Logo
আজঃ Monday ০৮ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড নিখোঁজ সংবাদ প্রধানমন্ত্রীর এপিএসের আত্মীয় পরিচয়ে বদলীর নামে ঘুষ বানিজ্য

মাদারীপুরে জনসভায় ১০ লাখ লোক সমাগমের টার্গেট

প্রকাশিত:Thursday ২৩ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৫৮জন দেখেছেন
Image

স্বপ্নের পদ্মা সেতু উদ্বোধন হবে শনিবার (২৫ জুন)। উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অংশ নেবেন বিরাট জনসভায়। তার আগমন ও জনসভাকে ঘিরে মাদারীপুরে চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি।

জনসভা মঞ্চের প্রস্তুতি প্রায় শেষ করেছে প্রশাসন। এ উপলক্ষে গত কয়েকদিন ধরেই আওয়ামী লীগের নেতারা জেলা ও উপজেলা থেকে ইউনিয়ন, ওয়ার্ড পর্যায়ে দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। পাশাপাশি মাঠ প্রস্তুতের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে।

প্রধানমন্ত্রীর আগমনকে ঘিরে ১০ লাখেরও বেশি লোক সমাগম করার টার্গেট নিয়ে মাঠে কাজ করেছেন আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে প্রস্তুত রয়েছে জেলা পুলিশ।

এলাকাবাসী ও সভামঞ্চের সংশ্লিষ্টরা জানান, শনিবার সকালে মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া ও শরীয়তপুরের জাজিরা রুটের পদ্মা নদীতে নির্মিত পদ্মা সেতু আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সশরীরে উপস্থিত থেকে সেতুর উদ্বোধন করবেন। প্রধানমন্ত্রীর সফরকে কেন্দ্র করে চলছে সার্বিক প্রস্তুতি। তাকে বরণ করতে দলীয় নেতাকর্মীরা নিরলস কাজ করছেন। দফায় দফায় কেন্দ্রীয় নেতারা সভাস্থল পরিদর্শন করছেন।

শিবচর উপজেলা জনস্বাস্থ্য উপ-সহকারী প্রকৌশলী শামীমা আক্তার জানান, দূর-দূরান্ত থেকে আসা মানুষজন সভাস্থলে যাতে সুপেয় পানি পান করতে পারেন সেজন্য পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নিয়েছে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর। জনসভাস্থলে দুটি সাবমারসিবল পাম্পসহ দুটি নলকূপ বসানো হয়েছে। ১২টি উচ্চ জলাধার স্থাপনের মাধ্যমে ৫০০ ট্যাপের মাধ্যমে পাইপে পানি সরবরাহ করা হবে। জনসভাস্থলে ২৫টি ভিআইপি ল্যাট্রিনসহ প্রায় ৫০০ শৌচাগার নির্মাণ করা হয়েছে।

শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা শশাংক চন্দ্র ঘোষ জানান, মাদারীপুর স্বাস্থ্য বিভাগের উদ্যোগে তিনটি পূর্ণাঙ্গ হাসপাতাল স্থাপন করা হয়েছে। এই হাসপাতালে প্রয়োজনে রক্তদানসহ যাবতীয় সমস্যার চিকিৎসা দেওয়া হবে। এরমধ্যে তিনটি হাসপাতালের একটি ২০ শয্যা ও দুটি ১০ শয্যা করা হয়েছে। ওই হাসপাতালে মেডিসিন, সার্জারি, গাইনি, কার্ডিওলজি ও অর্থোপেডিক ও অ্যানেস্থেসিয়াসহ ছয়জন অভিজ্ঞ কনসালটেন্ট থাকবেন।

