Logo
আজঃ শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪
শিরোনাম
কক্সবাজারে পাহাড় ধসে স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যু বন্ধ শিল্প প্রতিষ্ঠান চালুর পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে: শিল্পমন্ত্রী বাংলাদেশের হার দিয়ে সুপার এইট শুরু গোদাগাড়ীতে রাসেল ভাইপারের চিকিৎসার দাবিতে স্বাস্থ্য মন্ত্রীর কাছে চিঠি দিয়েছে নাগরিক স্বার্থ-সংরক্ষণ কমিটি রূপগঞ্জে জমে উঠেছে কাঞ্চন পৌরসভা নির্বাচন যাত্রাবাড়ীতে পুলিশ কর্মকর্তার বাবা মাকে কুপিয়ে হত্যা যানজট নিরসনে সংসদ সদস্যগণের সাথে ট্রাফিক ওয়ারী বিভাগের সমন্বয়সভা ভোলায় ফের দেখা মিলল রাসেল ভাইপার, জনমনে আতঙ্ক বাজেট পাস হয়নি,অনেক কিছু পুনর্বিবেচনা করা সম্ভব: অর্থমন্ত্রী দেশের সব মহৎ অর্জন আ. লীগের মাধ্যমেই হয়েছে: ওবায়দুল কাদের

হোয়াটসঅ্যাপ থেকে মেসেজ পাঠানো যাবে অন্য অ্যাপেও

প্রকাশিত:বুধবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | ২৯৪জন দেখেছেন

Image

প্রযুক্তি ডেস্ক:ইউরোপীয় ইউনিয়নের নতুন ডিজিটাল মার্কেট বিধি অনুয়ায়ী থার্ডপার্টি মেসেজিং প্ল্যাটফর্মের সঙ্গে অ্যালফাবেট (গুগল), আমাজন, অ্যাপল, বাইটড্যান্স ও মাইক্রোসফটের মতো কোম্পানিগুলোকে যুক্ত হতে হবে। এই আইনের সঙ্গে সংগতি বজায় রাখতে হোয়াটসঅ্যাপে ক্রস–প্ল্যাটফর্ম মেসেজিং সুবিধা নিয়ে আসছে মেটা।

হোয়াটসঅ্যাপের সর্বশেষ ভার্সনে ‘থার্ডপার্টি চ্যাট’ নামে এই ফিচার দেখা গেছে বলে প্রযুক্তি বিষয়ক ওয়েবসাইট স্যামমোবাইলের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়।  

হোয়াটসঅ্যাপের আসন্ন বিভিন্ন ফিচারের তথ্য প্রদানকারী ডব্লিউবেটাইনফো এক প্রতিবেদনে বলে, অ্যান্ড্রয়েড বেটা অ্যাপের ২.২৩. ১৯.৮ ভার্সনে ‘থার্ডপার্টি চ্যাট’ নামে এই ফিচার দেখা যাবে।

তবে টুলটি এখনই ব্যবহার করা যাচ্ছে না। একটি স্ক্রিনশটে দেখা যায়, ফিচারটিতে কোনো অপশন বা বাটন নেই। এই পদক্ষেপ ইঙ্গিত দেয়, ২০২৪ সালের মার্চের মধ্যে ক্রস–প্ল্যাটফর্ম মেসেজিংয়ের সঙ্গে যুক্ত হয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়নের ডিজিটাল মার্কেটের বিধি মেনে চলবে মেটা।  

ইউরোপসহ বিশ্বের জনপ্রিয় ও গুরুত্বপূর্ণ মেসেজিং প্ল্যাটফর্ম ফেসবুকের মেসেঞ্জার এবং হোয়াটসঅ্যাপ। এই পরিষেবাগুলো ব্যবহার করা তুলনামূলক সহজ। এনক্রিপ্টেড মেসেজিংয়ের সুবিধা দিয়ে অ্যাপগুলো ব্যবহারকারীর নিরাপত্তার বিষয়ে নিশ্চয়তা দিয়ে থাকে।

