Logo
আজঃ Friday ১৯ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে আবাসিকের অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন ডেমরায় প্যাকেজিং কারখানায় ভয়বহ অগ্নিকান্ড রূপগঞ্জে পুলিশের ভুয়া সাব-ইন্সপেক্টর গ্রেফতার রূপগঞ্জে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ॥ সভা সরাইলে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ৭৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত। নারায়ণগঞ্জে পারিবারিক কলহে স্ত্রীকে পুতা দিয়ে আঘাত করে হত্যা,,স্বামী গ্রেপ্তার রূপগঞ্জ ইউএনও’র বিদায় সংবর্ধনা নাসিরনগরে স্বামীর পরকিয়ার,বলি ননদ ভাবীর বুলেটপানে আত্মহত্যা নাসিরনগরে জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭ তম শাহাদত বার্ষিকী পালিত ডেমরায় জাতীয় শোক দিবসের কর্মসুচি পালিত

করোনাভাইরাসে আরও ছয়জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:Wednesday ০৮ December ২০২১ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৩৯৫জন দেখেছেন
Image

দেশে নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৮ হাজার ১৫ জনে। দেশে নতুন করে ২৯১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। এ নিয়ে দেশে মোট ১৫ লাখ ৭৮ হাজার ২৮৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছে ২৯৬ জন। এ নিয়ে দেশে মোট ১৫ লাখ ৪৩ হাজার ২০৪ জন করোনা থেকে সুস্থ হলো।

আজ বুধবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় ৮৪৮টি ল্যাবে ২০ হাজার ৫৪৯টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। নমুনা সংগ্রহ করা হয় ২০ হাজার ৬৪৪টি। করোনা শনাক্তের হার এক দশমিক ৩৫ শতাংশ। এই পর্যন্ত গড় শনাক্তের হার ১৪ দশমিক ২৯ শতাংশ।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণকারী চারজন পুরুষ ও দুজন নারী। তাদের মধ্যে ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে একজন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে একজন ও ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে দুজন ও ৮১ থেকে ৯০ বছরের দুজন রয়েছেন। 

মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ঢাকা বিভাগে তিনজন, চট্টগ্রাম বিভাগে একজন ও রাজশাহী বিভাগে একজন এবং সিলেট বিভাগে একজন রয়েছেন। এদের মধ্যে চারজন সরকারি ও দুজন বেসরকারি হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেছে। এ পর্যন্ত পুরুষ মারা গেছে ১৭ হাজার ৯২৪ জন আর নারী মারা গেছে ১০ হাজার ৯২ জন।

দেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় গত বছরের ৮ মার্চ। ওই বছরের ১৮ জুন তিন হাজার ৮০৩ জন নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার মধ্য দিয়ে লাখ ছাড়িয়েছিল করোনার রোগী। সেদিন পর্যন্ত মোট শনাক্ত ছিল এক লাখ দুই হাজার ২৯২ জন। এ ছাড়া দেশে করোনাভাইরাসে প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটে গত বছরের ১৮ মার্চ।


আরও খবর



যাত্রাবাড়ীতে সাংবাদিকের বাসায় চুরি

প্রকাশিত:Sunday ১৪ August ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৪১জন দেখেছেন
Image

রাজধানীর যাত্রাবাড়ী থানাধীন দনিয়া রসুলপুর এলাকায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য সুশান্ত কুমার সাহার বাসায় চুরির ঘটনা ঘটেছে। তার বাসা থেকে নগদ ৩০ হাজার টাকা, মূল্যবান কাগজপত্র এবং জামাকাপড়সহ প্রায় লক্ষাধিক টাকার মালামাল চুরি হয়েছে।

ভুক্তভোগী সাংবাদিক সুশান্ত সাহা জাগো নিউজকে জানান, তার স্ত্রী ও মেয়ে গ্রামের বাড়ি গেছেন। শুক্রবার (১৩ আগস্ট) সকাল সাড়ে ৯টায় তিনি বাসা থেকে বের হন। রাত সাড়ে ১০টায় বাসায় ফিরে দেখেন ফ্ল্যাটের দরজার তালা ভাঙা, দরজা খোলা। ভেতরে কাঠের ওয়্যারড্রব ভেঙে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র, নগদ টাকা ও কিছু কাপড়-চোপড়সহ মূল্যবান জিনিস নিয়ে গেছে। ঘরের সব জিনিসপত্র এলোমেলো অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন তিনি।

