Logo
আজঃ Tuesday ২৮ June ২০২২
শিরোনাম
নাসিরনগরে বন্যার্তদের মাঝে ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ রাজধানীর মাতুয়াইলে পদ্মাসেতু উদ্ধোধন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল রূপগঞ্জে ভূমি অফিসে চোর রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা
মা মারা যাওয়ায় এক বছর যেতে না যেতেই মেয়ে পানিতে ডুবে মারা গেলো

মা মরেছে আগুনেপুড়ে মেয়ে মরল পানিতে ডুবে

প্রকাশিত:Sunday ২২ May 20২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ১২৫জন দেখেছেন
Image


নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

এক বছর আগে আগুন পোহাতে গিয়ে পুড়ে মারা গিয়েছিলেন মা।ওই নারীর দেড় বছর বয়সী শিশুটির মৃত্যু হয়েছে পানিতে ডুবে ।


বৃহস্পতিবার (১৯ মে) সকালে টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলার দিঘলকান্দী ইউনিয়নের বাদেপারশী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।


শিশুটির নাম মারিয়া আক্তার। সে গোপালপুর উপজেলার দিঘলআটা গ্রামের মিল্টন মিয়ার মেয়ে। তার মায়ের নাম আছিয়া বেগম।


ঘাটাইল থানার ওসি (তদন্ত) আব্দুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।


পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, মারিয়া জন্মের পর বাবার বাড়িতে বেড়াতে গিয়ে শীতে আগুন পোহানোর সময় আগুনে পুড়ে মারা যান আছিয়া বেগম। এরপর থেকে নানা-নানির কাছে বড় হচ্ছিল শিশু মারিয়া আক্তার।


বুধবার (১৮ মে) সকালে শিশুটি বাড়ির উঠানে খেলাধুলা করছিল। এক পর্যায়ে বাড়ির লোকজন তাকে খুঁজে পাচ্ছিলেন না। খুঁজে না পেয়ে শিশুটির নানা থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। বৃহস্পতিবার সকালে বাড়ির পাশের ডোবায় শিশুটির মরদেহ ভাসতে দেখেন প্রতিবেশীরা। পরে তারা ডোবা থেকে মরদেহ উদ্ধার করেন।


শিশু মারিয়া আক্তারের নানা লেবু মিয়া বলেন, ‘মারিয়ার বয়স যখন পাঁচ মাস তখন তার মা আমার বাড়িতে অবস্থানকালেই আগুন পোহাতে গিয়ে পুড়ে মারা যায়। মা মারা যাওয়ায় এক বছর যেতে না যেতেই মেয়েটা পানিতে ডুবে মারা গেলো। এই কষ্ট আমি কোথায় রাখবো?’


এ বিষয়ে ঘাটাইল থানার ওসি (তদন্ত) আব্দুল হক বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। তবে এ ঘটনায় পরিবার থেকে থানায় কোনো অভিযোগ করা হয়নি।


আরও খবর



নামাজের সময়সূচি : ১৭ জুন ২০২২

প্রকাশিত:Friday ১৭ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৫০জন দেখেছেন
Image

আজ শুক্রবার ১৭ জুন ২০২২ ইংরেজি, ০৩ আষাঢ় ১৪২৯ বাংলা, ১৬ জিলকদ ১৪৪৩ হিজরি। ঢাকা ও তার পার্শ্ববর্তী এলাকার নামাজের সময়সূচি তুলে ধরা হলো-

> জুমা- ১২:০৩ মিনিট।
> আসর- ৪:৩৯ মিনিট।
> মাগরিব- ৬:৫১ মিনিট।
> ইশা- ৮:১৮ মিনিট।
> ফজর (১৮ জুন)- ৩:৪৪ মিনিট।

> আজ সুর্যাস্ত- ৬:৪৭ মিনিট।
> আগামীকালের (১৮ জুন) সূর্যোদয়- ৫:১১ মিনিট।

বিভাগীয় শহরের জন্য উল্লেখিত সময়ের সঙ্গে যেসব বিভাগে সময় যোগ-বিয়োগ করতে হবে, তাহলো-

