Logo
আজঃ বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

ইসলামপুরে নদী ভাঙ্গন ও বন্যার্তরা পেল নগদ অর্থ ও প্রধানমন্ত্রীর উপহার

প্রকাশিত:বুধবার ১০ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৯৮জন দেখেছেন

Image
লিয়াকত হোসাইন লায়ন,ইসলামপুর(জামালপুর) প্রতিনিধি:জামালপুরের ইসলামপুরে দূর্গম যমুনা নদী ভাঙ্গন পরিবার ও বন্যার্তদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহার ত্রাণ সামগ্রী প্যাকেট ও নগদ অর্থ বিতরণ করেছেন ধর্মমন্ত্রী আলহাজ্ব ফরিদুল হক খান এমপি।

মঙ্গলবার উপজেলার সাপধরী ইউনিয়নে ৫শত পরিবারের মাঝে ত্রাণের চাল ও ১০জনকে গো খাদ্য ও বেলগাছা ইউনিয়নের সিন্দুরতলী নদী ভাঙ্গন ৩ শত পরিবারের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহার ত্রাণ সামগ্রী ও প্রতি পরিবারকে এক হাজার করে টাকা এবং বরুল ও মন্নিয়া গ্রামের ৬ শত পরিবারকে ত্রাণের চাল ৫০ পরিবারকে শিশু খাদ্য ও ২০ পরিবারকে গো খাদ্য বিতরণ করা হয়েছে। এ সময় তিনি নদী ভাঙ্গন পরিবারদের সকল সহায়তার আশ্বাস দেন।

এসময় জামালপুর জেলা প্রশাসক শফিউর রহমান,পুলিশ সুপার কামরুজ্জামান, জেলা ত্রাণ ও পূর্নবাসন কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সিরাজুল ইসলাম,এএসপি অভিজিত দাস, ভাইস চেয়ারম্যান আঃ খালেক আকন্দ,আবিদা সুলতানা যুথীঁ,প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মেহেদী হাসান টিটু, চেয়ারম্যান আঃ মালেকসহ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

-খবর প্রতিদিন/ সি.

আরও খবর



সাবেক কমিশনারের তথ্য ফাঁস করে পুলিশের এডিসি জিসানুল হক বরখাস্ত

প্রকাশিত:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১১৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:গাজীপুর মহানগর পুলিশের (জিএমপি) অতিরিক্ত উপ–পুলিশ কমিশনার (এডিসি) জিসানুল হককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে, ডিএমপি সাবেক কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়ারব্যক্তিগত তথ্য সরবরাহ এবং ফাঁস করায়। এর আগে আছাদুজ্জামানের ব্যক্তিগত তথ্য কীভাবে অনলাইনে গেল, সেটি নিয়ে তদন্ত করে পুলিশ। এই কর্মকর্তা ছাড়াও পুলিশের আরও দুজন নন ক্যাডার সদস্যের বিরুদ্ধে তদন্ত হয়। তাঁদের বিরুদ্ধেও বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

রোববার (২৩ জুন) স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের শৃঙ্খলা শাখা থেকে এডিসি জিসানুল হককে সাময়িক বরখাস্তের প্রজ্ঞাপনটি জারি করা হয়।

সচিব মো. জাহাংগীর আলম স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, জিসানুল হকের বিরুদ্ধে শৃঙ্খলা পরিপন্থী কর্মকাণ্ডে লিপ্ত হওয়ার অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পাওয়া গেছে। সরকারি চাকরি আইন ২০১৮ এর ধারা ৩৯ (১) এবং সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা ২০১৮ এর বিধি ১২ (১) অনুযায়ী চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হলো।

এছাড়াও প্রজ্ঞাপনে আরও বলা হয়েছে, সাময়িক বরখাস্ত থাকাকালীন তিনি বাংলাদেশ সার্ভিস রুল অনুযায়ী খোরপোষ ভাতা প্রাপ্য হবেন। জনস্বার্থে জারিকৃত এ আদেশ অবিলম্বে কার্যকর হবে।


আরও খবর



সিলেটের ইসকন মন্দিরে আলোচনাসভায় প্রবাসীকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৭২জন দেখেছেন

Image

শাহিদ আহমেদ খান সিলেট প্রতিনিধি:প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী শফিকুর রহমান চৌধুরী এমপি বলেছেন, ‘বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সভানেত্রী, জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একটি অসাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিপূর্ণ উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গঠনের জন্য নিরলস কাজ করে চলেছেন। প্রধানমন্ত্রী চান, মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বাংলাদেশ একটি ধর্মনিরপেক্ষ ও প্রগতিশীল রাষ্ট্র হিসেবে প্রতিষ্ঠা পাক। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ধর্ম-বর্ণ-জাতি নির্বিশেষে সকল মানুষের জন্য বসবাসযোগ্য একটি সমাজব্যবস্থা গড়ে তুলতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।’

