Logo
আজঃ Friday ১৯ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে আবাসিকের অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন ডেমরায় প্যাকেজিং কারখানায় ভয়বহ অগ্নিকান্ড রূপগঞ্জে পুলিশের ভুয়া সাব-ইন্সপেক্টর গ্রেফতার রূপগঞ্জে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ॥ সভা সরাইলে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ৭৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত। নারায়ণগঞ্জে পারিবারিক কলহে স্ত্রীকে পুতা দিয়ে আঘাত করে হত্যা,,স্বামী গ্রেপ্তার রূপগঞ্জ ইউএনও’র বিদায় সংবর্ধনা নাসিরনগরে স্বামীর পরকিয়ার,বলি ননদ ভাবীর বুলেটপানে আত্মহত্যা নাসিরনগরে জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭ তম শাহাদত বার্ষিকী পালিত ডেমরায় জাতীয় শোক দিবসের কর্মসুচি পালিত

করোনায় আক্রান্ত সোহেল রানা, হাসপাতালে ভর্তি

প্রকাশিত:Monday ২৭ December ২০২১ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৪৮৮জন দেখেছেন
Image


বিনোদন প্রতিবেদক: চিত্রনায়ক ও প্রযোজক মাসুদ পারভেজ সোহেল রানা করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। গত ২৫ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় তাকে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার ছোটভাই চিত্রনায়ক রুবেল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

রুবেল বলেন, ‌‘কয়েকদিন ধরে কাশিতে ভুগছিলেন সোহেল রানা। এরপর আরও অসুস্থতা অনুভব করলে তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। ভর্তির পর তার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে। তবে আপাতত মাঝে মধ্যে অক্সিজেন সাপোর্ট লাগছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘ভাইয়া করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। সবাই ভাইয়ার জন্য দোয়া করবেন।’

করোনা মহামারির আগে থেকেই নিজ বাসায় অবস্থান করছিলেন সোহেল রানা। এর মধ্যে একটি সিনেমায় অভিনয় করার কথা থাকলেও তা করা হয়নি।

ঢাকাই সিনেমার ড্যাশিং হিরো হিসেবে খ্যাত সোহেল রানা একজন মুক্তিযোদ্ধা। বাংলাদেশের প্রথম পূর্ণাঙ্গ মুক্তিযুদ্ধের চলচ্চিত্র ‘ওরা ১১ জন’ ছবির প্রযোজক হিসেবে চলচ্চিত্র জগতে প্রবেশ করেন। তিনবার পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। ২০১৯ সালে তাকে আজীবন সম্মাননা দিয়েছে সরকার।


আরও খবর



রানওয়ে থেকে ছিটকে গেলো এয়ার ইন্ডিগোর প্লেন

প্রকাশিত:Friday ২৯ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৩০জন দেখেছেন
Image

ভারতের আসামে উড্ডয়নের সময় রানওয়ে থেকে প্লেনের চাকা পিছলে কাদামাটিতে আটকে পড়ার ঘটনা ঘটে। বৃহস্পিতবার (২৮ জুলাই) আসামের জোরহাট বিমানবন্দরে এ ঘটনা ঘটে।

বৃহস্পিতবার দুপুর আড়াইটার দিকে জোরহাট বিমানবন্দরে ইন্ডিগো এয়ারলাইন্সের কলকাতাগামী একটি প্লেনের চাকা রানওয়ে থেকে পিছলে যায়। পরে সেটি পাশের কাদামাটিতে আটকে যায়।

এ ঘটনায় যাত্রীদের মধ্যে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। তবে এতে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। তাৎক্ষণিকভাবে প্লেনটির চাকা কাদা থেকে ওঠানো সম্ভব না হওয়ায় যাত্রীদের নামিয়ে আনা হয়।

বিমান থেকে নামিয়ে এনে যাত্রীদের বিমানবন্দরের ওয়েটিং রুমে নিয়ে যাওয়া হয়৷ শেষ পর্যন্ত রাত ৮টার ১৫ মিনিটে ফ্লাইটটি বাতিল ঘোষণা করা হয়।

সূত্র: এনডিটিভি


আরও খবর



আরও ৫৩ ডেঙ্গুরোগী হাসপাতালে ভর্তি

প্রকাশিত:Friday ১২ August ২০২২ | হালনাগাদ:Thursday ১৮ August ২০২২ | ১৯জন দেখেছেন
Image

ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে আরও ৫৩ জন ভর্তি হয়েছেন। এ নিয়ে সারাদেশে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন মোট ৩৪৬ জন ডেঙ্গুরোগী। এসময়ে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে কোনো মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়নি।

শুক্রবার (১২ আগস্ট) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ডেঙ্গুবিষয়ক এক প্রতিবেদন থেকে এই তথ্য জানা যায়।

এতে বলা হয়, বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে শুরু করে শুক্রবার একই সময়ের মধ্যে সারাদেশে নতুন করে আরও ৫৩ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। নতুন আক্রান্তদের মাঝে ৫০ জন ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। আর ঢাকার বাইরে চিকিৎসা নিচ্ছেন তিনজন।

এদিকে মোট ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে ঢাকার ৪৭টি সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন ২৭৪ জন। ঢাকার বাইরে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন ৭২ জন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে, চলতি বছরে ১ জানুয়ারি থেকে ১২ আগস্ট পর্যন্ত ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন মোট ৩ হাজার ৫৫১ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন ৩ হাজার ১৮৯ জন।

এছাড়া এই আট মাসে ঢাকায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ২ হাজার ৯৮২ জন ও সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২ হাজার ৭০২ জন। ঢাকার বাইরে ভর্তি হয়েছেন ৫৬৯ জন এবং সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৪৮৭ জন।

এদিকে ১ জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত ডেঙ্গুতে মোট মৃত্যু হয়েছে ১৬ জনের। এবছর ২১ জুন ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে প্রথম মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়।

২০২০ সালে করোনা মহামারিকালে ডেঙ্গুর সংক্রমণ তেমন একটা দেখা না গেলেও ২০২১ এ সারাদেশে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হন ২৮ হাজার ৪২৯ জন। একই বছর দেশব্যাপী ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে ১০৫ জনের মৃত্যু হয়েছিলো।


আরও খবর



মুসল্লি রুকু-সেজদা করতে না পারলে কী করবেন?

প্রকাশিত:Wednesday ১০ August ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৫১জন দেখেছেন
Image

সক্ষমতা অনুসারে অক্ষম ব্যক্তিকেও নামাজ আদায় করতে হবে। কিন্তু যারা রুকু ও সেজদা যথাযথভাবে আদায় করতে পারে না, তারা কী করবে? তারা কি বিনা রুকু ও সেজদায় নামাজ আদায় করবে? নাকি ওই ব্যক্তির জন্য রুকু ও সেজদা আদায়ের প্রয়োজন নেই?

‘হ্যাঁ’, দাঁড়ানো কিংবা বসতে অক্ষম ব্যক্তিকেও রুকু ও সেজদা আদায় করতে হবে। অক্ষম ব্যক্তির জন্যও রয়েছে রুকু ও সেজদার বিধান। তবে তা সুস্থ ব্যক্তির মতো নয়। অক্ষম ও সুস্থ ব্যক্তির নামাজের মধ্যে কিছু পার্থক্য রয়েছে। অক্ষম ব্যক্তি কেবলামুখী হয়ে ইশারায় রুকু ও সেজদা আদায় করবে। যারা নিয়ম মতো রুকু-সেজদা করতে পারেন না; তাদের জন্য কিছু নিয়ম আছে। তাহলো-

১. কোনো ব্যক্তি যদি দাঁড়াতে ও বসতে পারে কিন্তু রুকু ও সেজদা করতে না পারে তাহলে তারা দাঁড়ানো অবস্থায় ইশারা করে রুকু করবে এবং বসা অবস্থায় ইশারা করে সেজদা আদায় করবে।

২. যে ব্যক্তি জমিনের উপর সেজদা করতে অক্ষম সে বসে বসে রুকু ও সেজদা করবে। তবে সেজদার সময় রুকুর চেয়ে বেশি নিচু হবে। উভয় হাত হাঁটুর উপরে রাখবে।

৩. রোগীর জন্য অন্যান্যদের মতো কেবলামুখী হওয়া আবশ্যক। যদি তার কেবলামুখী হতে সমস্যা হয় তবে তার অবস্থা হিসাবে যে দিকে সহজ হয়, সে দিকে হয়ে রুকু-সেজদা আদায় করবে।

