Logo
আজঃ বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

ইনফিনিক্স স্মার্টফোন কিনে বাইক জিতলেন গাজীপুরের রাসেল

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৫৮জন দেখেছেন

Image

নিউজ ডেস্ক:ঈদের আগেই ইনফিনিক্সের স্মার্টফোন কিনে প্রথম বাইক জিতে নিয়েছেন গাজীপুরের ক্রেতা রাসেল আহমেদ। ‘ঈদ বোনানজা’ ক্যাম্পেইনটিতে ইনফিনিক্স নোট ৩০ স্মার্টফোনটি কিনে এক্সক্লুসিভ বাইকটি জেতেন তিনি।

ইনফিনিক্স স্মার্টফোন কেনার পর নিয়ম অনুযায়ী এসএমএস করেন রাসেল, ফিরতি মেসেজে জানানো হয় তিনি পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন। গাজীপুরের মাওনায় অবস্থিত ইনফিনিক্স শপ ‘মাসুম টেলিকম’ থেকে নোট ৩০ ফোনটি কেনেন রাসেল।

দীর্ঘদিন ধরেই রাসেল ইনফিনিক্স স্মার্টফোনের ভক্ত বলে জানান। নোট ৩০ ডিভাইসটি কেনার আগেও তিনি কল্পনা করেননি পুরস্কার হিসেবে বাইক পাবেন। তিনি জানান, ‘মেসেজ পাওয়ার পর আমি বিশ্বাসই করতে পারছিলাম না। ফিচার আর সাশ্রয়ী দামের জন্য ইনফিনিক্স ফোন আমার সবসময়ই পছন্দের। সেই ফোন কিনে একটা বাইক জিতেছি এটা আমার কাছে অত্যন্ত আনন্দের।’

২৫ জুন পর্যন্ত ইনফিনিক্স ‘ঈদ বোনানজা’ ক্যাম্পেইন চলবে। এই সময়ের মধ্যে নির্দিষ্ট ইনফিনিক্স স্মার্টফোন কিনে ভাগ্যবান ক্রেতারা বাইক, কক্সবাজার ভ্রমণ প্যাকেজ, ১০০ থেকে ৫,০০০ টাকা পর্যন্ত নিশ্চিত ক্যাশব্যাক পাবেন। এ ছাড়া নেকব্যান্ড, টিশার্ট ও ছাতার মতো নিশ্চিত উপহারও পাবেন ক্রেতারা।

ইনফিনিক্সের উদ্দেশ্য, ক্যাম্পেইনটির মাধ্যমে ক্রেতাদের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নেওয়া। এর আওতায় নোট ৩০ ও ৪০ সিরিজ, হট ৩০ সিরিজ, হট ৪০ সিরিজ এবং স্মার্ট ৮ সিরিজসহ নির্দিষ্ট স্মার্টফোন কিনে এসব পুরস্কার জেতার সুযোগ থাকছে।

রাসেলের এই আনন্দ উল্লাস সব ক্রেতার মাঝে দেখতে চায় ইনফিনিক্স। উন্নত মানের ও স্টাইলিশ ফোনের পাশাপাশি ক্রেতাদের অবিস্মরণীয় অভিজ্ঞতা ও মূল্যবান উপহারও দিয়ে আসছে কোম্পানিটি। এভাবেই তাদের বিশ্বাস ও উৎসাহকে অনুপ্রাণিত করছে ইনফিনিক্স।

‘ঈদ বোনানজা’ ক্যাম্পেইন চলাকালীন অন্যান্য ভোক্তারাও তাদের ঈদকে স্মরণীয় করে তুলতে পারেন। এজন্য ক্রেতাকে যেকোনো অফিশিয়াল রিটেইলার স্টোর থেকে স্মার্টফোন কিনতে হবে।

সাশ্রয়ী মূল্যে গ্রাহকদের হাতে উদ্ভাবনী প্রযুক্তি তুলে দিতে ইনফিনিক্স দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। ফলে তরুণ প্রযুক্তিপ্রেমীদের মাঝে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ব্র্যান্ডটি।


আরও খবর



ভারতীয় ব্যবসায়ীদের বাংলাদেশে বিনিয়োগের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

