Logo
আজঃ Monday ২৭ June ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা নাসিরনগরে মুক্তিযোদ্বাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন পদ্মা সেতু দেখানোর কথা বলে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ জুরাইনে পাশের বাড়ির উপড় ধসে পড়েছে সেই ঝুকিপুর্ন ভবনটি

কুমিল্লার তিতাস ও মেঘনা উপজেলায় ইউপি নির্বাচনে বিজয়ী যারা !

প্রকাশিত:Thursday ১১ November ২০২১ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৬১৬জন দেখেছেন
ডেস্ক এডিটর

Image



বৃহস্পতিবার রাতে বেসরকারিভাবে প্রাপ্ত ফলাফল অনুযায়ী দুই উপজেলার ১২ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে জয়ি হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থীরা।দ্বিতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে কুমিল্লার মেঘনার আটটি এবং তিতাসের নয়টি ইউনিয়নে হয়েছে ভোটগ্রহণ।

 

বৃহস্পতিবার রাতে বেসরকারিভাবে প্রাপ্ত ফলাফল অনুযায়ী দুই উপজেলার ১২ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে জয়ি হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থীরা।অন্য ছয়টি ইউনিয়নে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী হিসেবে নির্বাচন করা স্বতন্ত্র প্রার্থীরা।এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন কুমিল্লা জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. দুলাল তালুকদার।

 

মেঘনা উপজেলার রাধানগর ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী মজিবুর রহমান, মানিকারচরে আওয়ামী লীগের জাকির হোসেন, চালিয়াভাঙ্গায় স্বতন্ত্র প্রার্থী হুমায়ুন কবির, ভাওরখোলায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম, লুটেরচরে নৌকা প্রতীকের সানাউল্লাহ সিকদার, গোবিন্দপুরে আওয়ামী লীগের মাইনুদ্দিন মুন্সি তপন ও বড়কান্দায় স্বতন্ত্র প্রার্থী ফারুক হোসেন রিপন জয়ী হয়েছেন।

 

এ উপজেলায় বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হয়েছেন চন্দনপুর ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ প্রার্থী আহসান উল্লা।এদিকে তিতাসের সাতানী ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী সামছুল হক, জগৎপুরে নৌকার প্রার্থী মজিবুর রহমান, বলরামপুরে আওয়ামী লীগের প্রার্থী নুরুন্নবী, কলাকান্দিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী ইব্রাহিম সরকার, ভিটিকান্দিতে আওয়ামী লীগ প্রার্থী বাবুল আহমেদ, নারানদিয়ায় আওয়ামী লীগ প্রার্থী আরিফুজ্জামান ভুইয়া খোকা, জিয়ারকান্দিতে আওয়ামী লীগ প্রার্থী আলী আশরাফ ও মজিদপুরে আওয়ামী লীগ প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম সরকার জয়ী হয়েছেন।এ উপজেলায় বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হয়েছেন সদর কড়িকান্দি ইউনিয়নের নৌকার প্রার্থী সাইফুল আলম মুরাদ।

 

-খবর প্রতিদিন/ সি.বা

নিউজ ট্যাগ: ইউপি নির্বাচন

আরও খবর



লিচুর বদলে বাবাকেই খুঁজে ফিরছে ছোট্ট ইসা

প্রকাশিত:Monday ০৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ২৬ June ২০২২ | ৫৫জন দেখেছেন
Image

তিন ছেলে-মেয়ের মধ্যে সবার ছোট ইসা। শনিবারই বাবার সঙ্গে তার শেষ কথা হয়। বাসা থেকে বের হওয়ার সময় ইসাকে বাবা বলেছিলেন- ভালো করে লেখাপড়া করতে। ছেলেও আবদার করেছিলো লিচুর। কিন্তু বাবার সেই লিচুর অপেক্ষার প্রহর আর কোনো দিন শেষ হবে না ছোট্ট ইসার।

লিচুর বদলে এখন সে বড় বোন সায়মাকে নিয়ে বাবাকেই খুঁজে ফিরছে। বাবাকে শনাক্তে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে এসেছে তারা। ডিএনএ পরীক্ষার জন্য নমুনা দেবে।

