Logo
আজঃ বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

খালি পেটে গ্রিন টি খেলে হতে পারে যেসব ক্ষতি

প্রকাশিত:বুধবার ১৮ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৩৮৯জন দেখেছেন

Image

লাইফস্টাইল ডেস্ক : গ্রিন টি স্বাস্থ্য সচেতনদের পছন্দের পানীয়। রক্তচাপ ও ব্লাড সুগার লেভেলে রাখা ছাড়া এটি আমাদের ত্বক ও চুল ভালো রাখে। তবে এতে হতে পারে শরীরের নানান সমস্যা। সকালে গ্রিন টি খাওয়া ভালো, তবে নাশতার সঙ্গে। আপনি বিস্কুট, ফল বা অন্য কিছুর সঙ্গেও খেতে পারেন। খালি পেটে নয়, সকালের নাশতার পর কিছুক্ষণ বিরতি দিয়ে গ্রিন টি পান করুন। 

চলুন জেনে নেওয়া যাক খালি পেটে গ্রিন টি খেলে শারীরিক কী কী ক্ষতি হতে পারে- 


পেট ব্যথা

আপনি যখন একবারে খালি পেটে গ্রিন টি খাবেন তখন এতে থাকা ট্যানিন উপাদান আপনার পাকস্থলীর অ্যাসিডিটি বাড়িয়ে তুলবে। যে কারণে দেখা দেবে পেট ব্যথা। সেই সঙ্গে বাড়বে কোষ্ঠকাঠিন্য। পেটে সৃষ্ট অতিরিক্ত অ্যাসিডের কারণে দেখা দিতে পারে বমিভাব বা বমির মতো সমস্যাও।

আলসার বাড়িয়ে তোলে

যাদের আগে থেকেই পেপটিক আলসার বা অ্যাসিড রিফ্লাক্সের সমস্যা রয়েছে তাদের সকালে গ্রিন টি না পান করার পরামর্শ দেওয়া হয়। এর কারণ হলো, সকালে খালি পেটে গ্রিন টি খেলে তাদের সমস্যা আরও বেড়ে যেতে পারে।

আয়রন শোষণের ক্ষমতা কমে যায়

আমাদের সুস্থ থাকার জন্য শরীরে পর্যাপ্ত আয়রন পৌঁছানো জরুরি। কিন্তু আপনি যদি খালে পেটে গ্রিন টি খান তবে তা আয়রন শোষণের ক্ষমতা কমিয়ে দেয়। যে কারণে শরীরে নানা সমস্যা দেখা দিতে পারে। বিশেষ করে যারা রক্তশূন্যতায় ভুগছেন তাদের গ্রিন টি থেকে দূরে থাকাই ভালো।

রক্তচাপ বেড়ে যেতে পারে

রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে চাইলে খালি পেটে গ্রিন টি খাবেন না। কারণ খালি পেটে গ্রিন টি খেলে বেড়ে যেতে পারে রক্তচাপ। এই চায়ে থাকা ক্যাফেইন অ্যাড্রিনাল গ্রন্থিগুলোকে উদ্দীপিত করে। যা অ্যাড্রেনালিন এবং কর্টিসলের মতো স্ট্রেস হরমোন রিলিজ করে। যে কারণে বেড়ে যায় হৃদস্পন্দন ও রক্তচাপ। এটি হৃদরোগে আক্রান্তদের জন্য ক্ষতিকর। 

সকালে গ্রিন টি খাওয়া যাবে?

সকালে গ্রিন টি খাওয়া যাবে তবে খালি পেটে নয়। খেতে হবে অন্য কোনো হালকা খাবারের সঙ্গে। হতে পারে তা মুড়ি,টোস্ট কিংবা বিস্কুট। কিন্তু কোনো খাবার না খেলে শুরুতেই যদি গ্রিন টি খান, তখন পড়তে হতে পারে সমস্যায়।


আরও খবর

"নোবেলের ম্যাজিক শুধু প্রতারণা"

মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24




শেখ হাসিনা কৃষকদের ভাগ্য উন্নয়নে কৃষিকেই গুরুত্ব দিয়েছে: ধর্মমন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ১২ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১৫ জুলাই ২০২৪ | ৬৮জন দেখেছেন

