Logo
আজঃ Tuesday ২৮ June ২০২২
শিরোনাম
নাসিরনগরে বন্যার্তদের মাঝে ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ রাজধানীর মাতুয়াইলে পদ্মাসেতু উদ্ধোধন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল রূপগঞ্জে ভূমি অফিসে চোর রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা

কর্মজীবী মানুষের ঢাকা ফেরাও স্বাচ্ছন্দ্যে হবে-নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত:Thursday ০৫ May ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ১৩৮জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদক।।


ঈদের ছুটি শেষে কর্মজীবী মানুষের ঢাকা ফেরাও স্বাচ্ছন্দ্যে হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।


বৃহস্পতিবার (৫ মে) সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে তিনি এ কথা বলেন। এর আগে প্রতিমন্ত্রী মন্ত্রণালয়ে সচিবসহ কর্মকর্তাদের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।



তিনি বলেন, এবারের ঈদযাত্রা খুব ভালোভাবেই করতে পেরেছি। আল্লাহর রহমতে সারাদেশের মানুষ আনন্দের সঙ্গে ঈদ করতে পেরেছে।


স্বাচ্ছন্দ্যে ঈদের সময়ে মানুষ বাড়ি যেতে পেরেছে। সারাদেশে আনন্দঘন পরিবেশ বিরাজ করছে। ভীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে যারা চেয়েছিল, তারা সফল হতে পারেনি। আল্লাহর রহমতে এবং সরকারের পদক্ষেপের কারণে মানুষ ভালোমত ঈদ করতে পেরেছে।


প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার ও আমার পক্ষ থেকে সবাইকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। মানুষ সচেতন হচ্ছে। আইনশৃংখলা বাহিনীসহ দায়িত্বরত অন্যান্যরা তাদের দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করছে। নৌপথে ঢাকামুখী ফেরাটাও স্বাচ্ছন্দ্যে হবে বলে আশা করি। 


আরও খবর



লোহাগাড়ায় ট্রাকচাপায় দুই মোটরসাইকল আরোহী নিহত

প্রকাশিত:Wednesday ১৫ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৪১জন দেখেছেন
Image

চট্টগ্রামের লোহাগাড়ায় ডাম্প ট্রাকচাপায় দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। বুধবার (১৫ জুন) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে লোহাগাড়া থানার পুটিবিলা ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন আনুমানিক ১৮ বছর বয়সী এক কিশোর ও ৮-৯ বছরের এক শিশু। তবে তাদের পরিচয় জানা যায়নি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, আমিরাবাদ থেকে বাজার করে মোটরসাইকেলে করে ওই তরুণ ও শিশু বাসায় ফিরছিলেন। পথে পুটিবিলা ইউনিয়ন পরিষদের সামনে একটি ডাম্প ট্রাক তাদের ধাক্কায় দেয়। এতে তারা রাস্তায় ছিটকে পড়ে। পরে ট্রাকটি তাদের চাপা দেয়।

লোহাগাড়া থানার ওসি মো. আতিকুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে জাগো নিউজকে বলেন, নিহতদের পরিচয় এখনো নিশ্চিত করা যায়নি। দুর্ঘটনাস্থলে ফোর্স পাঠানো হয়েছে।


আরও খবর



জামিনে মেলেনি নিউ বসুন্ধরা এমডির, চেয়ারম্যানের জামিন নিয়ে রুল

প্রকাশিত:Monday ১৩ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৩৯জন দেখেছেন
Image

বাগেরহাটের নিউ বসুন্ধরা রিয়েল এস্টেট কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) আব্দুল মান্নান তালুকদারকে জামিন দেননি হাইকোর্ট। তবে কোম্পানির চেয়ারম্যান আনিসুল হককে কেন জামিন দেওয়া হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন।

সোমবার (১৩ জুন) হাইকোর্টের বিচারপতি এএসএম আব্দুল মোবিন ও বিচারপতি মো. আতোয়ার রহমানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

ব্যাংক হিসাবের বাইরে বিভিন্ন গ্রাহকের টাকা আত্নসাতের ঘটনায় দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা মামলায় এই আদেশ দেওয়া হয়।


আরও খবর



লিসবনে পদ্মা সেতুর অনুষ্ঠান উদযাপন

প্রকাশিত:Monday ২৭ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ১২জন দেখেছেন
Image

