Logo
আজঃ Tuesday ২৮ June ২০২২
শিরোনাম
নাসিরনগরে বন্যার্তদের মাঝে ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ রাজধানীর মাতুয়াইলে পদ্মাসেতু উদ্ধোধন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল রূপগঞ্জে ভূমি অফিসে চোর রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা

ইউক্রেন যুদ্ধের ধাক্কা পড়েছে পণ্যের বাজারে

প্রকাশিত:Thursday ২৮ April ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ২০৩জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

ইউক্রেন রাশিয়ার যুদ্ধের কারণে ইতোমধ্যেই বিশ্বজুড়ে বিভিন্ন পণ্যের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। সামনের দিনগুলোতে পণ্যের দাম আরও বাড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। এরই মধ্যে বিশ্ব ব্যাংক সতর্ক করে বলেছে, ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে গত ৫০ বছরের মধ্যে বিশ্বের পণ্য বাজারে সবচেয়ে বড় ধাক্কা আসতে যাচ্ছে। অর্থাৎ ১৯৭০ সালের পর প্রথম বারের মতো এমন সংকট তৈরি হতে পারে।


নতুন এক পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, সংঘাতের কারণে প্রাকৃতিক গ্যাস থেকে শুরু করে গম ও তুলা পর্যন্ত বিভিন্ন পণ্যের দাম ইতোমধ্যেই বেড়ে গেছে। সামনের দিনগুলোতে এই ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে।


বিশ্ব ব্যাংকের নতুন এই প্রতিবেদনের সহ-লেখক পিটার ন্যাগল বলেন, পণ্যের দামের এই ঊর্ধ্বগতি এরইমধ্যে বড় ধরনের অর্থনৈতিক ও মানবিক প্রভাব ফেলতে শুরু করেছে। তিনি বলেন, বিশ্বজুড়ে জীবনযাত্রার খরচ মেটাতে গিয়ে চরম দুর্ভোগে পড়ছে মানুষ।


বিশ্ব ব্যাংকের এই শীর্ষ অর্থনীতিবিদ বলেন, গরীব পরিবারগুলোর ক্ষেত্রে এই সংকট আরও ভয়াবহ। কারণ তাদের আয়ের সিংহভাগ খাবার ও জ্বালানির পেছনে ব্যয় হয়ে যায়। পণ্যের দাম বাড়ার প্রভাব তাদের ওপরই সবচেয়ে বেশি পড়বে।


বিশ্ব ব্যাংক বলছে, জ্বালানির দাম ৫০ শতাংশের বেশি বাড়তে পারে। ফলে সংসারের ব্যয় এবং ব্যবসায়ের খরচ অনেক বেড়ে যাবে।



বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইউরোপে সবচেয়ে বেশি বাড়বে প্রাকৃতিক গ্যাসের দাম, যা দ্বিগুণের বেশি হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে। আগামী বছর পণ্যের দাম কিছুটা কমতে পারে এবং ২০২৪ সালের পূর্বাভাসে দেখা যাচ্ছে, গত বছরের তুলনায় ২০২৪ সালে গ্যাসের দাম ১৫ শতাংশ বেশি থাকবে।


বিশ্ব ব্যাংক বলছে, ২০২০ সালের এপ্রিল থেকে চলতি বছরের মার্চ পর্যন্ত বিশ্ব টানা ২৩ মাস জ্বালানির দামে ঊর্ধ্বগতি দেখা যাচ্ছে। মধ্যপ্রাচ্যে অস্থিরতার কারণে ১৯৭৩ সালে জ্বালানির মূল্য বৃদ্ধির পর এটাই দীর্ঘতম সময় ধরে জ্বালানির দাম যাওয়ার ঘটনা।


একইভাবে জ্বালানি তেলের দামও ২০২৪ সাল পর্যন্ত বাড়তি থাকবে এবং চলতি বছরজুড়ে প্রতি ব্যারেল ব্রেন্ট ক্রুডের দাম গড়ে ১০০ ডলারে বিক্রি হবে, যা বিশ্বজুড়ে মূল্যস্ফীতির হার বাড়ার অন্যতম কারণ হিসেবে ভূমিকা রাখবে।



বিশ্বের ১১ শতাংশ তেল উৎপাদন করে রাশিয়া, যা তৃতীয় সর্বোচ্চ। বিশ্ব ব্যাংকের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইউক্রেনে যুদ্ধের কারণে সরবরাহে বিঘ্ন ঘটা এবং পশ্চিমা অবরোধের ফলে একটি দীর্ঘমেয়াদী নেতিবাচক প্রভাব দেখা দেবে। অবরোধের কারণে পশ্চিমা কোম্পানিগুলো রাশিয়া ছেড়ে যাবে এবং দেশটির নতুন প্রযুক্তি পাওয়ার সুযোগ কমে আসবে।


রাশিয়া বর্তমানে ইউরোপীয় ইউনিয়নের চাহিদার ৪০ শতাংশ গ্যাস ও ২৭ শতাংশ তেল সরবরাহ করে। কিন্তু ইইউ রাশিয়ার ওপর নির্ভরশীলতা কমিয়ে বিকল্প উৎস থেকে জ্বালানি চাহিদা পূরণের চেষ্টা করছে, যা বিশ্বজুড়ে তেল এবং গ্যাসের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে। মূলত চাহিদা ও সরবরাহ ভারসাম্য নষ্ট হওয়ায় সমস্যা বেড়ে যাচ্ছে।


অনেক খাদ্য পণ্যের দাম হঠাৎ করেই লাফিয়ে বেড়ে গেছে এবং আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। গমের দাম ৪২ দশমিক ৭ শতাংশ বাড়তে পারে। খাদ্য পণ্যের মধ্যে বার্লি ৩৩ দশমিক ৩ শতাংশ, সয়াবিন ২০ শতাংশ, ভোজ্য তেল ২৯ দশমিক ৮ শতাংশ ও মুরগির দাম ৪১ দশমিক ৮ শতাংশ বাড়তে পারে। রাশিয়া ও ইউক্রেন থেকে এসব পণ্যের রপ্তানি কমে যাওয়ার কারণেই এমন পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।


যুদ্ধ শুরুর আগে বিশ্বের মোট সয়াবিনের ৬০ শতাংশ এবং গম রপ্তানির ২৮ দশমিক ৯ শতাংশ এ দুই দেশ থেকেই আসতো। সার, বিভিন্ন ধাতু ও খনিজ দ্রব্যের মতো কাঁচামালের দামও বাড়তে পারে বলে সতর্ক করা হয়েছে। তবে কাঠ, চা ও চালের মত কয়েকটি পণ্যের দাম কমবে বলে আশা করা হচ্ছে।


আরও খবর



ঢাকা বাইক শোতে মোটরপ্রেমীদের ভিড়

প্রকাশিত:Saturday ২৫ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ১৯জন দেখেছেন
Image

রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) চলছে তিন দিনব্যাপী ‘ঢাকা বাইক শো-২০২২।’ এ শোতে নতুন মডেলের মোটরসাইকেল সারিবদ্ধভাবে সাজানো হয়েছে। ক্রেতারা ঘুরে ঘুরে দেখছেন ও দরদাম করছেন। পাশেই রয়েছে তিনটি এলইডি। এই এলইডিতে কিছুক্ষণ পরপর লেখা উঠছে- গতি সর্বদা নিয়ন্ত্রিত রাখুন, রাইডিং শুরুর আগে অবশ্যই লুকিং গ্লাস নিজের সুবিধা মতো অ্যাডজাস্ট করুন, নিয়মিত বাইক সার্ভিস করা হলে দুর্ঘটনার ঝুঁকি কমে যায়, একটি সড়ক দুর্ঘটনা একটি পরিবারের সবার জীবনের কান্না।