ইসা ঘটনার ভয়াবহতা পুরোপুরি বুঝতে না পারলেও বোন সায়মা যেন ঠিকই বুঝেছে। তাই তার কাকা আনুসিল যখন সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছিলেন তখন পাশে দাঁড়িয়ে বারবার চোখ মুছছিলো সায়মা।

শনিবার রাতে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএম কনটেইনার ডিপোতে ভয়াবহ বিস্ফোরণের পর থেকেই তাদের বাবা আবুল হাসেম নিখোঁজ। তিনি একজন কাভার্ড ভ্যানচালক। সেদিন রাতে ঢাকা থেকে পোশাক পণ্য নিয়ে ডিপোতে এসেছিলেন।

নিখোঁজের বড় ভাই আনুসিল জানান, নুসরাত পরিবহন নামে একটি কাভার্ড ভ্যান চালাতেন হাসেম। ঘটনার দিন তাকে ফোন দিয়ে পোশাক পণ্য বিএম ডিপোতে আনতে বলা হয়। এরপর শনিবার রাতে ঢাকা থেকে সেগুলো নিয়ে তিনি ডিপোতে আসেন।

আনুসিল বলেন, ওইদিন রাতে আমার ভাই ফোন করে ফোরম্যান এবং তার স্ত্রীকে আগুন লাগার খবর জানান। তখন স্ত্রী বলেছিলেন তাকে চলে আসতে। কিন্তু ভাই, কিছুক্ষণ পর আসছেন বলে জানান। ঘটনার দিন যে ছেলেটা ভিডিও করে আগুন দেখাচ্ছিল সেই ভিডিওতে আমার ভাইকে হাঁটতে দেখা গেছে। কয়েকবার তাকে হাঁটতে দেখেছি সেখানে। এরপর থেকেই তার আর কোনো খোঁজ নেই।

নিখোঁজ হাসেমের দুই মেয়ে ও এক ছেলে। বড় মেয়ে সায়মা অষ্টম শ্রেণিতে পড়ে। আর ছোট মেয়ে পড়ে ষষ্ঠ শ্রেণিতে। সবার ছোট ছেলে মাদরাসায় তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ে।

ডিএনএ নমুনা দিতে আসা ছোট ছেলে ইসা বলে, বাড়ি থেকে বাবা বের হওয়ার সময় বলেছিল ভালো করে পড়াশুনা করতে।

শনিবার (৪ জুন) রাত সাড়ে ৯টার দিকে বিএম কন্টেইনার ডিপোতে আগুন লাগে। আগুন লাগার পর রাসায়নিকের কন্টেইনারে একের পর এক বিকট বিস্ফোরণ ঘটতে থাকলে বহু দূর পর্যন্ত কেঁপে ওঠে। অগ্নিকাণ্ড ও ভয়াবহ বিস্ফোরণে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪৯ জন হয়েছে।


আরও খবর



অর্থায়নে পিছু হটা বিশ্বব্যাংক অভিনন্দন জানালো বাংলাদেশকে

প্রকাশিত:Saturday ২৫ June ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ২৫ June ২০২২ | ১৪জন দেখেছেন
Image

দেশীয় অর্থায়নে পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্প সঠিকভাবে সম্পন্ন করায় বাংলাদেশকে অভিনন্দন জানিয়েছে বিশ্বব্যাংক। একই সঙ্গে বাংলাদেশের দারিদ্র্য নিরসন ও প্রবৃদ্ধি বৃদ্ধিতে পদ্মা সেতু অবদান রাখবে বলেও আশা প্রকাশ করেছে সংস্থাটি।

বাংলাদেশে নিযুক্ত বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর মার্সি মিয়াং টেম্বন এসব কথা বলেছেন।

শনিবার (২৫ জুন) পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে তিনি বাংলাদেশের জনগণকে অভিনন্দন জানান।

