Logo
আজঃ বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

গবেষণায় পদক পেলেন বাংলাদেশী গবেষক তাওহীদ হাসান

প্রকাশিত:শনিবার ২০ জানুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ২৯৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:গবেষণা ও উদ্ভাবনে ব্রঞ্জ পদক অর্জন করেছেন বাংলাদেশী গবেষক তাওহীদ হাসান। সম্প্রতি আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে মালায়েশিয়ার পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় 'ইউনিভার্সিটি মালায়েশিয়া তেরেংগানু'তে  এই আয়োজনে বিভিন্ন দেশর গবেষক অংশগ্রহণ করেন।

আন্ডারগ্রাজুয়েট, পোষ্ট গ্রাজুয়েট ও ওপেন এই তিনটি ক্যাটাগরিতে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকগণ তিন মিনিটে তাদের গবেষণা উপস্থাপন করেছেন।  বিশ্ববিদ্যালয়টির কনভেনশন সেন্টারে ফ্যাকাল্টি ডিন ড. মোহাম্মাদ ফাদলি আহমদ,  অন্যান্য শীর্ষ কর্মকর্তা সহ সবার উপস্থিতিতে সারা দিন ব্যাপী বর্ণাঢ্য এক আয়োজনের মাধ্যমে গবেষকদের নাম ঘোষণা করা হয়। সেখানে বাংলাদেশী গবেষক তাওহীদ হাসানকে ব্রঞ্জ পদকে ভূষিত করা হয়। তিনি মূলত হাইব্রিড এনার্জি নিয়ে গবেষণা করেন। সুপারভাইজার ছিলেন ড. শাহরিজান জামালুদিন। এই কাজটিতে সহযোগিতা করেন এম এম এইচ ইমরান।

তাওহীদ হাসান ইঞ্জিনিয়ারিং ষ্টাফ কলেজ বাংলাদেশের ফ্যাকাল্টি হিসেবে যুক্ত আছেন এবং অনেক বছর ধরে বাংলাদেশের বিভিন্ন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকতার সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন। তিনি মালায়েশিয়ারও একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রভাষক হিসেবে কাজ করেছেন।  পদক প্রাপ্তি নিয়ে তাওহীদ হাসান বলেন, বাংলাদেশের গবেষকদের বিভিন্ন উদ্যোগের মাধ্যমে গবেষণার প্রতি আগ্রহী করে তুলতে হবে। জাতি হিসেবে অগ্রসর হতে হলে, গবেষণার বিকল্প নেই।

উল্লেখ্য তাওহীদ হাসান গেল বছরও টিএমএনএ রিসার্চ এওয়ার্ড প্রাপ্ত হন। প্রতিবছরই তিনি আন্তর্জাতিক অঙ্গনের গবেষণা নিয়ে বিভিন্ন পদক অর্জন করে আসছেন। তার বিশটিরও বেশি গবেষণাপত্র মান সম্মত জার্নাল ও কনফারেন্সে প্রকাশিত হয়েছে।


আরও খবর

ঢাকায় মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেপ্তার ২৬

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




মাদারীপুরে পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্সের বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৮৬জন দেখেছেন

Image
এস এম শফিকুল ইসলাম জয়পুরহাট প্রতিনিধি ঃপপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের মাদারীপুর অঞ্চলের উন্নয়ন কর্মকর্তাদের নিয়ে বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রবিবার  (৪ ফেব্রুয়ারী) সকালে মাদারীপুর  জেলা শিল্পকলা একাডেমী মিলনায়তনে এ সম্মেলন  অনুষ্ঠিত হয়। 

পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক বি এম শওকত আলীর সভাপতিত্বে মাসিক  সমন্বয়  সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও, বাংলাদেশ ইনস্যুরেন্স ফোরামের প্রেসিডেন্ট ও বাংলাদেশ ইনস্যুরেন্স অ্যাসোসিয়েশনের কার্য নির্বাহী সদস্য  বি এম ইউসুফ আলী। 

