Logo
আজঃ Monday ০৮ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড নিখোঁজ সংবাদ প্রধানমন্ত্রীর এপিএসের আত্মীয় পরিচয়ে বদলীর নামে ঘুষ বানিজ্য

গ্যাসের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত সনাতনী ও গতানুগতিক: শামসুল আলম

প্রকাশিত:Monday ০৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৭২জন দেখেছেন
Image

প্রাকৃতিক গ্যাস উত্তোলন ও বিতরণ কোম্পানিগুলোর প্রস্তাবে গ্যাসের দাম প্রায় ২৩ শতাংশ বাড়িয়েছে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)। কমিশনের দাম বাড়ানোর এ সিদ্ধান্ত ‘সনাতনী ও গতানুগাতিক’ বলে মন্তব্য করেছেন কনজ্যুমার্স অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশের (ক্যাব) উপদেষ্টা ও জ্বালানি বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক এম শামসুল আলম।

তিনি বলেছেন, বিইআরসি গতানুগতিক ও সনাতনী পদ্ধতি অবলম্বন করে মূল্যহার বৃদ্ধির আদেশ দিয়ে দিলো। বিইআরসি আক্ষেপের জায়গাটা আরও শক্ত করলো।

রোববার (৫ জুন) বিকেলে প্রাকৃতিক গ্যাসের নতুন মূল্য ঘোষণা করে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন। নতুন এ দাম ঘোষণার পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় জাগো নিউজকে তিনি এসব কথা বলেন।

গ্যাস উত্তোলন ও বিতরণ কোম্পানিগুলোর ১১৭ শতাংশ দাম বৃদ্ধির প্রস্তাবের পর থেকেই এর বিরোধিতা করে আসছিল ক্যাব। গত ২১ মার্চ থেকে ২৪ মার্চ গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির প্রস্তাবের ওপর গণশুনানি করে বিইআরসি। সে সময় গ্যাসের মূল্য না বাড়িয়ে বরং কমানোর প্রস্তাব করেন এম শামসুল আলম।

কীভাবে গ্যাসের দাম কমানো যায় তার পক্ষেও যুক্তি উপস্থাপন করেন তিনি।

শুনানির দিন উত্থাপিত প্রস্তাবের বিষয়ে অধ্যাপক শামসুল আলম বলেন, আমরা দাম না বাড়িয়ে যে বিকল্প প্রস্তাব দিয়েছিলাম, তা বিইআরসি গ্রহণ করেনি। কেন গ্রহণ করেনি সে ব্যাখ্যাও তারা দেয়নি। ব্যাখ্যা দিলে তাদের বিশ্লেষণে তারা প্রকাশ করতো। আমার প্রতিক্রিয়া একটাই। তারা ১২ হাজার ১০০ কোটি টাকা ভর্তুকিতে মূল্যহার বৃদ্ধির প্রস্তাব করেছিল। ভোক্তা পর্যায়ে প্রায় ২৩ শতাংশ বাড়ালো। আর আমরাও ওই একই ভর্তুকিতে প্রস্তাব করেছি যে, মূল্যহার কীভাবে কমানো যায়। এই দুটো ব্যাপক পার্থক্যের জায়গাটায় আমাদের সবারই দৃষ্টি আকর্ষণ করা উচিত। আমরা সে জায়গাটাই খতিয়ে দেখছি।

অধ্যাপক শামসুল আলম বলেন, আমরা বলেছি গ্যাস সাপ্লাই চেনের বিভিন্ন পর্যায়ে যে অযৌক্তিক ব্যয় দেখিয়েছে, সে অযৌক্তিক ব্যয় এবং লুণ্ঠন বৃদ্ধির কারণেই ঘাটতি বেড়েছে। সেই ঘাটতি সমন্বয়ের জন্য ভর্তুকি বৃদ্ধি বা মূল্যবৃদ্ধি না করে ভর্তুকি বৃদ্ধির প্রবণতা কমানো এবং মূল্যহার বৃদ্ধি না করার পরামর্শ দিয়েছি। মুনাফা নিয়ন্ত্রণ করা, সরকারের রাজস্ব নিয়ন্ত্রণ করা। এসব বহুমুখী পদক্ষেপের কথাই আমরা বলেছিলাম। তাতে দেখা যাচ্ছে, বিইআরসি ব্যয় যৌক্তিক করতে চায় না। লুণ্ঠনমূলক ব্যয় প্রতিরোধ করতে চায় না। এগুলো তাদের আদেশে অব্যাহত থাকছে।

কনজ্যুমারস অ্যাসোসিয়েশনের এই উপদেষ্টা বলেন, বিইআরসির মূল্যবৃদ্ধির আদেশ ভোক্তাদের স্বার্থ সংরক্ষণ করতে পারে না। এখানে ভোক্তাদের স্বার্থ ভয়ংকর রকমের ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ভোক্তাদের জ্বালানি অধিকার বিপন্ন হয়েছে। জ্বালানির যে নিরাপত্তা সেটাও অনিশ্চিত হচ্ছে, যদি এই অবস্থা অব্যাহত থাকে।

এর আগে গণশুনির দিনে ‘এ ধরনের শুনানিতে আর আসব না। আমরা বললে কিছু হচ্ছে না’, বলে আক্ষেপ করেছিলেন ক্যাবের এই উপদেষ্টা।

সে বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তিনি বলেন, আজ গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির মাধ্যমে বিইআরসি সেই আক্ষেপের জায়গাটা বড় বেশি শক্ত করে দিলো। আক্ষেপটাকে প্রতিষ্ঠিত করলো।


আরও খবর



নতুন জ্যাকেটে ডিবি, স্ক্যানেই মিলবে আসল-নকল

প্রকাশিত:Monday ০১ August ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ২৫জন দেখেছেন
Image

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের জ্যাকেটে যুক্ত হয়েছে অত্যাধুনিক প্রযুক্তিসম্পন্ন কুইক রেসপন্স কোড বা কিউআর কোড। ডিবির সব সদস্যকে পৃথক কোড সংযুক্ত করে এ জ্যাকেট দেওয়া হয়েছে।

সোমবার (১ আগস্ট) দুপুরে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে সাংবাদিকদের এ কথা জানান ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের প্রধান অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ।

তিনি বলেন, আজ থেকে আমাদের ডিবির সব সদস্যদের পৃথক কিউআর কোড সংবলিত নতুন জ্যাকেটে যুক্ত হয়েছে। এ জ্যাকেটে কর্মকর্তাদের তথ্য আগে থেকেই জমা থাকবে ডিবির নিজস্ব সার্ভারে। মোবাইল অ্যাপ দিয়ে সদস্যের কিউআর কোড স্ক্যান করলেই তাদের পরিচয় চলে আসবে। আর যদি কোনো ভুয়া ডিবির পোশাকের কোড স্ক্যান করা হয় তাহলে ‘ইনভ্যালিড কিউআর কোড’ নামে একটি বার্তা দেখা যাবে।

হারুন অর রশীদ জাগো নিউজকে বলেন, ডিএমপির ডিবি পুলিশ যে জ্যাকেট পরিধান করে অভিযান চালাচ্ছে, তা বেশ পুরোনো। দীর্ঘদিন ধরে এ জ্যাকেট ব্যবহারের ফলে অনেক প্রতারক চক্র বাইরে থেকে এটি তৈরি করে অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে ব্যবহার করে। অনেক সময় মানুষকে ফাঁদে ফেলারও অভিযোগ পাওয়া যায়। বিভিন্ন সময় জ্যাকেটটির হুবহু কপি ভুয়া ডিবি সদস্যদের কাছে পাওয়া গেছে।

‘ভবিষ্যতে কেউ যেন এভাবে প্রতারণার শিকার না হতে হয় সেজন্য ডিবিতে সংযোজন করা হয়েছে নতুন জ্যাকেট। কিউআর কোড ছাড়াও পোশাকে এমন কিছু নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা রয়েছে যার ফলে জ্যাকেটটি জালিয়াতি করা অসম্ভব হবে।’

ডিবি প্রধান বলেন, ডিবির জ্যাকেটে রয়েছে আমাদের মেধা-মননের বিশেষ সমন্বয়। কিউআর কোডসহ বিভিন্ন দৃশ্যমান ও গোপন বৈশিষ্ট্য সংবলিত যে জ্যাকেটটি আমরা ব্যবহার করতে যাচ্ছি, তাতে আমাদের সদস্যদের মধ্যে কর্মতৎপরতা বৃদ্ধির পাশাপাশি জনগণের কাছে ডিএমপির ডিবিকে নিরাপদ আশ্রয়স্থল তৈরি করতে পারবে বলে আমার দৃঢ় বিশ্বাস।