প্রতিটি হাসপাতালে ১৫ জন চিকিৎসক কাজ করবেন। প্রায় ৫০ জন মেডিকেল অফিসার নিয়োজিত থাকবেন। এর মধ্যে একটি আইসিউ অ্যাম্বুলেন্স থাকবে। পাঁচটি অ্যাম্বুলেন্স রাখা থাকবে জনসভাস্থলে। নার্স-চিকিৎসক ২১০ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করবেন।

padma

শিবচর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডা. মো সেলিম জানান, পদ্মা সেতুর জন্য নির্মিত হাইওয়ে এক্সপ্রেসওয়েকে সাজানো হয়েছে দলীয় নেত্রীর ব্যানার-পোস্টার দিয়ে। মোড়ে মোড়ে নির্মাণ করা হয়েছে জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী ছবির তোরণ। জনসভা মঞ্চের পাশের পদ্মা নদীতে বিভিন্ন রং-বেরঙের নৌকা সাজানো হয়েছে। বর্ণিল বিভিন্ন সাজে সাজানো হয়েছে পুরো জনসভাস্থল। কর্মসূচি সফল করতে দলীয় নেতাকর্মীরা দিনরাত কাজ করে যাচ্ছেন।

মাদারীপুরের পুলিশ সুপার মোখলেসুর রহমান জানান, নিরাপত্তার জন্য ছয়টি ওয়াচ টাওয়ার তৈরি করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর আগমনকে ঘিরে ১০ লাখেরও বেশি লোক সমাগম হবে। জনসভাস্থল ও তার আশপাশের পুরো এলাকা সিসি ক্যামরার আওতায় নেওয়া হয়েছে।

জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুন জানান, জনসভাস্থল ও আশপাশের এলাকার জন্য মোবাইল নেটওয়ার্ক চালু রাখার জন্য জনসভাস্থলে অস্থায়ীভাবে দুটি মোবাইল টাওয়ার স্থাপন করা হয়েছে। পল্লি বিদ্যুতের পাশাপাশি জেনারেটরের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। শিবচর উপজেলার কাঠালবাড়ি এলাকার পদ্মা নদীর পাড়েই সভামঞ্চ সাজানোর কাজ চলছে পুরোদমে।

জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী বলেন, এই জনসভা হবে ৭ মার্চের পরে সবচেয়ে বড় ও গুরুত্বপূর্ণ জনসভা। এই জনসভা ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের জনসভা। এই জনসভা আমাদের অহংকারের জনসভা। এই জনসভা প্রেস্টিজের জনসভা।


আরও খবর



প্রধানমন্ত্রীর চায়ের আমন্ত্রণ নিয়ে সন্দেহ রিজভীর

প্রকাশিত:Monday ২৫ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ০৫ August ২০২২ | ২৫জন দেখেছেন
Image

হঠাৎ করে বিএনপিকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরম সুরে কথা বলছেন, চায়ের দাওয়াত দিচ্ছেন, এসব স্বাভাবিক বিষয় না, এর ভেতর নতুন ষড়যন্ত্র রয়েছে বলে দাবি করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

সোমবার (২৫ জুলাই) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে জাতীয়তাবাদী ওলামা দলের বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

‘প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ঘেরাও করতে এলে বিএনপিকে চা খাওয়াব’ শেখ হাসিনার এমন বক্তব্য প্রসঙ্গে রিজভী বলেন, আপনার চায়ের দাওয়াত, সেই চায়ের মধ্যে কি থাকবে এটা জনগণের মধ্যে বড় প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। শেখ হাসিনার সেই চায়ের দাওয়াতে মানুষের প্রশ্ন। বিরোধী দলকে ডেকে তিনি কি খাওয়াবেন? এর মধ্যে কি দেবেন? ধুতুরার ফুল থাকবে নাকি হ্যামলোকের রস থাকবে। এটা মানুষের মনে প্রশ্ন উঠেছে।

তিনি বলেন, শান্তিপূর্ণভাবে ঘেরাও কর্মসূচি করলে চায়ের দাওয়াত দেব; হঠাৎ আপনার গলার সুর এত নরম হলো কেন? এটাতো অদ্ভুত ব্যাপার। আপনার গলার সুর যখন ক্ষীণ হয় তখন বুঝতে হয় বিরোধীদলের ওপর মনে হয় আরও কিছু ভয়ংকর নির্যাতন নেমে আসছে।