প্রকাশিত:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৩০জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারতীয় ব্যবসায়ীদের বাংলাদেশে বিনিয়োগের আহ্বান জানিয়েছেন। কনফেডারেশন অব ইন্ডিয়ান ইন্ডাস্ট্রির (সিআইআই) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তারা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে গেলে তিনি এ আহ্বান জানান। শেখ হাসিনা বলেন, আপনারা (ভারতীয় ব্যবসায়ীরা) বাংলাদেশে এসে বিনিয়োগ করেন।প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান ফজলুর রহমান প্রধানমন্ত্রীকে উদ্ধৃত করে বলেন, ‘বাংলাদেশে বিনিয়োগের জন্য আমরা আপনাদের স্বাগত জানাই।’

সংবাদ সম্মেলনে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী সব সময় বলতেন ‘প্রতিবেশী সবার আগে’ এবং তিনি বাংলাদেশের সব প্রতিবেশী দেশকে ব্যবসা-বাণিজ্য ও বিনিয়োগের জন্য অগ্রাধিকার দেন।বাংলাদেশ ১০০টি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তুলছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা ভারতীয় ব্যবসায়ীদের জানান, তারা এটা ব্যবহার করতে পারেন এবং সেখানে বিনিয়োগ করতে পারেন।

বৈঠকে অংশ নেওয়া সিইওরাও বাংলাদেশে বিনিয়োগ করতে চান এবং বাংলাদেশের সঙ্গে ব্যবসা করতে চান।সালমান বলেন, বাংলাদেশে যারা ব্যবসা করছেন তারা তাদের ব্যবসা সম্প্রসারণে আগ্রহী।সিআইআই পক্ষের সিইওরা প্রধানমন্ত্রীকে বলেন, তারা এফবিসিসিআই-এর সঙ্গে যৌথভাবে বাংলাদেশের বিভিন্ন খাতে কাজ করতে চান।

এক্ষেত্রে তারা বিশেষ করে কৃষি, আইটি ও লজিস্টিক সেক্টরে যৌথভাবে কাজ করার উপায় খুঁজে বের করার ওপরও গুরুত্বারোপ করেন।তারা ভারতের বিভিন্ন খাতে বিশেষ করে আইটি খাতে তাদের সাফল্য তুলে ধরেন এবং ব্যবসা সম্প্রসারণে বাংলাদেশে সেই সাফল্যের পুনরাবৃত্তি করতে চান।বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা নিজ দেশে বিরাজমান সুযোগ-সুবিধার কথা তুলে ধরে বাংলাদেশের ব্যবসায়িক বিষয়গুলো নিয়েও আলোচনা করেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব মো. নাঈমুল ইসলাম খান। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, অ্যাম্বাসেডর-অ্যাট-লার্জ মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন, ডাক, টেলিযোগাযোগ ও আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু, মুখ্য সচিব তোফাজ্জল হোসেন মিয়া, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মাসুদ বিন মোমেন, বাংলাদেশের হাইকমিশনার মোস্তাফিজুর রহমান, আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী জাফরউল্লাহ,

এফবিসিসিআই সভাপতি মাহবুবুল আলম, নিটল নিলয় গ্রুপের চেয়ারম্যান আবদুল মাতলুব আহমদ, প্রাণ আরএফএল গ্রুপের চেয়ারম্যান আহসান খান চৌধুরীসহ কয়েকজন বাংলাদেশি ব্যবসায়ী।


আরও খবর



মধুপুর পৌরসভার বাজেট ঘোষণা

প্রকাশিত:রবিবার ০৭ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৯৬জন দেখেছেন

