Logo
আজঃ শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪
শিরোনাম

হাজি সেলিম জামিনে মুক্তি পেয়েছেন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৭ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ৩৯১জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক: জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের মামলায় ১০ বছরের দণ্ডপ্রাপ্ত আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য হাজি সেলিম কারাগার থেকে জামিনে মুক্তি পেয়েছেন। আজ মঙ্গলবার ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের ডেপুটি জেলার সেলিম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে, দুপুর ১টায় কেন্দ্রীয় কারাগারের একটি টিম হাজী সেলিমের জামিনের কাগজপত্র নিয়ে বিএসএমএমইউতে প্রবেশ করেন। পরে বিএসএমএমইউ কর্তৃপক্ষের কাছে তাকে বুঝিয়ে দেন।

গত ৬ ডিসেম্বর প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর নেতৃত্বে আপিল বেঞ্চ হাজি সেলিমকে জামিন দেন। একইসঙ্গে ১০ বছর দণ্ডের বিরুদ্ধে হাজী সেলিমকে আপিলের অনুমতি দেওয়া হয়।

দুদকের করা মামলায় বিচারিক আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে হাজি সেলিম হাইকোর্টে আপিল করেছিলেন। এই আপিলের ওপর গত বছরের ৯ মার্চ রায় দেন হাইকোর্ট। রায়ে জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের দায়ে তার ১০ বছরের সাজা বহাল রাখেন হাইকোর্ট। আর সম্পদের তথ্য গোপনের অভিযোগে তিন বছরের সাজা থেকে তাকে খালাস দেওয়া হয়।

হাইকোর্টের পূর্ণাঙ্গ রায় চলতি বছরের ১০ ফেব্রুয়ারি প্রকাশিত হয়। রায়ের অনুলিপি পাওয়ার ৩০ দিনের মধ্যে হাজি সেলিমকে ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৭-এ আত্মসমর্পণ করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল।

হাইকোর্টের রায় অনুসারে গত ২২ মে হাজি সেলিম বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। এরপর তিনি জামিনের আবেদন জানান। ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৭-এর বিচারক জামিন আবেদন নাকচ করে হাজি সেলিমকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। পরে তিনি হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে লিভ টু আপিল করার পাশাপাশি জামিন চেয়ে আবেদন করেন।


আরও খবর



কালিয়াকৈরে সেই শিক্ষক হত্যার আসামিদের গ্রেপ্তার

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১০২জন দেখেছেন

Image
সাগর আহম্মেদ,কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি:গাজীপুরের কালিয়াকৈরে সরকারি কলেজের সেই শিক্ষক হত্যার মূল পরিকল্পনাকারীসহ তিন আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-১। মঙ্গলবার দুপুরে র‌্যাব-১ সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়।

গ্ৰেপ্তারকৃতরা হলেন- উপজেলার সাজনধারা এলাকার মৃত আফাজ উদ্দিনের ছেলে মজিবর (৫০), তার ছেলে সিজান (২০) এবং তার ভাই মোহাম্মদ আলী (৬৫)।