মেটা, অ্যাপল ও মাইক্রোসফটের মতো বড় কোম্পানিগুলোর অবাধ ডিজিটাল পরিষেবা নিশ্চিত করতে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ডিজিটাল মার্কেট অ্যাক্ট (ডিএমএ) প্রণয়ন করেছে। ডিএমএ কোম্পানিগুলোকে ব্যবহারকারীদের স্মার্টফোন থেকে প্রি–ইনস্টল করা অ্যাপ মুছে ফেলার অনুমতি দিতে নির্দেশনা দিয়েছে।

যাতে ব্যবহারকরীরা অ্যাপ স্টোর থেকে তাদের ইচ্ছানুযায়ী অ্যাপ ইনস্টল করতে পারেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে মেটা ও মাইক্রোসফট নিজস্ব অ্যাপ স্টোর তৈরির কথা বিবেচনা করছে।


আরও খবর



নওগাঁয় নিখোঁজের দুইদিন পর নদী থেকে শিশুর লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | ৮৬জন দেখেছেন

Image

নওগাঁ প্রতিনিধি:নিখোঁজের দুইদিন পর নওগাঁর বদলগাছীর ছোট যমুনা নদী থেকে স্বাধীন নামের তিন বছর বয়সী এক শিশুর লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। শুক্রবার দুপুরে উপজেলার ডাকবাংলো মোড়ের সালকালি নামক স্থান থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। নিহত শিশু স্বাধীন পার্শ্ববর্তী ধামুইরহাট উপজেলার  ইসবপুর ইউপির চকচৈতন‍্য গ্রামের জুয়েলের ছেলে। এর আগে স্বাধীন গত বুধবার দুপুর ১টার দিকে নিখোঁজ হয়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সকাল থেকেই ভেসে থাকা লাশটিকে স্থানীয়দের অনেকেই অন্য কোনো মৃত বলে মনে করে। এরপর দুপুর ১টার দিকে এলাকার মহিলারা নদীর পাশে গেলে ভাসমান লাশটি দেখতে পায়। তাদের কথা শুনে জেলেরা সাথে সাথে নদীতে নেমে শিশুর লাশটি নদীর পাড়ে তুলে আনে। এরপর থানা পুলিশকে বিষয়টি জানালে এস আই নিহার চন্দ্র সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয় গনমাধ‍্যম কর্মীদের দ্বারা বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও আশেপাশের বিভিন্ন এলাকায়  খোঁজখবর করলে শিশুটির পরিচয় মিলে।

নিহত স্বাধীনের বাবা জুয়েল বলেন, গত বুধবার দুপুরের দিকে আমার ছেলে নিখোঁজ হয়। তার বয়স ৩ বছর ২মাস। নদীর পাশে আমার বাড়ী হওয়ায় ইসবপুর ব্রীজ পর্যন্ত অনেক বার নদীতে খুঁজেছি। না পেয়ে গত বৃহস্পতিবার এলাকায় মাইকিং করা হয়। হঠাৎ আজ বদলগাছী থেকে পরিচিত জনের মাধ্যমে জানতে পারি এখানে একটি বাচ্চার লাশ পাওয়া গিয়েছে এবং এসে দেখি আমার ছেলের লাশ।

এ ব‍্যপারে বদলগাছী ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)  মাহবুবুর রহমান বলেন, নিহত শিশুর লাশ পরিবার সনাক্ত করেছে। পরে লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য নওগাঁ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আইনগত প্রক্রিয়া শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।


আরও খবর



সৈয়দপুরে ইয়াবা ট্যাবলেটসহ গ্রেফতার -১

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | ৭৩জন দেখেছেন

Image

জহুরুল ইসলাম খোকন সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:নীলফামারীর সৈয়দপুর থানা পুলিশের উ-পুলিশ পরিদর্শক (এস আই) আহসান হাবিবের সঙ্গীয় ফোর্স অভিযান চালিয়ে নাসিম (৩৭) নামে এক যুবককে ২৪৫ ইয়াবা ট্যাবলেট সহ গ্রেফতার করেছে ।