মার্সি মিয়াং টেম্বন বলেন, সময় এসেছে বাংলাদেশ ও বিশ্বব্যাংকের মধ্যকার সম্পর্ককে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার। পদ্মা সেতু বাংলাদেশের জনগণ ও অর্থনীতিতে বহুমাত্রিক সুবিধা বয়ে আনবে। বাংলাদেশের দীর্ঘমেয়াদি উন্নয়ন সহযোগী হিসেবে বিশ্বব্যাংক এ স্বীকৃতি দেয় বলে উল্লেখ করেন তিনি।

মার্সি মিয়াং টেম্বন বলেন, এই সেতু দেশের সমন্বিত প্রবৃদ্ধি ত্বরান্বিত করতে এবং দারিদ্র্য হ্রাসে অবদান রাখবে।

পদ্মা সেতু প্রকল্পের নকশা চূড়ান্ত হওয়ার পর ২০১১ সালের এপ্রিল থেকে জুনের মধ্যে সেতু প্রকল্পে অর্থায়নের বিষয়ে বিশ্বব্যাংক, এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি), জাইকা ও ইসলামী উন্নয়ন ব্যাংকের (আইডিবি) সঙ্গে ঋণচুক্তি সই করে সরকার। কিন্তু নির্মাণকাজের তদারক করতে পরামর্শক নিয়োগে দুর্নীতির ষড়যন্ত্রের অভিযোগ আনে বিশ্বব্যাংক। এরপর একে একে সব অর্থায়নকারী প্রতিষ্ঠান প্রতিশ্রুত অর্থায়ন স্থগিত ঘোষণা করে।

বিশ্বব্যাংকসহ অন্যরা অর্থায়ন স্থগিত করার পর প্রকল্পে যুক্ত হওয়ার প্রস্তাব নিয়ে আসে মালয়েশিয়ার সরকার। এ নিয়ে কিছুদিন আলোচনা চলার পর তা আর এগোয়নি।

২০১২ সালের ৯ জুলাই মন্ত্রিপরিষদের এক বৈঠকে নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আন্তর্জাতিক অর্থলগ্নিকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকে পদ্মা সেতুর জন্য অর্থ না নেওয়ার কথা জানিয়ে দেয় সরকার।

অবশ্য ২০১৪ সালে তদন্ত শেষে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) জানায়, দুর্নীতির ষড়যন্ত্রের প্রমাণ পাওয়া যায়নি। ২০১৭ সালে কানাডার টরন্টোর এক আদালত জানায়, পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতির ষড়যন্ত্রের উপযুক্ত প্রমাণ পাননি তারা।


আরও খবর



সৌদিতে আরও এক বাংলাদেশি হজযাত্রীর মৃত্যু

প্রকাশিত:Friday ১৭ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৪১জন দেখেছেন
Image

সৌদি আরবে আরও এক বাংলাদেশি হজযাত্রীর মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) নোয়াখালী জেলার নুরুল আমিন (৬৪) পবিত্র মক্কা আল-মুকাররমায় ইন্তেকাল করেন। ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আইটি হেল্পডেস্কের প্রতিদিনের বুলেটিন থেকে এ তথ্য জানা গেছে। নুরুল আমিনের পাসপোর্ট নম্বর ইএফ ০৭৫৮০০৬।

চলতি বছরে এটা সৌদি আরবে বাংলাদেশি হজযাত্রীর দ্বিতীয় মৃত্যু। এর আগে গত ১১ জুন মো. জাহাঙ্গীর কবির (৫৯) নামের চাঁপাইনবাবগঞ্জের এক হজযাত্রী পবিত্র মক্কায় মারা যান।

এদিকে, বৃহস্পতিবার পর্যন্ত ১৫ হাজার ৭২৪ জন হজযাত্রী সৌদি আরবে পৌঁছেছেন। এরমধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনার তিন হাজার ৩৮৫ জন ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনার ১২ হাজার ৩৩৯ জন হজযাত্রী রয়েছেন।

বৃহস্পতিবার মোট ফ্লাইট পরিচালিত হয়েছে ৪২টি। এরমধ্যে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স পরিচালিত ২৪টি, সৌদি এয়ারলাইন্স পরিচালিত ১৩টি এবং ফ্লাইনাস এয়ারলাইন্স পরিচালিত ৫টি ফ্লাইট রয়েছে।

