Logo
আজঃ Monday ০৮ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড নিখোঁজ সংবাদ প্রধানমন্ত্রীর এপিএসের আত্মীয় পরিচয়ে বদলীর নামে ঘুষ বানিজ্য

ঘাতকরা শুধু কামালকে নয়, হত্যা করেছে দেশের সম্ভাবনাকে: পরশ

প্রকাশিত:Saturday ০৬ August ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ২২জন দেখেছেন
Image

ঘাতকরা শুধু শেখ কামালকে নয়, বাংলাদেশের সম্ভাবনাকে হত্যা করেছে বলে মন্তব্য করেছেন যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ।

শুক্রবার (৫ আগস্ট) জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জ্যেষ্ঠ পুত্র বিশিষ্ট ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সংগঠক বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ কামালের ৭৩তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ (আইইবি) অডিটোরিয়ামে এ সভার আয়োজন করে যুবলীগ।

শেখ পরশ বলেন, আমার দৃষ্টিতে শেখ কামাল একটি বিস্ময়ের নাম। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ও বঙ্গমাতা ফজিলাতুন নেছা মুজিবের বড় ছেলে শেখ কামাল ছিলেন একজন বন্ধুসুলভ ক্যারিসমেটিক মানুষ। তিনি ছিলেন একাধারে তুখোড় ক্রীড়া ও সংস্কৃতি সংগঠক এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা। মুক্তিযুদ্ধের দিনগুলোতে ফিরে গেলে আমরা শেখ কামালের মধ্যে এক দেশপ্রেমী যোদ্ধাকে দেখতে পাই। প্রতিটি আন্দোলন-সংগ্রামে তিনি বীরত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন। শেখ কামাল ছিলেন সংস্কৃতি জগতে এক উজ্জ্বল নক্ষত্র।

তিনি বলেন, শেখ কামাল খেলাধুলার ক্ষেত্রে বৈপ্লবিক পরিবর্তন এনেছিলেন। খেলোয়াড়দের স্বাবলম্বী করার উদ্যোগ গ্রহণের পাশাপাশি তিনি তাদের জন্য অবসরভাতা প্রদানেরও উদ্যোগ গ্রহণ করেন। খেলোয়াড়দের নিরাপত্তার জন্য তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নিকট হতে ১০ লাখ টাকার অনুদান নিয়ে ‘খেলোয়াড় কল্যাণ তহবিল’ গঠন করেন। তিনি একজন প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটারও ছিলেন এবং চমৎকার ফাস্ট বোলিং করতেন।

তিনি আরও বলেন, আগস্টের ঐ ঘৃণ্যতম হত্যাকাণ্ড শুধু বঙ্গবন্ধুর হত্যাকাণ্ড না, এটা আমাদের সম্ভাবনার হত্যাকাণ্ড। এই হত্যাকাণ্ড আমাদের সামাজিক, নৈতিক এবং মনস্তাত্ত্বিক লেভেলে অপূরণীয় ক্ষতি সাধণ করেছে।

যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মাইনুল হোসেন খান নিখিলের সঞ্চালনায় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেন, শেখ কামাল ছিলেন একজন ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সংগঠক এবং অত্যন্ত পরোপকারী মানুষ। ঘাতকরা ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করার পর বঙ্গবন্ধু এবং তার পরিবার সম্পর্কে যে অপপ্রচার শুরু করে, যেভাবে ইতিহাসটাকে তারা বিকৃত করার চেষ্টা করেছিল, প্রধানমন্ত্রী যদি সাহস করে দেশে ফিরে না আসতেন, আওয়ামী লীগের দায়িত্ব যদি কাঁধে তুলে না নিতেন এবং যদি তিনি দেশের প্রধানমন্ত্রী না হতে পারতেন, তাহলে আজকে আমরা বঙ্গবন্ধু এবং শেখ কামাল সম্পর্কে যে কথাগুলো বলছি নতুন প্রজন্ম সেই সত্যটাকে কোনদিন জানতো না। আপনাদের কাছে আমার অনুরোধ, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা এবং ক্রীড়া জগতে শেখ কামালের স্বপ্নকে এগিয়ে নিয়ে যেতে যুবলীগকে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে।

সম্মানিত অতিথির বক্তব্যে ৭১ টিভি’র প্রধান সম্পাদক ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোজাম্মেল বাবু বলেন, আজ শেখ কামালের জন্মদিন। আজকের দিনে আমরা আনন্দ করতে পারছি না, আবার কাঁদতেও চাই না। আজকের দিনটি তাহলে কি? আজকের দিনটি চেতনার নবায়নের এবং নিজের কাছে নিজেকে বলা আমরা যেন শেখ কামালের আদর্শের একজন উত্তরাধিকার হিসেবে নিজেকে তৈরি করতে পারি। আমাদেরকে শেখ কামালের আদর্শে একজন পূর্ণাঙ্গ মানুষ হতে হবে। তিনি যে হাতে সেতার বাজিয়েছেন আবার মুক্তিযুদ্ধের একজন সম্মুখযোদ্ধা হিসেবে সে হাতে অস্ত্র তুলে নিয়েছেন।

`আজ যদি বাস্তবে আসি, যে শত্রু আমাদের ৭১ সালে মোকাবিলা করতে হয়েছে আজও সেই প্রচ্ছন্ন শত্রুকে আমাদের মোকাবিলা করতে হবে। সরকারবিরোধীরা বাংলাদেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করতে চায়, আমাদেরকে সতর্ক থাকতে হবে, রাজপথ দখলে রাখতে হবে। বিশ্ব পরিস্থিতিকে কাজে লাগিয়ে, দ্রব্যমূল্যের বিশ্ব চাপিয়ে দেওয়া সমস্যাকে কাজে লাগিয়ে সাধারণ মানুষকে উত্তেজিত করে কোনো ষড়যন্ত্রকারী যেন রাজপথে নামতে না পারে, বৈশ্বিক জ্বালানি সংকট তৈরি করে রাজপথ যেন কেউ দখলে নিতে না পারে, এটা হবে আমাদের প্রধান কাজ।'

এর আগে সকাল ৮টা ১৫ মিনিটে ধানমণ্ডিস্থ আবাহনী ক্লাব প্রাঙ্গণে শহীদ শেখ কামালের প্রতিকৃতিতে এবং ৯টা ১৫ মিনিটে বনানী কবরস্থানে তার সমাধিতে যুবলীগের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।


আরও খবর



এবার পার্থ-অর্পিতার ঘনিষ্ঠদের ব্যাংক লেনদেনে নজর

প্রকাশিত:Monday ০১ August ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | ৪১জন দেখেছেন
Image

পশ্চিমবঙ্গ তৃণমূলের বহিষ্কৃত মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও তার সহযোগী অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের ‘কাছের মানুষেরা’ এ বার আসতে পারেন ইডির নজরে। তাদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টের তথ্য এমনকি, আয়কর রিটার্নও ঘেটে দেখতে পারেন সংস্থাটির কর্মকর্তারা। সম্প্রতিই পার্থ-‘ঘনিষ্ঠ’ অর্পিতার ফ্ল্যাট থেকে একাধিক সংস্থার নথি উদ্ধার হয়েছে বলে দাবি করে ইডি।

তদন্তকারীদের ধারণা হয়তো বিদেশেও টাকা পাচারের চক্র চলতো এই সব ফ্ল্যাট থেকে। সে ক্ষেত্রে দুই ‘প্রভাবশালী’র ঘনিষ্ঠ ও বিশ্বস্ত ব্যক্তিদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে নজর দিলে আরও নতুন তথ্য উঠে আসতে পারে।

তাছাড়া পার্থ ও অর্পিতাকে খুব শিগগির আবারও মুখোমুখি বসিয়ে জেরা করা হতে পারে বলে ইডির বিশেষ সূত্রে জানা গেছে। কারণ পার্থ ও অর্পিতার বয়ান পরস্পরের সঙ্গে মিলছে না। এই অসঙ্গতির সমাধান করতেই দু’জনকে একাধিক বার মুখোমুখি বসিয়ে জেরা করার কথা ভাবছে ইডি। যদিও এরই মধ্যে পার্থর সঙ্গে অর্পিতাকে মুখোমুখি বসিয়ে জেরা করা হয়েছে।

এদিকে পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও অর্পিতা মুখোপাধ্যায়কে রোববার (৩১ জুলাই) সকালে ভারতের জোকার ইএসআই হাসপাতালে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য নেওয়া হয়। তখন উদ্ধার হওয়া টাকা নিয়ে প্রশ্ন করা হলে পার্থ বলেন, আমার কোনো টাকা নেই।

জানা গেছে, গত কয়েক দিনে অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের ফ্ল্যাট থেকে যে টাকা উদ্ধার হয়, তা নিয়ে এরই মধ্যে ভারতে রাজ্য-রাজনীতি সরগরম।


আরও খবর



সংসার টিকিয়ে রাখায় শীর্ষে বরিশাল

প্রকাশিত:Wednesday ২৭ July ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | ৪৯জন দেখেছেন
Image

দেশের বিভাগগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি সাংসারিক মানুষ বরিশালে। এই বিভাগে তালাক ও বিচ্ছেদের সংখ্যা অন্য বিভাগের তুলনায় খুবই কম। জনশুমারি ২০২২ এর প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা যায়।

বুধবার (২৭ জুলাই) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) প্রথম ডিজিটাল ‘জনশুমারি ও গৃহগণনা ২০২২’-এর প্রাথমিক প্রতিবেদন প্রকাশনা অনুষ্ঠানে এ ফলাফল জানানো হয়। সারাদেশে গত ১৫ জুন একযোগে শুরু হয় জনশুমারি ও গৃহগণনা কার্যক্রম। গত ২১ জুন জনশুমারি শেষ হওয়ার কথা থাকলেও উত্তর-পূর্বাঞ্চলের জেলায় বন্যা শুরু হওয়ায় এসব জেলায় শুমারি কার্যক্রম ২৮ জুন পর্যন্ত চলে।

প্রতিবেদন প্রকাশনা অনুষ্ঠানে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত আছেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী, জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন, পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম প্রমুখ। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব ড. শাহনাজ আরেফিন। প্রাথমিক প্রতিবেদন বিষয়ক উপস্থাপনা করেন প্রকল্প পরিচালক মো. দিলদার হোসেন।

এতে জানানো হয়, দেশের মোট জনসংখ্যা এখন ১৬ কোটি ৫১ লাখ ৫৮ হাজার ৬১৬ জন। যেখানে ৮ কোটি ১৭ লাখ পুরুষ ও ৮ কোটি ৩৩ লাখ নারী। ১২ হাজার ৬২৯ জন তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ।

কোন কোন বিভাগের বৈবাহিক অবস্থা কেমন এ তালিকায় গিয়ে দেখা যায়, বরিশাল বিভাগে ২৭ দশমিক ২০ শতাংশ মানুষ অবিবাহিত। এদিক থেকে বরিশালের নিচে অর্থাৎ, বিবাহে অনাগ্রহে মাত্র তিনটি বিভাগ রয়েছে। অপরদিকে বরিশালে বিবাহিত মানুষ ৬৬ দশমিক ৬৬ শতাংশ। এদিক থেকে এ বিভাগের চেয়ে এগিয়ে মাত্র তিনটি জেলা।

সে তুলনায় বরিশাল বিভাগে তালাক শূন্য দশমিক ২৯ শতাংশ। বরিশাল বিভাগে বিবাহ বিচ্ছেদ শূন্য দশমিক ৩১ শতাংশ। এ সংখ্যার নিচে আর কোনো বিভাগ নেই। অর্থাৎ বরিশাল বিভাগে তালাক ও বিচ্ছেদের সংখ্যা সবচেয়ে কম।


আরও খবর



বোয়ালমারীর ইউএনওর ক্ষমা প্রার্থনার আবেদনের ওপর শুনানি আজ

প্রকাশিত:Monday ২৫ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ০৫ August ২০২২ | ২২জন দেখেছেন
Image

আদালতের দুই কর্মচারীর সঙ্গে দুর্ব্যবহার ও বিচারের হুমকি দেওয়ার ঘটনায় হাইকোর্টে নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করেছিলেন ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. রেজাউল করিম। এ বিষয়টি আজ শুনানির জন্য রয়েছে।

সোমবার (২৫ জুলাই) হাইকোর্টর বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি রাজিক–আল–জলিলের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চে তার ক্ষমা প্রার্থনার আবেদনের ওপর শুনানি হবে।

বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তুষার কান্তি রায়।

এর আগে মঙ্গলবার (২১ জুন) হাইকোর্টর একই বেঞ্চ আদালত অবমাননার রুলসহ আদেশ দিয়েছিলেন।

গত ৭ জুন নোটিশ জারি করতে যাওয়া আদালতের দুই কর্মচারীর সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণের অভিযোগের বিষয়ে নিজেদের ভূমিকা কী ছিল তার ব্যাখ্যা দিতে তাদের তলব করেছিলেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে রুলে তাদের বিরুদ্ধে কেন আদালত অবমাননার কার্যক্রম গ্রহণ করা হবে না, তা জানতে চাওয়া হয়েছিল।

ওইদিন হাইকোর্টের একই বেঞ্চ স্বঃপ্রণোদিত হয়ে আদালত অবমাননার রুলসহ এ আদেশ দিয়েছিলেন।

এ বিষয়ে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তুষার কান্তি রায় জানান, ফরিদপুরের সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ আদালত থেকে ওই ঘটনা লিখিতভাবে সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্টার জেনারেলকে জানানো হয়। এরপর প্রধান বিচারপতি বিষয়টি শুনানি ও নিষ্পত্তির জন্য বিচারপতি জে বি এম হাসানের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চে পাঠান। পরে আদালত স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে অবমাননার রুলসহ ওই আদেশ দেন।

বোয়ালমারীর আদালত থেকে পাঠানো এ সংক্রান্ত অবহিতকরণপত্র থেকে জানা যায়, গত ২৭ এপ্রিল বোয়ালমারী সিনিয়র সহকারী জজ আদালতের দেওয়ানি মামলার (৫৩/২০২২) নোটিশ জারি করতে জারিকারক মো. কামাল হোসেন ও মেহেদী হাসান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে যান। সেদিন দুপুর আড়াইটার দিকে নাজির উকিল মিয়ার কাছে নোটিশ গ্রহণের অনুরোধ জানালে তিনি ব্যস্ততা দেখিয়ে তাদের অপেক্ষায় রাখেন। বিকেল ৪টার দিকে তারা আবারও নাজিরের কাছে গেলে তিনি উত্তেজিত হয়ে তাদের ওপরের তলায় গিয়ে বসতে বলেন।

অন্য জায়গায় সমন জারির কাজ আছে জানালে উকিল মিয়া বলেন, তাতে তার কী, জজকোর্টের নোটিশ না রাখলে তার কী হবে? তিনি এর চেয়ে বড় কাজে ব্যস্ত আছেন। তিনি নোটিশ পাশের টেবিলে দিতে বললে পাশের টেবিলে দায়িত্বরত কর্মচারী নোটিশ বুঝে নিতে অপারগতা প্রকাশ করেন।

জারিকারক বিষয়টি আদালতকে অবহিত করবে বললে জানালে উকিল মিয়া বলেন, ‘জজের ভয় দেখিয়ে লাভ নেই, আমরা নির্বাহী বিভাগের লোক। নোটিশ না রাখলে আমাদের কিছুই হবে না।’
একপর্যায়ে নোটিশ বুঝে নেন উকিল মিয়া। এরই মধ্যে ওই অফিসের একজন কর্মচারী বিষয়টি ইউএনওকে অবহিত করলে তিনি জারিকারক দুজনকে তার কক্ষে ডেকে নিয়ে দরজা আটকিয়ে জেরা করতে থাকেন।

স্টাফদের সঙ্গে বাজে ব্যবহারের অভিযোগ তুলে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে জারিকারকদের সাজা দেওয়ার হুমকি দেন ইউএনও। একপর্যায়ে ইউএনও মো. রেজাউল করিম এসময় তাদের মোবাইল কেড়ে নেন ও মুচলেকা দিয়ে চলে যেতে বলেন।

তারা রোজা আছেন জানালে ইউএনও বলেন, মুচলেকা ব্যতীত তাদের ছাড়বেন না তিনি। একপর্যায়ে পা ধরে মাফ চাইতে বাধ্য করেন ইউএনও। এরপর জোর করে নির্দেশনামতে মুচলেকা লিখিয়ে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়।

অবহিতকরণপত্রে আরও বলা হয়, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মুক্ত হয়ে ওই দুই জারিকারক বিষয়টি প্রথমে জেলা জজ আদালতের ভারপ্রাপ্ত নাজির মো. রফিকুল ইসলামকে জানান। পরে নাজির বিষয়টি নেজারত শাখার ভারপ্রাপ্ত জজকে জানান। নেজারত শাখার ভারপ্রাপ্ত জজ জারিকারকদের লিখিত অভিযোগ পরে সংশ্লিষ্ট আদালতে পাঠান।

গত ১৯ মে বোয়ালমারীর সিনিয়র সহকারী জজ (৫৩/২০২২ নম্বর) মামলার এক আদেশে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও তার কার্যালয়ের নাজিরের বিরুদ্ধে কেন বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হবে না- তা আদেশ পাওয়ার ১০ দিনের মধ্যে উপস্থিত হয়ে লিখিত ব্যাখ্যা দিতে নির্দেশ দেন। পরবর্তীকালে আদেশ না দেওয়া পর্যন্ত কারণ দর্শানোর এই নোটিশের কার্যক্রম না চালাতে বোয়ালমারীর সিনিয়র সহকারী জজকে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।


আরও খবর



কক্সবাজার জেলা যুব মহিলা লীগের নতুন সভাপতি লুনা, সম্পাদক রোমানা

প্রকাশিত:Wednesday ২০ July ২০22 | হালনাগাদ:Friday ০৫ August ২০২২ | ৩১জন দেখেছেন
Image

তাহমিনা চৌধুরী লুনাকে সভাপতি ও সাবেক ছাত্রলীগ নেত্রী তসলিমা আক্তার রোমানাকে সাধারণ সম্পাদক করে কক্সবাজার জেলা যুব মহিলা লীগের নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।

বুধবার (২০ জুলাই) কেন্দ্রীয় যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক অপু উকিল এ কমিটি ঘোষণা করেন।

কমিটিতে সহ-সভাপতি হয়েছেন হাসিনা আক্তার রিতা। যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন নাসরিন জাহান শাওন।

যুব মহিলা লীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক কক্সবাজার থেকে ঢাকা ফেরার প্রাক্কালে এ কমিটি ঘোষণা দেন বলে জানান ঘোষিত কমিটির সভাপতি তাহমিনা চৌধুরী লুনা।

Luna

তিনি আগের কমিটির সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। কেন্দ্রের পরামর্শে শিগগিরই জেলা কমিটি পূর্ণাঙ্গ করা হবে বলে জানান লুনা।

মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) কক্সবাজার সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে যুব মহিলা লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। ঐকমত্য না হওয়ায় সম্মেলনের কাউন্সিলে কমিটি ঘোষণা করা সম্ভব হয়নি। একদিন পর এ কমিটি ঘোষণা করা হলো।


আরও খবর



বন্যায় ভেসে গেছে পুকুর, ঋণ আতঙ্কে মৎস্যচাষিরা

প্রকাশিত:Tuesday ১৯ July ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ০৩ August ২০২২ | ২৮জন দেখেছেন
Image

নেত্রকোনায় বন্যায় ২৬ হাজার ৪১৭টি পুকুর ও জলাশয়ের মাছ ভেসে গেছে। এতে কপাল পুড়েছে জেলার মৎস্যচাষিদের। তারা বিভিন্ন ব্যাংক ও ব্যক্তির কাছ থেকে ঋণ নিয়ে মাছ চাষ করায় এখন কিভাবে সেই টাকা শোধ করবেন তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন। ঋণ আতঙ্কে অনেকের চোখের ঘুম হারাম হয়ে গেছে।

প্রশাসনের তথ্যমতে, জেলার ১০ উপজেলার ৭৫টি ইউনিয়ন প্লাবিত হয়েছে। ওই সময় ৩৪২টি আশ্রয়কেন্দ্রে সোয়া লাখ বানভাসি মানুষ আশ্রয় নিয়েছেন। জেলার ক্ষতিগ্রস্ত লোকসংখ্যা ৫ লাখ ৫৫ হাজার ৫৫০ জন।

জেলা মৎস্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে, জেলার ২৬ হাজার ৪১৭টি পুকুরের মাছ ভেসে গেছে। এর মধ্যে নেত্রকোনা সদরের ১ হাজার ৪৬৮ জন খামারির ৩২৫০টি পুকুরের মাছ, মোহনগঞ্জের ১ হাজার ৭২৩ জনের ২ হাজার ৪০টি পুকুর, বারহাট্টার ১ হাজার ৭২২ জনের ৩ হাজার ৬৮৭টি পুকুর, কেন্দুয়ার ১ হাজার ১৬০ জনের ২ হাজার ২৩৫টি পুকুর, আটপাড়ার ৯৩৫ জনের ১ হাজার ৬৭০টি পুকুর, পূর্বধলার ৬৮৫ জনের ৭৬৪টি পুকুর, মদনের ১ হাজার ৫৫২ জনের ৪ হাজার ২৪৫টি পুকুর, খালিয়াজুরীর ৩৯১ জনের ৪১৪টি পুকুর, কলমাকান্দার ২ হাজার ৩৪০ জনের ৩ হাজার ১১২টি পুকুর, ও দুর্গাপর উপজেলার পাঁচ হাজার পুকুরের মাছ ভেসে গেছে।

জেলা মৎস্য বিভাগ আরও জানায়, মোট ৩ হাজার ৫৩৮ হেক্টর জমিতে ২৬ হাজার ৪১৭টি পুকুর/জলাশয়ের ১৫ হাজার ৮২৬ জন খামার মালিক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারণ করা হয়েছে ১৬ কোটি ৮০ লাখ ৭৪ হাজার টাকা।

এদিকে, মৎস্যচাষিরা মাছ ভেসে যাওয়ায় পড়েছেন বিপাকে। খামারিরা ব্যাংকসহ বিভিন্ন পর্যায়ে ঋণ নিয়ে মাছ চাষ করেছিলেন। স্বপ্ন বুনেছিলেন তাদের উৎপাদিত মাছ বিক্রি করে নিজেদের ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটাবেন এবং তাদের ঋণ শোধ হবে। কিন্তু আকস্মিক বন্যায় ভেসে গেছে তাদের স্বপ্নও। বর্তমানে বন্যার পানি নেমে গেলেও এর ক্ষতচিহ্ন নিয়ে অতিকষ্টে দিনাতিপাত করছেন মৎস্য চাষিরা। এর মধ্যেই মড়ার ওপর খাঁড়ার ঘা হয়ে ঝুলে আছে ঋণের বোঝা। তারা এখন বুঝে উঠতে পারছেন না কিভাবে এই ঋণ শোধ করবেন।

জেলার বারহাট্টা উপজেলার সাহতা ইউনিয়নের মধুপুর গ্রামের নিপা এগ্রো ফিশারিজের সত্ত্বাধিকারী মো. রোকনুজ্জামান খান খোকন জানান, তিনি ৭০ কাঠার পুকুরে পাবদা, তেলাপিয়া, শিং, রুই, কাতলাসহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছের চাষ করেছিলেন। মাছ প্রায় বিক্রির উপযোগীও হয়ে উঠেছিল। বিক্রি শুরু হওয়ার অপেক্ষায় ছিলেন। আশা করেছিলেন প্রায় ৩০ লাখ টাকার মাছ ও পোনা বিক্রি করতে পারবেন। কিন্তু এর আগেই আকস্মিক বন্যায় সব মাছ ভেসে গেছে। পুকুরের চারপাশে কলা ও সবজি চাষ করেছিলেন। সেগুলোও নষ্ট হয়ে গেছে। এদিকে, মার্কেন্টাইল ব্যাংক থেকে তিনি ঋণ নিয়েছিলেন ১২ লাখ টাকা। ভেবেছিলেন মাছ বিক্রি করে ঋণ শোধ করবেন কিন্তু সে আশায় গুড়েবালি। এখন ভেবে পাচ্ছেন না কিভাবে এই ঋণ শোধ করবেন।

মৎস্য খামারি মো. আরিফুর রহমান ও মোখলেছুর রহমান মিলে বাউসি, আসমা ও সাহতা ইউনিয়নে মোট ৩৪ একর পুকুরে পাবদা, গুলশা, তেলাপিয়া, শিং, রুই, কাতলা ও সিলভার মাছের চাষ করেছিলেন। তারা জানান, কিছু কিছু মাছ তারা বিক্রি শুরু করেছিলেন। তবে দুই কোটি টাকার ওপরে মাছ বন্যার কারণে খামার থেকে বেরিয়ে গেছে। তারা এখন প্রায় নিঃস্ব। ইসলামী ব্যাংক ও আল-আরাফা ব্যাংক থেকে মাছ চাষের জন্য তারা ১ কোটি ৯০ লাখ টাকা ঋণ নিয়েছেন। এই ঋণ তারা কবে কিভাবে শোধ করতে পারবেন তা বুঝে উঠতে পারছেন না।

বারহাট্টার বাউসি ইউনিয়নের আরেক মৎস্যচাষি মো. ইলিয়াছ তালুকদার বলেন, আমরা এখন ঋণের আতঙ্কে আছি। সব শেষ হয়ে গেছে। ভেবেছিলাম ঘুরে দাঁড়াবো। সে আশা তো এখন বাদ। কিভাবে কী যে হবে! কৃষি ব্যাংক থেকে ১১ লাখ টাকা ঋণ নিয়েছিলাম। ব্যক্তি পর্যায়ে অন্য জায়গা থেকেও ঋণ নিয়েছি। মোট ৩০ লাখ টাকা ইনভেস্ট করেছিলাম। বন্যার কারণে সব মাছ পুকুর থেকে বেরিয়ে গেছে।

তিনি বলেন, পাঁচটি পুকুরে তেলাপিয়া, পাবদা ও গুলশা মাছ চাষ করেছিলাম। ভেবেছিলাম বিক্রি করে ঋণ শোধ করে লাভবান হবো। এখন দেখছি, ঋণ শোধ করতে করতেই জীবন পার করতে হবে। ঋণ শোধের আতঙ্কে ঠিকমতো ঘুমাতে পারছি না।

ইলিয়াছ তালুকদার আরও বলেন, ব্যাংক যদি বর্তমান পরিস্থিতি আমলে নিয়ে আমাদের দীর্ঘমেয়াদি সুযোগ দেয় তাহলে খুব ভালো হতো।

জেলা মৎস্য অফিসার মোহাম্মদ শাহজাহান কবীর জানিয়েছেন, বন্যার কারণে জেলার ১৫ হাজার ৮২৬ জন মৎস্যচাষি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। মোট ২৬ হাজার ৪১৭টি পুকুর ও জলাশয় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারণ করা হয়েছে ১৬ কোটি ৮০ লাখ ৭৪ হাজার টাকা। ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারণ করে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।


আরও খবর