Logo
আজঃ বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

খালেদা জিয়াকে তারেকের নির্দেশে সরাতে চায় বিএনপি

প্রকাশিত:সোমবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৮৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:তারেকের নির্দেশে খালেদা জিয়াকে রাজনীতি থেকে সরাতে চায় বিএনপি। সোমবার (১৮ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশ আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগের ১৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় এ মন্তব্য করেছেন সাবেক খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম।   

তিনি বলেন, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে দলটি খালেদা জিয়াকে রাজনীতি থেকে মাইনাস করতে চান। না হলে তার মুক্তির জন্য বিএনপি লড়াই করত, আন্দোলন তীব্র থেকে তীব্রতর করত। তার মুক্তির জন্য বারবার আদালতের দ্বারস্থ হতো। 

কামরুল বলেন, মামলা হলেই প্রতিদিন আপনারা আদালতের দ্বারস্থ হন জামিনের জন্য। নাইকো মামলা, এই মামলা-সেই মামলার জন্য আপনারা আদালতের দ্বারস্থ হন, কিন্তু খালেদা জিয়ার জন্য কবে আদালতে গিয়েছিলেন?

তিনি বলেন, তার মুক্তি এবং বিদেশে চিকিৎসা একমাত্র আদালতের মাধ্যমেই হতে পারে, অন্য কোনো পথে নয়। আপনারা সেটা জানেন না। আপনারা তাকে জেলখানায় রাখতে চান, রাজনীতি থেকে মাইনাস করতে চান।

কামরুল ইসলাম বলেন, আপনাদের সামনে দুটি পথ ছিল– আন্দোলনকে তীব্রতর করে তাকে মুক্ত করা অথবা বারবার আদালতের শরণাপন্ন হয়ে আদালতের মাধ্যমে তার মুক্তি নিশ্চিত করা, বিদেশে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা। কোনোটাই আপনারা করেন না রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা ভিক্ষা চাইতে পারতেন, তাও করেন না। 

তিনি আরও বলেন, আপনাদের উদ্দেশ্য তারেকের ফর্মুলাতে গিয়ে খালেদা জিয়াকে রাজনীতি থেকে মাইনাস করে জেলখানায় রাখা। আবার সরকারের দোষ দেন। সাঈদীর সঙ্গে খালেদা জিয়াকে তুলনা করেন। ভালো, এতদিন পর সত্য কথাটাই বলেছেন।

বিএনপি দেশকে ধ্বংসের দিকে নিয়ে যেতে চাইছে উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, বিএনপি আজ বাংলাদেশে আমাদের সব অর্জন-উন্নয়নকে নস্যাৎ করার চেষ্টা করছে। গণতন্ত্রকে হত্যার চেষ্টা করছে। তারা সেই তত্ত্বাবধায়ক সরকার চায়। যে সরকার তিন মাসের কথা বলে দুই বছর থেকে যায়, ওই রকম একটা অনির্বাচিত সরকার আবার তারা চায়। আবার তারা ক্ষমতার পরিবর্তন চায়, যেটা সম্ভব না। 

আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, তারা ষড়যন্ত্র করছে গণতান্ত্রিক সরকারকে হটিয়ে দেওয়ার। আবার দেশে অনির্বাচিত সরকার কায়েমের চেষ্টা করছে তারা। তাই নতুন প্রজন্মকে বলব এই অপশক্তির বিরুদ্ধে আমাদের অতন্দ্র প্রহরীর মতো সজাগ থাকতে হবে। তারা দেশের শত্রু, জাতির শত্রু।

কামরুল বলেন, বিএনপি আমাদের পেছনের দিকে নিয়ে যেতে চায়। তাদের স্লোগানই হচ্ছে টেক ব্যাক বাংলাদেশ। আমরা যখন স্মার্ট বাংলাদেশের কথা বলি, তখন তারা বলে টেক ব্যাক বাংলাদেশ। 

বাংলাদেশ আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান দুর্জয়ের সভাপতিত্বে আলোচনাসভায় আরও ছিলেন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ডা. দিলীপ কুমার রায়, বাংলাদেশ আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগের সাধারণ সম্পাদক খাজা হোসেন, সহসভাপতি আলমগীর হোসেন, বশির আহমেদ বাদল, শাহ আলম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন বাবু, সাংগঠনিক সম্পাদক তারেক আইয়ূব প্রমুখ।