রিজভী বলেন, আপনি এর আগেও বলেছেন বিএনপিকে আপনারা মামলার কাগজগুলো পাঠান। তখন আমরা দেখেছি আরও ব্যাপকভাবে মামলা দিয়েছেন। বিএনপির যেই নেতা মারা গেছেন সেই লাশের নামে, যিনি হজ করতে গেছেন তার নামে, জেনে হাসপাতালে চিকিৎসারত আছেন তার নামে।

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে তিনি আরও বলেন, আপনি লুটপাট করছেন। আপনার রাষ্ট্রীয় অর্থনীতি জনগণের টাকা। আপনার কোনো মায়া-মমতা নেই প্রধানমন্ত্রী। আপনার সাধারণ সম্পাদককে দিয়ে বলাচ্ছেন যে দেশে কোনো সংকট নেই।

রিজভী বলেন, নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার কি এটা জানার জন্য দেশের জনগণের কোনো ইউনিভার্সিটি থেকে ডিগ্রি নেওয়ার দরকার নেই, কোনো ইউনিভার্সিটিতে ভর্তি হওয়ার দরকার নেই। ওবায়দুল কাদের শেখ হাসিনারা যে দৃষ্টান্ত দিয়েছেন এই দৃষ্টান্তই হচ্ছে বিরাট শিক্ষা।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী আপনি বলে দেন। ‘১৯৯৫-৯৬ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের জন্য, নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের জন্য আমরা আওয়ামী লীগ যা করেছি। এ দৃষ্টান্তের আমরা আগুন লাগাবো না মানুষ মারবো না কিন্তু আন্দোলন করে কিভাবে দাবি আদায় করতে হয় গণতন্ত্রের স্বার্থে জনগণের স্বার্থে জনগণের স্বাধীনতার পক্ষে সেটা আমরা প্রতিষ্ঠা করব।

রিজভী বলেন, কাদের সাহেবরা প্রায়ই বলে থাকেন এটা সংবিধানে নেই। ৯৫-৯৬ সালে এটা সংবিধানের আসলো কি করে। এটার দৃষ্টান্ত তো আপনারাই দেখিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রীকে আমি বলব তিনি বলছেন সংকট নেই। কিন্তু সংকট হলে এর যে পরিণতি হবে; প্রধানমন্ত্রী আপনাকে বলি আপনার সাধারণ সম্পাদকরা তখন কিন্তু আপনার বিরুদ্ধে সাক্ষী দেবে। সেই শিক্ষাটাও এর আগে আমরা পেয়েছি। আপনি কোথা থেকে চাঁদা নিয়েছেন সেটা ওবায়দুল কাদের, শেখ সেলিম সব বলে দিয়েছে গোয়েন্দাদের কাছে।

বিএনপির এই মুখপাত্র বলেন, এমপি মন্ত্রীরা বলছেন এটা সংবিধানে নেই, দেওয়া যাবে না। কি করে দেওয়া যাবে সেটা আপনাদের কাছ থেকে আমরা শিখেছি। প্রধানমন্ত্রী আপনি সাবধান থাকবেন। এই সংকটের পরিণতিতে আপনার আশপাশের লোকেরা আপনার বিরুদ্ধে সাক্ষী দেবে। কারা মেগা প্রজেক্টের টাকা বিদেশে প্রচার করেছে, কারা ব্যাংকের টাকা লোপাট করেছে, উচ্চমূল্যে সুদে ঋণ নিয়ে যে পদ্মা সেতু তৈরি করেছেন। এটা করতে গিয়ে জনগণের যে টাকা হরিলুট হয়েছে এটা জনগণ জানতে চাইবেই।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর শরাফত আলী সপু, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম, তাঁতি দল নেতা কাজী মনিরুজ্জামান ও নির্বাহী কমিটির সদস্য আমিনুল ইসলাম।


আরও খবর



পাকিস্তানে নিখোঁজ সামরিক হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত, নিহত ৬

প্রকাশিত:Tuesday ০২ August 2০২2 | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ২১জন দেখেছেন
Image

পাকিস্তানের বেলুচিস্তানে নিখোঁজ হওয়া সামরিক হেলিকপ্টারটি বিধ্বস্ত হয়েছে। এতে প্লেনে থাকা ছয় সেনা সদস্যই প্রাণ হারিয়েছেন। মঙ্গলবার (২ আগস্ট) দেশটির আইএসপিআর এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

