Logo
আজঃ বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

ইবিতে অছাত্র দ্বারা শিক্ষকদের লাঞ্ছনার প্রতিবাদে মানববন্ধন

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৯১জন দেখেছেন

Image
সাব্বির খান, ইবি প্রতিনিধি:ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) অছাত্র দ্বারা উপাচার্যের কার্যালয়ে শিক্ষক লাঞ্চনার ঘটনায় প্রতিবাদ জানাতে মানববন্ধন করেছে শিক্ষককেরা। সোমবার ( ১২ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ১ টার পর বিশ্ববিদ্যালয়ের মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব ম্যুরালের সামনে এ মানববন্ধন করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রগতিশীল চেতনায় বিশ্বাসী শিক্ষকদের সংগঠন শাপলা ফোরাম।

এসময় শাপলা ফোরামের সভাপতি অধ্যাপক ড. পরেশ চন্দ্র বর্মান, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. মোঃ রবিউল হোসেন, সহসভাপতি অধ্যাপক ড. মোঃ আনিছুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সহযোগী অধ্যাপক জয়শ্রী সেন, সদস্য অধ্যাপক ড. মোঃ মাহবুবর রহমান, অধ্যাপক ড. মোঃ মাহবুবুল আরফিন ও অধ্যাপক ড. তপন কুমার জোদ্দার, অধ্যাপক  ড. শেলীনা নাসরিনসহ প্রায় অর্ধশত শিক্ষক উপস্থিত ছিলেন। 

এসময় শাপলা ফোরামের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. রবিউল হোসেন বলেন, 'গত ৬ ফেব্রুয়ারী উপাচার্যের সাথে কথা বলতে গেলে অছাত্ররা হঠাৎ উপাচার্য কার্যালয়ে প্রবেশ করে গলিগালাজ শুরু করে। পরে এ বিষয়ে উপাচার্যের হস্তক্ষেপ চেয়েছিল শাপলা ফোরাম। কিন্তু প্রশাসনের নীরব ভূমিকা পালন করায় আমরা মানববন্ধন করতে বাধ্য হয়েছি।'

শাপলা ফোরামের সভাপতি অধ্যাপক ড. পরেশ চন্দ্র বর্মান বলেন, 'আমরা গত ১১ ফেব্রুয়ারি উপাচার্যের সাথে দেখা করে ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম দিয়েছিলাম। কিন্তু তিনি কোন পদক্ষেপ নেননি। তাই ফোরামের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মানববন্ধনে করছে শিক্ষকেরা। শিক্ষকদের লাঞ্চনার বিচার নিশ্চিত না হলে পরবর্তীতে কঠোর কার্যক্রম হাতে নেবে প্রগতিশীল শিক্ষক সংগঠন শাপলা ফোরাম।'

আরও খবর



আমি তাদের পাইনি, পেয়েছিলাম সারি সারি কবর: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৬৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:১৯৮১ সালে দেশে ফেরা দিন ঝড়-ঝাপ্টাময় ছিল। সেদিন দুই চোখ খুঁজে বেড়াচ্ছিল ভাইদের। আমি তাদের পাইনি, পেয়েছিলাম সারি সারি কবর। সেদিন কবর ছুঁয়ে শপথ করেছিলাম, স্বাধীনতা ব্যর্থ হতে দেব না।বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা 

বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১টার দিকে গণভবনে দ্বাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমার পরিবারকে হত্যার পর অসহায় হয়ে পড়ি। সে সময় রেহানার বিয়েতেও আমি যেতে পারিনি। কারণ, সেই আর্থিক সঙ্গতি ছিল না। আমার একটা মাত্র বোনের বিয়ে, সেখানেও যেতে পারিনি। বাবা-মা হারা হয়ে বলতে গেলে এককভাবে তার বিয়ে হয়।