সুতরাং ইসলামের অন্যতম ইবাদত নামাজ প্রত্যেক জ্ঞানবান সুস্থ ও অসুস্থ ব্যক্তিকে আদায় করতে হবে। কোনোভাবেই তা তরক করা যাবে না।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহর সুস্থ-অসুস্থ সবাইকে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ সময়মতো যথাযথ নিয়েমে আদায় করার তাওফিক দান করুন। আমিন।


আরও খবর



বেটিং প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি: সাকিবকে ফেরানোর চেষ্টায় বিসিবি

প্রকাশিত:Monday ০৮ August ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১২ August ২০২২ | জন দেখেছেন
Image

সাকিব আল হাসান নতুন ক্রীড়াভিত্তিক নিউজ সাইট ‘বেটউইনার’-এর শুভেচ্ছাদূত হয়েছেন। সমস্যা হলো, বেটউইনার নিউজ বেটউইনার ডট কমের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান। যা অনলাইনে জুয়া খেলার সাথে সংশ্লিষ্ট।

সাকিবের মতো একজন বিশ্বতারকার এমন একটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি করার বিষয়টি তাই মেনে নিতে পারছেন না অনেকে। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডও (বিসিবি) এই ইস্যুতে অনেকটাই বিপাকে।

সাকিবের বিরুদ্ধে কি ব্যবস্থা নেবে বিসিবি? নাকি তাকে বুঝিয়ে-শুনিয়ে ফেরানো হবে এমন চুক্তি থেকে? আপাতত যেমনটা শোনা যাচ্ছে, তাতে বিসিবি সম্ভবত নমনীয় হয়েই সাকিবকে ফেরানোর চেষ্টা করবে।

আজ (সোমবার) গণমাধ্যমের সঙ্গে আলাপে বিসিবির ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির প্রধান জালাল ইউনুস সাকিবের চুক্তির বিষয়ে বলেন, ‘একটা ইস্যু হয়েছে এবং এটা নিয়ে আমরা তার সাথে যোগাযোগে আছি। একবার তার সাথে যোগাযোগ হয়েছে। আশা করি এই ইস্যুটা আমাদের সমাধান করা দরকার। এই সমস্যা সমাধানের জন্য আমরা তার সাথে আলাপ করছি। দুই-একদিনের মধ্যে আপনারা জানতে পারবেন।’

জালাল ইউনুস যোগ করেন, ‘আমরা এই ধরনের বেটিং জিনিসগুলোয় জিরো টলারেন্স শো করি। এখানে তার যে সম্পৃক্ততা দেখা যাচ্ছে, এ ধরনের কোনো একটা কোম্পানির সাথে তার চুক্তি হয়েছে। আমরা তাকে জানিয়েছি, সে জানে ব্যাপারটা এবং আমরা এটা যত দ্রুত সম্ভব সমাধান করার চেষ্টা করছি।’

সরাসরি জুয়ার প্রতিষ্ঠান না হলেও বেটিং সাইটের মূল প্রতিষ্ঠান তাদের। আপনারা কীভাবে দেখেন? এমন প্রশ্নের জবাবে জালাল বলেন, ‘আমি আপনার সাথে একমত। আমরা এটা মানছি না বলেই তাকে জানানো হয়েছে। সে আমাদের খেলোয়াড় সেও বুঝবে। আর কেউতো বিতর্কিত কোথাও জড়াতে চায় না। জেনে হোক অজান্তে হোক কিংবা ভুলে; আমরা তাকে বলেছি...এটা সমাধানের চেষ্টা করছি। আশা করছি দ্রুত সমাধান করে ফেলবো।’


আরও খবর



প্রদীপ-লিয়াকতের ফাঁসি দ্রুত কার্যকর চান টেকনাফবাসী

প্রকাশিত:Sunday ৩১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১৭ August ২০২২ | ৪৫জন দেখেছেন
Image

সেনাবাহিনীর মেজর (অব.) সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যাকাণ্ডের দুবছর পূর্ণ হলো আজ ৩১ জুলাই। ২০২০ সালের এদিনে কক্সবাজার মেরিন ড্রাইভ সড়কের টেকনাফের শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন তিনি। বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পরিদর্শক লিয়াকতের গুলিতে সড়কে লুটিয়ে পড়লেও বেঁচে ছিলেন সিনহা। কিন্তু ওসি প্রদীপ ঘটনাস্থলে এসে ফিল্মি স্টাইলে পা দিয়ে মাথা চেপে ধরে মৃত্যু নিশ্চিত করেন বলে সাক্ষ্যতে উঠে এসেছে।

এ ঘটনায় করা হত্যা মামলায় টেকনাফ থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশসহ দুজনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে আদালত। যাবজ্জীবন সাজা দেওয়া হয়েছে ছয় আসামিকে। সর্বোচ্চ সাজাপ্রাপ্ত আসামিদের ডেথ রেফারেন্স এখন হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায়।

কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট ফরিদুল আলম জাগো নিউজকে বলেন, বিচারিক আদালত থেকে ডেথ রেফারেন্স হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় পৌঁছেছে রায় ঘোষণার এক সপ্তাহ পর। মামলার নথি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হচ্ছে। এরপর পেপারবুক প্রস্তুত করার জন্য সরকারি ছাপাখানায় পাঠানো হবে।’

সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন সূত্র জানায়, চাঞ্চল্যকর এ হত্যা মামলার ডেথ রেফারেন্স অগ্রাধিকার নাকি সালের ক্রমানুযায়ী শুনানি হবে, সে বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত এখনো হয়নি। যদি কোনো সিদ্ধান্ত হয় তাহলে তা ডেথ রেফারেন্স শাখাকে চিঠি দিয়ে জানানো হবে। তখন ডেথ রেফারেন্স শাখা সেভাবেই মামলার পেপারবুক প্রস্তুতে পদক্ষেপ নিবে।

কক্সবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সিনহা হত্যা মামলায় বাদী পক্ষের কৌঁসুলি অ্যাডভোকেট জিয়া উদ্দিন আহমেদ জাগো নিউজকে বলেন, সিনহা হত্যাকাণ্ডের দেড় বছরের মধ্যে মামলার বিচারের প্রথম ধাপ সম্পন্ন হয়। চলতি বছরের ৩১ জানুয়ারি কক্সবাজারের জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ইসমাইল দুই আসামি ওসি প্রদীপ ও পরিদর্শক লিয়াকত আলীর মৃত্যুদণ্ড দেন। যাবজ্জীবন দণ্ড দেন ছয় আসামিকে। এ রায়ের বিরুদ্ধে আসামিরা হাইকোর্টে আপিল করেছেন। পাশাপাশি ডেথ রেফারেন্স পাঠানো হয়েছে ডেথ রেফারেন্স শাখায়। ফৌজদারি কার্যবিধির ৩৭৪ ধারা অনুযায়ী নিম্ন আদালতের দেওয়া মৃত্যুদণ্ডাদেশ কার্যকরে হাইকোর্টের অনুমতি নিতে হয়। এক্ষেত্রে অধস্তন আদালতের মামলার রায়, তদন্ত প্রতিবেদন, এজাহারসহ সব নথি ডেথ রেফারেন্স আকারে হাইকোর্টে পাঠানো হয়ে থাকে।

সূত্র মতে, সিনহা হত্যা মামলার ডেথ রেফারেন্স হাইকোর্টে পৌঁছার পর তা যাচাই-বাছাই চলছে। মামলার সব নথি ক্রমানুসারে সাজিয়ে প্রস্তুত করা হচ্ছে পেপারবুকের জন্য। আর এ পেপারবুক প্রস্তুত করা হবে সরকারি ছাপাখানা বিজি প্রেসে। পেপারবুক প্রস্তুত হলেই মামলাটি শুনানির জন্য প্রস্তুত হয়েছে বলে ধরে নেওয়া হয় এবং ডেথ রেফারেন্স ও আসামির আপিল শুনানি হয়ে থাকে সালের ক্রমানুযায়ী।

উচ্চ আদালতে মামলা জটের কারণেই এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি। বর্তমানে হাইকোর্টে ২০১৭ সালে অধস্তন আদালতে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের ডেথ রেফারেন্স ও আপিলের শুনানি চলছে। সে হিসাবে সালের ক্রমানুযায়ী এ হত্যা মামলার ডেথ রেফারেন্স ও আপিল শুনানির জন্য ২০২৭ সাল পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে বিচার প্রার্থীদের।