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন , একক বীমা প্রকল্পের  উর্দ্ধতন  উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক (ব্রাঞ্চ কন্ট্রোল) সৈয়দ মোতাহার হোসেন, ইসলামী বীমা তাকাফুল প্রকল্পের  উর্দ্ধতন  উপ- ব্যবস্থাপনা পরিচালক হাবিবুর রহমান, জনপ্রিয় বীমা প্রকল্পের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক কামাল হোসেন মহসিন, ইসলামী ডিপিএস প্রকল্পের উপ- ব্যবস্থাপনা পরিচালক খলিলুর রহমান সিকদার।

এ সময়ে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, আল বারাকাহ ইসলামী ডিপিএস প্রকল্পের উর্দ্ধতন নির্বাহী পরিচালক ও প্রকল্প  পরিচালক সেলিম মিয়া, জনপ্রিয় একক বীমা প্রকল্পের  উর্দ্ধতন নির্বাহী পরিচালক ও প্রকল্প  পরিচালক জাহাঙ্গীর হোসেন, পপুলার ডিপিএস প্রকল্পের নির্বাহী পরিচালক ও প্রকল্প পরিচালক আবু মুঈদ শাহীন, আল আমিন বীমা প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক সাইফুল ইসলাম রুবেল।


আরও খবর

সন্দ্বীপ থানার ওসি কবীর পিপিএম পদকে ভূষিত

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




মুক্তিযুদ্ধবিরোধী অপশক্তির ষড়যন্ত্র সার্বক্ষণিক চলছে,সবাইকে সজাগ থাকতে হবে: তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১০৬জন দেখেছেন

Image
মারুফ সরকার, স্টাফ রিপোর্টার:তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ আলী আরাফাত বলেছেন, মুক্তিযুদ্ধবিরোধী অপশক্তির ষড়যন্ত্র সার্বক্ষণিক চলছে। এ বিষয়ে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে।স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তির প্রেতাত্মারা এখনো দেশের আনাচে-কানাচে অনেক জায়গায় আছে। তারা ঘাপটি মেরে থাকে, লুকিয়ে থাকে। সুযোগ পেলেই মাথাচাড়া দেয়। আবারও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার অন্তরাত্বায় তারা আঘাত করতে চায়। তাদের বিপক্ষে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

আজ বুধবার সন্ধ্যায় রাজধানীর মিরপুরে ৩১ জানুয়ারি মিরপুর হানাদার মুক্ত দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।
 
তিনি আরও বলেন, মুক্তিযোদ্ধারা এ দেশের শ্রেষ্ঠ সন্তান। মুক্তিযোদ্ধাদের হাত ধরে এদেশ স্বাধীন হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর ডাকে মুক্তিযোদ্ধারা ঝাঁপিয়ে না পড়লে এ দেশকে আমরা হানাদার মুক্ত করতে পারতাম না। বাংলাদেশ স্বাধীন না হলে এখনো আমাদের দাসত্ব করতে হতো এবং আমরা কোথায় গিয়ে দাঁড়াতাম সেটা আমরা কল্পনাও করতে পারিনা।
 
এ সময় প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, এদেশের নতুন প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের গল্প বলতে হবে। বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বীরত্বগাঁথা নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে হবে। তাদের বোঝাতে হবে এত সহজে এ দেশ, এ স্বাধীনতা আমরা পাইনি। অনেক কষ্ট, অনেক ত্যাগ, অনেক কিছুর পর আমরা এ দেশ পেয়েছি। এ অনুধাবন যদি আমাদের মধ্যে থাকে তাহলে আমরা এদেশের স্বাধীনতাকে এত সহজে অন্য কারো হাতে হরণ করতে দেবো না।

তিনি বলেন, দেশ স্বাধীন হওয়ার সাড়ে তিন বছরের মাথায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে পরিবারের অধিকাংশ সদস্যসহ হত্যা করা হয়। তারপর যে স্বপ্ন নিয়ে দেশ স্বাধীন করা হয়েছিল তার বিপরীত দিকে দেশকে পরিচালনা করা হয়েছিল। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়ে আবার দেশের দখল নিয়েছিল মুক্তিযুদ্ধবিরোধী অপশক্তি। এ ধরনের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সার্বক্ষণিক সজাগ থাকতে হবে।

তিনি আরও বলেন, এ যুগেও আমাদের একেক জনের মুক্তিযোদ্ধা হিসাবে তৈরি হতে হবে। যে কোন পরিস্থিতিতে, যে কোন বাস্তবতায় দেশের শত্রুর বিপক্ষে যাতে শক্তভাবে আমরা দাঁড়াতে পারি, দেশের স্বাধীনতার পক্ষে, অগ্রগতির পক্ষে শক্তভাবে যাতে আমরা দাঁড়াতে পারি সে প্রত্যয় ও প্রতিজ্ঞা আমাদের মধ্যে থাকতে হবে।
 
তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার শক্তিশালী নেতৃত্ব না থাকলে অনেকের ষড়যন্ত্র-চক্রান্তে এ দেশের শান্তি বিনষ্ট হতো। তার কারণেই আমরা সকল ষড়যন্ত্র-চক্রান্ত মোকাবিলা করে দেশের শান্তি বজায় রাখতে পেরেছি।
 
মিরপুর শাহ আলী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আগা খান মিন্টুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সংসদ সদস্য মো. মাইনুল হোসেন খান নিখিল। এছাড়া বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

আরও খবর



বাংলাদেশের সঙ্গে সরাসরি বিমান চালু করতে চায় সুইজারল্যান্ড

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৪৬জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:ঢাকার সঙ্গে সরাসরি বিমান যোগাযোগ চালু করতে আগ্রহী সুইজারল্যান্ড। বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সচিবালয়ে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী মুহাম্মদ ফারুক খানের সঙ্গে সাক্ষাৎকালে এ আগ্রহ প্রকাশ করেন ঢাকায় নিযুক্ত দেশটির রাষ্ট্রদূত রেতো রেংগলি।

মন্ত্রী সুইজারল্যান্ডের আগ্রহকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, আমরা আশা করছি আগামী দুই মাসের মধ্যে বাংলাদেশ এবং সুইজারল্যান্ডের মাঝে এয়ার সার্ভিস এগ্রিমেন্ট স্বাক্ষরিত হবে। এরপর আমরা দুই দেশের মধ্যে সরাসরি বিমান পরিচালনার বিষয়টি বিবেচনা করব।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের অবস্থান আন্তর্জাতিক বিমান চলাচল রুটের মধ্যে হওয়ায় আমরা এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে বাংলাদেশকে একটি অন্যতম প্রধান এভিয়েশন হাবে রূপান্তরের জন্য কাজ করছি।

মুহাম্মদ ফারুক খান আরও বলেন, হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের থার্ড টার্মিনাল, কক্সবাজার বিমানবন্দরের রানওয়ে সম্প্রসারণ ও নতুন টার্মিনাল নির্মাণসহ দেশের সব বিমানবন্দরের এভিয়েশন অবকাঠামোর উন্নয়ন কাজ চলছে। আমরা আশা করছি, আগামী অক্টোবরে থার্ড টার্মিনাল চালু হওয়ার পর আকাশপথের বিদ্যমান যাত্রী সংখ্যা ও কার্গোর পরিমাণ কয়েক বছরের মধ্যেই দ্বিগুণ হবে।

পর্যটনমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের পর্যটনের অপার সম্ভাবনাকে বাস্তবে রূপ দিতে কাজ করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে পর্যটন মহাপরিকল্পনা চূড়ান্ত করা হয়েছে। এ বছরেই তার বাস্তবায়ন শুরু হবে।

তিনি বলেন, আমরা বিদেশি পর্যটকদের জন্য কক্সবাজারসহ দেশের আরও বেশ কিছু জায়গায় নিবিড় পর্যটন অঞ্চল তৈরি করছি। সেখানে সুইজারল্যান্ড বিনিয়োগ করলে আমরা তাদের সকল সুযোগ-সুবিধা দেব। পাশাপাশি আমরা ভিসা সহজীকরণ ও ই-ভিসা চালু করা নিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গেও কাজ করছি।

সাক্ষাৎকালে বাংলাদেশে নিযুক্ত সুইজারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত বলেন, এয়ার সার্ভিস এগ্রিমেন্ট নিয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করাটা ছিল আমাদের জন্য আনন্দের। বাংলাদেশ টিম নেগোসিয়েশনে প্রশংসনীয় দক্ষতা দেখিয়েছে। তাদের দক্ষতা ও সহযোগিতার জন্য সুইজারল্যান্ডের সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ তাদের ধন্যবাদ জানিয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আমরা আশা করছি বাংলাদেশকে এভিয়েশন হাবে রূপান্তরের যে কাজ চলছে তা দ্রুত বাস্তবায়ন হবে। আমরা বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পে বিনিয়োগের জন্য সুইজারল্যান্ডের বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে কথা বলব।


আরও খবর



যশোরে পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্সের মাসিক সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:শুক্রবার ০২ ফেব্রুয়ারী 2০২4 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১৩০জন দেখেছেন

Image
এস এম শফিকুল ইসলাম জয়পুরহাট প্রতিনিধি ঃপপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের যশোর অঞ্চলের উন্নয়ন কর্মকর্তাদের নিয়ে মাসিক সমন্বয় অনুষ্ঠিত হয়েছে।শুক্রবার  (২ ফেব্রুয়ারি ) সকালে যশোরে কোম্পানীর নিজস্ব ভবনের সেমিনার  কক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। 


পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক বি এম শওকত আলীর সভাপতিত্বে মাসিক  সমন্বয়  সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও, বাংলাদেশ ইনস্যুরেন্স ফোরামের প্রেসিডেন্ট ও বাংলাদেশ ইনস্যুরেন্স অ্যাসোসিয়েশনের কার্য নির্বাহী সদস্য  বি এম ইউসুফ আলী। 

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন , একক বীমা প্রকল্পের  উর্দ্ধতন  উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক (ব্রাঞ্চ কন্ট্রোল) সৈয়দ মোতাহার হোসেন,  জনপ্রিয় বীমা প্রকল্পের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক কামাল হোসেন মহসিন, ইসলামী ডিপিএস প্রকল্পের উপ- ব্যবস্থাপনা পরিচালক খলিলুর রহমান সিকদার।

এ সময়ে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, আল বারাকাহ ইসলামী ডিপিএস প্রকল্পের উর্দ্ধতন নির্বাহী পরিচালক ও প্রকল্প  পরিচালক সেলিম মিয়া, জনপ্রিয় একক বীমা প্রকল্পের  উর্দ্ধতন নির্বাহী পরিচালক ও প্রকল্প  পরিচালক জাহাঙ্গীর হোসেন, পপুলার ডিপিএস প্রকল্পের নির্বাহী পরিচালক ও প্রকল্প পরিচালক আবু মুঈদ শাহীন, আল বারাকাহ ইসলামী বীমা প্রকল্পের  নির্বাহী পরিচালক ও প্রকল্প পরিচালক মাহবুবুর রহমান।


আরও খবর



হিলিতে লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়েছে সরিষা চাষাবাদের

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১৮৩জন দেখেছেন

Image

মাসুদুল হক রুবেল,হিলি (দিনাজপুর) প্রতিনিধি:দিনাজপুরের হাকিমপুরে হিলিতে সরিষার চাষবাদ বেড়েছে। আমন ধান কাটাই-মাড়াইয়ের পর ৩ মাস ধরে ফেলে না রেখে বাড়তি আয় করতে একই জমিতে সরিষা চাষে ঝুঁকছেন হাকিমপুর হিলি উপজেলার কৃষকেরা। কৃষকদের সরিষা চাষে উৎসাহিত করতে বিনামূল্যে সার ও বীজ দেওয়া হচ্ছে বলে জানান উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা।