যেসব বৈশিষ্ট্যের কারণে জ্যাকেট নকল করা সম্ভব হবে না সেগুলো হলো-

১। ডিএমপি ডিবির নতুন জ্যাকেটে এ প্রথম গোপনীয় নম্বর, গোয়েন্দা বিভাগ এবং ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের সমন্বয়ে কুইক রেসপন্স কোড বা কিউআর কোডের ব্যবস্থা থাকছে। সন্দেহ হলেই যে কেউ ডিবি পোশাকে থাকা কিউআর কোড স্ক্যান করে ওই ব্যক্তি ডিবির প্রকৃত সদস্য কি না তা শনাক্ত করতে পারবে।

২। নতুন জ্যাকেটে ডিবি এবং ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের রঙিন লোগো ব্যবহার করা হচ্ছে যা সহজেই দৃশ্যমান হবে।

৩। জ্যাকেটে রাত্রিকালীন আলোতে দূর থেকে ডিবি পুলিশের উপস্থিতি বোঝা যাবে।

৪। নতুন ডিবি জ্যাকেটে বিভিন্ন পকেটের সুবিধা থাকাতে অভিযানকালে ডিবি সদস্যরা প্রয়োজনীয় নোটবুক, কলম ও কাগজপত্র নিরাপদে রাখতে পারবে।


আরও খবর



অ্যাম্বুলেন্স চাপায় প্রাণ গেলো বৃদ্ধের

প্রকাশিত:Tuesday ১৯ July ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | ৪৭জন দেখেছেন
Image

ময়মনসিংহের ফুলপুরে অ্যাম্বুলেন্স চাপায় আব্দুল জব্বার (৫৫) নামের এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) ভোরে ময়মনসিংহ-শেরপুর সড়কের ইমাদপুর এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত আব্দুল জব্বার ওই এলাকার মৃত মুক্তার উদ্দিনের ছেলে।

ফুলপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন জাগো নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, আব্দুল জব্বার ভোরে ফজরের নামাজ পড়তে ইমাদপুর বড় মসজিদে আসেন। নামাজ পড়ে বাড়ি ফেরার পথে ইমাদপুর রাস্তা পারাপারের সময় একটি অ্যাম্বুলেন্স তাকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান। পরে স্থানীয়রা মরদেহ উদ্ধার করে তার বাড়িতে নিয়ে যান।

ওসি আব্দুল্লাহ আল মামুন আরও বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।


আরও খবর



পদবি-বেতন গ্রেড পরিবর্তনের দাবিতে মানববন্ধন

প্রকাশিত:Saturday ২৩ July ২০২২ | হালনাগাদ:Thursday ০৪ August ২০২২ | ৪৪জন দেখেছেন
Image

সরকার ১৯৯৫ সালে প্রজ্ঞাপন জারি করে শুধু সচিবালয়ের বর্ণিত পদগুলো আপগ্রেড করে প্রশাসনিক কর্মকর্তা পদবি পরিবর্তনসহ ১০নং গ্রেডে উন্নীত করে। ফলে সরকারি দপ্তরগুলোর মধ্যে পদবি ও বেতন বৈষম্যের সৃষ্টি হয়, যা এখনো বিরাজমান। তাই বিদ্যমান পদবি ও বেতন গ্রেড পরিবর্তনের দাবি জানিয়েছেন সরকারি কর্মচারীরা।

শনিবার (২৩ জুলাই) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বাংলাদেশ প্রশাসনিক কর্মকর্তা বাস্তবায়ন ঐক্য পরিষদ আয়োজিত এক মানববন্ধনে তারা এ দাবি করেন।