তবে এর আগেও শুনানি করা সম্ভব যদি রাষ্ট্র বা সুপ্রিম কোর্ট অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ডেথ রেফারেন্স শুনানির উদ্যোগ নেয়। সেক্ষেত্রে সুপ্রিম কোর্ট বা বিজি প্রেস অগ্রাধিকার ভিত্তিতে মামলার পেপারবুক প্রস্তুত করে থাকে। পেপারবুক প্রস্তুত হলেই অধস্তন আদালতের রায় ঘোষণার দুবছরের মধ্যেই ডেথ রেফারেন্স নিষ্পত্তি সম্ভব বলে মনে করেন আইন বিশেষজ্ঞরা।

অপরদিকে, সিনহা হত্যা মামলায় পাওয়া মৃত্যুদণ্ড দ্রুত কার্যকর চান টেকনাফে কারণে-অকারণে হত্যার শিকার ২০৪ ব্যক্তির পরিবার। তাদের দাবি ওসি প্রদীপের বদ চিন্তা ও ক্ষমতার অপব্যবহারে শতাধিক শিশু এতিম হয়েছে। বিধবা হয়েছেন দুশতাধিক নারী। কয়েকশ নারী সম্ভ্রমও হারিয়েছেন। বাড়ির পুরুষ সদস্যদের ধরে এনে দিনের পর দিন থানা কম্পাউন্ডে আটকে রেখে স্ত্রী, বোন, মেয়েকে থানায় আসতে বাধ্য করা হয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

এমনও আছে চাহিদা মতো সবকিছু দেওয়ার পরও বাড়ির পুরুষ সদস্যকে বুলেট থেকে বাঁচিয়ে ফেরানো যায়নি। এমন সব পরিবারের সদস্যরা প্রদীপ লিয়াকতের ফাঁসির রায় দ্রুত কার্যকর হতে প্রতিনিয়ত প্রার্থনা করছেন।

টেকনাফ থানার দায়িত্বে থাকাকালে ওসি প্রদীপের চাঁদাবাজি, নারী ধর্ষণ, ক্রসফায়ার বাণিজ্য ও মাদক কারবারের খবরা-খবর জেনে গিয়েছিলেন মেজর সিনহা। কৌশলে এসব ভিডিও চিত্রও ধারণ করেন তিনি। এমন খবর জানতে পেরে ওসি প্রদীপ মেজর সিনহাকে কক্সবাজার ত্যাগ করার নির্দেশ দেন। সেনাবাহিনীর সাহসী এ মেজর (অব.) সিনহা মো. রাশেদ খান তার ইউটিউব চ্যানেল ‘জাস্ট গো’ ডকুমেন্টারি নির্মাণে কক্সবাজারে অবস্থান করে নিজ কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছিলেন। এতে মেজর সিনহাকে পৃথিবী থেকে সরিয়ে দেওয়ার ষড়যন্ত্র শুরু করেন ওসি প্রদীপ, লিয়াকত ও তার সহযোগীরা।

প্রথমে ৩১ জুলাই রাতে বাহারছড়া মারিশবুনিয়া পাহাড়ে ভিডিও ফুটেজ ধারণ করার সময় ডাকাত আখ্যা দিয়ে গণপিটুনিতে মেজর সিনহাকে হত্যার পরিকল্পনা ছিল প্রদীপ-লিয়াকতের। এতে স্থানীয় লোকজন মেজর পরিচয় পেয়ে তাকে সম্মানজনকভাবে বিদায় দেওয়ায় তাদের পরিকল্পনা ভেস্তে যায়। পরে বাহারছড়া এপিবিএন চেকপোস্টে ওসি প্রদীপ তার অধীন লিয়াকতকে দিয়ে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে সিনহাকে। এ কারণে সাক্ষ্য প্রমাণ হওয়ায় কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ইসমাইল বরখাস্ত হওয়া ওসি প্রদীপ ও লিয়াকতকে ফাঁসি এবং তাদের সহযোগিতা করায় অপর ছয়জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন।

কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালত মাত্র ৩৩ কার্যদিবসে শেষ করেছেন মামলাটির বিচারকাজ। স্বল্প সময়ে চার্জগঠন, শুনানি, সাক্ষ্যগ্রহণ, জেরা ও যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের পর জেলা ও দায়রা জজ আদালত ২০২২ সালের ৩১ জানুয়ারি এ রায় দেন।

বাংলাদেশের ইতিহাসে বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার পর এ মামলা সবচেয়ে আলোচিত মন্তব্য করে সচেতন মহল বলেন, এ মামলায় আদালতের দেওয়া রায় যেন দ্রুত কার্যকর হয়।


আরও খবর