বৃহস্পতিবার (৬ মে) দিবাগত রাত প্রায়  সাড়ে নয়টায়  নতুনবাবুপাড়া এলাকার মৃত্যু শামসুদ্দিন এর ছেলে মোঃ নাসিম কে তার নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে।এস আই আহসান হাবিব জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দিবাগত রাতে অভিযান চালিয়ে ২৪৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ মো. নাসিম কে গ্রেফতার করা হয়। এর আগেও আসামির বিরুদ্ধে ছয়টি মামলা রয়েছে ।

এ ঘটনায় নাসিমের বিরুদ্ধে ২০১৮ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে-৩৬-(১) ১০ (ক) ধারায়, এস আই আহসান হাবিব মামলার বাদি হয়ে সৈয়দপুর থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করেন।, শুক্রবার গ্রেফতারকৃতকে নীলফামারীর জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।  মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা অব্যহত থাকবে বলে জানান তিনি। 

আরও খবর



"জাহের আলভি'র নায়িকা শারমিন সাথী "

প্রকাশিত:রবিবার ১৬ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | ৮৮জন দেখেছেন

Image
মারুফ সরকার, স্টাফ রিপোর্টার:প্রচারিত  হতে যাচ্ছে একক নাটক 'কবর'। নাটকটি  রচনা ও পরিচালনা  নিকুল কুমার মন্ডল ।  নাটকটিতে অভিনয় করেছেন,  জাহের আলভি,শারমিন সাথি ও অহনা রহমান। 

নাটকটি নিয়ে পরিচালক নিকুল কুমার মন্ডল বলেন, নাটকটি দেখে আপনারা হতাশ হবেন না। আশা করি নাটকটি সবার ভালো লাগবে। আপনারা যত বেশি দেখবেন নাটকটি দেখবেন আমরা তত বেশি কাজের অনুপ্রেরণা পাবো। 

নাটক সূত্রে জানা যায়, শিহাব ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিলোসফির ওপর মাস্টার্স পড়ুয়া ছাত্র। ফাইনাল পরীক্ষা চলছে সিহাবের। সিহাব পরীক্ষা দেয়ার জন্য হলে যাচ্ছে। এমন সময় হলের দারোয়ান তাকে ডেকে বলে তার নামে একটি চিঠি এসেছে। সিহাবের হাতে সময় না থাকায় সে তাড়াহুড়ো করে সেই চিঠিটা নিয়ে  পরীক্ষার হলের দিকে রওনা দেয়। রাস্তায় সে চিঠি পড়তে শুরু করে। চিঠিতে তার ভালোবাসার মানুষ রূপার বিয়ের কথা লেখা। আজ তার বিয়ে। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব তাকে রূপার কাছে যেতেই হবে। এ খবরে তার মাথায় বাজ ভেঙ্গে পরে। এক দিকে ফাইনাল পরীক্ষা আর অপর দিকে তার ভালোবাসার মানুষের বিয়ে। সে ঠিক করে ফেলে যে সে আজকে যে ভাবেই হোক গ্রামে যাবেই আবার পরীক্ষায় ও বসতে হবে। সে ঠিক করে নেয় যে পাস মার্ক তুলেই হল থেকে বেড়িয়ে যাবে। যথারীতি সে পাস মার্ক তুলে বেরিয়ে যাবে হল থেকে তখন তার শিক্ষক তাকে বলে সে আর একটু লিখলেইতো লেটার মার্ক পেয়ে যাবে। তখন সিহাব বলে যে তার লেটার মার্কের প্রয়োজন নেই। কারণ তাকে গ্রামে যে করেই হোক যেতে হবে নইলে তার প্রেমিকার বিয়ে হয়ে যাবে। তারপর সে হল থেকে বেরিয়ে সোজা বাস স্টেন্ডে চলে যায়। সেখান থেকে সে তার গন্তব্যের জন্য বাসে উঠে যায়। মধ্যরাতে বাস তাকে নামিয়ে দেয়। যেখানে নামিয়ে দেয় , সেখান থেকে রূপার গ্রামে যেতে  আরো অনেক পথ বাকি। গ্রামে এত রাতে গাড়ি তো দূরে থাক একটি কুকুরও দেখতে পাওয়া ভাগ্যের ব্যাপার। সে কোনো কিছু না পেয়ে মন থেকে একদম ভেঙ্গে পরে। সে বিভিন্ন স্টান্ডে যায় কিন্তু কোনো গাড়ি পায়না, ( বাস, সিএনজি, টেম্পু) এমন সময় এক লোক এসে হাজির  হয় শিহাবের কাছে। শিহাব তাকে দেখে একটু হাফ ছেড়ে বাঁচে। তাকে জিজ্ঞেস করে এখন কোনো গাড়ি পাওয়া যাবে কিনা, ঐ গ্রামে যেতে। সে লোক তাকে বলে এখন কোনো গাড়িই পাওয়া যাবে না। সিহাব তাকে অনেক অনুনয় বিনয় করে। কিন্তু লাভ হয় না। লোকটি তাকে বলে যে ভোরের দিকে ঐ গ্রামে যাওয়ার জন্য গাড়ি পাওয়া যাবে। লোকটি তাকে রাতে থাকার ব্যবস্থা করে দিতে চাইলে শিহাব না করেনা তাকে। লোকটি শিহাবকে নিয়ে একটি হোটেলে যায়। হোটেলে গিয়ে লোকটি সিহাবকে বলে এখানে থাকতে তার কোনো সমস্যা হবে না। শিহাবকে রুমে নিয়ে যায়। কিছুক্ষণ পর শিহাবের রুমে জোনাকি আসে, তার সেবা করতে। নানা রকমের খাবার নিয়ে আসে শিহাবের জন্য। আর শিহাব জোনাকি কে দেখে ভয় পেয়ে যায়। জোনাকি রুমে এসেই দরজার সিটকিনি মেরে দেয়। যার জন্য শিহাব একটু ঘাবড়ে গিয়ে তাকে রুম থেকে রের হতে বলে। জোনাকি শিহাবকে বলে তাকে যদি রুম থেকে বের করে দেয়া হয়, তবে তার চাকরি চলে যাবে। এটাই তার কাজ। শিহাবের সেবা  করার জন্য তাকে পাঠানো হয়েছে। শিহাব একটু ভয় নিয়েই ফ্রেশ হয়ে আসে। জোনাকি তাকে খাবার বেরে দেয়।  শিহাব খেয়ে দেয়ে ওঠে। জোনাকি শিহাবকে বলে একটি কাথা দিতে। কারণ সে নিচে ঘুমাবে। মানবিক দিক বিবেচনা করে সিহাব নিচে ঘুমাতে চায়। আর জোনাকিকে উপরে ঘুমাতে বলে। এর মধ্যে তাদের একটা ভাব জমে যায়। জোনাকি শিহাবকে বলে বসে যে হোটেলে সবাই আসে ফুর্তি করতে। আর আপনি আমাকে বের করে দিতে চাচ্ছেন এর কারণ কি?  তখন শিহাব বলে তার প্রেমিকার বিয়ে হয়ে যাচ্ছে। তার সেখানে পৌছানো প্রয়োজন। তবে কোনো গাড়ি না পাওয়ায় সে আজ রাতে এখানে থাকছে। তবে কোনো ফুর্তি করতে সে আসে নি। তখন জোনাকি বলে যে তাকে সে পৌঁছেদিতে  পারবে। তার অনেক নাগর আছে ,যাদের গাড়ি আছে। একটা, শুধু একটা কল দিলেই শতশত নাগর এসে হাজির হয়ে যাবে এ বলে সে একজনকে কল করে .শিহাব তাকে জিজ্ঞেস করে সে এরকম একজন মেয়ে হয়ে হোটেলে  কি করছে। তখন শিহাবকে জোনাকি সব খুলে বলে  তার এক মামাতো ভাইয়ের সাথে তার সম্পর্ক ছিল। বাড়ি থেকে বের করে নিয়ে আসে তার মামাতো ভাই। আর বের করে নিয়ে এসে তাকেই হোটেলে বিক্রি করে দেয়। বিক্রি হয়ে যাওয়ার পর সে গ্রামে মুখ দেখাতে পারবেনা বলে এখানে থেকে যায়। জোনাকি যাকে কল করেছিল সে  তাৎক্ষণাৎ  হোটেলে চলে আসে। .তার নাগর সরাসরি রুমে এসে তাকে জড়িয়ে ধরে জোনাকি তাকে ইচ্ছামত গালিগালাজ করতে থাকে আর বলে তার জন্য একটি কাজ করে দিতে হবে। জোনাকির  নাগর তাকে বলে জোনাকির জন্য সে সবই করতে পারে। তারপর জোনাকি তাকে বলে শিহাবকে নিয়ে  গ্রামে যেতে হবে এখনই,  তারা আর হোটেলে বিলম্ব না করে বেরিয়ে পড়ে গ্রামের উদ্দেশ্যে যেতে যেতে জোনাকির  তার জীবনের অনেক গল্প বলতে থাকে গ্রামের রাস্তায়  ঢুকতেই দেখা যায় একটি বিয়ের গাড়ি বহর যাচ্ছে আর সেই গাড়িতে মেহেদী আঁকা একটি হাত বের হয়ে আছে. সাথে সাথে শিহাব গাড়ি থামাতে বলে, শিহাব বিয়ের গাড়িবহর দেখে বুঝে গেছে তার ভালবাসার মানুষ এর বিয়ে হয়ে গেছে এবং সে চলে যাচ্ছে।গাড়ি থামাতে দেখে জোনাকি শিহাবকে  বলে কেন এখানে গাড়ি থামানো হলো। শিহাব জোনাকিকে বলে সেখানে গিয়ে আর লাভ হবে না কারণ, এই  বিয়ের গাড়ি বহরেই  তার প্রেমিকা রুপা চলে যাচ্ছে। এ কথা শুনে জোনাকির মনে ভীষণ কষ্ট লাগে এবং জোনাকি চোখ দিয়ে পানি পড়তে থাকে।জোনাকির এমন অবস্থা দেখে শিহাব নিজে হতভম্ব হয়ে যায় এবং তাদের মধ্যে মনের একটি মিল হয়ে যায়। যা শিহাব তাৎক্ষণাৎ বুঝতে পারেনি সেটি।জোনাকি এক দৃষ্টিতে শিহাবের দিকে অনেকক্ষণ তাকিয়ে থাকে এবং শিহাব  তার দিকে কিছুক্ষণ তাকিয়ে থাকে। জোনাকি হাউমাউ করে কান্না করতে থাকে, শিহাব বলে আমাকে একা থাকতে দাও, যাওয়ার সময় জোনাকি শিহাবকে তার ঠিকানা লিখে দেয়। যদি কখনো মনে হয় তার সাথে যেন দেখা করে এবং জোনাকি তাকে বলে সে তার অপেক্ষায় থাকবে। বহুকাল পর জোনাকির কথা শিহাবের  মনে পড়ে এবং হন্যে হয়ে পুরো বাড়ি এলোমেলো করে,  সে জোনাকির দেয়া ঠিকানাটি খুঁজে বের করে এবং রওনা হয় জোনাকির বাড়ির দিকে। ঠিকানা অনুযায়ী শিহাব জোনাকির গ্রামে এসে হাজির হয় এবং জোনাকির খোঁজ করতে থাকে। গ্রামের লোকজন জোনাকিকে  নিয়ে বাজে বাজে মন্তব্য করতে থাকে এবং শিহাব তাদেরকে ডেকে জিজ্ঞেস করে জোনাকির কি হয়েছে? জোনাকি কোথায়? তারা তাকে খুব বাজে ভাবে উত্তর দেয় জোনাকি ছিল পতিতা। আর পতিতাদের না মরে উপায় কি? হাজার হাজার জায়গায় ঘুরে বেড়াতো। একেক জন লোকের সাথে শুয়ে সময় কাটাতো। তাদের মৃত্যু হবে না তো কি হবে? তাদের কাছে জানতে চায় জোনাকিকে কোথায় কবর দেয়া হয়েছে। গ্রামের লোকজন খুব খারাপ ভাবে তাকে বলে পতিতাদের কবর গোরস্থানে দেয়া হয় না, নদীর ওই পারে খালি জায়গা আছে সেখানে  কবর দেয়া হয়েছে। শিহাব তাৎক্ষণাৎ নদীর পাড়ের দিকে যেতে থাকে। যেতে যেতে এক পর্যায়ে দেখে নদীর পাড়ে একটি কবর। সে কবরের কাছে গিয়ে দাঁড়ায় এমন সময় পেছন থেকে সে অনুভব করে কেউ তাকে ডাকছে। আর সে তাকিয়ে দেখে জোনাকি দাঁড়িয়ে আছে। জোনাকি তাকে বলছে এই বুঝি তোমার আসার সময় হলো।  অনেক দেরি করে ফেলেছো আসতে। আমি সেই কবে থেকে তোমার অপেক্ষায় ছিলাম আর গ্রামের মানুষের কথাবার্তা সইতে না পেরে এবং তোমার দেখা না পেয়ে আমি গলায় দড়ি দিয়েছি। তুমি আসতে বড্ড দেরি করে ফেলেছো। শিহাব অঝোরে কাঁদতে  থাকে। কাঁদতে কাঁদতে সে নদীর পাড়ের দিকে হাঁটতে থাকে এবং এক পর্যায়ে সে নদীর মাঝখানে চলে যায়। আর কিছুক্ষণ পর শিহাবকে  আমরা  দেখতে পাই না। শিহাব নিজের ইচ্ছায় নদীর জলে ডুব দেয়।