র‌্যাব-১ সূত্রে জানা গেছে, গত ২৮ জানুয়ারি বিকেল ৪টার দিকে কালিয়াকৈর উপজেলার ঢালজোড়া ইউনিয়নের সাজনধারা এলাকায় অধ্যাপক রেজা সাইদ আল মামুনকে মজিবুর রহমান তার ছেলে সুমন ও সাজান এবং অপর ভাই মোহাম্মদ আলী কাঠের লাঠি, দেশীয় অস্ত্র দিয়ে এলোপাথাড়ি পিটিয়ে হত্যা করে। পরে তার বাড়ী-ঘর ভাংচুর করাসহ হুমকি ধমকি দিয়ে আসামিরা পালিয়ে যায়। এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় রাতেই নিহতের স্ত্রী হাসিনা আক্তার বাদী হয়ে ওই চারজনের নাম উল্লেখ করে কালিয়াকৈর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরের দিন গত ২৯ জানুয়ারি অভিযান চালিয়ে হত্যাকান্ডের হুকুম দাতা মোহাম্মদ আলীকে গ্ৰেপ্তার করে র‌্যাব-১। গত ৩০ জানুয়ারি রাত ৩টার দিকে র‌্যাব-১ অভিযান চালিয়ে হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী মজিবুর ও তার ছেলে সিজানকে গ্ৰেপ্তার করে। এর আগে তারা গাজীপুর মেট্রোপলিটনের কোনাবাড়ী থানার জয়েরটেক এলাকায় আত্মগোপনে ছিলেন। র‌্যাবের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মূল পরিকল্পনাকারী মজিবুরের ভাষ্যমতে,  তার ও নিহতের মধ্যে দীর্ঘদিন যাবত জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। উক্ত বিরোধ জের ধরে মোহাম্মদ আলীর হুকুমে পূর্ব পরিকল্পনা মতে ওইদিন তারা অর্তকিতভাবে ওই শিক্ষককে গুরুতর নীলাফুলা জখম করে। পরে তার মৃত্যু নিশ্চিত করে আসামাীগন পালিয়ে যায় মর্মে স্বীকার করে।

সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার ও সিনিয়র সহকারী পরিচালক (মিডিয়া অফিসার) মোঃ পারভেজ রানা বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য কালিয়াকৈর থানা পুলিশের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, নিহত রেজা সাইদ আল মামুন উপজেলার সাজনধারা এলাকার মৃত আফাজ উদ্দিনের ছেলে। তিনি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সরকারি কলেজের অর্থনীতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ছিলেন। 

আরও খবর



আগামী ১০০ দিনের কর্মপরিকল্পনা ঘোষণা করলেন পরিবেশমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১০৪জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের নবনিযুক্ত মন্ত্রী সাবের হোসেন চৌধুরী বলেছেন, মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন অগ্রাধিকারমূলক কর্মকাণ্ড অন্তর্ভুক্ত পূর্বক এক শ’ দিনের কর্মপরিকল্পনা করে বাস্তবায়ন করা হবে।

বৃহস্পতিবার (২৫ জানুয়ারি) সচিবালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তনবিষয়ক মন্ত্রী সাবের হোসেন চৌধুরী এ কর্মপরিকল্পনা ঘোষণা করেন।

তিনি বলেন, কর্মপরিকল্পনায় স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে সরকারের নির্বাচনি ইশতেহার-২০২৪ এ জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলা ও পরিবেশ সুরক্ষাকে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, বায়ুদূষণ, প্লাস্টিক দূষণ, পাহাড় কাটা ও জলাধার ভরাট রোধসহ পরিবেশ সুশাসনের জন্য অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টির লক্ষ্যে বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া হবে। এ কর্মপরিকল্পনা জনগণের আকাঙ্ক্ষার প্রতি দ্রুত সাড়া দিতে মন্ত্রণালয়ের সক্ষমতা, স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা, সদিচ্ছা এবং অঙ্গীকারের প্রতিফলন হবে।

সাবের হোসেন চৌধুরী বলেন, বায়ুদূষণ নিয়ন্ত্রণ এবং কৃষিজমি রক্ষার্থে সরকারি নির্মাণে ১০০ শতাংশ ব্লক ব্যবহারে সংশোধিত রোডম্যাপ অনুমোদন দেওয়া হবে এবং বায়ুদূষণের প্রতিটি উৎস থেকে সৃষ্ট দূষণ মোকাবিলায় ন্যূনতম একটি করে কার্যক্রম নেওয়া হবে।

পরিবেশমন্ত্রী বলেন, প্রস্তুতকারক ও আমদানিকারকদের পণ্য থেকে সৃষ্ট বর্জ্য সুষ্ঠুভাবে ব্যবস্থাপনার লক্ষ্যে বর্ধিত প্রযোজক জবাবদিহিতার (ইপিআর) খসড়া চূড়ান্ত করা হবে। এ ছাড়া শিল্প কারখানার ইটিপি কার্যকরভাবে চালু রাখতে স্মার্ট প্রযুক্তির মাধ্যমে অনলাইন মনিটরিংয়ের উদ্যোগ নেওয়া হবে।