মোটরসাইকেলের প্যাভিলিয়নে এমন জনসচেতনতামূলক বার্তা দেখে অনেকেই অবাক হচ্ছেন। মোটরসাইকেল কেনার পাশাপাশি কীভাবে নিরাপদে চালানো যায়, তা সংশ্লিষ্টদের কাছে জেনে নিচ্ছেন কেউ কেউ। আবার অনেকেই প্যাভিলিয়নের সামনে মাঠে প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন। এছাড়া মোটরসাইকেলের হেলমেটসহ নিরাপত্তা সামগ্রী কিনছেন ক্রেতারা।

jagonews24

শনিবার (২৫ জুন) দুপুরে আইসিসিবিতে সুজুকির প্যাভিলিয়নে গিয়ে এমন চিত্র দেখা যায়।

সেমস গ্লোবাল ইউএসএ- এর আয়োজনে বুধবার (২৩ জুন) থেকে ‘১৫ তম ঢাকা মোটর শো-২০২২’ শুরু হয়। মোটরপ্রেমীদের জন্য এই প্রদর্শনীতে ব্র্যান্ড নিউ গাড়ি, বাইকসহ অটোমোটিভ জগতের বিপুল সমারোহ রয়েছে। ঢাকা মোটর শোর এই আয়োজনের সঙ্গে চলছে 'ষষ্ঠ ঢাকা বাইক শো-২০২২, পঞ্চম ঢাকা অটোপার্টস শো ২০২২ ও চতুর্থ ঢাকা কমার্শিয়াল অটোমোটিভ শো ২০২২। আজ (শনিবার) রাত ৯টা পর্যন্ত এই প্রদর্শনী চলবে।

আইসিসিবিতে পৃথক পাঁচটি প্যাভিলিয়নে চলছে ঢাকা বাইক শো। দেশে ও বিদেশের বিভিন্ন মডেলের বাইক এই প্রদর্শনীতে স্থান পেয়েছে। এর মধ্যে ব্যতিক্রমভাবে প্যাভিলিয়ন সাজিয়েছে সুজুকি। তাদের প্যাভিলিয়নে আলাদা করে ফ্রিতে সুজুকি মোটরসাইকেল সার্ভিসিং করার ব্যবস্থা রয়েছে। মোটরপার্স বিক্রির জন্য প্যাভিলিয়নে আলাদা স্টল করা হয়েছে। এছাড়া সামনে ছোট্ট মাঠ রাখা হয়েছে। সেখানে মোটরসাইকেল চালিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছেন ক্রেতারা। একটি প্যাভিলিয়নে এমন সব আয়োজন থাকায় ক্রেতাদের সন্তুষ্টি প্রকাশ করতে দেখা যায়।

jagonews24

তিন বন্ধুকে নিয়ে ঢাকা বাইক শোতে এসেছেন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী তানভীন রায়হান। তিনি বলেন, ঢাকা বাইক শোতে নতুন মডেলের কোনো মোটরসাইকেল আসছে কি না, তা দেখতে এসেছি। বিভিন্ন প্যাভিলিয়ন ঘুরে দেখছি। পছন্দ হলে কিনে ফেলবো।

সুজুকির মার্কেটিং বিভাগের ব্যবস্থাপক রিজবী করিম জাগো নিউজকে বলেন, এবারের বাইক শোতে আমরা ১৩টি মডেলের বাইক এনেছি। এর মধ্যে নির্দিষ্ট মডেলের পাঁচটি বাইকে তিন থেকে সাত হাজার টাকা পর্যন্ত ডিসকাউন্ট চলছে। এছাড়া নির্দিষ্ট বাইক কিনলে হেলমেট, টি-শার্ট উপহার দেওয়া হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, গত দুদিনে ৩০টি বাইক বিক্রি হয়েছে। তিনশটি বাইক ফ্রিতে সার্ভিসিং নিয়েছে। আজও প্যাভিলিয়নে ক্রেতাদের ভিড় রয়েছে।