Image

বাবুল রানা বিশেষ প্রতিনিধি মধুপুর টাঙ্গাইল:- টাঙ্গাইলের মধুপুর পৌরসভার ২০২৪-২০২৫ অর্থবছরের এক শত ছাব্বিশ কোটি ছয় লক্ষ আটানব্বই হাজার নয়শত পঁচানব্বই টাকার উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে। রবিবার (৭ জুলাই) দুপুরে পৌর ভবনের সভা কক্ষে মেয়র আলহাজ্ব সিদ্দিক হোসেন খান এ বাজেট ঘোষণা করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, প্যানেল মেয়র- ০১ও ৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. জাকিরুল ইসলাম  হক ফারুক, প্যানেল মেয়র -০২ ও ৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো.  বেশর আলী ফকির, প্যানেল মেয়র- ০৩ ও সংরক্ষিত আসন ৪,৫, ও ৬ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোছা. মালেকা বেগম, ৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. হারুন অর রশিদ, ১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রায়হান, প্রসাসনিক কর্মকর্তা মো. আনোয়ারুল কায়ছার, প্রধান সহকারী মো. শাহীন মিয়া, হিসাব রক্ষক মো. মিজানুর রহমান আসাদ,সমাজ উন্নয়ন কর্মকর্তা সোনিয়া ইয়াসমিন,  বাজার পরিদর্শক মাহমুদা পারভীন  সহ পৌরসভার কাউন্সিলর, কর্মকর্তা -কর্মচারী, বিভিন্ন শ্রেনী পেশার প্রতিনিধি, বিভিন্ন ইলেকট্রনিকস ও প্রিন্ট মিডিয়ার  সাংবাদিকগন  উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান সন্চালনা করেন পৌর নির্বাহী কর্মকর্তা মো, নজরুল ইসলাম।

    -খবর প্রতিদিন/ সি.ব

আরও খবর



কালিয়াকৈরে পুলিশ প্রেমিকের বাড়িতে ডিভোর্সি নারীর অনসন

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৫ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৬৬জন দেখেছেন

Image

সাগর আহম্মেদ,কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি:গাজীপুরের কালিয়াকৈরে বিয়ের দাবীতে এক পুলিশ প্রেমিকের বাড়িতে তার প্রেমিকা ডির্ভোসি এক নারী অনসনে বসেছেন। এ ঘটনার পর বিধি ভেঙ্গে তাদের বিবাহের প্রস্তুতিতে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার রশিদপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী ও পরিবার সূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘদিন আগে কালিয়াকৈর উপজেলার কাঞ্চানপুর এলাকার ফজলুল হকের মেয়ে ফাতেমা আক্তারের সঙ্গে সাভারের আশুলিয়া থানার কবীরপুর এলাকার সাইদুর রহমানের বিয়ে হয়। তাদের সংসার জীবনে হুমাইরা নামে এক কন্যা সন্তান রয়েছে। কিন্তু স্বামীর অগচরে তার পুরোনো প্রেমিক শিল্প পুলিশের সদস্য শুভ সিকদারের সঙ্গে পরকিয়ার সর্ম্পক চলমান থাকে। স্বামী চাকরি সুবাদে অফিসে গেলে প্রায় নিয়মিত তার বাড়িতে ওই পুলিশ সদস্য যেতেন।

বিষয়টি টের পেয়ে কৌশলে ওই পুলিশ ও স্ত্রী ফাতেমাকে হাতেনাতে ধরেন স্বামী সাইদুর। এরপর তাদের স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। এর জেরে গত ২০/২২ দিন আগে তাদের স্বামী-স্ত্রী দুজনের ডিভোর্স হয়। কিন্তু গত কয়েকদিন ধরে প্রেমিক শুভ তার সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়। এরপর কোনো উপায় না পেয়ে বৃহস্পতিবার সকালে ডিভোর্সি নারী বিয়ের দাবিতে ওই পুলিশ সদস্যের রশিদপুর এলাকার বাড়িতে অনসন করেন। এক পর্যায় স্থানীয় ইউপি সদস্য আনোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে মাতাব্বররা ডিভোর্স বিধি ভেঙ্গে ওই পুলিশ সদস্য ও ডিভোর্সি নারীর মধ্যে বিবাহের প্রস্তুতি চলছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এদিকে বিধি ভেঙ্গে তাদের বিবাহের প্রস্তুতিতে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

ওই ডিভোর্সি নারী ফাতেমা আক্তার বলেন, শুভ বিভিন্নভাবে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে আমাকে আগের স্বামী থেকে ডিভোর্স করিয়েছেন। এখন আমাকে যদি শুভ বিয়ে না করে তাহলে আমি এ বাড়িতে আত্মহত্যা করবো। ওই ডিভোর্সি নারীর চাচা জাকির হোসেন জানান, ২০/২২ আগে আমার ভাতিজির সঙ্গে তার আগের স্বামীর ডিভোর্স হয়। এখন ভাতিজি যার বাড়িতে গেছে, সে শিল্প পুলিশে চাকরি করে। তবে বিষয়টি সমাধান হলে আপনাদের জানানো হবে বলেও জানান তিনি।