সৌদি আরবে চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ৮ জুলাই হজ অনুষ্ঠিত হবে। এবার সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজযাত্রীর কোটা চার হাজার জন। অন্যদিকে বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় কোটা ৫৩ হাজার ৫৮৫ জন।

হজযাত্রীদের সৌদি আরবে যাওয়ার ফ্লাইট গত ৫ জুন শুরু হয়েছে। সৌদি আরবে যাত্রার শেষ ফ্লাইট ৩ জুলাই। হজ শেষে ফিরতি ফ্লাইট শুরু হবে ১৪ জুলাই। ফিরতি ফ্লাইট শেষ হবে ৪ আগস্ট।


আরও খবর



ডিএনসিসির নারী কাউন্সিলরদের সনদ দেওয়ার এখতিয়ার নিয়ে রুল

প্রকাশিত:Sunday ০৫ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৮৯জন দেখেছেন
Image

মৃত ব্যক্তির উত্তরাধিকার, জাতীয়তা ও চারিত্রিক সনদপত্র দেওয়ার ক্ষমতা শুধুমাত্র সাধারণ কাউন্সিলরদের, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের এ বিধিমালার বৈধতা ও এখতিয়ার নিয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের (এলজিআরডি) সচিব, ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র আতিকুল ইসলাম এবং উত্তর সিটির সচিবকে বিবাদী করে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

একইসঙ্গে সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলরদের প্রতি এ সংক্রান্ত বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা দিয়ে মেয়রের দেওয়া আদেশের কার্যকারিতাও স্থগিত করেছেন আদালত।

ডিএনসিসির এক সংরক্ষিত কাউন্সিলের করা এ সংক্রান্ত রিট আবেদনের ওপর প্রাথমিক শুনানি নিয়ে রোববার (৫ জুন) হাইকোর্টের বিচারপতি মো. মুজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি খিজির হায়াতের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

এদিন আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিপুল বাগমার।

আদেশের বিষয়টি ইউনুছ আলী আকন্দ জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে উত্তর সিটি করপোরেশনের এমন সিদ্ধান্ত চ্যালেঞ্জ করে এ সংক্রান্ত রিটটি করেন উত্তর সিটির সংরক্ষিত কাউন্সিলর জাকিয়া সুলতানা।

আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দ জানান, ঢাকা উত্তর সিটির সচিব গত ২৮ নভেম্বর একটি দাপ্তরিক আদেশ জারি করেছেন। সেখানে বলা হয়, মৃত ব্যক্তির উত্তরাধিকার, জাতীয়তা ও চারিত্রিক সনদপত্র প্রদান করার দায়িত্ব সাধারণ কাউন্সিলরদের ওপর অর্পিত। সিটি করপোরেশন (কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলরদের দায়িত্ব, কার্যাবলি ও সুযোগ সুবিধা) বিধিমালা-২০১২ অনুচ্ছেদ নম্বর ৩(৩) অনুসারে এ দায়িত্ব সাধারণ কাউন্সিলরদের। এ জাতীয় সনদপত্র সংরক্ষিত আসনের কউন্সিলরদের প্রদান করার আইনগত/বিধিগত সুযোগ নেই।

এ আইনজীবী বলেন, সংবিধান অনুসারে সবার সমান অধিকার। কিন্তু সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলরদের সনদ প্রদান না করতে আদেশ জারি করে উত্তর সিটি করপোরেশন। তাই বিধিমালার ৩(৩) ধারা এবং সিটি করপোরেশনের দাপ্তরিক আদেশের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট করা হয়।

আবেদনে বিধিমালার ৩(৩) ধারা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না এবং সিটি করপোরেশনের দাপ্তরিক আদেশ কেন সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক হবে না- তা জানতে চেয়ে রুল জারির আর্জি জানানো হয়।

মৃত ব্যক্তির উত্তরাধিকার, জাতীয়তা ও চারিত্রিক সনদপত্র দেওয়ার ক্ষমতা শুধু সাধারণ কাউন্সিলরদের- সিটি করপোরেশনের এমন বিধিমালার বৈধতা ও এখতিয়ার নিয়ে গত ২২ ফেব্রুয়ারি রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) তিনজন সংরক্ষিত কাউন্সিলরের রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে এ রুল জারি করেন হাইকোর্টের বিচারপতি মামনুন রহমান ও খোন্দকার দিলীরুজ্জামানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ রুল জারির এ আদেশ দেন।