অন্যদিকে, নতুন ও পুরোনো মডেল মিলিয়ে ১৭টি মোটরসাইকেলে প্যাভিলিয়ন সাজিয়েছে রানার। এর মধ্যে স্কুটির চাহিদা বেশি রয়েছে। তবে এই প্যাভিলিয়ন থেকে মোটরসাইকেল বিক্রি করা হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপক ফারজানা আহমেদ।

jagonews24

তিনি বলেন, আমরা এই বাইক শোতে শুধু বুকিং নিচ্ছি। এখন পর্যন্ত দুইশ জন বাইক বুকিং দিয়েছেন। শো শেষ হলে দুই-এক দিনের মধ্যে গ্রাহকদের ঠিকানায় বাইক পৌঁছে দেওয়া হবে।

একইভাবে শোতে জায়গা পেয়েছে বাজাজ, হোন্ডাসহ অন্যান্য কোম্পানির বাইক।

এই প্রদর্শনীর নানা বিষয় তুলে ধরে সেমস গ্লোবালের প্রেসিডেন্ট অ্যান্ড রূপ ম্যানেজিং ডিরেক্টর মেহেরুন এন. ইসলাম বলেন, করোনা মহামারির কারণে ২০২০ ও ২০২১ সালে ঢাকা মোটর শো আয়োজন করা সম্ভব হয়নি। এই মহামারির কারণে সারাবিশ্বের ইভেন্ট ও এক্সিবিশন সেক্টর ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এবার করোনার প্রাদুর্ভাব কমে যাওয়ায় বড় পরিসরে ঢাকা মোটর শো আয়োজন করা হয়েছে। প্রচুর মানুষ শোতে আসছেন।


আরও খবর



সিলেটে বন্যা: মহানগরে বিদ্যুৎ সরবরাহ সাময়িক বন্ধ

প্রকাশিত:Saturday ১৮ June ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ২৬ June ২০২২ | ৩৪জন দেখেছেন
Image

ভারতের উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও টানা বৃষ্টিতে সিলেট ও সুনামগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। এ অবস্থায় সিলেট মহানগরে বিদ্যুৎ সরবরাহ সাময়িক বন্ধ রেখেছে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড।

বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের সিলেট বিভাগের প্রধান প্রকৌশলী মো. আব্দুল কাদির বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, বিদ্যুৎকেন্দ্রে বন্যার পানি প্রবেশ করায় সরবরাহ সাময়িকভাবে বন্ধ রাখা হয়েছে। সেনাবাহিনী কাজ করছে। পানি নামানো গেলেই সরবরাহ আবার চালু করা হবে।

সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, কুমারগাঁওয়ে বিদ্যুৎকেন্দ্র রক্ষায় আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা চালাচ্ছি। সেনাবাহিনীও এখানে কাজ করছে। সেনাবাহিনী বিদ্যুৎকেন্দ্রের চারপাশে বালুর বস্তা দিয়ে বাঁধ নির্মাণের চেষ্টা করছে। ইতোমধ্যে কেন্দ্রে ঢুকে পড়া পানি সিটি করপোরেশনের সাকার মেশিন দিয়ে শুকানোর কাজ করা হচ্ছে।

অপরদিকে বন্যা পরিস্থিতিতে বিদ্যুৎ বিভাগের জরুরি সর্তক বার্তা জারি করা হয়েছে। এতে বলা হয়, আকস্মিক বন্যার কারণে শাহজালাল উপশহর, সোবহানীঘাট, মেন্দিবাগ, মুরাদপুর, ঘাসিটুলা এবং আশপাশ প্লাবিত হওয়ায় জানমালের নিরাপত্তার স্বার্থে পানিতে কোনো বৈদ্যুতিক তার, খুঁটি বা অন্যান্য বৈদ্যুতিক সরঞ্জামাদি পড়ে থাকলে অথবা গাছপালা বৈদ্যুতিক লাইনে পড়লে, স্পর্শ না করে নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে দ্রুত অত্র দপ্তরের ০১৬২৫০৩৮৭৮৪ এবং ০২৯৯৬৬৩৩১৭৩ নম্বরে ফোনে জানানোর জন্য অনুরোধ করা হচ্ছে।


আরও খবর



সবার আগে জুমার নামাজ পড়তে যাওয়ার প্রতিদান

প্রকাশিত:Friday ১০ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৫৮জন দেখেছেন
Image

সপ্তাহের শ্রেষ্ঠ মর্যাদার দিন জুমা। সূর্য উদয় হওয়া দিনগুলোর মধ্যে এ দিনকে শ্রেষ্ঠ বলেছেন নবিজী। এ দিন আজান হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে মসজিদে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন আল্লাহ। আর সবার আগে জুমার নামাজ পড়তে মসজিদে যাওয়ার বিশেষ প্রতিদানের ঘোষণা দিয়েছেন নবিজী। সবার আগে মসজিদে যাওয়ার প্রতিদান কী? হাদিসের দিকনির্দেশনাই বা কী?

জুমার দিন আজান হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে দ্রুত মসজিদে যাওয়ার নির্দেশ দিয়ে মহান আল্লাহ ঘোষণা করেন-

یٰۤاَیُّهَا الَّذِیۡنَ اٰمَنُوۡۤا اِذَا نُوۡدِیَ لِلصَّلٰوۃِ مِنۡ یَّوۡمِ الۡجُمُعَۃِ فَاسۡعَوۡا اِلٰی ذِکۡرِ اللّٰهِ وَ ذَرُوا الۡبَیۡعَ ؕ ذٰلِکُمۡ خَیۡرٌ لَّکُمۡ اِنۡ کُنۡتُمۡ تَعۡلَمُوۡنَ

‘হে মুমিনগণ! জুমার দিনে যখন নামাজের আজান দেওয়া হয়, তখন তোমরা আল্লাহর স্মরণে দ্রুত (মসজিদে) ধাবিত হও আর বেচাকেনা বন্ধ কর। এটা তোমাদের জন্য উত্তম যদি তোমরা বুঝ।’ (সুরা জুমা : আয়াত ৯)

সবার আগে মসজিদে যাওয়ার প্রতিদান

হজরত আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, নবিজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন,

যে ব্যক্তি জুমার দিন ফরজ গোসলের ন্যায় গোসল করে এবং নামাজের জন্য (প্রথমে মসজিদে) আসে সে যেন একটি উট কোরবানি করলো যে ব্যক্তি দ্বিতীয় পর্যায়ে আসে সে যেন একটি গাভী কোরবানি করলো যে তৃতীয় পর্যায়ে আসে সে যেন শিং বিশিষ্ট একটি দুম্বা কোরবানি করলো চতুর্থ পর্যায়ে যে আসে সে যেন একটি মুরগী সাদকা করলো আর পঞ্চম পর্যায়ে যে আসে সে যেন একটি ডিম সাদকা করলো পরে ইমাম যখন খুতবা দেয়ার জন্য বের হন তখন মালাইকা (ফেরেশতাগণ) জিকির (ইমামের খুতবা) শোনার জন্য উপস্থিত হয়ে থাকে।’ (বুখারি)

সুতরাং জুমার দিন যে যত আগে মসজিদে যেতে পারবে সে ওই পর্যায়ের কোরবানির সাওয়াব পাবেন। তাই জুমার দিন দেরি না করে আজান হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে নামাজের প্রস্তুতি নিয়ে সবার আগে  মসজিদে উপস্থিত হওয়া। ইমামের খুতবা শোনা। জুমার নামাজের পর সন্ধ্যা পর্যন্ত জিকির-আজকার, দোয়া ও ইবাদতে নিয়োজিত থাকা।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে কোরবানির সাওয়াব পেতে জুমার দিন সবার আগে মসজিদে উপস্থিত হওয়ার তাওফিক দান করুন। দিনটি ইবাদত-বন্দেগিতে অতিবাহিত করার তাওফিক দান করুন। আমিন।


আরও খবর



পাওনা টাকা নিতে গিয়ে হাতুড়িপেটা, ৩৪ দিন পর যুবকের মৃত্যু

প্রকাশিত:Sunday ১২ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৫৬জন দেখেছেন
Image

ঝিনাইদহের হরিনাকুন্ডু উপজেলায় পাওনা টাকা চাওয়া নিয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত যুবক আক্তার আলী (২৫) মারা গেছেন। রোববার (১২ জুন) দুপুরে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। তিনি উপজেলার বেলতলা গ্রামের ইজাল উদ্দিন মণ্ডলের ছেলে।

জানা যায়, বেলতলা গ্রামের আক্তার আলী জেঢ়াদাহ গ্রামের শাকিবুল ইসলামের কাছে কিছু মুরগি বিক্রি করেন। এরপর টাকা না দিয়ে তাকে ঘোরাতে থাকেন শাকিবুল। গত মে মাসের ৮ তারিখ সন্ধ্যায় আক্তারকে টাকা দেওয়ার কথা বলে জটাখালি বাজারে ডেকে নেন তিনি। সেখানে কথাকাটাকাটির জেরে হাতে থাকা হাতুড়ি দিয়ে আক্তারের মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে বেধড়ক পেটান শাকিবুল। এতে গুরুতর আহত অবস্থায় আক্তারকে উদ্ধার করে স্থানীয়রা হরিনাকুন্ডু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পরে তাকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রোববার দুপুরে সেখানে চিকিৎসাধীন তার মৃত্যু হয়।

jagonews24

হরিনাকুন্ডু জোড়াদাহ পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক মতিন ওই যুবকের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, এ ঘটনায় এর আগে একটি মামলা হয়েছিল। সেই মামলায় আসামিরা আদালত থেকে জামিনে মুক্তি পেয়েছেন। কিন্তু আক্তার মারা যাওয়ার কারণে ওই মামলাটি হত্যা মামলায় রূপান্তর করা হবে কী না সে বিষয়ে তার ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

নিহতের বড় ভাই টিটোন বলেন, শাকিবুল আমার ভাইকে টাকা দেওয়ার কথা বলে মোবাইলে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর সে তাকে হাতুড়ি দিয়ে মাথায় এলোপাতাড়ি আঘাত করতে থাকে। আমার ভাইকে নিয়ে বিভিন্ন হাসপাতালে ঘুরেছি। কিন্তু তাকে বাঁচাতে পারিনি। এই ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই আমরা। যেন আমার ভাইয়ের মতো কাউকে এভাবে মরতে না হয়।


আরও খবর



বাজার মূলধন বাড়লো আরও আড়াই হাজার কোটি টাকা

প্রকাশিত:Friday ১০ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৫২জন দেখেছেন
Image

গত সপ্তাহে লেনদেন হওয়া পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে তিনদিনই দেশের শেয়ারবাজারে দরপতন হয়েছে। এরপরও গত সপ্তাহে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) বাজার মূলধন আড়াই হাজার কোটি টাকার ওপরে বেড়ে গেছে। আগের সপ্তাহে ডিএসইর বাজার মূলধন বাড়ে ১২ হাজার কোটি টাকার ওপরে। এতে দুই সপ্তাহে ডিএসইর বাজার মূলধন প্রায় ১৫ হাজার কোটি টাকা বেড়েছে।

সবশেষ সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসের লেনদেন শেষে ডিএসইর বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে পাঁচ লাখ ২২ হাজার ৮৮১ কোটি টাকা। যা তার আগের সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ছিল পাঁচ লাখ ২০ হাজার ২৭৭ কোটি টাকা। অর্থাৎ গত সপ্তাহে ডিএসইর বাজার মূলধন বেড়েছে দুই হাজার ৬০৪ কোটি টাকা। আগের সপ্তাহে বাজার মূলধন বাড়ে ১২ হাজার ২৭৫ কোটি টাকা। অর্থাৎ দুই সপ্তাহে বাজার মূলধন বাড়লো ১৪ হাজার ৮৭৯ কোটি টাকা। অবশ্য এর আগে শেয়ারবাজারে টানা দরপতন হলে দুই সপ্তাহে ডিএসইর বাজার মূলধন কমে ২৩ হাজার কোটি টাকা।