তিনি বলেন, ‘১৯৭১ সালে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে মহান মুক্তিযুদ্ধ সংঘটিত হয়েছিল ক্ষুধা, দারিদ্র্য, সন্ত্রাসমুক্ত ও গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ গঠনের অভিপ্রায়ে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও মনেপ্রাণে বিশ^াস করেন ধর্ম যার যার, উৎসব সবার। এই বাংলাদেশ আমাদের সকলের।’ 

জগন্নাথদেব, বলদেব ও সুভদ্রা মহারাণীর রথযাত্রা মহোৎসব-২০২৪ উপলক্ষে গতকাল শনিবার (১৩ জুলাই) বেলা সোয়া ৩টায় আন্তর্জাতিক কৃষ্ণভাবনামৃত সংঘ (ইসকন) যুগলটিলা সিলেটের উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমাদের সিলেট নগর হলো সম্প্রীতির এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। পুণ্যভূমি সিলেটে সাম্প্রদায়িকতার কোনো স্থান নেই। আমরা সুপ্রাচীন কাল থেকে সিলেটে সকল ধর্ম-বর্ণ ও জাতি-গোষ্ঠীর মানুষ মিলেমিশে ঐক্যবদ্ধভাবে বসবাস করে আসছি। আর আমরা সকলে এক হয়ে সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠায় কাজ করবো।’   

আলোচনাসভায় সভাপতিত্ব করেন- আন্তর্জাতিক কৃষ্ণভাবনামৃত সংঘ (ইসকন) বাংলাদেশের সহ-সভাপতি ও ইসকন সিলেটের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ ভক্তিঅদ্বৈত নবদ্বীপ স্বামী মহারাজ।

দেবামৃত নিতাই দাস ব্রহ্মচারীর পরিচালনায় আলোচনাসভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, শ্রীহট্ট সংস্কৃত কলেজের অধ্যক্ষ ড. দিলীপ কুমার দাস চৌধুরী অ্যাডভোকেট, সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও সিলেট সিটি কর্পোরেশনের ৩নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আব্দুল খালিক, ১১নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি সালাউদ্দিন বক্স সালাই, আন্তর্জাতিক কৃষ্ণভাবনামৃত সংঘ (ইসকন) যুগলটিলা সিলেটের সাধারণ সম্পাদক ভাগবত করুণা দাস ব্রহ্মচারী, সিলেট সিটি কর্পোরেশনের ১১নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর অ্যাডভোকেট আব্দুর রকিব বাবলু, আন্তর্জাতিক কৃষ্ণভাবনামৃত সংঘ (ইসকন) যুগলটিলা সিলেটের যোগাযোগ বিভাগের পরিচালক সিদ্ধমাধব দাস, অ্যাডভোকেট বিপ্লব কান্তি দে মাধব।

উল্লেখ্য, আগামী ১৫ জুলাই সোমবার দুপুর ১২টায় মহাভোগরাগ ও ভোগারতি দর্শন, দুপুর ১টায় আলোচনাসভা, দুপুর ২টায় সর্বস্তরের গৌরভক্তবৃন্দের মাঝে মহাপ্রসাদ বিতরণ, বেলা ৩টায় শ্রী শ্রী জগন্নাথদেবের উল্টো রথযাত্রা যুগলটিলা মন্দির থেকে শুরু হয়ে সিলেট নগর প্রদক্ষিণ করবে, সন্ধ্যা ৭টায় শ্রী শ্রী গৌরসুন্দরের আরতি, রাত ৮টায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে। রথযাত্রা মহোৎসবে সর্বস্তরের গৌরভক্তবৃন্দতে উপস্থিত থাকার জন্য আন্তর্জাতিক কৃষ্ণভাবনামৃত সংঘ (ইসকন) বাংলাদেশের সহ-সভাপতি ও ইসকন, যুগলটিলা সিলেটের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ ভক্তি অদ্বৈত নবদ্বীপ স্বামী মহারাজ বিশেষভাবে অনুরোধ জানিয়েছেন। 

-খবর প্রতিদিন/ সি.

