Logo
আজঃ Friday ১৯ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে আবাসিকের অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন ডেমরায় প্যাকেজিং কারখানায় ভয়বহ অগ্নিকান্ড রূপগঞ্জে পুলিশের ভুয়া সাব-ইন্সপেক্টর গ্রেফতার রূপগঞ্জে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ॥ সভা সরাইলে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ৭৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত। নারায়ণগঞ্জে পারিবারিক কলহে স্ত্রীকে পুতা দিয়ে আঘাত করে হত্যা,,স্বামী গ্রেপ্তার রূপগঞ্জ ইউএনও’র বিদায় সংবর্ধনা নাসিরনগরে স্বামীর পরকিয়ার,বলি ননদ ভাবীর বুলেটপানে আত্মহত্যা নাসিরনগরে জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭ তম শাহাদত বার্ষিকী পালিত ডেমরায় জাতীয় শোক দিবসের কর্মসুচি পালিত

করোনা আক্রান্ত ভারতের ১৩ যাত্রী কোয়ারেন্টিন থেকে পালিয়েছে

প্রকাশিত:Friday ০৭ January ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৪৭১জন দেখেছেন
Image

বুধবার চার্টার্ড ফ্লাইটে ইতালির মিলান থেকে অমৃতসরে ল্যান্ড করার পর শিশু বাদে ১৬০ যাত্রীর কভিড পরীক্ষা করা হয়। এতে ১২৫জনেরই ফল পজেটিভ আসলে তাদের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়। তাদের মধ্যে অন্তত ১৩জন পালিয়ে গেছে। 

বৃটিশ সংবাদ মাধ্যম বিবিসির খবরে বলা হয়, ভারতের অমৃতসরে ল্যান্ড করা ইতালি ফেরত যাত্রীদের মধ্যে কভিড-১৯ পজেটিভ হওয়া অন্তত ১৩ যাত্রী প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন থেকে পালিয়ে গেছেন। তারা কভিড আক্রান্ত ১২৫ জনের তালিকায় ছিলেন, যারা বুধবার বিকালে মিলান থেকে অমৃতসরনে ফেরেন। নগর কর্মকর্তা সারজাং সিং বিবিসি পাঞ্জাবিকে বলেন, পালিয়ে যাওয়া কভিড রোগীদের মধ্যে ৯জন বিমানবন্দর থেকে এবং ৪ জন স্থানীয় হাসপাতাল থেকে পালিয়েছেন।  

পুলিশ অবশ্য বলছে, তাদের সবার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আজ শুক্রবার ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা লাখ ছাড়িয়েছে। বিশেষজ্ঞদের ধারণা, নভেল করোনাভাইরাসের অতিসংক্রামক নতুন ধরন অমিক্রনের কারণেই এক সপ্তাহের ব্যবধানে কভিড আক্রান্ত এত বাড়ছে। গতকাল স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্য অনুসারে, আগের ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত শনাক্তের সংখ্যা ছিল ৯০ হাজার ৯২৮ জন।


আরও খবর



ক্রিমিয়ায় রুশ ঘাঁটিতে কয়েক দফা বিস্ফোরণ

প্রকাশিত:Tuesday ১৬ August ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ২৪জন দেখেছেন
Image

ইউক্রেনের ক্রিমিয়া উপত্যকায় একটি সামরিক ঘাঁটিতে কয়েক দফা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনায় এখন পর্যন্ত দুজনের আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। খবর বিবিসির।

রুশ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, উত্তর ক্রিমিয়ার ডিঝানকোই এলাকায় বিস্ফোরণ থেকে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়েছে। বিদ্যুতের একটি সাবস্টেশনেও অগ্নিকাণ্ডের খবর পাওয়া গেছে।