তিনি বলেন, জাতির পিতার হত্যাকারীদের বিচারের জন্য তদন্ত কমিশন গঠন করি। কিন্তু তদন্ত হোক জিয়াউর রহমান চানননি। অপরাধীদের পুরস্কৃত করে রাজনৈতিক সুযোগ করে দেওয়া হয়। এটাই সবচেয়ে দুর্ভাগ্যজনক ছিল। যুদ্ধাপরাধীদের ফিরিয়ে আনে জিয়াউর রহমান। যারা কারাগারে ছিল তাদের মুক্তি দিয়ে ক্ষমতায় বসানো হয়। ওই অবস্থায় আমি দেশে ফিরে আসি একটা পত্যয় নিয়ে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আরও বলেন, যেদিন ফিরে আসি, সেদিন ৬০ মাইল বেগে ঝড় বয়ে যায়। হাজার হাজার মানুষ আমাকে বরণ করেছেন। তবে, এয়ারপোটে এসেই আমার পরিবারের সদস্যদের খুঁজে বেড়াচ্ছিলাম। যারা আমাকে এয়ারপোর্টে বিদায় জানাতে গিয়েছিল আমি তো তাদের পাইনি। পেয়েছিলাম শুধু সারি সারি কবর। সে কবর ছুঁয়ে শপথ করেছিলাম দেশের স্বাধীনতা ব্যর্থ হতে দেব না। আমার এ যাত্রপথ সহজ ছিল না। নানান রকম ষড়যন্ত্র চলেছিল, এখনও রয়েছে। জনগণই আমার পরিবার। বাবা যেভাবে জীবন উৎসর্গ করেছেন, ঠিক সেভাবেই দেশের মানুষের প্রয়োজনে নিজের রক্ত ঢেলে দেব।


আরও খবর



সেনাবাহিনীতে যোগ দেওয়া বাধ্যতামূলক মিয়ানমারে নাগরিকদের

প্রকাশিত:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১১৪জন দেখেছেন

Image

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:মিয়ানমারের জান্তা সরকার নতুন একটি আইন (কনস্ক্রিপশন) প্রয়োগের ঘোষণা দিয়েছে। ওই আইন অনুযায়ী, দেশটির যুবক ও যুবতীদের বাধ্যতামূলক সেনাবাহিনীতে কাজ করতে হবে।

রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি।

কনস্ক্রিপশন আইনের বিষয়টি শনিবার জানিয়েছে জান্তা সরকার। এর মানে সেনাবাহিনীতে বাধ্যতামূলক কাজ করতে হবে। তাদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, ১৮ থেকে ৩৫ বছর বয়সী পুরুষ ও ১৮ থেকে ২৭ বছর বয়সী সব নারীকে অন্তত দুইবছর সেনাবাহিনীতে কাজ করতে হবে। তবে, এর বেশি কিছু জানায়নি তারা।

এক বিবৃতিতে জান্তা সরকার জানিয়েছে, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় প্রয়োজনীয় উপবিধি, পদ্ধতি, নির্দেশাবলী বিজ্ঞপ্তি আকারে প্রকাশ করবে।

বিবিসি জানিয়েছে, সবশেষ কয়েক মাসে বিদ্রোহীদের হাতে একের পর এক অপমানজনক পরাজয়ের সম্মুখীন হয়েছে জান্তা বাহিনী। গত বছরের শেষের দিকে শান প্রদেশের তিনটি সংখ্যালঘু গোষ্ঠী জান্তা সরকারের বিরুদ্ধে লড়াই করা অন্যান্য সশস্ত্র গোষ্ঠীকে সমর্থন দেয়। ওই সময় চীন সীমান্তের একটি শহর দখলে নেয় তারা।

গত মাসে আরাকান আর্মি (এএ) জানিয়েছিল, তারা চিন প্রদেশের পালেতোয়া শহরের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে।

সেনা অভ্যুত্থানের পর মিয়ানমারের প্রেসিডেন্ট হিসেবে নিয়োগ পাওয়া সাবেক জেনারেল মিন্ত সোয়ে এর আগে বলেছিলেন, সংঘাত নিয়ন্ত্রণে না আনা গেলে দেশ ভেঙে কয়েক ভাগে বিভক্ত হয়ে যেতে পারে।

বিবিসির তথ্যমতে, ২০১০ সালে কনস্ক্রিপশন আইনটি সামনে আনে দেশটির তৎকালীন সরকার। তবে, এ পর্যন্ত আইনটি বাস্তবায়িত হয়নি। আইন অনুযায়ী, প্রয়োজনে বাধ্যতামূলক সেনাবাহিনীতে কাজের সময়সীমা পাঁচ বছর পর্যন্ত বাড়ানো যেতে পারে। আইনটি না মানলে জেল হওয়ার সম্ভাবনা আছে।