আরও খবর



মধুপুরে আই ইউজিআইপি প্রকপ্লের ইএমপি বাস্তবায়ন বিষয়ক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:সোমবার ০৮ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১০৭জন দেখেছেন

Image

বাবুল রানা মধুপুর টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃ- টাঙ্গাইলের মধুপুর পৌর সভা হল রুমে আইইউজিআইপি প্রকল্পের আওতাধীন ইএমপি বাস্তবায়ন  বিষয়ক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়েছে।  সোমবার (৮জুলাই) দুপুরে মধুপুর পৌরসভায় বাস্তবায়ানাধীন  স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের অন্তর্গত আইইউজিআইপি প্রকল্পের ইএমপি বাস্তবায়ন  বিষয়ক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়। 


উক্ত প্রশিক্ষন কর্মসূচির উদ্বোধন করেন মধুপুর  পৌরসভার মেয়র  আলহাজ মো: সিদ্দিক হোসেন খান। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্যানেল মেয়র (০১)  মো: জাকিরুল ইসলাম ফারুক সহ অন্যান্যরা। প্রশিক্ষণে অংশ গ্রহন করেন প্রকল্পের প্রকৌশলীবৃন্দ এবং ঠিকাদারের প্রতিনিধিগন সহ   শ্রমিকরা।  প্রশিক্ষন প্রদান করেন রিসোর্স সেফ কনসালট্যান্টস লিমিটেড (আর সি এল) এর পরিবেশ বিষয়ক  বিশেষজ্ঞগণ।

   -খবর প্রতিদিন/ সি.ব

আরও খবর



রৌমারীতে প্রতিবন্ধি নারীর লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত:সোমবার ০৮ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৯২জন দেখেছেন

Image

মাজহারুল ইসলাম,রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি:কুড়িগ্রমের রৌমারীতে নিখোজের চারদিন পর আকরুমা খাতুন (২৪) নামের এক শারিরীক প্রতিবন্ধির লাশ উদ্ধার করেছে রৌমারী থানার পুলিশ। রবিবার সকাল ১১ টার দিকে রৌমারী সদর ইউনিয়নের নতুনবন্দর হাজীপাড়া গ্রামর একটি পরিত্যক্ত ডোবা থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয় ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, আকরুমা থাতুন গত বৃহস্পতিবার সকালের দিকে পান কেনার কথা বলে বেড়িয়ে গেলেও সে বাড়িতে ফিরে আসেনি। পরে আত্মীয় ন্বজনের বাড়িতে খোজেও তার সন্ধান মিলেনি। নিখোজের চারদিন পর রবিবার সকালে নিহতের মামি সমনি খাতুন বাড়ির পিছনে গেলে পরিত্যক্ত ডোবায় তার লাশ ভেসে থাকতে দেখেন এবং পরিবারের লোকজন লাশটি সনাক্ত করেন। পরে স্থানীয়রা থানা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আকরুমার অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করেন। আকরুমা খাতুন উপজেলার সদর ইউনিয়রে নতুনবন্দর হাজীপাড়া গ্রামের মৃত্যু আনছার আলীর মেয়ে বলে জানা যায়।

নিহতের ভাই আজাদ মিয়া বলেন, আমার বোনটি শাররীক প্রতিবন্ধি এবং সে প্রতিবন্ধি ভাতাও পায়। চার দিন আগে সে নিখোজ হয়। অনেক খোজাখুজির পরেও তার কোন সন্ধান পাইনি। আজ বাড়ির পাশে ডোবা থেকে বোনের লাশটি দেথতে পাই।  

রৌমারী সদর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, মেয়েটি শারিরীক প্রতিবন্ধি ও মিরকি রোগে আক্রান্ত ছিল। গত ৪-৫ দিন আগে বন্যার পানি ছিলো। সম্ভবত পানি ভেঙ্গে রান্তা পাড় হওয়ার সময়ে পানিতে ডুবে গিয়ে মারা যায়।   

রৌমারী থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল্লাহিল জামান বলেন, পরিবারের কোন অভিযোগ না থাকায় উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষের পরামর্শক্রমে ও জনপ্রতিনিধিদের সুপারিশে লাশ দাফনের জন্য পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.

আরও খবর



নবীনগর বিদ্যুতের মিটারে অগ্নিসংযোগের অভিযোগ ইলেকট্রিশিয়ান মামুনের বিরুদ্ধে

প্রকাশিত:সোমবার ০৮ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ২১৫জন দেখেছেন

Image

মোহাম্মদ হেদায়েতুল্লাহ নবীনগর(ব্রাহ্মণবাড়িয়া)প্রতিনিধি:ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার বিদ্যাকুট গ্রামের মামুন মিয়ার বিরুদ্ধে মিটার পুনস্থাপনের উদ্দেশ্যে বৈদ্যুতিক মিটার আগুনে পোড়ানোর অভিযোগ উঠেছে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়,দীর্ঘদিন যাবত বিদ্যাকুট দক্ষিণ -পশ্চিম পাড়ায় পাড়ায় কে বা কারা রাতের আধারে বিদ্যুতের মিটারে আগুন দিয়ে দিচ্ছে।এ নিয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছিল। বৃহস্পতিবার (জুলাই ৭) রাতে থানায় লিখিত অভিযোগকারী কবির হোসেন মিয়ার বাড়ির  মিটারে লাগানোর সময় উনার ভাবিসহ বাড়ির অন্যান্যরা দেখে ফেলে।তিনি হলেন বিল্ডিং এর ঠিকাদারি কাজ না পাওয়া প্রতিবেশী মামুন। এই মামুন মিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ হল উনি পাড়ার অনেকের মিটার পুড়িয়েছে পরবর্তীতে আবার ওনার মাধ্যমে মিটারে আনানো হয়েছে।