বিয়োগ করতে হবে-
> চট্টগ্রাম : -০৫ মিনিট
> সিলেট : -০৬ মিনিট

যোগ করতে হবে-
> খুলনা : +০৩ মিনিট
> রাজশাহী : +০৭ মিনিট
> রংপুর : +০৮ মিনিট
> বরিশাল : +০১ মিনিট

তথ্যসূত্র : ইসলামিক ফাউন্ডেশন


আরও খবর



কুমিল্লা সিটি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ চলছে

প্রকাশিত:Wednesday ১৫ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৫০জন দেখেছেন
Image

বহুল প্রত্যাশিত কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের নির্বাচন (কুসিক) শুরু হয়েছে। কুমিল্লা সিটির ভোটের সঙ্গে আজ পাঁচটি পৌরসভা, চারটি উপজেলা পরিষদ এবং দেড় শতাধিক ইউনিয়ন পরিষদের ভোটও অনুষ্ঠিত হবে। সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ইভিএম (ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে) ব্যবহার করে বিরতিহীনভাবে ভোট অনুষ্ঠিত হবে।

এদিকে কুসিক নির্বাচন ঘিরে সবার দৃষ্টি এখন সেখানে। যে কোনো নির্বাচনের তুলনায় বেশি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। এর মধ্যে আবার কাজী হাবিবুল আউয়াল কমিশনের অধীনে বড় কোনো নির্বাচন এটি। তাই এই নির্বাচনে কোনো ধরনের ফাঁক রাখতে চাচ্ছে না নির্বাচন কমিশন।

এরপরও ক্ষমতাসীন দলের মেয়র প্রার্থীর বিরুদ্ধে ভোটকক্ষে পেশিশক্তি প্রদর্শনের শঙ্কা করছেন স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। অন্যদিকে ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীও সদ্য সাবেক মেয়রের বিরুদ্ধে কালো টাকা বিতরণের অভিযোগ করেছেন।

এবার নির্বাচনে পাঁচজন মেয়রপ্রার্থী রয়েছেন। তবে মূল লড়াইটা হবে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আরফানুল হক রিফাত ও বিএনপি থেকে বহিষ্কৃত সদ্য সাবেক মেয়র মনিরুল হক সাক্কু এবং নিজাম উদ্দিন কায়সারে মধ্যে। আর সাক্কু তো গত দুই মেয়াদে মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলেন। বাকি দুজন প্রথমবারের মতো লড়াই করছেন। ফলে কুমিল্লাবাসীর মুখে এখন প্রশ্ন- সাক্কুর হ্যাটট্রিক নাকি নতুন মুখের অভিষেক।

রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. শাহেদুন্নবী চৌধুরী বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে সব কিছুই করা হয়েছে। কুমিল্লা জেলা ও পুলিশ প্রশাসন যথেষ্ট তৎপর। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কোনো শঙ্কার কারণ নেই।

কুমিল্লার পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু করতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তৎপর রয়েছে। দায়িত্বে কেউ গাফিলতি ও অনিয়ম করলে ছাড় দেওয়া হবে না। প্রত্যেক পুলিশ সদস্যদের দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করতে হবে।

তিনি জানান, কুসিক নির্বাচনে তিন হাজার ৬০৮ জন পুলিশ সদস্য মাঠে থাকবেন। সাধারণ ও গুরুত্বপূর্ণ ভোটকেন্দ্রে থাকবেন যথাক্রমে ১৫ ও ১৬ জন করে পুলিশ। এছাড়া আনসারসহ গ্রাম পুলিশের সদস্যরাও থাকবেন।

আর পুলিশের মোবাইল ফোর্স থাকবে ২৭টি, প্রতি ওয়ার্ডে একটি। স্ট্রাইকিং ফোর্স নয়টি। রিজার্ভ ফোর্স দুটি। আর বিজিবি মোতায়েন করা হবে ১২ প্লাটুন, র‌্যাবের ২৭টি টিম থাকবে। এছাড়া প্রতিটি ওয়ার্ডে একজন করে নির্বাচনী ম্যাজিস্ট্রেট ও নয়জন বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেট থাকবেন।