আরও খবর



মুক্তিযুদ্ধবিরোধী অপশক্তির ষড়যন্ত্র সার্বক্ষণিক চলছে,সবাইকে সজাগ থাকতে হবে: তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১০০জন দেখেছেন

Image
মারুফ সরকার, স্টাফ রিপোর্টার:তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ আলী আরাফাত বলেছেন, মুক্তিযুদ্ধবিরোধী অপশক্তির ষড়যন্ত্র সার্বক্ষণিক চলছে। এ বিষয়ে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে।স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তির প্রেতাত্মারা এখনো দেশের আনাচে-কানাচে অনেক জায়গায় আছে। তারা ঘাপটি মেরে থাকে, লুকিয়ে থাকে। সুযোগ পেলেই মাথাচাড়া দেয়। আবারও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার অন্তরাত্বায় তারা আঘাত করতে চায়। তাদের বিপক্ষে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

আজ বুধবার সন্ধ্যায় রাজধানীর মিরপুরে ৩১ জানুয়ারি মিরপুর হানাদার মুক্ত দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।
 
তিনি আরও বলেন, মুক্তিযোদ্ধারা এ দেশের শ্রেষ্ঠ সন্তান। মুক্তিযোদ্ধাদের হাত ধরে এদেশ স্বাধীন হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর ডাকে মুক্তিযোদ্ধারা ঝাঁপিয়ে না পড়লে এ দেশকে আমরা হানাদার মুক্ত করতে পারতাম না। বাংলাদেশ স্বাধীন না হলে এখনো আমাদের দাসত্ব করতে হতো এবং আমরা কোথায় গিয়ে দাঁড়াতাম সেটা আমরা কল্পনাও করতে পারিনা।
 
এ সময় প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, এদেশের নতুন প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের গল্প বলতে হবে। বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বীরত্বগাঁথা নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে হবে। তাদের বোঝাতে হবে এত সহজে এ দেশ, এ স্বাধীনতা আমরা পাইনি। অনেক কষ্ট, অনেক ত্যাগ, অনেক কিছুর পর আমরা এ দেশ পেয়েছি। এ অনুধাবন যদি আমাদের মধ্যে থাকে তাহলে আমরা এদেশের স্বাধীনতাকে এত সহজে অন্য কারো হাতে হরণ করতে দেবো না।

তিনি বলেন, দেশ স্বাধীন হওয়ার সাড়ে তিন বছরের মাথায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে পরিবারের অধিকাংশ সদস্যসহ হত্যা করা হয়। তারপর যে স্বপ্ন নিয়ে দেশ স্বাধীন করা হয়েছিল তার বিপরীত দিকে দেশকে পরিচালনা করা হয়েছিল। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়ে আবার দেশের দখল নিয়েছিল মুক্তিযুদ্ধবিরোধী অপশক্তি। এ ধরনের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সার্বক্ষণিক সজাগ থাকতে হবে।

তিনি আরও বলেন, এ যুগেও আমাদের একেক জনের মুক্তিযোদ্ধা হিসাবে তৈরি হতে হবে। যে কোন পরিস্থিতিতে, যে কোন বাস্তবতায় দেশের শত্রুর বিপক্ষে যাতে শক্তভাবে আমরা দাঁড়াতে পারি, দেশের স্বাধীনতার পক্ষে, অগ্রগতির পক্ষে শক্তভাবে যাতে আমরা দাঁড়াতে পারি সে প্রত্যয় ও প্রতিজ্ঞা আমাদের মধ্যে থাকতে হবে।
 
তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার শক্তিশালী নেতৃত্ব না থাকলে অনেকের ষড়যন্ত্র-চক্রান্তে এ দেশের শান্তি বিনষ্ট হতো। তার কারণেই আমরা সকল ষড়যন্ত্র-চক্রান্ত মোকাবিলা করে দেশের শান্তি বজায় রাখতে পেরেছি।
 
