Logo
আজঃ বুধবার ২২ মে ২০২৪
শিরোনাম

ইংলিশ তারকা ব্রাডম্যানের ৯৩ বছরের রেকর্ড ভাঙলেন

প্রকাশিত:শনিবার ০৩ জুন ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | ২৭১জন দেখেছেন

Image

স্পোর্টস ডেস্ক:১৯৩০ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে লর্ডসে ১৬৬ বলে ১৫০ রানের মাইলফলক ছুঁয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ান কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান স্যার ডন ব্রাডম্যান। এতদিন লর্ডসে সেটিই ছিল দ্রুততম ১৫০ রানের রেকর্ড। দীর্ঘ ৯৩ বছর পর তার সেই রেকর্ড ভাঙলেন ইংলিশ ব্যাটসম্যান বেন ডাকেট।

গতকাল শুক্রবার আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টের দ্বিতীয় দিন ডাকেট ১৫০ রান তুলেন ১৫০ বলে। অর্থাৎ, এই মাইলফলকে পৌঁছাতে ব্রাডম্যানের চেয়ে ১৬ বল কম খেলেছেন ডাকেট। যদিও ডাবল সেঞ্চুরি থেকে ১৮ রান দূরে থাকতে আউট হয়েছেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান। এই ইনিংস খেলার পথে আরও একটি রেকর্ড গড়া হয়ে গেছে ডাকেটের। ১৯২৪ সালের পর তিনিই প্রথম ক্রিকেটার লর্ডসে লাঞ্চের আগেই যিনি সেঞ্চুরি করেছেন।

আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ইংল্যান্ড কেমন ব্যাটিং করেছে ডাকেটের ইনিংস সেটিরই নমুনা। প্রথম ইনিংসে আইরিশদের ১৭২ রানের জবাবে ৪ উইকেটে ৫২৪ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করে ইংল্যান্ড। ডাকেট ডাবল সেঞ্চুরি বঞ্চিত হলেও সেই মাইলফলক ছুঁয়েছেন ওলি পোপ। তিনে নেমে ২০৮ বল খেলে ২২ চার ও ৩ ছক্কায় ২০৫ রানের ইনিংস খেলেন তিনি।

ওপেনিংয়ে ১০৯ রানের জুটির পর দ্বিতীয় উইকেটে ২৫২ রানের জুটি গড়েন ডাকেট ও পোপ। ৩৬১ রানে ডাকেটের বিদায়ের পর চতুর্থ ব্যাটসম্যান হিসেবে উইকেটে আসেন জো রুট। তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে ৫০৭ রানের বিদায় নেন রুট। এরপর ৫২৪ রানের মাথায় পোপ বিদায় নিলে ইনিংস ঘোষণা করে ইংল্যান্ড। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ৯৭ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে দ্বিতীয় দিন শেষ করে আয়ারল্যান্ড।


আরও খবর



শহীদ শেখ জামালের জন্মদিন আজ

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪ | ১২৩জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ লেফটেন্যান্ট শেখ জামালের ৭১তম জন্মদিন আজ (রোববার),জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দ্বিতীয় পুত্র ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর গর্বিত অফিসার।

শেখ জামাল ১৯৫৪ সালের ২৮ এপ্রিল তৎকালীন গোপালগঞ্জ মহকুমা বর্তমানে জেলার টুঙ্গিপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে মাধ্যমিক এবং ঢাকা কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করেন। তিনি ছিলেন সংস্কৃতিপ্রেমী এবং একজন ক্রীড়াবিদ।

১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় পরিবারের অন্য সদস্যদের সঙ্গে শেখ জামালও গৃহবন্দি ছিলেন। সেখান থেকে পালিয়ে তিনি মহান মুক্তিযুদ্ধে সম্মুখ সমরে নেতৃত্ব দেন। শেখ জামাল ধানমন্ডি থেকে অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ পথচলা শেষে ভারতের আগরতলা পৌঁছান এবং সেখানে মুজিব বাহিনীতে যোগদান করে প্রশিক্ষণ শেষে মুক্তিযুদ্ধের ৯ নম্বর সেক্টরে সম্মুখ সমরে অংশগ্রহণ করেন।