গত ১১ জানুয়ারি এ সংক্রান্ত রিট করেন দক্ষিণ সিটির সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর খালেদা আলম, শাহেদা বেগম ও নাসরিন রশিদ পুতুল।

ওই রিটে আইন সচিব, এলজিআরডি সচিব, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র এবং সচিবকে বিবাদী করা হয়েছিল।


আরও খবর



রুমে রুমে চা-শিঙাড়া খাওয়া বন্ধ করুন: কৃষিমন্ত্রী

প্রকাশিত:Thursday ১৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ২৬ June ২০২২ | ৪০জন দেখেছেন
Image

কৃষিপণ্যের জাত উদ্ভাবন হচ্ছে কিন্তু সম্প্রসারণ ঠিক ভাবে হচ্ছে না। এ নিয়ে কথা বলতে গিয়ে কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক কৃষি সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের সহকর্মীদের রুমে রুমে গিয়ে চা-শিঙাড়া খাওয়া বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছেন।

এসময় তিনি ডিজিকে (মহাসচিব) উদ্দেশ্য করে বলেন, নিজ কক্ষে বসে বসে শুধু চা-শিঙাড়া খাওয়ার আর খোশগল্পের ট্র্যাডিশন বন্ধ করতে হবে। আপনাদের (ডিজি) বলছি, আমি এমন নির্দেশ দেখতে চাই।

পাশাপাশি দেশে ফলের উৎপাদন বাড়াতে কৃষি কর্মকর্তাদের কর্মসূচি ঘোষণা করারও নির্দেশনা দেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউটশনে (কেআইবি) জাতীয় ফলমেলা উপলক্ষে আয়োজিত সেমিনারে তিনি এমন কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. সায়েদুল ইসলাম, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বেনজীর আলম, বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিলের নির্বাহী চেয়ারম্যান ড. শেখ মোহাম্মদ বখতিয়ারসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কৃষি কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, কৃষি অফিসে গেলে ডিজিকে ছাড়া আর কাউকে পাওয়া যায় না। পিডি (প্রকল্প পরিচালক) ছাড়া প্রকল্পে কী হচ্ছে ডিপিডি (সহকারী প্রকল্প পরিচালক) জানে না। তরুণদের-তো আরও বেশি কাজ করার কথা। তাদের আরও বেশি কাজে লাগাতে হবে। কে কী কাজ করে?'

তিনি বলেন, একজন আরেকজনের রুমে বসে শুধু চা খায়। আমি বহুদিন বলেছি, আবারও বলছি- বারি (বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট), ব্রি (বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট), বিএডিসি (বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশন)-তে রুমে রুমে বসে চা খাওয়া বন্ধ করে দিন।

আব্দুর রাজ্জাক বলেন, কেউ কারো রুমে গিয়ে চা খেতে পারবেন না। কেউ কারো রুমে গিয়ে শিঙাড়া খেতে পারবেন না। বিদেশি কিংবা বড় কোনো উদ্যোক্তা আসলে তাদের আপ্যায়ন করবেন, তাকে আপনি চা খাওয়ান। কিন্তু পাশের রুমের বিজ্ঞানী আসলো আপনি তার জন্য চা-শিঙাড়া অর্ডার দেবেন, সেগুলো একদম আইন করে, অর্ডার দিয়ে- আমি সব ডিজিদের বলছি তা বন্ধ করুন।

তিনি বলেন, খামারবাড়িতে (কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর) কেউ কএনা কর্মকর্তাকে চা-শিঙাড়া খাওয়াতে পারবেন না। একদম চিঠি দিয়ে তা বন্ধ করুন। আমি এই অর্ডার দিচ্ছি। আমাদের আরও বেশি করে কাজ করতে হবে। করোনার কারণে আমরা দুই বছর কাজ করতে পারিনি, আমরা অনেক পিছিয়ে গেছি।


আরও খবর