পাকিস্তানে ৬ সেনা কর্মকর্তাকে নিয়ে সামরিক হেলিকপ্টারটি নিখোঁজ হয় স্থানীয় সময় সোমবার। বন্যাকবলিত এলাকায় ত্রাণ অভিযান পরিচালনার সময় দেশটির দক্ষিণাঞ্চলে ওই হেলিকপ্টারটি নিখোঁজ হয়।

এর আগে সেনাবাহিনী এক বিবৃতিতে জানায়, সোমবার কর্মকর্তাদের নিয়ে দক্ষিণাঞ্চলীয় বেলুচিস্তান প্রদেশের লাসবেলা শহরে ত্রাণ অভিযান চালানোর সময় এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের সঙ্গে ওই হেলিকপ্টারের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

স্থানীয় পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়, ওই হেলিকপ্টারটি ছয় ঘণ্টার বেশি সময় ধরে নিখোঁজ রয়েছে। নিখোঁজের পর থেকে ওই হেলিকপ্টারটি ট্রেস করাও সম্ভব হয়নি। এছাড়া খারাপ আবহাওয়ার কারণে উদ্ধার অভিযান বন্ধ রাখা হয়। মঙ্গলবার সকালে আবারও উদ্ধার অভিযান শুরু হবে।

পাকিস্তানের দক্ষিণাঞ্চলে ভয়াবহ বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। শত শত বাড়ি-ঘর বন্যার পানিতে ভেসে গেছে। দেশটিতে বর্ষা শুরু হওয়ার পর এখন পর্যন্ত হওয়া নানা দুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা ৩২০ ছাড়িয়ে গেছে।


আরও খবর



লোডশেডিংয়ে বিপর্যস্ত সিরাজগঞ্জে তাঁতশিল্প

প্রকাশিত:Tuesday ০২ August 2০২2 | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ১৮জন দেখেছেন
Image

তাঁতশিল্পের ব্যাপক বিস্তারে অনেকটাই এই শিল্পনির্ভর সিরাজগঞ্জ জেলা। এখানকার উৎপাদিত তাঁতের শাড়ি, লুঙ্গি, গামছা, থ্রিপিছসহ বিভিন্ন পণ্য দেশের গণ্ডি পেরিয়ে এখন বিদেশে রপ্তানি হচ্ছে। গত দু’বছর করোনা ও বন্যায় এই শিল্পের ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়। এবার ঈদ উপলক্ষে দীর্ঘদিন তাঁত বন্ধ থাকার পর যখন শ্রমিকেরা কারখানায় ফিরছেন ঠিক তখনই শুরু হয়েছে লোডশেডিং।

বিদ্যুৎ স্বাভাবিক না থাকায় এ জেলার দক্ষিণাঞ্চলের বেলকুচি, চৌহালী, শাহজাদপুর, উল্লাপাড়া উপজেলার তাঁতশিল্প কারখানায় উৎপাদন ব্যাহত হচ্ছে। এছাড়া বিদ্যুৎ চালিত পাওয়ারলুম কারখানায় কমে যাচ্ছে কাপড় উৎপাদন। ফলে দিশেহারা এ অঞ্চলের শত শত তাঁত কারখানার মালিক ও শ্রমিকরা।

সরকারি একটি সূত্র থেকে জানা যায়, দেশব্যাপী এলাকা ভিত্তিক লোডশেডিংয়ের ঘোষণা দিয়েছে সরকার। বেলকুচির তামাই, চালা, চন্দনগাঁতি, শেরনগর, চৌহালীর, এনায়েতপুর, খুকনী, গোপরেখি, রুপনাই, গোপালপুর, বটতলা ও উল্লাপাড়া উপজেলায় খোঁজ নিয়ে জানা যায়, এসব এলাকায় অন্তত ৮৫ হাজার তাঁত শ্রমিক এ শিল্পের সঙ্গে জড়িত। ঘনঘন লোডশেডিংয়ের কারণে প্রায় পৌনে এক লাখ বিদ্যুৎচালিত তাঁতের চাকা কিছুক্ষণ চালু হওয়ার পরই বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। বিদ্যুৎ বিভ্রাটে পড়ে এসব কারখানার প্রায় ২৯ কোটি টাকার কাপড় উৎপাদন ও বিপণনে সমস্যা শুরু হয়েছে।