ভোটগ্রহণ কাজে নিয়োজিত থাকবেন দুই হাজার ৫৬০ জন কর্মকর্তা। তাদের মধ্যে প্রিসাইডিং অফিসার ৬৪০ জন, পোলিং অফিসার ১২৮০ জন এবং সহকারী পোলিং অফিসার ৬৪০ জন।

এদিকে এরই মধ্যে কুমিল্লা সিটির বিভিন্ন পয়েন্টে ৭৫টি চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। কেন্দ্রের বাইরে-ভেতরে বসানো হয়েছে সিসি ক্যামেরা।

রিটার্নিং কর্মকর্তার দপ্তর সূত্রে জানা যায়, এবার নির্বাচনে মোট ভোটার দুই লাখ ২৯ হাজার ৯২০ জন। এর মধ্যে নারী ভোটার এক লাখ ১৭ হাজার ৯২, পুরুষ ভোটার এক লাখ ১২ হাজার ৮২৬ জন। আর দুজন তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার।

মোট ১০৫টি কেন্দ্রের ৬৪০টি কক্ষে ভোটগ্রহণ হবে। মেয়র ছাড়াও সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১০৬ জন ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ৩৬ জন প্রার্থী হয়েছেন।


আরও খবর



জমি সংক্রান্ত সেবা নিতে অনলাইনে আবেদন ৩ জুলাই

প্রকাশিত:Thursday ১৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ২৬ June ২০২২ | ৩১জন দেখেছেন
Image

আগামী ৩ জুলাই থেকে জেলা প্রশাসক (ডিসি) কার্যালয়ের রেকর্ডরুম থেকে যে কোনো ধরনের খতিয়ান বা মৌজা-ম্যাপ সংক্রান্ত সেবা নিতে অনলাইনে আবেদন করতে হবে। ম্যানুয়াল আবেদন নেওয়া বন্ধের নির্দেশনা দিয়ে জেলা প্রশাসকদের কাছে চিঠি দিয়েছে ভূমি মন্ত্রণালয়। গত ১৩ জুন এ চিঠি পাঠানো হয়েছে।

চিঠিতে বলা হয়, এখন ভূমিসেবা প্ল্যাটফর্ম সাইট থেকে ডিজিটাল ল্যান্ড রেকর্ডস সিস্টেম ব্যবহার করে নাগরিকরা খতিয়ান বা মৌজাম্যাপ সংক্রান্ত যে কোনো সেবার জন্য আবেদন করতে পারছেন। সেবা গ্রহীতারা তাদের পছন্দ অনুযায়ী সরাসরি অফিস কাউন্টার থেকে বা ডাকযোগে ডেলিভারি নিতে পারছেন।

এছাড়াও তারা সার্ভিস চার্জ বা ডাকমাশুলসহ সব প্রযোজ্য ফি অনলাইনের মাধ্যমে দিতে পারছেন। তাই জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের রেকর্ডরুম সংক্রান্ত সেবা গ্রহণ বা দেওয়ার কোনো ধরনের নগদ অর্থের লেনদেন করারও প্রয়োজন হচ্ছে না। ১৬১২২ নম্বরে ফোন করেও একই সেবা নেওয়া যায়।

তবে এখনো কিছু জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে অবস্থিত রেকর্ডরুম থেকে খতিয়ানের স্বাক্ষরিত কপি বা মৌজাম্যাপ সংক্রান্ত সেবার আবেদন ডিজিটাল ল্যান্ড রেকর্ডস সিস্টেমস ছাড়া ম্যানুয়াল (কাগজে আবেদন) পদ্ধতিতে গ্রহণ করা হচ্ছে।

এমতাবস্থায়, নাগরিকদের ডিজিটাল ভূমিসেবা নিশ্চিতে রেকর্ডরুম থেকে যে কোনো ধরনের খতিয়ান বা মৌজা ম্যাপসংক্রান্ত সেবার ম্যানুয়াল আবেদন গ্রহণ বন্ধ রাখার জন্য অনুরোধ করে পত্র জারি করেছে ভূমি মন্ত্রণালয়।