মিরপুর শাহ আলী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আগা খান মিন্টুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সংসদ সদস্য মো. মাইনুল হোসেন খান নিখিল। এছাড়া বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

আরও খবর



নওগাঁর রাণীনগরে ধান-চালের ৭ আড়তদারকে জরিমানা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | ৮৩জন দেখেছেন

Image

এম এম হারুন আল রশীদ হীরা; নওগাঁ:নওগাঁর রাণীনগরে ধান-চালের বাজার নিয়ন্ত্রনে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং সহকারী কমিশনার (ভূমি) যৌথভাবে বুধবার (২৪ জানুয়ারি) দুপুরে উপজেলার আবাদপুকুর বাজারে এ অভিযান পরিচালনা করেন। অভিযানে ধান-চালের ৭জন আড়তদারকে ২৪হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।আদালত সুত্র জানায়, দেশ জুড়ে ধান-চালের বাজার নিয়ন্ত্রণ করতে সংশ্লিষ্ট নির্দেশনা অনুযায়ী এদিন দুপুরে উপজেলার আবাদপুকুর বাজারে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে বাজারের ধান-চাল আড়তদার আনিছার রহমানকে পাঁচ হাজার, ফরিদ উদ্দিনকে দুই হাজার, আবদুর রহিমকে এক হাজার, আহম্মদ আলীকে দুই হাজার, মোজাম্মেল হককে সাত হাজার, আলমগীর হোসেনকে দুই হাজার এবং বজলুর রহমানকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।এ সময় উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক ওবাইদুল হক ও খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা হেলাল উদ্দিন এবং উপজেলা সহকারী প্রশাসনিক কর্মকর্তা রায়হান আলম উপস্থিত ছিলেন। ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও  উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) হাফিজুর রহমান বলেন, ধান-চাল আড়তদারদের লাইসেন্স না থাকা, পন্য ক্রয়ের রশিদ না থাকাসহ বিভিন্ন অপরাধে কৃষি বিপনন আইনে ওই ৭জন আড়তদারকে জরিমানা করা হয়েছে। এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও তিনি আরো জানান।


আরও খবর

জয়পুরহাটে হুমকি পাওয়া সেই বিচারক প্রত্যাহার

বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




হজের নিবন্ধন সময় বৃহস্পতিবার শেষ হচ্ছে, আসন খালি অর্ধেক

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১০৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:তিন দফা মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে হজের নিবন্ধনের।বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) নিবন্ধনের সময়সীমা শেষ হচ্ছে। এ সময়ের মধ্যে নিবন্ধনকারীর সংখ্যা সৌদি সরকারকে জানিয়ে বাংলাদেশের বাকি কোটা ফেরত দেওয়া হবে। তবে সৌদি আরবের দেওয়া কোটার অর্ধেকও পূরণ হয়নি এখনও।

এবছর বাংলাদেশ থেকে ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জনের হজে যাওয়ার কোটা রয়েছে।

বুধবার (৩১ জানুয়ারি) সকাল পর্যন্ত নিবন্ধন করেছেন ৬৪ হাজার ৪৫ জন। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৩ হাজার ৯৭৬ জন এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৬০ হাজার ৬৯ জন নিবন্ধন করেছেন। সে হিসেবে এখনও কোটা খালি রয়েছে ৬৩ হাজার ১৫৩টি।

গত বছরের ১৬ সেপ্টেম্বর থেকে এবারের হজ নিবন্ধন শুরু হয়, যা ১০ ডিসেম্বর শেষ হওয়ার কথা ছিল। প্রত্যাশিত সাড়া না পাওয়ায় প্রথম সময় বাড়ানো হয় ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত। পরে সময় ১৮ জানুয়ারি পর্যন্ত এবং তৃতীয় দফায় ১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বাড়ানো হয়।

প্রসঙ্গত, চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ১৬ জুন (১৪৪৫ হিজরি সনের ৯ জিলহজ) পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হবে।


আরও খবর