বেলকুচির শেরনগর ও চন্দনগাঁতি গ্রামের কয়েকটি তাঁত কারখানা ঘুরে দেখা যায়, বিদ্যুৎ না থাকায় শ্রমিকেরা অলস সময় কাটাচ্ছেন।

চন্দনগাঁতি গ্রামের পাওয়ারলুম শ্রমিক আব্দুস সাত্তার বলেন, আমি প্রায় ২৫ বছর হলো তাঁত শ্রমিক হিসেবে কাজ করে ৭ জনের সংসার পরিচালনা করে আসছি। কাজ যতোই কম থাকুক না কেন প্রতি সপ্তাহে কমপক্ষে ২ হাজার থেকে ৩ হাজার টাকা কামাই করি। কিন্তু এক সপ্তাহ হলো কারেন্টে ডিস্টার্ব (লোডশেডিং) থাকায় ঠিকমতো কাজ হচ্ছে না। যার কারণে এ সপ্তাহে আমার কামাইও কমে গেছে। কারেন্ট যদি এভাবে ডিস্টার্ব করতে থাকে তাহলে আমার মতো সবারই কামাই কমে যাবে। আর কামাই কমে গেলে তো সংসার চালাতে পারবো না।

jagonews24

শেরনগর গ্রামের তাঁত শ্রমিক রহিজ উদ্দিন বলেন, ‘এক সপ্তাহ হলো কারেন্ট জ্বালাতন শুরু করছে। যার কারণে আমাদের কাজ কাম কমে গেছে। এভাবে যদি কারেন্ট জ্বালায় তাহলে আমাদের আয় কমে যাবে। আয় যদি কমে যায় তাহলে সংসার চালবো কেমন করে। এ নিয়ে চিন্তা করে ঝিম ধরে বসে রয়েছি।’

আর তাঁত কারখানা মালিকরা জানান, লোডশেডিংয়ের কারণে আমাদের উৎপাদন ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। সবচেয়ে বড় কথা আমাদের বিদ্যুৎচালিত তাঁতের চাকা বন্ধ হওয়া মানে পরিবার নিয়ে চরম বিপদে পড়া।

তারা আরও বলেন, বিদুৎ সংকট দীর্ঘমেয়াদী হলে আমাদের অনেক ব্যবসায়ী বিপদে পড়ে যাবেন। কারণ আমরা অনেকেই লুঙ্গি ও শাড়ির কোম্পানিগুলো থেকে কাপড় দেওয়ার শর্তে অগ্রীম টাকা নিয়ে আছি। বিদ্যুৎ না থাকলে শ্রমিকেরা কাপড় উৎপাদন করতে পারবে না। আর আমরা কোম্পানিগুলোতে কাপড়ও দিতে পারবো না। আর কাপড় না দিতে পারলে আর অর্ডারও পাবো না। অর্ডার না পেলে ব্যবসায় লোকসান হয়ে যাবে।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ পাওয়ারলুম অ্যান্ড হ্যান্ডলুম ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শ্রী বৈদ্য নাথ রায় জানান, তাতের ওপর নির্ভর করে আমাদের সিরাজগঞ্জের মানুষের আয় ব্যয়। সাম্প্রতিক সময়ে যে লোডশেডিং শুরু হয়েছে তা যদি দীর্ঘ সময়ের জন্য থেকে যায় তাহলে তাঁতিদের ব্যবসা নষ্ট হয়ে যাবে। আর তাঁতের ব্যবসা টিকে না থাকলে এ এলাকার লাখ লাখ মানুষ বেকার হয়ে যাবে। তাই সরকারের ব্যবসায়ীদের দিকেও লক্ষ্য রাখা উচিত।