বাজার মূলধন বাড়ার পাশাপাশি গত সপ্তাহে ডিএসইতে অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে। সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেওয়া ২০৬টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১৫৭টির। আর ২৬টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

এতে গত সপ্তাহে ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স বেড়েছে ২৮ দশমিক ৭৭ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৪৫ শতাংশ। আগের সপ্তাহে সূচকটি বাড়ে ২১৩ দশমিক ৫৫ পয়েন্ট বা তিন দশমিক ৪২ শতাংশ। অবশ্য তার আগে টানা চার সপ্তাহের পতনে সূচকটি কমেছিল ৪২৩ পয়েন্ট।

প্রধান মূল্যসূচক বাড়লেও গত সপ্তাহে বাছাই করা ভালো কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই-৩০ সূচক কমেছে। গত সপ্তাহজুড়ে এই সূচকটি কমেছে তিন দশমিক ৩০ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ১৪ শতাংশ। আগের সপ্তাহে সূচকটি বাড়ে ৪৮ দশমিক ৩০ পয়েন্ট বা দুই দশমিক শূন্য ৯ শতাংশ।

ভালো কোম্পানি নিয়ে গঠিত বাছাই করা সূচকের পাশাপাশি ইসলামি শরিয়াহ ভিত্তিতে পরিচালিত কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই শরিয়াহ্ সূচকও গত সপ্তাহে কমেছে। গত সপ্তাহে এই সূচকটি কমেছে এক দশমিক ৯৮ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ১৪ শতাংশ। আগের সপ্তাহে সূচকটি বাড়ে ৪২ দশমিক শূন্য ১ পয়েন্ট বা তিন দশমিক শূন্য ৬ শতাংশ।

গত সপ্তাহের প্রতি কার্যদিবসে ডিএসইতে গড়ে লেনদেন হয়েছে ৮৬৮ কোটি ৩৮ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে প্রতিদিন গড়ে লেনদেন হয় ৭৮৫ কোটি ২২ লাখ টাকা। অর্থাৎ প্রতি কার্যদিবসে গড় লেনদেন বেড়েছে ৮৩ কোটি ১৬ লাখ টাকা বা ১০ দশমিক ৫৯ শতাংশ।

এদিকে, গত সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে চার হাজার ৩৪১ কোটি ৯১ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয় তিন হাজার ৯২৬ কোটি ১২ লাখ টাকা। সে হিসাবে মোট লেনদেন বেড়েছে ৩১৫ কোটি ৭৯ লাখ টাকা বা ১০ দশমিক ৫৯ শতাংশ।

গত সপ্তাহে ডিএসইতে টাকার অংকে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে বেক্সিমকোর শেয়ার। সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ২১০ কোটি ৪১ লাখ ৭৬ হাজার টাকা, যা মোট লেনদেনের চার দশমিক ৮৫ শতাংশ। দ্বিতীয় স্থানে থাকা শাইনপুকুর সিরামিকের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৯৭ কোটি ১৫ লাখ ৩৪ হাজার টাকা। ৮৪ কোটি ১১ লাখ ৩৬ হাজার টাকা লেনাদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে রয়েছে প্রভাতী ইন্স্যুরেন্স।

এছাড়া লেনদেনের শীর্ষ দশ প্রতিষ্ঠানের তালিকায় রয়েছে- স্যালভো কেমিক্যাল, আইপিডিসি ফাইন্যান্স, ওরিয়ন ফার্মা, বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশন, বিডিকম অনলাইন, ব্র্যাক ব্যাংক এবং জেএমআই হসপিটাল রিকুইজিট ম্যানুফ্যাকচারিং।


আরও খবর