আরও খবর



সুফিয়া কামাল গণতান্ত্রিক ও নারী মুক্তি আন্দোলনের পথিকৃৎ: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০24 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১৪৬জন দেখেছেন

Image

খবর প্রতিদিন ২৪ডেস্ক:কবি বেগম সুফিয়া কামাল গণতান্ত্রিক ও নারী মুক্তি আন্দোলনের পথিকৃৎ, বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার জীবনদর্শন ও সাহিত্যকর্ম প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে পাঠকের হৃদয় আলোকিত করবে। নারী জাগরণের অগ্রদূত বেগম রোকেয়ার চিন্তাধারা ও প্রতিজ্ঞা কবি সুফিয়া কামালের জীবনে সঞ্চারিত হয় ও সুদূরপ্রসারী প্রভাব ফেলে। তার দাবির পরিপ্রেক্ষিতেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম ছাত্রীনিবাসের নাম ‘রোকেয়া হল’ রাখা হয়। ১৯৬১ সালে পাকিস্তান সরকার বেতারে রবীন্দ্রসংগীত প্রচার নিষিদ্ধ করলে এর প্রতিবাদে তিনি আন্দোলন গড়ে তোলেন।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) বেগম সুফিয়া কামালের ১১৩তম জন্মদিন উপলক্ষে দেওয়া বাণীতে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, জননী সাহসিকা হিসেবে পরিচিত ও গণতান্ত্রিক এবং নারী মুক্তি আন্দোলনের অন্যতম পথিকৃৎ কবি বেগম সুফিয়া কামাল ১৯১১ সালের ২০ জুন বরিশালে জন্মগ্রহণ করেন। মৃত্যুবরণ করেন ১৯৯৯ সালের ২০ নভেম্বর ঢাকায়। একদিকে তিনি ছিলেন আবহমান বাঙালি নারীর প্রতিকৃতি, অন্যদিকে বাংলার প্রতিটি আন্দোলন সংগ্রামে ছিল তার আপসহীন এবং দৃপ্ত পদচারণা। ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলন, ১৯৬৯ সালের গণঅভ্যুত্থান, ১৯৭১ সালের অসহযোগ আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধ এবং স্বাধীন বাংলাদেশে বিভিন্ন গণতান্ত্রিক সংগ্রামসহ শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক আন্দোলনে তার প্রত্যক্ষ উপস্থিতি তাকে জনগণের ‘জননী সাহসিকা’ উপাধিতে অভিষিক্ত করেছে। তার স্মরণে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সরকার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের জন্য ‘বেগম সুফিয়া কামাল হল’ নির্মাণ করে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে ১৯৭৫ এর ১৫ আগস্ট সপরিবারে নির্মমভাবে হত্যা পর এ দেশের ইতিহাস বিকৃতির পালা শুরু হয়। তখন তার সোচ্চার ভূমিকা বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের গণতান্ত্রিক শক্তিকে নতুন প্রেরণা যুগিয়েছিল। বেগম সুফিয়া কামালের সৃজনশীলতা ছিল অবিস্মরণীয়। সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধির পাশাপাশি চলতে থাকে তার সাহিত্যচর্চা। ১৯৩৮ সালে কবি সুফিয়া কামালের প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘সাজের মায়া’র মুখবন্ধ লেখেন কবি কাজী নজরুল ইসলাম। যা সেই সময়ের পাঠকসহ লেখকদের কাছে ব্যাপক প্রশংসা অর্জন করে।

তিনি আরও বলেন, দেশ, প্রকৃতি, গণতন্ত্র, সমাজ সংস্কার, নারীমুক্তি এবং শিশুতোষ রচনাসহ বিভিন্ন বিষয়ে তার লেখনীতে সমৃদ্ধ হয়েছে। কবির ভাষায়- ‘তোমাদের গানে, কল-কলতানে উছসি উঠিবে নদী, সরস করিয়া তৃণ ও তরুরে বহিবে সে নিরবধি; তোমরা আনিবে ফুল ও ফসল পাখি ডাকা রাঙা ভোর, জগৎ করিবে মধুময়, প্রাণে প্রাণে বাঁধি প্রীতিডোর’।


