Logo
আজঃ Monday ০৮ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড নিখোঁজ সংবাদ প্রধানমন্ত্রীর এপিএসের আত্মীয় পরিচয়ে বদলীর নামে ঘুষ বানিজ্য

লিচুর বদলে বাবাকেই খুঁজে ফিরছে ছোট্ট ইসা

প্রকাশিত:Monday ০৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৭০জন দেখেছেন
Image

তিন ছেলে-মেয়ের মধ্যে সবার ছোট ইসা। শনিবারই বাবার সঙ্গে তার শেষ কথা হয়। বাসা থেকে বের হওয়ার সময় ইসাকে বাবা বলেছিলেন- ভালো করে লেখাপড়া করতে। ছেলেও আবদার করেছিলো লিচুর। কিন্তু বাবার সেই লিচুর অপেক্ষার প্রহর আর কোনো দিন শেষ হবে না ছোট্ট ইসার।

লিচুর বদলে এখন সে বড় বোন সায়মাকে নিয়ে বাবাকেই খুঁজে ফিরছে। বাবাকে শনাক্তে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে এসেছে তারা। ডিএনএ পরীক্ষার জন্য নমুনা দেবে।

ইসা ঘটনার ভয়াবহতা পুরোপুরি বুঝতে না পারলেও বোন সায়মা যেন ঠিকই বুঝেছে। তাই তার কাকা আনুসিল যখন সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছিলেন তখন পাশে দাঁড়িয়ে বারবার চোখ মুছছিলো সায়মা।

শনিবার রাতে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএম কনটেইনার ডিপোতে ভয়াবহ বিস্ফোরণের পর থেকেই তাদের বাবা আবুল হাসেম নিখোঁজ। তিনি একজন কাভার্ড ভ্যানচালক। সেদিন রাতে ঢাকা থেকে পোশাক পণ্য নিয়ে ডিপোতে এসেছিলেন।

নিখোঁজের বড় ভাই আনুসিল জানান, নুসরাত পরিবহন নামে একটি কাভার্ড ভ্যান চালাতেন হাসেম। ঘটনার দিন তাকে ফোন দিয়ে পোশাক পণ্য বিএম ডিপোতে আনতে বলা হয়। এরপর শনিবার রাতে ঢাকা থেকে সেগুলো নিয়ে তিনি ডিপোতে আসেন।

আনুসিল বলেন, ওইদিন রাতে আমার ভাই ফোন করে ফোরম্যান এবং তার স্ত্রীকে আগুন লাগার খবর জানান। তখন স্ত্রী বলেছিলেন তাকে চলে আসতে। কিন্তু ভাই, কিছুক্ষণ পর আসছেন বলে জানান। ঘটনার দিন যে ছেলেটা ভিডিও করে আগুন দেখাচ্ছিল সেই ভিডিওতে আমার ভাইকে হাঁটতে দেখা গেছে। কয়েকবার তাকে হাঁটতে দেখেছি সেখানে। এরপর থেকেই তার আর কোনো খোঁজ নেই।

নিখোঁজ হাসেমের দুই মেয়ে ও এক ছেলে। বড় মেয়ে সায়মা অষ্টম শ্রেণিতে পড়ে। আর ছোট মেয়ে পড়ে ষষ্ঠ শ্রেণিতে। সবার ছোট ছেলে মাদরাসায় তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ে।

ডিএনএ নমুনা দিতে আসা ছোট ছেলে ইসা বলে, বাড়ি থেকে বাবা বের হওয়ার সময় বলেছিল ভালো করে পড়াশুনা করতে।

শনিবার (৪ জুন) রাত সাড়ে ৯টার দিকে বিএম কন্টেইনার ডিপোতে আগুন লাগে। আগুন লাগার পর রাসায়নিকের কন্টেইনারে একের পর এক বিকট বিস্ফোরণ ঘটতে থাকলে বহু দূর পর্যন্ত কেঁপে ওঠে। অগ্নিকাণ্ড ও ভয়াবহ বিস্ফোরণে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪৯ জন হয়েছে।


আরও খবর



জমি নিয়ে বিরোধে প্রতিপক্ষের হামলায় প্রাণ গেলো বৃদ্ধের

প্রকাশিত:Friday ০৫ August ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ০৬ August ২০২২ | ১৪জন দেখেছেন
Image