আরও খবর



চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

প্রকাশিত:Wednesday ০৩ August ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৮৫জন দেখেছেন
Image

নাজমুল হাসানঃ 

কুমিল্লায় চান্দিনা থানা পুলিশের মাদক বিরোধী বিশেষ অভিযানে ০৮ কেজি গাঁজাসহ ০১ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার হয়েছে।


বুধবার ৩ আগষ্ট সকালে ঢাকাগামী মহাসড়ক থেকে মাদক বহনের সময় নাহিদুল ইসলাম আকাশ চান্দিনা থানার পুলিশের হাতে আটক হন।


কুমিল্লা পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ (পিপিএম বার)  এর নির্দেশে চান্দিনা থানার অফিসার ইনচার্জ আরিফুর রহমানের সার্বিক তত্ত্বাবধানে উপপুলিশ পরিদর্শক এসআই মোঃ জহির উদ্দিন সঙ্গীয় ফোর্সসহ চান্দিনা থানা এলাকায় দিবাকালীন মোবাইল-৪ ডিউটি করাকালে ৩ আগস্ট সকাল  ৯.৪৫ মিনিটেরদিকে চান্দিনা থানাধীন  উপাজেলা রাস্তার মাথায় ঢাকাগামী মহাসড়কের উপর থেকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মাদক বহনকালে ০৮ কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী নাফিজুল ইসলাম আকাশ (২০), পিতা-নুরুল ইসলাম, গ্রাম- তেলিকোনা থানা- কোতয়ালী, জেলা -কুমিল্লা কে গ্রেফতার করেন।  



 গ্রেফতারকৃত মাদক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে মাদক মামলা রুজু পূর্বক বিজ্ঞ আদালতে প্রেরন করা হয়েছে। 


মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স রেখে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে সবাইকে কাজ করতে নির্দেশ দিয়েছেন চান্দিনা থানা অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) আরিফুর রহমান 


তিনি জানান,এই মাদক বিরোধী অভিযান অব্যাহত থাকবে।


আরও খবর



কুয়াকাটা সৈকতে সাঁতার না জানা পর্যটকের মৃত্যু

প্রকাশিত:Friday ২২ July 20২২ | হালনাগাদ:Thursday ০৪ August ২০২২ | ২৮জন দেখেছেন
Image

পটুয়াখালীর কুয়াকাটা সৈকতে গোসল করতে নেমে নাহিয়ান মাহাদি (১৮) নামের এক পর্যটকের মৃত্যু হয়েছে। তিনি সাঁতার জানতেন না বলে জানা গেছে।

শুক্রবার (২২ জুলাই) দুপুর ২টায় সৈকতের জিরো পয়েন্টের পশ্চিম পাশে পরিবারের সঙ্গে গোসল করতে নেমে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

মাহাদীর পরিবারের ২৩ জন সদস্য সকালে ঢাকার ধানমন্ডি থেকে কুয়াকাটায় বেড়াতে আসেন। পরে তারা হোটেল সমুদ্র বাড়ি রিসোর্টে অবস্থান করেন বলে জানিয়েছেন মাহাদির বড় বোন নামিরা জাহান ঐশি।

ঐশি আরও জানান, গোসল করার এক পর্যায়ে মাহাদিকে দেখতে না পেয়ে তারা খোঁজাখুঁজি শুরু করেন। একপর্যায়ে সি বিচের ভাঙনরোধে ব্যবহৃত দুটি জিও ব্যাগের মধ্যে পানিভর্তি গর্তে তাকে ডুবে থাকতে দেখা যায়। তাৎক্ষণিকভাবে তাকে কুয়াকাটা ২০ শয্যা হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

মাহাদী ধানমন্ডি এলাকার বংশাল থানার হাজি মোহাম্মদ নাছিম উদ্দিনের ছেলে। তিনি ধানমন্ডির একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র ছিলেন।

মহিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল খায়ের বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। আমরা পরিবারের সঙ্গে কথা বলছি। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ট্যুরিস্ট পুলিশ কুয়াকাটা জোনের সহকারী পুলিশ সুপার আবুল কালাম আজাদ পর্যটকের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।


আরও খবর