শেখ জামাল ছিলেন একজন দেশপ্রেমিক চৌকশ-মেধাবী সেনা অফিসার। তিনি ছিলেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর দীর্ঘমেয়াদি কোর্সের প্রথম ব্যাচের কমিশনডপ্রাপ্ত অফিসার। ১৯৭৪ সালে শেখ জামাল যুগোস্লাভিয়ার মিলিটারি একাডেমিতে ক্যাডেট হিসেবে প্রশিক্ষণ ক্যাম্পে অংশগ্রহণ করেন। এরপর ব্রিটেনের স্যান্ডহার্স্ট একাডেমি থেকে প্রশিক্ষণ শেষে দেশে ফিরে ঢাকা সেনানিবাসের দ্বিতীয় ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টে সেকেন্ড লেফটেন্যান্ট পদে যোগদান করেন।

দ্বিতীয় ইস্ট বেঙ্গলে চাকরিকালে স্বল্প সময়েই অফিসার ও সৈনিকদের মাঝে তিনি অসাধারণ পেশাগত দক্ষতা ও আন্তরিকতার ছাপ রাখেন। কয়েক সপ্তাহেই শেখ জামাল অফিসার ও সৈনিকদের মধ্যে তাদেরই একজন হয়ে যান। ট্রেনিং গ্রাউন্ডে, রণকৌশলের ক্লাসে, অবস্টাকল ক্রসিংয়ে অংশ নিয়ে সৈনিকদের মুগ্ধ করেন। ব্যাটালিয়ন বক্সিং টিমের সদস্যদের প্রশিক্ষণ দিতেন।

১৯৭৫ সালের ১৪ আগস্ট ব্যাটালিয়ন ডিউটি অফিসার হিসেবে ক্যান্টনমেন্টে নিজ দায়িত্ব পালন করেন তিনি। ওই দিন রাতে ক্যান্টনমেন্ট থেকে ফিরে আসেন ধানমন্ডি ৩২ নম্বরের বাড়িতে। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট কালরাত্রিতে ঘাতকের নির্মম বুলেটের আঘাতে পরিবারের অন্য সদস্যদের সঙ্গে নৃশংসভাবে খুন হন শেখ জামাল।

শহীদ শেখ জামালের জন্মদিন যথাযথ মর্যাদার সঙ্গে পালন উপলক্ষে আওয়ামী লীগের উদ্যোগে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।


আরও খবর



এসএসসির খাতা চ্যালেঞ্জ সোমবার থেকে, যেভাবে করবেন আবেদন

প্রকাশিত:রবিবার ১২ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | ৯২জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:চলতি বছরের মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়েছে। এতে গড় পাসের হার ৮৩ দশমিক শূন্য ৪ শতাংশ। প্রকাশিত ফলাফলে কারও কাঙ্ক্ষিত ফল না এলে সে পুনর্নিরীক্ষণের আবেদন বা খাতা চ্যালেঞ্জ করতে পারবেন।

সোমবার (১৩ মে) থেকে এ কার্যক্রম শুরু হবে। চলবে ১৯ মে পর্যন্ত।

আন্তশিক্ষাবোর্ডের সমন্বয়ক ও ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর তপন কুমার সরকার গণমাধ্যমকে বলেন, সোমবার (১৩ মে) থেকে পুনর্নিরীক্ষণ আবেদন শুরু হবে, চলবে ১৯ মে পর্যন্ত।

তিনি জানান, ফলাফলে কেউ অসন্তুষ্ট হলে তিনি চাইলে পুনর্নিরীক্ষণের আবেদন করতে পারবেন। অনলাইনে মাধ্যমে ঘরে বসেই তিনি এ আবেদন করতে পারবেন। পরে বোর্ড তার খাতা যাচাই-বাছাই করে দেখে আবেদন নিষ্পত্তি করবেন।

যেভাবে আবেদন করতে হবে: শুধুমাত্র টেলিটক প্রিপেইড মোবাইল ফোন থেকে পুনর্নিরীক্ষণের জন্য আবেদন করা যাবে। আবেদন করতে মোবাইলের মেসেজ অপশনে গিয়ে RSC বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষর রোল নম্বর বিষয় কোড লিখে Send করতে হবে ১৬২২২ নম্বরে।