উৎসবমুখর পরিবেশে বাংলাদেশ দূতাবাস, লিসবনে পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উদযাপন করা হয়েছে। এই ঐতিহাসিক মুহূর্ত উপলক্ষে দূতাবাস প্রাঙ্গণে এ আনন্দমুখর অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

শুরুতে পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর প্রদত্ত বাণী পাঠ করা হয়। এরপর একটি উন্মুক্ত আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

এ সময় বক্তারা ঐতিহাসিক পদ্মা সেতু নির্মাণে প্রধানমন্ত্রীর দূরদর্শিতা ও অর্জন নিয়ে আলোচনা করেন। একইসঙ্গে বক্তারা বাংলাদেশের সামগ্রিক উন্নতিতে পদ্মা সেতুর গুরুত্ব ও তাৎপর্য তুলে ধরেন।

রাষ্ট্রদূত তারিক আহসান বক্তব্যের শুরুতে পানি প্রবাহের দিক দিয়ে পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম নদী পদ্মার ওপর সেতু নির্মাণের দু:সাধ্যতা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার প্রথম মেয়াদের শেষপ্রান্তে ২০০১ সালে পদ্মা সেতুর ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন।

jagonews24

বিভিন্ন প্রতিকূলতার পর তার দ্বিতীয় মেয়াদে ২০১২ সালে তিনি বাংলাদেশের নিজ অর্থায়নে এই সেতু নির্মাণের ঐতিহাসিক ঘোষণা দেন। বাংলাদেশের প্রথিতযশা পুর-কৌশলীসহ বিভিন্ন দেশের বিশেষজ্ঞদের কারিগরি তত্ত্বাবধানে ২০১৫ সালে টেন্ডারের মাধ্যমে নির্বাচিত চীনা নির্মাণ প্রতিষ্ঠান পাইলিং স্থাপনের মাধ্যমে পদ্মা সেতুর প্রথম বাস্তব নির্মাণ কাজ শুরু হয়।

সাত বছর পর এই সেতুর কাজ সফল সমাপ্তিতে তাই দেশবাসী আনন্দে উচ্ছ্বসিত। দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থিত দেশের এক তৃতীয়াংশ এলাকা রাজধানী ঢাকার সঙ্গে সড়ক পথে যুক্ত হওয়ার কথা উল্লেখ করে বলেন, পদ্মা সেতুর উদ্বোধন বাংলাদেশের সামগ্রিক অর্থনীতিতে এক নতুন মাত্রাই শুধু যোগ করার পাশাপাশি মানুষের জীবনমান উন্নয়নে এক ব্যাপকভাবে ভূমিকা রাখবে।

তিনি মন্তব্য করেন, বিদেশি অর্থায়ন ছাড়া এই কঠিন প্রকল্পটির সফল সমাপ্তি বাংলাদেশের জনগণকে রপকল্প ২০৪১ অনুসারে ২০৪১ সালের মধ্য একটি উন্নত, সমৃদ্ধ দেশ গড়ার কাজে আত্মবিশ্বাস যোগাচ্ছে। দেশের মানুষ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সালাম জানাচ্ছে তার সাহসিকতা আর সংকল্পের দৃঢ়তার জন্য–যার ফলেই বাংলাদেশ তার ৫১ বছরের ইতিহাসের এই অন্যতম প্রধান সাফল্য অর্জন করলো আর জনগণ তার দীর্ঘ-লালিত স্বপ্ন পূরণ করলো।

আলোচনা সভা শেষে পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে নির্মিত প্রতিপাদ্য সংগীত ও বিশেষ প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়। এরপর দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনায় বিশেষ দোয়া-প্রার্থনা করা হয়।


আরও খবর



আল্লাহর দরবারে যে নামাজি সম্পর্কে আলোচনা হয়

প্রকাশিত:Wednesday ০৮ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৪০জন দেখেছেন
Image

আল্লাহ তাআলা এমন কিছু মানুষকে তার জিম্মায় রাখন; যাদের নাম তার মজলিশে আলোচনা করা হয়। দুনিয়ার নির্ধারিত কিছু ফরজ কাজ সম্পাদনের মাধ্যমে মুমিন বান্দা এ মর্যাদার অধিকারী হয়। কী সেই ফরজ? কারাই বা আল্লাহ জিম্মায় থাকার সৌভাগ্যবান?