Image
লিয়াকত হোসাইন লায়ন,ইসলামপুর(জামালপুর) প্রতিনিধি:ধর্মমন্ত্রী ফরিদুল হক খান দুলাল এমপি বলছেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন দেখা, বাংলার কৃষকদের ভাগ্য উন্নয়নে কৃষিকেই সবচেয়ে গুরুত্ব দিয়েছে সরকার।দেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতি  কে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে বাংলার কৃষক সমাজ। পিতার সেই স্বপ্নকে বাস্তবায়নে- বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগ সরকার বাংলাদেশের কৃষকদের, নানাবিধ ভর্তুকি দিয়ে সার-বীজ, যন্ত্রপাতি ও কৃষকদের মাঠ পর্যায়ে প্রশিক্ষণ দিয়ে, দেশের খাদ্য পুষ্টি পূরণে নিরলস ভাবে কাজ করছে।  বর্তমান সরকার কৃষকদের উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

মন্ত্রী জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জে বৃহস্পতিবার (১১জুলাই) দুপুরে জিল বাংলা চিনিকল আখচাষী কল্যাণ সমিতির আয়োজনে অফিসার্স ক্লাব হলরুমে সাধারণ সভায় এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার দেশের উন্নয়নে সব সময় কাজ করে যাচ্ছে। তেমনি আখচাষীদের আগের মত আখচাষ করে চিনি শিল্পকে পুনরায় উজ্জীবিত করতে হবে। তিনি সকলের সহযোগীতা কামনা করেন।

এসময় দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, জিলবাংলা চিনিকল ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাব্বিক হাসান,আখচাষী কল্যান সমিতির সাধারণ সম্পাদক মান্নান মোল্লা, শফিকুর রহমান শিবলী সহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন। পরে আখচাষী কল্যান সমিতির বিগতদিনে মৃত্যুবরণকারীদের রুহের মাগফেরাত কামনায় বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

-খবর প্রতিদিন/ সি.

আরও খবর



প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যকে বিকৃতভাবে উপস্থাপন করা হচ্ছে: ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৭৪জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের দাবি করেছেন প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যকে বিকৃতভাবে উপস্থাপন করা হচ্ছে বলে ।

মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) দুপুরে আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

সেতুমন্ত্রী বলেন, নির্বাচিত সরকারকে উৎখাত করার জন্য দেশে-বিদেশে নানা ষড়যন্ত্র চলছে। আদালয়ের রায় বল প্রয়োগের মাধ্যমে পরিবর্তনের চেষ্টা চলছে। এর পেছনে একটি মতলবি মহল আছে।

তিনি বলেন, বিএনপি নির্বাচনে অংশ নেয়নি। আন্দোলনেও তারা ব্যর্থ । আমরা আগেও দেখেছি ২০১৮ সালে সড়ক আন্দোলনের ওপর ভর করে তারা আন্দোলনের ফসল কুড়াতে চেয়েছিল। তারা অগ্নিসন্ত্রাস করেছে, কত মানুষ যে মারা গেছে। টার্গেট করে নিরীহ মানুষ তারা হত্যা করেছে।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, আমরা এখনও বলছি আজ যে কোটা সংস্কার আন্দোলন বাংলাদেশে চলছে, এই আন্দোলনেরও নেতৃত্ব নিয়েছেন সেই লন্ডনের দণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামি। তার দল সমর্থন দিয়েছে প্রকাশ্যে। তারেক রহমান প্রতিনিয়ত ২০১৫, ১৬, ১৮ সালের মতো এই আন্দোলনকে রাজনৈতিক আন্দোলনে পরিণত করার জন্য বিভিন্ন অপশক্তিকে লেলিয়ে দিয়েছে।

পত্রপত্রিকায় যা দেখতে পেলাম তাতে ছাত্রলীগকে দোষ দেওয়া যেন ফ্যাশনে পরিণত হয়েছে উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, সব দোষই যেন নন্দ ঘোষ ছাত্রলীগের। অথচ এই হামলায় ৫০০ জন আহত হয়েছে। এর মধ্যে কেন্দ্রীয় নেতা আছে ২০ জন। দুইজন গুলিবিদ্ধ হয়েছে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.