ফিরতি এসএমএ-এ আবেদন বাবদ কত টাকা কেটে নেওয়া হবে তা জানিয়ে একটি পিন দেওয়া হবে। এতে সম্মত থাকলে মেসেজ অপশনে গিয়ে RSC Yes PIN Contact Number (যেকোনো অপারেটর) লিখে Send করতে হবে ১৬২২২ নম্বরে।

ফল পুনর্নিরীক্ষণে ক্ষেত্রে একই এসএমএস-এর মাধ্যমে একাধিক বিষয়ের জন্য আবেদন করা যাবে। সে ক্ষেত্রে কমা (,) দিয়ে বিষয় কোড আলাদা লিখতে হবে। যেমন ঢাকা বোর্ডের একজন শিক্ষার্থী বাংলা ও ইংরেজি দুটি বিষয়ের জন্য টেলিটক প্রি-পেইড মোবাইলের মেসেজ অপশনে গিয়ে লিখবে RSC Dha Roll Number

পুনর্নিরীক্ষণে খাতার চারটি বিষয় দেখা হয়: শিক্ষাবোর্ডের কর্মকর্তারা জানান, পুনর্নিরীক্ষণ করলে একজন শিক্ষার্থীর খাতা পুনরায় মূল্যায়ন করা হয় না। পুনর্নিরীক্ষণের আবেদন হওয়া উত্তরপত্রের চারটি দিক দেখা হয়। এগুলো হলো, উত্তরপত্রের সব প্রশ্নের সঠিকভাবে নম্বর দেওয়া হয়েছে কি না, প্রাপ্ত নম্বর গণনা ঠিক রয়েছে কি না, প্রাপ্ত নম্বর ওএমআর শিটে উঠানো হয়েছে কি না এবং প্রাপ্ত নম্বর অনুযায়ী ওএমআর শিটের বৃত্ত ভরাট করা হয়েছে কি না। এসব পরীক্ষা করেই পুনর্নিরীক্ষার ফল দেওয়া হয়। এই চারটি জায়গা কোনো ভুল হলে তা সংশোধন করে নতুন করে ফল প্রকাশ করা হয়।


আরও খবর



মেহেরপুরে তাপদাহের উত্তাপ বেড়েছে কাঁচা বাজারে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | ৮৯জন দেখেছেন

Image

মজনুর রহমান আকাশ, মেহেরপুর:তীব্র তাপপ্রবাহের কবলে অস্বস্থিতে ভুগছেন মেহেরপুরের মানুষ। ক্ষেত খামারে তাপপ্রবাহের উত্তাপের পাশাপাশি এর প্রভাব পড়েছে কাঁচা বাজারে। বর্তমানে সকল ধরনের সবজির দাম উর্ধ¦মূখী। গেল এক সপ্তাহের ব্যবধানে পাইকারী বাজারে প্রতি কেজি আলুতে ১০ টাকা এবং পেঁয়াজে বৃদ্ধি পেয়েছে ৮ টাকা করে। এছাড়াও সব ধরনের সবজির দর বৃদ্ধি পেয়েছে কেজিতে ১০-১৫ টাকা পর্যন্ত।

সোমবার ও আজ মঙ্গলবার মেহেরপুর ও গাংনী কাচা বাজার এবং বামন্দী বাজারে পাওয়া গেছে ভিন্ন ভিন্ন চিত্র। পাইকারী বাজারে পেঁয়াজ ৬০ টাকা, আলু ৪৫ টাকা এবং সবজির মধ্যে বেগুন ৬০ টাকা, উস্তে ৫০ টাকা, পটল ৪৫ টাকা, ঢেড়স ৩০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। পাইকারী বাজারে গেল সপ্তাহে প্রতি কেজি পেঁয়াজ ৫০ টাকা ও আলুর দর ছিল ৩৮ টাকা।

এদিকে পাইকারী বাজার থেকে ‍খুচরা বাজার পর্যন্ত প্রতি কেজিতে বৃদ্ধি পাচ্ছে আরও ২৫-৩৫ টাকা পর্যন্ত। যা ভোক্তাদের তাপদাহের অস্বস্তির মাত্রা আরও বাড়িয়ে দিয়েছে।