নাটকটি একটি বেসরকারি টেলিভিশনে প্রচারিত হবে বলেন নির্মাতা সূত্রে  জানা যায়।

আরও খবর



নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে রায়ের বাজার উচ্চ বিদ্যালয়

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | ১২২জন দেখেছেন

Image

চাকরি ডেস্ক:নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে রায়ের বাজার উচ্চ বিদ্যালয়


আরও খবর



টেকেরঘাট সীমান্তে ২হাজার টন চুনাপাথর পাচাঁরের অভিযোগ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | ৯৩জন দেখেছেন

Image

মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া-সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:চোরাচালানের স্বর্গরাজ্য হিসেবে পরিচিত সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর উপজেলার টেকেরঘাট সীমান্তে সরকারের রজস্ব ফাঁকি প্রায় ২হাজার মেঃটন চুনাপাথর পাচাঁরের খবর পাওয়া গেছে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে- গতকাল রবিবার (২রা জুন)  রাত সাড়ে ১১টা থেকে প্রতিদিনের মতো টেকেরঘাট সীমান্তের বরুঙ্গাছড়া ও রজনীলাইন এলাকা দিয়ে সোর্স পরিচয়ধারী আক্কল আলী, কামাল মিয়া, রুবেল মিয়া, মহিবুর মিয়া, সাইদুল মিয়া ও তোতলা আজাদগং ১৫০টি ঠেলাগাড়ি দিয়ে ভারত থেকে রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে অবাধে চুনাপাথর পাচাঁর শুরু করে।

আজ সোমবার (৩রা জুন) সকাল ৬টা পর্যন্ত চোরাকারবারীরা প্রায় ২হাজার মেঃটন চুনাপাথর পাচাঁর করে টেকেরঘাট বিজিবি ক্যাম্প সংলগ্ন জয়বাংলা বাজারের কাঠের ব্রিজের পাশে অবস্থিত হেকিম, এমরান ও শাহ পরানের জায়গায় মজুত করেছে। কিন্তু পাচাঁরকৃত এসব অবৈধ চুনাপাথর জব্দ করাসহ চোরাকারবারীদেরকে গ্রেফতারের জন্য বিজিবির পক্ষ থেকে কোন পদক্ষেপ নেওয়ার খবর পাওয়া যায়নি। অথচ এই ক্যাম্পে নায়েক সুবেদার সাইদুর দায়িত্ব পালন কালে বন্ধ ছিল চোরাচালান ও চাঁদাবাজি বাণিজ্য।