আরও খবর



অস্বচ্ছতার অভিযোগ, জাবিতে রেজিস্ট্রার নিয়োগ বোর্ড স্থগিত

প্রকাশিত:Sunday ২৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ২০জন দেখেছেন
Image

অস্বচ্ছতার অভিযোগে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) রেজিস্ট্রার নিয়োগ বোর্ড বসার নির্ধারিত সময়ের আধাঘণ্টা আগে তা স্থগিত হয়েছে।

রোববার (২৬ জুন) বিকেল ৩টার দিকে নিয়োগ বোর্ডের সদস্য জাবির সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক শরীফ এনামুল কবীর জাগো নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

অধ্যাপক শরীফ এনামুল কবীর বলেন, ‘সিলেকশন কমিটিতে চ্যান্সেলর মনোনীত দুজন সদস্য না থাকা, বোর্ড বসার মাত্র কয়েক ঘণ্টা আগে প্রার্থীদের ইন্টারভিউ কল করা এবং একাডেমিক কাউন্সিল মনোনীত দুজন সদস্যের মেয়াদ শেষ হওয়ায় আজকের এই বোর্ড স্থগিত করা হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘রেজিস্ট্রারের পদ অধ্যাপকের পদের সমান। এ ধরনের মিটিং সাধারণত প্রার্থীদের তিন সপ্তাহ সময় দিয়ে ডাকা হতো। অপরিপক্কভাবে মিটিং কল করার কারণে এ ইন্টারভিউ বোর্ডটি বাতিল হয়। এটা আসলে দুঃখজনক।’

এরআগে, পছন্দের প্রার্থীকে রেজিস্ট্রার হিসেবে নিয়োগ দিতে তোড়জোড় করার অভিযোগ ওঠে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের বিরুদ্ধে। রোববার বিকেল সাড়ে ৩টায় নিয়োগ বোর্ড বসার কথা থাকলেও প্রার্থীরা জানতে পারেন মাত্র ৬ ঘণ্টা আগে। তাছাড়া বর্তমান ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার নিজেই এ পদের একজন প্রার্থী হয়ে ইন্টারভিউ কল চিঠি ইস্যু করেছেন।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্র জানায়, গত বছরের ১৬ জুন রেজিস্ট্রার, জনসংযোগ পরিচালক ও শারীরিক শিক্ষা অফিসের পরিচালক পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়। এর মধ্যে রেজিস্ট্রার বাদে অন্য দুটি পদে নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে।

রেজিস্ট্রার পদে আবেদন করেন বর্তমান ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ, উচ্চশিক্ষা ও বৃত্তি শাখার ডেপুটি রেজিস্ট্রার ড. আবুল কালাম আজাদ, ডেপুটি রেজিস্ট্রার (স্টোর) তাজনাহার বেগম, ডেপুটি রেজিস্ট্রার (শিক্ষা) আবু হাসান, ডেপুটি রেজিস্ট্রার (উচ্চশিক্ষা ও বৃত্তি-২) এবং ডেপুটি রেজিস্ট্রার (কাউন্সিল) এ বি এম কামরুজ্জামান।

এদের মধ্যে দুজন প্রার্থী রোবার দুপুর ১২টায় উপাচার্য বরাবর অস্বচ্ছতার অভিযোগ এনে ‘রেজিস্ট্রার নিয়োগ বোর্ড’ বাতিলের আবেদন করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে নিয়োগ বোর্ড স্থগিত করা হয়েছে।