আল্লাহ তাআলা যাকে তার জিম্মায় রাখেন; তার না আছে কোনো ভয়; আর না আছে কোনো চিন্তা। বরং মহান আল্লাহ ওই ব্যক্তি তাঁর নূর দ্বারা আলোকিত ও বরকতময় করেন। তার মজলিশে ফেরেশতাদের সঙ্গে তিনি ওই বান্দার সম্পর্কে আলোচনা করেন। হাদিসের বর্ণনায় তা সুস্পষ্টভাবে ওঠে এসেছে-

হাদিসে পাকে নবিজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বর্ণনা করেন, মুমিন বান্দার জন্য সহজ ও ছোট্ট এ আমলটি হলো, দিনের শুরুতে ফজরের নামাজ পড়া। যে ব্যক্তি ফজরের নামাজ পড়বেন; ওই ব্যক্তি আল্লাহ তাআলার নিরাপত্তায় থাকবেন। আল্লাহ তাআলা ওই ব্যক্তি সম্পর্কে তাঁর মজলিশে আলোচনা করবেন। আর দিনটি হবে তাদের জন্য বরকতময়। হাদিসে পাকে এসেছে-

১. হজরত আবু বকর রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি ফজরের নামাজ পড়ল, সে আল্লাহর যিম্মায় থাকল। অতএব তোমরা আল্লাহর যিম্মাদারিকে নষ্ট করো না। যে ব্যক্তি তাকে হত্যা করবে, আল্লাহ তাকে তলব করে এনে উল্টো মুখে জাহান্নামে নিক্ষেপ করবেন।’ (ইবনে মাজাহ, তালিকুর রাগিব, আত-তারগিব ওয়াত তারহিব)

২. হজরত সামুরাহ বিন জুনদুব রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি ফজরের নামাজ পড়ল; সে মহান আল্লাহর জিম্মায় রইল।’ (ইবনে মাজাহ, মুসনাদে আহমাদ)

দিনের শুরুতে ফজর পড়ার উপকারিতা
ফজর নামাজে দিন শুরু করা মুমিন বান্দা শুধু আল্লাহর নিরাপত্তা পাবে, এখানেই শেষ নয়, বরং তাদের জন্য রয়েচে চমৎকার উপকারিতা। রয়েছে নিরাপত্তা পাওয়ার সুন্নাতি দোয়া। তাহলো-

১. সারারাত নামাজে থাকার সমান
নবিজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি জামাআতের সঙ্গে ইশার নামাজ পড়লো, সে যেন অর্ধেক রাত জেগে নামাজ পড়লো। আর যে ব্যক্তি ফজরের নামাজ জামাআতের সঙ্গে পড়লো, সে যেন পুরো রাত জেগে নামাজ পড়লো।’ (মুসলিম)

২. ফজর নামাজ হবে নূর
নবিজী বলেছেন, ‘যারা রাতের আঁধারে মসজিদের দিকে হেঁটে যায়, তাদেরকে কেয়ামতের দিন পরিপূর্ণ নূর প্রাপ্তির সুসংবাদ দাও।’ (আবু দাউদ)

৩. জান্নাতের ঘোষণা
নবিজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ঘোষণা করেন, ‘যে ব্যক্তি দুই শীতল (নামাজ) পড়বে, (সে) জান্নাতে প্রবেশ করবে। আর দুই শীতল (নামাজ) হলো ফজর ও আসর।’ (বুখারি)

৪. রিজিকে বরকত
আল্লামা ইবনুল কাইয়িম রাহমাতুল্লাহি আলাইহি বলেছেন, ‘সকাল বেলার ঘুম ঘরে রিজিক আসতে বাঁধা দেয়। কেননা তখন রিজিক বণ্টন করা হয়।’

৫. সেরা বস্তু অর্জিত হয় ফজরের নামাজে
নবিজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘ফজরের দুই রাকাত নামাজ পড়ার মধ্যে রয়েছে দুনিয়া ও তার মধ্যে যা কিছু আছে, সবকিছুর চেয়েও তা শ্রেষ্ঠ।’ (তিরিমিজি)

৬. আল্লাহর দরবারে নামাজির নাম আলোচনা
নবিজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ঘোষণা করেন, ‘তোমাদের কাছে পালাক্রমে দিনে ও রাতে ফেরেশতারা আসে। তারা আসর ও ফজরের সময় একত্রিত হয়। যারা রাতের দায়িত্বে থাকে তারা ওপরে উঠে যায়। আল্লাহ তো সব জানেন, তবুও ফেরেশতাদেরকে প্রশ্ন করেন- আমার বান্দাদের কেমন রেখে এলে? ফেরেশতারা বলে, আমরা তাদের নামাজরত রেখে এসেছি। যখন গিয়েছিলাম, তখনও তারা নামাজরত ছিল।’ (বুখারি)

