Logo
আজঃ Tuesday ২৮ June ২০২২
শিরোনাম
নাসিরনগরে বন্যার্তদের মাঝে ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ রাজধানীর মাতুয়াইলে পদ্মাসেতু উদ্ধোধন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল রূপগঞ্জে ভূমি অফিসে চোর রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা

লিবিয়ার ভূমধ্যসাগর উপকূল থেকে পাঁচ শতাধিক বাংলাদেশী আটক

প্রকাশিত:Tuesday ২৬ April ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ১৯৩জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

ইউরোপে পাড়ি দেওয়ার প্রস্তুতিকালে লিবিয়ার ভূমধ্যসাগর উপকূল থেকে পাঁচ শতাধিক বাংলাদেশিকে আটক করেছে দেশটির পুলিশ।  গত শনিবার (২৩ এপ্রিল) তাদের আটক করা হয়।ভয়েস অব আমেরিকা এ খবর প্রকাশ করেছে।


লিবিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল এস এম শামীম উজ জামান এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, প্রাথমিকভাবে লিবিয়ার পুলিশ আমাদের ৫০০ জন বাংলাদেশিকে আটকের কথা জানিয়েছে। তবে আমরা এ পর্যন্ত ২৪০ জনের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পেরেছি। এটা এখন নিত্যদিনের ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে।


লিবিয়ার মিসরাতা সৈকত থেকে ইউরোপ যাত্রার প্রস্তুতিকালে ৫৪২ জন অভিবাসীকে আটক করে ত্রিপোলির নিরাপত্তাকর্মীরা। লিবিয়ার রাজধানী থেকে প্রায় ২০০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত মিসরাতা সমুদ্র সৈকতের অবস্থান।


আটক হওয়া অভিবাসীরা লিবিয়ার পশ্চিম উপকূল থেকে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দেওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। রাজধানী থেকে প্রায় ২০০ কিলোমিটার দূরে মিসরাতার সমুদ্র সৈকতের কাছে তাদের আটক করা হয়। তাদের একটি কেন্দ্রে রাখা হয়েছে।


আরও খবর



এবার গ্যাসের দাম একলাফে ৪৫ শতাংশ বাড়ালো পাকিস্তান

প্রকাশিত:Saturday ০৪ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৬২জন দেখেছেন
Image

আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) থেকে ঋণ পেতে এবার গ্যাসের দামও বাড়ালো পাকিস্তান। মাত্র এক সপ্তাহের ব্যবধানে জ্বালানি তেলের দাম দুই দফা বাড়ানোর পর শুক্রবার (৩ জুন) গ্যাসের দাম একলাফে ৪৫ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছে শাহবাজ শরিফের সরকার।

পাকিস্তানি সম্প্রচারমাধ্যম জিও টিভির খবরে জানা যায়, ২০২২-২৩ অর্থবছরের আনুমানিক রাজস্ব প্রয়োজনীয়তার (ডিইআরআর) ওপর ভিত্তি করে সুই নর্দান গ্যাস পাইপলাইনস লিমিটেডের (এসএনজিপিএল) জন্য ৪৫ শতাংশ এবং সুই সাউদার্ন গ্যাস কোম্পানির (এসএসজিসি) জন্য গ্যাসের দাম ৪৪ শতাংশ বাড়ানোর অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে আগামী ১ জুলাই থেকে।

নতুন ঘোষণা অনুসারে, এসএনজিপিএলের গ্রাহকদের জন্য প্রতি ইউনিট গ্যাসের দাম ২৬৬ দশমিক ৫৮ রুপি বাড়িয়ে ৮৫৪ দশমিক ৫২ রুপি এবং এসএসজিসির গ্রাহকদের জন্য প্রতি ইউনিটে ৩০৮ দশমিক ৫৩ শতাংশ বাড়িয়ে ১ হাজার ৭ দশমিক ৯২ রুপি নির্ধারণ করা হয়েছে।

এর আগে, আইএমএফের সঙ্গে সমঝোতার আশায় মাত্র এক সপ্তাহের ব্যবধানে দুইবার জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর ঘোষণা দেয় পাকিস্তান। গত শুক্রবার (৩ জুন) থেকে দেশটিতে পেট্রলের দাম প্রতি লিটারে ৩০ রুপি বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ২০৯ দশমিক ৮৬ রুপিতে। ডিজেলের দাম দাঁড়িয়েছে প্রতি লিটার ২০৪ দশমিক ১৫ রুপি। কেরোসিন বিক্রি হচ্ছে ১৮১ দশমিক ৯৪ রুপিতে (বেড়েছে প্রায় ২৭ রুপি)।

