Logo
আজঃ Wednesday ২৫ May ২০২২
শিরোনাম

হারের বৃত্ত থেকেই বের হতে পারছে না মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স

প্রকাশিত:Thursday ২১ April ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ১২৬জন দেখেছেন
Image

স্পোর্টস ডেস্কঃ

আইপিএলের সবচেয়ে সফল দল, পাঁচ-পাঁচটি ট্রফি মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের ঘরে। অথচ রোহিত শর্মার দল এবারের আসরে হারের বৃত্ত থেকেই বের হতে পারছে না। পাঁচবারের চ্যাম্পিয়নরা টানা পাঁচ ম্যাচে পেয়েছে পরাজয়ের স্বাদ।পুনেতে আজ পাঞ্জাব কিংসের কাছে ১২ রানে হেরেছে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। পাঁচ ম্যাচে তিন জয় নিয়ে পয়েন্ট তালিকার তিন নম্বরে উঠে এসেছে মায়াঙ্ক আগারওয়েলের দল।


লক্ষ্যটা বেশ কঠিন ছিল, ১৯৯ রানের। ৩২ রানের মধ্যে সাজঘরে ফেরেন রোহিত শর্মা (১৭ বলে ২৮) আর ইশান কিশান (৬ বলে ৩)। তবে দুই ওপেনারকে হারালেও জয়ের লক্ষ্যে ভালোভাবেই ছুটছিল মুম্বাই।ডেওয়াল্ড ব্রেভিস (২৫ বলে ৪৯), তিলক ভার্মা (২০ বলে ৩৬) আর সূর্যকুমার যাদব (৩০ বলে ৪৫) ঝড়ো ব্যাটিংয়ে দলকে এগিয়ে দেন। তবে শেষ রক্ষা হয়নি।


শেষ ওভারে মুম্বাইয়ের দরকার ছিল ২২ রান। ওডিয়েন স্মিথের প্রথম বলেই ছক্কা হাঁকিয়ে আশা জাগিয়েছিলেন জয়দেব উনাদকাত। তবে ওই ওভারেই তিন উইকেট তুলে নিয়ে দলের জয় নিশ্চিত করেন স্মিথ। ৩ ওভারে ৩০ রান খরচায় মোট ৪টি উইকেট শিকার করেন এই পেসার।




এর আগে মায়াঙ্ক আগারওয়েল আর শিখর ধাওয়ানের জোড়া সেঞ্চুরিতে ভর করে ৫ উইকেটে ১৯৮ রানের বিশাল সংগ্রহ দাঁড় করায় পাঞ্জাব কিংস।উদ্বোধনী জুটিতেই উড়ন্ত সূচনা এনে দিয়েছিলেন মায়াঙ্ক আগারওয়াল ও শিখর ধাওয়ান। আর শেষে ঝড়ো ফিনিশিংয়ের দায়িত্বটা দারুণভাবে পালন করলেন শাহরুখ খান ও জিতেশ শর্মা।


মায়াঙ্ক ও শিখরের ব্যাটে উদ্বোধনী জুটিতে ৯.৩ ওভারে আসে ৯৭ রান। ঝড়ো ফিফটি হাঁকিয়ে ৩২ বলে ৬ চার ও ২ ছয়ের মারে ৫২ রানের ঝকঝকে ইনিংস খেলেন মায়াঙ্ক। এরপর হতাশ করেন জনি বেয়ারস্টো (১২ বলে ১৩) ও লিয়াম লিভিংস্টোন (৩ বলে ২)।


তবে একপ্রান্ত ধরে রেখে খেলতে থাকা ধাওয়ান হাত খুলে মারতে শুরু করলে রানের চাকা থামেনি পাঞ্জাবের। ইনিংসের ১৭তম ওভারের শেষ বলে থামেন এ বাঁহাতি ওপেনার। তার ব্যাট থেকে আসে ৫ চার ও ৩ ছয়ের মারে ৫০ বলে ৭০ রান।


এরপর মাত্র ২.৪ ওভারে ৪৬ রানের জুটি গড়েন জিতেশ ও শাহরুখ। শেষ ওভারে আউট হওয়ার আগে ৬ বলে ১৫ রান করেন শাহরুখ। শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকা ইনিংসে ১৫ বলে ৩০ রানের ক্যামিও খেলেন জিতেশ। যা দলকে পৌঁছে দেয় দুইশ ছুঁইছুঁই স্কোরে।