আরও খবর



ভোলার দৌলতখানে জমি নিয়ে বিরোধ, বসত ঘরের বারান্দায় বৃদ্ধাকে দাফন

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৫ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১০২জন দেখেছেন

Image

শরীফ হোসাইন, ভোলা বিশেষ প্রতিনিধি:ভোলার দৌলতখানে জমি জমা বিরোধের জের ধরে জোবেদা খাতুন (৫৫) নামে এক বৃদ্ধা নারীকে তার বসত ঘরের বারেন্দার মধ্যে দাফন করা হয়েছে। বুধবার ঘটনাটি ঘটেছে দৌলতখানের দক্ষিণ জয়নগর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের সর্দার বাড়িতে।

স্থানীয়সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘ দেড় বছর পূর্বে জোবেদা খাতুনের স্বামী আব্দুর রশিদ মৃত্যুবরণ করেন। তখন তাকে দাফন করা হয়েছিল তার ভাতিজা রফিক এর জায়গায়। পারিবারিক কলহের জের ধরে ঐ কবরের উপরে রফিকের স্ত্রী তাসনুর বেগম ঝাড়ু দিয়ে কবরকে অসম্মান করায় জোবেদা খাতুন তার ছেলে-মেয়েকে মৃত্যুর আগে অছিয়ত করেছিল তাকে যেন মৃত্যুর পর কারো জায়গায় দাফন না করা হয়। প্রয়োজনে তার ঘরের মধ্যে দাফন করতে বলেছেন।

মৃত জোবেদা খাতুনের বড় ছেলে রফিজল জানান, তাদের বাড়িতে সাড়ে ৫ শতক জমি রয়েছে। ঘরের ভিটায় আড়াই শতক এবং বাকি ৩ শতক জমি তার চাচাতো ভাই রফিক দখল করে বিল্ডিং নির্মাণ করিতেছেন। ঘরের ভিতর তার মাকে দাফন না করলে হয়তো এক সময় তাঁর চাচাতো ভাই রফিক বাকি জমি জবর দখল করে নিয়ে যাবে। তিনি আরো বলেন, এক দিকে মায়ের কবর হলো; অন্যদিকে তাদের ঘর ভিটা তাদের নিয়ন্ত্রণে রহিলো। রফিকের বিল্ডিংয়ের দরজার সামনেই জোবেদা খাতুনকে কবর দেয়া হয়েছে। পরে এলাকাবাসী জোবেদা খাতুনের কবরটি ইট দিয়ে পাকা করে দিয়েছে। যাতে করে রফিক ভবিষ্যতে জোবেদা খাতুনের কবরসহ ঘর ভিটা দখল করতে না পারে। রফিকের বাবার সাথে কথা বললে তিনি জানান, এ বাড়িতে সব জমি আমার। এখানে অন্য কারো জমি নেই।


আরও খবর



যামিনীপাড়া জোন ২৩ বিজিবির উদ্যােগে অসহায় পাহাড়ি-বাঙালিদের বিভিন্ন অনুদান প্রদান

প্রকাশিত:শুক্রবার ১২ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৬২জন দেখেছেন

Image
জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:পার্বত্য এলাকায় স্থিতিশীলতা ও শান্তি বজায় রাখার লক্ষ্যে যামিনীপাড়া জোন (২৩ বিজিবি) সীমান্ত রক্ষার পাশাপাশি নিয়মিতভাবে বিভিন্ন ধরনের জনকল্যাণমূলক কর্মসূচি পরিচালনা করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার  (১১ জুলাই)  যামিনীপাড়া জোন (২৩ বিজিবি) এর জোন কমান্ডার লেঃ কর্নেল আলমগীর কবির, পিএসসি শান্তি, সম্প্রীতি ও উন্নয়নের আওতায় আর্থিক ও বিভিন্ন রকমের নির্মাণ সামগ্রী অনুদান প্রদান করেন।