জ্যেষ্ঠ প্রার্থীর আবেদনপত্রে উল্লেখ করা হয়, ‘সকাল ৯টা ১০ মিনিটে আমি রেজিস্ট্রার পদে নিয়োগ পরীক্ষা দেওয়ার জন্য একটি পত্র পেয়েছি। নিয়োগ পরীক্ষার দিন ইন্টারভিউ কার্ড দেওয়া প্রচলিত নিয়মের ব্যত্যয়। তাছাড়া প্রায় এক বছর আগে আহুত বিজ্ঞপ্তির নিয়োগ পরীক্ষা এতদিন পর আহ্বান করাও বিধেয় নয়। উপরন্তু, পরীক্ষা দেওয়ার জন্য প্রস্তুতি গ্রহণের প্রয়োজনীয় সময়টুকুও পর্যন্ত দেওয়া হয়নি। অনেকটা গোপনীয়তার সঙ্গে এই সাক্ষাৎকার অনুষ্ঠান আহ্বান করা হয়েছে।’

আবেদনপত্রে তিনি দাবি করেন, ‘ইন্টারভিউ কার্ড যিনি ইস্যু করেছেন তিনি নিজেও একজন প্রার্থী। আরেকজন ডেপুটি রেজিস্ট্রার এই নিয়োগ প্রক্রিয়ার সঙ্গে জড়িত। তিনিও একজন প্রার্থী। তারা যথাযথ প্রস্ততি নিয়ে ইন্টারভিউ দেওয়ার পর্যাপ্ত সুযোগ পাবেন। কিন্তু আমি তা পাইনি। তাই আমার পক্ষে আজকের ইন্টারভিউ বোর্ডে নিয়োগ পরীক্ষা দেওয়া সম্ভব নয়।’

আরেকজন প্রার্থী নিয়োগ বোর্ড বাতিলের আবেদন জানিয়ে বলেন, ‘হঠাৎ করে নিয়োগ বোর্ডর খবর শুনে আমি অত্যন্ত অবাক ও মর্মাহত হয়েছি। গত সিনেট সভায় সব সেশন বেনিফিট (চাকরির মেয়াদ) বাতিল হয়। তাহলে দুদিন পর সেশন বেনিফিট বাতিল হওয়া সত্ত্বেও কীভাবে রেজিস্ট্রারের পদোন্নতি রেগুলার করা সম্ভব? সেশন বেনিফিট বাতিলের দুদিন পর এই বোর্ড স্ববিরোধী।’

এদিকে প্রার্থীদের কাছে পাঠানো চিঠির একটি কপি জাগো নিউজের কাছে এসেছে। সেখানে দেখা যায়, চিঠিটি ২৩ জুন ইস্যু করা। সেখানে বলা হয়েছে, ‘গত বছরের ১৬ জুন তারিখের আবেদনের প্রেক্ষিতে রেজিস্ট্রার পদে নিয়োগের জন্য নির্বাচন কমিটির সভা ২৬ জুন বিকেল সাড়ে ৩টায় উপাচার্যের সভাপতিত্বে তার অফিস কক্ষে অনুষ্ঠিত হবে।’

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় অ্যাক্টের প্রথম স্ট্যাটিউটসের ২২ ধারা অনুযায়ী রেজিস্ট্রার নিয়োগের জন্য ৮ সদস্যের একটি নিয়োগ বোর্ড গঠন করতে হয়। যার প্রধান হন উপাচার্য। এই বোর্ডে উপাচার্য ছাড়া একাডেমিক কাউন্সিল থেকে মনোনীত দুজন, সিন্ডিকেট থেকে মনোনীত দুজন, আচার্য কর্তৃক মনোনীত দুজন ও উপাচার্য মনোনীত একজন সদস্য থাকেন।

নির্ভরযোগ্য তথ্যসূত্রে জানা গেছে, নিয়োগ বোর্ডে উপাচার্যের মনোনীত সদস্য হিসেবে আছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক রাশেদা আখতার, সিন্ডিকেট মনোনীত সদস্য হিসেবে সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. শরীফ এনামুল কবির ও সিদ্ধেশ্বরী কলেজের অধ্যক্ষ।

এছাড়া একাডেমিক কাউন্সিলের মনোনীত সদস্য হিসেবে রয়েছেন পরিসংখ্যান বিভাগের অধ্যাপক অজিত কুমার মজুমদার এবং নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের অধ্যাপক ড. আবুল কালাম। একাডেমিক কাউন্সিল মনোনীত এ দুই সদস্যদের মেয়াদ আজ শেষ হয়েছে।