তিনি বলেন, চুরির ঘটনায় যাত্রাবাড়ী থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এরপর পুলিশ ঘটনাস্থান পরিদর্শন করে। বিষয়টি খতিয়ে দেখে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন যাত্রাবাড়ী থাকার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাজাহারুল ইসলাম।


আরও খবর



চুল দ্রুত ঘন ও লম্বা করবেন যেভাবে

প্রকাশিত:Monday ০১ August ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১৭ August ২০২২ | ৪৫জন দেখেছেন
Image

লম্বা ও ঘন চুল পেতে কে না চায়! তবে প্রতিদিনের দূষণ, চুলে তাপ দেওয়ার বিভিন্ন যন্ত্রসহ নানা ধরনের কেমিক্যালযুক্ত প্রসাধনী ব্যবহারের কারণে অনেকেই চুলের নানা সমস্যায় ভোগেন। যার মধ্যে অন্যতম হলো চুল পড়ার সমস্যা। অনেকের তো চুল পড়তে পড়তে টাক দেখা যায় মাথায়।

আপনিও যদি এই সমস্যায় ভোগেন তাহলে কয়েকটি প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহারের মাধ্যমেই চুল আরও ঘন ও লম্বা করতে পারবেন, তাও আবার দ্রুত। জেনে নিন করণীয়-

>> পেঁয়াজের রস চুলের জন্য খুবই উপকারী এক উপাদন। এতে থাকা পুষ্টিগুণ চুল ঘন ও লম্বা করতে সাহায্য করে। নারকেল তেল, লেবুর রস ও পেয়াঁজের রস একসঙ্গে মিশিয়ে চুলে ব্যবহার করুন। শুকিয়ে গেলে হালকা কোনো শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

>> চালের পানিও চুলের যত্নে দারুন কার্যকরী। সারারাত ভেজানো চালের পানি একটি স্প্রে বোতলে ঢেলে পুরো চুলে ব্যবহার করুন। নিয়মিত এটি ব্যবহারেই আপনি পাবেন ঘন ও লম্বা চুল।

>> চুলের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে ও নতুন চুল গজাতে ডিমের মাস্কের জুড়ি মেলা ভার। ঘরেই সপ্তাহে অন্তত একবার চুলে ব্যবহার করুন ডিমের মাস্ক।

>> ক্যানস্টর অয়েলও চুলের জন্য অনেক উপকারী। বিশেষ করে নতুন চুল গজাতে এই তেল দুর্দান্ত কাজ করে। মাথার ত্বকে আলতো হাতে ব্যবহার করুন এই তেল।

>> মেথি চুল আরও ঘন ও উজ্জ্বল করে। ৮-১০ ঘণ্টা মেথি ভিজিয়ে রেখে তা ব্লেন্ড করে ঘন পেস্ট তৈরি করে চুলে ব্যবহার করুন।

>> সালফেটমুক্ত শ্যাম্পু দিয়ে সপ্তাহে ২-৩ বার চুল ধুয়ে ফেলুন। এতে চুল ভালো থাকবে। কেমিক্যালযুক্ত শ্যাম্পু ব্যবহারের কারণেও অনেক সময় চুল পড়ার সমস্যা বাড়ে।

>> চুল ঘন করতে চাইলে সঠিক খ্যাদ্যাভ্যাসও জরুরি। এজন্য পাতে রাখুন প্রোটিন, ফ্যাটি অ্যাডিস, ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিড ও আয়রনসমৃদ্ধ খাবার।

>> চুলে অত্যধিক তাপ ব্যবহার করা বন্ধ করুন। এতে চুলের স্বাভাবিক বৃদ্ধি বাঁধাপ্রাপ্ত হয়।

>> নিয়মিত চুল আঁচড়াতে হবে। তাহলে চুলের ফলিকলগুলো আরও সক্রিয় হয়ে চুল দ্রুত ঘন ও লম্বা করে।

>> ক্যাস্টর অয়েলের পাশাপাশি চুলে নিয়মিত ব্যবহার করুন জলপাই তেল। এই তেলে থাকে ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিড, যা চুলের জন্য অতীব গুরুত্বপূর্ণ। হালকা গরম করে এই তেল মাথার ত্বকে মালিশ করুন।