আরও খবর



দুর্ভিক্ষের দ্বারপ্রান্তে রয়েছে প্রায় ২৫ কোটি

বিশ্বজুড়ে খাদ্য ঘাটতি দেখা যাবে-জাতিসংঘের মহাসচিব

প্রকাশিত:Sunday ২২ May 20২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ৫৭জন দেখেছেন
Image

খবর প্রতিদিন ডেস্কঃ

জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তনিও গুতেরেস সামনের দিনগুলোতে বিশ্বজুড়ে খাদ্য ঘাটতি দেখা যাবে বলে সতর্ক করেছেন।বৈশ্বিক খাদ্য ব্যবস্থা দুর্বল হয় করোনা মহামারিতে।এর প্রধান কারণ দেশে দেশে ধারাবাহিকভাবে কঠোর বিধিনিষেধ। বিশ্ব যখন অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার কার্যক্রমে ব্যস্ত তখনই শুরু হয় রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে যুদ্ধ। যা খাদ্য সংকটকে আরও ঘনীভূত করেছে। এরই মধ্যে দেশে দেশে দেখা দিয়েছে রেকর্ড মূল্যস্ফীতি। বেড়ে গেছে জীবনযাত্রার ব্যয়।


জানা গেছে, যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর পশ্চিমাদের কঠোর বিধিনিষেধের মুখে পড়েছে রাশিয়া। অন্যদিকে বন্ধ হয়ে গেছে ইউক্রেনের শস্য রপ্তানি। ইউক্রেন ও রাশিয়া বিশ্বব্যাপী খাদ্যের ১০ ভাগের এক ভাগ সরবরাহ করে। তারা বিশ্বের গম রপ্তানির ৩০ শতাংশের পাশাপাশি সূর্যমুখী তেলের ৬০ শতাংশ উৎপাদন করে। কমপক্ষে ২৬টি দেশ তাদের অর্ধেকেরও বেশি খাদ্যশস্যের জন্য রাশিয়া ও ইউক্রেনের ওপর নির্ভরশীল।


চলতি সপ্তাহের শুরুতে ২০২২ সালের পর গমের দাম বেড়েছে ৫৩ শতাংশ। আও ছয় শতাংশ বেড়ে যায় ভারতের গম রপ্তানি নিষিদ্ধের সিদ্ধান্তের পর।


গত বছরের জুলাইতে শুরু হওয়া ২০২১-২০২২ অর্থ বছরে রাশিয়া বিশ্ব চাহিদার ১৬ শতাংশ গম রপ্তানি করে। এ ক্ষেত্রে ইউক্রেনের অবদান ছিল ১০ শতাংশ। কিন্তু সংঘাত ছড়িয়ে পড়ায় দেশ দুইটি শস্য রপ্তানি নিষিদ্ধ করতে বাধ্য হয়।


ফেব্রুয়ারিতে রাশিয়া ইউরেশিয়ান ইকোনমিক ইউনিয়নের (ইএইইউ) বাইরে গম, রাই, যব ও ভুট্টা রপ্তানি ৩০ জুন পর্যন্ত সীমাবদ্ধ করে। এদিকে ইউক্রেন ওডেসাতে একমাত্র অবশিষ্ট বন্দর বন্ধ করে দিয়েছে।


তাছাড়া কাজাখস্তানসহ কয়েকটি প্রধান শস্য সরবরাহকারী দেশ যখন রপ্তানি বন্ধ করে দেয় তখন পরিস্থিতি আরও খারাপ হয়। মূলত অভ্যন্তরীণ চাহিদা মেটাতেই দেশগুলো এমন সিদ্ধান্ত নেয়।


এমন পরিস্থিতিতে বিশ্বজুড়ে পর্যাপ্ত পরিমাণে খাওয়ার বিষয়ে নিশ্চিত হতে পারে না এমন মানুষের সংখ্যা বেড়েছে একশ ৬০ কোটি। দুর্ভিক্ষের দ্বারপ্রান্তে রয়েছে প্রায় ২৫ কোটি। পাশাপাশি আরও কয়েক কোটি মানুষ দারিদ্র্যতার মধ্যে পড়তে পারে।


আরও খবর



গাড়ি চালক হুমায়ুন কবিরের গানের প্রতিভা

প্রকাশিত:Friday ২০ May ২০22 | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ১৬৮জন দেখেছেন
Image

নাজমুল হাসানঃ

সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রায়ই নানা ভিডিও ভাইরাল হয়। কখনও নাচ, গান, কখনও বা পশু পাখির ভিডিও ভাইরাল হতে দেখা যায়। বহু মানুষের সুপ্ত প্রতিভাও ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। প্রতিভার যোগ্য সম্মানও পেয়েছেন অনেকেই। সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতেই রাতারাতি ভাইরাল হয়ে গেছেন অনেকেই।



ফের এক প্রতিভা প্রকাশ পেয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। তিনি পেশায় একজন গাড়ি চালক।পেশায় একজন গাড়ি চালক হয়েও গান লিখেছেন ৫০ টির মতো।তার নাম হুমায়ুন কবির একাধারে কণ্ঠশিল্পী, গীতিকার, সুরকার। দিন নেই রাত নেই, ডাক আসলেই ছুটতে হয় তাঁকে। মানুষকে সঠিক গন্তব্যে পৌঁছে দেওয়াই তাঁর কাজ। এর জন্য দিন রাত এক করে খাটতে হয় তাঁকে। তবেই জোটে পেটের ভাত। 



কিন্তু এসব খাটনি দমাতে পারেনি তাঁর গানের সত্ত্বাকে। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া ইউটিউবে এইচ কে মিউজিক নামক চ্যানেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে তার গাওয়া গান মুক্তি পেয়েছে।


তার শৈশব কেটেছে বরিশাল বিভাগের পটুয়াখালীতে।তিনি পেশায় একজন গাড়ি চালক হলেও তার প্রতিভা অসাধারন।প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কে  নিয়ে গান লিখেছেন।বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান কে নিয়ে গান লিখেছেন।সরকারের উন্নয়ন অগ্রযাত্রা কে নিয়েও তিনি গান লিখেছেন।সরকারের উন্নয়ন,শেখহাসিনাকে নিয়ে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে গান বানিয়ে নিজেই তাতে কন্ঠ দেন।তার গাওয়া গান সোশ্যাল মিডিয়ার কল্যানে ইউটিউবে প্রচারিত হচ্ছে।অনেকেই তাকে নিয়ে প্রশংসা করেছে।



গন মানুষের কাছে তিনি আজ সমাদৃত একজন শিল্পী।গীতিকার হুমায়ুন কবির প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা চান।তিনি বলেন নিজের ব্যাক্তিগত তাগিদেই তিনি গান লিখেন নিজের গানে নিজেই সুর করেন নিজেইতাতে কন্ঠ দেন।পেশা যাই হোক না কেন, তার গানে জাদু আছে যা সহজেই শ্রোতাদের মনকে আকৃষ্ট করতেপারে।



তিনিজানান,"আমাদের বাংলাদেশের মানুষের মুক্তির জন্য কাজ করতে গিয়ে বঙ্গবন্ধুকে প্রান দিতে হয়েছে, তার কন্যা বর্তমান প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের ভাগ্যোন্নয়নের জন্য কাজ করছেন,দেশে আজ শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমুল উন্নয়ন সাধিত হয়েছে এসব কিছু আমাকে ভাবায়,আমি সরকারের উন্নয়ন নিয়ে গানের মাধ্যমে তা মানুষ কে জানান দেই,বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে গান করি"। গানের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুকে মানুষের অন্তরে চিরদিন জাগ্রত করে রাখতে আমি গান করি।



হুমায়ুন কবির এর গ্রামের বাড়ি পটুয়াখালী জেলার বাউফল উপজেলার পোনাপুরা গ্রামে।বর্তমানে স্ব-স্ত্রীক বসবাস করেন রাজধানী ঢাকার যাত্রাবাড়ি থানা মাতুয়াইল আদর্শবাগ এলাকায়।ব্যাক্তি জীবনে তিনি চার কন্যা সন্তানের জনক।



গানটির লিংক দেয়া হলো https://www.youtube.com/watch?v=t2Qy3p7I-ko&ab_channel=HKMusic শুনে কমেন্ট ও শেয়ার করুন


আরও খবর



আবদুল গাফ্ফার চৌধুরী আর নেই

আবদুল গাফ্ফার চৌধুরী আর নেই

প্রকাশিত:Thursday ১৯ May ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ৬২জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