আরও খবর



আজ থেকে ৪৪ দিন বন্ধ থাকবে কোচিং সেন্টার

প্রকাশিত:শনিবার ২৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৮৬জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রশ্নফাঁস ও পরীক্ষা নকলমুক্ত করতে আজ শনিবার (২৯ জুন) থেকে ১১ আগস্ট পর্যন্ত ৪৪ দিন দেশের কোচিং সেন্টার বন্ধ থাকবে।চলতি বছরের এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা শুরু হবে রোববার (৩০ জুন)।তবে আইএসটিএস, বিসিএস পরীক্ষার মতো অন্যান্য কোচিং সেন্টার খোলা রাখতে পারে।

গত ৫ জুন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা উপলক্ষে জাতীয় মনিটরিং ও আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় কোচিং বন্ধের এ নির্দেশনা দেন শিক্ষামন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী।

ওইদিন ব্রিফিংয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, কোচিং সেন্টারগুলো থেকেই মূলত প্রশ্নফাঁসের গুজব ছড়িয়ে থাকে। এজন্য পরীক্ষার সময়ে কোচিং সেন্টারের কার্যক্রম বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমরা। কেউ যদি নির্দেশনা না মানে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে, চলতি বছর ৯টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড, কারিগরি বোর্ড ও মাদরাসা বোর্ডের এইচএসসি, আলিম, এইচএসসি (বিএম/বিএমটি), এইচএসসি (ভোকেশনাল), ডিপ্লোমা ইন কমার্স পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থী ১৪ লাখ ৫০ হাজার ৭৯০ জন। এরমধ্যে ছাত্র ৭ লাখ ৫০ হাজার ২৮১ এবং ছাত্রী ৭ লাখ ৫০৯ জন। এবার মোট কেন্দ্র দুই হাজার ৭২৫টি ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ৯ হাজার ৪৬৩টি।

অন্যদিকে বন্যা পরিস্থিতির কারণে সিলেট অঞ্চলের চারটি জেলার এইচএসসি, আলিম, এইচএসসি (বিএম/বিএমটি), এইচএসসি (ভোকেশনাল) পরীক্ষা ৮ জুলাই পর্যন্ত স্থগিত করা হয়েছে। আগামী ৯ জুলাই থেকে এসব জেলায় পূর্বঘোষিত সময়সূচি অনুযায়ী পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

স্থগিত পরীক্ষাগুলোর সময়সূচি পরবর্তীতে প্রকাশ করবে স্ব স্ব বোর্ড। একই সঙ্গে ৮ জুলাইয়ের পর আর কোনো পরীক্ষা স্থগিত করা হবে না বলেও জানিয়েছে সিলেট মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড।


আরও খবর



মাগুরায় আওয়ামী লীগের ৭৫ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

প্রকাশিত:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১৫ জুলাই ২০২৪ | ১০৫জন দেখেছেন

Image

স্টাফ রিপোর্টার মাগুরা থেকে:মাগুরা জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে নানান কর্মসুচির মধ্যদিয়ে  রবিবার বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭৫ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত হয়। দিবসটি পালন উপলক্ষে মাগুরা জেলা আওয়ামী লীগ সকালে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন,বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্ফস্থবক অর্পন,আলোচনা সভা, চিত্রাংকন প্রতিযোগীতা, বৃক্ষরোপন ও রক্তদান কর্মসুচি পালন করে। স্থানীয় আছাদুজ্জামান মিলনায়তনে আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আফম আব্দুল ফাত্তাহ।  আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠায় বঙ্গবন্ধুর অবদান ও দলের দীর্ঘ পথচলার ইতিহাস ঐতিহ্য তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন, মাগুরা ২ আসনের সংসদ সদস্য এড, বীরেন শিকদার, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পঙ্কজ কুমার কুন্ডু, সহ সভাপতি মুন্সী রেজাউল হক,  আবু নাসির বাবলু, সৈয়দ শরিফুল ইসলাম, বাসুদেব কুন্ডু, মাগুরা ১ আসনের  সংসদ সদস্য সাকিব আল হাসানের পিতা খোন্দকার মাশরুর রেজা, মাগুরা সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রানা আমীর ওসমান, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আশরাফুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মান্নান, জেলা যুবলীগের আহবায়ক ফজলুর রহমান, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি রিয়াজুল ইসলাম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।