মানবিক সহায়তার মধ্যে  জোনের আওতাধীন দুস্থ ও অসহায় (১) জাপান শ্রী ত্রিপুরা,  (২) সরলীকা ত্রিপুরা, (৩)  শমি বালা ত্রিপুরা, (৪) জোস্না আক্তার,  (৫) খোদেজা আক্তার, এই ৫জনকে পুরাতন ও ভাঙ্গা ঘরে মানবেতর জীবন যাপন করে আসছে। তাদের আবেদনের প্রেক্ষিতে জোন থেকে ১৪.৫০ বান ঢেউটিন অনুদান দেয়া হয়। এছাড়া ডাকবাংলা লুম্বিনী বৌদ্ধ বিহারে ০১টি সিলিং ফ্যান, ইউনিসেফ পাড়াকেন্দ্র (বড়পাড়া) স্কুলে ০১টি সিলিং ফ্যান অনুদান প্রদান, ০৭ জন দুস্থ ও অসহায় ব্যক্তিকে নগদ আর্থিক অনুদান প্রদান, বিশ্বরাম কারবারীপাড়া থেকে বড়পাড়া তৈলাফাং ছড়া পাড়াপাড়ের জন্য সাঁকো মেরামতের নিমিত্তে আর্থিক অনুদান প্রদান এবং যামিনীপাড়া বর্ডার গার্ড উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও স্টাফদের বেতন বাবদ ৫০,০০০/- টাকা অনুদান দেয়া হয়। হোসনেয়ারা বেগম, স্বামী-বেলাল হোসেন এর বাড়ীতে বিদ্যুৎ না থাকায় ০১ টি সৌর বিদ্যুতের ব্যাটারি অনুদান প্রদানসহ আমিন সরদারপাড়া জামে মসজিদের ইমাম থাকার ২০ ফুট একটি টিন সেড ঘর নিমার্ণের জন্য আর্থিক অনুদান এবং ছালেহা খাতুন, এর মেয়ের বিবাহের জন্য আর্থিক অনুদান প্রদান করেন। এছাড়াও প্রতি মাসের ন্যায় এ মাসেও আওতাধীন এলাকার ০৫ টি মাদ্রাসায় ৩৫০ কেজি চাল এবং ৫০ কেজি চিনি বিতরণ করেন। মোট ২,০১,৩৫০/- টাকার অনুদান প্রদান করেন এবং সর্বমোট সুবিধা ভোগীর সংখ্যা ১৯৪৫ জন (পাহাড়ি-১৪৭২ এবং বাঙালি-৪৭৩ জন)।

-খবর প্রতিদিন/ সি.

আরও খবর



পূর্বাচলে শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১১ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৪৪জন দেখেছেন

Image

মোঃআবু কাওছার মিঠু রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ)প্রতিনিধিঃ- নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার পূর্বাচল উপশহরের ১, ২ ও ৩ নং সেক্টরের ভোলানাথপুর, কাদিরারটেক, বৌরারটেক, পানিআগ্রা, গুতিয়াবো, সমুমার্কেটসহ আশপাশের শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। 


১১ জুলাই বৃহস্পতিবার উচ্ছেদ অভিযানে রাজউকের ম্যাজিস্ট্রেট শারমীন রহমানের নেতৃত্বে দেন। এ সময় রাজউকের পূর্বাচল উপশহরের প্রকল্প পরিচালক নূরুল ইসলাম, পানি সরবরাহ প্রকল্পের পরিচালক সাদ্দাম হোসেন, বিপুল সংখ্যক আনসার ও পুলিশ উচ্ছেদ অভিযানে  অংশ গ্রহণ করে ।


 উচ্ছেদকৃত স্থাপনার মধ্যে রয়েছে  রেস্টুরেন্ট, ভাতের হোটেল, চায়েরদোকান, মুদিদোকান, রিসোর্ট, পিঠার দোকান। ৫০টি সাবমারসিবল ও পানির ট্যাংকি উচ্ছেদ অভিযানের আওতায় থাকায় খাবার পানি সংকটে পড়েছে বাসিন্দারা। তবে পূর্বাচল উপশহরে সরবরাহকৃত পানি বিল পরিশোধ করে বাসিন্দারা সেবন করতে পারবেন বলে জানিয়েছেন পানি সরবরাহ প্রকল্পের পরিচালক সাদ্দাম হোসেন।

  -খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর