Logo
আজঃ Friday ১৯ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে আবাসিকের অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন ডেমরায় প্যাকেজিং কারখানায় ভয়বহ অগ্নিকান্ড রূপগঞ্জে পুলিশের ভুয়া সাব-ইন্সপেক্টর গ্রেফতার রূপগঞ্জে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ॥ সভা সরাইলে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ৭৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত। নারায়ণগঞ্জে পারিবারিক কলহে স্ত্রীকে পুতা দিয়ে আঘাত করে হত্যা,,স্বামী গ্রেপ্তার রূপগঞ্জ ইউএনও’র বিদায় সংবর্ধনা নাসিরনগরে স্বামীর পরকিয়ার,বলি ননদ ভাবীর বুলেটপানে আত্মহত্যা নাসিরনগরে জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭ তম শাহাদত বার্ষিকী পালিত ডেমরায় জাতীয় শোক দিবসের কর্মসুচি পালিত

মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ আগামী বিশ্বকাপে ব্যাটসম্যানদের উন্নতি দেখতে চান

প্রকাশিত:Friday ১০ December ২০২১ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৩৭০জন দেখেছেন
Image

একটা টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ব্যর্থতা কাটিয়ে না উঠতেই আরেকটা বিশ্বকাপের প্রস্তুতি নিতে হচ্ছে বাংলাদেশকে। সংযুক্ত আরব আমিরাতের ব্যর্থতা কাটিয়ে এবার অস্ট্রেলিয়া বিশ্বকাপের দিকে নজর দিতে চায় টাইগাররা। তবে যেই ব্যাটিং ব্যর্থতা বাংলাদেশের বহুদিনের রোগে পরিণত হয়েছে, তা দ্রুত কাটিয়ে উঠতে না পারলে আরও একবার হতাশ করতে পারে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদদের। যদিও এই কয়েক মাসেই ব্যাটারদের উন্নতি করতে হবে বলে মনে করেন টাইগার কপ্তান।

আজ শুক্রবার বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) আয়োজিত একাডেমি কাপ টুর্নামেন্টের ট্রফি উন্মোচন অনুষ্ঠানে এসে তিনি এ কথা বলেন। তার মতে, বাংলাদেশের বোলিং ডিপার্টমেন্টের ধারাবাহিকতা থাকলেও ব্যাটিংয়ে তা নেই। আসন্ন বিশ্বকাপের আগে তাই এই জায়গায় দলের উন্নতি আশা করেন তিনি।

কন্ডিশন হিসেবে অস্ট্রেলিয়া একটি ভিন্ন পরিবেশ। যেখানে বাংলাদেশের জন্য কঠিন পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে। তবে বিষয়টাকে সহজভাবে নিচ্ছেন বাংলাদেশের অধিনায়ক। তিনি বলেন, ‘এটা নির্ভর করে আমরা কি রকম টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট খেলছি। অনেক পথ পাড়ি দেওয়ার বাকি আছে। আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি অস্ট্রেলিয়ার কন্ডিশন খুবই ভালো। ট্রু বাউন্স, ট্রু পেস থাকে। এখন বিষয়টা আমাদের উপর, কীভাবে আমরা জিনিসটা হ্যান্ডেল করি। আগে যে জিনিসটা বলে আসছি, সম্ভবত আমাদের ব্যাটিং ইউনিটকে আরও ভালো করতে হবে। বোলিং ইউনিট আমি মনে করি ধারাবাহিকভাবে ভালো করছে। কিছু ছোটখাটো জিনিস আছে সেগুলো আমরা যদি ধারাবাহিকভাবে প্রতিটি সিরিজে উন্নতি করি তবে ইন শা আল্লাহ আমরা খুব ভালো কিছু অর্জন করতে পারবো।’

তিন ফরম্যাটের মধ্যে টি-টোয়েন্টিকেই জটিল মনে করেন রিয়াদ। এর কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘এখানে সব সময় আস্কিং রেট অনেক বেশি থাকে। চাপ থাকে, আশা থাকে। চাপ সব সময় থাকবে। দিনশেষে অনেক সময় আমরা করতে পারি, আবার করতে পারি না। আমরা যদি আমাদের রেজাল্ট হোক বা পারফর‌ম্যান্স হোক যদি আমরা একটু কনসিসটেন্স হই তাহলে আমাদের উপর ওই আস্থাটাও বাড়বে।


আরও খবর



ঢাকা মেডিকেলের সামনের ফুটপাতে পড়েছিল ‘ভবঘুরে’র মরদেহ

প্রকাশিত:Wednesday ২৭ July ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১৭ August ২০২২ | ৪৯জন দেখেছেন
Image

ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল এলাকা থেকে অজ্ঞাতনামা এক ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বুধবার (২৭ জুলাই) হাসপাতালের প্রশাসনিক ব্লকের গেটের উল্টো পাশের ফুটপাত থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। নিহতের বয়স আনুমানিক (৪৫) বছর।

শাহবাগ থানার পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. রাশেদুল ইসলাম বলেন, আমরা খবর পেয়ে ফুটপাত থেকে মরদেহটি উদ্ধার করি। পরে আইনি প্রক্রিয়া শেষে ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠানো হয়েছে মরদেহ।

তিনি আরও বলেন, আশপাশের লোকজন থেকে জানতে পারি ওই ব্যক্তি ভবঘুরে ছিলেন। ওই এলাকাতেই থাকতেন। অসুস্থতাজনিত কারণে তার মৃত্যু হয়েছে বলে আমাদের ধারণা।

ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে বলেও জানান এ এসআই। ফিঙ্গারপ্রিন্ট এর মাধ্যমে তার পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা চলছে।


আরও খবর



বোস্টনে ব্রিজের ওপর ট্রেনে আগুন, জানালা দিয়ে পালানোর চেষ্টা

প্রকাশিত:Friday ২২ July 20২২ | হালনাগাদ:Thursday ১৮ August ২০২২ | ৪৩জন দেখেছেন
Image

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বোস্টনের কাছে একটি ব্রিজ পার হওয়ার সময় একটি ট্রেনে আগুন ধরে যায়। এসময় জানালা দিয়ে লাফিয়ে পালানোর চেষ্টা করেন অনেকে। তবে হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি এখনো।

কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, প্রায় দুইশজনকে উদ্ধার করা হয়েছে। বেশিরভাগ ট্রেনের জানালা দিয়ে বের হন। প্রাণ বাঁচাতে একজন নারী নদীতে ঝাঁপিয়ে পড়েন।

ম্যাসাচুসেটস বে পরিবহন কর্তৃপক্ষ (এমবিটিএ) জানিয়েছে, ‘সকালে একটি অরেঞ্জ লাইন ট্রেন ওয়েলিংটন ও অ্যাসেম্বলি স্টেশনের মধ্যে ব্রিজ পেরিয়ে যাওয়ার সময় আগুন ধরে যায়। আমরা অনুসন্ধান চালাচ্ছি ঘটনাটি কিভাবে ঘটেছে’।

সূত্র: এনডিটিভি


আরও খবর



চাকরির প্রলোভনে কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, ২ অভিযুক্ত গ্রেফতার

প্রকাশিত:Thursday ২১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ১৬ August ২০২২ | ৪৪জন দেখেছেন
Image

পটুয়াখালীর গলাচিপায় চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে ১৫ বছরের এক কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় পুলিশ অভিযুক্ত দুই যুবককে গ্রেফতার করেছে।

বুধবার (২০ জুলাই) সকালে উপজেলার চর সহরি এলাকার ইব্রাহিম দফাদারের ইবুর বসতঘরে এ ধর্ষণের এই ঘটনা ঘটে।

গ্রেফতার রিয়াজ (২০) ডাকুয়া ইউনিয়নের আমীর হোসেন হাওলাদারের ছেলে এবং রাব্বি (২১) গাজী ডাকুয়া ইউনিয়নের আজীজ গাজীর ছেলে। তাদের দুজনের বাড়ি উপজেলার ডাকুয়া ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের আটখালী গ্রামে। রিয়াজ পেশায় মোটরসাইকেলচালক এবং রাব্বি গাজী রাজমিস্ত্রির কাজ করেন।

গলাচিপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শওকত আনোয়ার হোসেন বলেন, ভিকটিম আসামিদের পূর্ব পরিচিত। ১৭ জুলাই পূর্ব পরিচয়ের সূত্র ধরে ০১নং আসামি ভিকটিমকে চাকরি দেওয়ার কথা বলে ০২নং আসামিসহ লঞ্চে ঢাকায় নিয়ে যান। ঢাকায় পৌঁছালে পরবর্তীতে ভিকটিম চাকরি করবে না বলে জানালে পুনরায় লঞ্চে ঢাকা থেকে পটুয়াখালী আসেন।