ভুক্তভোগী প্রবাসী বাদল মিয়ার স্ত্রী জানান,প্রায় এক বছর আগে আমার মিটার কেটে পানিতে ফেলে দিয়েছে। গত চার পাঁচ দিন আগে আগুন লাগিয়ে আবার আমার মিটার পুড়ে ফেলেছে।এখন যেহেতু মামুন মিয়াকে আগুন লাগাতে ওরা দেখেছে তাই আমরা ধারণা করছি আমাদের এগুলো মামুন মিয়াই পুড়িয়েছে। সুমন মিয়ার স্ত্রী তৌহিদা বলেন, আমার মিটারটি তিন-চার মাস আগে পুড়িয়ে। এখন যেহেতু মামুন মিয়া ধরা পড়ছে আমাদেরও ধারনা কাজটা মামুন মিয়াই করেছে। প্রবাসী আনোয়ার হোসেনের স্ত্রী রোজিনা বেগম বলেন, আমার মিটার একবার ৩-৪ মাস আগে পুড়িয়েছে,তখন মামুনকে দিয়ে আমি নতুন মিটার এনেছি। দুই মাস আগে আবার পুড়িয়েছে আমি মামুনকে দিয়ে আবার মিটার এনেছি।

এখন যেহেতুক কবির মিয়ার বাড়িতে মামুন ধরা পড়েছে আমরা সবাই ধারণা করতেছি এই মিটার পোড়ানোর কাজগুলি মামুন মিয়াই করেছে।প্রত্যক্ষদর্শী সাইফুল ইসলামের স্ত্রী বলেন,৬ মাস আগে আমার একবার মিটার পুরানো হয়েছিল তখন আমি দেখি নাই কে পুড়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে দেখলাম মামুন আমার মিটারে আগুন লাগাইতেছে আমি মামুন মামুন বলে ডাকার পরে মামুন দৌড়িয়ে  পালিয়ে যায়। তখন আমাদের চিৎকারে আশেপাশের লোকজন আসে। আমি আমাদের এলাকায় এরকম আরো ঘটনা ঘটেছে সবগুলি কাজই আমরা মনে করি মামুন করেছে। আমি সরকারের কাছে মামুনের কঠিনতর শাস্তি দাবি করছি।যাতে আমাদের এলাকায় এ ধরনের ঘটনা আর না ঘটে।

অভিযোগকারী কবিরের ভাই কামাল মিয়া জানান, রাতের আঁধারে আগুন লাগানোর সময় আমার পরিবারে সবাই মামুনকে দেখেছে। আমরা আইনের আশ্রয় নিয়েছি আমরা মামুনের কঠিনতর শাস্তির দাবি জানাই। 

এ বিষয়ে বিদ্যাকুট ইউনিয়ন পরিষদের ৩নং ওয়ার্ডের সদস্য আবুল কাশেম জানান, আমার এই পাড়ায় অনেকেরই মিটার পুড়িয়েছে কাউকে ধরতে পারি নাই বিধায় আমরা কিছু করতে পারি নাই। গত বৃহস্পতিবার রাতে কামাল মিয়ার ঘরের মিটারে আগুন লাগানোর সময় মামুনকে সবাই দেখে ফেলেছে তারা রাত ১টা সময় আমার বাড়িতে যাই এবং আমাকে অবগত করে।তারা যেহেতু আইনের আশ্রয় নিয়েছে আমি চাই মামুনের কঠিনতর সাজা হোক ভবিষ্যতে যাতে সে আর এরকম অপকর্ম করতে না পারে।


এ বিষয়ে অভিযুক্ত মামুন মিয়ার বাড়িতে গিয়ে ঘর তলা বদ্ধ পেয়ে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে মামুন মিয়া জানান, যেই সময়ের কথা ওরা বলতেছে যে আমি নাকি মিটারে আগুন দিয়েছি ওই সময় আমি বাজারে নাস্তা করতে ছিলাম। নাস্তা করে আসার সময় আমাকে রাস্তায় পেয়ে কিছু পোলাপাইন আমাকে হামলা করে আহত করেছে এ বিষয়ে আমি অভিযোগ করেছি কিন্তু উনাকে অভিযোগের কপি হোয়াটসঅ্যাপ বা মেসেঞ্জারে পাঠাইতে চাইলে উনি দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন।

এ বিষয়ে নবীনগর থানা অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) সজল কান্তি দাস জানান, তদন্ত হয়েছে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর