Logo
আজঃ বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

গলাচিপায় শিল্পকলা একাডেমি সংস্কার ও আধুনিকায়নের উদ্বোধন

প্রকাশিত:বুধবার ১০ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৮২জন দেখেছেন

Image

রিয়াদ হোসাইন,গলাচিপা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি:ঐতিহ্যবাহী গলাচিপা শিল্পকলা একাডেমি সংস্কার ও আধুনিকায়নের উদ্বোধন করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মহিউদ্দিন আল হেলালের পরিকল্পনা ও বাস্তবায়নে মঙ্গলবার বেলা ২টায় শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত শিল্পকলা একাডেমি সংস্কার ও আধুনিকায়নের উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি জেলা প্রশাসক মো. নূর কুতুবুল আলম। 

ইউএনও মো. মহিউদ্দিন আল হেলালের সভাপতিত্বে ও গলাচিপা বেইজ বিল্ড ডিজিটাল একাডেমির সিনিয়র শিক্ষক লুৎফর রহমান আওলাদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ওয়ানা মার্জিয়া নিতু।

অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. নাসিম রেজা, জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট নুসরাত জাহান ইথিনা, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা খোকন চন্দ্র দাস, গলাচিপা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক সমিত কুমার দত্ত মলয়, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. নিজাম উদ্দিন তালুকদার, শিল্পকলা একাডেমির সঙ্গীত শিক্ষক কার্তিক চন্দ্র দাস, বেইজ বিল্ড ডিজিটাল একাডেমির প্রধান শিক্ষক রেদওয়ান করিম তালাল প্রমুখ। 

জেলা প্রশাসক নূর কুতুবুল আলম বলেন, ‘এক সময় এখান থেকে অনেক কন্ঠ শিল্পী তৈরি হতো, এখন কেন নয়? তোমরা কন্ঠ শিল্পীরা তাদের মতো হওয়ার চেষ্টা কর। তোমাদের গান শুনে আমি আনন্দিত ও মুগ্ধ হয়েছি। শিল্পীরা স্বতঃস্ফূর্ত ও আনন্দের সাথে গান গেয়েছে। এর সাথে কলকুশলীরাও ভাল পারফরমেন্স করেছেন। শিল্পকলা একাডেমির পক্ষ থেকে আপনারা যা দাবি করেছেন তার চেয়ে বেশি দেওয়ার চেষ্টা করব। ছোট ছোট শিশুরা শিল্পকলা একাডেমিতে যাতে স্বাচ্ছন্দে সঙ্গীত শিখতে পারে সেজন্য যথাযথ পরিবেশ ও সুযোগ-সুবিধার ব্যবস্থা করতে হবে। তবেই শিশুরা উৎসাহ ও উদ্দীপনার সাথে সঙ্গীত শিক্ষা করে দেশের সুনাম অর্জন করে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে খ্যাতি ছড়িয়ে দিতে পারবে।’  

-খবর প্রতিদিন/ সি.

আরও খবর



রাজধানীর কদমতলীতে এক ব্যাক্তিকে কুপিয়ে হত্যা

প্রকাশিত:শুক্রবার ১২ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ৮৯জন দেখেছেন

Image

শফিক আহমেদ:রাজধানীর কদমতলী থানার পাটেরবাগ জমিদার বাড়ির গলির সামনে অজ্ঞাত দুষ্কৃতিকারীরা দেশীয় অস্ত্র দিয়ে মোঃ মাহবুব আলম(৫২) নামে এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

নিহত মাহবুব কদমতলির ১৪৫৪ নং দক্ষিণ ধনিয়ার মৃত আবুল হাসেম সোলায়মানের ছেলে।সে ঘটনাস্থল এলাকায় কোমল পানিও সরবরাহ করতো বলে জানিয়েছেন স্বজনরা।