নওগাঁর মান্দায় জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় ময়েজ উদ্দিন সরদার (৭০) নামের এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) রাত ১০টায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

এ ঘটনায় নিহতের বড় ছেলে খোরশেদ আলম বাদী হয়ে ১৪ জনকে আসামি করে থানায় হত্যা মামলা করেছেন। পুলিশ অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত চারজনকে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতাররা হলেন- মান্দা সদর ইউনিয়নের খাগড়াগ্রামের হাফেজ উদ্দিন (৪৫), রকিবুল ইসলাম রকি (২৫), নাজমুল হক (২২) ও জাহানারা বেগম (৫২)। আহতরা হলেন- একই গ্রামের মাসুদ রানা (৪৫), রাসেল রানা (৩৫), মেহেদী হাসান (৩২), মর্জিনা বেগম (৪০) ও নাসিমা বেগম (৩২)।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, খাগড়াগ্রামের হাফেজ উদ্দিনের সঙ্গে ময়েজ উদ্দিন সরদারের জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে বিরোধ চলে আসছিল। বৃহস্পতিবার সকালে আবারও তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে প্রতিপক্ষ হাফেজ উদ্দিন রকিবুল ইসলাম রকি, নাজমুল হকসহ কয়েকজন সংঘবদ্ধ হয়ে ময়েজ উদ্দিন সরদারের ওপর হামলা করে। হামলায় নারীসহ ছয়জন আহত হন।
এদের মধ্যে ময়েজ উদ্দিনের অবস্থা গুরুতর ছিল। তাকে উদ্ধার করে প্রথমে মান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে স্থানান্তর করা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ১০টার দিকে তিনি মারা যান।

মান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহিনুর রহমান জাগো নিউজকে বলেন, এ ঘটনায় থানায় একটি হত্যা মামলা হয়েছে। মামলার পর চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকি আসামিরা পলাতক রয়েছে। তাদেরও আটকের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।


আরও খবর



৫-১১ বছর বয়সীদের করোনার টিকাদান শুরু ১১ আগস্ট

প্রকাশিত:Sunday ০৭ August ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | জন দেখেছেন
Image

পাঁচ থেকে ১১ বছর বয়সী শিশুদের করোনাভাইরাস প্রতিরোধে পরীক্ষামূলক টিকাদান কার্যক্রম আগামী ১১ আগস্ট শুরু হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

তিনি বলেন, ‘শিশুদের জন্য আমরা ১৫ লাখ টিকা পেয়েছি। সবকিছু ঠিক থাকলে ১১ আগস্ট থেকে প্রথমে পরীক্ষামূলকভাবে টিকা দেওয়া হবে। পরে ২৬ আগস্ট থেকে পুরোদমে টিকাদান কার্যক্রম শুরু করা হবে।’

রোববার (৭ আগস্ট) দুপুর ১২টার দিকে রাজধানীর নিপসম অডিটেরিয়ামে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ-২০২২ উপলক্ষে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

জাহিদ মালেক বলেন, ‘করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে দেশে এখনো প্রথম, দ্বিতীয় ও বুস্টার ডোজ দেওয়া হচ্ছে। তবে প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজের টিকা পরে আর পাওয়া যাবে না। দ্বিতীয় ডোজের জন্য আমাদের কাছে যে পরিমাণ টিকা আছে, সেগুলোর মেয়াদ শেষ হয়ে যাবে। যারা এখনো টিকা নেননি, তারা দ্রুত টিকা নেন।’

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সারাদেশে সফলভাবে টিকা কার্যক্রম পরিচালনা করছি। ফলে আমরা করোনার সংক্রমণকে নিয়ন্ত্রণ করতে পেরেছি। কিন্তু এখনো অনেকে দ্বিতীয় ডোজ নেননি। তাদেরকে বলতে চাই, দ্বিতীয় ডোজ না নিলে কিন্তু বুস্টার ডোজও পাবেন না।’


আরও খবর



ম্যানেজার পদে নিয়োগ দেবে ইউএস-বাংলা

প্রকাশিত:Tuesday ১৯ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৪৮জন দেখেছেন
Image

ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স লিমিটেডে ‘ম্যানেজার/ডেপুটি ম্যানেজার’ পদে জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আগামী ২৫ জুলাই পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন।