আরও খবর



দূষণমুক্ত পরিবেশ উপহার দিতে কাজ করছে সরকার: পরিবেশমন্ত্রী

প্রকাশিত:Thursday ১৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৩০জন দেখেছেন
Image

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তনমন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন বলেছেন, জনগণকে দূষণমুক্ত পরিবেশ উপহার দিতে সরকার অঙ্গীকারবদ্ধ হয়ে কাজ করে যাচ্ছে। সরকারের এ অঙ্গীকারকে সুষ্ঠুভাবে বাস্তবায়নের জন্য পরিবেশ অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের আরও দায়িত্বশীল হয়ে কাজ করতে হবে।

বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) পরিবেশ অধিদপ্তর মিলনায়তনে বিশ্ব পরিবেশ দিবস ও পরিবেশ মেলা-২০২২ এর সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

পরিবেশমন্ত্রী বলেন, পানি দূষণ, বায়ু দূষণ, মাটি দূষণ ও শব্দ দূষণ হ্রাসের মাধ্যমে পরিবেশ সংরক্ষণ নিশ্চিত করতে মনিটরিং ও এনফোর্সমেন্ট কার্যক্রম জোরদার করা হয়েছে। বায়ু দূষণরোধে নির্দেশিকা প্রণয়ন করে তা বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। পোড়ানো ইটের পরিবর্তে পরিবেশবান্ধব ব্লক ইটের ব্যবহার বাড়ানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

‘শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণে সমন্বিত প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। সারাদেশে প্লাস্টিক বর্জ্য ব্যবস্থাপনার জন্য এরই মধ্যে ১০ বছর মেয়াদি কর্মপরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে এবং উপকূলীয় এলাকায় একবার ব্যবহার্য প্লাস্টিকের ব্যবহার বন্ধে ৩ বছর মেয়াদি বিশেষ কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে।’

পরিবেশমন্ত্রী আরও বলেন, পরিবেশ সংরক্ষণে পাহাড়, টিলা কর্তনকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। ই-বর্জ্য ও চিকিৎসা বর্জ্য নিয়ন্ত্রণে বিধিমালা প্রণয়ন করা হয়েছে। তরল বর্জ্য নির্গমণকারী শিল্পপ্রতিষ্ঠানগুলোকে বর্জ্য পরিশোধন ব্যবস্থা স্থাপন ও জিরো ডিসচার্জ পরিকল্পনা বাস্তবায়নে বাধ্য করা হচ্ছে।

পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় দেশব্যাপী ব্যাপক হারে বৃক্ষরোপণ করা হচ্ছে। দেশে জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ঝুঁকি মোকাবিলায় গৃহীত কার্যক্রম জোরদার করা হয়েছে।

তিনি বলেন, পরিবেশের মানোন্নয়ন, নির্মল পরিবেশ গড়ে তোলা ও বৃক্ষরোপণে সফলতা লাভ করতে সরকারের পাশাপাশি সর্বস্তরের জনগণের সক্রিয় অংশগ্রহণ একান্ত কাম্য।

তিনি সবাইকে নিজ নিজ সামর্থ্য অনুযায়ী বেশি বেশি গাছ লাগানোর জন্য আহ্বান জানান। পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. আবদুল হামিদের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক প্রাণ গোপাল দত্ত, গ্লোবাল সেন্টার অন অ্যাডাপটেশনের বিশিষ্ট ফেলো আবুল কালাম আজাদ, পিকেএসএফের চেয়ারম্যান ড. কাজী খলিকুজ্জামান আহমদ প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে মন্ত্রী বিশ্ব পরিবেশ দিবস উদযাপনের অংশ হিসেবে শিশু-কিশোরদের চিত্রাঙ্কন, আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় বিতর্ক ও স্লোগান প্রতিযোগিতায় বিজয়ী ও পরিবেশ মেলায় অংশগ্রহণকারী শ্রেষ্ঠ স্টলের প্রতিনিধিদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন।


আরও খবর