Logo
আজঃ Monday ০৮ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড নিখোঁজ সংবাদ প্রধানমন্ত্রীর এপিএসের আত্মীয় পরিচয়ে বদলীর নামে ঘুষ বানিজ্য

খেলাধূলা এবং সংস্কৃতি চর্চায় সকলকে উৎসাহিত করতে হবে: এমপি মনু

প্রকাশিত:Sunday ২৪ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ১৬৪জন দেখেছেন
Image

নাজমুল হাসানঃ

শিক্ষার্থীদের পড়ালেখার পাশাপাশি খেলাধুলায় মনোযোগী হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী মনিরুল ইসলাম এমপি।


গতকাল শনিবার মান্নান সরকারি প্রার্থমিক বিদ্যায়ল প্রাঙ্গনে ‘বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্ট ও বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্ট-২০২২’ ডেমরা থানা পর্যায়ে ফাইনাল খেলা ও পুরষ্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এর আগে কেক কেটে খেলার উদ্বোধন করেন তিনি।


কাজী মনিরুল ইসলাম বলেন, বর্তমান সরকারের যুগোপযোগী শিক্ষাব্যবস্থা সর্বস্তরে বাস্তবায়নের জন্য শিক্ষক, অভিভাবকসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে একসাথে কাজ করতে হবে। ভালো ফল অর্জনে শিক্ষকদের ফলপ্রসূ পাঠদানে আরো যত্নবান এবং শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ায় আরো বেশি মনোযোগী হতে হবে।


মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে অন্তরে লালন করে এ দেশকে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। তিনি বলেন, খেলাধূলা তাদের (শিক্ষার্থীদের) যেকোনো ধরনের ভুল পথে যাওয়া বন্ধ হওয়ার পাশাপাশি শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্য বিকাশে সহায়ক হবে। কারণ, জাতি গঠনে এগুলো খুবই গুরুত্বপূর্ণ।


তিনি আরো বলেন, আজকে আমাদের বেশিরভাগ শিক্ষার্থীর সময় ফ্ল্যাটে মোবাইল, ল্যাপটপ এবং আইপ্যাড নিয়ে সময় কাটাচ্ছে। যা তাদের শারিরীক ও মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য খুবই অমঙ্গলজনক। তাই শিক্ষার্থীদেরকে কিছু সময়ের জন্য হলেও বাহিরে গিয়ে মাঠে খেলাধূলা করা এবং দৌড়ঝাঁপ দেয়ার সুযোগ দানে অভিভাবকদের প্রতি আহ্বান জানান কাজী মনিরুল ইসলাম মুন।


তিনি বলেন, ঢাকা-৫ নির্বাচনী এলাকার সকল অভিভাবকদের প্রতি অনুরোধ জানাচ্ছি, আপনারা আপনাদের শিশুদের লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধূলার প্রতিও মনোযোগী হবেন। তাহলে শিশুরা আর ভুল পথে যাবে না। তিনি বলেন, খেলাধূলা এবং সংস্কৃতি চর্চা একটি জাতির জন্য অপরিহার্য। এ কথা সবাইকে মনে রাখতে হবে আমাদের একেবারে ছোট শিশু থেকে সকলকে উৎসাহিত করতে হবে এবং সুযোগ সৃষ্টি করে দিতে হবে।


ডেমরা থানা শিক্ষা অফিসার কে এম সাইদা ইরানীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিভাগ প্রাথমিক শিক্ষা উপ-পরিচালক আলেয়া ফেরদৌসী শিখা, সহকারী ঢাকা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো: আলী আহসান ও ইশরাত নাসিমা হাবিব ও যাত্রাবাড়ি থানা আওয়ামী লীগের নেতা জিয়াউদ্দিন জিয়া, ৬৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতা আশফাকুর রহমান ভুট্টাে, সাদ্দাম হোসেন ও যাত্রাবাড়ি থানা ছাত্রলীগের সভাপতি মো: আতিকুর রহমান খান। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ৬৪নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য আবদুল আলিম খান ও ৬৪নং ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম সোহেল, গভর্নিং বডির সদস্যবৃন্দ, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা।