এর আগে গত ২৭ মে জ্বালানি তেলের দাম একই পরিমাণে বাড়িয়েছিল শাহবাজ প্রশাসন।

২০২২-২৩ অর্থবছরে বাজেটের ঘাটতি কমানোর লক্ষ্যে এর আগে বিদ্যুতের বেসিক শুল্ক বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে পাকিস্তানের জাতীয় বিদ্যুৎশক্তি নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষ (নেপ্রা)। শিগগির কার্যকর হবে তাদের এ সিদ্ধান্ত।

পাকিস্তানে বর্তমানে প্রতি ইউনিট বিদ্যুতে বেসিক শুল্ক দিতে হয় ১৬ দশমিক ৯১ রুপি। এটি আরও ৭ দশমিক ৯০ রুপি বাড়লে দেশটির জনগণকে প্রতি ইউনিটে শুল্ক দিতে হবে ২৪ রুপির বেশি, যা তাদের ওপর মূল্যস্ফীতির বোঝা আরও বাড়িয়ে দেবে।


আরও খবর



এবারের ঈদ ‘আনন্দ মেলায়’ নানা চমক

প্রকাশিত:Monday ২৭ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৩৩জন দেখেছেন
Image

প্রতিবারই ঈদ উপলক্ষে নির্মিত হয় জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘আনন্দ মেলা’র বিশেষ পর্ব। যেখানে বরাবরই থাকে নিত্য-নতুন চমক। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। এবারের আনন্দ মেলার সবচেয়ে বড় চমক থাকছে উপস্থাপনায়।

এ সময়ের জনপ্রিয় অভিনয়শিল্পী আফরান নিশোকে এবার দেখা যাবে অনুষ্ঠানটির উপস্থাপক হিসেবে। নিজের অভিনীত বিভিন্ন নাটকের জনপ্রিয় ৪-৫টি চরিত্রে হাজির হবেন তিনি। আর চরিত্রগুলোর মাধ্যমে তিনি সাজিয়ে তুলবেন পুরো আনন্দ মেলা। অনুষ্ঠানটি পরিকল্পনা করেছেন জগদীশ এষ। লিটু সাখাওয়াতের গ্রম্হনায় প্রযোজনা করেছেন আফরোজা সুলতানা ও হাসান রিয়াদ।

এবারের আনন্দ মেলা প্রসঙ্গে প্রযোজকদ্বয় জানান, শুধু উপস্থাপনাতেই নয়, পুরো আনন্দ মেলায় থাকছে বিভিন্ন চমক। আনন্দ মেলার জন্য এবার একটি থিম সং তৈরি করা হয়েছে। যেখানে কণ্ঠ দিয়েছেন বেলাল খান ও লিজা। থাকছে ঢাকা ব্যান্ডের মাকসুদের পরিবেশনা।

এছাড়াও রয়েছে নিশিতা বড়ুয়া, সাব্বির, লিজা ও রাজীবের কণ্ঠে একটি মৌলিক গান। সিনেমার গানের সঙ্গে নাচবেন চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাস ও চিত্রনায়ক সাইমন। থাকছে চিত্রনায়িকা নুসরাত ফারিয়ার নাচ। বিশেষ একটি পর্বে আড্ডায় অংশ নেবেন চিত্রনায়িকা পরীমনি ও তার স্বামী শরিফুল রাজ। চলচ্চিত্র অভিনেতা ইলিয়াস কাঞ্চন হাজির হবেন তার ছবির জনপ্রিয় নায়িকা অঞ্জনাকে নিয়ে। এছাড়াও থাকছে সমসাময়িক বিষয়ের ওপর ৩টি নাটিকা এবং মীরাক্কেলের কৌতুক অভিনেতাদের নিয়ে আড্ডা।

বিটিভির নিজস্ব স্টুডিওতে সম্প্রতি আনন্দ মেলার শুটিং সম্পন্ন হয়েছে। অনুষ্ঠানটি প্রচারিত হবে ঈদের দিন রাত ১০টার ইংরেজি সংবাদের পর