মানববন্ধনে সংগঠনের মহাসচিব আবু নাসির খান বলেন, বাংলাদেশ সচিবালয়ের ভিতরে ও বাইরে সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের প্রধান সহকারী, উচ্চমান সহকারী, সহকারী বিভিন্ন পদের পদবি ও বেতন স্কেল এক ও অভিন্ন হওয়া সত্ত্বেও তৎকালীন সরকার ১৯৯৫ সালে প্রজ্ঞাপন জারি করে শুধু সচিবালয়ের বর্ণিত পদগুলো আপগ্রেড করে। এর ফলে সরকারি দপ্তরগুলোর মধ্যে পদবি ও বেতন বৈষম্যের সৃষ্টি হয়েছে।

jagonews24

তিনি বলেন, এরই ধারাবাহিকতায় পাবলিক সার্ভিস কমিশন, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন, বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্ট, গণভবন ও বঙ্গভবনে বর্ণিত পদগুলোও আপগ্রেড করা হয়েছে। কিন্তু অন্যান্য দপ্তরের বর্ণিত পদগুলো অদ্যাবধি পূর্বের ন্যায় রয়ে গেছে। অনতিবিলম্বে আমরা এই পদবি বৈষম্যের অবসান চাই।

‘এরই মধ্যে সরকার উচ্চমান সহকারী, প্রধান সহকারীর সমস্কেল ও নিম্ন স্কেলের কর্মচারীদের মধ্যে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক, ব্লক সুপার ভাইজার, ডিপ্লোমা প্রকৌশলী, পুলিশের এস আই, নার্স, অডিটর ও খাদ্য পরিদর্শকসহ পদসমূহ ২য় শ্রেণির পদমর্যাদায় উন্নীত হয়েছে।’

‘কিন্তু অন্যান্য দপ্তর, অধিদপ্তর, পরিদপ্তর, স্বায়ত্তশাসিত সংস্থা ও কর্পোরেশনের সমপদসমূহ উন্নীত না করায় দীর্ঘ ২৭ বছর যাবত তারা বঞ্চিত রয়েছে। অপেক্ষাকৃত কম শিক্ষাগত যোগ্যতাসম্পন্ন ব্যক্তিরা উচ্চপদে আসীন হওয়ায় পরবর্তী প্রজন্ম উচ্চশিক্ষা গ্রহণে আগ্রহ হারিয়ে ফেলছেন।’

এ সময় তিনি দপ্তর ও অধিদপ্তরের পদবি ও বেতনবৈষম্য নিরসনের জন্য প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

মানববন্ধনে সংগঠনের সভাপতি কে এম বদিউজ্জামানসহ সরকারি বিভিন্ন দপ্তর, অধিদপ্তর, পরিদপ্তর, বিভাগ, জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের প্রধান সহকারী, উচ্চমান সহকারী, সহকারী, সমপদ ও উক্ত পদের ফিডার পদের কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



লোডশেডিংয়ের বাইরে থাকবে মেট্রোরেল

প্রকাশিত:Saturday ২৩ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ০৫ August ২০২২ | ৩৩জন দেখেছেন
Image

লোডশেডিংয়ের বাইরে থাকবে আগামী ১৬ ডিসেম্বর থেকে চালু হতে যাওয়া বহুল প্রতীক্ষিত মেট্রোরেল। মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় মেট্রোরেল চলাচলের সময় নিয়ে আলোচনাকালে এ তথ্য জানানো হয়।

পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামুল আলমের উপস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সভায় যোগ দেন।

এ বিষয়ে ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেডের (ডিএমটিসিএল) ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) এম এ এন সিদ্দিক জাগো নিউজকে বলেন, মেট্রোরেলের সঙ্গে লোডশেডিংয়ের কোনো সম্পর্ক নেই। শুধু আমাদের দেশের জন্য নয়, বিশ্বের কোথাও মেট্রোরেলের সঙ্গে লোডশেডিংয়ের সম্পর্ক থাকে না। মেট্রোরেল সবসময় লোডশেডিংয়ের বাইরে থাকে। এ নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার কোনো কারণ নেই।