কী কারণে ওই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে তা এখনও পরিষ্কার নয়। এর আগে গত সপ্তাহে ক্রিমিয়া উপকূলে ইউক্রেনের হামলায় রাশিয়ার যুদ্ধবিমান ধ্বংস হয়ে যায়।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলছে, স্থানীয় সময় ৬টা ১৫ মিনিটে মাইস্কে গ্রামের কাছে একটি অস্থায়ী গোলাবারুদ সংরক্ষণাগারে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। এই ঘটনার তদন্ত চলছে বলে জানানো হয়েছে।

তবে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, সেখানে গুরুতর হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি। তবে রুশ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, দুজন আহত হয়েছেন।

এদিকে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের কার্যালয়ের উপদেষ্টা মিখাইলো পোদোলিয়াক বলছেন, এই বিস্ফোরণ কোনো দুর্ঘটনা থেকে হয়নি। অপরদিকে ক্রিমিয়ান তাতারের নেতা রেফুয়াত চুবারোভ এই বিস্ফোরণকে একটি ‘আঘাত’ বলে উল্লেখ করেছেন। অনেক দূর থেকেও বিস্ফোরণের শব্দ শোনা গেছে।

২০১৪ সালে ইউক্রেনের কাছ থেকে ক্রিমিয়া দখল করে নেয় রাশিয়া। অপরদিকে গত ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনে নতুন করে আগ্রাসন চালায় রুশ বাহিনী। প্রায় ছয় মাস ধরে সংঘাত চলছেই।

মাত্র কয়েকদিন আগেই ক্রিমিয়া উপদ্বীপে রাশিয়ার একটি সামরিক ঘাঁটির কাছে বিস্ফোরণে একজন নিহত ও অন্তত আটজন আহত হয়।


আরও খবর



সোনার হরিণ ধরতে ভিটে-মাটি বিক্রি করবেন না: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:Thursday ২৮ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৩১জন দেখেছেন
Image

দালালের খপ্পরে পড়ে সোনার হরিণ ধরতে ভিটে-মাটি বিক্রি করে কেউ যেন আর প্রবাসের পথে পাড়ি না জমান সে জন্য যুব সমাজকে সতর্ক করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

একই সঙ্গে তিনি বিদেশে দক্ষ কর্মী প্রেরণ ও গৃহকর্মী পাঠানোর ক্ষেত্রে বিদেশ গমনেচ্ছুরা যেন সঠিকভাবে প্রশিক্ষণ নেয় তা নিশ্চিত করার জন্যও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী বিদেশে কর্মী পাঠানোর ক্ষেত্রে সব মন্ত্রণালয়কে একযোগে কাজ করার ওপরও গুরুত্বারোপ করেন।

বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরো (বিএমইটি) উপজেলা পর্যায়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শতবর্ষ টিটিসিসহ ২৪টি কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (টিটিসি) উদ্বোধন অনুষ্ঠান করে। এতে গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, পাসপোর্ট দিবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, শ্রম বাজার খুঁজবে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, শিল্প মন্ত্রণালয় সার্টিফিকেট দেবে আর প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় মানুষ প্রেরণ করবে। এক্ষেত্রে আমাদের প্রত্যেকটি মন্ত্রণালয়কে যৌথভাবে কাজ করতে হবে। এসব কাজের জন্য প্রত্যেকটি মন্ত্রণালয় থেকে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দিয়ে একটি কমিটি করে নিজ উদ্যোগে কাজ করতে হবে। তাহলে সবগুলো কাজ এক জায়গায় বসে সহজেই করা সম্ভব হবে। তিনি এর সঙ্গে বেসামরিক বিমান পরিবহন এবং পর্যটন মন্ত্রণালয়কেও যুক্ত করার পরামর্শ দেন।

সরকার প্রধান এ সময় দালালের খপ্পরে প্রবাসের পথে পাড়ি না জমান সে জন্য যুব সমাজকে সতর্ক করে বলেন, দালালের মাধ্যমে গেলে তারা বিপদে পরে। সরকারের পক্ষ থেকেই তাদের উদ্ধার করতে হয় অথবা ভূমধ্যসাগরে তাদের সলিল সমাধি হয় (অবৈধভাবে সাগর পাড়ি দিয়ে অভিবাসন খুঁজতে গিয়ে)। এটা দুর্ভাগ্যজনক। প্রয়োজনে প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে তিনি বিদেশে যাবার আহ্বান জানিয়ে বলেন, এখানে বিনা জামানতেও ঋণ দেয়ার ব্যবস্থা করা রয়েছে।

সরকার যে টিটিসি করে দিচ্ছে এর মাধ্যমে ভবিষ্যতে আরও দক্ষ জনশক্তি রপ্তানি সম্ভব হবে বলে আশা প্রকাশ করে বিদেশ গমনেচ্ছুরা যেন যথাযথ প্রশিক্ষণ নেয় তা নিশ্চিত করার নির্দেশ দেন তিনি।

‘উন্নয়ন প্রকল্পের মাধ্যমে উপজেলা পর্যায়ে ৪০টি টিটিসি ও একটি আইএমটি স্থাপিত হলে মোট ১০৪টি টিটিসি এবং সাতটি আইএমটিতে প্রশিক্ষণ কার্যক্রম পরিচালিত হবে। এছাড়া মোট প্রশিক্ষণ দেওয়ার সক্ষমতা বছরে নয় লাখে উন্নীত হবে। তাছাড়া সরকারের প্রায় ২৩টি মন্ত্রণালয় থেকেই কোন না কোনভাবে জনশক্তি প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে বলেও জানান তিনি। তাছাড়া সশস্র বাহিনী ও পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা যে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে বিভিন্ন দেশে যাচ্ছে তারাও রেমিটেন্স পাঠাচ্ছে। এটাকেও মূল রেমিটেন্সের সঙ্গে যুক্ত করতে হবে।

সরকার সবসময় বিদেশগামী কর্মীদের স্বার্থ সুরক্ষায় বিশেষ পদক্ষেপ বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের সাড়ে ১৩ বছরে ৫৫টি নতুন শ্রম বাজার তৈরি করতে সক্ষম হয়েছে। যেখানে বিএনপি-জামায়াত জোটের শাসনামলে মালয়েশিয়ায় শ্রমিক পাঠানোর ক্ষেত্রে হয়রানিসহ নানা অভিযোগে অনেক জায়গাতেই শ্রম বাজার কমে আসে। সে সময়কার সিন্ডিকেটের দুর্নীতি ও হয়রানি বন্ধ করে তার সরকার বিদেশগামী শ্রমিকদের হয়রানি অনেকটাই লাঘবে সক্ষম হয়েছে।

‘২০০৫-০৬ সালে জোট সরকারের বিদেশে কর্মী প্রেরণের সংখ্যা ছিল দুই লাখ ৫২ হাজার ৭০২ জন, আর রেমিটেন্সের পরিমাণ ছিল ৪ দশমিক ২৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। সেখানে আওয়ামী লীগ সরকার ২০২১-২২ অর্থবছরে তা পাঁচ গুণ বৃদ্ধি করতে সক্ষম হয়। এই সময়ে কর্মী প্রেরণ করা হয়েছে নয় লাখ ৬৬ হাজার ৫০৫ জন এবং ২১ দশমিক ০৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার রেমিটেন্স এসেছে।’

প্রধানমন্ত্রী এই পরিসংখ্যান তুলে সমালোচকদের উদ্দেশ্যে বলেন, যারা এখন সমালোচনা করেন তাদেরকেই জবাবটা দিতে চাই। কারণ, তাহলে আর বিভ্রান্তি ছড়াতে পারবেনা, তাদেরও হিসেবটা জানা উচিত তারা ক্ষমতায় থাকতে কি অবস্থা ছিল দেশে।

অনুষ্ঠানে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ, সংসদীয় বিষয়ক কমিটির চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, সচিব ড. আহমেদ মুনিরুস সালেহীন এবং বিএমইটির মহাপরিচালক মো. শহিদুল আলম বক্তৃতা দেন। অনুষ্ঠানে টিটিসি’র উপর একটি তথ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়।


আরও খবর



যে কারণে সিরিজ হারতে হলো বাংলাদেশকে

প্রকাশিত:Tuesday ০২ August 2০২2 | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৫৮জন দেখেছেন
Image

শেষ ম্যাচে দলে যুক্ত হলেন ‘পঞ্চ পাণ্ডবে’র অন্যতম সদস্য মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ; কিন্তু তাতেও শেষ রক্ষা হলো না। জিম্বাবুয়ের কাছে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ ২-১ ব্যবধানে হারলো টাইগাররা।

আজ ২ আগস্ট, মঙ্গলবার হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত বাহিনীর ১০ রানের পরাজয়ে সত্যি হলো অনেকের সন্দেহ, সংশয়।

শীর্ষ তারকাদের ছাড়া কঠিন চ্যালেঞ্জ অতিক্রম করতে পারবে সোহানের দল?’- এই শিরোনামে গত ২৭ জুলাই জাগো নিউজে প্রকাশিত হয়েছিল এক প্রতিবেদন। শিরোনামই বলে দিচ্ছে কী ছিল তার প্রতিপাদ্য বিষয়?

সে প্রতিবেদনেই একটা বিষয় পরিষ্কার ছিল। তাহলো- পাঁচ শীর্ষ ও জনপ্রিয় তারকাকে ছাড়াই এবার জিম্বাবুয়ের সঙ্গে টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে টাইগাররা। এক যুগেরও বেশি সময় সব ফরম্যাটেই যারা ছিলেন টিম বাংলাদেশের প্রধান চালিকাশক্তি, তাদের ঘিরেই আবর্তিতত হতো সব কিছু।

বিশেষ করে সাকিব, তামিম, মুশফিক আর রিয়াদের অন্তত তিনজন ছাড়া ক্রিকেটের ছোট পরিসরে দল হয়েছে খুব কম। এবার তারা কেউ নেই। তাদের অনুপস্থিতিতে একঝাঁক তরুণ ও নবীন ক্রিকেটারে গড়া দল কী জিম্বাবুয়ের সঙ্গে পেরে উঠবে?

পাশাাপাশি আরও একটি প্রশ্ন ছিল কারো কারো মনে- এক বছর আগে দুই ম্যাচ জিতিয়ে সৌম্য সরকার যে সিরিজ সেরা হয়েছিলেন, এবার তার ভূমিকা কেউ নিতে পারবে কি না?

অনেকের মনেই সংশয় ছিল, সিনিয়র ও অভিজ্ঞ এবং অপরিহার্য্য সদস্যদের অনুপস্থিতিতে এসব তরুণরা কী পারবেন নিজেদের মেলে ধরে দলকে সাফল্যের বন্দরে পৌঁছে দিতে?

সে সংশয় সত্য বলেই প্রমাণ হলো। তরুণরা শেষ পর্যন্ত কুলিয়ে উঠতে পারলেন না জিম্বাবুয়ের সাথে। কেউ সৌম্য সরকারের ভূমিকাও নিতে পারেননি। সৌম্যর মত জোড়া অর্ধশতক উপহার দেয়া বহুদুরে, লিটন দাস ছাড়া আর কেউ একটি হাফ সেঞ্চুরিও হাঁকাতে পারেননি।

দিন শেষে টি-টোয়েন্টি হলো ব্যাটারদের খেলা। ব্যাটাররা জ্বলে উঠতে না পারলে সাফল্য পাওয়া কঠিন। এ সিরিজে একটি মাত্র ম্যাচ জেতানো ফিফটি এসেছে টাইগারদের ব্যাট থেকে। দ্বিতীয় ম্যাচে ৫৬ রান করেছিলেন লিটন দাস। এছাড়া ম্যাচ জয়ের মত আর কোনো ইনিংস উপহার দিতে পারেননি টাইগার ব্যাটাররা।

বোলিংয়ে পুরো সিরিজে একটিই ম্যাচ উইনিং পারফরমেন্স আছে। সেটা দ্বিতীয় ম্যাচে মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের ‘ম্যাজিক্যাল বোলিং স্পেলটি (৪ ওভারে ২০ রানে ৫ উইকেট)।

আজ শেষ ম্যাচেও সব বাটাররা ব্যর্থ। ১৫৭ রানের মাঝারিমানের টার্গেট ছুঁতে গিয়েও লিটন দাস, পারভেজ হোসেন ইমন, নাজমুল হোসেন শান্ত, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, আফিফ হোসেন ধ্রুব, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, শেখ মাহদির কেউই দল জিতিয়ে বিজয়ীর বেশে সাজঘরে ফিরতে পারেননি।

মূলতঃ ব্যাট হাতে ম্যাচ জেতানো ভূমিকা নিতে পারেননি কেউই। তার প্রমাণ তিন ম্যাচে একটি মাত্র ফিফটি। দ্বিতীয় ম্যাচে লিটন দাসের ৩৩ বলে ৫৬ রানের ঝড়ো ও আকর্ষণীয় ইনিংসটি ছাড়া আর একজন ব্যাটারও পুরো সিরিজে পঞ্চাশে পা রাখতে পারেননি।

একটি দলের ব্যাটারদের অবস্থা এমন হলে সেই দলের পক্ষে সিরিজ জেতা কঠিন হয়ে পড়ে। আজ শেষ দিনও কারো ব্যাট কথা বলেনি। সিনিয়রদের অনুপস্থিতিতে জুনিয়রদের কেউ হাল ধরতে পারেননি। এমনকি মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের কাছে যে প্রত্যাশা ছিল, সেটাও মেটাতে পারেননি তিনি। সুতরাং, ১৫৭ রানের টার্গেটও হয়ে থাকলো অধরা।


আরও খবর



লঙ্কান প্রেসিডেন্ট-প্রধানমন্ত্রীর বাসার মূল্যবান জিনিসপত্র চুরি

প্রকাশিত:Saturday ২৩ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৬২জন দেখেছেন
Image

শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন থেকে খোয়া গেছে মূল্যবান সহস্রাধিক জিনিসপত্র, যার মধ্যে রয়েছে দুর্লভ শিল্পকর্মও। সম্প্রতি কলম্বোর প্রেসিডেন্সিয়াল প্যালেস ও প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন টেম্পল ট্রিজে সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারীরা ঢুকে পড়ার পর এসব জিনিসপত্র চুরি হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। খবর পিটিআইয়ের।

ইতিহাসের গভীরতম অর্থনৈতিক সংকট মোকাবিলায় ব্যর্থতার অভিযোগে সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারীরা গত ৯ জুলাই শ্রীলঙ্কার তৎকালীন প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসে ও প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহের সরকারি বাসভবনে হামলা চালায়। নিরাপত্তা বেষ্টনি ভেঙে গুরুত্বপূর্ণ এসব ভবনের উঠান থেকে শুরু করে সুইমিং পুল, রান্নাঘর, শোবার ঘর- সব জায়গা দখল করে নেয় তারা।

প্রাথমিক তদন্তের ভিত্তিতে পুলিশ জানিয়েছে, ওই ঘটনার পর ভবন দুটি থেকে মূল্যবান অন্তত এক হাজার জিনিস খোয়া গেছে। অধিকতর তদন্তের জন্য একটি বিশেষ দল গঠন করা হয়েছে।