প্রকৃতি সেজেছে হলুদ সাজে,মাঠে মাঠে হলুদের সমারোহ,প্রাণ জুড়িয়ে যাচ্ছে প্রকৃতি প্রেমিদের। মাঠে-ঘাটে, গ্রাম-গঞ্জে আর রাস্তায় সরিষার ফুলের সুভাষ ছড়াচ্ছে, মুগ্ধ হচ্ছে পথচারীরা। দেশে ভোজ্য তেলের চাহিদা তুলুনায় উৎপাদন কম। এসব ভোজ্য তেলে আমদানি করতে হয় বেশি ভাগ বাহির দেশের থেকে। আমদানিকৃত তেলের মুল্য বৃদ্ধি দিন দিন বেড়েই চলছে। তেলের দাম স্বাভাবিক রাখতে এবং চাহিদা মেটাতে সরিষার চাষ বৃদ্ধি করেছে সরিষা চাষিরা। এক বিঘা জমিতে সরিষা চাষ করতে কৃষকের খচর হয় তিন হাজার থেকে চার হাজার টাকা। প্রতি বিঘায় কৃষকরা সরিষা উৎপাদন করে থাকে ৬ থেকে ৭ মণ। সরিষা চাষের উপযোগী আবাওহায়া ভালো থাকায় ভালো ফলনের আশা করছেন ইে উপজেলার কৃষকেরা। গত বছরের তুলনায় এই বার উপজেলায় ৮০ হেক্টর জমিতে সরিষার আবাদ বেশি হয়েছে।

উপজেলার জালালপুর গ্রামের কৃষক আনছার হাজী বলেন,আমি আমন ধান কাটার পর অনেক পরিশ্রম করে জমি তৈরি করে সরিষা বীজ বোপন করেছি। বীজ লাগানোর ৫৫ থেকে ৬০ দিনের মাথায় সরিষা ফলন ঘরে আসে। ১ বিঘা জমিতে সরিষা চাষ করতে খরচ হয় প্রায় ৩ থেকে ৪ হাজার টাকা। প্রতি বিঘায় ৪ থেকে ৫ মণ ফলন হয় সরিষার, যা বর্তমান বাজারে বিক্রি হবে ৯ থেকে ১০ হাজার টাকা।

উপজেলার সিংড়া পাড়া গ্রামের সরিষা চাষি আবু বক্কর বলেন, আমন ধান কাটার পর জমিগুলো পড়ে থাকে তাই প্রতি বছর আমার জমিগুলোতে সরিষা চাষ করে থাকি। এবারও সরিষা চাষ করেছি। গাছ অনেক ভালো হয়েছে আশা করছি ফলনও অনেক ভালো হবে।তিনি আরো বলেন,জমিতে সরিষা চাষের সময় সার প্রয়োগ করলে বোরো রোপনের জন্য আলাদাভাবে তেমন সার দিতে হয় না এটা আমাদের অনেক উপকারে আসে।

হাকিমপুর উপজেলা কৃষি অফিসার আরজেনা বেগম জানান,উপজেলার কৃষকদের সরিষা চাষে উৎসাহিত করতে বিনামূল্যে সার ও বীজ দেওয়া হচ্ছে। এছাড়াও অন্য ফসলের তুলনায় স্বল্প সময়ে লাভজনক হওয়ায় কৃষকেরা দিন দিন সরিষা চাষের দিকে ঝুঁকছেন।উপজেলায় মোট ৩২শ জন কৃষককে বিনামূল্যে সরিষার বীজ ও সার প্রদান করা হয়েছে।হাকিমপুর উপজেলা ২৯ শ ৫৫ হেক্টর জমিতে সরিষা চাষের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল। কিন্ত আমরা ৩ হাজার ৩৫ হেক্টর জমিতে সরিষা আবাদ করতে সক্ষম হয়েছি। গত বছরের তুলুনায় এবছরে ৮০ হেক্টর জমিতে সরিষা চাষাবাদ বেশি হয়েছে। যা লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়েছে এ উপজেলায়।


আরও খবর

গাংনীতে বালাইনাশক ব্যবহারে উদাসিন কৃষকরা

শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