গাংনী কাঁচা বাজারের সততা ভান্ডারের সত্বাধিকারী সাহাদুল ইসলাম জানান, এখনও আলু ও পেঁয়াজ সংরক্ষণ পর্যায়ে রয়েছে। ক্ষেত থেকে পরিপক্ক আলু পেঁয়াজ তোলার পর সেগুরো সংরক্ষণ হয়ে থাকে। আর কিছুদিন পরেই সংরক্ষণকৃত এসব পেঁয়াজ ও আলু বাজারে বিক্রি শুরু হবে। তখন বাজার স্থিতিশীল হওয়ার আশা করছেন তিনি।

বামন্দী বাজারের সবজি ব্যবসায়ি মনিরুল ইসলাম জানান, পাইকারী হিসেবে যে সবজি কেনা হয় তার সাথে পরিবহন খরচ ও নিজের মুনাফা যোগ করেই খুচরা বিক্রি করতে হয়। তাছাড়া আড়তেও দাম বেশি। মাঠে কৃষক পর্যায়ে সবজি খুবই কম। সেখান থেকেই বেশি দামে আড়তে সবজি আসছে। ফলে দাম উর্ধ্বমূখী।

ভোক্তারা বলছেন, তীব্র তাপদাহে জনীবন অতিষ্ট। কোথাও নেই স্বস্তি। এর মধ্যে আলু পেঁয়াজের দর বৃদ্ধি তাদের বাড়তি দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাড়িয়েছে। বছরের এ সময়টাতে প্রচুর পরিমাণে সবজি পাওয়া যায়। তবে এবার সেই চিত্রের ভিন্নতা হওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই দর বৃদ্ধি পাচ্ছে।


আরও খবর



এসএমসি প্লাসের সব ড্রিংকস বাজার থেকে প্রত্যাহারের নির্দেশ

প্রকাশিত:রবিবার ১৯ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | ৮৬জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:এসএমসি প্লাসের বাজারে থাকা সব ইলেক্ট্রোলাইট ড্রিংকস প্রত্যাহারের নির্দেশ দিয়েছেন বিশুদ্ধ খাদ্য আদালত। রোববার (১৯ মে) বিচারক আলাউল আকবার এ নির্দেশ দেন।

এর আগে দোষ স্বীকার করে আজ সকালে জামিন চান তিনি। এ সময় তানভীর সিনহা জানান, এতে তাদের দোষ নেই, কারণ তারা জানতেন না, এটার লাইসেন্স নেই।

পরে আদালত বাজারজাতকারী একমি'র তানভীর সিনহাকে ১৬ লাখ টাকা জরিমানা করেন। সেই সঙ্গে বাজার থেকে সব এসএমসি প্লাস প্রত্যাহারের নির্দেশ দেওয়া হয়।

এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নিরাপদ কর্তৃপক্ষের পরিদর্শক কামরুল হাসান।

অনুমোদনহীন ইলেক্ট্রোলাইট ড্রিংকস বিক্রির কথা স্বীকার করায় এসএমসি প্লাসের কর্ণধার ওয়ালিউল ইসলামের জামিন মঞ্জুর করে ১৬ লাখ টাকা জরিমানা করে বিশুদ্ধ খাদ্য আদালত।

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার বাজারে বিক্রি হওয়া অনুমোদনহীন পাঁচটি কোম্পানির ইলেক্ট্রোলাইট ড্রিংকসের মালিকের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন বিশুদ্ধ খাদ্য আদালতের বিচারক আলাউল আকবরের আদালত। সেই সঙ্গে পাঁচটি কোম্পানির মালিকদের আগামী ৫, ৬ এবং ৯ জুন আদালতে উপস্থিত হয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়।


আরও খবর



তানোরে রাস্তার কার্পেটিং কাজে ব্যাপক অনিয়ম

প্রকাশিত:শনিবার ০৪ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪ | ৮৫জন দেখেছেন

Image

আব্দুস সবুর তানোর থেকে:রাজশাহীর তানোরে রাস্তার কার্পেটিং কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার তালন্দ ইউনিয়ন (ইউপির) আড়াদিঘি গ্রামের রাস্তায় ঘটেছে অনিয়মর ঘটনাটি। গত বৃহস্পতিবারে রাস্তাটিতে কার্পেটিং করা হয়েছে।  নিম্মমানের কাজে গ্রামবাসীর বাধা উপেক্ষা করে কার্পেটিং দেয়া হয়েছে। এতে করে রাস্তার টিকসই নিয়ে সন্ধিহান গ্রাম বাসী।