আরও খবর



তেল-শস্য নিয়ে আরও চার জাহাজ ইউক্রেন ছাড়লো

প্রকাশিত:Sunday ০৭ August ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | জন দেখেছেন
Image

শস্য এবং সূর্যমুখী তেল নিয়ে ইউক্রেন বন্দর ছেড়েছে আরও চার জাহাজ। নিরাপদ করিডোর দিয়ে ওই জাহাজগুলো ইউক্রেনের বিভিন্ন বন্দর থেকে ছেড়ে গেছে বলে বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে আকস্মিক হামলা চালায় রাশিয়া। তারপর থেকে এখন পর্যন্ত সংঘাত চলছেই। এদিকে যুদ্ধ সংঘাতের কারণে ইউক্রেনে লাখ লাখ টন শস্য আটকা পড়েছে। এসব শস্য ইউক্রেনের বাইরে যেতে না পারায় বিশ্বজুড়ে খাদ্য সংকট এবং খাদ্যপণ্যের মূল্য অনেক বেড়ে গেছে।

তবে সম্প্রতি জাতিসংঘ ও তুরস্কের মধ্যস্থতায় ইউক্রেন থেকে শস্য নিয়ে জাহাজ চলাচলের বিষয়ে রাশিয়া এবং ইউক্রেন ঐক্যমতে পৌঁছেছে। এর ফলে চলতি মাসের শুরুতেই ইউক্রেন থেকে প্রথম শস্যবাহী একটি জাহাজ তুরস্কের বসফরাস প্রণালীতে পৌঁছায়।

গত ১ আগস্ট সকালে ‘রাজোনি’ নামের সিয়েরা লিওনের পতাকাবাহী জাহাজটি ওডেসা থেকে লেবাননের ত্রিপোলি বন্দরের উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। জাতিসংঘ ও তুরস্ক আলোচনার মাধ্যমে স্থির করেছে যে সাগরের একটি নিরাপদ করিডোর দিয়ে এই শস্যবাহী জাহাজ চলবে। প্রথম জাহাজে ২৭ হাজার টন শস্য ছিল।

তবে গত মাসে রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে নিরাপদে শস্য রপ্তানির সুযোগ তৈরি করার লক্ষ্যে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। আর এতে মধ্যস্থতাকারী হিসেবে জাতিসংঘ এবং তুরস্কও সই করে।

চুক্তির শর্ত বলছে, ইউক্রেন থেকে খাদ্যবাহী কোনো জাহাজে রাশিয়া আক্রমণ করবে না, তবে এসব জাহাজে করে ইউক্রেন যেন অস্ত্র আনা নেওয়া করতে পারে তা নিশ্চিত করবে তুরস্ক।

ইউক্রেনের সরকার বলছে, ওডেসা ও তার আশপাশের বন্দরগুলোতে আরো ১৬টি জাহাজ ৬০০,০০০ টন খাদ্য শস্য নিয়ে অপেক্ষা করছে। এসব খাদ্যপণ্য আফ্রিকা ও মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশ যেখানে সংকট রয়েছে সেখানে রপ্তানি করা যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

জাতিসংঘের পরিসংখ্যান বলছে, খাদ্যশস্য রপ্তানির দিক থেকে ইউক্রেন বিশ্বের চতুর্থ স্থানে রয়েছে। সানফ্লাওয়ার তেলের ৪২ শতাংশ, ভুট্টার ১৬ শতাংশ এবং গমের ৯ শতাংশ উৎপাদিত হয় দেশটিতে। ইউক্রেনের গম সবচেয়ে বেশি রপ্তানি হওয়ার প্রথম তিনটি দেশের সারিতে রয়েছে মিশর, ইন্দোনেশিয়া ও বাংলাদেশ।

এদিকে রোববার ওডেসা এবং চরনোমর্স্ক বন্দর দিয়ে যে চারটি জাহাজ ইউক্রেন ছেড়েছে সেগুলোও তুরস্কের বসফরাস প্রণালীতে পৌঁছাবে বলে জানানো হয়েছে। সেখানে পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে দুটি তুরস্কের বন্দরে ভিড়বে এবং বাকি দুটি যাবে ইতালি ও চীনে।

অপরদিকে একটি খালি জাহাজ ইউক্রেনে যাচ্ছে। ওই জাহাজে করেও ইউক্রেন থেকে শস্য নিয়ে আসা হবে। ইউক্রেনের কর্মকর্তারা বলছেন, দেশ থেকে নিরাপদেই শস্য রপ্তানি করা যাচ্ছে। সে কারণে তারা জাহাজ কোম্পানিগুলোকে দেশে ফিরে আসার আহ্বান জানিয়েছে।


আরও খবর



‘মুক্তিযুদ্ধ ও গণহত্যা নিয়ে বিশ্বে ভুল তথ্য ছড়ানো হয়েছে’

প্রকাশিত:Tuesday ০২ August 2০২2 | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ২২জন দেখেছেন
Image

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, সারাবিশ্বে আমাদের মুক্তিযুদ্ধকে যেভাবে তুলে ধরার দরকার ছিল সেভাবে তুলে ধরতে পারিনি। কারণ আমাদের ইতিহাস নিয়ে লেখা ইংরেজি ভাষায় অনুবাদ করা সম্ভব হয়নি। কিন্তু মুক্তিযুদ্ধবিরোধীরা যুদ্ধের মিথ্যা তথ্য তুলে ধরতে সক্ষম হয়েছে। ফলে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে আমাদের মুক্তিযুদ্ধ ও গণহত্যা সম্পর্কে সঠিক তথ্যের পরিবর্তে ভুল তথ্য জেনেছে।

মঙ্গলবার (২ আগস্ট) সন্ধ্যায় রাজধানীর শাহবাগে বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে শ্যামলী নাসরিন চৌধুরীর লেখা ‘ডক্টর আলিম এ মার্টার অফ ১৯৭১’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন দীপু মনি।

মন্ত্রী বলেন, গণহত্যার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতির জন্য আমরা বলছি। তবে সেখানে শহীদের সঠিক সংখ্যা উল্লেখ নেই। আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে মানুষ শুধু জানে যে গণহত্যা হয়েছে। বাংলাদেশের গণহত্যা আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃতি লাভ করুক এটাই আমরা চায়। এজন্য গণহত্যার সঠিক তথ্য ও এর ভয়বহতা তুলে ধরতে হবে। আন্তর্জাতিক গণহত্যা দিবস রয়েছে। তাই নতুন করে আন্তর্জাতিক গণহত্যা দিবস পালনের সুযোগ নেই।

তবে আমরা চাই গণহত্যার প্রকৃত ইতিহাস এবং বাংলাদেশে গণহত্যা যে হয়েছে সেটা যেনো তারা জানে। এজন্য সরকার কাজ করছে। নতুন এ বইটির ইংরেজি অনুবাদ করায় গণহত্যা ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিশ্বের মানুষ জানতে পারবে।

‘মুক্তিযুদ্ধ ও গণহত্যা নিয়ে বিশ্বে ভুল তথ্য ছড়ানো হয়েছে’