আরও খবর



প্রদীপ-লিয়াকতের ফাঁসি দ্রুত কার্যকর চান টেকনাফবাসী

প্রকাশিত:Sunday ৩১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১৭ August ২০২২ | ৪৫জন দেখেছেন
Image

সেনাবাহিনীর মেজর (অব.) সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যাকাণ্ডের দুবছর পূর্ণ হলো আজ ৩১ জুলাই। ২০২০ সালের এদিনে কক্সবাজার মেরিন ড্রাইভ সড়কের টেকনাফের শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন তিনি। বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পরিদর্শক লিয়াকতের গুলিতে সড়কে লুটিয়ে পড়লেও বেঁচে ছিলেন সিনহা। কিন্তু ওসি প্রদীপ ঘটনাস্থলে এসে ফিল্মি স্টাইলে পা দিয়ে মাথা চেপে ধরে মৃত্যু নিশ্চিত করেন বলে সাক্ষ্যতে উঠে এসেছে।

এ ঘটনায় করা হত্যা মামলায় টেকনাফ থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশসহ দুজনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে আদালত। যাবজ্জীবন সাজা দেওয়া হয়েছে ছয় আসামিকে। সর্বোচ্চ সাজাপ্রাপ্ত আসামিদের ডেথ রেফারেন্স এখন হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায়।

কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট ফরিদুল আলম জাগো নিউজকে বলেন, বিচারিক আদালত থেকে ডেথ রেফারেন্স হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় পৌঁছেছে রায় ঘোষণার এক সপ্তাহ পর। মামলার নথি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হচ্ছে। এরপর পেপারবুক প্রস্তুত করার জন্য সরকারি ছাপাখানায় পাঠানো হবে।’

সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন সূত্র জানায়, চাঞ্চল্যকর এ হত্যা মামলার ডেথ রেফারেন্স অগ্রাধিকার নাকি সালের ক্রমানুযায়ী শুনানি হবে, সে বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত এখনো হয়নি। যদি কোনো সিদ্ধান্ত হয় তাহলে তা ডেথ রেফারেন্স শাখাকে চিঠি দিয়ে জানানো হবে। তখন ডেথ রেফারেন্স শাখা সেভাবেই মামলার পেপারবুক প্রস্তুতে পদক্ষেপ নিবে।

কক্সবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সিনহা হত্যা মামলায় বাদী পক্ষের কৌঁসুলি অ্যাডভোকেট জিয়া উদ্দিন আহমেদ জাগো নিউজকে বলেন, সিনহা হত্যাকাণ্ডের দেড় বছরের মধ্যে মামলার বিচারের প্রথম ধাপ সম্পন্ন হয়। চলতি বছরের ৩১ জানুয়ারি কক্সবাজারের জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ইসমাইল দুই আসামি ওসি প্রদীপ ও পরিদর্শক লিয়াকত আলীর মৃত্যুদণ্ড দেন। যাবজ্জীবন দণ্ড দেন ছয় আসামিকে। এ রায়ের বিরুদ্ধে আসামিরা হাইকোর্টে আপিল করেছেন। পাশাপাশি ডেথ রেফারেন্স পাঠানো হয়েছে ডেথ রেফারেন্স শাখায়। ফৌজদারি কার্যবিধির ৩৭৪ ধারা অনুযায়ী নিম্ন আদালতের দেওয়া মৃত্যুদণ্ডাদেশ কার্যকরে হাইকোর্টের অনুমতি নিতে হয়। এক্ষেত্রে অধস্তন আদালতের মামলার রায়, তদন্ত প্রতিবেদন, এজাহারসহ সব নথি ডেথ রেফারেন্স আকারে হাইকোর্টে পাঠানো হয়ে থাকে।

সূত্র মতে, সিনহা হত্যা মামলার ডেথ রেফারেন্স হাইকোর্টে পৌঁছার পর তা যাচাই-বাছাই চলছে। মামলার সব নথি ক্রমানুসারে সাজিয়ে প্রস্তুত করা হচ্ছে পেপারবুকের জন্য। আর এ পেপারবুক প্রস্তুত করা হবে সরকারি ছাপাখানা বিজি প্রেসে। পেপারবুক প্রস্তুত হলেই মামলাটি শুনানির জন্য প্রস্তুত হয়েছে বলে ধরে নেওয়া হয় এবং ডেথ রেফারেন্স ও আসামির আপিল শুনানি হয়ে থাকে সালের ক্রমানুযায়ী।