প্রতিষ্ঠানের নাম: ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স লিমিটেড
বিভাগের নাম: ব্যাগেজ সার্ভিস

পদের নাম: ম্যানেজার/ডেপুটি ম্যানেজার
পদসংখ্যা: ০১ জন
শিক্ষাগত যোগ্যতা: স্নাতক/স্নাতকোত্তর
অভিজ্ঞতা: ০৫ বছর
বেতন: আলোচনা সাপেক্ষে

চাকরির ধরন: ফুল টাইম
প্রার্থীর ধরন: নারী-পুরুষ
বয়স: ২৮-৪০ বছর
কর্মস্থল: ঢাকা (শাহজালাল বিমানবন্দর)

আবেদনের নিয়ম: আগ্রহীরা [email protected] অথবা jobs.bdjobs.com এর মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন।

আবেদনের শেষ সময়: ২৫ জুলাই ২০২২

সূত্র: বিডিজবস ডটকম


আরও খবর



জলাবদ্ধতার কারণে নগরবাসীর কাছে সিসিক মেয়রের দুঃখ প্রকাশ

প্রকাশিত:Tuesday ১৯ July ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | ৪৩জন দেখেছেন
Image

সিলেট নগরীতে গত ১৬ জুলাই রাতে এক ঘণ্টার ভারী বৃষ্টিপাতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টির কারণে নগরবাসীর কাছে দুঃখ প্রকাশ করেছেন সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। তিনি বলেন, ভবিষ্যতে যাতে এমনটি না হয় সেজন্য সিসিক আটটি স্ট্রাইকিং টিম গঠন করেছে।

মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) দুপুরে সিলেট নগরভবনের কনফারেন্সরুমে এক সংবাদ সম্মেলনে মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী এসব কথা বলেন।

নগরে অতিবৃষ্টির কারণে সম্প্রতি সৃষ্ট জলাবদ্ধতা নিয়ে সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক) পদক্ষেপ নিয়েছে জানিয়ে মেয়র বলেন, বর্তমানে জলবায়ুর পরিবর্তনের কারণে সিলেটে বৃষ্টিপাত বেড়েছে, তাপমাত্রাও বেড়েছে। বৈশ্বিক আবহাওয়া পরিস্থিতিতে একটা অস্থিতিশীলতা বিরাজ করছে। এমন অবস্থায় সিলেটে গত ১৬ জুলাই রাতে রেকর্ড পরিমাণ বৃষ্টিপাত হয়। মাত্র ৫৮ মিনিটে ৭০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে। এর আগে এত অল্প সময়ে এত বেশি বৃষ্টি হয়নি। এটা অস্বাভাবিক ছিল। আর একারণে নগরে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়।

তিনি বলেন, বন্যা পরিস্থিতির কারণে বন্যার্তদের সহায়তা, বিদ্যুৎকেন্দ্র থেকে পানি নিষ্কাশনসহ নানাকাজে ব্যস্ত ছিলাম। এরপরই কোরবানির ঈদ আসলো। কোরবানির বর্জ্য পরিষ্কারে ব্যস্ত হয়ে পড়ে নগরভবনের পরিচ্ছন্নতা বিভাগ। মাঝখানের সময়টাতে ড্রেনেজ সিস্টেম পুরোপুরি পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা সম্ভব হয়ে ওঠেনি। পাশাপাশি আবাসিক ও বাণিজ্যিক এলাকাতে নাগরিকরাও ড্রেনের মধ্যে ময়লা-আবর্জনা ফেলেছেন।

মেয়র বলেন, অতিবৃষ্টির কারণে বিভিন্নস্থানে টিলার মাটি ধসে নালা-নর্দমার পানি প্রবাহ আটকে দিয়েছে। যার কারণেও জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। সবকিছুর পর আমি দায় মাথায় নিয়ে নগরবাসীকে আশ্বস্ত করতে চাই সামনেও অতিবৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে। অতিবৃষ্টিতে জলাবদ্ধতা ঠেকাতে সিলেট নগরজুড়ে আটটি স্ট্রাইকিং টিম তৈরি করা হয়েছে। যাদের সঙ্গে থাকবেন সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর, কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা। আমি নিজেও মনিটরিং করবো।