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, বাংলাদেশে এখনো পাকিস্তানি মনোভাবের মানুষ চারপাশে রয়েছে। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস সারাবিশ্বে ছড়িয়ে দেওয়ার ক্ষেত্রে কাজে দিবে এ বইটি।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বই পড়ার প্রতি অনীহা তৈরি হয়েছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের গ্রন্থাগারগুলো দেখভালের দায়িত্বপ্রাপ্তদের গ্রন্থাগার শিক্ষক পদ দেওয়ায় গ্রন্থাগারের মান বাড়বে বলে মনে হয়। সারাদেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পাঠ্যসূচিতে মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশের অভ্যুদয় বিষয় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয় বিষয় পড়ানো বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। যদি কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে বিষয়টি পড়ানো না হয় তাহলে পড়ানোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে শ্যামলী নাসরিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য দেন বাংলাদেশ মেডিকেল রিসার্চ কাউন্সিলের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. সৈয়দ মোদাচ্ছের আলী, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শরফুদ্দিন আহমেদ, সম্প্রীতি বাংলাদেশের আহ্বায়ক পীয্যুষ বন্দোপাধ্যায়, ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবীর, সাধারণ সম্পাদক কাজী মুকুল, সংসদ সদস্য এরোমা দত্ত প্রমুখ।


আরও খবর



৩০ লাখ ডলারের এলসির তথ্যও আগে জানাতে হবে

প্রকাশিত:Friday ২৯ July ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | ১৮জন দেখেছেন
Image

ডলার সংকট কাটাতে পণ্য আমদানিতে আরও কড়াকড়ি আরোপ করা হলো। এখন থেকে ৩ মিলিয়ন বা ৩০ লাখ ডলারের বেশি মূল্যের পণ্যের ঋণপত্র (এলসি) খোলার তথ্য ২৪ ঘণ্টা আগে জানাতে হবে।

বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) বাংলাদেশ ব্যাংকের ফরেন এক্সচেঞ্জ পলিসি ডিপার্টমেন্ট এ বিষয়ে নির্দেশনা দিয়ে ব্যাংকগুলোর প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠিয়েছে।

এর আগে গত ১৪ জুলাই ৫০ লাখ ডলার বা এর বেশি মূল্যের পণ্য আমদানির ক্ষেত্রে এমন কড়াকড়ি আরোপ করেছিল বাংলাদেশ ব্যাংক। ওই নির্দেশনায় এলসি খোলার ২৪ ঘণ্টা আগেই নির্দিষ্ট ছক (পণ্য সম্পর্কিত পূর্ণাঙ্গ তথ্যের মধ্যে মূল্য, পরিমাণ ও ইনভয়েস) আকারে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সফটওয়ারে অনলাইনের মাধ্যমে জানাতে বলা হয়েছিল।

এছাড়া চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহে অপর এক নির্দেশনা দেয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক। সে নির্দেশনা মতে, বৈদেশিক মুদ্রার ওপর চাপ কমাতে এবং ডলার সাশ্রয়ে বিলাসী পণ্য আমদানিতে শতভাগ এলসি মার্জিন আরোপ করা হয়। একই সঙ্গে অত্যাবশ্যকীয় পণ্য ছাড়া বাকি সব পণ্য আমদানিতে এলসি খোলার ক্ষেত্রে ঋণ বিতরণ বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়।


আরও খবর



৫২ শ্রমিক করোনা আক্রান্ত, বড়পুকুরিয়ায় ফের কয়লা উত্তোলন বন্ধ

প্রকাশিত:Saturday ৩০ July ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | ৩২জন দেখেছেন
Image

দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলায় অবস্থিত বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির অভ্যন্তরে কর্মরত চীনা ও বাংলাদেশি ৫২ জন শ্রমিক করোনা আক্রান্ত। তাই শনিবার (৩০ জুলাই) থেকে ফের কয়লা উত্তোলন বন্ধ ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ২৭ জুলাই বড়পুকুরিয়া কয়লা খনিতে নতুন কূপে কয়লা উত্তোলন কার্যক্রম শুরু করে কর্তৃপক্ষ। খনিতে ৩০০ জন চীনা ও ৪০০ জন বাংলাদেশি শ্রমিক অবস্থান করছিল। এদের মধ্যে ২৬ জুলাই ১৪৩ জন শ্রমিকের রেনডোম পরীক্ষা করা হয়। ১৬ জনের করোনা পজিটিভ পাওয়া যায়। পরে ২৮ জুলাই ২৯২ জন চীনা ও বাংলাদেশি ১৩ শ্রমিকের করোনার নমুনা নেওয়া হয়। এদের মধ্যে ৩৪ জন চীনা ও দুজন বাংলাদেশি শ্রমিকের করোনা পজিটিভ পাওয়া যায়।

বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাইফুল ইসলাম সরকার জাগো নিউজকে বলেন, আমরা ২০ দিন আগে কয়লা থেকে প্রাথমিকভাবে কয়লা উত্তোলন শুরু করেছি। সাধারণ প্রথম সাত দিন প্রাথমিকভাবে কয়লা উত্তোলন করা হয়। পরে তা চূড়ান্তভাবে কয়লা উত্তোলন করা হয়। কিন্তু এরই মধ্যে কিছু শ্রমিক করোনা আক্রান্ত হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, খনিতে যারা করোনা আক্রান্ত হয়নি, তাদের দিয়ে খনির প্রাথমিকভাবে কয়লা উত্তোলনের কুপের উন্নয়ন কাজ করানো হচ্ছে।


আরও খবর



গাড়ি পেলেন না, মায়ের মরদেহ বাইকে করেই বাড়ি নিলেন যুবক

প্রকাশিত:Monday ০১ August ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ২৮জন দেখেছেন
Image

কয়েকদিন আগে একই সিরিঞ্জ দিয়ে ৩০ শিক্ষার্থীকে করোনা টিকা দেওয়ার ঘটনার পরপরই আরও একটি অবাক করা ঘটনা ঘটেছে প্রদেশটিতে। হাসপাতাল থেকে মায়ের মরদেহ বহন করার জন্য কোনো গাড়ি না পেয়ে মোটরসাইকেলে বেধে বাড়িতে নিয়ে গেছেন প্রদেশের আনুপ্পুর জেলার গুদারু গ্রামের এক যুবক।

সোমবার (১ আগস্ট) শাহোদল মেডিকেল কলেজে হাসপাতাল থেকে এক যুবককে তার মায়ের মরদেহ মোটরসাইকেলে দড়ি দিয়ে বেঁধে বাড়িতে নিয়ে যেতে দেখা যায়। যা ভিডিও করে ছেড়ে দেওয়া হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে। অল্প সময়ে ভাইরাল হওয়া এ ঘটনায় পুরো দেশ জুড়ে মধ্যপ্রদেশের স্বাস্থ্যব্যবস্থা নিয়ে তীব্র সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে।

জানা গেছে, আনুপ্পুর জেলার গুদারু গ্রাম থেকে অসুস্থ মা জয়মন্ত্রী যাদবকে শাহোদল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান সুন্দর যাদব নামের এক যুবক। শনিবার দিনগত রাতে মায়ের মৃত্যু হলে মরদেহ গ্রামে নিয়ে যাওয়ার জন্য হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে শবযান চান সুন্দর। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়, গুদারু গ্রামে মরদেহ নিয়ে যেতে পাঁচ হাজার রুপি দিতে হবে।

সেই টাকা জোগাড় করতে না পারায় শেষেমেশ ১০০ রুপি দিয়ে কাঠের পাটাতন কিনে তার ওপর মরদেহ রেখে দড়ি দিয়ে বাঁধেন সুন্দর। এভাবেই মোটরসাইকেলে করে মায়ের মরদেহ হাসপাতাল থেকে ৮০ কিলোমিটার দূরের গ্রামে নিয়ে যান তিনি।

সুন্দর যাদব বলেন, বুকে ব্যথা অনুভব করায় মাকে প্রথমে জেলা হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছিল। পরে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। দুই হাসপাতালেই চিকিৎসক ও নার্সদের গাফিলতির কারণে আমার মা মারা গেছেন।

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, শাহোদল মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসাসেবা সরবারহের সব ব্যবস্থা থাকলেও এখান থেকে যথাযথ চিকিৎসা মেলে না।


আরও খবর