও জনগণের কল্যাণে কাজ করে।

 

এ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী যথাযথ চ্যানেল ব্যবহার করে বিদেশ থেকে দেশে টাকা পাঠানোর ক্ষেত্রে প্রবাসী বাংলাদেশিদের জন্য তার সরকার প্রবর্তিত ২ শতাংশ প্রণোদনার কথাও উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, সরকার প্রবাসী বাংলাদেশিদের সুবিধার্থে একটি পৃথক ব্যাংকও প্রতিষ্ঠা করেছে।

বাংলাদেশে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে প্রবাসীরা কিছু অসুবিধার কথা উল্লেখ করলে জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আসলে তিনি জানতেন না যে তারা বিনিয়োগের ক্ষেত্রে কী ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন।

 

তিনি বলেন, লন্ডনে একটি রোড শো হবে, যেখানে আমি বাংলাদেশ উন্নয়ন ও বিনিয়োগ কর্তৃপক্ষকে (বিডা) বিষয়টি খতিয়ে দেখতে বলব।

সরকার প্রধান আরো বলেন, বিনিয়োগের সুবিধার্থে সব বাধা দূর করতে এরই মধ্যে বিডাকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

২০০৯ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকে আওয়ামী লীগ সরকারের ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের সংক্ষিপ্ত বর্ণনা দিয়ে তিনি বলেন, বাংলাদেশে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে প্রবাসীদের জন্য সরকার বিশেষ ব্যবস্থার প্রস্তাব করেছে।

তিনি প্রবাসীদের বাংলাদেশে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে দেশে প্রচলিত আইন মেনে চলার অনুরোধ করে বলেন, কারণ, আমি আশা করি আপনারা এটি মেনে চলবেন। দেশে বিনিয়োগ বন্ড ও প্রিমিয়াম বন্ড রয়েছে যেখানে প্রবাসীরা বিনিয়োগ করতে পারবেন।

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, সরকার প্রায় ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপন করছে এবং সেখানে প্রবাসীরা বিনিয়োগ করতে পারবেন।

 

খবর প্রতিদিন/ সি.বা


আরও খবর