সংবাদ সম্মেলনের সিটি মেয়র বলেন, গত ১৬ জুলাই রাতে যে বৃষ্টি হয়েছে সেটা ছিল এ যাবতকালে সবচেয়ে কমসময়ে বেশি বৃষ্টিপাত। নগরের নিচু এলাকায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হওয়ার পাশাপাশি অনেক উঁচু এলাকায়ও পানি জমেছে। তবে সেই পানি আবার ঘণ্টা দেড়েকের মধ্যে নেমেও গেছে। এছাড়া সারাদিন রাস্তাঘাটে যে ময়লা জমে সেগুলো পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা হয় রাত ১২টার পরে। কিন্তু সেই রাতে বৃষ্টি শুরু হয়েছে সেগুলো পরিষ্কারের আগেই। এতে রাস্তার ময়লা-আবর্জনা ড্রেনে চলে গিয়ে পানি প্রবাহে বিঘ্ন সৃষ্টি করে।

তিনি বলেন, বিষয়টিকে গুরুত্বের সঙ্গে দেখে পরের দিন বিভিন্ন দায়িত্বশীল প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা, সুধীজন, বিশেষজ্ঞদের নিয়ে নগরভবনের সভাকক্ষে জরুরি মতবিনিময় করা হয়। জলবায়ু পরিস্থিতি পরিবর্তনের কারণে সামনেও এমন পরিস্থিতির সৃষ্টির আভাস জানাচ্ছে আবহাওয়া অফিস। এটিকে মাথায় রেখে আমরা কর্মপন্থা অবলম্বন করেছি। দিনে কিংবা রাতে যে কোনো সময় অতিবৃষ্টি হলে স্ট্রাইকিং টিম জলাবদ্ধতা ঠেকাতে মাঠে নামবে।

নাগরিকদের সচেতন হওয়ার আহ্বান জানিয়ে মেয়র বলেন, অনেক নাগরিক ময়লা-আবর্জনা, লেপ-তোশকও ড্রেনের মধ্যে ফেলছেন। এগুলো বন্ধ করতে হবে। সরকারি নির্দেশনায় তো এমন অপরাধে দুই লাখ টাকা অর্থদণ্ডের বিধান রয়েছে। আমরা তো সেটা প্রয়োগ করছি না। সবার সহযোগিতায় আমরা এ নগরকে সাজাতে চাই।

সংবাদ সম্মেলনে সিলেট আবহাওয়া অফিসের জ্যেষ্ঠ আবহাওয়াবিদ সাঈদ আহমদ চৌধুরী সাম্প্রতিক বৈশ্বিক আবহাওয়া পরিস্থিতি নিয়ে বিভিন্ন পরিসংখ্যান তুলে ধরেন। এসময় সিসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বিধায়ক রায়, সচিব ফাহিমা ইয়াসমিন, প্রধান প্রকৌশলী নূর আজিজুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন ।


আরও খবর



আকর্ষণীয় কভার লেটার লেখার কৌশল

প্রকাশিত:Wednesday ০৩ August ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | ১৩জন দেখেছেন
Image

বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে নিয়োগের জন্য প্রার্থীর জীবন বৃত্তান্ত চাওয়া হয়। সেখান থেকেই শিক্ষাগত এবং ব্যক্তিগত সব তথ্যই জানতে পারেন নিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান। নিয়োগকর্তাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চমৎকার একটি কভার লেটার খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আকর্ষণীয় একটি কভার লেটার আপনার সম্পর্কে আরও ভালো ধারণা দিতে পারে।

কভার লেটারের মাধ্যমে খুব সংক্ষেপে তুলে ধরা হয় আবেদনকারী সুনির্দিষ্ট কোনো পোস্টের জন্য কেন যোগ্য। আরেকটি দিক হলো, কভার লেটার মূলত সম্পূর্ণ সিভির সারসংক্ষেপ। কভার লেটার পড়ার মাধ্যমে নিয়োগকর্তা আবেদনকারীর সব যোগ্যতা এক দৃষ্টিতে দেখতে পারেন। যা আবেদনকারীর ব্যাপারে ইতিবাচক সিদ্ধান্ত নিতে তাকে উৎসাহিত করে।