বিশিষ্ট সাংবাদিক ও কলামিস্ট আবদুল গাফ্‌ফার চৌধুরী আর নেই (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। বৃহস্পতিবার (১৯ মে) স্থানীয় সময় আনুমানিক সকাল ৭টায় যুক্তরাজ্যের লন্ডনে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।


গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সভাপতি সুলতান মাহমুদ শরীফ।


আবদুল গাফফার চৌধুরী স্বাধীনতা যুদ্ধে মুজিবনগর সরকারের মাধ্যমে নিবন্ধিত স্বাধীন বাংলার প্রথম পত্রিকা ‘সাপ্তাহিক জয় বাংলা’র প্রতিষ্ঠাতা নির্বাহী সম্পাদক ছিলেন। তিনি ভাষা আন্দোলনের স্মরণীয় গান ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি’র রচয়িতা।


আবদুল গাফ্‌ফার চৌধুরীর জন্ম ১৯৩৪ সালের ১২ ডিসেম্বর বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার উলানিয়া গ্রামে। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি যুক্তরাজ্যের লন্ডনের মিডলসেক্সে এজোয়ার এলাবার মেথুইন রোডের ৫৬ নম্বর বাড়িতে বসবাস করতেন।


ছাত্রজীবনে লেখালেখিতে হাতেখড়ি হয়েছিল তার। ১৯৪৯ সালে মোহাম্মদ নাসিরউদ্দীন সম্পাদিত মাসিক সওগাত পত্রিকায় তার গল্প প্রকাশিত হয়। ১৯৫২ সালে সাময়িকপত্রে প্রকাশিত হয় প্রথম উপন্যাস ‘চন্দ্রদ্বীপের উপাখ্যান’।


আবদুল গাফ্ফার চৌধুরীর সাংবাদিকতায় হাতেখড়িও ছাত্রজীবনে। ঢাকা কলেজের ছাত্র থাকাকালে যোগ দেন দৈনিক ইনসাফ পত্রিকায়। ১৯৫১ সালে যোগ দেন খায়রুল কবীর সম্পাদিত দৈনিক সংবাদের বার্তা বিভাগে। ১৯৫৬ সালে যোগ দেন তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া সম্পাদিত দৈনিক ইত্তেফাকে।



১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ শুরু হলে আবদুল গাফ্ফার চৌধুরী কলমযোদ্ধার ভূমিকায় অবতীর্ণ হন। জয় বাংলা পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন তিনি। মুক্তিযোদ্ধাদের ক্যাম্পে মডারেটরের ভূমিকাও পালন করেন। স্বাধীনতার পর ঢাকা থেকে প্রকাশিত দৈনিক জনপদের প্রধান সম্পাদক ছিলেন আবদুল গাফ্ফার চৌধুরী।


তিনি ১৯৭৪ সালের অক্টোবর মাসে লন্ডনে পাড়ি জমান। ১৯৭৬ সালে আবদুল গাফ্ফার চৌধুরী সেখানে ‘বাংলার ডাক’ নামে একটি সাপ্তাহিক পত্রিকায় সম্পাদক হিসেবে কাজ করেন। ‘সাপ্তাহিক জাগরণ’ পত্রিকায়ও কিছুদিন কাজ করেন। পরে তিনি ‘নতুন দিন’ ও ‘পূর্বদেশ’ পত্রিকা বের করেন। প্রবাসে থাকলেও গাফ্ফার চৌধুরী আমৃত্যু বাংলাদেশের প্রধান প্রধান সংবাদ মাধ্যমে নিয়মিত লিখে গেছেন। এছাড়া ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন নানা সভা-সেমিনারে।


গাফ্ফার চৌধুরী ইউনেস্কো পুরস্কার, বাংলা একাডেমি পদক, একুশে পদক, শেরেবাংলা পদক, বঙ্গবন্ধু পদকসহ অসংখ্য পদক ও সম্মাননা পেয়েছেন।


আরও খবর



চট্টগ্রাম টেস্ট

চতুর্থ দিন পুরোটা সময় ব্যাট করে যেতে চায় বাংলাদেশ

প্রকাশিত:Wednesday ১৮ May ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ৯১জন দেখেছেন
Image