এ বিষয়ে ওই পুলিশ সদস্য শুভ সিকদারর সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি। তবে তার বাবা আবু বাসেদ জানান, আমি অন্যত্র আছি। শুনেছি কুরবানী ঈদের আগে ওই মেয়ের ডিভোর্স হয়েছে। এখন সে আমাদের বাড়িতে উঠেছে। তিনি তার ছেলের উপর ক্ষোভ প্রকাশ করে আরো জানান, মেম্বার-মাতাব্বররা যা করার করুক। আমি এর আগে পিছনে নেই।

স্থানীয় চাপাইর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য (মেম্বার) আনোয়ার হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, সন্ধ্যায় তাদের বিয়ের ব্যবস্থা চলছে। ডিভোর্সি বিধি ভেঙ্গে কিভাবে বিয়ের ব্যবস্থা করছেন? জানতে চাইলে তিনি বলেন, সামাজিকতা রক্ষা করতে গিয়ে অনেক সময় আইনের বাইরেও কিছু কাজ করতে হয়। তবে সংবাদ প্রকাশ না করার অনুরোধ জানান ওই ইউপি সদস্য।

কালিয়াকৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ এফ এম নাসিম জানান, বিষয়টি আমার জানা নেই। তবে এ বিষয়ে অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আরও খবর



বগুড়ায় জোড়া হত্যা মামলায়: কবির আহম্মেদ মিঠুসহ চারজনের চার দিনের রিমান্ড

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৫ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৫৭জন দেখেছেন

Image

লতিফ বগুড়া:রিমান্ডপ্রাপ্তরা হলেন- সৈয়দ কবির আহমেদ মিঠু (৫০), নিশিন্দারা খাঁপাড়া এলাকার আব্দুল গফুরের ছেলে শেখ রভ (২৬), একই এলাকার পুর্বপড়ার মৃত আব্দুল কুদ্দুসের ছেলে নাঈম হোসেন (২৮) ও সুলতানগঞ্জ আলী সোনার লেনের ইসমাঈল হোসেনের ছেলে আজবিন রিফাত (১৯)।

সোমবার দুপুরে বগুড়া অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক সুপান্ত সাহা এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন। 

এর আগে, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করেছিলেন।

জানা যায়, ঈদের রাতে (১৭ জুন) পূর্ব পরিকল্পনা মতে শহরের নিশিন্দারা এলাকায় পরিচিত জনকে দিয়ে ফোন করে শেখ শরিফ ও রোম্মানকে বাড়ি থেকে ডেকে আনে। এরপর দুইজনকে সামান্য দূরত্বে দুই স্থানে গুলি ও কুপিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করে পালিয়ে যায় অভিযুক্তরা। এ ঘটনায় হোসেন শেখ নামে আরেক যুবক গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত অবস্থায় শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ওই সময় ঘটনাস্থল থেকে তিন রাউন্ড গুলির খোসা উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ কবির আহমেদ মিঠু, তার ছোট ভাই আওয়ামী লীগ নেতা সার্জিল আহমেদ টিপু, তৃতীয় বর্তমান কাউন্সিলর ও স্বেচ্ছাসেবক দলের বগুড়া শাখার সাবেক সভাপতি শাহ মেহেদী হাসান হিমু ও তাদের সহযোগী ১৩ জনের নামে ১৪-১৫ জন অজ্ঞাত আসামি করে সদর থানায় জোড়া হত্যা মামলা করেন নিহত শরিফের মা হেনা বেগম।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সদর থানার পরিদর্শক জানান, শরিফ ও রোম্মান হত্যার প্রধান আসামিসহ গ্রেফতারকৃত চারজনের বিরুদ্ধে সাত দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করা হয়েছিল। সোমবার আবেদন শুনানি শেষে চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। জোড়া হত্যা মামলার অন্য আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।