জানা গেছে- পাচাঁরকৃত প্রতি ঠেলাগাড়ি চুনারপাথর (দেড় টন) থেকে বিজিবি নাম ভাংগিয়ে ১৫০টাকা, সাংবাদিক ও থানার নামে ২শ টাকাসহ মোট ৫শ টাকা ও প্রতিবস্তা চোরাই কয়লা (৫০ কেজি) থেকে বিজিবির নামে ৫০টাকা, সাংবাদিক ও থানার নাম ভাংগিয়ে প্রতি টনে ২হাজার টাকা করে চাঁদা উত্তোলন করে গডফাদার তোতলা আজাদ, তার সোর্স আক্কল আলী, কামাল মিয়া ও চাঁনপুরের জামাল মিয়া। চোরাচালান ও চাঁদাবাজি করে গত ৫বছরে গডফাদার তোতলা আজাদ ১৫ কোটি ও সোর্স আক্কল আলী ৩ কোটি টাকার মালিক হয়ে। তাদের অবৈধ অর্থ ও অর্জিত সম্পদ উদ্ধার করার জন্য প্রশাসনের সহযোগীতা জরুরী প্রয়োজন। 

এব্যাপারে বড়ছড়া কয়লা ও চুনাপাথর আমদানী কারক সমিতির আর্ন্তজাতিক বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল খায়ের বলেন- ভারত থেকে অবৈধ ভাবে কয়লা ও চুনাপাথর পাচাঁর হওয়ার কারণে আমরা বৈধ ব্যবসায়ীরা বিরাট ক্ষতিগ্রস্থ্য হচ্ছি। কিন্তু প্রশাসনের পক্ষ থেকে এব্যাপারে কোন পদক্ষেপ নেওয়া হয়না। উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা ও ব্যবসায়ী নবী হেসেন বলেন- সোর্স আক্কল আলী ও তার গডফাদার প্রতিদিন অবৈধ ভাবে চুনাপাথর ও কয়লা পাচাঁরের পর লাখলাখ টাকা চাঁদা উত্তোলন করলেও তাদের বিরুদ্ধে আইনগত কোন পদক্ষেপ নেওয়া হয়না। সুনামগঞ্জের সিনিয়র সাংবাদিক মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া বলেন- রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে অবৈধ চুনাপাথর ও কয়লা পাচাঁরের খবর পাওয়ার সাথে সাথে সীমান্তের টেকেরঘাট (০১৭৬৯-৬১৩১২৮) ও চাঁনপুর (০১৭৬৯-৬১৩১২৯) বিজিবি ক্যাম্পের সরকারী মোবাইল নাম্বারে কল করে বারবার জানানোর পরও তারা কোন পদক্ষেপ নেয়না।     

এব্যাপারে তাহিরপুর উপজেলার টেকেরঘাট বিজিবি ক্যাম্পের দায়িত্বে থাকা কোম্পানী কমান্ডার দীলিপ বলেন- আমাদের অনেক কাজ আছে, এসব দেখা ও শুনার । ওই ক্যাম্পের কমান্ডার নায়েক সুবেদার জাফর বলেন- সীমান্ত দিয়ে যখন কয়লাসহ বিভিন্ন মালামাল পাচাঁর করা হয় জানাবেন, তখন আমি পদক্ষেপ নেব। তাহিরপুর থানার ওসি নাজিম উদ্দিন বলেন- সীমান্ত চোরাচালান বন্ধের দায়িত্ব বিজিবির। আপনি এব্যাপারে তাদের সাথে কথা বলেন, থানা-পুলিশে কোন সোর্স নাই। আমাদের নামে কেউ চাঁদা উত্তোলন করলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আরও খবর