আড়াদিঘি গ্রামের তোফাসহ  কয়েকজন ব্যক্তি জানান, রাস্তাটি ট্যাক্টর দিয়ে উল্টিয়ে পুরাতন খোয়া ও রাস্তার ধূলা মাটি দিয়ে বেড তৈরি করা হয়। তিল পরিমান নতুন খোয়া বালি ব্যবহার করা হয়নি। দীর্ঘ প্রায় এক সপ্তাহ আগে প্রাইম কোর্ড করে রাখা হয়। একারনে রাস্তার বেশির ভাগে প্রাইম কোর্ড উঠে যায়। উঠে যায় জায়গায় নতুন ভাবে পিচ বা বিটুমিন না দিয়ে গত বৃহস্পতিবার কার্পেটই করা হয়েছে। কার্পেটিং করার আগ মুহূর্তে কোন ধরনের যান চলাচল করতে দেয়া হয়নি। অথচ ড্রাম ট্রাকে করে পিচ পাথর আনা হয়েছে। একারনে বেশির ভাগ জায়গায় গর্তের সৃষ্টি হলেও তার উপরেই পিচ দেয়া হয়েছে। আমরা বাধা দিলে ঠিকাদারের লোক জন সরকারি কাজে বাধা দেয়ার মামলার ভয় দেখায়। সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত অফিসের লোকজন ছিল। তবে দুপুরের পর থেকে অফিসের লোক না থাকার কারনে ইচ্ছে মত দায় সারা কাজ করেছে ঠিকাদারের লোকজন।
জানা গেছে, VRRP প্রকল্পের আওতায় তানোর আমনুরা রাস্তার আড়াদিঘি সড়কের মেরামত কাজের উদ্বোধন করেন স্থানীয় সংসদ ফারুক চৌধুরী। উদ্ধোধন করলেও তারিখ দেয়া নাই। ১৩০০ মিটার রাস্তার কাজের বিপরীতে বরাদ্দ  ৭২ লাখ ৩৭ হাজার ৭২৯ টাকা,  চুক্তি মূল্য  ৬৯ লাখ ১০ হাজার ৪২ টাকা। দরপত্রে কাজটি পায় এক ঠিকাদার তার নিকট হতে এলজিইডি অফিসকে ম্যানেজ করে অগ্রিম কয়েক পারসেন লাভ দিয়ে কিনে নেয় রাজশাহীর ঠিকাদার রেবেল বলে নিশ্চিত করেন তার ম্যানেজার মনির ও এলজিইডি অফিসের কার্যসহকারী রাকিবুল হাসান এবং শরিফুল ইসলাম।

ঠিকাদারের ম্যানেজার মনির জানান, এঠিকাদার কোন অনিয়ম করে কাজ করেনা। একাজে ঠিকাদারের প্রচুর লোকসান। তাহলে কিনে কেন করতে হবে জানতে চাইলে তিনি জানান, যারা কাজ করে বসে থাকতে পারেনা। লাভ ও লোকসানের কথা সব সময় ভাবা যায়না।
কার্যসহকারী রাকিবুল হাসান ও শরিফুল জানান, ড্রাম ট্রাকে করে অনেক দূর থেকে মালামাল এনে কার্পেটিং করা হচ্ছে। সব কিছুই সিডিউল অনুযায়ী হচ্ছে। ড্রাম ট্রাকে মালামাল আনার কারনে রাস্তার দুপাশের প্রাইম কোর্ড উঠে গেছে প্রশ্ন করা হলে উত্তরে বলেন ওই সব জায়গায় সিল কোর্ট করা হবে। তবে সিল কোর্ট করা হয়নি, তার উপরেই কার্পেটিং করা হয়েছে। 

উপজেলা প্রকৌশলী সাইদুর রহমান বলেন, সিডিউল অনুযায়ী কাজ করা হয়েছে, যদি কোন অনিয়ম হয় বিল দেয়া হবে না।

আরও খবর