স্পোর্টস রিপোর্টারঃ

চট্টগ্রাম টেস্টের তৃতীয় দিন শেষেও বোঝার উপায় নেই আদৌ ফল আসবে কি না এই ম্যাচে। কেননা ম্যাচের তিন দিনেও শেষ হয়নি দুই দলের প্রথম ইনিংস। উইকেট পড়েছে মাত্র ১৩টি। ব্যাটিংবান্ধব এ উইকেটে ফল না আসার সম্ভাবনাই বেশি। তবে বাংলাদেশ দলের রয়েছে ভিন্ন চিন্তা।

তামিম ইকবালের সেঞ্চুরি, মাহমুদুল হাসান জয়, মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাসের ফিফটিতে তৃতীয় দিন শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ৩১৮ রান। শ্রীলঙ্কা প্রথম ইনিংসে অলআউট হওয়ার আগে করেছিল ৩৯৭ রান। অর্থাৎ প্রথম ইনিংসে এখনও ৭৯ রানে পিছিয়ে বাংলাদেশ।

এই ম্যাচে ফল আনার জন্য চতুর্থ দিন পুরোটা সময় ব্যাট করে যেতে চায় বাংলাদেশ। এরপর বড় লিড নিয়ে ম্যাচের শেষ দিন শ্রীলঙ্কাকে অলআউট করার পরিকল্পনা স্বাগতিকদের। লিটন দাস, তামিম ইকবাল, সাকিব আল হাসানদের মতো দ্রুত রান তোলা ব্যাটার থাকায়


আরও খবর



পিবিআই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ

খুলনায় পিবিআই কর্মকর্তা মাসুদের বিরুদ্ধে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ

প্রকাশিত:Sunday ১৫ May ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ৯৩জন দেখেছেন
Image

শরীফ আহমেদঃ

খুলনায় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) পরিদর্শক মঞ্জুরুল আহসান মাসুদের বিরুদ্ধে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।


রোববার (১৫ মে) দুপুরে ওই ভিকটিমকে নিয়ে খুলনা মহানগরীর ছোট মির্জাপুরস্থ এক‌টি বেসরকা‌রি প্রতিষ্ঠানে অভিযান পরিচালনা করে পুলিশ।



পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে,  ওই কলেজছাত্রীর বাড়ি খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলায়। তিনি ২০২১ সালে এইচএসসি পাস করেছেন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের ছবি সংক্রান্ত একটি সমস্যা নিয়ে পাঁচদিন আগে পিবিআই ইন্সপেক্টর মাসুদের কাছে আসেন ওই নারী। 


এ সুবাদে তাকে সহযোগিতা করার কথা বলে পুলিশ কর্মকর্তা মাসুদ ছোট মির্জাপুর রোডের কাগজী হাউজের একটি অফিসের কক্ষে নিয়ে যায়।


 সেখানে দীর্ঘক্ষণ অবস্থান করে সমস্যা সমাধানের প্রতিশ্রুতি দিয়ে তাকে ধর্ষণ করেন ওই পুলিশ কর্মকর্তা।



এ ঘটনার পর মেয়েটি খুলনা সদর থানায় গিয়ে অভিযোগ করেন।


এরপর ওই মেয়েটিকে নিয়ে খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের (কেএমপি) অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (সাউথ) সোনালী সেন, সহকারী কমিশনার (খুলনা জোন) বায়েজিদ ইবনে আকবর ও খুলনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাসান আল মামুনের নেতৃত্বে পুলিশ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে যান। 


এ সময় অফিসটি তালাবদ্ধ থাকায় পুলিশ কর্মকর্তারা তালা ভেঙে অফিস কক্ষে প্রবেশ করেন। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ধর্ষণের প্রাথমিক সত্যতা পেয়েছে।


খুলনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাসান আল মামুন বলেন, পূর্ব-পরিচয়ের সূত্র ধরে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে পিবিআইর ওই কর্মকর্তা ছোট মির্জাপুরের এক অফিসে ভিকটিমকে নিয়ে ধর্ষণ করেছেন বলে তিনি অভিযোগ করেছেন। 


দুপুরে মৌখিক অভিযোগ পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ভিকটিমকে নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। মেয়েটির ডাক্তারি পরীক্ষা করার জন্য খুলনা মেডিক্যাল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পাঠানো হয়েছে। 


ওই ব্যাপারে মামলা প্রক্রিয়াধীন। মামলা হওয়ার পর অভিযুক্ত পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আরও খবর