পরবর্তীতে পটুয়াখালী থেকে ঘটনাস্থলে নিয়ে আসামি রিয়াজ হাওলাদার ও আসামি রাব্বি গাজী পালাক্রমে ধর্ষণ করেন। ধর্ষণ শেষে ভিকটিমকেসহ আসামিরা হরিদেবপুর আসার সময় ভিকটিম কৌশলে নিমাই চন্দ্র দাসের বাড়িতে গিয়ে ঘটনা জানালে স্থানীয় ইউপি সদস্য পুলিশে খবর দেয়। তাৎক্ষণিকভাবে পুলিশ স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় অভিযুক্ত রিয়াজ হাওলাদার ও রাব্বি গাজীকে গ্রেফতার করে।

ওসি আরও জানান, ভিকটিমের বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন। বৃহস্পতিবার ভিকটিমের শারীরিক পরীক্ষা সম্পন্ন করা হবে এবং আসামিদের আদালতে পাঠানো হবে।


আরও খবর



মৃত্যুর পর মানুষের কবরে কী ঘটে?

প্রকাশিত:Sunday ২৪ July ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১৭ August ২০২২ | ৩০জন দেখেছেন
Image

সাধারণ মানুষের মতো মুমিনের মৃত্যু হবে না। আল্লাহ তাআলা ঈমানদার বান্দাদের সুন্দর ও উত্তম মৃত্যু দান করবেন মর্মে হাদিসে বর্ণনা করেছেন নবিজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম। মৃত্যুর পর মুমিন বান্দার বিশেষ চাহিদা থাকবে। মুমিন বান্দা মারা গেলে তাদের রূহ আল্লাহর কাছে কী চাইবে?

মৃত্যুর স্বাদ নেবে না- এমন কোনো প্রাণী নেই। কুরআনের বর্ণনায় প্রত্যেককেই মৃত্যুর স্বাদ গ্রহণ করতে হবে। আল্লাহ তাআলা বলেন-

‘তোমরা যেখানেই থাক না কেন, মৃত্যু তোমাদের নাগাল পাবেই; যদি তোমরা সুউচ্চ-সুদৃঢ় দুর্গেও অবস্থান কর।’ (সুরা নিসা : আয়াত ৭৮)

এ কারণেই বেশি বেশি মৃত্যুর কথা স্মরণ করে পরকালের প্রস্তুতি গ্রহণ ব্যস্ত থাকে মুমিন। মনে হয় যেন তারা দুনিয়াতেই জান্নাতের সুঘ্রান পায়। নিশ্চিত মৃত্যুর আগে হাদিসের এ বর্ণনা মুমিন মুসলমানের জন্য অনুপ্রেরণা-

মুমিনের মৃত্যুর বর্ণনা, কবরের প্রশ্নোত্তর, কবরের প্রশান্তি-নেয়ামত ও মুমিন বান্দার আত্মার চাহিদা সম্পর্কে দীর্ঘ একটি হাদিসে বর্ণিত হয়েছে।

হজরত বারা ইবনে আজেব রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেন, আমরা রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের সঙ্গে এক আনসারি সাহাবির জানাজায় গেলাম এবং তাঁর কবর পর্যন্ত পৌঁছলাম। তখনও তাঁকে কবরে শোয়ানো হয়নি। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, আমরাও তাঁর সঙ্গে বসলাম। যেমন আমাদের মাথার ওপরে পাখি বসে আছে। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের হাতে একটি লাঠি ছিল। তিনি লাঠির মাথা দিয়ে জমিনে আঘাত করেন। অতপর তিনি উপরের দিকে মাথা তোলেন এবং বলেন- তোমরা আল্লাহর আজাব থেকে আশ্রয় চাও। এ কথা তিনি ২/৩ বার বললেন, এরপর রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বর্ণনা করেন-

‘কোনো মুমিন বান্দার যখন দুনিয়া থেকে আখেরাতে পাড়ি জমানোর (মৃত্যুর) সময় উপস্থিত হয়; তখন আসমান থেকে সাদা চেহারা বিশিষ্ট ফেরেশতারা নিচে নেমে আসেন। তাদের চেহারা সূর্যের মতো আলোকজ্জ্বল হয়। তাদের সঙ্গে থাকে বেহেশতের কাফন ও সুগন্ধি। তাঁরা তার (মৃতব্যক্তির) চোখের সীমানায় এবং মৃত্যুর ফেরেশতা (মৃতব্যক্তির) মাথার কাছে বসেন। তিনি (মৃত্যুর ফেরেশতা) বলেন, ‘হে পবিত্র ও নেক আত্মা! তুমি আল্লাহর ক্ষমা ও সন্তুষ্টির দিকে বেরিয়ে আস। তখন আত্মা বেরিয়ে আসে, যেভাবে কলসি থেকে পানি বেরিয়ে আসে। তখন ফেরেশতারা (মুমিন ব্যক্তির ওই) আত্মাকে ধরবেন; তাঁকে বেহেশতের আতরযুক্ত কাফনে রাখবেন; সেই কাফন থেকে পৃথিবীর সর্বোত্তম মেশকের সুঘ্রাণ বের হতে থাকবে। তারপর তারা তা (আত্মা/রূহ) নিয়ে ওপরে যাবেন। তারা যখন কোনো ফেরেশতা দলের কাছ দিয়ে অতিক্রম করবেন, তখন ফেরেশতারা বলবে, এটি একটি উত্তম আত্মা।

বহনকারী ফেরেশতারা বলবেন, ‘এটি অমুকের আত্মা। অর্থাৎ তারা দুনিয়াতে তার নামের পরিচয় দেবেন। তারা দুনিয়ার আসমান পর্যন্ত দরজা খুলে দিতে বলবেন। তখন দরজা খুলে দেয়া হবে। তারপর ঘনিষ্ঠ ফেরেশতারা পরবর্তী আসমান পর্যন্ত তাকে বিদায় জানাবেন। সপ্তম আসমান পর্যন্ত এভাবে চলতে থাকবে।

অতপর আল্লাহ তাআলা আদেশ দেবেন- ‘আমার বান্দার দফতর ইল্লিয়্যিনে লিখে রাখে;’ আর ইল্লিয়্যিন হচ্ছে সপ্তম আসমানে মুমিন বান্দার আত্মা সংরক্ষণের স্থান।

কবরের জিজ্ঞাসাবাদ

মুমিন বান্দার আত্মাকে পুনরায় জমিনে (কবরে) তার দেহে ফেরত পাঠানো হবে। এরপর দু’জন ফেরেশতা এসে তাঁকে (মৃতব্যক্তিকে) কবরে বসাবেন, তাঁকে জিজ্ঞাসা করবেন-

তোমার রব কে?

আত্মা বলবে- আমার রব আল্লাহ।

তারপর জিজ্ঞাসা করবেন, তোমার দ্বীন কি?

আত্মা বলবে- আমার দ্বীন ইসলাম।

ফেরেশতারা জিজ্ঞাসা করবেন, তোমার কাছে প্রেরিত লোকটি কে?

আত্মা বলবে- তিনি আল্লাহর রাসুল।

তারপর জিজ্ঞাসা করবেন, তুমি কিভাবে জানো?

আত্মা বলবে- আমি আল্লাহর কিতাব পড়েছি, এর ওপর ঈমান এনেছি এবং তা বিশ্বাস করেছি।

এরপর আকাশ থেকে একজন আহ্বানকারী আওয়াজ দিয়ে বলবেন-

‘আমার বান্দা ঠিক বলেছে’ তার জন্য বেহেশতের বিছানা বিছিয়ে দাও এবং বেহেশতের একটি দরজা তাতে খুলে দাও। তখন সে বেহেশতের সুঘ্রাণ ও প্রশান্তি লাভ করবে। তার কবরকে নিজ চোখের দৃষ্টি সীমানা পর্যন্ত সম্প্রসারিত করা হবে।

রাবি (হজরত বারা ইবনে আজেব রাদিয়াল্লাহু আনহু)  বলেন, ‘তার কাছে সুন্দর চেহারা বিশিষ্ট একজন লোক আসবে’ যার পরনে সুন্দর কাপড় ও শরীরে সুঘ্রাণ থাকবে। সে বলবে, ‘তুমি সুখের সুসংবাদ গ্রহণ কর। এটি সেই দিন, যে দিন সম্পর্কে তোমাকে প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়েছিল।'

আত্মা তাঁকে প্রশ্ন করবে- তুমি কে? সুন্দর চেহারা নিয়ে কে আমাকে সুসংবাদ দিচ্ছ। লোকটি উত্তর দেবে- আমি তোমার নেক আমল বা ভাল কাজ।

 তারপর (মুমিন ব্যক্তির) আত্মা ফরিয়াদ করতে থাকবে-

‘হে আমার রব! কেয়ামত কায়েম কর; কেয়ামত ঘটাও; যেন আমি আমার পরিবার-পরিজন ও মাল-সম্পদের কাছে যেতে পারি।’