৭. ফজরের নামাজেই দিনের সূচনা বরকতময় হয়। ফজরের নামাজ দিয়ে দিনটা শুরু করলে, পুরো দিনের সব কাজে একটা বরকতময় সূচনা হয়। নবিজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তাঁর উম্মতের জন্য বরকতের দোয়া করেছেন। হাদিসে এসেছে-

‘হে আল্লাহ! আমার উম্মতের জন্যে, তার সকাল বেলায় বরকত দান করুন।’ (তিরমিজি)

নিরাপত্তা পাওয়ার বিশেষ দোয়া
নবিজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মুমিন বান্দার জন্য আল্লাহর জিম্মায় থাকতে একটি দোয়া পড়তেন। তিনি তাঁর উম্মতকে আল্লাহর জিম্মায় থাকতে একটি দোয়া পড়তে বলেছেন। যখনই তারা ঘর থেকে বের হবে, তখনই এ দোয়া পড়বে। তাহলো-

بِسْمِ اللهِ تَوَكَّلْتُ عَلَى اللهِ وَ لَا حَوْلَ وَ لَا قُوَّةَ اِلَّا بِاللَّهِ
উচ্চারণ : ‘বিসমিল্লাহি, তাওয়াক্কালতু আলাল্লাহি, ওয়া লা হাওলা ওয়া লা কুওয়্যাতা ইল্লা বিল্লাহি।’
অর্থ : আল্লাহর নামে (বের হচ্ছি); আল্লাহর ওপর ভরসা করলাম। আর আল্লাহর সাহায্য ছাড়া কোনো উপায় নেই; আল্লাহর সাহায্য ছাড়া কোনো শক্তিও নেই।’ (তিরমিজি, আবু দাউদ)

সুতরাং মুমিন মুসলমানের উচিত, ফজর নামাজ যথাসময়ে আদায় করা। প্রিয় নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের শেখানো দোয়াটি বেশি বেশি পড়া। ফজরের নামাজ ও দোয়াটি পড়ার মাধ্যমে নিজেদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করা। সব সময় আল্লাহ তাআলার জিম্মায় নিরাপদ থাকার চেষ্টা করা।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে হাদিসের দিকনির্দেশনা অনুযায়ী নিয়মিত ফজরের নামাজ ও দোয়া পড়ার মাধ্যমে নিজেদের আল্লাহর জিম্মায় নিরাপদ রাখার তাওফিক দান করুন। হাদিসের ওপর যথাযথ আমল করার তাওফিক দান করুন। আমিন।


আরও খবর



রাজধানীতে খেলা দেখার সময় বজ্রপাতে কিশোরের মৃত্যু

প্রকাশিত:Friday ০৩ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৭৪জন দেখেছেন
Image

রাজধানীর দক্ষিণখান এলাকায় মাঠে খেলা দেখার সময় বজ্রপাতে মো. রাহাত আহমেদ বাঁধন (১৮) নামের এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২ জুন) বিকেল সাড়ে ৫ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। অচেতন অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রাত সোয়া ৮টার দিকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত রাহাতের ভাই রাকিব হাসান বলেন, বাঁধন উত্তরা কমার্স কলেজের উচ্চ মাধ্যমিক দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। বিকেলের দিকে বিমানবন্দরের কাওলা দক্ষিণখান মধ্যপাড়া এলাকার একটি মাঠে বসে খেলা দেখছিল। এসময় হঠাৎ বজ্রপাত হয়। এতে অচেতন হয়ে মাঠের পাশে পড়ে যায় বাঁধন। পরে দ্রুত তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আনা হয়। রাত সোয়া ৮টার দিকে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি আরও জানান, তারা কুমিল্লা জেলার নাঙ্গলকোট থানার বামন ভুঁইয়া গ্রামের বাসিন্দা। তাদের বাবার নাম নুরুন্নবী। কাওলা দক্ষিণখান মধ্যপাড়া এলাকায় সপরিবার থাকতেন তারা।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (পরিদর্শক) মো. বাচ্চু মিয়া মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানায় জানানো হয়েছে।


আরও খবর