আরও খবর

জামিন পেলেন মিল্টন সমাদ্দার

সোমবার ১৫ জুলাই ২০২৪




কুষ্টিয়ায় কোটাবিরোধী আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্মের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ৬০জন দেখেছেন

Image
কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধিঃকুষ্টিয়ায় কোটাবিরোধী আন্দোলনের মদদদাতা ও রাজপথে বিশৃংখলা সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ শাস্তির দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্ম। শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ ইং বেলা ১১ টায় কুষ্টিয়া শহরের এনএস রোডের পাঁচ রাস্তার মোড় বঙ্গবন্ধু চত্তরে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্মের ব্যানারে এ মিছিল ও সমাবেশ করা হয়। এর আগে কুষ্টিয়া পৌরসভার সামনে থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল শহরে বিভিন্ন রাস্তা ও মজমপুরগেট প্রদক্ষিন শেষে পাঁচ রাস্তার মোড়ে সমাবেশ করে সংগঠনটি। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্ম কুষ্টিয়া জেলা শাখার সভাপতি মোঃ হাবিবুর রহমান মালিথা ও সন্চালনায় ছিলেন, সাধারন সম্পাদক শেখ মোঃ সুভীন আক্তার । সমাবেশে বক্তব্য রাখেন,জেলা কমিটির সহ-সভাপতি ইমরুল ইসলাম , ওয়ালিউর রহমান রনি, শেখ মিজানুর রহমান ,শামিম রেজা,হাবিবুর রহমান ব্যাপারী, যুগ্ন সাধারন সম্পাদক খন্দকার মাহাবুব হোসেন মিলন,মাসুদ উর রহমান রুবেল,এ এস এম তুজামতুল্লাহ বকুল, সাংগঠনিক সম্পাদক মাগফেরাতুন নাহার সাথী, এস এম তৌফিকুল কবির তুহিন,কাউন্সিলর আনারকলি ,শাহিদুর রহমান মাসুদ,গোলাম মোস্তফা,শেখ সাইদুর রহমান, উপ-অর্থ সম্পাদক মামুনুর রহমান,দপ্তর সম্পাদক সুমাইয়া খাতুন,প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ফাতেমা খাতুন,উপ-শিল্প ও বানিজ্য বিষয়ক সম্পাদক শাখায়াত হোসেন বিপ্লব,ধর্ম সম্পাদক নওশাদ আলী, সদস্য আজব আলী,শহিদ মোসাব্বির, হাবিবা নীম সহ প্রমূখ। মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্ম শহরের সাধারন সম্পাদক শহীদী আলম রতন, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি মেজবাহুল ইসলাম, সাধারন সম্পাদক সাব্বির খান শাওন, মিরপুর উপজেলা শাখার সভাপতি আবু হুরায়রা স্বপন, দৌলতপুর উপজেলা শাখার সভাপতি রকিবুল ইসলাম রাজন, সাধারন সম্পাদক সোহেল রানা ,খোকসা উপজেলা শাখার যুগ্ন-সাধারন সম্পাদক মিন্টু হোসেন , কুমারখালী উপজেলা শাখার প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সজিব হোসেন, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রীতম মজুমদার ও কুষ্টিয়া জেলা মুক্তিযুদ্ধ মন্চের সভাপতি নজরুল ইসলাম প্রধান ও সাধারন সম্পাদক লায়ন আরিফ খান। সমাবেশে বক্তারা বলেন, যারা কোটা বিরোধী আন্দোলন করছেন, তারা মুলত জামাত- বিএনপির এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে চাচ্ছে। মুক্তিযোদ্ধার বিরুদ্ধে শ্লোগান দিয়ে তারা বাংলাদেশকে অস্বীকার করছে,আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তানরা ঘরে বসে থাকবোনা। তাদেরকে হুঁশিয়ার করতে চাই, প্রয়োজনে ৭১-এর হাতিয়ার হাতে তুলে নেব, তবুও মুক্তিযোদ্ধার অপমান সহ্য করা হবে না। যতক্ষন না তারা এই অযোক্তিক কোটাবিরোধী আন্দোলন থেকে বিরত না হবে ততোক্ষন আমাদের আন্দোলন চলবে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.

আরও খবর