বৃহস্পতিবার(১২ জুলাই) রাত সোয়া দশটার দিকে এই ঘটনা ঘটে।পরে রাত সাড়ে ১১ টার দিকে মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে জরুরি বিভাগের দায়িত্বরত চিকিৎসক পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতের ছোট ভাই রফিকুল আলম জানান ,আমার ভাই বিভিন্ন দোকানে কোমল পানীয় সরবরাহ করত। রাতে পায়ে হেঁটে পাটেরবাগ আহালে হাদিস মসজিদের পাশে জমিদার বাড়ির গলির সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় অজ্ঞাত দুষ্কৃতিকারীরা আমার ভাইকে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়।পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে মুমূর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে গেলে চিকিৎসক জানান, আমার ভাই আর বেঁচে নেই।সে আরো জানায়, কে বা কাহারা আমার ভাইকে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে হত্যা করেছে সে বিষয়টি বলতে পারছি না।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কদমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কাজী আবুল কালাম আজাদ বলেন, প্রাথমিকভাবে আমরা জানতে পেরেছি ওই ব্যক্তির সাথে পূর্ব শত্রুতার জেরে এই ঘটনাটি ঘটেছে।

আমরা আরও জানতে পেরেছি নিহত ব্যক্তিকে ফোন দিয়ে ডেকে নিয়ে এই হত্যাকান্ড সংঘটিত হয়। এই হত্যাকান্ডের সাথে যারা জড়িত তাদেরকে গ্রেফতারের অভিযান চলছে। নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজের মর্গে রাখা হয়েছে।এ বিষয়ে আইনি প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে বলেও জানান ওসি আবুল কালাম জানান।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর

রাজধানীতে তাজিয়া মিছিল শুরু

বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪




ভোলার মেঘনায় ড্রেজার ডুবি : ২ জনের মরদেহ উদ্ধার, এখনও নিখোঁজ-৩

প্রকাশিত:বুধবার ১০ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৯৭জন দেখেছেন

Image

শরীফ হোসাইন, ভোলা বিশেষ প্রতিনিধি:ভোলার মেঘনা নদীতে ডুবে যাওয়া ড্রেজার থেকে দুইজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তারা হলেন, মো. আরিফুর ইসলাম ও নুরে আলম। নুরে আলম ডুবে যাওয়া ড্রেজারটির মালিক ছিলেন। ডুবুরি টিম ড্রেজারটির কেবিন থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করে। তবে এখনো অপর ৩ শ্রমিকের সন্ধান পাওয়া যায়নি। তারা হলেন, মো. হারুন (৫৫), সিয়াম আহমেদ (২৩) ও তানজিল আহমেদ (২৩)। তাদের সবার বাড়ি ভোলা সদর উপজেলার ৩নং পশ্চিম ইলিশা ইউনিয়নের পাঙ্গাশিয়া গ্রামে। মঙ্গলবার (৯ জুলাই) ভোররাত ৩টার দিকে মালিকপক্ষের ভাড়াটে ডুবুরি টিম ওই দু'জনের মরদেহ উদ্ধার করে। লিশা নৌ-থানার ইন্সপেক্টর বিদুুৎ কুমার বড়ুয়া এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

দিনভর অভিযানের পর সোমবার বিকেলে নৌ-পুলিশ, কোষ্টগার্ড ও ফায়ারসার্ভিসের যৌথ অভিযানে ডুবে যাওয়া ড্রেজারটির সন্ধান পায় তারা। আজ সকাল থেকে নিখোঁজ ৩ শ্রমিককে উদ্ধারে সরকারি ও বেসরকারি ডুবুরি টিম কাজ করে যাচ্ছে। 

ভোলা ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক মো. লিটন জানান, গতকাল বিকেলে ফায়ার সার্ভিস, নৌ-পুলিশ ও কোষ্টগার্ডের যৌথ অভিযানে ডুবে যাওয়া ড্রেজারটির অবস্থান শনাক্ত করা হয়। মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে পুনরায় উদ্ধার অভিযান শুরু হয়। এর আগেই মালিকপক্ষের ভাড়াটে ডুবুরি টিম ভোররাতে দু’জনের মরদেহ উদ্ধার করেছে। এখন ভাড়াটে ডুবুরি টিম ও সরকারি ডুবুরি টিম যৌথভাবে উদ্ধার অভিযান চালাচ্ছে। বাকি ৩ জনের মরদেহ খোঁজা হচ্ছে। 

কোষ্টগার্ড দক্ষিণ জোনের লেফটেন্যান্ট কমান্ডার এইচ এম হারুন অর রশিদ বিএন জানান, ড্রেজারটির দুটি কেবিন ভিতর থেকে আটকানো। মেঘনায় পানির তীব্র স্রোত। যাঁর কারনে উদ্ধার অভিযান পরিচালনা ব্যাহত হচ্ছে। ডুবুরি টিম চেষ্টা করছে ড্রেজারটি নদীর তলদেশ থেকে ভাসমান অবস্থায় নিয়ে আসার জন্য।

এদিকে নিখোঁজ শ্রমিকদের স্বজনরা ট্রলারযোগে ঘটনাস্থলে গিয়ে আহাজারি করছেন। তারাও নদীতে ঘুরে নিখোঁজদের সন্ধান করছে। ভোলা জেলা প্রশাসক মো. আরিফুজ্জামান জানান, নিখোঁজ শ্রমিকদের লাশ উদ্ধারে ডুবুরি টিম তৎপর রয়েছে। জেলা প্রশাসকের একটি টিম বিষয়টি মনিটরিং করছে।

উল্লেখ্য, রোববার গভীর রাতে ভোলার মেঘনা নদীর গাজীপুর চর নামক এলাকা থেকে বালু উত্তোলনের সময় আফসানা-১ নামের ড্রেজারটি ৫ শ্রমিক নিয়ে ডুবে যায়।

-খবর প্রতিদিন/ সি.


আরও খবর



সৈয়দপুরে ট্যারিফ কমিশনের সভায় চিনি চোরাচালান বন্ধের দাবি

প্রকাশিত:বুধবার ২৬ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৫৬জন দেখেছেন

Image
জহুরুল ইসলাম খোকন সৈয়দপুর( নীলফামারী) প্রতিনিধি:বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বাংলাদেশ ট্রেড অ্যান্ড ট্যারিফ কমিশনের উদ্যোগে নীলফামারীর সৈয়দপুরে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার (২৫ জুন) দুপুরে সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে ওই সভা অনুষ্ঠিত হয়। সৈয়দপুর উপজেলা বিপনন কমিটি ওই সভার আয়োজন করে। সভায় চিনি চোরাচালান বন্ধ ও নিত্যপণ্যের বাজার দর নিয়ন্ত্রনে রাখতে দাবি জানানো হয়।সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন  বাংলাদেশ ট্রেড অ্যান্ড ট্যারিফ কমিশনের যুগ্ম প্রধান মোস্তফা জামান হায়দার। বিশেষ অতিথি ছিলেন সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রিয়াদ আরফান সরকার ও ট্যারিফ কমিশনের উপ-প্রধান আব্দুল লতিফ।সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নূর-ই আলম সিদ্দিকী সভায় সভাপতিত্ব করেন। সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সৈয়দপুর ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ও আমদানিকারক আলতাফ হোসেন, শিল্পপতি আমিনুল ইসলাম, ব্যবসায়ী বাবুল হোেসেন, একরামুল হক, আলী ইমাম, সৈয়দপুর উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ডা. শ্যামল কুমার রায়, সৈয়দপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি আবু-বিন আজাদ, সাংবাদিক সাকির হোসেন বাদল, এম আর আলম, আমিরুল বাপ্পী, বাঙ্গালীপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ডা. শাহাজাদা সরকার প্রমুখ।
সভায় বিভিন্ন পর্যায়ের ব্যবসায়ী, শিল্পপতি, জনপ্রতিনিধি, সরকারি কর্মকর্তা ও সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

আরও খবর



রূপগঞ্জে বিআরটিসি পরিবহন যেন ঘাড়ের উপর বিষফোঁড়া

প্রকাশিত:বুধবার ১০ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৯৩জন দেখেছেন

Image

আবু কাওছার মিঠু রূপগঞ্জ নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি:নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে বিআরটিসি বাসের চালক হেলপার সহ লিজ পার্টি জিল্লুর রহমানের ম্যানেজার মাসুদ কাউন্টার ম্যান ও লাঠিয়াল বাহিনীর হাত থেকে স্বস্তি চায় সাধারণ যাত্রীরা। 

সরেজমিনে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, রূপগঞ্জের একমাত্র গণপরিবহন বিআরটিসি। ভুলতা থেকে কুড়িল পর্যন্ত নিয়মিত যাত্রীদের যাতায়াতের সুবিধার্থে এই গণপরিবহনটি বিভিন্ন অভিযোগ মাথায় নিয়ে ২০১৭ সালের ডিসেম্বর মাস থেকে যাত্রা শুরু করে। এতে সাধারণ যাত্রীদের চলাচলের সুবিধা হবে এবং অল্প টাকায় সকলে ঢাকা সহ আশেপাশের এলাকায় যাতায়াত করতে পারবে।  কিন্তু সে আসার গুড়ে বালি। যেখানে কুড়িল থেকে গাউছিয়া বাস ভাড়া হওয়ার কথা ৩০ থেকে ৪০ টাকা সেখানে বিআরটিসি বাসের ভাড়া গুনতে হয় ৬০ টাকা করে।

অথচ এই একই ভাড়ায় সিএনজিতে চলতে পারে সাধারণ যাত্রীরা। কিন্তু এখানেও বাধা দেয় বিআরটিসির লাঠিয়াল গুন্ডাবাহিনী।  কুড়িল থেকে কোন সিএনজি ড্রাইভার যদি যাত্রী উঠানামা করে তাহলে তাদের ধরে সেখানে বেধড়ক মারধর করার ঘটনা ঘটে প্রায়ই। ইদানিং আর লাঠিয়াল গুন্ডা নয়, জিল্লুর রহমান খোদ পুলিশ পাহারা রেখেছে বিআরটিসি কুড়িল কাউন্টারে। গত চার মেয়ে শনিবার কুড়িল রাস্তা অবরোধ করে আন্দোলন করে সিএনজি চালক ও যাত্রীরা তাদের অভিযোগ কুড়িল গেলেই বিআরটিসি লাঠিয়াল গুন্ডাবাহিনী তাদেরকে লাঠি দিয়ে তাদের গাড়ির গ্লাস ভেঙ্গে দেয় এবং সুযোগ পেলে তাদের মেরে রক্তাক্ত করে দেয় এজন্য তারা কাঞ্চন-কুড়িল ৩০০ ফিট রোড অবরোধ করে ৪ ঘন্টা বন্ধ করে রাখে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সালাউদ্দিন ও রুপগঞ্জ থানার ওসি দীপকচন্দ্র সাহার অনুরোধে তারা রাস্তা থেকে সরে যায়।  রূপগঞ্জ থানার ওসিম দীপক চন্দ্র সাহা আশ্বস্ত করেন যে এরপর কারো গায়ে একটি আঘাত আসলে তাদের বিরুদ্ধে আইননব ব্যবস্থা নেওয়া হবে।  

সিএনজি চালকদের এখন লাঠিয়াল দিয়ে নয় খোদ পুলিশ দিয়ে শুরু হয়েছে হয়রানী।  কাউন্টারের আশেপাশে সিএনজি দাড়ালেই পুলিশ দিয়ে গাড়ি আটকে হয়রানীর  অভিযোগ উঠেছে। এজন্য বিআরটিসি বাসের প্রতি যাত্রীদে অনিহা ও দিন দিন যাত্রী সংকট তৈরীসহ বিভিন্নভাবে সমস্যা তৈরি হচ্ছে। 

সম্প্রতি বিআরটিসি লিজ পার্টি জিল্লুর সন্ত্রাসী বাহিনী ও কর্মচারী কর্তৃক গ্রীন ইউনিভার্সিটির ছাত্ররা লাঞ্চিত হয়,  ঘটনার সূত্র ধরে গাউছিয়া-কুড়িল হাইওয়ে ব্যস্ততম রাস্থা অবরোধ করে ছাত্ররা। এ দিন ভুলতা- গাউছিয়া থেকে ঢাকা শহর পর্যন্ত যানজটের শিকার হয় সাধারণ যাত্রীরা।  ছাত্রদের অভিযোগ তাদের হাফ ভাড়া ও সাধারণ যাত্রীসহ ছাত্র হয়রানি বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত তারা আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেয়।  অবশেষে স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগিতায় বিআরটিসি চেয়ারম্যানের সাথে যোগাযোগ করে তা সমাধান করা হয়।  