উচ্চ আদালতে মামলা জটের কারণেই এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি। বর্তমানে হাইকোর্টে ২০১৭ সালে অধস্তন আদালতে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের ডেথ রেফারেন্স ও আপিলের শুনানি চলছে। সে হিসাবে সালের ক্রমানুযায়ী এ হত্যা মামলার ডেথ রেফারেন্স ও আপিল শুনানির জন্য ২০২৭ সাল পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে বিচার প্রার্থীদের।

তবে এর আগেও শুনানি করা সম্ভব যদি রাষ্ট্র বা সুপ্রিম কোর্ট অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ডেথ রেফারেন্স শুনানির উদ্যোগ নেয়। সেক্ষেত্রে সুপ্রিম কোর্ট বা বিজি প্রেস অগ্রাধিকার ভিত্তিতে মামলার পেপারবুক প্রস্তুত করে থাকে। পেপারবুক প্রস্তুত হলেই অধস্তন আদালতের রায় ঘোষণার দুবছরের মধ্যেই ডেথ রেফারেন্স নিষ্পত্তি সম্ভব বলে মনে করেন আইন বিশেষজ্ঞরা।

অপরদিকে, সিনহা হত্যা মামলায় পাওয়া মৃত্যুদণ্ড দ্রুত কার্যকর চান টেকনাফে কারণে-অকারণে হত্যার শিকার ২০৪ ব্যক্তির পরিবার। তাদের দাবি ওসি প্রদীপের বদ চিন্তা ও ক্ষমতার অপব্যবহারে শতাধিক শিশু এতিম হয়েছে। বিধবা হয়েছেন দুশতাধিক নারী। কয়েকশ নারী সম্ভ্রমও হারিয়েছেন। বাড়ির পুরুষ সদস্যদের ধরে এনে দিনের পর দিন থানা কম্পাউন্ডে আটকে রেখে স্ত্রী, বোন, মেয়েকে থানায় আসতে বাধ্য করা হয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

এমনও আছে চাহিদা মতো সবকিছু দেওয়ার পরও বাড়ির পুরুষ সদস্যকে বুলেট থেকে বাঁচিয়ে ফেরানো যায়নি। এমন সব পরিবারের সদস্যরা প্রদীপ লিয়াকতের ফাঁসির রায় দ্রুত কার্যকর হতে প্রতিনিয়ত প্রার্থনা করছেন।

টেকনাফ থানার দায়িত্বে থাকাকালে ওসি প্রদীপের চাঁদাবাজি, নারী ধর্ষণ, ক্রসফায়ার বাণিজ্য ও মাদক কারবারের খবরা-খবর জেনে গিয়েছিলেন মেজর সিনহা। কৌশলে এসব ভিডিও চিত্রও ধারণ করেন তিনি। এমন খবর জানতে পেরে ওসি প্রদীপ মেজর সিনহাকে কক্সবাজার ত্যাগ করার নির্দেশ দেন। সেনাবাহিনীর সাহসী এ মেজর (অব.) সিনহা মো. রাশেদ খান তার ইউটিউব চ্যানেল ‘জাস্ট গো’ ডকুমেন্টারি নির্মাণে কক্সবাজারে অবস্থান করে নিজ কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছিলেন। এতে মেজর সিনহাকে পৃথিবী থেকে সরিয়ে দেওয়ার ষড়যন্ত্র শুরু করেন ওসি প্রদীপ, লিয়াকত ও তার সহযোগীরা।

প্রথমে ৩১ জুলাই রাতে বাহারছড়া মারিশবুনিয়া পাহাড়ে ভিডিও ফুটেজ ধারণ করার সময় ডাকাত আখ্যা দিয়ে গণপিটুনিতে মেজর সিনহাকে হত্যার পরিকল্পনা ছিল প্রদীপ-লিয়াকতের। এতে স্থানীয় লোকজন মেজর পরিচয় পেয়ে তাকে সম্মানজনকভাবে বিদায় দেওয়ায় তাদের পরিকল্পনা ভেস্তে যায়। পরে বাহারছড়া এপিবিএন চেকপোস্টে ওসি প্রদীপ তার অধীন লিয়াকতকে দিয়ে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে সিনহাকে। এ কারণে সাক্ষ্য প্রমাণ হওয়ায় কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ইসমাইল বরখাস্ত হওয়া ওসি প্রদীপ ও লিয়াকতকে ফাঁসি এবং তাদের সহযোগিতা করায় অপর ছয়জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন।

কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালত মাত্র ৩৩ কার্যদিবসে শেষ করেছেন মামলাটির বিচারকাজ। স্বল্প সময়ে চার্জগঠন, শুনানি, সাক্ষ্যগ্রহণ, জেরা ও যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের পর জেলা ও দায়রা জজ আদালত ২০২২ সালের ৩১ জানুয়ারি এ রায় দেন।

বাংলাদেশের ইতিহাসে বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার পর এ মামলা সবচেয়ে আলোচিত মন্তব্য করে সচেতন মহল বলেন, এ মামলায় আদালতের দেওয়া রায় যেন দ্রুত কার্যকর হয়।


আরও খবর



রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ৬৭

প্রকাশিত:Monday ১৫ August ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ২৫জন দেখেছেন
Image

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে মাদক বিক্রি ও সেবনের অভিযোগে ৬৭ জনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) বিভিন্ন অপরাধ ও গোয়েন্দা বিভাগ।

এ সময় তাদের কাছ থেকে তিন হাজার ৯৭৬ পিস ইয়াবা, ১৬৬ গ্রাম হেরোইন, ১৭৫ কেজি ১৮০ গ্রাম গাঁজা, ২৩০টি নেশাজাতীয় ইনজেকশন, ২৮ লিটার বিদেশিমদ ও ২৮০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়।

রোববার (১৪ আগস্ট) ভোর ৬টা থেকে আজ সোমবার (১৫ আগস্ট) ভোর ৬টা পর্যন্ত রাজধানীর বিভিন্ন থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ৪৯টি মামলা রুজু হয়েছে।


আরও খবর



কুষ্টিয়ায় জোড়া খুনের ঘটনায় ৫ জনের যাবজ্জীবন

প্রকাশিত:Sunday ২৪ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ২৮জন দেখেছেন
Image

কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় জোড়া খুনের ঘটনায় পাঁচজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাদের প্রত্যেককে ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

রোববার (২৪ জুলাই) দুপুরে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. তাজুল ইসলাম এ রায় ঘোষণা করেন। এ মামলায় ১০ আসামিকে খালাস দেওয়া হয়।

দণ্ডপ্রাপ্ত হলেন- কুষ্টিয়া শহরের আড়ুয়াপাড়া এলাকার মৃত ইদ্রিস আলীর ছেলে তারিক, মোশাররফ হোসেনের ছেলে কামাল রেজা নিপু, আব্দুর রশিদের ছেলে সিরাজুল ইসলাম মাসুদ, নবীর আলীর ছেলে রায়হান আলী ও সদর উপজেলার কাঞ্চনপুর গ্রামের চাঁদ আলীর ছেলে সিদ্দিক ওরফে (বাংলা ভাই)।

উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মেহেরুল ইসলাম (৫০) ও কলেজ শিক্ষক বান্দা ফাত্তাহ মোহনকে (৫৫) গুলি করে হত্যা

আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) অনুপ কুমার নন্দী জানান, চাঁদা না দেওয়ায় ২০০৯ সালের ১৫ আগস্ট রাত ৯টার দিকে ভেড়ামারা শহরের রেলবাজার এলাকায় একটি কাপড়ের দোকানে বসে থাকা অবস্থায় ভেড়ামারা উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মেহেরুল ইসলাম (৫০) ও কলেজ শিক্ষক বান্দা ফাত্তাহ মোহনকে (৫৫) এলোপাতাড়ি গুলি করে হত্যা করে আসামিরা। এ ঘটনার তিনদিন পর ১৮ আগস্ট ভেড়ামারা থানার এসআই শেখ আমিনুল ইসলাম বাদী হয়ে মামলা করেন।

মামলার তদন্ত শেষে ২০১১ সালের ২২ জুলাই তদন্তকারী কর্মকর্তা আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে প্রতিবেদন জমা দেন। এরপর আদালত এ মামলায় ১৬ জনের সাক্ষ্যপ্রমাণ শেষে রায় ঘোষণার দিন ধার্য করেন। আদালতের বিচারক এ মামলার পাঁচ আসামিকে শাস্তির আদেশ দেন।


আরও খবর