আরও খবর



কোটার বিষয়ে আদালতের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত: ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত:বুধবার ১০ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৩৬জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:আমরা কোটামুক্ত সিদ্ধান্তই নিয়েছিলাম। এখন আমাদের অবস্থান আদালতের ওপর নির্ভরশীল। আদালতের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত হবে। আশা করি, আদালত বাস্তবসম্মত সিদ্ধান্ত নেবেন,বলেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

বুধবার (১০ জুলাই) দুপুরে আপিল বিভাগের আদেশের পর এ কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আদালত চূড়ান্ত রায়ের মাধ্যমে এ বিষয়ের নিষ্পত্তি করবেন। আদালত শিক্ষার্থীদের ক্লাসে ফিরে যেতে বলেছেন। শিক্ষার্থীদের অসন্তোষ বিবেচনা করে আদালত বাস্তবসম্মত রায় প্রকাশ করবেন বলে আশা করি। পুরো রায় না আসা পর্যন্ত ধৈর্য ধারণ করতে বলছি। মানুষের দুর্ভোগ যাতে না হয়, সেদিকে শিক্ষার্থীদের খেয়াল রাখতে হবে। ‘বাংলা ব্লকেড’ কর্মসূচি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, শিক্ষার্থীরা কি ভাবছে তা এখনই বলা সম্ভব না। এক ঘণ্টার মধ্যে শিক্ষার্থীদের প্রতিক্রিয়া বলা যাবে না। আজ ও কাল দেখি। তারপর বুঝা যাবে, আপনারা ধৈর্য ধরুন।

তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের আন্দোলনের বিষয়ে আমাদের যোগাযোগ আছে। আমরা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছি। অচিরেই সমস্যার সমাধান হবে।

এসময় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, এস এম কামাল হোসেন, আফজাল হোসেন, দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, উপ-দপ্তর সম্পাদক সায়েম খান, কার্যনির্বাহী সদস্য সাহাবুদ্দিন ফরাজী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

-খবর প্রতিদিন/ সি.


আরও খবর



ফেনীতে কাউন্সিলরের ছোট ভাইয়ের বিরুদ্ধে বিয়ের প্রলোভনে প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৪ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৮৪জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদকঃফেনী জেলার দাগনভূঞায় এক প্রবাসীর স্ত্রীকে বিয়ের প্রলোভনে জোরপূর্বক ধর্ষনের অভিযোগ ওঠেছে পৌরসভার ৯ নং ওয়কর্ডের সাবেক কাউন্সিলর মহি উদ্দিন জুয়েলের ছোট ভাই আহমেদ হিমেলের বিরুদ্ধে। হিমেল বিয়ের অস্বীকৃতি জানালে ৩ বার আত্মহত্যার চেষ্টা করেন ওই মহিলা। এ বিষয়ে ভূক্তভোগী ওই নারী তার ব্যক্তিগত ফেসবুকে কয়েকটি ভিডিও আপলোড করেন। 

আপলোড করা ভিডিওতে ঐ নারী অভিযোগ করে বলেন, তার স্বামী প্রবাসে থাকার সুবাদে দাগনভূঞা ফাজিলেরঘাট রোডস্থ হিমেলের ফার্মেসীর পাশে একটি ভাড়া বাসায় ওঠেন। ওই মহিলার স্বামী ইকবালের সাথে হিমেলের সু-সম্পর্ক থাকায় প্রবাসে যাওয়ার পর ইকবাল তার স্ত্রীর জন্য হিমেলের কাছে টাকা পয়সা প্রেরন করতেন। সে সুবাদে ইকবালের স্ত্রীর সাথে সখ্যতা গড়ে ওঠে হিমেলের। ভাড়া বাসায় ইকবালের স্ত্রী একা থাকার সুবাদে সে সুযোগটি কাজে লাগায় হিমেল। ইকবাল প্রবাসে যাওয়ার ৪-৫ মাসের মধ্যে তার স্ত্রীকে প্রথমে জোরপূর্বক ধর্ষন করে হিমেল। এ নিয়ে ওই মহিলা বাড়াবাড়ি করলে হিমেল তাকে বিয়ে করার প্রতিশ্রুতি দেয়। এবং নাকফুল পরিয়ে দেয়। প্রায় তিনবছর ধরে ওই মহিলার সাথে শারিরিক সম্পর্ক করে আসতেছে হিমেল। নিয়মিত শারিরিক সম্পর্কের কারনে ওই মহিলা ২ বার বাচ্চা কনসিভ করলেও হিমেল তাকে প্রেসার দিয়ে বাচ্চা নষ্ট করতে বাধ্য করে। কিন্তু হিমেলকে বারবার বিয়ের কথা বললেও হিমেল তা এড়িয়ে চলতে থাকে। এবং গত মাসে তাকে বিয়ে করবেনা মর্মে জানিয়ে দেয় হিমেল। এবং এ ঘটনা কারো সাথে বললে বা মামলা করার চেষ্টা করলে তাকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেয় হিমেল ও জুয়েল। তাই সে নিরুপায় হয়ে অতিরিক্ত ঘুমের ওষুধ সেবন করে আত্মহত্যার চেষ্টা করলে হিমেলের ভাই জুয়েল তাকে হসপিটালে নিয়ে ভর্তি করেন। গত মাসে ৩ বার সে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। সর্বশেষ জুনের ৩০ তারিখ গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করলে দরজা ভেঙে ঝুলন্ত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন হিমেলের ভাই সাবেক কমিশনার মহিউদ্দিন জুয়েল। ভূক্তভোগী ওই মহিলা হসপিটালে থাকালীন জুয়েল তার ভাই হিমেলকে অন্যত্র পাঠিয়ে দেয়। ওই মহিলা হসপিটাল থেকে বাসায় ফিরে তার সাথে ঘটে যাওয়া অন্যায়ের বিবরণ তুলে ধরে তার ফেসবুকে কয়েকটি ভিডিও আপলোড করেন। তখন এ ঘটনার ধামাচাপা দিতে দাগনভূঞা পৌরসভার মেয়র ওমর ফারুক খাঁনের শরাণাপন্ন হয় জুয়েল। মেয়র তখন মেয়েদের এলাকার জায়লস্কর ইউনিয়নের  ইউপি সদস্য আব্দুল হাকিমের সাথে যোগসাজশে ২ তারিখ মঙ্গলবার সকালে ওই নারীকে জোরপূর্বক তার বাসা থেকে অন্যত্র নিয়ে পাঠিয়ে দেয়। সে থেকে অদ্যবদি পর্যন্ত ওই মহিলার কোন খোঁজ মিলছেনা মর্মে অভিযোগ করেন ওই মহিলার স্বামীর ছোট ভাই। তার ভাই প্রবাসে থাকার  সুবাদে হিমেল তার ভাবির সাথে যে ব্যবিচার করেছে তার বিচার দাবী ও তার ভাবির খোঁজ পেতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

এ বিষয়ে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. ফারুক জানান, ভূক্তভোগী ওই নারী আমার কাছে কিছুদিন পূর্বে এসেছেন। এবং হিমেল জোরপূর্বক তাকে ধর্ষন করেছে মর্মে আমাকে জানালে আমি হিমেলের বড় ভাই সাবেক কাউন্সিলর জুয়েলকে অবহিত করি৷ এরপর জুয়েল কি করছে তা আমাকে জানায়নি। গত ৩০ জুন রাত ৩ টার দিকে জুয়েল আমাকে কল করে জানায় ওই মহিলা গলায় ফাঁস দিছে আমি ওর বাসায় যাওয়ার জন্য। কিন্তু এতরাতে আমি যাইনি। কিন্তু আমি জুয়েলকে বলেছি দরজা ভেঙে আগে মহিলাকে উদ্ধার করার জন্য। তারা মহিলাকে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতাল নিয়ে যায়। পরে মেয়র আমাকে কল করে জানান এবিষয়টি তিনি (মেয়র) দেখবেন। এরপর আর  আমি এ বিষয়ে অবগত নই।

এ ব্যাপারে সাবেক কমিশনার  জুয়েল জানান তাদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সত্য নয়। যে মহিলা ফেসবুকে এসে লাইভ করে অভিযোগ তুলেছেন। পরবর্তীতে তিনি তা আবার ডিলিট করে দিয়েছেন এছাড়াও তিনি অন্য কোথাও কোন অভিযোগ করেননি।

এ বিষয়ে দাগনভূঞা পৌরসভার মেয়র ওমর ফারুক খাঁনের মোবাইলে কল দিলে তা বন্ধ পাওয়া যায়।

দাগনভূঞা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবুল হাশিম জানান, তিনি কোন অভিযোগ পাননি।


আরও খবর