আরও খবর



স্বাস্থ্যখাতে বরাদ্দ বাড়ছে

প্রকাশিত:Thursday ০৯ June ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ২৬ June ২০২২ | ৪৩জন দেখেছেন
Image

২০২২-২০২৩ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা খাতে বরাদ্দ বাড়ছে। এবার এ খাতে প্রস্তাবিত বরাদ্দকৃত অর্থের পরিমাণ ৩৬ হাজার ৮৬৩ কোটি টাকা। গত বছর অর্থাৎ ২০২১-২২ অর্থবছরে এ খাতে বরাদ্দ ছিল ৩২ হাজার ৭৩১ কোটি টাকা। সে তুলনায় এ খাতে বরাদ্দ বেড়েছে চার হাজার ১৩২ কোটি টাকা।

বৃহস্পতিবার (৯ জুন) বিকেলে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল প্রাক্কলিত ছয় লাখ ৭৮ হাজার ৬৪ কোটি টাকার বাজেট উত্থাপন করেন, যা জিডিপির ১৫ দশমিক ২ শতাংশ। এসময় তিনি এসব তথ্য জানান।

বাজেট প্রস্তাবনায় অর্থমন্ত্রী পরিচালনসহ অন্যান্য খাতে মোট চার লাখ ৩১ হাজার ৯৯৮ কোটি টাকা এবং বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে দুই লাখ ৪৬ হাজার ৬৬ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করেন।

স্বাস্থ্যখাতের জরুরি চাহিদা মেটাতে থোক বরাদ্দ
বাজেট বক্তৃতায় বলা হয়, বিগত দুটি বাজেটেই কোভিড-১৯ মোকাবিলা ও স্বাস্থ্যখাতের উন্নয়নের লক্ষ্যে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে গুরুত্বপূর্ণ কার্যক্রম বাস্তবায়নের জন্য বিপুল বরাদ্দ রাখা হয়। স্বাস্থ্যখাতের যে কোনো জরুরি চাহিদা মেটানোর জন্য ওই দুই বছরের বাজেটে ১০ হাজার কোটি টাকা করে থোক বরাদ্দ রাখা হয়েছিল।

যদিও দেশে করোনা সংক্রমণ বর্তমানে অনেকটাই স্তিমিত হয়ে এসেছে, কিন্তু এর সম্ভাব্য পুনরাবির্ভাবের আশঙ্কা এখনও রয়ে গেছে। কারণ বিশ্বের অনেক দেশেই এখনও এ অতিমারির প্রকোপ বিদ্যমান। সুতরাং কোভিড-১৯ মোকাবিলা ও এর ফলে স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে সংঘটিত ক্ষতি পুষিয়ে নেওয়ার উদ্দেশ্যে আগামী অর্থবছরেও স্বাস্থ্যখাতের জরুরি চাহিদা মেটানোর জন্য পাঁচ হাজার কোটি টাকার থোক বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে।

মৌলিক গবেষণায় ফের ১০০ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব
দেশে চিকিৎসা বিজ্ঞানের মৌলিক ও প্রায়োগিক গবেষণার অবকাঠামো তৈরি ও গবেষণা কার্যক্রম প্রবর্তন করা, গবেষণালব্ধ জ্ঞান দেশের স্বাস্থ্যসেবা, স্বাস্থ্য শিক্ষা, জনস্বাস্থ্য, অনুজীব বিদ্যা, রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ইত্যাদির সার্বিক উন্নয়নে ও স্বাস্থ্য খাতের নতুন উদ্ভাবনের সক্ষমতা বৃদ্ধি ইত্যাদি লক্ষ্যকে সামনে রেখে বিগত অর্থবছরে ১০০ কোটি টাকার একটি ‘সমন্বিত স্বাস্থ্য-বিজ্ঞান গবেষণা ও উন্নয়ন তহবিল’গঠন করা হয়।

এ তহবিলকে কার্যকরভাবে পরিচালনার লক্ষ্যে ‘সমন্বিত স্বাস্থ্য-বিজ্ঞান গবেষণা ও উন্নয়ন তহবিল কার্যক্রম পরিচালনা সম্পর্কিত নীতিমালা-২০২০’ প্রণয়ন করা হয় এবং এ নীতিমালার আলোকে জাতীয় পর্যায়ের গঠিত কমিটি কাজ করছে। চলতি অর্থবছরে প্রতিযোগিতার ভিত্তিতে ২৩টি গবেষক/গবেষণা প্রতিষ্ঠান মৌলিক গবেষণা কার্যক্রম শুরুর জন্য নির্বাচিত হয়েছে।

সরকারি পর্যায়ে টিকা উৎপাদন ইউনিট স্থাপন
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা অনুসারে করোনাভাইরাসসহ সব ধরনের টিকা উৎপাদনের জন্য দেশে একটি মানসম্মত প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলতে শতভাগ সরকারি মালিকানাধীন এসেনশিয়াল ড্রাগস কোম্পানি গোপালগঞ্জে একটি টিকা উৎপাদন ইউনিট স্থাপনের উদ্যোগ নিয়েছে। এতে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক কারিগরি ও আর্থিক সহায়তা প্রদান করবে। টিকার জন্য বিদেশ নির্ভরতা লাঘবে এ প্রতিষ্ঠানে পর্যায়ক্রমে একটি আন্তর্জাতিক মানের টিকা গবেষণা ও উৎপাদন কেন্দ্রে পরিণত করা হবে।

স্বাস্থ্য ব্যবস্থা শক্তিশালী করতে নানা উদ্যোগ
কোভিড-১৯ হতে জনজীবন সুরক্ষার জন্য দ্রুত পরিকল্পনা গ্রহণ ও বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়। করোনা সংক্রমণরোধে প্রধান কার্যক্রমসমূহ হচ্ছে- দেশব্যাপী ৮৭৯টি কোভিড টেস্টিং ল্যাব স্থাপন, সংক্রমিত রোগীদের চিকিৎসায় ৮৯টি কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতাল প্রস্তুত করা, সারাদেশে মোট ১৩ হাজার ১৯৩টি কোভিড আইসোলেশন বেড ও এক হাজার ১৭৪টি কোভিড আইসিইউ বেড প্রস্তুত রাখা, ১১৯টি কেন্দ্রে সেন্ট্রাল অক্সিজেন লাইন স্থাপন, তিন ধাপে প্রায় ১০হাজার ডাক্তার নিয়োগ, ৫০ শয্যায় উন্নীত স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসমূহে ১০টি করে জুনিয়র কনসালটেন্টের (বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক) পদ সৃষ্টি ইত্যাদি। এছাড়া, দায়িত্ব পালনকালীন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুজনিত কারণে ক্ষতিপূরণ ও করোনা চিকিৎসায় নিয়োজিত ডাক্তার, নার্স ও অন্যান্য স্বাস্থ্যকর্মীদের সম্মানি প্রদান করা হয়।

কোভিড-১৯ সংক্রমণ হতে সুরক্ষায় ভ্যাকসিনেশন কার্যক্রম
কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ রোধ করে জনজীবন সুরক্ষায় প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী সরকার দেশের সব নাগরিককে বিনামূল্যে ভ্যাকসিন প্রদান কার্যক্রম চলমান আছে। প্রথমে মোট ৮০ শতাংশ মানুষকে টিকার আওতায় আনার পরিকল্পনা করা হয় এবং পরবর্তীতে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার সুপারিশ অনুসারে তা ৭০ শতাংশে নামিয়ে আনা হয়। এক্ষেত্রে শুরুতে ঝুঁকিপূর্ণ জনগণকে টিকা দেওয়া হলেও পরবর্তীতে প্রত্যন্ত অঞ্চলের জনগণ ও ভাসমান জনগোষ্ঠীসহ ১২ বছরের ঊর্ধ্বের সব নাগরিক টিকা প্রদান কার্যক্রমের আওতায় আনার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। দেশের বিভিন্ন সরকারি হাসপাতালে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন প্রদানের সেন্টার হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

করোনা ভাইরাসের সংক্রমনরোধে ২০২১ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি প্রথম ডোজের টিকা ও ৮ এপ্রিল দ্বিতীয় ডোজ এবং পরবর্তীতে প্রদেয় বুস্টার ডোজে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার অনুমোদিত টিকা প্রদান করা হয়। টিকা প্রদানে জেন্ডার সাম্যতা বিধান করা হয়। রাজধানীসহ সারাদেশে এ পর্যন্ত ১২ কোটি ৯ লাখ প্রথম ডোজ, ১১ কোটি ৮ লাখ কোটি ২য় ডোজ এবং এক কোটি ৫ লাখ বুস্টার ডোজ প্রদান করা হয়।

করোনাভাইরাসের অভিঘাত পেরিয়ে উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় প্রত্যাবর্তনের লক্ষ্য নিয়ে প্রস্তাবিত ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেটের আকার হচ্ছে ছয় লাখ ৭৮ হাজার ৬৪ কোটি টাকা। এবারের বাজেটের আকার যেমন বড়, তেমনি এ বাজেটে ঘাটতিও ধরা হয়েছে বড়।

অনুদান বাদে এই বাজেটের ঘাটতি দুই লাখ ৪৫ হাজার ৬৪ কোটি টাকা, যা জিডিপির সাড়ে ৫ শতাংশের সমান। আর অনুদানসহ বাজেট ঘাটতির পরিমাণ দুই লাখ ৪১ হাজার ৭৯৩ কোটি টাকা, যা জিডিপির ৫ দশমিক ৪০ শতাংশের সমান।

এটি বর্তমান সরকারের ২৩তম এবং বাংলাদেশের ৫১তম ও বর্তমান অর্থমন্ত্রীর চতুর্থ বাজেট। বাজেটে সঙ্গত কারণেই মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ, কৃষিখাত, স্বাস্থ্য, মানবসম্পদ, কর্মসংস্থান ও শিক্ষাসহ বেশকিছু খাতকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।


আরও খবর



‘সাঁতার জানলেও বুড়িগঙ্গায় পড়লে মানুষ মারা যাবে’

প্রকাশিত:Saturday ০৪ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৭৮জন দেখেছেন
Image

সাঁতার জানার পরও রাজধানীর চারপাশে প্রবহমান বুড়িগঙ্গা ও তুরাগ নদীতে কেউ পড়ে গেলে তিনি মারা যাবেন বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় নদী রক্ষা কমিশনের চেয়ারম্যান মনজুর এ চৌধুরী।

এর কারণ হিসেবে তিনি বলেছেন, এসব নদীর পানি বিষাক্ত হয়ে গেছে। তাই এ দুই নদীতে মার্চ ও এপ্রিলে যদি কেউ পড়ে মারা যান, তবে তিনি সাঁতার জানেন না, এ জন্য মারা যাবেন না; পানির বিষাক্ততার জন্য মারা যাবেন।

বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে শনিবার (৪ জুন) দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন মনজুর এ চৌধুরী। এ সভার আয়োজন করে হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশ (এইচআরপিবি)।

মনজুর এ চৌধুরী বলেন, তিনটি শুশুক ভুলক্রমে তুরাগ নদীতে এসেছিল। সেগুলোকে পিটিয়ে মারা হয়নি। তারা বিষাক্ত পানিতে এসে মারা গেছে। ঢাকাবাসীর জন্য পানি (চারপাশের নদী) মরণ হয়ে দেখা দিয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

ঢাকার চারপাশের নদ-নদীর পানির দূষণমুক্ত করতে কর্মপরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ২০২৩ সালের ১৭ মার্চের আগে এ নদীগুলোকে দূষণমুক্ত করা হবে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আগামী জন্মদিনের আগে তার স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর জন্য এসব নদ-নদী দূষণমুক্ত করা হবে।

এ প্রসঙ্গে নদী রক্ষা কমিশনের চেয়ারম্যান বলেন, ‘অনেকে বলেছেন, এটা অসম্ভব ব্যাপার। এত বছরে কেউ পারেনি। আমি তাদের বলি, নয় মাসে দেশ স্বাধীন করা গেলে চারটি নদী দূষণমুক্ত করা যাবে না, এটা হতে পারে না।’

মনজুর এ চৌধুরীর ভাষ্য, ‘ঢাকার চারপাশে দূষণের জন্য যদি কোনো একটা প্রতিষ্ঠানকে এককভাবে দায়ী করতে হয়, তাহলে আমি দায়ী করবো ঢাকা ওয়াসাকে। ঢাকায় যত মলমূত্র, এর ৯৯ দশমিক ৯৯ শতাংশ এ চারটা নদীতে যায়। এদের দায়িত্ব ছিল পয়ঃনিষ্কাশন লাইন করা। পয়ঃনিষ্কাশন লাইনের মাধ্যমে এসব যাওয়ার কথা ছিল ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্টে। কিন্তু তা সরাসরি গিয়ে পড়ছে নদীতে।’ খাল ও নালার দায়িত্ব ঢাকার দুই সিটি নেওয়া পর নদীর পানির দূষণমুক্ত করতে যথাযথ পদক্ষেপ না নেওয়ায় দুই সিটির কঠোর সমালোচনা করেন মনজুর এ চৌধুরী।

চাঁদপুরে একজন ‘বালুসন্ত্রাসী’কে উৎখাত করার পর প্রশাসনের শীর্ষ কর্মকর্তাদের বদলির ঘটনার হতাশা ব্যক্ত করে নদী রক্ষা কমিশনের চেয়ারম্যান বলেন, ‘চাঁদপুরে একজন বালুসন্ত্রাসী সাড়ে তিনশো বাল্কহেড দিয়ে মেঘনার মুখ চিরে চিরে খাচ্ছেন। কমিশনের পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসনকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছিল কীভাবে তাদের উৎখাত করতে হবে। তাদের সব ড্রেজার জব্দ করতে হবে। আমরা শেষপর্যন্ত তাদের উৎখাত করতে পেরেছি। কিন্তু সমস্যা হয়েছে এর কয়েক দিন পরে সেখানে জেলা প্রশাসক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক, মৎস্য কেন্দ্রের প্রধান ও নৌ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের বদলি করা হয়েছে।’


আরও খবর



মেসিদের নাচ দেখে নেইমার বললেন ‘ওরা কি বিশ্বকাপ জিতে গেছে?’

প্রকাশিত:Friday ০৩ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৬৪জন দেখেছেন
Image

ইতালিকে হারিয়ে ফাইনালিসিমা জেতার পর মাঠে বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস করেছে আর্জেন্টিনা ফুটবল দল। উদযাপন থামেনি ড্রেসিংরুমে গিয়েও। বরং ড্রেসিংরুমে আরও বেড়েছে মাত্রা। এক বছরের মধ্যে দ্বিতীয় শিরোপার উল্লাসে চির প্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিলকেও টেনে আনে আর্জেন্টিনার খেলোয়াড়রা।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া একটি ভাইরাল ভিডিওতে দেখা যায়, ব্রাজিলকে খুঁচিয়ে গান গাইছেন আর্জেন্টিনার খেলোয়াড়রা। সেই গানের কথাগুলো ছিল এমন, ‘কী হলো ব্রাজিল? পাঁচবারের চ্যাম্পিয়নরা কি ভয় পেয়ে গেলো?’

আর্জেন্টিনার ফুটবলারদের এমন উদযাপন স্বাভাবিকভাবেই ভালোভাবে নেয়নি ব্রাজিলের ভক্ত-সমর্থকরা। নিজেদের উল্লাসে আরেক দলকে টেনে আনায় সমালোচনাও শুনতে হয়েছে আলবিসেলেস্তেদের। যেখানে এবার খোদ যোগ দিলেন ব্রাজিল তারকা নেইমার জুনিয়রও।

ইনস্টাগ্রামে ফুটবল ইজ আর্ট নামের একটি প্রোফাইল থেকে আপলোড করা হয় আর্জেন্টিনার সেই গান গেয়ে উদযাপনের ভিডিও। সেখানে লিওনেল মেসি, অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়াদের কটাক্ষ করে মন্তব্যের ঘরে নেইমার লিখেছেন, ‘ওরা কি বিশ্বকাপ জিতে গেছে?’

মুহূর্তের মধ্যেই ভাইরাল হয়ে গেছে নেইমারের এই কমেন্ট। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ফুটবল ইজ আর্টের সেই ভিডিওতে যেখানে লাইক পড়েছে ২৮ হাজার ৬৭৬টি। সেখানে নেইমারের এক বাক্যের মন্তব্যে লাইক পড়েছে ২৮ হাজার ১৯২টি।

অবশ্য ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা দ্বৈরথ ব্যতীত ব্যক্তি ও খেলোয়াড়ি জীবনে মেসি ও নেইমার খুবই কাছের বন্ধু। দীর্ঘদিন একসঙ্গে বার্সেলোনায় খেলেছেন তারা। এখন রয়েছে প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ে। যেখানে মেসি ছাড়াও অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া, লেওনার্দো পারেদেসদের সঙ্গে খেলেন নেইমার।


আরও খবর