মেট্রোরেল প্রকল্পসংশ্লিষ্টরা জানান, নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করতে সরাসরি গ্রিড থেকে মেট্রোরেলে বিদ্যুতের ব্যবস্থা করা হয়েছে। ফলে লোডশেডিংয়ের কোনো আশঙ্কা থাকছে না। আপাতত রাজধানীর উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত মেট্রোরেল চালাতে প্রয়োজন হচ্ছে ৮০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ। এরই মধ্যে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের সব প্রক্রিয়াও শেষ হয়েছে। এজন্য প্রয়োজনীয় বিদ্যুৎও প্রস্তুত আছে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, মেট্রোরেলে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করতে সরাসরি গ্রিডলাইন থেকে সরবরাহের ব্যবস্থাপনায় থাকবে পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অব বাংলাদেশ (পিজিসিবি)। গ্রিড থেকে সরাসরি বিদ্যুৎ সরবরাহের জন্য দিয়াবাড়ীতে ১৩২ কেভি উপকেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে। এর বাইরে, মতিঝিলে একই ক্ষমতার আরেকটি উপকেন্দ্র নির্মাণের কাজ চলছে। এরই মধ্যে মেট্রোরেলের পিলারের ওপর থাকা স্প্যানে বৈদ্যুতিক খুঁটি বসানো হয়েছে।

মেট্রোরেলের জন্য প্রয়োজনীয় বিদ্যুৎব্যবস্থা স্থাপন করছে জাপানের মারুবেনি করপোরেশন ও ভারতের এল লারেসেন অ্যান্ড টারবো (অ্যান্ড টি )।প্রথম পর্যায়ে উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত মেট্রো চালাতে ৮০ মেগাওয়াট এবং পরে মতিঝিল থেকে চালু করতে আরও ৮০ মেগাওয়াট বিদ্যুতের প্রয়োজন হবে। মেট্রোরেল চালু হলে গণপরিবহনে ডিজেলের ব্যবহার কমবে, কমবে কার্বন নিঃসরণ।


আরও খবর



রিংবাঁধে বন্ধ হলো লোকালয়ে জোয়ার-ভাটা

প্রকাশিত:Wednesday ২০ July ২০22 | হালনাগাদ:Friday ০৫ August ২০২২ | ৩৫জন দেখেছেন
Image

সাতক্ষীরার বুড়িগোয়ালিনী ইউনিয়নের দুর্গাবাটি এলাকায় খোলপেটুয়া নদীর উপকূল রক্ষা বেড়িবাঁধের ভেঙে যাওয়া অংশের পাশে রিংবাঁধ দিয়ে পানি বন্ধ করা হয়েছে। এতে বন্ধ হয়েছে লোকালয়ে জোয়ারের পানি প্রবেশ।

ভাঙনের পঞ্চম দিন মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) রাত সাড়ে ১০টায় (রাতের ভাটিতে) প্রায় দুই হাজার মানুষের অক্লান্ত পরিশ্রমে নির্মিত হয় রিংবাঁধ। সোমবার সকাল থেকে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের সহযোগিতায় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের শ্রমিক ছাড়াও ইউনিয়ন পরিষদ ও স্থানীয় হাজার হাজার মানুষের অংশগ্রহণে বাঁশ দিয়ে পাইলিং করে ও বালুর বস্তা ফেলে এই রিংবাঁধের কাজ শুরু করা হয়।

সাতক্ষীরা পানি উন্নয়ন বোর্ড-১ নির্বাহী প্রকৌশলী আবুল খায়ের জাগো নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, রাতের জোয়ার আসার আগেই রিং বাঁধের কাজ শেষ হয়েছে। রাতে লোকালয়ে আর পানি প্রবেশ করেনি। আজ থেকে মূল বাঁধ সংস্কার কাজ শুরু করা হবে।

শ্যামনগর উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউল হক দোলন জাগো নিউজকে জানান, আল্লাহর অশেষ রহমতে রাত ১০টা ৩০ মিনিটে রিংবাঁধ নির্মাণ শেষ হয়। বুধবার সকাল পর্যন্ত বাঁধের সব অংশ টিকে আছে। এলাকায় আর পানি প্রবেশ করছে না।

গত ১৫ জুলাই শুক্রবার ভোর রাতে দূর্গাবাটি এলাকায় খোলপেটুয়া নদীর প্রায় ২০০ ফুট এলাকাজুড়ে উপকূল রক্ষা বেঁড়িবাধটি ভেঙে যায়। এতে বুড়িগোয়ালিনী ইউনিয়নের অন্তত ১২টি গ্রাম লবণ পানিতে প্লাবিত হয়। ভেসে যায় কয়েক হাজার বিঘা মাছের ঘের, কাঁকড়ার খামার ও ফসলি জমি। পানিবন্দী হয়ে হয়ে পড়ে প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার পরিবার।


আরও খবর