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে মুমিন বান্দা হওয়ার তাওফিক দান করুন। বেশি বেশি মৃত্যুর কথা স্মরণ করার তাওফিক দান করুন। পরকালের প্রথম মঞ্জিল কবর থেকে শুরু করে বিচার দিবস পর্যন্ত উত্তম প্রতিদান লাভের তাওফিক দান করুন। আমিন।


আরও খবর



সৌদি খেজুর-চারা বিক্রি করে লাখ টাকা আয় সোলায়মানের

প্রকাশিত:Monday ০১ August ২০২২ | হালনাগাদ:Thursday ১৮ August ২০২২ | ৩৬জন দেখেছেন
Image

সৌদি খেজুর ও চারা বিক্রি করে সফল শরীয়তপুরের সোলায়মান খান। তিন বছরের ব্যবধানে এখন তার বাৎসরিক আয় ৪-৫ লাখ টাকা। কঠোর পরিশ্রমে এ সফলতা পেয়েছেন সোলায়মানের পরিবার।

সরেজমিনে দেখা যায়, বাড়ির উঠানে শত শত খেজুরের চারা। পাশেই মাটি ভর্তি পলিথিনের ব্যাগ। তৈরি হচ্ছে নতুন চারা। শরীয়তপুরের গোসাইরহাট উপজেলার নাগেরপাড়া ইউনিয়নের ছোটকাচনা গ্রামের খেজুর বাগানে সার্বক্ষণিক পরিচর্যার কাজে ব্যস্ত থাকেন সোলায়মান। তিন বছরের ব্যবধানে কয়েকটি গাছে এসেছে খেজুর। পুরো রঙ না আসলেও আধাপাকা খেজুর খেয়ে দারুণ স্বাদ। অনেকেই প্রতিদিন খেজুর বাগান দেখতে আসেন।

স্থানীয় শাহ আলম মিয়া বলেন, সৌদি থেকে খেজুরের চারা এনে চাষ করে তিন বছরেই সফল হয়েছেন সোলায়মান। তার গাছে খেজুরও ধরেছে। কাঁচা খেজুরগুলো খেতে অনেক মিষ্টি ও সুস্বাদু। তার থেকে চারা নিয়ে আমরাও খুরমা খেজুর চাষ করে সফল হতে চাই।

সৌদি খেজুর-চারা বিক্রি করে লাখ টাকা আয় সোলায়মানের

সোলাইমান খান জানান, ভাগ্য ফেরাতে ইউটিউবে ভিডিও দেখে ও খেজুর বাগান পরিদর্শন করে ২০১৯ সালের মে মাসে বন্ধুদের মাধ্যমে প্রথমে সৌদি আরব থেকে বীজ আনি। পরে রংপুর, গাজীপুর, নরসিংদী থেকেও সৌদি খেজুরের চারা সংগ্রহ করে বাড়ির পশ্চিম পাশের জমিতে রোপণ করি। দুই বিঘা জমিতে ১০০ খেজুরের চারা লাগাতে খরচ হয় প্রায় চার লাখ টাকা। নিজের মতো করে গাছের পরিচর্যা করতে থাকি। পরে গাছের যত্ন নিয়ে বাগান করতে সক্ষম হই। পাশাপাশি নার্সারিও করি। নার্সারিতে বিভিন্ন দামে খেজুর চারা বিক্রি হচ্ছে।

সৌদি খেজুর-চারা বিক্রি করে লাখ টাকা আয় সোলায়মানের

তিনি বলেন, ইচ্ছা ও পরিশ্রমই মানুষের ভাগ্য ঘুরিয়ে দিতে পারে। উদ্যম নিয়ে নিরলসভাবে পরিশ্রম করে গেলে সফলা আসে।

সৌদি খেজুর-চারা বিক্রি করে লাখ টাকা আয় সোলায়মানের

সোলায়মানের বাবা দলিল উদ্দিন খান বলেন, ছেলেকে খেজুর বাগান করার জন্য জমি দিছি। এখন সাফল্য এসেছে। খেজুর ও চারা বিক্রি করে ছেলের সংসার ভালোই চলে। আজও আটটি বড় খেজুর গাছ বিক্রি করেছি দেড় লাখ টাকায়।

সৌদি খেজুর-চারা বিক্রি করে লাখ টাকা আয় সোলায়মানের

স্থানীয় নাগেরপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মোজাম্মেল খান বলেন, সৌদির খেজুর চাষ করে লাভবান সোলায়মান। তার গাছে খেজুর ধরেছে। এমন উদ্যোগ নিলে দেশে খেজুরের চাহিদা কিছুটা হলেও পূরণ করবে।


আরও খবর