যোগাযোগ বিশেষজ্ঞ ও গ্রেড অন দ্য জবের লেখক যোগি গ্লিকম্যান বলেছেন, কভার লেটার একজন এইচআর বা নিয়োগকর্তার দৃষ্টি আকর্ষণ করার সেরা সুযোগ। যুক্তরাজ্য-ভিত্তিক ক্যারিয়ার কৌশলবিদ এবং নকআউট সিভির লেখক জন লিস বলেছেন চাকরির কঠিন বাজারে নিজেকে আলাদা করে প্রেজেন্ট করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এর অন্যতম উপায় হচ্ছে একটি সঠিক ও আকর্ষণীয় কভার লেটার তৈরি করা।

>> কভার লেটার লেখার সময় অবশ্যই চাকরির বিজ্ঞাপন ভালোভাবে পড়ে নিন। যে প্রতিষ্ঠানে আপনার সিভি পাঠাচ্ছেন সেটির সম্পর্কে খুব ভালোভাবে রিসার্স করুন। কোম্পানিটি কী কাজ করে, সেখানে কাজের যোগ্যতা, কোম্পানির পেছনের সাফল্য, ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা জেনে নিন। এখন ইন্টারনেটে প্রায় সব ধরনের প্রতিষ্ঠানেরই তথ্য থাকে।

>> একই সিভি সব জায়গায় পাঠাবেন না। কভার লেটারে লেখা পরিবর্তন করুন। পদ ও প্রতিষ্ঠান অনুযায়ী আলাদাভাবে উপস্থাপন করুন। ১০টি প্রতিষ্ঠানে আবেদন করলে ১০ রকম লিখতে হবে। একেক প্রতিষ্ঠান, একেক কাজের কভার লেটারের বিষয় ভিন্ন রকম। ধরুন কোনো ব্যাংকে আবেদন করবেন সে ক্ষেত্রে আপনার সিভি হবে এক রকম। আবার যখন আপনি কোনো মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানিতে সিভি পাঠাচ্ছেন তার ধরন হবে অন্যরকম।

>> সিভিতে খুব স্পষ্ট করে আপনার কাজের পূর্ব অভিজ্ঞতা যদি থাকে তাহলে উল্লেখ করুন। এবং আপনার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনাও উল্লেখ করুন সেখানে। যে প্রতিষ্ঠানে যে কাজের জন্য আবেদন করছেন তার মূল্যবোধ, পেশাদারত্ব, লক্ষ্য-উদ্দেশ্যের সঙ্গে কীভাবে মানিয়ে নিতে পারবেন, কীভাবে দলের সদস্য হিসেবে আপনি কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারবেন। স্পষ্ট ভাষায় এটি উল্লেখ করতে হবে।

>> যতটা সম্ভব ছোট করে লেখার চেষ্টা করুন। তবে লেখার ভাষা যেন হয় স্পষ্ট। কভার লেটার পড়ে যেন বিরক্তি না আসে, সেদিকে খেয়াল রাখুন। চেষ্টা করুন ছোট ছোট বাক্যে নিজের আগ্রহ ও উদ্দীপনা প্রকাশ করতে। নিয়োগকর্তা যেন আপনার সঙ্গে কথা বলছেন, এমনভাবে কভার লেটার তৈরি করুন।

>> সম্বোধনের বেলায় প্রচলিত ডেয়ার স্যার দিয়ে শুরু করতে যাবেন না। যে প্রতিষ্ঠান বরাবর কভার লেটারটি লিখছেন ওয়েবসাইট থেকে প্রতিষ্ঠানের প্রধান বা নিয়োগকর্তার পদবি জেনে নিন। সেটি ব্যবহার করুন। এতে নিয়োগদাতা খানিকটা বেশি আকর্ষিত হবে আপনার কভার লেটারে। মূল কথা হচ্ছে প্রথম লাইন থেকেই আপনাকে নিয়োগদাতাকে আগ্রহী করে তুলতে হবে।

>> সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে ইন্টারনেট থেকে কোনো কভার লেটার হুবহু অনুকরণ না করে নিজের আগ্রহ ও উৎসাহ প্রকাশ পায়, এমন বাক্য দিয়ে কভার লেটার শুরু করুন। বানান বা বাক্যে যেন কোনো গ্রামারটিক্যাল ভুল না থাকে সেদিকে অবশ্যই খেয়াল রাখুন।

সূত্র: হার্ভার্ড বিজনেস রিভিউ


আরও খবর