লঙ্কান প্রেসিডেন্ট-প্রধানমন্ত্রীর বাসার মূল্যবান জিনিসপত্র চুরি

তবে তদন্তকারীদের জন্য যেটি চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে তা হলো, প্রেসিডেন্সিয়াল প্যালেসে থাকা প্রাচীন জিনিসপত্র ও প্রত্নবস্তুর কোনো রেকর্ড নেই শ্রীলঙ্কার প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের কাছে। অথচ প্রত্নতাত্ত্বিক গুরুত্বপূর্ণ স্থান হিসেবে স্বীকৃতি রয়েছে স্থাপনাটির।

লঙ্কান প্রেসিডেন্ট-প্রধানমন্ত্রীর বাসার মূল্যবান জিনিসপত্র চুরি

লঙ্কান প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা স্থানীয় সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, খোয়া যাওয়া প্রাচীন জিনিসপত্রের সঠিক সংখ্যা ও সুনির্দিষ্ট তথ্য পাওয়া কঠিন হবে। তবে পুলিশের ধারণা, এর সংখ্যা এক হাজারের বেশি হতে পারে।

শ্রীলঙ্কার নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট রনিল বিক্রমাসিংহে বলেছেন, তিনি শান্তিপূর্ণভাবে বিক্ষোভ করার অধিকারকে সম্মান করেন। তবে প্রেসিডেন্ট বা প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত বাসভবনের মতো আর কোনো সরকারি ভবন দখল করতে দেবেন না।

লঙ্কান প্রেসিডেন্ট-প্রধানমন্ত্রীর বাসার মূল্যবান জিনিসপত্র চুরি

বিক্রমাসিংহে জানান, ভবিষ্যতে সরকারি স্থাপনায় হামলা ও পার্লামেন্টের কাজে বাধা সৃষ্টি করা আটকাতে প্রয়োজনীয় সব ধরনের ব্যবস্থা নিতে শ্রীলঙ্কার সশস্ত্র বাহিনী ও পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

বিক্রমাসিংহে প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেওয়ার কয়েক ঘণ্টা পরেই গত ২২ জুলাই ভোরে গলে ফেসের সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারীদের সমাবেশস্থল গুঁড়িয়ে দেয় পুলিশ। এসময় আটক করা হয় বেশ কয়েকজন বিক্ষোভকারীকে।

সূত্র: এনডিটিভি


আরও খবর



সরকারের সময় ফুরিয়ে এসেছে: রিজভী

প্রকাশিত:Saturday ৩০ July ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১৭ August ২০২২ | ৬২জন দেখেছেন
Image

গুম-খুন ও মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনায় সরকার বিশ্বব্যাপী ধিক্কৃত হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

শনিবার (৩০ জুলাই) রাতে আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা এলাকায় এশিয়ান হাইওয়েতে মশাল মিছিল শেষে এ মন্তব্য করেন তিনি।

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে সাজা দেওয়া ও লোডশেডিংয়ের প্রতিবাদে এ মশাল মিছিল হয়।

মিছিল শেষে রুহুল কবির রিজভী বলেন, সরকারের লুটপাট ও দুর্নীতির কারণে দেশের বিদ্যুৎ ব্যবস্থা ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। ভেঙ্গে পড়েছে অর্থনৈতিক অবস্থা। এখন সরকারের মন্ত্রীরা দেশের এই টালমাটাল অবস্থা আড়াল করতে বিরোধীদলের সমালোচনাকে গুজব বলে মন্তব্য করছেন।

তিনি আরও বলেন, মিথ্যা গল্প সাজিয়ে আর প্রকৃত ঘটনা আড়াল করা যাবে না। দেশের মানুষকে বোকা বানানো যাবে না। সরকারের সময় ফুরিয়ে এসেছে। ফুঁসে উঠছে জনগণ। অচিরেই এ সরকারের বিদায় ঘণ্টা বেজে উঠবে।

মিছিলে আরও উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সদস্য ও রূপগঞ্জ উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক এনপি নেতা শরীফ আহমেদ টুটুল, জেলা যুবদল নেতা আমিরুল ইসলাম ইমন, ছাত্রদল নেতা সুলতান মাহমুদ প্রমুখ।


আরও খবর