অভিযোগ আছে, ভুলতা গাউছিয়া এবং কুড়িল বিশ্বরোডের দুটি কাউন্টার থেকে সিট ভর্তি যাত্রী নেয় এবং পুরা গাড়ি যাত্রী দাঁড়িয়ে থাকে তারপর গাড়ি ছাড়ে,  টিকিট কাউন্টারে মাইক দিয়ে বলা হয় যে পরবর্তী বাস আসতে ১ ঘন্টা বা তারও বেশি দেরী হবে। 

অভিযোগের ব্যাপারে মুঠোফোনে কথা হয় বিআরটিসির প্রধান কার্যালয়ের ডিজিএম অপারেশন শুকদেব ঢালীর সাথে, তিনি বিআরটিসির পিআরওর নাম্বার দিয়ে বলেন,  আমরা বিষয়টি আমলে নিচ্ছি এবং এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেব। 

এ ব্যাপারে লিজ পার্টি জিল্লুর রহমানের সাথে মুঠো ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করে নাই। 

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



নিলয় কোটা আন্দোলনকারীদের পক্ষ নিয়ে কী বললেন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৬২জন দেখেছেন

Image

বিনোদন প্রতিবেদক:কোটা সংস্কারের দাবিতে রাজপথে নেমেছে শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের এই চলমান আন্দোলন নিয়ে সরব দেশের সব শ্রেণি-পেশার মানুষ। বসে নেই শোবিজ অঙ্গনও। কোটা সংস্কার চেয়ে আন্দোলনরতদের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করেছেন চলচ্চিত্র নির্মাতা, অভিনেতা-অভিনেত্রী। তাদের মধ্যে একজন ছোট পর্দার অভিনেতা নিলয় আলমগীর।

নিলয় নিজে একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান। সম্প্রতি সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে কোটা সংস্কার চেয়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়ালেন তিনি। মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হয়েও এদেশে বৈষম্য চান না এই অভিনেতা।

এক ফেসবুক পোস্টে নিলয় লেখেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আজকের ছাত্র-ছাত্রীরা আগামী দিনের ভবিষ্যত। তারাই একটা সময় দেশের হাল ধরবে। এত এত ছাত্র ছাত্রী ভুল দাবি করতে পারে না। আমি একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হয়েও বলছি, দয়া করে কোটা সংস্কার করে দিন। বাংলাদেশের মুক্তিযোদ্ধা এবং তাদের পরিবারকে যে সম্মান এবং ভালোবাসা আপনি সবসময় দেখিয়েছেন তার জন্য আমরা আপনার কাছে কৃতজ্ঞ। কিন্তু দেশের সাধারণ মানুষের কাছে মুক্তিযোদ্ধা এবং তাদের পরিবার এখন হাসির পাত্র। মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানের জায়গাটা ঠিক রাখতে হলেও কোটা সংস্কার মেনে নিন। আন্দোলনরত ছাত্র ছাত্রীদের এই দুরবস্থা সহ্য করার মত না। পুরো জাতি আপনার সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছে।

প্রসঙ্গত, কোটা সংস্কার আন্দোলনের জেরে উত্তাল সারাদেশ। এদিকে সোমবার থেকে সাধারণ শিক্ষার্থীদের ওপর একের পর এক হামলা চালিয়েছে ছাত্রলীগ। এতে শতাধিক ছাত্র-ছাত্রী আহত ও গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। এতে সামাজিক মাধ্যমে বইছে নিন্দার ঝড়। হামলাকারীদের শাস্তিসহ শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার দাবি জানিয়েছেন বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ। তাদের পাশাপাশি একের পর এক মুখ খুলছেন শোবিজ তারকারা।

এখন পর্যন্ত তাদের মধ্যে রয়েছেন চিত্রনায়িকা শবনম বুবলি, পরীমণি, অভিনেত্রী সাদিয়া আয়মান, ইউটিউবার ও ইনফ্লুয়েন্সার সালমান মুক্তাদির, অভিনেত্রী রুকাইয়া জাহান চমক, ও কনটেন্ট ক্রিয়েটর আরএসফাহিম চৌধুরীসহ আরও অনেকে।


আরও খবর