প্রসঙ্গত, ২০২১ সালে ফেব্রুয়ারিতে অভ্যুত্থানের মাধ্যমে মিয়ানমারের ক্ষমতায় আসে দেশটির সেনাবাহিনী। তবে, গত অক্টোবর থেকে বিদ্রোহী ও সংখ্যালঘু গোষ্ঠীগুলো এক হয়ে আক্রমণ চালাচ্ছে জান্তা বাহিনীর বিরুদ্ধে। এতে অনেকটা কোণঠাসা হয়ে পড়েছে তারা।


আরও খবর



আজ বইমেলা শুরু হচ্ছে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১২৭জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:আজ (১ ফেব্রুয়ারি) থেকে শুরু হচ্ছে বাঙালির প্রাণের বইমেলা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বেলা ৩টায় মাসব্যাপী এ মেলার উদ্বোধন করবেন। এবারের বইমেলায় থাকছে ৬৩৫টি প্রতিষ্ঠানের মোট ৯৩৭টি স্টল। কোনো তৃতীয় মাধ্যম ছাড়াই এবারের বইমেলার সার্বিক দায়িত্বে আছে বাংলা একাডেমি।

বইমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বাংলা একাডেমি প্রকাশিত ‘কালেক্টেড ওয়ার্কস অব শেখ মুজিবুর রহমান: ভলিউম-২’ সহ কয়েকটি গ্রন্থ-উন্মোচন করবেন। সেই সঙ্গে বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার-২০২৩ বিজয়ীদের পুরস্কার বিতরণ করবেন।

সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে প্রায় সাড়ে ১১ লাখ বর্গফুট এলাকাজুড়ে হচ্ছে বইমেলা। বাংলা একাডেমি মাঠে ১২০টি প্রতিষ্ঠানকে ১৭৩টি এবং সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ৫১৫টি প্রতিষ্ঠানকে ৭৬৪টি স্টল বরাদ্দ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। এ বছর প্যাভিলিয়ন থাকছে ৩৭টি। বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে ১টি ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অংশে ৩৬টি।

মেলায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও মাসব্যাপী সেমিনারের পাশাপাশি শিশু-কিশোরদের জন্য ছবি আঁকা, সংগীত ও আবৃত্তি প্রতিযোগিতার ব্যবস্থা থাকবে। প্রতি শুক্র ও শনিবার মেলায় বেলা ১১টা থেকে ১টা পর্যন্ত ‘শিশুপ্রহর’ থাকবে। প্রথমবারের মতো শিক্ষার্থীদের জন্য ৫ শতাংশ ছাড়ের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। পরিচয়পত্র দেখালেই মিলবে এ সুযোগ।

প্রতি কর্মদিবসে বইমেলা বিকেল ৩টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত এবং সরকারি ছুটির দিন বেলা ১১টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে এবং দুপুরের খাবার ও নামাজের জন্য এক ঘণ্টা বিরতি থাকবে মেলায়।

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে কোথায় কী থাকবে: মেলার মূল মঞ্চ থাকবে বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে। বইয়ের মোড়ক উন্মোচন ও ‘লেখক বলছি’ মঞ্চ সোহরাওয়ার্দী উদ্যান প্রাঙ্গণে স্থাপন করা হয়েছে। গত বছরের মতো রমনা কালী মন্দির গেটে প্রবেশের ঠিক ডান দিকে বড় পরিসরে রাখা হয়েছে শিশুচত্বর। লিটল ম্যাগাজিন চত্বর স্থানান্তরিত হয়েছে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের উন্মুক্ত মঞ্চের কাছাকাছি গাছতলায়। সেখানে প্রায় ১৭০টি লিটলম্যাগকে স্টল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। অন্যান্যবারের মতো খাবারের স্টলগুলো এলোমেলো না রেখে ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউশন অংশে বিন্যস্ত করা হয়েছে। নামাজের স্থান এবং ওয়াশরুম থাকবে ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউশনের পাশে।

মেলার প্রবেশপথ: এবারের মেলায় প্রবেশদ্বার মোট চারটি। মেট্রোরেল স্টেশনের অবস্থানগত কারণে গতবারের মূল প্রবেশপথ এবার একটু সরিয়ে বাংলা একাডেমির মূল প্রবেশপথের উলটো দিকে অর্থাৎ মন্দির গেটটি মূল প্রবেশপথ হিসেবে ব্যবহার হবে। এছাড়া টিএসসি, দোয়েল চত্বর ও ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটের (আইইবি) দিকেসহ মোট ৩টি প্রবেশপথ থাকবে।


আরও খবর



মানুষের কল্যানে, অর্থনৈতিক উন্নয়নে বঙ্গবন্ধু কন্যা নিরলস ভাবে কাজ করছেন-হুইপ ইকবালুর রহিম

প্রকাশিত:শুক্রবার ০২ ফেব্রুয়ারী 2০২4 | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৯১জন দেখেছেন

Image

দিনাজপুর প্রতিনিধি:আপনারা (জনগন) নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আমাকে পুনরায় সংসদ সদস্য নির্বাচিত করায় দিনাজপুরবাসীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম বলেন, মানুষের কল্যানে, অর্থনৈতিক উন্নয়নে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি বলেন, আমি যেন মানুষের কল্যানে, মঙ্গলে, অর্থনৈতিক উন্নয়নে, সামাজিক উন্নয়নে ও সামাজিক ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠায় কাজ করতে পারি সেই জন্য সকলের কাছে দোয়া প্রার্থনা করি।

শুক্রবার বিকালে দিনাজপুর রামকৃষ্ণ আশ্রম ও রামকৃষ্ণ মিশনের আয়োজনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে হুইপ ইকবালুর রহিম এসব কথা বলেন।

রামকৃষ্ণ আশ্রম ও রামকৃষ্ণ মিশনের অধ্যক্ষ স্বামী বিভাত্মানন্দ মহারাজ, দিনাজপুর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ ইমদাদ সরকার, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফয়সাল রায়হান, দিনাজপুর হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের সাধারন সম্পাদক রতন সিং, দিনাজপুর রামকৃষ্ণ আশ্রম ও মিশনের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি অজয় কুমার চ্যাটার্জী, পৌর আওয়ামীলীগ সভাপতি এ্যাড. শামীম আলম সরকার বাবু, সাধারন সম্পাদক এনাম উল্ল্যাহ জ্যামী, সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ মমিনুল ইসলাম প্রমুখ।


আরও খবর

সন্দ্বীপ থানার ওসি কবীর পিপিএম পদকে ভূষিত

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




নাসিরনগরে কৃষকলীগের বর্ধিত সভা অনুষ্টিত

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ২০৬জন দেখেছেন

Image

আব্দুল হান্নানঃব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলা কৃষকলীগের বর্ধিত সভা অনুষ্টিত হয়েছে।২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ রোজ শনিবার বেলা এগার ঘটিকার সময় নাসিরনগর সদরে এন আর ভবনে উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি হাজী অলি মিয়ার সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এস এম নুরে আলমের সঞ্চালনায় সভাটি অনুষ্টিত হয়।অনুষ্টানে প্রধান অথিতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় কৃষকলীগের অর্থ বিষয়ক সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ নাজির মিয়া।

প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নাসিরনগর উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি রোমা আক্তার।

বিশেষ অথিতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,নাসিরনগর উপজেলা আওয়ামীরীগের সাবেক সিনিয়র সহ সভাপতি ও গোয়ালনগর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ কিরণ মিয়া,সাবেক আইন বিষয়ক সম্পাদক এড মোঃ আব্বাস উদ্দিন,উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক প্রতিষ্টাতা সভাপতি ও সদরের সাবেক চেয়ারম্যান শেখ আব্দুল আহাদ,কৃষকলীগের সহ সভাপতি মোঃ নাজমুর রশীদ  সবুজ,সাংগঠনিক  সম্পাদক এডঃ মোঃ মিজানুর রহমান প্রমুখ।

অনুষ্টানে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে কৃষকলীগ,ছাত্রলীগ,যুবলীগ,আওয়ামীলীগ সহ বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।বর্ধিত সভাশেষে আগামী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে রোমা আক্তারকে উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে সমর্থন করেন উপস্থিত সকল নেতাকর্মীরা।

  -খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর

সন্দ্বীপ থানার ওসি কবীর পিপিএম পদকে ভূষিত

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